সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মরুভূমির জলদস্যু (২৪-১২-২০১৫ ১১:৪৮)

টপিকঃ সিলেট ভ্রমণ - হরিপুর পরিত্যাক্ত গ্যাস ফিল্ড

১৯শে অক্টোবর ২০১৪ইং তারিখে সিলেটে একটা ফ্যামিলি এন্ড ফ্রেন্ড ভ্রমণের আয়োজন করেছিলাম। আমাদের গাড়ি ছাড়া হল ভোর ৫টা ৫০ মিনিটে। পথে তখনও কর্মব্যস্ততা শুরু হয়নি। পথের ধারের চিরচেনা গ্রামবাংলার আবহমান দৃশ্যাবলী দেখতে দেখতে আমরা এগিয়ে চলি। “শ্রীমঙ্গলের পথে” চলতে চলতে আমরা যখন লাউয়াছড়া ন্যাশনাল পার্কে পৌছাই তখন ঘড়িতে সময় সকাল ১০টা ৪৫ মিনিট। “লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান ভ্রমণ” শেষে আমরা পৌছাই মাধবপুর লেকে। কিছুটা সময় “মাধবপুর লেক ভ্রমণ” শেষে আমারা যাই মাধবকুণ্ড ঝর্ণা দেখতে। বিকেলটা কেটে যায় “মাধবকুণ্ড ঝর্ণা ভ্রমণ” করে। সেখান থেকে ভ্রমণ শেষে রাতে পৌঁছাই সিলেটে।

পরদিন ২০শে অক্টোবর সকালে “হযরত শাহজালাল (রঃ) দরগা”তে  কিছুটা সময় কাটিয়ে আমরা চললাম ৬০ কিলোমিটার দূরের বিছনাকান্দির উদ্দেশ্যে। অচেনা রাস্তা বলে সময় কিছুটা বেশী লাগায় হাদারপাড় বাজারে যখন পৌছাই তখন ঘড়িতে দুপুর ২টা ৩০ মিনিট। একটি ট্রলার ভাড়া করে চললাম পিয়াইন নদীর অল্প জলের বুক চিরে বিছনাকান্দির দিকে। বিছনাকান্দির মহনীয় রূপ উপভোগের পালা শেষে ফিরে আসি আমাদের রাতের আস্তানা সিলেট শহরে।

পরদিন ২১ তারিখ সকালে নাস্তা শেষে সোয়া ১১টার দিকে পৌছাই হজরত শাহপরানের মাজারে। মাজার জিয়ারত শেষে পৌনে ১২টা নাগাদ বেরিয়ে যাই মাজার থেকে। আমাদের পরবর্তী গন্তব্য হরিপুর পরিত্যাক্ত গ্যাস ফিল্ড



https://c2.staticflickr.com/2/1668/23310457304_f94fe01e8e_b.jpg

পৌনে বারটার দিকে মাজার ছেড়ে বেরিয়ে পরি আমরা। সিলেট তামাবিল হাইওয়ে দিয়ে সিলেট থেকে জাফলং এর দিকে প্রায় ১৪ কিলোমিটারের মত যেতে হাতের বামদিকে পরে এই হরিপুরের পরিত্যাক্ত গ্যাস ফিল্ড। প্রায় ১৫ বছর আগে আমরা ৫ বন্ধু এখানে এসেছিলাম। তখন দেখেছিলাম একটা পুকুরের জল টগবগ করে ফুটছে। আসলে এখানে গ্যাসের একটি কুপ খনন করতে গিয়ে দেবে গিয়ে এই পুকুর তৈরি হয়। পরে বৃষ্টির জল জমলে জলের মধ্যে গ্যাস বুদবুদ আকারে বের হতে থাকে। সামান্য দিয়াশলাইয়ের জ্বলন্ত কাঠি ছুড়ে দিলেই ধপ করে জলে উঠত।  আরেকটা মাঝারি আঁকারের টিলা থেকে ছোট ছোট ফাঁক ফোকর দিয়ে গ্যাস বের হতে দেখেছিলাম। তখন দূর থেকেই শো শো শব্দ শুনতে পেয়ে ছিলাম।

https://c2.staticflickr.com/6/5778/23830417712_a6a781ba2b_b.jpg
বুদবুদ পুকুর


https://c2.staticflickr.com/6/5733/23570821949_245185e529_b.jpg
বুদবুদ পুকুর




এবার এতো পুরনো রাস্তার কথা কিচ্ছু মনে নেই তাই জিজ্ঞেস করে করে চলে আসলাম। কাচা রাস্তায় কিছু দূর গাড়িতে এসে হেঁটেই এগুলাম বাকি পথ। এবার প্রথমেই পৌঁছলাম পুকুরের কাছে। আগের মত ততটা বুদবুদ নেই, গ্যাসের চাপ কমে গেছে।  কয়েক যায়গাতেই ঝিরি ঝিরি বুদবুদ উঠছে। চেষ্টা করেও সেখানে জ্বলন্ত দেশলাইয়ের কাঠি ছুড়ে পৌছতে পারিনি।

https://c2.staticflickr.com/2/1451/23570821439_4c3080a494_b.jpg


https://c2.staticflickr.com/2/1673/23311907513_89cef8f2dd_b.jpg



https://c2.staticflickr.com/6/5776/23643016010_8e9caf2c75_b.jpg




https://c2.staticflickr.com/2/1530/23830414362_dcc77ec7bb_b.jpg



এই ফুটন্ত পুকুর সম্পর্কে সেই সময় একটি মিথ শুনেছিলাম। "এই কুপটির কাছেই ছিল একজন দরবেশের আস্তানা। ইঞ্জিনিয়াররা যখন এখানে কাজ শুরু করে তখন কাজের শব্দে দরবেশের ধ্যানের সমস্যা হয়। তখন দরবেশ তাদেরকে এখান থেকে সরে অন্য কোথাও কাজ করতে বলে। কিন্তু দরবেশের কথা না শুনে তারা সেখানেই কাজ করতে থাকে। পরে দরবেশের বদদোয়ার কারণে সেই কুপটা যন্ত্রপাতি সহ মাটির নিচে দেবে যায়।

https://c2.staticflickr.com/2/1717/23830413412_8a5ffa8188_b.jpg
বুদবুদ পুকুর আর জ্বলন্ত পাহারের মাঝামাঝি এই পথেই আছে গ্যাস উঠানোর এই পরিত্যাক্ত অংশ বিশেষ।

https://c2.staticflickr.com/2/1593/23830412092_84eb9869ec_b.jpg
কৌতুহল মিটানোর জন্য কাছ থেকে দেখা।


https://c2.staticflickr.com/6/5819/23643011740_00b6b6d791_b.jpg
অগ্নিশিল্পী, আগুন ধরিয়ে আপনাকে দেখাবে, ফেরার সময় বকশিস দিতে হবে।


কিছুটা সময় বুদবুদ পুকুরের সামনে কাটিয়ে ভিন্ন পথে হাঁটা ধরলাম জ্বলন্ত পাহাড়ের দিকে। এতো বছরে গ্যাসের চাপ অনেকটাই কমে গেছে তা বুঝতেই পারছি। পাহারের কাছাকাছি গিয়েও কোন শো শো শব্দ তাই এবার পেলাম না। শব্দ না পেলেও কিছু গ্যাস যে এখনো বের হচ্ছে তা বুঝা গেলো দু এক যায়গায় আগুন জ্বলতে দেখে।

https://c2.staticflickr.com/6/5666/23570815039_1ae462cda1_b.jpg
এই সেই জ্বলন্ত পাহাড়


https://c2.staticflickr.com/6/5828/23643009910_ccab9bfb9b_b.jpg
জ্বলন্ত স্বপন আর ড্রাইভার


https://c2.staticflickr.com/2/1485/23570813959_bfb9637144_b.jpg
অগ্নিশিল্পী, ১৫ বছর আগেও এদের দেখেছি, এখনও আছে।

https://c2.staticflickr.com/6/5654/23830407452_a1ffe9d4c3_b.jpg
আমাদের গ্যাস এভাবেই জ্বলে যায়।

বুদবুদ পুকুর আর জ্বলন্ত পাহাড় দেখা শেষে এবার আমাদের গন্তব্য লালাখাল, দেখা হবে আগামী পর্বে।
চলবে.......


পূর্বের পর্ব গুলি :
“শ্রীমঙ্গলের পথে”
“লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান ভ্রমণ”
“মাধবপুর লেক ভ্রমণ”
“মাধবকুণ্ড ঝর্ণা ভ্রমণ”
“সিলেট ভ্রমণ - হযরত শাহজালাল দরগাহ”
“সিলেট ভ্রমণ - বিছনাকান্দি (১ম পর্ব)”
“সিলেট ভ্রমণ - বিছনাকান্দি (২য় পর্ব)”
“সিলেট ভ্রমণ - হযরত শাহপরান দরগাহ”

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: সিলেট ভ্রমণ - হরিপুর পরিত্যাক্ত গ্যাস ফিল্ড

শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ দাদা smile

সব কিছু ত্যাগ করে একদিকে অগ্রসর হচ্ছি

লেখাটি CC by-nd 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: সিলেট ভ্রমণ - হরিপুর পরিত্যাক্ত গ্যাস ফিল্ড

mizvibappa লিখেছেন:

শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ দাদা smile

স্বাগতম আপনাকে প্রিয় বাপ্পা দা।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: সিলেট ভ্রমণ - হরিপুর পরিত্যাক্ত গ্যাস ফিল্ড

এই পাহাড়টা দেখলে আমার খুব কষ্ট হয় ,খনিজ সম্পদের কি অপচয় !!

এক টুনিতে টুনটুনালো সাত রানির নাক কাঁটালো

Re: সিলেট ভ্রমণ - হরিপুর পরিত্যাক্ত গ্যাস ফিল্ড

RubaiyaNasreen(Mily) লিখেছেন:

এই পাহাড়টা দেখলে আমার খুব কষ্ট হয় ,খনিজ সম্পদের কি অপচয় !!

হুম, ঠিক বলেছেন।
শুনেছিলাম মাধবকুণ্ডের কাছে এমন আরেকটা পরিত্যাক্ত কুপ আছে যেখানে নেপালের কোন এক কোম্পনী তেল তোলার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে। সত্য-মিথ্যা জানা নাই।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: সিলেট ভ্রমণ - হরিপুর পরিত্যাক্ত গ্যাস ফিল্ড

আপনার পোস্টগুলো আসলেই অসাধারন।  smile

আল্লাহ এক, অদ্বিতীয় ও সর্ব শক্তিমান।

Re: সিলেট ভ্রমণ - হরিপুর পরিত্যাক্ত গ্যাস ফিল্ড

আহসান_আল_রাব্বি লিখেছেন:

আপনার পোস্টগুলো আসলেই অসাধারন।  smile

অাপনার কমপ্লিমেন্টের যোগ্য কিনা অামার পোস্টগুলি সে বিষয়ে সন্দেহ থাকলেও অাপনাকে অান্তরিক ধন্যবাদ জানাই প্রিয় রাব্বি ভাই।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।