সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আউল (০৬-০১-২০২০ ১৪:৪৪)

টপিকঃ এক বছরে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ছয়গুণ

কিছুদিন আগেও ৩০০ টাকায় পেঁয়াজ কেনার পর বাজারে নুতুন পেঁয়াজ আসায় ধীরে ধীরে কমছিল পেঁয়াজের দাম - হটাত আবার বাড়া শুরু হল - এবার কততে নিয়ে ঠেকাবে ?  ৫০০ নয় তো

https://www.dw.com/image/48579488_403.jpg


এক বছরে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ছয়গুণ
আবারো দাম বেড়েছে দেশি পেঁয়াজের৷ প্রতি কেজি পেয়াঁজ বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা দরে৷
ফলে গত এক বছরে পেয়াঁজের দাম বেড়েছে প্রায় ছয়গুণ৷ আর গত এক সপ্তাহে দাম বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ৷

টিসিবির তথ্য অনুযায়ী, গত মাসে পেঁয়াজের দাম ৫০ থেকে ১০০ টাকার মধ্যে নেমে এসেছিল৷ টিসিবি বলছে,  রবিবার (৫ জানুয়ারি) প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৬৫ থেকে ১৭০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে বাজারে৷

সরকারের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর এই দিনে বাংলাদেশে পেঁয়াজের কেজি ছিলো ২৫ থেকে ৩৫ টাকা৷ সেই হিসেবে পেঁয়াজের দাম গত এক বছরে গড়ে বেড়েছে ছয়গুণ৷

চলতি সপ্তাহের এ দাম বৃদ্ধির জন্য আবহাওয়াকে দায়ী করছে ব্যবসায়ীরা৷ গত কয়েকদিন ধরে বৃষ্টি হওয়ায় পেয়াঁজের সরবরাহ কমেছে আর তাই দাম বেড়েছে বলে দাবি তাদের৷

বাজারে এখন দেশি নতুন পেঁয়াজের  ভালোই আমদানি আছে৷ বিশেষ করে ফরিদপুর এবং কুষ্টিয়ার পেঁয়াজ এখনো বাজারে আসছে৷ এরপর ধারাবাহিকভাবে অন্য এলাকা থেকেও পেঁয়াজ আসবে৷

কলাবাগানের  দোকানদার আব্দুর  রহিম জানান, দেশি পেঁয়াজের কেজি ১২০ টাকায় নেমে এসেছিলো৷ কিন্তু গত চার-পাঁচ দিনে দেশি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে৷ সঙ্গে বেড়েছে আমদানি করা পেঁয়াজের দামও৷

আব্দুর  রহিম বলেন ‘‘আমরা গত কয়েকদিন ধরে পাইকারি বাজার থেকে দেশি পেঁয়াজ ১৮০ টাকা কেজি কিনে ২০০ টাকায় বিক্রি করছি৷ আর মিশরের পেঁয়াজ ১০০ টাকায় কিনে ১২০ টাকায় বিক্রি করি৷ তবে চায়না পোঁয়াজের দাম সবচেয়ে কম৷ কেজি ৫০ টাকায় কিনে ৭০-৮০ টাকা বিক্রি করি৷’’
তিনি জানান, ‘‘গত কয়েক দিন বৃষ্টির কারণে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে৷ দেশি পেঁয়াজের দাম বাড়ায় আমদানি করা পেঁয়াজের দামও বেড়েছে৷ এর আগে খুচরা বাজরে দেশি পেঁয়াজের দাম ১১০ থেকে ১২০ টাকায়  নেমে এসেছিল৷ তুরস্ক ও চীনের পেঁয়াজ ৭০ ও ৪০ টাকা কেজি বিক্রি হতো খুচরা বাজারে৷
ঢাকার শ্যামবাজারের আড়তদার আব্দুল মাজেদ দাবি করেন, ‘‘দুই দিনের বৃষ্টির কারণে দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ কমেছে৷ ফলে দাম বেড়ে গেছে৷ তবে আজ ( রবিবার) আবার পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমে এসেছে৷ প্রতি কেজি পেয়াঁজের পাইকারি মূল্য ১৬০ টাকা হয়েছিল৷ তবে আজকে আবার ১১০ টাকা হয়েছে৷ তিনি বলেন, ‘‘ফরিদপুর, কুষ্টিয়া ও ঈশ্বরদীর নতুন পেয়াজ প্রায় শেষ৷ আবার এক-দেড়মাস পর নতুন পেঁয়াজ আসবে৷’’

এখন দেশি পেঁয়াজ আসছে প্রধানত কুষ্টিয়া এবং ফরিদপুর থেকে৷ তবে তা শেষের দিকে৷ ওই এলাকা থেকে পাইকারি বিক্রেতারা কৃষকদের কাছ থেকে ১২০-১৪০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ কিনছেন৷ তবে বৃষ্টির কারণে পেঁয়াজের সরবরাহ কমেছে এমন কথা বলেননি সেখানকার পাইকারী ব্যবসায়ীরা৷ 

কুষ্টিয়ার মেসার্স ইসলামি ভান্ডারের বিল্লাল হোসেন বলেন, ‘‘দুই দিন বৃষ্টি হয়েছে সে কারণে পেঁয়াজের সরবরাহ কমেনি৷ শেষের দিকে হওয়ায় সরবরাহ কম৷ এখানে আবার এক-দেড় মাস পর নতুন পেঁয়াজ আসবে৷’’

একাধিক সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সী পেঁয়াজের বাজার নিয়ে ব্যাবসায়ীদের সাথে বৈঠক করেন৷ সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন৷ সেই বৈঠকে পেঁয়াজ সংকট নিয়ে কথা হয়৷ রামজানের বাজার মোকাবেলায় আমদানী এবং করনীয় নিয়েও আলোচনা হয়৷ এই আশংকার কথা সংবাদ মাধ্যমেও প্রকাশ পায়৷ যা ব্যবসায়ীদের ফের পেঁয়াজের দাম বাড়াতে ‘উৎসাহ' জুগিয়েছে বলে ধারণা করছে কেউ কেউ৷

বৈঠকে উপস্থিত ব্যবসায়ী আব্দুল মাজেদ বলেন, ‘‘তোফায়েল সাহেব অননেক কথাই বলেছেন৷ চাহিদার তুলনায় পেঁয়াজতো কম৷ তবে আশা করি সংকট হবেনা৷’’
উল্লেখ্য গত ২৮ অক্টোবর থেকে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় ভারত৷ তারপর থেকে দেশে পেঁয়াজ সংকট শুরু হয়৷ দেশি পেঁয়াজের প্রতি কেজি ২৮০-৩০০ টাকা পর্যন্ত ওঠে৷

এরপর অন্যান্য দেশ থেকে আমদানি এবং দেশি পেঁয়াজ বাজারে আসাতে থাকায় দাম কিছুটা কমতে থাকে৷ দেশি পেঁয়াজের দাম ১১০-১২০ টাকায় নেমে আসে৷





https://www.dw.com/bn/%E0%A6%8F%E0%A6%9 … 7-xml-mrss

"We want Justice for Adnan Tasin"

Re: এক বছরে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ছয়গুণ

আমাদের উচিত পেঁয়াজ খাওয়া কমিয়ে দেওয়া। অত দাম দিয়ে কি দরকার পেঁয়াজ খাওয়া? পেঁয়াজ কলি, পেঁয়াজ পাতা দিয়ে রান্না করলেই হয়। তাইলে বিক্রেতারা পেঁয়াজ কার কাছে বেঁচবে, তখন দাম কমাতে বাধ্য। dancing

গাই বাংলার জয়গান

Re: এক বছরে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ছয়গুণ

লেডিমাস্তান লিখেছেন:

আমাদের উচিত পেঁয়াজ খাওয়া কমিয়ে দেওয়া। অত দাম দিয়ে কি দরকার পেঁয়াজ খাওয়া? পেঁয়াজ কলি, পেঁয়াজ পাতা দিয়ে রান্না করলেই হয়। তাইলে বিক্রেতারা পেঁয়াজ কার কাছে বেঁচবে, তখন দাম কমাতে বাধ্য। dancing

সঠিক।

নামায সবার উপর ফরয করা হয়েছে