টপিকঃ আমরা কার ক্ষতি করছি

সুজলা-সুফলা, শস্য-শ্যামলা এই বাংলাদেশ। বাঙালী জাতি হিসেবে বীরের জাতি। কষ্ট করে, শ্রম দিয়ে, মেধা-বুদ্ধিমত্তা ও দক্ষতা দিয়ে আজ দেশটাকে এই পর্যায়ে নিয়ে এসেছে। দেশের মানুষ দু-বেলা খেয়ে-পড়ে শান্তিতেই ছিল। কিন্তু এই শান্তি আমাদের অনেকের সহ্য হলো না। তারা শুরু করলো জ্বালাও-পোড়াও, বোমাবাজি, ভাংচুর ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম। দীর্ঘ ৭২ দিন যাবত চলছে অবরোধ-হরতালের মতো চাপিয়ে দেয়া কর্মসূচী। আমাদের বিকাশ-মান অর্থনীতি আজ ধ্বংসের মুখে, আমদানী-রপ্তানি কমে গেছে অনেকাংশে, ব্যাবসা-বাণিজ্য আজ শূন্যের কোঠায়। গার্মেন্টসে রপ্তানির নতুন আদেশ একেবারেই নেই বললে চলে। এভাবে কি একটা দেশ চলতে পারে? আজ বাসে-ট্রেনে পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ পোড়ানো হচ্ছে, সরকারি সম্পদ ধ্বংস হচ্ছে। এদের হাত থেকে গরু-ছাগল, হাঁস-মুরগী পর্যন্ত রেহাই পাচ্ছে না। আজ আমরা কার ক্ষতি করছি? ২০ দলীয় জোট বা বিএনপি কি ভাবছে? যে বাসে পেট্রোল বোমা মারা হচ্ছে সেখানে কি শুধু আওয়ামীলীগের লোক থাকে? পরিক্ষার্থীরা কি শুধু আওয়ামীলীগের, শিক্ষার্থীরা কি শুধু আওয়ামীলীগের? তাহলে খালেদা জিয়া কি জবাব দিবেন। আজ আমাদের আত্ম-সমালোচনার সময় এসেছে। সকলকে ভাবতে হবে এবং এর বিরুদ্ধে এক হয়ে ১৯৭১ সালের মত রুখে দাড়াতে হবে। এদেশটা আমাদের, আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটা সুন্দর দেশ আমাদেরই তৈরি করে রেখে যেতে হবে। আসুন সবাই মিলে আবার একটা মুক্তিযুদ্ধ করি, রাজাকার-আলবদর ও তাদের দোসরদের নিশ্চিহ্ন করি এবং একটা সুন্দর বাংলাদেশ গড়ে তুলি।

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন হাজাম (২২-০৩-২০১৫ ১৯:৫১)

Re: আমরা কার ক্ষতি করছি

আপনি বরাবরই একপেশে পোস্ট করেন, আরেক পাশেরটা দেখেনা না কি বুছেননা, আপনি না দেখলেও জনগন তো দেখে আর বুঝে, আপনার পোস্টি কপি পেস্ট করে উত্তর দিতে চেস্টা করছি, ঠিক আপনার মত করেই

সুজলা-সুফলা, শস্য-শ্যামলা এই বাংলাদেশ। বাঙালী জাতি হিসেবে বীরের জাতি। (সত্য কথা)

কষ্ট করে, শ্রম দিয়ে, মেধা-বুদ্ধিমত্তা ও দক্ষতা দিয়ে আজ দেশটাকে এই পর্যায়ে নিয়ে এসেছে। (দেশটাকে এই পর্যায়ে নিয়ে এসেছে দেশের জনগন, আর একদিনেই পরিবর্তন হয়নি, হয়েছে ধাপে ধাপে)

দেশের মানুষ দু-বেলা খেয়ে-পড়ে শান্তিতেই ছিল। ( দেশের মানুষ যারা দু'বেলা কি হঠাৎ করে খাওয়া শুরু করেছে? আগে চালের কেজি ছিলো ১৮টাকা আর এখন ৫০ টাকার, ১০ টাকায় চাল খাবাবার কথা থাকলেও মানুষ ৫০ টাকায় তা কিনছে)

কিন্তু এই শান্তি আমাদের অনেকের সহ্য হলো না। ( কার সহ্য হলো না? কেন??)

তারা শুরু করলো জ্বালাও-পোড়াও, বোমাবাজি, ভাংচুর ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম। ( জ্বালাও পোড়াও কি আগে হয়নি এই দেশে, নাকি আপনি এত বৎসর পর ঘুম থেকে উঠে, জ্বালাও পোড়াও দেখছেন?)

বিএনপির ভাষ্য

দীর্ঘ ৭২ দিন যাবত চলছে অবরোধ-হরতালের মতো চাপিয়ে দেয়া কর্মসূচী। ( রাজনৈতিক দল সব সময়েই হরতাল আর অবরোধকে তাদের ক্ষমতায় যাবার সিড়ি হিসাবে ব্যাবহার করে আসছে যুগ যুগ ধরে)

আমাদের বিকাশ-মান অর্থনীতি আজ ধ্বংসের মুখে, আমদানী-রপ্তানি কমে গেছে অনেকাংশে, ব্যাবসা-বাণিজ্য আজ শূন্যের কোঠায়। গার্মেন্টসে রপ্তানির নতুন আদেশ একেবারেই নেই বললে চলে। এভাবে কি একটা দেশ চলতে পারে? ( সরকারী দল প্রতিদিন বলছে, হরতার আর অবরোধ হচ্ছে না সবই স্বাভাবিক, সবই যদি স্বাভাবিক হবে তবে অর্থনীতি ধ্বংশ হবে কেন? এটা দ্বি-মুখী কথা নয়কি?)

আজ বাসে-ট্রেনে পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ পোড়ানো হচ্ছে, সরকারি সম্পদ ধ্বংস হচ্ছে। এদের হাত থেকে গরু-ছাগল, হাঁস-মুরগী পর্যন্ত রেহাই পাচ্ছে না। আজ আমরা কার ক্ষতি করছি? ২০ দলীয় জোট বা বিএনপি কি ভাবছে? যে বাসে পেট্রোল বোমা মারা হচ্ছে সেখানে কি শুধু আওয়ামীলীগের লোক থাকে? পরিক্ষার্থীরা কি শুধু আওয়ামীলীগের, শিক্ষার্থীরা কি শুধু আওয়ামীলীগের? তাহলে খালেদা জিয়া কি জবাব দিবেন। আজ আমাদের আত্ম-সমালোচনার সময় এসেছে। ( প্রতিদিনের পত্রিকা পড়লেই দেখবেন কারা আগুন দিচ্ছে আর আপনি যদি চান কিছু সংবাদের লিংক দিতে পারি আর আগুন দিলে কোন দলের লাভ আর কোন দলের ক্ষতি তা চিন্তা করলেই বুঝতে পারবেন আর যারা আগুন দিচ্ছে ধরে তাদেরকে ফাসিঁ দেয়া হচ্ছে না কেন?)


http://www.sheershanews.com/2015/02/10/68437

http://www.banglamail24.com/news/2015/02/05/id/144749/

http://insidebd.net/news/2015/02/10/details/4627

http://www.sheershanews.com/2015/02/10/68398/print


সকলকে ভাবতে হবে এবং এর বিরুদ্ধে এক হয়ে ১৯৭১ সালের মত রুখে দাড়াতে হবে। এদেশটা আমাদের, আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটা সুন্দর দেশ আমাদেরই তৈরি করে রেখে যেতে হবে। ( দেশ জনগনের কোন একটি গোস্টির নয়, যে তাদের মতের বাহিরে যারা থাকবে তাদেরকে কথা বলতে দেয়া হবে না, দেশের মানুষ মুক্তি চায়, দেশের মানুষ শান্তি চায়, দেশের মানুষের নিরাপত্তা দিবার দায়িত্ব কার? আর সে যদি নিরাপত্তা দিতে ব্যার্থ হয় তবে তার কি ব্যার্থতার দায়ে ক্ষমা চাওয়া উচিৎ নয় কি?)

আসুন সবাই মিলে আবার একটা মুক্তিযুদ্ধ করি, রাজাকার-আলবদর ও তাদের দোসরদের নিশ্চিহ্ন করি এবং একটা সুন্দর বাংলাদেশ গড়ে তুলি। ( অবশ্যই রাজাকার-আলবদর ও তাদের দোসরদের নিশ্চিহ্ন করি যাতে এই নিয়ে সব কিছুতেই রাজনীতি করার সুযোগ আর কেহ না পায়, যত দিন রাজাকার-আলবদরা এই দেশে থাকবে ততদিন এই দেশে সুবিধাবাধিরা আরো সুবিধা নিবে জনগনকে বোকাবানিয়ে)