সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মরুভূমির জলদস্যু (০৮-০৬-২০১৭ ১৩:১৫)

টপিকঃ এপিগ্রাম ইন “অনীশ”

বইয়ের নাম : অনীশ
লেখক : হুমায়ূন আহমেদ
লেখার ধরন : মিসির আলি বিষয়ক উপন্যাস
প্রকাশনা : অনুপম প্রকাশনী
প্রথম প্রকাশ : ১৯৯২ ইং
পৃষ্ঠা সংখ্যা : ৫৯
https://previews.pdf-archive.com/2017/05/04/onish/preview-onish-1.jpg


বই পড়ার সময় এপিগ্রাম গুলি সহজাত ভাবেই আমার চোখে পড়ে, আর সেগুলিকে আলাদা করে টুকে রাখাটা আমার স্বভাব। শত শত বইয়ের এপিগ্রাম লেখা আছে আমার কাছে। এখনও বই পড়ার সময় এই অভ্যাস নিরবে কাজ করে যায়। তারই ফল আজকের এই উপন্যাসের এপিগ্রাম সমুহ।

=========================================================================

১। আজকাল কথাতে কিছু হয় না।

২। বড় রকমের অসুখ বিসুখের সময় মানুষের মন নরম থাকে।

৩। আমরা প্রিয়জনদের অবহেলাতে কষ্ট পাই।

৪। যারা কথা বেশি বলে তারা গুছিয়ে কিছু বলতে পারে না।

৫। অসুস্থ অবস্থায় কোন কিছুতেই মন বসে না।

৬। যে কোন রোগের জন্যই বিশ্রাম একটা ভালো ঔষধ।

৭। অসুস্থ মানুষকে প্রকৃতি খুব প্রভাবিত করে।

৮। পরিবেশেরও রোগ নিরাময়ের ক্ষমতা আছে।

৯। ভালোবাসার অত্যাচার, কঠিন অত্যাচার। একে গ্রহণও করা যায় না আবার বর্জনও করা যায় না।

১০। রূপবতীদের পাত্রের অভাব কখনো হয় না।

১১। মানুষের মানিয়ে নেয়ার ক্ষমতা অসাধারণ।

১২। শরীর থেকেও ভালোবাসা জন্ম নিতে পারে।

১৩। মানুষের মন যেমন বিচিত্র, তার শরীরও তেমনি বিচিত্র।

-------------------------------------------------------------- সমাপ্ত --------------------------------------------------------------

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: এপিগ্রাম ইন “অনীশ”

৪। যারা কথা বেশি বলে তারা গুছিয়ে কিছু বলতে পারে না।

এটার সাথে একমত হলাম না। shame
বাকিগুলা ওকে!
শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ দস্যু ভাইয়ু। smile

ডিজিটাল বাংলাদেশে ত আর সাক্ষরের নিয়ম চালু নাই।সবটায় দেখি বায়োমেট্রিক।তাই আর সাক্ষর দিতে পারলাম না।দুঃখিত।

Re: এপিগ্রাম ইন “অনীশ”

অপেক্ষা লিখেছেন:

৪। যারা কথা বেশি বলে তারা গুছিয়ে কিছু বলতে পারে না।

এটার সাথে একমত হলাম না। shame
বাকিগুলা ওকে!
শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ দস্যু ভাইয়ু। smile

এইখানে একমত হওয়া না হওয়ার কিছু নাই। গল্পের খাতিরে উপন্যাসের চরিত্রগুলি এই সব কথা গুলি বলে তার নিজস্ব উপলব্ধি থেকে।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: এপিগ্রাম ইন “অনীশ”

মরুভূমির জলদস্যু লিখেছেন:
অপেক্ষা লিখেছেন:

৪। যারা কথা বেশি বলে তারা গুছিয়ে কিছু বলতে পারে না।

এটার সাথে একমত হলাম না। shame
বাকিগুলা ওকে!
শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ দস্যু ভাইয়ু। smile

এইখানে একমত হওয়া না হওয়ার কিছু নাই। গল্পের খাতিরে উপন্যাসের চরিত্রগুলি এই সব কথা গুলি বলে তার নিজস্ব উপলব্ধি থেকে।

হয়তো হবে  neutral

ডিজিটাল বাংলাদেশে ত আর সাক্ষরের নিয়ম চালু নাই।সবটায় দেখি বায়োমেট্রিক।তাই আর সাক্ষর দিতে পারলাম না।দুঃখিত।

Re: এপিগ্রাম ইন “অনীশ”

বইটি পড়েছি কয়েকবার।
ভালো লাগা বই।
এপিগ্রামগুলো জটিল হয়েছে।  isee

হবার আগে সবাই পর
সময় থাকতে সাধন কর
Bangla Books PDF

Re: এপিগ্রাম ইন “অনীশ”

ShiningBD লিখেছেন:

বইটি পড়েছি কয়েকবার।
ভালো লাগা বই।
এপিগ্রামগুলো জটিল হয়েছে।  isee

ধন্যবাদ মতামতের জন্য।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।