টপিকঃ বিকেলের সূর্যমুখী

বিকেলের সূর্যমুখী
গিনি
সাত আট বৎসর বয়সে সুভ এই সার্কাস দলে যোগ দেয়। সকল ধরনের দৌড়, ঝাপ, কসরত দেখানোর জন্য তার জুরি ছিল না। দলপতি নিজে তাকে যত্ন নিত। নিজ হাতে পর্যন্ত দুধ খাওয়াত। দর্শকদের কত হাত তালি এখনও কানে বাজে। এখন তার বয়স প্রায় ৩২। পূর্বের মত আর শরীর চলে না।এখনো কোন মতে দলের সাথে আছে। তেমন বেতন আর পায় না।দলপতি না না ঝামেলা করে। প্রায় ভাবে চলে যাবে। এক দিন যায়।
মাঝে মাঝে মুটের কাজ করে আবার কখনও ফসল কাটার।
এই বিকেলে সূর্যমুখীর ক্ষেতে ফুল তোলার কাজ পায়। সূর্য পটে যায়।সজিব ফুল গুলা কেমন যেন নেতিয়ে ক্রমেই মাথা নত করে ঝুলে যেতে থাকে।
সুভ দেখে ভোরের সেই জ্বল জ্বলা প্রান রসে ভরা উজ্জল হলুদ ফুল দল কালের অদৃশ্য সুড়ঙ্গে হারিয়ে যাওয়ার দৃশ্য।