টপিকঃ জীবনে চলার পথে

জীবনে চলার পথে
লক্ষ্মণ ভাণ্ডারী

দুঃখে গড়া জীবন আমার জীবনে সুখ নাই,
ঠাকুর তব চরণ যুগল আমার সুখের ঠাঁই।
দুঃখ-সুখের তানপুরাতে বাজে মধুর সুর,
দীক্ষা নিয়ে জীবন শুরু মোর দৈন্য হল দূর।
   
তোমারে পেয়ে ধন্য হল আমার এ জীবন,
প্রভু তুমি জীবন স্বামী মোর অমূল্য রতন।
তব নাম স্মরণ করে ভাসুক এ জীবনতরী,
তোমায় আমি করবো পূজা সারাজীবন ধরি।

তোমার চরণ বক্ষে ধরি জীবন সার্থক হল,
অন্তিমেতে পাই যেন তব রাঙা চরণ-যুগল।
জীবনপথে চলতে গিয়ে বিপদে পড়লে কভু,
বিপদে রক্ষা করে মোরে হাতটি ধরো প্রভু।

পরম প্রেমময় পরম দয়াল তুমি অন্তর্যামী,
দীক্ষা নিয়ে তোমায় পেয়ে চিরসুখী আমি।