সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন বুলবুল (১৩-১১-২০০৮ ০০:৩৪)

টপিকঃ হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

মদীনা সনদ প্রকৃত প্রস্তাবে যা ছিলো পৃথিবীর লিখিত প্রথম সংবিধান। সেই প্রথম ইসলামী কল্যাণমূলক রাষ্ট্রটির প্রশাসনিক কার্যাবলী সম্পাদনের জন্য সুসংগঠিত সচিবালয় ছিলো তার একটি সংক্ষিপ্ত চিত্র তুলে ধরছি।

রাষ্ট্রপ্রধানের দ্প্তর
১. নবীজী (স.) এর ব্যক্তিগত সচিব : হযরত হানযালা ইবনে আলরবি
২. পত্রলিখন ও অনুবাদ বিভাগ (সচিব) : হযরত আলী (রা.), হযরত মুয়াবিয়া (রা.) ও হযরত জায়েদ ইবনে সাবিত (রা.)
৩. সচিব : হযরত আনাস ইবনে মালিক (রা.) ও হযরত শুরাহবিল ইবনে হাসান (রা.)
৪. সিলমোহরের আংটিটির সংরক্ষক : হযরত মুকরি ইবনে আবি ফাতিমা (রা.)
৫. অভ্যর্থনা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত : হযরত আনাস ইবনে মালিক (রা.) ও হযরত বারাহ (রা.)
৬. অর্থ ও হিসাব বিভাগ : হযরত মুয়ানকি ইবনে আবি ফাতিমা (রা.)
৭. জনস্বাস্থ্য বিভাগ : চিকিৎসক হারিস ইবনে সালাহ এবং আবিবার পুত্র
৮. শিক্ষা বিভাগ (স্বাক্ষরজ্ঞান) : হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে সাইদ (রা) ও আয়েশা সিদ্দিকা (রা.)
৯. যাকাত ও সদ্কা বিভাগ : হযরত যোবায়ের ইবনে আওয়াম ও যুহাইর
১০. বিজয়ের পর মক্কার প্রশাসক ছিলেন : হযরত ইত্তাব ইবনে উসাইদ (রা.)
১১. ইয়েমেনের দায়িত্বে ছিলেন : হযরত মুয়াজ ইবনে জাবাল (রা.)
১২. আম্মানের দায়িত্বে ছিলেন : হযরত আমর ইবনে আজ (রা.)
১৩. ওহি বিভাগ : হযরত আবু বকর এবং ওসমান (রা.) সহ চার খলিফা সবাই এবং হযরত জায়েদ ইবনে আজ সাবিত (রা.), উবায় বিন কাব (রা.), মুয়াবিয়া (রা.), খালেদ বিন ওয়ালিদ (রা.), মুগিরা ইবনে শুবা (রা.) এবং আব্দুল্লাহ ইবনে রাওয়াসহ দশজন মেধাবী-উচু মর্যাদার সাহাবী
১৪. প্রতিরক্ষা বিভাগ : নবীজী (স.) নিজে ছিলেন তবে অধিনায়ক হিসেবে ৭২টি নিয়োগদান করেছিলেন
১৫. জননিরাপত্তা বিভাগ : হযরত কায়েস ইবনে সায়াদ (রা.)
১৬. বিচারপতি হিসেবে : হযরত ওমর ও হযরত আলী (রা.) সহ আটজন মশহুর বিদগ্ধ সাহাবী।
অন্যান্য তথ্য : স্বয়ং নবীজী (স.) নিজ দায়িত্বে দুবার আদম শুমারী করিয়েছিলেন। মদীনা রাষ্ট্রের নাগরিকদের নাম রেজিস্টার বহিতে লিপিবদ্ধ ছিল

সূত্র : গভর্নমেন্ট আন্ডার দ্যা প্রফেট, ফুতহুল বুলদান, সিরাতে ইবনে হিশাম।

আনিসুর রহমান বুলবুল
রক্তের গ্রুপ : এবি+ (পজিটিভ), রাশি : ধনু

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

অজানা তথ্য জানানোর জন্য ধন্যবাদ।

আমি মানুষটা বড় বেশি রংছুট,চাঁদের ঘরে কড়া নেড়ে, চাঁদকে করি লুট

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

কোথা থেকে পেলেন?

তোমাকে ভালবাসি, তোমারই চরণে ঠাঁই,
মা,
তোমার ভালবাসার কোন তুলনা নাই।

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

অজানা তথ্য কোথা থেকে পেলেন? thinkingthinking:-?:-?:-?

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

চমৎকার সব তথ্য..........তার পুরো মুসলিম বিশ্ব চালাতে এই কয়জনই যথেষ্ট ছিল, আর এদেশের জন্য ৫০ জন মন্ত্রী থাকে কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়না।

টিপসই দিবার চাই....স্বাক্ষর দিতে পারিনা......

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

তপু লিখেছেন:

কোথা থেকে পেলেন?

শেষ পর্বে সব থাকবে।
প্লিজ.. ওয়েট।

আনিসুর রহমান বুলবুল
রক্তের গ্রুপ : এবি+ (পজিটিভ), রাশি : ধনু

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

সূত্র : গভর্নমেন্ট আন্ডার দ্যা প্রফেট, ফুতহুল বুলদান, সিরাতে ইবনে হিশাম।

বইগুলো কোথায় পাবো?

দারুন ভাই, দারুন !! সত্যিকারের অজানা বটে !!!
ধন্যবাদ দিয়ে ছোটো করবো না।

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

ধন্যবাদ দিয়ে ছোটো করবো না।

কেনো! একটু বড়তো করতে পারেন?

আনিসুর রহমান বুলবুল
রক্তের গ্রুপ : এবি+ (পজিটিভ), রাশি : ধনু

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

বুলবুল ভাই আসলেই সুন্দর তথ্য!!!! কে বা মানে এ গুলো তাই না ভাই?

১০

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

অসাধারন পোস্ট।

যে পথিক চলে না পথ নবীদের পথে,
পড়ে রয় সে বহুদুর মঞ্জিল হতে.......

১১

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

ধন্যবাদ ভাই।

আল্লাহ আপনি মহান

১২

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

ধন্যবাদ ।

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit

১৩

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য। অনেক অজানা তথ্য জানালেন।

Everything is Possible.
Something is little difficult, but not Impossible.

১৪

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

এগুলো কিছুইতো জানতাম না, ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য

ওয়েব হোস্টিং | রিসেলার হোস্টিং | অনলাইন রেডিও হোস্টিং
টেট্রাহোস্ট বাংলাদেশ - www.tetrahostbd.com

১৫

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

'মদিনা সনদ 'ছিল একটি রাজনৈতিক চুক্তি ইহুদি ও
অন্য কিছু গোত্রদের সাথে ।
তাদের সাথে সমতার ভিত্তিতেও তা হয়নি ,
রাষ্ট্র পরিচালনা ,সেনাদলে এবং অন্যত্র অ-মুসলিমদের
কোন স্থান ছিল না এবং গনিমতের মালের ভাগও তারা পেত না।
তাছাড়া ধর্মীয় ভাবের তাদের সাথে কোনমিল ছিলনা ।
চুক্তির অসমতার ফলে অচিরেই সে সব ভেঙ্গে যায় ,
অকার্য্যকর হয়ে পড়ে এবং ইসলামের ১৪০০ বছরের
ইতিহাসে এই সনদের দ্বিতীয় কোন জায়গায় ,
দ্বিতীয় কোন প্রয়োগ হয়নি , বা ব্যবহৃত হয়নি ।
,মদিনা সনদ ; মদিনাতেই থাকেনি ।
মক্কা বিজয়ের পর পরই কেন 'মদিনা সনদে'র
মত আরেক 'শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের সনদ' লিখিত হল না ?
উল্টে প্রথম কাজই হোল 'শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের' অপূর্ব
নিদর্শন বিভিন্ন ধর্মের ৩৬০ টি একত্রে বসবাসরত
মূর্তি সংহার করা ।বলা হলো মুসলিম হও নতুবা জিজিয়া
দিয়ে প্রাণ ভিক্ষা নাও ।
–‘হে মুমিনগন , ইহুদী ও খৃষ্টানদের বন্ধুরূপে গ্রহন করো না…
তোমাদের মধ্যে কেউ তাদের বন্ধুরূপে গ্রহন করলে
সেও তাদেরই একজন হবে ।‘ [৫:৫১]

১৬

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

আসলে জানার কোণ শেষ নেই। শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

"তুমি নির্মল কর, মঙ্গল কর মলিন মর্ম মুছায়ে। তব পূণ্য কিরন দিয়ে যাক মোর মোহ-কালিমা ঘুছায়ে, মলিন মর্ম মুছায়ে"।-রজনীকান্ত সেনের এই গানটি মনকে ক্ষণিকের জন্যে হলেও নিয়ে যায় সকল লোভ লালসার উর্দ্ধে এক আধ্যাতিক চেতনায়।

১৭

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

অপরিহরণী কি বলতে চাইলেন বুঝতে পারি নি। একটু ধারবাহিকতার অনুপস্থিতি যেন লক্ষ্য করছি।

কত কি শিখতে ইচ্ছা করে। এখনও শেখা হলো না কিছুই।

লেখাটি CC by-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৮

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। অনেক কিছু জানতে পারলাম ,

১৯

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

cslraju লিখেছেন:

অপরিহরণী কি বলতে চাইলেন বুঝতে পারি নি। একটু ধারবাহিকতার অনুপস্থিতি যেন লক্ষ্য করছি।

thinking সহমত......।

২০

Re: হযরত মুহাম্মদ (স.) এর সচিবালয়

অপরিহরণী লিখেছেন:

'মদিনা সনদ 'ছিল একটি রাজনৈতিক চুক্তি ইহুদি ও
অন্য কিছু গোত্রদের সাথে ।
তাদের সাথে সমতার ভিত্তিতেও তা হয়নি ,
রাষ্ট্র পরিচালনা ,সেনাদলে এবং অন্যত্র অ-মুসলিমদের
কোন স্থান ছিল না এবং গনিমতের মালের ভাগও তারা পেত না।
তাছাড়া ধর্মীয় ভাবের তাদের সাথে কোনমিল ছিলনা ।
চুক্তির অসমতার ফলে অচিরেই সে সব ভেঙ্গে যায় ,
অকার্য্যকর হয়ে পড়ে এবং ইসলামের ১৪০০ বছরের
ইতিহাসে এই সনদের দ্বিতীয় কোন জায়গায় ,
দ্বিতীয় কোন প্রয়োগ হয়নি , বা ব্যবহৃত হয়নি ।
,মদিনা সনদ ; মদিনাতেই থাকেনি ।
মক্কা বিজয়ের পর পরই কেন 'মদিনা সনদে'র
মত আরেক 'শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের সনদ' লিখিত হল না ?
উল্টে প্রথম কাজই হোল 'শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের' অপূর্ব
নিদর্শন বিভিন্ন ধর্মের ৩৬০ টি একত্রে বসবাসরত
মূর্তি সংহার করা ।বলা হলো মুসলিম হও নতুবা জিজিয়া
দিয়ে প্রাণ ভিক্ষা নাও ।
–‘হে মুমিনগন , ইহুদী ও খৃষ্টানদের বন্ধুরূপে গ্রহন করো না…
তোমাদের মধ্যে কেউ তাদের বন্ধুরূপে গ্রহন করলে
সেও তাদেরই একজন হবে ।‘ [৫:৫১]

আমার জানা মতে মদিনা চুক্তি কিন্তু আল্লাহ তায়লার আদেশেই হয়েছিল। যা তখন মুসলমানদের জন্য দরকার ছিল।

ঝামেলা'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত