সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মরুভূমির জলদস্যু (০২-০৬-২০২১ ১১:৫৪)

টপিকঃ ওমেগা পয়েন্ট – হুমায়ূন আহমেদ (কাহিনী সংক্ষেপ)

বইয়ের নাম :     ওমেগা পয়েন্ট   
লেখক :     হুমায়ূন আহমেদ   
লেখার ধরন :     বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী   
প্রথম প্রকাশ :     জানুয়ারী ২০০৩   
প্রকাশক :     সময় প্রকাশন   
পৃষ্ঠা সংখ্যা :     ১১২ টি   

       
https://i.imgur.com/WtGgYa6.jpg       
       
সতর্কীকরণ : কাহিনী সংক্ষেপটি স্পয়লার দোষে দুষ্ট       
       
       
কাহিনী সংক্ষেপ :       
রফিক গ্রামের একটি স্কুলে অংকের টিচার। শেফাদের বাড়িতে জাইগির থাকে। সে বড় হয়েছে এতিম খানায়। আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে অতীতের কোন স্মৃতি তার নেই। মাঝে মাঝেই সে অদ্ভূত কিছু স্বপ্ন দেখে।

শেফা এবার মেট্রিক পরীক্ষা দিবে, পড়া লেখায় তার মন নেই। মনে মনে সে তার টিচার রফিককে প্রচন্ড ভালোবাসে। শেফা জানে তার বাবা খুবই রাগী মানুষ, রফিকের সাথে তার সম্পর্ক বা বিয়ে তার বাবা কিছুতেই মেনে নিবে না। তাই শেফা তার মাকে ধরে। এক মাত্র তার মা-ই পারবে তার বাবাকে রাজি করাতে।

অন্য দিকে স্বপ্ন দেখে ঘুম ভাঙ্গলে রফিক নিজেকে আবিস্কার করে খুবই আধুনিক কোনো ভবিষ্যতে। সেখানে সব কিছু পরিচালনা করে বিজ্ঞান কাউন্সিল। তত্বাবধায়নে আছে মানবিক আবেগ সম্পন্ন আধুনিক কিছু রোবট। সবদিকে নজর রাখছে মূল কম্পিউটার সিডিসি।  এখানে রফিক নিজেকে আবিস্কার করে রেফ হিসেবে। চার বছর ধরে তার মানুষিক চিকিৎসা হচ্ছে বিজ্ঞান কাউন্সিলের হাসপাতালে। রেফ মাঝে মাঝেই স্বপ্নে চলে যায় ভিন্ন এক সময়ে, সেখানে সে শেফার টিচার রফিক। কোনটা তার আসল জগৎ সেটাই বুঝে উঠতে পারে না রফিক।

এদিকে বিজ্ঞান কাউন্সিলের বিশেষ অধিবেশনে ঠিক করা হয় রেফকে ধ্বংস করে ফেলা হবে। কিন্তু তখনই দেখা যায় রেফ হাসপাতাল থেকে পালিয়ে গেছে। তখন ওমেগা পয়েন্টের লোকজন রেফের মস্তিষ্কের ভেতরে যোগাযোগ করে। ওমেগা পয়েন্ট হচ্ছে মানব জ্ঞানের সর্বোচ্চ পর্যায়। ওমেগা পয়েন্ট থেকেই পরিচালনা করা হয় একই সাথে অসংখ্য সংখ্যক পেরালাল বিশ্ব। ওমেগা পয়েন্টের লোকেরা রেফকে পথ দেখিয়ে নিয়ে যায় বিজ্ঞান কাউন্সিলের প্রধান এমরান টি এর বাড়িতে। সেখানে  গিয়ে ওমিক্রন গান দিয়ে এমরান টিকে লক করে ফেলে রেফ। এর ফলে রেফের কিছু হলে এমরান টিও মারা যাবেন।

অন্যদিকে শেফার মা পরিস্থিতি নিজের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে মেয়ের বিয়ে দিয়েদেন রফিকের সাথে। তখন ওমেগা পয়েন্টের লোকেরা রেফকে জানায় তাদের পরীক্ষা প্রায় সফল হয়ে গেছে। সেই সময় বিজ্ঞান কাউন্সিল গোপন অধিবেশন ডেকে এমরান টিকে বিজ্ঞান কাউন্সিল থেকে বাদ দেন আর রেফকে হত্যা করতে আদেশ দেন। তখন সিডিসি বিদ্রোহ করে বসে। সিডিসি রেফকে হত্যা করতে দেয় না।

সিডিসি এমরান টিকে জানায় তিনি সময় সমিকরণের কাজ অনেকটা করার পরে কাজ শেষ না করে চুপচাপ বসে আছেন বলেই এতো কিছু হচ্ছে। ওমেগা পয়েন্ট সময় সমিকরণের সমাধান চাচ্ছেন। রফিক আর শেফা হচ্ছে তার আদি পিতা মাতা। সেই আদি সময়ে রফিকের ডিএনএ সামান্য পরিবর্তন করে দিয়েছে ওমেগা পয়েন্ট। ফলে নতুন ভাবে নতুন সময়ে নতুন এমরান টি হয়তো সময় সমিকরণের সমাধান করবে।
       
----- সমাপ্ত -----       
       
       
=======================================================================       
       
আমার লেখা হুমায়ূন আহমেদের সমস্ত কাহিনী সংক্ষেপ সমূহ       
       
আমার লেখা অন্যান্য কাহিনী সংক্ষেপ সমূহ:       
ভয়ংকর সুন্দর (কাকাবাবু) - সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়       
মিশর রহস্য (কাকাবাবু) - সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়       
খালি জাহাজের রহস্য (কাকাবাবু) - সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়       
ভূপাল রহস্য (কাকাবাবু) - সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়       
পাহাড় চূড়ায় আতঙ্ক (কাকাবাবু) - সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়       
সবুজ দ্বীপের রাজা (কাকাবাবু) - সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়       
       
আট কুঠুরি নয় দরজা - সমরেশ মজুমদার       
তিতাস একটি নদীর নাম - অদ্বৈত মল্লবর্মণ       
       
ফার ফ্রম দ্য ম্যাডিং ক্রাউড - টমাজ হার্ডি       
কালো বিড়াল - খসরু চৌধুরী       
মর্নিং স্টার - হেনরি রাইডার হ্যাগার্ড       
ক্লিওপেট্রা - হেনরি রাইডার হ্যাগার্ড       
       
অ্যাম্পেয়ার অব দ্য মোঘল - ০১ : রাইডারস ফ্রম দ্য নর্থ (কাহিনী সংক্ষেপ) : পর্ব - ০১, পর্ব - ০২পর্ব - ০৩পর্ব - ০৪পর্ব - ০৫পর্ব - ০৬পর্ব - ০৭পর্ব - ০৮পর্ব - ০৯পর্ব - ১০       
অ্যাম্পেরার অব দ্য মোগল-২ : ব্রাদার্স অ্যাট ওয়ার - ০১       
অ্যাম্পেরার অব দ্য মোগল-২ : ব্রাদার্স অ্যাট ওয়ার - ০২       
অ্যাম্পেরার অব দ্য মোগল-২ : ব্রাদার্স অ্যাট ওয়ার - ০৩       
অ্যাম্পেরার অব দ্য মোগল-২ : ব্রাদার্স অ্যাট ওয়ার - ০৪

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।