টপিকঃ ব্রেক্সিট জয়ী হয়েছে। পরাজিত ইউরোপীয় ইউনিয়ন এখন কী করবে?

ব্রেক্সিট জয়ী হয়েছে। পরাজিত ইউরোপীয় ইউনিয়ন এখন কী করবে?
সাইয়িদ রফিকুল হক

বেশ কিছুদিন আগে থেকে শোনা যাচ্ছিলো এবার গ্রেট-বৃটেন ‘ইউরোপীয় ইউনিয়ন’ থেকে বেরিয়ে যাবে। কিন্তু বললেই তো আর হলো না। এর জন্য একটি নিয়মরীতি আছে। তাছাড়া, নিয়মতান্ত্রিক রাজতন্ত্রের দেশে গণতন্ত্র পুরাপুরি বিদ্যমান। তাই, বিষয়টি রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের দিকে গড়ায়। আর এতে নির্বাচনের আগে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরুন এইব্যাপারে চূড়ান্ত-ফয়সালার জন্য বৃটেনবাসীকে গণভোটের আশ্বাস দেন। আর এই গণভোটে বৃটেনবাসী সিদ্ধান্ত নেবে তারা ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকবে-কি-থাকবে না।
আর সেই মোতাবেক বৃটেনে গণভোট শেষ হয়েছে। আর এতে ব্রেক্সিটের পক্ষেই জয় হয়েছে। এবার বৃটেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাবে। আন্তর্জাতিক বিশ্বে গ্রেট-বৃটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ব্যাপারটা ব্রেক্সিট বা BREXIT নামে অভিহিত হয়েছে। এর মানে হলো: Britain Exit বা British Exit. অর্থাৎ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে গ্রেট-বৃটেনের বেরিয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়াই হলো ব্রেক্সিট বা BREXIT.

চার-দশকের বেশি সময় ধরে ইউরোপীয় ইউনিয়নে গ্রেট-বৃটেন একটি প্রভাবশালী রাষ্ট্র হিসাবে অধিষ্ঠিত থাকলেও অতিসম্প্রতি তাদের রাষ্ট্রিক, সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বিরাট সমস্যার সৃষ্টি হয়। আর এর মূল কারণ হলো বৃটেনের মতো একটি শক্তিশালী রাষ্ট্রের ইউরোপীয় ইউনিয়নের করতলে থাকা। ইউরোপের অধিকাংশ দেশই ইউরোপীয় ইউনিয়ন নামক আধুনিক-মোড়লদের সঙ্গে থেকে লাভবান হয়েছে। কিন্তু এতে দিনে-দিনে ক্ষয়িষ্ণু হয়েছে গ্রেট-বৃটেন। তাদের দেশে নানাসমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। আর তাই, এখান থেকে নিয়মতান্ত্রিকভাবে বেরিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা।

অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে পাউন্ডের দাম কমে যাওয়ায় বৃটেনবাসী ভয়ানকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে গেলে এখন তাদের সুদিন ফিরে আসবে বলে সবাই ধারণা করছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে এতোদিন গ্রেট-বৃটেন সংযুক্ত থাকায় তাদের এই ইউনিয়নের নিয়মরীতি মেনে ইউরোপের অন্যান্য দেশের সঙ্গে সিরিয়াসহ বিভিন্ন দেশ থেকে শরণার্থীদের আশ্রয় দিতে হয়েছে। এতে তাদের রাষ্ট্রীয়ভাবে লোকসানের সম্মুখীন হতে হয়েছে। আর বৃটেনে একবার ঢুকতে পারলে সম্মানজনক বেকারভাতার মাধ্যমে চাকরি না করেও আরামআয়েশে জীবনযাপন করার অভিপ্রায়ে অনেক অভিবাসীই বৃটেনে বসে-বসে খেতে আরম্ভ করছিলো। এজন্য ব্রিটিশ-সরকার বেকারভাতা পাওয়ার ক্ষেত্রে আইন পর্যন্ত সংশোধন করতে বাধ্য হয়। এর ফলে গ্রেট-বৃটেনের আসল নাগরিকরাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। শুধু তাই নয়, ভবিষ্যতে তুরস্কের মতো আরও-কিছু সন্ত্রাসবাদী শয়তানরাষ্ট্র ইউরোপীয় ইউনিয়নে যোগদান করতে পারে—এই আভাস পাওয়ার পর থেকেই ব্রিটিশ-সরকার নড়েচড়ে বসে। ব্যস, তারপর এই ব্যবস্থা। কিন্তু এখন প্রশ্ন হচ্ছে: পরাজিত ইউরোপীয় ইউনিয়ন এখন কী করবে? আর তাদের মোড়লগীরী হুমকির সম্মুখীন হবে নাতো?

[বি.দ্র. ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, নর্দান আয়ারল্যান্ড ও ওয়েলসের সমন্বয়ে গ্রেট-বৃটেন গঠিত। তাই, এখানে বারবার গ্রেট-বৃটেন নামটিই ব্যবহার করা হয়েছে।]

সাইয়িদ রফিকুল হক
মিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশ।
২৪/০৬/২০১৬

আমি মানুষ। আমি বাঙালি। আর আমি সত্যপথের সৈনিক। আমি বাংলাদেশরাষ্ট্রকে ভালোবাসি। আর আমি সকল মানুষের মঙ্গল চাই। আমি সবসময় সাহিত্য ভালোবাসি। আর দেশ, মাটি ও মানুষের জন্য আমার লিখতে ভালো লাগে। তাই, মানুষ আর মানবতার পক্ষে বলি শক্ত-কঠিন কথা। আসুন, আমরা দেশ, জাতি আর মানুষের পক্ষে দাঁড়াই।

সাইয়িদ রফিকুল হক

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন Sharif mustajib (০১-০৭-২০১৬ ২১:৩৮)

Re: ব্রেক্সিট জয়ী হয়েছে। পরাজিত ইউরোপীয় ইউনিয়ন এখন কী করবে?

এখানে ইউরপীয় ইউনিয়নের পরাজয়ের কিছু নেই । বরঞ্চ ব্রিটেনই বেকায়দায় পড়েছে । স্কটল্যান্ড ও নর্থ আয়ারল্যান্ডের স্বাধীনতার প্রশ্ন জোরালো হচ্ছে । ব্রিটেনের রাজনীতি, অর্থনীতিতে চলছে অস্থিরতা ।
তবে ফ্রান্স ও জার্মানির অবস্থানই ইউরোপীয় ইউনিয়নের ভবিষ্যৎ।

দেখুন আমার ব্লগ International Affairs

Re: ব্রেক্সিট জয়ী হয়েছে। পরাজিত ইউরোপীয় ইউনিয়ন এখন কী করবে?

দেখুন, স্কটল্যান্ড ও নর্থ আয়ারল্যান্ডের বিচ্ছিন্ন হওয়ার ব্যাপারটি নতুন-কিছু নয়। এরা দীর্ঘদিন যাবৎ অশুভশক্তির ইঙ্গিতে এই বিচ্ছিন্ন হওয়ার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
আর জার্মানী হচ্ছে চিরকালীন ফ্যাসিবাদী। এরা ইউরোপের নব্য-মোড়ল। এরা ১৯৭১ সালে বাংলাদেশরাষ্ট্রের বিরোধিতা করেছে। আর এখনও জার্মানীসহ ইউরোপের অপরাঅপর কয়েকটি রাষ্ট্র আমাদের দেশের একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বানচাল করার ষড়যন্ত্র করছে।
ইউরোপীয় ইউনিয়নের শক্তিশালী রাষ্ট্র ছিল গ্রেট-বৃটেন। তাদের এই ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়াটা বর্তমান বিশ্বের ‘গাঁয়ে মানে না আপনি মোড়ল’ ইউরোপীয় ইউনিয়নের গালে চপোটাঘাতের শামিল। আর গোল্লায় যাক স্কটল্যান্ড ও নর্থ আয়ারল্যান্ড। ধ্বংস হোক ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

আপনাকে অশেষ ধন্যবাদ। আর সঙ্গে রইলো শুভেচ্ছা।

আমি মানুষ। আমি বাঙালি। আর আমি সত্যপথের সৈনিক। আমি বাংলাদেশরাষ্ট্রকে ভালোবাসি। আর আমি সকল মানুষের মঙ্গল চাই। আমি সবসময় সাহিত্য ভালোবাসি। আর দেশ, মাটি ও মানুষের জন্য আমার লিখতে ভালো লাগে। তাই, মানুষ আর মানবতার পক্ষে বলি শক্ত-কঠিন কথা। আসুন, আমরা দেশ, জাতি আর মানুষের পক্ষে দাঁড়াই।

সাইয়িদ রফিকুল হক

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন Sharif mustajib (০১-০৭-২০১৬ ২৩:৩৪)

Re: ব্রেক্সিট জয়ী হয়েছে। পরাজিত ইউরোপীয় ইউনিয়ন এখন কী করবে?

ইউরোপীয় ইউনিয়নের ধারনাটি মোটেও খারাপ নয় । ভিসামুক্ত চলাচল, আবাধ বাণিজ্য ... এসব ধারণা সত্যিই অনন্য ।
সমস্যাটা হল একক মুদ্রায় । যাহোক , রাজনৈতিক বিতর্কে যাবো না । তবে ই ইউ থেকে বেরিয়ে ব্রিটেন যদি অভিবাসী ও শরণার্থীদের সাথে কঠোর আচরণ করে তা হবে আন্তর্জাতিক নৈতিকতা ও আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন । আর এভাবে অভিবাসী সমসসাকে পাশ কাটানো টা দুঃখজনকও বটে ।
আর এখানে বাংলাদেশের বিষয়টা কেন আনলেন তা বোধগম্য নয় । এটা ভিন্ন ইস্যু ।
ব্রেক্সিট বিষয়ক আমার কিছু লেখা এখানে

Re: ব্রেক্সিট জয়ী হয়েছে। পরাজিত ইউরোপীয় ইউনিয়ন এখন কী করবে?

অধিকাংশ অভিবাসীই এখন জঙ্গীতৎপরতায় জড়িত। এদের আশ্রয়প্রশ্রয় দেওয়াটা বোকামি। যেমন, আমাদের দেশে জোর করে আশ্রয় নেওয়া ‘রোহিঙ্গা-শরণার্থী’ সন্ত্রাসীগং। প্রতিটি রোহিঙ্গা-শরণার্থীই সন্ত্রাসী-জঙ্গী আর কমপক্ষে আধাজঙ্গী।

বাংলাদেশের প্রসঙ্গটা এনেছি, কারণ, এই ইউরোপীয় ইউনিয়ন আজ পর্যন্ত বাংলাদেশের কোনো কাজে লাগেনি। বরং তারা বিভিন্ন সময় অযাচিতভাবে বাংলাদেশের ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করেছে। এরা আমাদের দেশের একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে বাধাসৃষ্টি করাসহ নানাবিধ অপকর্মের হোতা। এরা বাংলাদেশের স্থিতিশীলতাবিনষ্ট করে প্রতিক্রিয়াশীলচক্রকে জাগিয়ে তুলতে চায়। তাই, এটি ভেঙ্গে গেলে কিংবা দুর্বল হলে এই ‘গাঁয়ে মানে না আপনি মোড়লদের’ অবস্থা নাজুক হবে।

আপনাকে আবারও অশেষ ধন্যবাদ।

আমি মানুষ। আমি বাঙালি। আর আমি সত্যপথের সৈনিক। আমি বাংলাদেশরাষ্ট্রকে ভালোবাসি। আর আমি সকল মানুষের মঙ্গল চাই। আমি সবসময় সাহিত্য ভালোবাসি। আর দেশ, মাটি ও মানুষের জন্য আমার লিখতে ভালো লাগে। তাই, মানুষ আর মানবতার পক্ষে বলি শক্ত-কঠিন কথা। আসুন, আমরা দেশ, জাতি আর মানুষের পক্ষে দাঁড়াই।

সাইয়িদ রফিকুল হক

Re: ব্রেক্সিট জয়ী হয়েছে। পরাজিত ইউরোপীয় ইউনিয়ন এখন কী করবে?

এখোনো বিশ্বাস করি........এটা কাযর্করী হবেনা.......। কেউ না কেউ আটকে দিবে....।

টিপসই দিবার চাই....স্বাক্ষর দিতে পারিনা......