টপিকঃ নৈতিকতা জাগ্রত করতে হবে প্রাথমিক স্তরে

শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ, শিল্প-সাহিত্য, অর্থনৈতিক, গণতান্ত্রিক, সামাজিক রাজনৈতিক উন্নয়নে দেশ যখন এগিয়ে চলছে ঠিক তখনই দেশি বিদেশি চক্রান্ত দেশকে পেছনের দিকে ঠেলে দেয়ার চেষ্টা করেছে। বাঙালির অগ্রযাত্রা বাধাগ্রস্ত করার ষড়যন্ত্র বারবার হয়েছে।পাঠ্যবইয়ের যোগ্যতা অর্জনের পাশাপাশি শিক্ষার্থীর চরিত্র গঠন, নৈতিকতা, আদশর্, উচ্চমূল্যবোধ, সৌভ্রাতৃত্ববোধ, পারস্পরিক সহযোগিতা-সহমর্মিতা, মানবিকতা, জাতীয় শুদ্ধাচার বিষয়ে শিক্ষা দেয়ার উল্লেখযোগ্য কার্যক্রম প্রাথমিক স্তরে চালু আছে। একটি বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী যদি মানুষের মতো মানুষ হয়ে ওঠে, তাহলে ওই এলাকার সার্বিক চিত্র পাল্টে যেতে পারে। শিক্ষার্থীরা মানুষ হলে, বাবা-মায়ের সেবা করবে, এলাকাবাসীর দুঃখকষ্টে ভাগীদার হবে। শিক্ষকদের, বড়দের সম্মান, ছোটদের স্নেহ করবে, ভালোবাসবে এমন শিক্ষার্থীই দেশ ও সমাজের জন্য জরুরী। এক সময়ের প্রবাদ, মায়ের সন্তান যেন থাকে ‘দুধে-ভাতে’, এর সঙ্গে যোগ করে এখন থেকে বলতে চাই মায়ের সন্তান যেন থাকে ‘পড়া লেখা, খেলাধুলা আর সুস্বাস্থ্যের মাঝে’। প্রাথমিক স্তর থেকে শিশুদের গড়ে তুলতে হবে। যাতে ভবিষ্যতে ভ্রান্ত মতভেদ নিয়ে দেশ ও জাতির কোন ক্ষতি করতে না পারে।