টপিকঃ আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

প্রাচীন স্থাপত্য দেখার আলাদাটা একটা আকর্ষণ আছে। আমি মাঝে মাঝেই সুযোগ হলে তাদের দেখতে বেরহই। প্রাচীন স্থাপত্য গুলির মধ্যে বাংলাদেশে মসজিদগুলি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই প্রাচীন মসজিদগুলি প্রমান করে কতটা আদিতে দেশেই ঐ অঞ্চলে ইসলামের প্রচার ও প্রসার ঘটেছিলো। এই প্রাচীন মসজিদগুলি আমাদের দেশের ইতিহাসেরই অংশ। আজ আমার দেখা ৫টি প্রচীন মসজিদের ছবি এখানে রইলো। প্রতি পর্বেই আমার দেখা ও ছবি তোলা ৫টি করে প্রাচীন মসজিদের ছবি ও সামান্য তথ্য উপস্থাপন করবো।




৬। : বজরা শাহী মসজিদ
https://i.imgur.com/FrxP6Gjh.jpg
অবস্থান : নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ী উপজেলার বজরা ইউনিয়ন
জিপিএস কোঅর্ডিনেশন : 23°00'14.5"N 91°05'34.8"E
নির্মাতা : জমিদার আমানউল্যাহ এবং পরবর্তীতে আলী আহাং এবং সুজির উদ্দিন চীনা মাটির পাত্রের টুকরা ও গ্লাস দ্বারা মসজিদের শোভাবর্ধন করেন।
নির্মাণকাল : মোগল সম্রাট মুহাম্মদ শাহের আমলে ১৭৩২ সালে নির্মিত হয়। মসজিদ তৈরির ১৭৭ বছর পর ১৯০৯ সালে একবার মেরামত করা হয়।
ছবি : নিজ
ছবি তোলার তারিখ : ১৮/০৮/২০১৭ ইং
পথের হদিস : নোয়াখালী জেলার মাইজদী হতে সোনাইমুড়ী গামী যেকোন লোকাল বাস সার্ভিস/ সিএনজি অটোরিক্সাযোগে বজরা হাসপাতালের সম্মুখে নেমে রিক্সা বা পায়ে হেঁটে ২০০ গজ পশ্চিমে গেলে বজরা শাহী মসজিদে পৌঁছা যাবে।



৭। : চুনাখোলা মসজিদ
https://i.imgur.com/Yi7kcl9h.jpg
অবস্থান : চুনাখোলা গ্রাম, বাগেরহাট।
জিপিএস কোঅর্ডিনেশন : 22°40'42.8"N 89°43'55.8"E
নির্মাতা : স্থানীয় জনশ্রুতি মতে, মসজিদটি খান জাহানের কোনো কর্মচারী নির্মাণ করেছিলেন। ইটের দেয়ালসমূহ নষ্ট হয়ে যাওয়ার পরে ১৯৮০ সালে ইউনেস্কোর সহায়তায় সংস্কার করা হয়।
নির্মাণকাল : চুনখোলা মসজিদটি ১৫ শতকে নির্মিত।
ছবি তোলার তারিখ : ২৪/১১/২০১৪ ইং
ছবি : নিজ
পথের হদিস : ঢাকা থেকে সরাসরি বাগেরহাটে বাস যায়। ভাড়া নন এসি ৪৫০ টাকার মত। বাসের হেলপারকে বলে রাখলে ষাট গম্বুজ মসজিদের সামনে নামিয়ে দিবে। সেখান থেকে ইজিবাইক নিয়ে অনায়াসেই চলে যাওয়া যায় চুনাখোলা মসজিদ।




৮। : আবদুল হামিদ জামে মসজিদ
https://i.imgur.com/oRgmPRVh.jpg
অবস্থান : গোয়ালদি, সোনারগাঁ।
জিপিএস কোঅর্ডিনেশন : 23°39'24.9"N 90°35'36.8"E
নির্মাতা : জনৈক আবদুল হামিদ শাহ কর্তৃক মসজিদটি নির্মিত হয়।
নির্মাণকাল : শিলালিপির সাক্ষ্য মতে ১৭০৫ খ্রিস্টাব্দে (১১১৬ হি.) এটি নির্মাণ করা হয়।
ছবি:নিজ
ছবি তোলার তারিখ : ২৮/১০/২০১৬ ইং
পথের হদিস : ঢাকা থেকে প্রথমে যেতে পারেন বাসে মোগড়াপাড়া। সেখান থেকে অটোরিকসায় সোনারগাঁও হয়ে গোয়ালদি গ্রামের গোয়ালদি মসজিদের সামনে। তাছাড়া সায়দাবাদ থেকে সরাসরি বাস যায় পানাম নগরে। সেখান থেকে রিকসা করে চলে যাওয়া যাবে গোয়ালদি মসজিদ। গোয়ালদি মসজিদের কাছেই আবদুল হামিদ জামে মসজিদ।




৯। : পুরান বাজার জামে মসজিদ
https://i.imgur.com/OEZPT10h.jpg
অবস্থান : পুরান বাজার, চাঁদপুর।
জিপিএস কোঅর্ডিনেশন : 23°13'36.4"N 90°38'25.8"E
নির্মাতা : আমার জানা নেই।
নির্মাণকাল : আমার জানা নেই।
ছবি:নিজ
ছবি তোলার তারিখ : ২৭/০১/২০১৭ ইং
পথের হদিস : ঢাকার সদরঘাট থেকে লঞ্চ বা সায়দাবাদ থেকে গাড়িতে চাঁদপুর। খেয়া পার হয়ে বা ঘুর পথে রিক্সায় পুরান বাজার জামে মসজিদ।




১০। : হাজীগঞ্জ বড় মসজিদ
https://i.imgur.com/YfvvqAWh.jpg
অবস্থান : হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।
জিপিএস কোঅর্ডিনেশন : 23°15'05.9"N 90°51'15.1"E
নির্মাতা : হাজী আহমদ আলী পাটোয়ারী।
নির্মাণকাল : মসজিদের প্রতিষ্ঠাকাল ১৩৩৭ বঙ্গাব্দ।
ছবি:নিজ
ছবি তোলার তারিখ : ২৭/০১/২০১৭ ইং
পথের হদিস : ঢাকা থেকেবাসে গেলে চাঁদপুরের বাস স্টেন্ডের আগেই হাজীগঞ্জ নামতে হবে। আর লঞ্চে গেলে লঞ্চ থেকে নেমে লোকাল বাস বা অন্য পরিবহনে আসতে হবে হাজীগঞ্জ বড় মসজিদে।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

চমৎকার স্থাপনা  smile

এক টুনিতে টুনটুনালো সাত রানির নাক কাঁটালো

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

RubaiyaNasreen(Mily) লিখেছেন:

চমৎকার স্থাপনা  smile

ধন্যবাদ।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

আপনার শেয়ার করা মসজিদ গুলো সত্যই অসাধারণ। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ভাই।

www.visa2malaysia.com provides assistance for Malaysia Tourist Visa, Malaysia Visa Online Apply, Malaysia eVisa and Malaysia eNTRI from India, Pakistan, Bangladesh, Sri Lanka and China.

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

visa2malaysia লিখেছেন:

আপনার শেয়ার করা মসজিদ গুলো সত্যই অসাধারণ। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ভাই।

স্বাগতম আপনাকে।
ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

আনেক সুন্দর ।

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

sudiptabiswas লিখেছেন:

আনেক সুন্দর ।

ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

১১ : অসমাপ্ত মসজিদ

https://i.imgur.com/ZB0dPB0h.jpg

GPS coordinates : 24°11'06.1"N 89°54'39.4"E
অসস্থান : আতিয়া মসজিদের কাছে, দেলদুয়ার, টাঙ্গাইল

ছবি তোলার তারিখ : ২৩/০৫/২০১৪ইং
পথের হদিস : ঢাকা > টাঙ্গাইল / দেলদুয়ার > আতিয়া মসজিদ > অসমাপ্ত মসজিদ।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

১২ : দেওয়ান বাড়ি মসজিদ
ভাগলপুর দেওয়ান বাড়ি মসজিদ

https://i.imgur.com/EGki7uwh.jpg

অবস্থান : ভাগলপুর, বাজিতপুর, কিশোরগঞ্জ।
GPS coordinates : 24°12'03.0"N 90°55'25.8"E

নির্মাতা : দেওয়ান গৌউস খান
নির্মাণকাল : ১১০৫ হিজরী সনে মসজিদটি প্রতিষ্ঠিত হয়।

আকার : মসজিদটি দৈর্ঘ্যে প্রায় ৪৬ ফুট এবং প্রস্থে প্রায় ৩০ ফুট। ২২ ফুট প্রশস্ত একটি বারান্দা রয়েছে।
গম্বুজ : মসজিদের ছাদে এক সারিতে ৩ টি গম্বুজ রয়েছে। মাঝের গম্বুজটি পাশের দুটির তুলনা সামান্য বড়।
মিনার : মসজিদের ৪ কোণে ৪ টি বড় কোণিক মিনার রয়েছে।
মেহরাব : পশ্চিম দেয়ালে ৩ টি মেহরাব রয়েছে।
কারুকাজ : মোঘল ও সেন বংশীয় স্থাপত্যের স্পষ্ট নিদর্শন রয়েছে।

প্রবেশ পথ : মসজিদের মোট ৫ টি দরজা রয়েছে। যাদের মধ্যে মসজিদের পূর্বের দেয়ালে ৩ টি, উত্তর দেয়ালে ১ টি ও দক্ষিণের দেয়ালে ১ টি দরজা রয়েছে। সেই সাথে ২টি জানালাও আছে।

অন্যান্য তথ্য : দেওয়ান গৌউস খান মোঘল আমলে এখানকার গভর্ণর ছিলেন। বৃটিশ আমলে ভূমিকম্পে মসজিদটির ব্যাপক ক্ষতি হয়ে ছিলো। পরবর্তীতে এটিকে পুনঃ সংস্কার কর হয়। মসজিদে আরবী ও ফার্সী ভাষায় ২ টি শিলালিপি রয়েছে। মসজিদটি এখনও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের আওতায় আসেনি।

ছবি তোলার তারিখ : ২৪/০২/২০১৭ ইং

পথের হদিস : ঢাকার মহাখালি বা সায়েদাবাদ থেকে বাসে বাজিতপুর। বাজিদপুর থেকে প্রায় ৪ কিলমিটার দূরে ভাগলপুরে যেতে পারেন লোকাল যানবাহনে।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মরুভূমির জলদস্যু (১৬-১২-২০১৯ ২৩:১৯)

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

০১৩ : বন্দর শাহী মসজিদ

https://i.imgur.com/9FdImP0h.jpg

অবস্থান : বন্দর, নারায়ণগঞ্জ।
GPS coordinates : 23°36'45.9"N 90°31'00.7"E

নির্মাতা : মালিক আল-মুয়াজ্জম বাবা সালেহ
নির্মাণকাল : ১৪৮২ খ্রিস্টাব্দ (৮৮৬ হিজরি)

আকার : বর্গাকার এ মসজিদের পরিমাপ অভ্যন্তরভাগে ৬.২০ মিটার এবং বহির্ভাগে ৯.৭০ মিটার।
গম্বুজ : ছাদে রয়েছে একটি বৃহৎ গম্বুজ।
মিনার : চার কোণে রয়েছে অষ্টভুজাকৃতি চারটি মিনার।
মেহরাব : মসজিদটিতে তিনটি অর্ধবৃত্তাকার মিহরাব আছে। এদের মধ্যবর্তীটি সবচেয়ে বড়।
কারুকাজ : গম্বুজের গোড়ার দিকে চারপাশ ঘিরে রয়েছে পদ্মফুল ও কলসের নকশা-বেষ্টনী।

প্রবেশ পথ : মসজিদের পূর্বদিকের তিনটি প্রবেশপথের মধ্যবর্তীটি প্রশস্ততর এবং এটির উচ্চতা ২.২০ মিটার ও চওড়া ১.৩৭ মিটার। দক্ষিণ ও উত্তর দিকে অপর দুটি প্রবেশপথ ২ মিটার উঁচু ও ১ মিটার প্রশস্ত। পার্শ্বের প্রবেশপথগুলো সম্মুখের মধ্যবর্তী প্রবেশপথের সমান আকৃতির।

অন্যান্য তথ্য : মসজিদটি পুনর্নির্মিত হয়েছে এবং পূর্ব, দক্ষিণ ও উত্তর দিকে বারান্দা সংযোজন করে এর পরিধি বাড়ানো হয়েছে। এর দুই দিকে এমন ভাবে নতুন দালান করা হয়েছে যে পুরনো মসজিদটি আর দেখাই যায় না।

ছবি তোলার তারিখ : ২৪/০২/২০১৭ ইং

পথের হদিস : পথের হদিস : ঢাকা থেকে বাসে মদনপুর, মদনপুর থেকে শেয়ার সিএনজি বা ইজি বাইকে নবীগঞ্জ। নবীগঞ্জ থেকে রিকসায় “বন্দর শাহী মসজিদ”। তাছাড়া বাস বা ট্রেনে নারায়ণগঞ্জ গিয়ে নৌকায় নদী পার হয়ে রিকসা নিয়ে চলে আসা যায় “বন্দর শাহী মসজিদ”।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১১

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

০১৪ : শাহ মাহমুদ মসজিদ

https://i.imgur.com/uDgMscph.jpg

অবস্থান : কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার এগারসিন্দুর গ্রামে।
GPS coordinates : 24°15'41.0"N 90°39'49.8"E
নির্মাতা : শেখ মাহমুদ
নির্মাণকাল : ১৬৮০ সালে

আকার : বর্গাকৃতি এই মসজিদের প্রতিটি বাহুর দৈর্ঘ্য ৩২ ফুট।
গম্বুজ : ছাদে রয়েছে একটি বৃহৎ গম্বুজ।
মিনার : চার কোণায় আট কোণাকৃতির বুরুজ রয়েছে।
কারুকাজ : মোঘল স্থাপত্যরীতি নির্মিত এই মসজিদের ভিতর ও বাইরের রয়েছে পোড়ামাটির চিত্রফলক

প্রবেশ পথ : মসজিদের পূর্বের দেয়ালে ৩টি দরজা। তবে মসজিদ প্রাঙ্গনে প্রবেশের মূল দরজাটি ছনের কুটীরের ন্যায় অত্যন্ত আকর্ষণীয় একটি পাকা দোচালা ভবন মধ্য দিয়ে তৈরি করা হয়েছে।

অন্যান্য তথ্য : মসজিদটির নির্মাতা বণিক শেখ মাহমুদ এবং তার নামেই মসজিদটির পরিচিতি। কিন্তু ইউনেস্কো থেকে প্রকাশিত মুসলিম স্থ্যাপত্যের ক্যাটালগে একে "শাহ মোহাম্মদ মসজিদ" হিসাবে নির্দেশ করা হয়েছে। মসজিদের চার কোণায় চারটি মূল্যবান প্রস্তর ফলক ছিল যা চুরি হয়ে গেছে।

ছবি তোলার তারিখ : ০৮/১০/২০১৮ ইং

পথের হদিস : ঢাকা থেকে প্রথমে আপনাকে চলে যেতে হবে টোকের থানার ঘাট বাস স্টপ। সেখান থেকে রিকসা বা হেঁটেই চলে যেতে পারেন।

তথ্য সূত্র : উইকি

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১২

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

চমৎকার

নামায সবার উপর ফরয করা হয়েছে

১৩

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

খাইরুল লিখেছেন:

চমৎকার

শুকরিয়া

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১৪

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

০১৫ : সাদী মসজিদ

https://i.imgur.com/MW4EapXh.jpg

অবস্থান : কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার এগারসিন্দুর গ্রামে।
GPS coordinates : 24°15'44.9"N 90°39'34.8"E

নির্মাতা : শাইখ সাদী।
নির্মাণকাল : মুঘল সম্রাট শাহজাহানের শাসনামলে ১৬৫১ সালে মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছিল।

আকার : বর্গকার এই মসজিদের প্রতিটি বাহুর দৈর্ঘ্য ২৫ ফুট।
গম্বুজ : মসজিদের ছাদে আছে বিশাল একটি গম্বুজ।
মিনার : চার কোণায় চারটি বুরুজ রয়েছে।
মেহরাব : পশ্চিম দেয়ালে ৩টি মিহরাব রয়েছে যার মধ্যে মাঝেরটি অপেক্ষাকৃত বড় আকৃতির।
কারুকাজ : প্রতিটি দেয়ালেই টেরাকোটার নকশা করা রয়েছে। প্রবেশপথ ও পুরো ইমারতের উপর রয়েছে পোড়ামাটির আস্তর যাতে বিভিন্ন নকশা বিদ্যমান রয়েছে।
প্রবেশ পথ : পুরো মসজিদটির দেয়ালে মোট ৫টি প্রবেশপথ রয়েছে যার মধ্যে পূর্বদেয়ালে ৩টি, উত্তর ও দক্ষিণ দেয়ালে ১টি করে। সবগুলো প্রবেশপথের আকার ধনুকের ন্যায়।

অন্যান্য তথ্য : সাদী মসজিদে সংযুক্ত একটি ফরাসি শিলালিপি রয়েছে।

ছবি তোলার তারিখ : ২৪/০২/২০১৭ ইং
পথের হদিস : ঢাকা থেকে প্রথমে আপনাকে চলে যেতে হবে টোকের "থানার ঘাট" বাস স্টপ। সেখান থেকে রিকসা বা হেঁটেই চলে যেতে পারেন।

তথ্য সূত্র : উইকি

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১৫

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

অসাধারণ

নামায সবার উপর ফরয করা হয়েছে

১৬

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

খাইরুল লিখেছেন:

অসাধারণ

শুকরিয়া

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১৭

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

০১৬ : আটকান্দি নীল কুঠি মসজিদ (Aatkandi Nil Kuthi Mosque)

https://i.imgur.com/RDNMQuUh.jpg

অবস্থান : নরসিংদী জেলার রায়পুরা উপজেলার আটকান্দি গ্রাম।
GPS coordinates : 23°55'07.6"N 90°46'54.5"E

নির্মাতা : মওলানা আলীম উদ্দিন
নির্মাণকাল : কম-বেশি ২০০ বছর আগে নির্মাণ করা হয়েছে। মসজিদের কোন শিলালিপি না থাকায় মসজিদটির সঠিক নির্মাণ সাল জানা সম্ভব হয়নি।

আকার : মসজিদটি আয়াতাকার।
গম্বুজ : মসজিদটিতে মোট ৮টি গম্বুজ রয়েছে। মূল মসজিদে গম্বুজ রয়েছে ৩ টি। মূল মসজিদের বাহিরে বারান্দায় গম্বুজ রয়েছে ৫ টি। এই গম্বুজ গুলো মসজিদের মূল গম্বুজ থেকে অপেক্ষাকৃত ছোট।
মিনার : বড় সাইজের বুরুজ রয়েছে ৬টি। মাঝারি রয়েছে ৪জোড়ায় ৮টি। এবং ছোট আকারের রয়েছে ১৬টি।
মেহরাব : একটি কেন্দ্রীয় মেহরাব রয়েছে।
কারুকাজ : মেহরাবে চিনিটিকরির কারুকাজ রয়েছে।

প্রবেশ পথ : মসজিদের বারান্দার সামনে দিয়ে মূল মসজিদে প্রবেশ পথ রয়েছে ৫ টি এবং বারান্দার দুই পাশ দিয়ে ২ টি। বারান্দা থেকে মূল মসজিদের ভিতরে প্রবেশ পথ রয়েছে ২ টি।

অন্যান্য তথ্য : মসজিদের পাশেই মওলানা আলীম উদ্দিনের স্ত্রীর কবর রয়েছে।

ছবি তোলার তারিখ : ২৮/০৪/২০১৭ ইং

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১৮

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

১৭ : মিয়া বাড়ি মসজিদ (Miha Bari Mosque)

https://i.imgur.com/EI90yJXh.jpg

অবস্থান : গাজীপুর জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার ভাদগাতি গ্রামের চৌড়া এলাকায় মসজিদটির অবস্থান।
GPS coordinates : 23°55'55.5"N 90°34'02.1"E

নির্মাতা : আবদুর রহমান ভুঁইয়া (প্রতিষ্ঠাতা মোতওয়াল্লী)
নির্মাণকাল : ১৮৯১ইং (সম্ভবত)

আকার : মসজিদটি আয়াতাকার।
গম্বুজ : মসজিদটিতে মোট ১৪টি গম্বুজ রয়েছে। মূল মসজিদের পশ্চিম অংশে প্রথম সারিতে রয়েছে ৫টি বড় গম্বুজ। পূর্ব পাশের দ্বিতীয় সারিতে রয়েছে অপেক্ষাকৃত ছোট আকারের ৮টি গম্বুজ। আর মেহরাবের উপরে রয়েছে ছোট ১টি গম্বুজ।
মিনার : মসজিদটিতে ছোট-বড় মিলিয়ে মোট ২৮টি মিনার রয়েছে। মসজিদের উত্তর ও পূর্ব পাশের দুই দিকে ৩টি করে মাঝারি ও ২টি করে ছোট, মোট ১০টি মিনার রয়েছে। পূর্বপাশে রয়েছে ছোট ৮টি মিনার আর বাকি ১০টি ছোট মিনার রয়েছে পশ্চিম অংশে।
মেহরাব : মেহরাবের উপরে১টি ছোট গম্বুজ রয়েছে।

কারুকাজ :
প্রবেশ পথ :
অন্যান্য তথ্য :

ছবি তোলার তারিখ : ২৮/০৪/২০১৭ ইং

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১৯

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

বাংলার ইতিহাস জানার দরকার আছে। চালিয়ে যান ভাই।

নামায সবার উপর ফরয করা হয়েছে

২০

Re: আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব

খাইরুল লিখেছেন:

বাংলার ইতিহাস জানার দরকার আছে। চালিয়ে যান ভাই।

শুধু আমার দেখা মসজিদগুলির ছবিই দিচ্ছি এখানে।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।