টপিকঃ ভারতের বিপক্ষ যেমন টেস্ট দল চাই...

লেখাটা শুরু করি স্যার আলেক্স ফার্গুসনের একটা উক্তি দিয়ে- "আক্রমণ ভাগ আপনাকে একটা ম্যাচ জেতাবে কিন্তু শক্তিশালী ও কার্যকর রক্ষণ জেতাবে একটা ট্রফি"

ব্যাপারটা ক্রিকেটে এমন যে, "লম্বা ব্যাটিং লাইন আপ আপনাকে টেস্ট বাঁচাতে হয়তো হেল্প করতে পারে, কিন্তু বোলিং বৈচিত্র্য ছাড়া আপনি ম্যাচ জেতার কথা ভাবতেও পারেন না।"

এবার মূল কথায় আসি। আসছে ভারত সিরিজের আগে বাংলাদেশের একাধিক খেলোয়াড় টেস্ট ড্র করার কথা বলেছে মিড়িয়াতে... hmm আমি জাস্ট অবাক হয়ে যাই এমন কথা শুনে। কেন??

কারণ, যে টিম টেস্ট ড্র করার মানসিকতায় খেলতে নামতে মনস্হির করে বসে থাকে তারা খেলার আগেই মনসত্তাত্বিক ভাবে ম্যাচ হেরে গেছে ধরে নেয়। আর হেরে যাওয়া ম্যাচ ড্র না, ওটা লজ্জাজনক পরাজয়ের কারণ...

এ কারণেই 'বদলে যাওয়া বাংলাদেশের' এমন মানসিকতায় অবাক হয়েছি। আরো অবাক হয়েছি বিরাট কোহলির মত আগাগোড়া আক্রমণাত্নক অধিনায়কের বিপক্ষে রক্ষণাত্নক মানসিকতা নিয়ে টেস্ট কতদিন টিক থাকতে পারবে বাংলাদেশ সেটা ভেবে !

তাই বোলিং বৈচিত্র্য নিয়ে মাঠে নামার পক্ষপাতী আমি। তাতে ম্যাচ না জিতলেও ড্র করা পসিবল। কারণ, বোলিং এ যত বেশি ভেরিয়েশন থাকবে অপনেন্ট টিমের ব্যাটসম্যান ততবেশি ট্রাবল ফিল করবে। আর এটাই আপনাকে ম্যাচ বের করতে হেল্প করবে।

Now come to the point. আমি ভারতের এগেন্সটে পাঁচ ব্যাটসম্যান, দুইজন স্পেশালিস্ট স্পিনার, দুইজন পেসার, দুইজন অলরাউন্ডার খেলানোর পক্ষপাতী.. সেক্ষেত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে থাকবে-
১.তামিম ২. ইমরুল ৩.মমিনুল ৪.মুশফিক ৫.লিটন দাশ

* মুশফিক মে বি উইকেট কিপিং করবে না। আমিও চাই সে কিপিং না করুক। এইক্ষেত্রে লিটন দাশ টিমে ইন করবে ব্যাটসম্যান উইকেট কিপার হিসেবে।

অলরাউন্ডার হিসেবে সাকিব আর সৌম্য প্রথম পছন্দ। কারণটা বলার আগে একটা ব্যাখ্যা দেই-

টেস্টে ৩০/৪০ ওভার বোলিং করে ২/৩ উইকেট আহামরি কিছু না। আর ব্যাটিং এ ৩০/৪০ রান ও আহামরি কিছু না। তাই শুভাগত টিমে অলরাউন্ডার হিসেবে খেলানো হোক তা চাইবো না। কারণ ওর বোলিং এ ভেরিয়েশন নেই। আর ভারত স্পিন ভালো খেলে। সেক্ষেত্রে সৌম্যের মিডিয়াম পেস বরং একটা ভালো অস্ত্র হতে পারে মুশির কাছে। আর সাকিবের কথা আলাদা করে বলার কিছু নেই।

স্পেশালিস্ট স্পিনার: ১. তাইজুল ২. যুবায়ের হোসেন লিখন

তাইজুল তার কার্যকারিতা প্রমাণ করেছে। তাছাড়া ভারতের লম্বা ব্যাটিং লাইন আপের against এ তাইজুলের বোলিং ভেরিয়েশনের বিকল্প দেখছি না।

এবার আসি লিখনের বেলাতে। আমার মতে লিখন বাংলাদেশ ক্রিকেটে একটা গিফট। লেগস্পিন একটা আর্ট । আর লিখনের ঝুলিতে প্রচুর বৈচিত্র্য আছে। গুগলি, ইর্য়কার, ফ্লাইটে ব্যাটসম্যানকে বিভ্রান্ত করে দেয়া জিভে জল এনে দেয়। লিখন এটা জিম্বাবুয়ে সিরিজে করে দেখিয়েছে।

তাই টেস্টে বৈচিত্রময় বোলিং আক্রমণ সাজাতে লিখনের বিকল্প কিছু নেই। আমি ওকে পাঁচদিন ধরে পানি আনা নেয়া করে এটা দেখতে পারবো না। প্রয়োজনে টেস্ট দেখা কুরবানি করে দিবো।

আর পেস বোলিং এ রুবেল শহীদ রসায়ন জমবে বলেই বিশ্বাস রাখছি।

তাহলে সামগ্রিক দল দাঁড়ালো-
1. তামিম
2. ইমরুল
3. মমিনুল
4. মুশফিক
5. লিটন
6. সাকিব
7 সৌম্য
8 লিখন
9 তাইজুল
10 রুবেল
11  শহীদ

শুভ্র

Re: ভারতের বিপক্ষ যেমন টেস্ট দল চাই...

এমন টিমই করবে সম্ভবত। তবে রুবেল টানা ৪দিন ৫ দিন বোলিং করে ইনজুরিতে পড়ে যায় কিনা চিন্তায় আছি neutral

OH DEAR NEVER FEAR SAIF IS HERE
BOSS অর্থাৎ সাইফ
Cloud Hosting BossHostBD

Re: ভারতের বিপক্ষ যেমন টেস্ট দল চাই...

সাইফ দি বস ৭ লিখেছেন:

এমন টিমই করবে সম্ভবত। তবে রুবেল টানা ৪দিন ৫ দিন বোলিং করে ইনজুরিতে পড়ে যায় কিনা চিন্তায় আছি neutral

৪/৫ দিন বোলিং ! আরে না ভাই । একটাই তো মাত্র টেস্ট । খুব বেশি হলে রুবেলকে ৪০ ওভার এর কাছাকাছি  বল করতে হবে। টেস্টে এরকম বোলিং করার মত ফিটনেস ওর আছে। অবশ্য পেস বোলিং এ মেজর রোল প্লে করবে শহীদ.. রুবেল না

শুভ্র