টপিকঃ কিভাবে wifi limted সমস্যার সমাধান করেবন

বর্তমানে ওয়াইফাই ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়ায় উইন্ডোজ পিসিতে যে সমস্যাটি দেখা দেয় limited wifi connection অথবা the connection is limited।অনেক সমস্যাটি দেখা দিলেও কিছুক্ষন পর নিজে নিজেই ঠিক হয়ে যায় কিংবা যদিও ওয়াইফাই কানেক্ট দেওয়া পর লেখা আসে your wifi connection is limited কিন্তু ব্রাউজিং শুরু করলে সমস্যাটি আর দেখাই না।
তারপর যদি সমস্যা দেখা দেই সর্বপ্রথম আপনার কাজ হবে আপনার ড্রাইভার আপডেট দেওয়া।ড্রাইভার আপডেট দেওয়ার পরেও যদি সমস্যার সমমাধান না হয় তাহলে নিচের প্রদ্ধতি গুলি অনুসরণ করুন
অপারেটিং সিস্টেম যদি উইন্ডোজ ৭ হয়, তবে স্টার্ট মেন্যুতে ক্লিক করে এবং উইন্ডোজ ১০ কম্পিউটার হলে স্টার্ট বোতামে মাউসের ডান বোতামে ক্লিক করে কন্ট্রোল প্যানেল নির্বাচন করুন। সেখান থেকে নেটওয়ার্ক ও ইন্টারনেট অপশনে ক্লিক করে নেটওয়ার্ক ও শেয়ারিং সেন্টার খুলুন। এবার বাঁ পাশের প্যানেল থেকে Manage wireless networks অপশনে ক্লিক করুন। তারপর বর্তমান নেটওয়ার্ক সংযোগটি নির্বাচন করে ওপরে থাকা রিমুভ অপশনে ক্লিক করে মুছে দিন। এ কাজটি করে আবার শেয়ারিং সেন্টারে গিয়ে লোকাল এরিয়া কানেকশন লিংকে ক্লিক করে অ্যাডাপ্টার প্রোপার্টিজে যান এবং This connection uses the following items মেন্যুর নিচে থাকা অপশনগুলো থেকে তৃতীয় পক্ষ বা অ্যান্টিভাইরাসের কোনো ফায়ারওয়াল/ ফিল্টার বা ভিপিএন অপশন নিজের জানা থাকলে সেগুলো থেকে টিক উঠিয়ে দিয়ে বাকি অপশনগুলো যা ছিল সেভাবেই রেখে দিন। এখন পুনরায় নেটওয়ার্কে যুক্ত হোন। কম্পিউটারটি বন্ধ করে পুনরায় চালু বা রিস্টার্ট না করেও এভাবে ত্রুটিযুক্ত সংযোগটি ঠিক হয়ে যাওয়ার কথা।
এভাবে যদি কাজ না হয় তাহলে কমান্ড লাইনের মাধ্যমে আরেকটি কাজ করা যায়। স্টার্ট বোতাম ক্লিক করে লিখুন cmd এবং কমান্ড প্রম্পট অপশনটি এলে তাতে ডান ক্লিক করে Run as administrator অপশনে ক্লিক করে চালু করুন। তারপর এতে netsh winsock reset লিখে কি-বোর্ডের এন্টার বোতাম চাপুন। কম্পিউটারটি রিস্টার্ট দিন।
আর যদি  নেটওয়ার্কে আইপি ঠিকানা দেওয়ার প্রয়োজন হয়, তাহলে সেটি কম্পিউটারে বসিয়ে দিতে হবে। এ জন্য আবার সেই কন্ট্রোল প্যানেল থেকে নেটওয়ার্ক এবং ইন্টারনেট তারপর শেয়ারিং সেন্টার খুলে বাঁ পাশের ওপরে থাকা Change adapter settigns খুলুন। এবার নেটওয়ার্ক কানেকশনটিতে মাউসের ডান বোতামে ক্লিক করে প্রোপার্টিজ অপশন নির্বাচন করুন। তালিকায় থাকা Internet Protocol Version (TCP/IPv4)-এ দুই ক্লিক বা ডাবল ক্লিক করুন। সবশেষে অফিস থেকে সরবরাহ করা আইপি ঠিকানাটি Use the following IP address অপশনে ক্লিক করে নিচের বাক্সে ঠিকমতো বসিয়ে দিন। একইভাবে নিচের ডিএনএস সার্ভারের ঠিকানাও বসাতে হবে। আর যদি এটি ডিএইচসিপি সার্ভারের মাধ্যমে, অর্থাৎ স্বয়ংক্রিয়ভাবে বসানোর ব্যবস্থা থাকে, তাহলে এর কোনোটিই করার প্রয়োজন পড়বে না। শুধু তারহীন নেটওয়ার্ক সংযোগটি ওপরের দেওয়া পদ্ধতিতে মুছে দিয়ে পুনরায় নিরাপত্তা সংকেত বা সিকিউরিটি কোডটি বসিয়ে নেটওয়ার্কে যুক্ত হলেই ইন্টারনেট ঠিকভাবে কাজ করবে।

তবে সবচেয়ে সুবিধাজনক ব্যবস্থাটি হলো, নিচের টাস্কবারে থাকা একেবারে ডানের নেটওয়ার্ক আইকনটিতে ডান ক্লিক করে Troubleshoot problems অপশনে ক্লিক করে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করা। কম্পিউটার নিজে থেকেই নেটওয়ার্কে সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে হয় স্বয়ংক্রিয়ভাবে সমাধান করবে, নয়তো কিছু পরামর্শ দিয়ে নেটওয়ার্ক সংযোগ পেতে সাহায্য করবে।
সোর্স:  http://bdtipstech.blogspot.com