টপিকঃ আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় বললেন মেসি

মেসি আমার খুব প্রিয় প্লেয়ার আমি আশাকরি মেসি রাগ ভূলে আবার খেলায় ফিরে আসবেন

https://encrypted-tbn2.gstatic.com/images?q=tbn:ANd9GcQ00eP1jpxnicFrjY-zMpMRexQhcymN_Rbr-920pMvW6kmUMwRc

ক্যারিয়ারে রেকর্ডের অন্ত নেই মেসির। তিনি পাঁচবারের বিশ্বসেরা ফুটবলার। জিতেছেন আরো কত কী! শুধু আর্জেন্টিনাকেই বড় কোনো শিরোপা উপহার দিতে পারেননি। এ কষ্ট নিয়েই আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় বললেন ২৯ বছর বয়সী মহাতারকা। গতকাল কোপা আমেরিকার ফাইনালে টাইব্রেকারে গোল দিতে ব্যর্থ মেসি, হেরেছে আর্জেন্টিনাও। এর পরই মেসি জানিয়ে দেন, জাতীয় দলের জার্সিতে আর নয়।

আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপজয়ী দলের অধিনায়ক দিয়েগো ম্যারাডোনার সঙ্গে মেসির তুলনা হরহামেশাই হয়। তবে একটি জায়গায় পিছিয়ে ছিলেন তিনি— জাতীয় দলের হয়ে সাফল্য। এ নিয়ে সমালোচনাও কম সইতে হয়নি। ভেবেছিলেন এবার কোপা জিতে সব সমালোচনার জবাব দেবেন, দেশকেও উত্সবের একটা উপলক্ষ এনে দেবেন। কিন্তু পারলেন না। এ ব্যর্থতায় অবসরের কঠিন সিদ্ধান্তটাও নিয়ে ফেললেন। ম্যাচ শেষে আর্জেন্টাইন এক টেলিভিশনকে দেয়া সাক্ষাত্কারে অবসর নিয়ে মেসির ব্যাখ্যা, ‘চারটি ফাইনালে হার, আমি ক্লান্ত। এখানেই শেষ। জাতীয় দলে আমার দিন শেষ। এটাই আমার সিদ্ধান্ত। আমি যা পারি তার সবই করেছি। জিততে চেয়েছিলাম, কিন্তু পারিনি। চ্যাম্পিয়ন হতে না পারাটা আমাকে ভীষণ আহত করেছে।’

টাইব্রেকারে মেসিদের হারটা ২-৪ গোলের। অথচ এবার কোপা আমেরিকায় শুরু থেকেই দারুণ ছন্দে ছিলেন মেসি, একই সঙ্গে তার দলও। কিন্তু হতাশাটা জমা ছিল ফাইনালের জন্য। গত বছর কোপার ফাইনালে টাইব্রেকারে চিলির কাছে পরাজিত হন মেসিরা। এবারো ফাইনালে সেই চিলিতেই স্বপ্নভঙ্গ। এ নিয়ে বড় আসরে টানা চারটি ফাইনালে হারলেন মেসি। এ ব্যর্থতা কাঁধে নিয়ে এবার সরেই দাঁড়ালেন বার্সেলোনার ইতিহাসে সেরা খেলোয়াড়টি।

গতকাল টাইব্রেকারে আর্জেন্টিনার প্রথম শটটি নিয়েছিলেন মেসি। যে খেলোয়াড়টি আর্জেন্টিনার জার্সিতে কোনো দিন পেনাল্টি মিস করেননি, সেই মেসির শটটি কিনা বারের ধারে কাছেও ছিল না! তিনি চরমভাবে ভাগ্যবিড়ম্বিত বলেই হয়তো এমনটা ঘটল। পেনাল্টি মিস করার পর থেকেই ছটফট করছিলেন। খেলোয়াড়দের সঙ্গে না থেকে রিজার্ভ বেঞ্চে গিয়ে একাকী বসে থাকলেন। তখনই হয়তো অবসরের মতো বড় সিদ্ধান্তের জন্য নিজেকে তৈরি করছিলেন।

মেসির আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শুরু ২০০৫ সালে। থামলেন ১১৩তম ম্যাচে এসে। এই কোপায়ই গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতার রেকর্ড ভেঙে আর্জেন্টিনার হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন মেসি। দেশের হয়ে তার গোল ৫৫। পণ করেই নেমেছিলেন, এ কোপা জিতবেনই। কিন্তু পারলেন না। আরেকবার হতাশাই জুটল ভাগ্যে।

বার্সেলোনার হয়ে কী বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ার মেসির।

৫৩১ ম্যাচে করেছেন ৪৫৩ গোল, লা লিগায় রেকর্ড ৩১২ গোল। শোকেস ভরা ট্রফি আর ট্রফি। বার্সার হয়ে জিতেছেন আটটি লা লিগা ও চারটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা। ২০০৯ সালে জিতেছেন ব্যালন ডি’অর ও ফিফা প্লেয়ার অব দ্য ইয়ার। এর পর ২০১০, ২০১১, ২০১২ ও ২০১৫ সালে চারবার জিতেছেন ফিফা ব্যালন ডি’অর ট্রফি। মেসির শোকেস যেন একটা আস্ত ‘শো-রুম’। তাতে জমা আছে ইউরোপিয়ান গোল্ডেন সু (তিনবার), লা লিগার সেরা খেলোয়াড় (ছয়বার), লা লিগার সেরা ফরোয়ার্ড (ছয়বার), আর্জেন্টিনার বর্ষসেরা খেলোয়াড়সহ (নয়বার) অসংখ্য ট্রফি ও স্মারক।

তবে মেসির শোকেসে শুধু নেই আর্জেন্টিনার হয়ে জেতা বড় কোনো ট্রফি। আন্তর্জাতিক শিরোপা বলতে ২০০৮ সালে জেতা অলিম্পিক স্বর্ণ। ২০০৭ কোপা, ২০১৪ বিশ্বকাপ এবং ২০১৫ ও ২০১৬ কোপা ফাইনালে হেরেছেন মেসি। নয় বছরে চারটি বড় আসরের ফাইনাল হেরে তিনি রীতিমতো বিপর্যস্ত। তাই তো বিদায় বললেন বিখ্যাত আকাশি-সাদা জার্সিটাকে। বিদায়বেলায় আক্ষেপ ঝরল তার কণ্ঠে, ‘এটাই (শিরোপা) আমি মনেপ্রাণে চেয়েছিলাম, কিন্তু পারিনি। এটা আমার জন্য নয়। আমার ও দলের জন্য এখন অত্যন্ত কঠিন একসময়। এ কষ্ট ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না।’ চোখের জলেই বিদায় হলো ফুটবলের ইতিহাসে অন্যতম সেরা এ খেলোয়াড়ের। সূত্র: বিবিসি, এএফপি

http://bonikbarta.com/news/2016-06-28/7 … %E0%A6%BF/

Re: আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় বললেন মেসি

রাগ করেছেন, রাগ কমে গেলে আবার ঠিকই খেলবে, যত খেলবে তত টাকা

Re: আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় বললেন মেসি

MAD লিখেছেন:

রাগ করেছেন, রাগ কমে গেলে আবার ঠিকই খেলবে, যত খেলবে তত টাকা

ঠিক বলেছেন ????????????

মৃন্ময় মানব