টপিকঃ জেনে নিন বিকাশ দিয়ে আমাজন থেকে কেনাকাটার গোপন কৈশল

কেন কিনবেন আমাজন থেকে

বাংলাদেশে অনলাইনের একটি বিশাল মার্কেট আছে। অনেকেই এখন আনলাইনে কেনাকাটা করে থাকেন। তবে কিছু কিছু অসাধু ব্যবসায়ী রেপ্লিকা বিক্রি করে ঠকাচ্ছে। তাই অরিজিনাল প্রডাক্ট কিনার চাহিদা সকলেরই। আমাজন এমন একটি মার্কেটপ্লেস যেখানে সব ধরনের ব্র্যান্ড তাদের অরিজিনাল প্রডাক্ট বিক্রয় করে থাকে। এখানে কোন ডুপ্লিকেট জিনিস নেই। তবে কিছু কিছু সেম ডিজাইনের চাইনিজ প্রডাক্ট পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে দাম কম থাকে এবং পণ্যের বিবরণে স্পষ্ট করে তা উল্লেখ থাকে। এমনটা হয় না যে আপনি আসল পণ্যের দাম দিয়ে অর্ডার দিলেন কিন্তু  আমাজন থেকে আপনাকে রেপ্লিকা ধরিয়ে দিল।
আপনাকে আমি কয়েকটি কারণ বলব যা শুনে আপনি নিজে থেকেই বলবেন যে আমাজন থেকে কেনাকাটাই বুদ্ধিমানের কাজ কিংবা আমাজন থেকে কেনাকাটা করা উচিত


১) আনেক পণ্য আছে যেগুলো বাংলাদেশে আপনি পাবেন না। ধরুন আইফোন তার নতুন মডেলের ফোন বাজারি ছেড়েছে। কিন্তু সেইটি বাংলাদেশে আসতে আসতে আরও অনেক দেরী হবে। সচারাচর তাই হয়ে থকে। কিন্তু আপনি যদি আমাজন থেকে কিনতে পারেন তাহলে রিলিজের সাথে সাথেই আপনি কিনতে পারবেন। এরকম আরও শত শত পণ্য আছে যা আপনি বাংলাদেশে পাবেন না। আমাজন থেকে কিনতে পারবেন। আপনার বন্ধু কিংবা ফ্রেন্ড সার্কেল থেকে আমনি সবসময়ই একধাপ এগিয়ে থাকবেন।

২) কিছু পণ্য আছে যেগুলো বাংলাদেশে সহজে পাওয়া যায় না দাম থাকে প্রচুর বেশী। এসব পণ্য আমাজন থেকে কিনলে ট্যাক্স দিয়েও অনেক কম দামে কিনতে পারবেন। উদাহরণ দিয়ে আপনাকে বুঝিয়ে দিচ্ছি যাতে বিষয়টি  সহজে বুঝতে পারেন। আপনার এক আত্মীয়ের হার্টের সমস্যা। ডাক্তার বলেছে রিং পড়াতে হবে। এখন আপনি যদি রাজধানীর ১ম শ্রেণীর হাসপাতাল থেকে রিং কিনতে যান তাহলে দাম পড়বে কমপক্ষে ৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকা। আপনি তাহলে বলবেন যে, আমি তাহলে লোকাল মার্কেট থেকে কিনে নিব। না ভাই লোকাল মার্কেটে এই জিনিস আপনি পাবেন না। এখন আপনি বলবেন , তাহলে সরকারী হাসপাতাল থেকে কিনে নিব। আরে ভাই সরকারী হাসপাতালের সেবার নামে যে কি হয় তা সবারই জানা আছে। ওরা যে আপনাকে নকল জিনিস দিবে না তার কি কোন গেরান্টি দিতে পারবেন ? অথচ আমাজন থেকে কিনলে টাক্স-টুক্স দিয়ে ৩/৪ লক্ষ টাকায় অরিজিন্যাল জিনিস টি নিতে পারবেন। চিন্তা করুন আপনার কত টাকা সেভ হচ্ছে। এরকম আরও অনেক প্রডাক্ট আছে যেগুলো বাংলাদেশে খুব চড়া মুল্যে বিক্রি হচ্ছে। আপনি আমাজন থেকে কিনে টাকা বাচাতে পারবেন ।

৩) অনেক পণ্য আছে যেগুলোর রেপ্লিকা কিংবা ক্লোন বাংলাদেশে ধুমছে বিক্রি হচ্ছে। আপনি খোজ করে কিনতে গেলে আমনাকে নকলটাই আসল দামে ধরিয়ে দিবে। আপনি টের পাবেন কয়েকদিন ব্যবহার করার পর। আমাজন থেকে আপনি সেই আসল জিনিসটিই কিনতে পারবেন।


কিভাবে কিনবেন আমাজন থেকে

আমাজন থেকে কিনতে হলে আপনার মাস্টার কার্ড কিংবা ভিসা কার্ড লাগবে। কিন্তু তা সবার পক্ষে সম্ভব নয়। আর চাইলেই আপনি তা তৈরি করতে পারবেন না। তাই আজ অপনাকে আমি বিকাশ  দিয়ে কিভাবে অমাজন থেকে কিনবে তার একটা পদ্ধতি বলে দিব।

ধাপ ১ : প্রথমে আপনাকে একটি বিকাশ একাউন্ট খুলতে হবে।
ধাপ ২ : এবার আপনি আমাজনে https://www.amazon.com/ প্রবেশ করুন।
ধাপ ৩ : আপনি যেহেতু মাস্টারকার্ড দিয়ে কিনবেন না সেহেতু এখানে একাউন্ট খুলার দরকার নেই। তবে খুলে নিলে যা যা পছন্দ তা চার্টে এড করতে পারবেন। পরে কোন নিবেন আর কোনটা বাদ দিবেন তা বের করা সহজ হবে।
ধাপ ৪ : যে পণ্যটি কিনার জন্য সিলেক্ট করেছেন তার ইউআরএল লিংকটি কপি করুন কিংবা সংগ্রহ করুন।
ধাপ ৫ : যে পন্যটি কিনবেন তার সমমূল্যের টাকা একাউন্টে লোড দিবেন। আপনি ১ ডলার = ৮৫ টাকা হিসাবে লোড দিতে পারেন। ৮৫ টাকা বললাম কারণ ডলারের রেট সবসময় আপ-ডাউন করে।

ধাপ ৬ : আপনি লিংকটি কপি করেছেন , এবার https://goo.gl/eG839I - তে ক্লিক করে ঢুকুন |
ধাপ ৭ : আপনার কাঙ্ক্ষিত পণ্যের লিংক দিন। ও ফরমটি পূরণ করবেন।
ধাপ ৮ : ২৪ ঘন্টার মধ্যে কনফার্মেশন কল আসলে সম্পূর্ণ টাকা বিকাশ দিয়ে পেমেন্ট করুন। চাইলে ডাচ-বাংলা কিংবা রকেটের মাধ্যমেও পেমেন্ট দিতে পারবেন।
ধাপ ৯ : পেমেন্টের সাথে সাথে আমাজনে আপনার আর্ডরটি করা হবে।
ধাপ ১০: পণ্যটি বাংলাদেশে আসার সাথে সাথে আপনাকে কল করে জানানো হবে। চাইলে আপনি হোম ডেলিভারি কিংবা সরাসরি এসে নিয়ে যেতে পারবেন।

শুধু আমাজন নয়, আপনি ইবের পণ্যও পবেন https://goo.gl/eG839I –থেকে। আজ আর নয়। পরের বার আরেকটি শর্টকার্ট নিয়ে আবার হাজির হব। ততদিন ভাল থাকবেন , সুস্থ থাকবেন। নিজের শরীরের প্রতি যত্ন নিবেন আর সবসময় সামহয়ার ব্লগের সাথেই থাকবেন। ধন্যবাদ।

Re: জেনে নিন বিকাশ দিয়ে আমাজন থেকে কেনাকাটার গোপন কৈশল

চার্টে  hehe

Re: জেনে নিন বিকাশ দিয়ে আমাজন থেকে কেনাকাটার গোপন কৈশল

আপনার ৬ নম্বর ধাপের শর্টলিংকটি কাজ করছে না