টপিকঃ ভাট ফুলের সুবাস

ভাট ফুলের সুবাস
https://c2.staticflickr.com/2/1468/25072294884_941135752f_b.jpg

শিরনামটাই অর্থহীন হল আমার জন্য!! কারণ আমি আজও এই ভাট ফুলের সুবাস পাইনি। ভাট ফুল দেখেছি অনেক,‌ কিছু ছবিও তুলেছি তবে সুবাস নেয়ার সৌভাগ্য হয়নি। অবশ্য এর একটি কারণও আছে। ভাট একটি বুনো ফুল, পথের ধারে জংলা যায়গায়, গায়ের মাঠের ধারে অযত্নে ফুটে থাকে এই ফুল। আদর করে কেউ বাগানে রোপণ করে না। আর ফুলটি সুবাস ছাড়ে রাতে, তাই কখনো এর সুবাস নেয়া হয়নি আমার।

https://c2.staticflickr.com/2/1560/25702814185_defae8cbe5_b.jpg
(ভাটা ফুলের কলি)


https://c2.staticflickr.com/2/1596/25702808285_eae0a8b2ac_b.jpg
(কলি আর ফুলের সমারহ)

ভাট আসলে গুল্ম জাতিয় দেশি বুনো ফুল। ভাটের গাছ খুব একটা বড় হয়না, ১-২ মিটার উচ্চতার ছোট ছোট গাছে তোড়ার মত ফুটে থাকতে দেখা যায় ভাট ফুল। মার্চ-এপ্রিল মাসে ফুল ফুটে। ভাট ফুলের রং ধবধবে সাদা। প্রতিটি ফুলে ৫টি করে পাপড়ি থাকে। পাপড়ির গোড়াতে থাকে সামান্য বেগুনী রঙের পোঁছ। ফুলের কেন্দ্র থেকে ৪টি করে ৩ সেন্টিমিটারের মত লম্বা মঞ্জুরি (পুংকেশর) ফুলের সামনের দিকে বেরিয়ে আসে, সামনের অংশে থাকে কালো দানার মত।

https://c2.staticflickr.com/2/1484/25584093632_ab3b2fc852_b.jpg
(ভাট ফুল ফুটে এভাবেরই তোড়ার মত করে)


https://c2.staticflickr.com/2/1599/25676643576_ede5e89464_b.jpg


https://c2.staticflickr.com/2/1453/25401967290_0ea0ede9e9_b.jpg

এই ফুলের অনেকগুলি বাংলা প্রচলিত নাম রয়েছে যেমন - ভাট ফুল, ভাইটা ফুল, ভাত ফুল, ঘেঁটু ফুল, ঘণ্টাকর্ণ ইত্যাদি। এছাড়াও আরো কিছু কমন নাম এর আছে, যেমন – Hill Glory Bower,  নেপালি – রাজবেলি, সংস্কৃতি – ভান্ডিরা ইত্যাদি।


https://c2.staticflickr.com/2/1500/25676629686_dae7fdaf35_b.jpg
(স্বর্ণলতায় জড়ি আছে ভাট ফুল)

বৈজ্ঞানিক নাম: Clerodendrum viscosum, গোত্র: Verbenaceae, রাজ্য: Plantae, পরিবার: Lamiaceae, গোত্র: Clerodendrum, প্রজাতি: infortunatum


https://c2.staticflickr.com/2/1507/25676608236_43b8845a4a_b.jpg


https://c2.staticflickr.com/2/1680/25610063601_d218fe7613_b.jpg


https://c2.staticflickr.com/2/1695/25676622336_c2a5ca63de_b.jpg

যাইহোক কদিন আগে ৬/৩/২০১৬ইং তারিখে জয়দেবপুরের পরে ট্রেনের রাস্তার ধারে দেখলাম অজস্র ভাট ফুল ফুটে আছে। সঙ্গে থাকা Nikon D80 ক্যামেরা দিয়ে অনেকগুলি ছবি তুলে ছিলাম ভাট ফলের। আমার বৃদ্ধ-দুর্বল হয়ে যাওয়া ক্যামেরায় নিজের অপারগতার কারণে কোনরকমে চলনসই ছবি দিয়েই আজকের এই ছবি পোস্ট।

https://c2.staticflickr.com/2/1703/25076017703_2890a6cb1d_b.jpg
(ভাটের ঝোপ)

সব শেষে জীবনানন্দ দাশের একটি কবিতা

"কোথাও মঠের কাছে”
"কোথাও মঠের কাছে — যেইখানে ভাঙা মঠ নীল হয়ে আছে
শ্যাওলায় — অনেক গভীর ঘাস জমে গেছে বুকের ভিতর,
পাশে দীঘি মজে আছে — রূপালী মাছের কণ্ঠে কামনার স্বর
যেইখানে পটরানী আর তার রূপসী সখীরা শুনিয়াছে
বহু বহু দিন আগে — যেইখানে শঙ্খমালা কাঁথা বুনিয়াছে
সে কত শতাব্দী আগে মাছরাঙা — ঝিলমিল — কড়ি খেলা ঘর;
কোন যেন কুহকীর ঝাড়ফুঁকে ডুবে গেছে সব তারপর
একদিন আমি যাব দু-প্রহরে সেই দূর প্রান্তরের কাছে,
সেখানে মানুষ কেউ যায় নাকে — দেখা যায় বাঘিনীর ডোরা
বেতের বনের ফাঁকে — জারুল গাছের তলে রৌদ্র পোহায়
রূপসী মৃগীর মুখ দেখা যায়, — শাদা ভাঁট পুষ্পের তোড়া
আলোকতার পাশে গন্ধ ঢালে দ্রোণফু বাসকের গায়;
তবুও সেখানে আমি নিয়ে যাবো একদিন পাটকিলে ঘোড়া
যার রূপ জন্মে — জন্মে কাঁদায়েছে আমি তারে খুঁজিব সেথায়।"

https://c2.staticflickr.com/2/1576/25610045151_263128eb44_b.jpg
সব্বাইকে ভাট ফুলের শুভেচ্ছা।

=====================================================================
ফুল নিয়ে লেখা আমার আরো কিছু টপিক----

১/ বাংলার ফুল
বাংলাদের সুপরিচিত ফুলগুলিকে নিয়ে সামান্য তথ্যভিত্তিক কিছু লেখা।
কৃষ্ণচূড়া বা রক্তচূড়া বা গুলমোহর
বাংলার ফুল "পলাশ"
বাংলার ফুল "শাপলা"
বাংলার ফুল "মান্দার"





৩/ গোলাপ নামা
পৃথিবীতে প্রায় ১০০ থেকে ১৫০ প্রাজাতির গোলাপ ফুল রয়েছে। এই সমস্ত প্রজাতির মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন উপ-প্রজাতি। সব মিলিয়ে প্রায় ৫৫০টি আলাদা আলাদা গোলাপের অস্তিত্ব রয়েছে পৃথিবী জুড়ে। সেই সব গোলাপের পরিচয় পর্ব নিচের টপিক গুলিতে।
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ০১
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ০২
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ০৩
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ০৪
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ০৫
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ০৬
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ০৭
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ০৮
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ০৯
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ১০
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ১১
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ১২
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ১৩
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ১৪
বিভিন্ন প্রজাতির গোলাপ ফুল : পর্ব ১৫



এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সদস্য_১ (১১-০৩-২০১৬ ২৩:৪৪)

Re: ভাট ফুলের সুবাস

সুন্দর ফুল!  smile
ফুটটা দেখেছি সম্ভ্যবত, চেনা চেনা মনে হয়, কিন্তু এ সম্পর্কৃত কোন স্মৃতি মনে করতে পারছিনা।  এর কোন ফল হয় কি?

ছবিগুলো ভাল তুলেছেন। যদিও ক্লোজআপ ছবিগুলো একটু সফ্ট এসেছে। মনে হয় অনেক দুর থেকে তুলেছেন  thinking

Re: ভাট ফুলের সুবাস

সদস্য_১ লিখেছেন:

সুন্দর ফুল!  smile
ফুটটা দেখেছি সম্ভ্যবত, চেনা চেনা মনে হয়, কিন্তু এ সম্পর্কৃত কোন স্মৃতি মনে করতে পারছিনা।  এর কোন ফল হয় কি?

ছবিগুলো ভাল তুলেছেন। যদিও ক্লোজআপ ছবিগুলো একটু সফ্ট এসেছে। মনে হয় অনেক দুর থেকে তুলেছেন  thinking

এই ফুল পথের ধারেই ফুটে থাকে তাই দেখে থাকতেই পারেন।
তেমন কোন ফল হয় না মনে হয়, তবে বিচী হয় নিশ্চই।
ঠিক ধরেছেন, ছবিগুলি একটু দূর থেকেই তোলা। আমার কাছে তখন ল্যান্স ছিলো ৭০*৩০০এমএম এর, এটা দিয়ে একটু দূর থেকেই তুলতে হয়।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: ভাট ফুলের সুবাস

ছোটবেলায় মাঠে ঘাটে গেলে অনেক দেখা যেত, হালকা একটা সুবাসও আছে।
অনেক ধন্যবাদ সুন্দর ছবিগুলো দেখানোর জন্য।

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit

Re: ভাট ফুলের সুবাস

দারুণ সব ছবি আর বর্ণনা।  thumbs_up

আলহামদুলিল্লাহ!

Re: ভাট ফুলের সুবাস

ভালো

  “যাবৎ জীবেৎ সুখং জীবেৎ, ঋণং কৃত্ত্বা ঘৃতং পিবেৎ যদ্দিন বাচো সুখে বাচো, ঋণ কইরা হইলেও ঘি খাও.

Re: ভাট ফুলের সুবাস

বোরহান লিখেছেন:

ছোটবেলায় মাঠে ঘাটে গেলে অনেক দেখা যেত, হালকা একটা সুবাসও আছে।
অনেক ধন্যবাদ সুন্দর ছবিগুলো দেখানোর জন্য।

সুবাস নেয়ার সৌভাগ্য আমার এখনো হয়নি।  brokenheart
অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে প্রিয় বোরহান ভাই মন্তব্য আর সম্মাননার জন্য।

48 seconds after:

আরিফ হাসান লিখেছেন:

দারুণ সব ছবি আর বর্ণনা।  thumbs_up

মন্তব্যের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: ভাট ফুলের সুবাস

সমালোচক লিখেছেন:

ভালো

ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: ভাট ফুলের সুবাস

এই মাল হাত দিয়ে নাড়াচাড়া করলে হাতটায় নষ্ট । সেই রকম তিতা । । ।

কি আর বলবো । সাইট থাকলে ঠিকানা দিতাম ......

১০

Re: ভাট ফুলের সুবাস

স্বাদ তিতা হইলেও গন্ধটা কিন্তু মিষ্টি।

আলহামদুলিল্লাহ!

১১

Re: ভাট ফুলের সুবাস

হাবীব রাজশাহী লিখেছেন:

এই মাল হাত দিয়ে নাড়াচাড়া করলে হাতটায় নষ্ট । সেই রকম তিতা । । ।

এই তথ্য জানা ছিলো না।
তা মুখে দিছিলেন কেন  thinking

52 seconds after:

আরিফ হাসান লিখেছেন:

স্বাদ তিতা হইলেও গন্ধটা কিন্তু মিষ্টি।

আপনিও কি  thinking

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১২ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন হাবীব রাজশাহী (২০-০৩-২০১৬ ১৬:০৭)

Re: ভাট ফুলের সুবাস

মরুভূমির জলদস্যু লিখেছেন:

এই তথ্য জানা ছিলো না।
তা মুখে দিছিলেন কেন  thinking । । ।



ভাই আমার জন্ম গ্রিরামে আর আছি প্রায় ২৫ বছর ধরে ... আমাদের গ্রিরামের বাচ্চা বাচ্চারাও এই জিনিস হাত দিয়ে ধরবে না । এই ফুলের ডাল হাতে নিলেও হাত তিতা করে ।

কি আর বলবো । সাইট থাকলে ঠিকানা দিতাম ......

১৩

Re: ভাট ফুলের সুবাস

সেই ছোটবেলা থেকে এই ফুল দেখে আসতেছি। ছোটবেলায় এই ফুল নিয়ে অনেক খেলাও করেছি। কিন্তু এই ফুলের নাম যে ভাট ফুল তা আজকে প্রথম শুনলাম। আচ্ছা ভাট ফুল কি এইফুলে কোন আঞ্ঝলিক নাম নাকি সবাই এই নামেই চিনে?

১৪

Re: ভাট ফুলের সুবাস

হাবীব রাজশাহী লিখেছেন:
মরুভূমির জলদস্যু লিখেছেন:

এই তথ্য জানা ছিলো না।
তা মুখে দিছিলেন কেন  thinking । । ।



ভাই আমার জন্ম গ্রিরামে আর আছি প্রায় ২৫ বছর ধরে ... আমাদের গ্রিরামের বাচ্চা বাচ্চারাও এই জিনিস হাত দিয়ে ধরবে না । এই ফুলের ডাল হাতে নিলেও হাত তিতা করে ।

অামিও গ্রামের লোক, এখনো গ্রামেই অাছি। তবে শহর ঘেসা গ্রাম। অার অামার গ্রামে বা অাশে পাশে এই ফুল নাই। তাই তিতার খবরও জানতে পারি নাই। চলতি পথেই হঠাত দেখা পাই এই ফুলের।

52 seconds after:

sikkhadotnet লিখেছেন:

সেই ছোটবেলা থেকে এই ফুল দেখে আসতেছি। ছোটবেলায় এই ফুল নিয়ে অনেক খেলাও করেছি। কিন্তু এই ফুলের নাম যে ভাট ফুল তা আজকে প্রথম শুনলাম। আচ্ছা ভাট ফুল কি এইফুলে কোন আঞ্ঝলিক নাম নাকি সবাই এই নামেই চিনে?

এই ফুলের অনেকগুলি বাংলা প্রচলিত নাম রয়েছে যেমন - ভাট ফুল, ভাইটা ফুল, ভাত ফুল, ঘেঁটু ফুল, ঘণ্টাকর্ণ ইত্যাদি।
এছাড়াও আরো কিছু কমন নাম এর আছে, যেমন – Hill Glory Bower,  নেপালি – রাজবেলি, সংস্কৃতি – ভান্ডিরা ইত্যাদি।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১৫

Re: ভাট ফুলের সুবাস

প্রথম আলো
আজ প্রথম আলোতে ভাট ফুলের উপরে একটা লেখা দেখলাম।

‘ভাঁট আঁশ শ্যাওড়ার বন
বাতাসে কী কথা কয় বুঝি নাকো, বুঝি নাকো চিল কেন কাঁদে;
পৃিথবীর কোনো পথে দেখি নাই আমি, হায়, এমন বিজন’
-জীবনানন্দ দাশ

ভাঁট গ্রামবাংলার চিরচেনা বনফুল। বসন্তের দিনে অনাগত সৌরভ নিয়ে সে ফুটে চলে গ্রীষ্ম অবধি। গ্রামের মেঠো পথে, পাহাড়ি বনের চূড়ায় কিংবা পাহাড়ি ছড়ার পাশে অঢেল ও প্রাণবন্ত হয়ে সে সাজে, পথিকেরে খানিক তার দিকে ফিরে তাকানোর জন্য। অজস্র মৌমাছি মধু আহরণে ব্যস্ত থাকে ভাঁট ফুলের থোকায় থোকায়। অযত্নে ও অবহেলায় সে পথপাশে, পতিত জমির কাছে জন্মে থাকে।

ভাঁটের বৈজ্ঞানিক নাম Clerondendron viscosum। ভাঁট গুল্মজাতীয় বহুবর্ষজীবী উদ্ভিদ। গাছের প্রধান কাণ্ড খাড়া, সাধারণত ২ থেকে ৪ মিটার লম্বা হয়। পাতা কিছুটা পানপাতার আকৃতির ও খসখসে। পাতা ৪ থেকে ৭ ইঞ্চি লম্বা হয়। ডালের শীর্ষে পুষ্পদণ্ডে ফুল ফোটে। পাপড়ি সাদা, তাতে বেগুনি মিশেল আছে।.

ভাঁট মিয়ানমার ও ভারতীয় প্রজাতি। পলাশ, শিমুলের মতো বিশালত্ব না থাকলেও ভাঁট ফুলের সৌরভ বসন্তজুড়েই রাঙিয়ে যায় বন। কবির মনকে করে তোলে আরও কাব্যময়। ভাঁট ঔষধি গুণসম্পন্ন উদ্ভিদ। পাতার রস শিশুর জ্বর দূর করে।

ভাঁট ফুল দিয়ে অনেক এলাকার সনাতন ধর্মের লোকেরা ভাঁটি পূজার আয়োজন করে ফাল্গুনের শেষ দিনটিতে। তবে পূজা শুরু হয় মাসের প্রথম দিন থেকেই। ঘরের কাছে ভিটা তৈরি করে, চারপাশে গাছের কাণ্ড দিয়ে বর্গাকার ঘর তৈরি করে ভাঁট ফুল সংগ্রহ করে প্রতিদিন সন্ধ্যায় পূজা দেওয়া হয় এবং শেষ হয় ফাল্গুনের শেষ দিনে। সেদিন সকালে শিশুরা ভাঁট ফুল সংগ্রহ করে পূজামঞ্চে প্রার্থনা করে। এই পূজার মর্মকথা হলো, ভাঁট ফুল মাথায় নিয়ে জলে স্নান করার পর শিশুদের বিপদ ও রোগবালাই দূর হয়। নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার মহাজন গ্রামের নবগঙ্গা নদীর তীরে এক বাড়িতে গিয়ে কয়েক বছর আগে ভাঁটি পূজা দেখেছিলাম। এ পূজার নাম অঞ্চলভেদে ভিন্নও হতে পারে।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।