টপিকঃ বাংলা নাম : রাণীচূড়া

https://i.imgur.com/hAkjPtHh.jpg

খুব বেশী দিন হয়নি রাণীচূড়া বাংলাদেশে এসেছে, বেশী হলে দুই দশক। তবে এই অল্প সময়েই সে অতি চমৎকার একটি বাংলা নাম পেয়ে গেছে “রাণীচূড়া”।

বাংলা নাম : রাণীচূড়া
Common Name : Desert Cassia, Desert Senna
Scientific Name : Senna polyphylla

https://i.imgur.com/n9I88gGh.jpg

রাণীচূড়া ক্ষুদ্র আকারের ঝোপাল ধরনের গাছ। যদিও এই চিরসবুজ গাছটি প্রায় ১২ ফুট পর্যন্ত উঁচু হতে পারে। তবে একে সব সময় ছেঁটেই রাখা হয়। ছোট ছোট ডালপালা সহ ঝোপাল এই গাছে প্রায় সারা বছরই ঝির ঝির ছোট চকচকে নতুন পাতা গজায়। এর পাতা দেখতে অনেকটা তেঁতুলের পাতার মতো। সারা বছর যেমন নতুন পাতা গজায়, তেমনি রৌদ্রোজ্জ্বল জায়গায় প্রায় সারা বছরই ফুল থাকে গাছে। তবে বর্ষাকালে সবচেয়ে বেশি ফুল ফোটে।

https://i.imgur.com/oClwP8Ch.jpg

রাণীচূড়া গ্রীষ্মমন্ডলীয় উদ্ভিদ বলে প্রচন্ড কষ্ট সহিংসুক গাছ এটি। অনুপুযুক্ত পরিবেশেও এটি বেড়ে উঠতে পারে, এমনকি খরা পরিবেশেও সে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারে বলেই এর ইংরেজি নাম রাখা হয়েছে Desert Cassia.   কোন রকম যত্ন ছাড়াই সে বেঁচে থাকে এবং অসংখ্য হলুদ সোনালি রঙের ফুল ফুটিয়ে সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। হলুদ ফুলগুলি দুরন্ত প্রজাপতিদের আকর্ষণ করে খুব।

https://i.imgur.com/EGLU14Lh.jpg

রাণীচূড়া গাছে সাধারণত কোনও কীটপতঙ্গ আক্রমণ করে না বা গাছের তেমন কোনো রোগ বালাই দেখা যায় না। ফলে বাগানে এই গাছ রোপন করলে এর জন্য আলাদা কোনো কিটনাশ দিতে হয় না এবং কোনো অতিরিক্ত যত্ন নিতে হয় না। আপনার অবহেলাকে উপেক্ষা করেই সে উজ্জ্বল হলুদ ফুল ফুটিয়ে যাবে সারা বছর।


https://i.imgur.com/RhNegJMh.jpg


ফুল দুই থেকে পাঁচ সেন্টিমিটার চওড়া হতে পারে। পাপড়ি সংখ্যা পাঁচটি। ফল চ্যাপ্টা, দেখতে অনেকটা শিমের মতো, তবে বেশ পাতলা। আলঙ্করিক বৃক্ষ হিসেবে পথের ধারে বা বাগানে বেশ মানানসই।

https://i.imgur.com/jBS8bmOh.jpg



https://i.imgur.com/zaRmt22h.jpg


ছবি তোলার স্থান : হাতিরঝিল, ঢাকা, বাংলাদেশ।
ছবি তোলার তারিখ : ০৮/০৩/২০১৭ ইং এবং ১৪/০৩/২০১৭ ইং

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।