সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন অপেক্ষা (২৪-১০-২০১৭ ২১:৫৪)

টপিকঃ শাস্তি

আমি যে ঘটনাটি বলবো তা আমার মার কাছ থেকে শোনা।ঘটনাটি তেমন ভয়ের নয়,তবে আমার কাছে বেশ আজব লেগেছে,তাই লিখছি।
ঘটনাটি আমার মা জেনেছে এক আন্টির কাছে।মা আর ওই আন্টি প্রতিদিন সকালে হাটতে যেতো।একদিন আন্টি তাকে ঘটনাটি বলে।আন্টির ভাষ্যমতে ঘটনাটি যেমন আমার মা শুনে আমায় বলেছে আমি সেই ভাবেই বলছি-

"আমি তখন ক্লাস ৮ এ পড়তাম।যথেস্ট বুঝতাম ও।প্রায় ২০ বছর আগের ঘটনা এটি।আমাদের বাসার পাশে এক আপু থাকতো।সে তখনকার সময়ে ম্যাট্রিক পরীক্ষার্থী ছিলো ছিলো।তাকে যে পড়াতো,সে ছিলো তার দুরসম্পর্কের এক মামা।তো তাদের মাঝে এক সম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং আপুটি গর্ভবতী হয়ে পড়ে।এটা বাসার কেউ জানতো না,কিন্তু তার মা এটা আচ করতে পারে এবং তাকে এ ব্যাপারে প্রশ্ন করলে সে বেশ রাগারাগি করে।ফলে তার মা তাকে বেশ বকাঝকা করে,মারে ও। আপুর বাবা ছিলো কৃষক।ফলে তাদের বাসায় কীটনাশক ছিলো।আপু বাসায় থাকা সেই কীটনাশক খায়।এটা জানাতে পেরে তাকে রাজশাহী মেডিকাল এ নিয়ে যাওয়া হয়,কিন্তু ডাক্তার বলে রাস্তায় তার মৃত্যু হয়েছে।এরপর তাকে গ্রামের গোরস্থান এ কবর দেওয়া হয়।গোরস্তান টি ছিলো একটা ধানি জমির পাশে।এ ঘটনার বেশ কিছুদিন প্রায় ১-২ মাস পর কৃষকরা সেই জমি চাষাবাদের জন্য ঠিকঠাক করতে যায়।তার ওখান এ গিয়ে দেখে গোরস্থান থেকে বিকট পচাঁ গন্ধ বের হচ্ছে।কোথা থেকে,কি থেকে গন্ধটা আসছে জানার জন্য তারা সেখান এ যায় এবং যা দেখে তা অবিশ্বাস্য।তারা দেখে ১-২ মাস আগে কবর দেওয়া ওই মেয়েটার কবর থেকে মাটি সরে গিয়েছে এবং লাশটি বসে আছে।লাশটির মুখ,মাথা,গলা,হাত পচেঁ মাংস গলে গলে পড়ছে কিন্তু তার বুক টা অবিক্ষত আছে।মনে হচ্ছে একটা জীবিত যুবতী মেয়ের বুক যেন।এটা দেখে লোকজন সেই মেয়েটার বাবা মার কাছে যায়।তারা এসে মেয়েরএই অবস্থা দেখে অঙ্গান হয়ে যায়। পড়ে জ্ঞান ফিরলে তারা কান্নাকাটি শুরু করে।লোকজন গিয়ে লাশ দাফন করার চেস্টা করে,কিন্তু লাশকে শোয়ানো যায় না।সবাই খুব ভয় পায় এবং গ্রামের মসজিদেরর হুজুরকে ডাকে।তিনি আসেন এবং ঘটনাটি দেখে মেয়েটির বাবা মা কে বলেন-
"আপনার মেয়ে ২ টি অন্যায় করেছে।১.ব্যাভিচার করে গর্ভে সন্তান এনেছে,২.আত্মহত্যা।আর এজন্য সে এ শাস্তি পাচ্ছে।এখন একটাই উপায় হলো আপনাদের(বাবা ও মা কে) আল্লাহর কাছে মেয়ের জন্য নামাজ পড়ে দোয়া করতে হবে।তার শাস্তি মওকুফের জন্য। মেয়েটির বাবা মা তাই করলো।এবং নামাজ শেষ হওয়ার পর তারা সহ গ্রামের সকলে দেখলো মেয়েটির লাশ একা একাই কবরে চলে গেলো এবং কবর আগের মত হয়ে গেলো।এবং এর পর তুমুল বৃস্টি হলো এবং সেই পচাঁ গন্ধ ও দূর হলো।"

ঘটনাটা আমার মনে বেশ দাগ কাটে।আল্লাহ আমােদর সকল পাপ হতে মুক্তি দিন।রহমত দিন।কোন মেয়ে কি ছেলে,কারোর সাথে যেন এমন না হয়।আমিন।

ডিজিটাল বাংলাদেশে ত আর সাক্ষরের নিয়ম চালু নাই।সবটায় দেখি বায়োমেট্রিক।তাই আর সাক্ষর দিতে পারলাম না।দুঃখিত।

Re: শাস্তি

গ্রামে গেলে এই রকম ঘটনা অনেক শোনা যায়!  hmm

Re: শাস্তি

Jol Kona লিখেছেন:

গ্রামে গেলে এই রকম ঘটনা অনেক শোনা যায়!  hmm

আসলেই।আমার এক নানু এমনই আরেকটা গল্প শুনিয়েছিলো neutral

ডিজিটাল বাংলাদেশে ত আর সাক্ষরের নিয়ম চালু নাই।সবটায় দেখি বায়োমেট্রিক।তাই আর সাক্ষর দিতে পারলাম না।দুঃখিত।