সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন নিয়াজ মূর্শেদ (০৯-০৮-২০১৬ ১৯:২৫)

টপিকঃ বাংলাদেশিদের ভারত বিদ্বেষ ছড়ানো নিয়ে পরমব্রত যা বললেন

মাইলসের শাফিন আহমেদ ও হামিন আহমেদ ভারত নিয়ে প্রায়ই নোংরা কথাবার্তা লেখেন ফেসবুকে। এটা যারা তাদের পেজ ফলোয়ার তাদের সবারই জানার কথা। কখনো ধর্ষনের দেশ, কখনো ফা** ফা** বলে বিভিন্ন কটুক্তিমূলক মন্তব্য করেন এই দুই গায়ক যাদের মা ফিরোজা বেগমকে বাংলাদেশ অতটা সম্মান দেয় নি যতটা ভারত দিয়েছিলো।

কলকাতাতেই জন্মেছে তাঁর তিন সন্তান- তাহসিন, হামীন ও শাফীন। প্রতিকূলতার সঙ্গে জীবনভর লড়াই করা এই সুরসম্রাজ্ঞীকে দেশের মানুষ কি যথাযথ সম্মান দিতে পেরেছে? ভারত আর পাকিস্তান মিলিয়ে যেখানে এই কিংবদন্তির রেকর্ডসংখ্যা এক হাজার ৬০০, সেখানে বাংলাদেশে হাতে গোনা তিন-চারটি।

সর্বশেষ ২০১২ সালে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সরকার তাঁকে সম্মাননা প্রদান করেছে।

http://www.kalerkantho.com/print-editio … 3/11/60517

এটা নিয়ে আক্ষেপ ছিলো শিল্পীর পরিবারের কিন্তু দেখা গেলো বিভিন্ন সময়ে ভারতকে নিয়ে ভয়াবহ কটুক্তি করে সংবাদের শিরোনাম হয়েছেন শাফিন ও হামিন। এতেই ক্ষেপে গিয়েছে ভারতের কলকাতার ব্যান্ড ফসিলসের ভোকালিস্ট রুপম ইসলাম। ভারত থেকে রীতিমতো তাড়িয়ে দেয়া হলো শাফিন ও হামিনকে। রুপম ইসলামের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কনসার্ট বাতিল ঘোষনা করা হলো কিন্তু বিতর্ক থেকে নেই।

পশ্চিমবঙ্গের কিছু রকব্যান্ড ভক্ত গত কয়েকদিন ধরেই সামাজিক মাধ্যমে প্রচারণা চালাচ্ছিলেন যে লাগাতার ভারত বিরোধী মন্তব্য করেন যে ব্যান্ডের কয়েকজন সদস্য, তাদের কীভাবে স্বাধীনতা দিবস সম্পর্কিত অনুষ্ঠানে ডাকা হচ্ছে।

http://www.bbc.com/bengali/news/2016/08 … lkata_band

ভারতেও বাংলাদেশ বিদ্বেষ আছে। বাংলাদেশিরা গরু চোর, বাংলাদেশিরা জঙ্গী, বাংলাদেশিরা অনুপ্রবেশকারী ইত্যাদি বিদ্বেষ। আবার বাংলাদেশিরাও চান্স কম নেয় না। যা মুখে আসে তাই ফেসবুকে লিখে দেয়।

এসব নিয়ে মুখ খুললেন অভিনেতা পরমব্রত।
 
..........................


মাইলস ও ফসিলস বিতর্ক নিয়ে যা বললেন পরমব্রত
বিনোদন ডেস্ক | আপডেট: ১৭:৫৯, আগস্ট ০৯, ২০১৬
১ Like

http://paimages.prothom-alo.com/contents/cache/images/643x0x1/uploads/media/2016/08/09/cb07111fdff71cc98db0b52af91ee86a-Untitled-2.gif

মাইলস-পরমব্রত-ফসিলস

ভারতের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ১৩ আগস্ট কলকাতায় নজরুল মঞ্চে আজাদি কনসার্ট ঘিরে বাংলাদেশের মাইলস ও কলকাতার ফসিলস ব্যান্ডের বিতর্ক নিয়ে কথা বললেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্টে পরমব্রত তাঁর পর্যবেক্ষণ তুলে ধরেন।

‘প্রসঙ্গ : ফসিলস আর মাইলস’ শিরোনামের এ স্ট্যাটাসের শুরুতে পরমব্রত লিখেছেন, ‘আমাদের ভারতীয়দের মধ্যে কিছু লোক প্রতিবেশী রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বিষোদ্‌গার করে, তাঁদের অকারণে ছোট করে ভাবেন বিরাট দেশপ্রেমিক হওয়া গেল। বিশেষ করে আজকালকার এই অতি দক্ষিণপন্থী বাজারে। এঁদের বিরোধিতা করে আমি অনেক কটু কথা শুনেছি, এমনকি দেশদ্রোহী তকমাতেও ভূষিত হয়েছি।’
মাইলস ও ফসিলসকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যে তর্ক-বিতর্ক ছড়িয়ে পড়েছে, তা দেখে কিছু বলার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন বলেও জানান পরমব্রত। তাঁর মতে, বিগত কয়েক দিনে ফেসবুক এবং অন্যান্য মাধ্যমে এই একটি বিতর্ক এবং সে–সংক্রান্ত তর্ক–বিতর্ক দেখে, পড়ে, নিরপেক্ষভাবে কিছু অন্য সুরের কথা না বলে পারছেন না তিনি।
পরমব্রতর কথাগুলো হচ্ছে, ‘ঠিক যেভাবে কোনো ভারতীয়র বিদ্বেষমূলক বক্তব্যকে চ্যালেঞ্জ করব, ঠিক তেমনি প্রতিবেশী রাষ্ট্রের কেউ যদি আমার দেশ ভারতের নামে অকারণে খারাপ কথা বলে, তাহলে সেটারও সমালোচনা হওয়া দরকার। আমি যদি তার পরিপ্রেক্ষিতে আমার ব্যক্তিগত জায়গা থেকে তাঁদের সঙ্গে এক মঞ্চে পারফর্ম করতে অস্বীকার করি, তাহলে সেটা নিয়ে অত হইচইয়ের কী আছে?’

পরমব্রত আরও বলেছেন, ‘আমি মাইলসের ভক্ত নই, ফসিলসেরও নই। ফসিলসের সঙ্গে পরিচয় বহু দিনের। তাদের কিছু গান নিশ্চয়ই ভালো লাগে। ঠিক যেমন মাইলসেরও কিছু গান ভালোবেসে শুনে বড় হয়েছি। কিন্তু আমি যা বলছি তা আমার সাধারণ যুক্তি বলেই মনে হয়েছে।’

ফেসবুকে পরমব্রত দুই বাংলার প্রসঙ্গও তুলে ধরে বলেন, ‘দুই বাংলাতে যাঁরা ঘৃণা ছড়িয়েছেন বা ছড়াচ্ছেন, তাঁদের আরও একবার বলি, ইতিহাস জানুন। বাঙালির বিবর্তন জানুন। অশিক্ষার পরবশ হয়ে বিদ্বেষ ছড়াবেন না। তাতে আমরা আমাদের আইডেনটিটিকে (পরিচয়টাকে) অপমান করছি। আর কিছু নয়।’

http://www.prothom-alo.com/entertainmen … 0%E0%A6%A4