সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আউল (২১-১১-২০২১ ২১:২৪)

টপিকঃ পুরুষ বিলুপ্ত সমাজ

জারজ ঘাতকরা বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে চাকায় হাসতে হাসতে পিষে মারলেও সকলেই নীরব, কিন্তু হাফ ভাড়া দিয়ে কি হবে জীবনই যদি না থাকে?  এক ছাত্রীকে শতাধিক নপুংসক যাত্রীদের সামনে ঘাতকরা ধর্ষণ করলেও সকলেই নিরবতা পালন করবে কারন - তাদের মা বোনকে এখনও কেউ ধর্ষণ করছে না - ১৯৭১ সালে পাক সেনারা মানুষ হত্যা করেছে মা বোনদের ধর্ষণ করেছে - অনেক বাঙালি পাক সেনাকের সয়হতা করেছে - এখন পাক সেনা নেই - আছে সড়কের পরিবহণ ঘাতক তারা তাদের মরযি মাফিক মানুষ হত্যা করছে - মা বোনদের ধর্ষণ করছে আর সকলেই নীরব


হাফ ভাড়া দেওয়ায় বেগম বদরুন্নেসা সরকারি কলেজের এক ছাত্রীকে বাসের  চালক এবং হেলপার প্রকাশ্যে ধর্ষণের হুমকি দিয়ে বাস থেকে নামিয়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা রবিবার ক্লাস বয়কট ও সড়ক অবরোধের ঘোষণা দিয়েছেন।

অভিযোগকারী ওই শিক্ষার্থী জানান, আমার বাসা শনিরআখড়ায়। সকাল ৮টার দিকে ক্যাম্পাসে রওনা হই ‘ঠিকানা’ পরিবহনের একটি বাসে। যাত্রাবাড়ী ফ্লাইওভার পার হওয়ার পর হেলপার (২৫) আমার কাছে ভাড়া চাইলে ২০ টাকার নোট দিই। বাকি ১০ টাকা ফেরত চাইলে আমাকে ৫ টাকা ফেরত দেয়। স্টুডেন্ট বলায় তিনি আরও ক্ষেপে যান। একপর্যায়ে গালাগাল শুরু করে।

তিনি আরও জানান, বাকি টাকা ফেরত চাইলে গাড়ির গতি কমিয়ে আমাকে নেমে যেতে বলেন চালক, হেলপার ও তার এক সহযোগী। প্রতিবাদ করলে বলে, ‘দিমু না কি করবি কর’ এরপর আমি উচ্চ গলায় (চিল্লানোর) পর সে বলে ‘গলা বড় করবি না ৫ টাকা নে নাহয় নাইমা যা’।

এ সময় বাসের আরও কয়েকজন যাত্রীর সঙ্গেও একই ব্যবহার করেন ওই বাসটির হেলপার। অনেক যাত্রী প্রতিবাদ করলেও পরে গালাগালির ভয়ে তারা থেমে যান।

ওই শিক্ষার্থী জানায়, আমি একাধিকবার টাকা চেয়েছি। ফেরত দেয়নি। কিছু সময় পর কলেজের কিছুটা দূরে আমাকে নামতে বাধ্য করেন। এরপর নামার সময় ৫ টাকা ফেরত দিয়ে ধর্ষণসহ শারীরিক হেনস্থার হুমকি দিয়ে ভাষায় প্রকাশযোগ্য নয় এমন মন্তব্য করেন।

বাসটি চলমান থাকায় তিনি প্রতিবাদ করতে পারেননি এবং ওই বাসের নম্বরও নোট করার সুযোগ পাননি।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের (গ্রুপে) নিন্দার ঝড় বইছে। আগামীকাল বকশি বাজার মোড় অবরোধ করার ঘোষণা দিয়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

বদরুন্নেসা সরকারি কলেজের আরেক শিক্ষার্থী জানায়, প্রতিদিন বাসের এমন ভোগান্তিতে পোহাতে হয় আমাদের। স্টুডেন্ট দেখলে আগে বাসে তুললেও এখন তুলতে চায় না। তুললেও ভাড়া বেশি দিতে হয়। আমরা যদি এখন কিছু না বলি সামনে আরো প্রবলেম এ পড়তে হবে।

এদিকে রবিবার সকাল ৯টায় সড়ক অবরোধের ঘোষণা দিয়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তারা জানায়, আগামীকাল সকালে কেউ ক্লাসে যাবে না। বকশি বাজার মোড় অবরোধ করা হবে।

এ সময় কিছু দাবিও উপস্থাপন করেছে তারা- স্টুডেন্টদের বাসে হাফ পাশ নিশ্চিত করতে হবে, স্টুডেন্টদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করা যাবে না, কলেজের সামনে সুন্দর মতো গাড়ি থামাতে হবে, স্টুডেন্টদের সম্মান সহকারে বাসে ওঠাতে হবে প্রভৃতি।

এ ছাড়া দাবি না মানলে রাস্তা অবরোধ করে কোনো বাস আগামীকাল যেতে দেওয়া হবে না বলেও জানায় তারা।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, প্রতিদিন অনেক শিক্ষার্থী বাসে চলাচল করলেও তাদের থেকে হাফ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে না। উল্টো বাসচালক ও হেলপাররা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন।

https://bangla.dhakatribune.com/banglad … 5%E0%A6%BF

"We want Justice for Adnan Tasin"