টপিকঃ মাটি বাবা'র বিয়ে

সারা রাত জেগে জেগে সকালে মাত্র ঘুমিয়েছি। এমন সময় আম্মার ফোন। ধরতেই কোন ভূমিকা না করে সরাসরি বললেন, "বহুত হইছে আর না। এইবার কোন কথা শুনব না। আমি তোর বিয়ে ঠিক করছি। আগামী ১৯ তারিখ বিয়ে। ডেট ফাইনাল।"
প্রথমে ভাবলাম, ঘুমের মধ্যে মনে হয় স্বপ্ন দেখতেছি। পারে দেখি না, আসলেই সত্য। কোন মতে উত্তর দিলাম, "হটাত কোরবানির আগেই আমাকে কোরবানি করার ইচ্ছা জাগল কেন?" আম্মা একের পর এক কারণের তোপ বর্ষাতে লাগলেন আর আমি শুনতে শুনতে ভাবলাম, "আসলেই। বয়স তো কম হল না। এখন না বিয়ে করলে কখন......................? তাছাড়া বিয়ে ব্যাপারটা মানে হয় খারাপ না। অরুণ দা, আর উদা দা আর পলু দা ছাড়া প্রায় সবাই করছে। আমিও বাদ থাকি কেন?"  একটু আমতা আমতা করে রাজি হয়ে গেলাম। আম্মা জিজ্ঞেস করল, "তুই পাত্রী দেখবি না?" আমি বললাম, "আপনি দেখলেই চলবে। আপনার পছন্দই আমার পছন্দ।"

গল্পের শুরু এভাবেই। এরপর সারাদিন ফোনের পর ফোন। এবং তাদের মূল বক্তব্য-
ছোট কাকা: শুনলাম তুমি নাকি মেয়ে দেখতে চাও না। মেয়ে অনেক সুন্দর। তোমার পছন্দ হবেই। আমাদের খুব পছন্দ হইছে।
ছোট চাচী: আমরা সবাই দেখছি। কোন সমস্যা নাই। খুব সুন্দরী। ছবি তুলে পাঠিয়ে দিব।
বড় দুলাভাই: এখনও বল, তোর কোন পছন্দ আছে নাকি? পছন্দ থাকলে বিয়ে ক্যান্সেল.....
মেঝ আপা: এত তারাহুরা করে বিয়ের আয়োজন। ঘটনা কি রে? মেয়ের কোন সমস্যা নাই তো?
শিষ্য ১: স্যার, আপনার বিয়েতে তো ফারুক থাকতে পারল না। বলছিলাম, আমাদের তিন জনের কারো না কারো আপনার বিয়েতে থাকা হবে না।
শিষ্য ২: এইটা কি বলেন স্যার। আপনি কিভাবে বুঝলেন, এই বিয়ে হবে না। (ও খুশি মনে আমাকে বিয়ের সংবাদ দিতে গেছিল। আমি বলছি, নো চিন্তা। এই বিয়ে হবে না। ও বলে কেন? বললাম- মাটি বাবার ভবিষ্যতবাণী।)
শিষ্য ৩: স্যার, আমারে রেখেই বিয়ে করতে যাবেন। আফসুস!! বিরাট আফসুস.....................


পরের দিন আবার আবার সারা রাত জেগে সকাল বেলা ঘুমিয়েছি। এমন সময় আবার ফোন....। বিরক্ত হয়ে জিগাইলাম, "কে?" বলে, "জিয়া ভাইয়া?" বললাম, "হুম। তুমি কে?"
"আমাকে আপনি চিনবেন না। আপনাকে কিছু কথা বলতে চাই।" ওপাশ থেকে উত্তর এলো। বললাম, "বলে ফেল। নো প্রবলেম....."
"ভাই, দুনিয়ায় এত মেয়ে থাকতে আমার বউরে আপনার পছন্দ হইল? আমার বউরে বিয়ে করবেন? কথা শুনে একটা হোঁচট খেলেও মুহূর্তেই সামলে নিলাম নিজেকে। সুবোধ বালকের মত বললাম, "আপনি কার কথা বলতেছেন? (তুমি থেকে আপনি  smile  )"
"রুমির কথা। ভাই ২০১২ সালে আমি আর রুমী পালায়া বিয়ে করছি.............।" পোলার কথা শুনে আমি তো টাশকিত। কি আর করি! বললাম "ভাই, অন্যের বউয়ের সাথে পরকীয়া করার ইচ্ছা ছিল (১০০% মিছা কথা)। অন্যের বউরে বিয়ে করার কথা তো ভাবি নাই। ভেবে দেখতে হবে। আপনি বরং একটা কাজ করুন, আপনার বিয়ের প্রমাণপত্র নিয়ে জলদি আমার সামনে হাজির হয়ে যান। সময় খুবই কম। বেশি দেরী করলে কিন্তু বউ হারাতে পারেন।" ছেলে সন্ধ্যায় দেখা করবে বলে কথা দিল। আমি হালকার উপর ফোন দিয়ে বিবাহের ঘটক কে বিষয়টা জানায়া দিলাম।



ছেলেটারে দেখেই মায়া লাগল। কি নিরীহ এবং পিচ্চি পোলা। এখনও গ্রাজুয়েশন শেষ করে নাই। তারপরও বিয়ে নামের জটিল ফাঁদে পা দিয়ে বসে আছে। বললাম, "বল তোমার কি বলার আছে?" (দেইখাই আবার আপনি থেকে তুমিতে ফিরে গেছি।)
ছেলেটা যা বলল তার মূল বক্তব্য, "আমার ক্লাস ফাইভ থেকে একে অপরকে পছন্দ করতাম (ব্যাটা, প্রাইমারীর গণ্ডি পার না হয়েই প্রেম করছস। এখন বোঝ ঠেলা)। আমরা গরীব বলে ওর ফ্যামিলি'র মত ছিল না। (বাংলা ছবির পুরাণ কাহিনী)। তাই এইসএসসি পাশ করার পর ঢাকায় পরীক্ষা দিতে এসে আমরা বিয়ে করি। এরপর ৬ মাস একসাথে ছিলাম। (এরপর যে বাড়িতে ছিল, সেই বাড়ির ঠিকানা দিল আমাকে)। এখন ওর ফ্যামিলি থেকে বিয়ে ঠিক করেছে। অসুস্থ বাবা আগের বিয়ের কথা শুনলে স্ট্রোক করতে পারে এই ভয়ে সে বলতেছে না (পারফেক্ট বাংলা সিনেমার প্লট)। ভাই, ওরে ছাড়া আমি বাঁচব না। আপনি এই কাজ কইরেন না।" আমি বললাম, "ওক্কে, করব না। বিয়ের কাবিন নামা দেখাও।" বলে, "ভাই, কাবিন নামা গ্রামে। আমার মোবাইলে দুজনার ছবি আছে। মেসেজ আছে......। দেখেন...................।"
আমি বললাম, "ছবি কোন প্রমাণ হল। তোমার ছবি দাও। ১০ মিনিটে ঐশ্বরিয়ারে চিপকাইয়া ধরে আছ এমন ছবি বানায়া দিচ্ছি।(মাহমুদ রাব্বী ওরফে ছিন্নমূল ওরফে ভেজা বিড়াল ওরফে...................... ভাই, ঐশ্বরিয়ার নাম নেয়ায় আমি দুঃখিত। আপনি আবার ক্ষেইপেন না।) আর এসএমএস..... হতে পারে তোমার সাথে প্রেম ছিল। আমি তো বলছি, তোমার বউরে বিয়ে করব না। তোমার প্রেমিকারে বিয়ে করব না, তা তো বলি নাই।" শুনে পোলার মুখে কোন কথা নাই........ টানা ৫ মিনিট চুপ করে বসে থাকল........। তারপর বলে, আমি ফোন দেই ...... আপনি লাউড স্পীকারে কথা শোনেন। আমি বললাম, "হবে না। আমি তো বলছি, তোমার প্রেম থাকতেই পারে। তুমি সেটা মনে করায়া দিয়ে ব্ল্যাক মেইল করতে পার। আমি খুব উদার মাইন্ডের ছেলে। অন্যের প্রেমিকাকে বিয়ে করতে আমার কোন আপত্তি নাই। তবে অন্যের বউকে বিয়ে করতে আপত্তি আছে.......।" ছেলেটা বলল, "তাইলে আমাকে কিভাবে প্রমাণ করতে হবে?" আমি বললাম, "বিয়ের রেজিস্ট্রেশন দেখাও। অথবা ঐ মেয়ের যে নম্বর আমাকে দেয়া হয়েছে সেই নম্বর থেকে ফোন করে আমাকে বলতে বল, সে বিয়েতে রাজি নয়। তাহলেই হবে.........." ছেলেটা ওক্কে বলে চলে গেল। যাবার আগে বলে গেল, আমি ঘটককে জানিয়েছি এতেই তাদের বাড়িতে এক দফা আক্রমণ হয়ে গেছে। আমার সাথে দেখা করেছে শুনলে ওকে মেরেই ফেলবে। তাই সেটা যেনো কাউকে না বলি।


সন্ধ্যায় ঘটক আমকে ফোন দিল। দিয়ে উচ্ছ্বাসিত কণ্ঠে বলতেছে, "সব ভুয়া। ঐ ছেলে একটা ফ্রড। ঐ ছেলের সাথে কোন সম্পর্ক নাই। আমি এই মাত্র । ছেলের বাড়ি থেকে খবর নিয়ে এলাম। তুই চাইলে ছেলের বাবার সাথে কথা বলতে পারিস।" আমি বললাম, "ভাই, একটু ব্রেক দেন। আমি খালি আপনাকে বলছি একটা ছেলে ফোন দিছিল। সেই ছেলের  নামও আমি জানি না। আপনাদের বলি নাই। বাড়ি কোথায়, তাও বলি নাই। আপনি সোজা সেই ছেলের বাড়িতে ক্যামনে গেলেন? কাহিনী কি সেইটা খুলে কন?"  এইবার ঘটক ভাই আমতা আমতা শুরু করল। বলে না, ছেলে ডিস্টার্ব করত...... হ্যান ত্যান সাত সতের....................... ব্লা ব্লা...................। আমি বললাম, "ভাই টেনশন নিয়েন না। যা বোঝার বুঝে নিছি। রাতে আমি মেয়ের সাথে কথা বলব। যা শোনার তার কাছেই শুনব।"

রাত ৯ টা। আমার জীবনের ট্র্যাজিক কাহিনী শুরু। নম্বর টিপে ফোন দিলাম.... রিং হয়। কেউ ধরে না। আবার দিলাম.... এইবার একটা মেয়ে ধরে সালাম দিয়ে কে জানতে চাইল। বললাম, "কে, সেটা জানা কি খুব জরুরী?" বলে,"হ্যাঁ। অপরিচিত কারো সাথে আমি কথা বলব কেন?"
- "কথা বলতে বলতেই তো মানুষ পরিচিত হয়।"
- "তা হয়ত। তবে আপনি কে না বললে ফোন কেটে দিব।
- আমি? আমি হলাম সেই যে আপনাকে সারা জীবন জ্বালাবে এমন লাইসেন্স দেবার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে আপনার অভিভাবকরা। (আরি শ্লা, নিজের ডায়লগে নিজেই মুগ্ধ হয়ে গেলাম। মেয়েদের সাথে কথা বলতে পারব না, ভেবে সারা জীবন দূরে থাকতাম। এখন দেখি ভালই ডায়লগ মারতে পারি। ) বুঝেছেন, কে আমি?
- হুম...............

এরপর...... এরপর না বলি........
চাঁদনী রাত.....সুপার মুনের সুপার আলোয় রোমান্টিক আলোচনা......... কিন্তু মেয়ে তো না করে না। তার না না করার কথা ছিল। (সেই ছেলে বলছিল, কথা হয়েছে। রাতে আমি ফোন করলেই না করে দেবে।)। আমি ঐ ছেলের কথা বলতেই আমাকে সুন্দর করে যা বলল, "পৃথিবীতে আমিই তো একমাত্র মেয়ে না, যে আপনাকে আমাকেই বিয়ে করতে হবে। আপনি খোঁজ নিন। । ছেলের কাছে বিয়ের প্রমাণ দেখতে চান। যদি দেখাতে পারে, আমাকে বিয়ে করবেন না। আর যদি আপনার মন থেকে সন্দেহ দুর হয় তবেই বিয়ে কইরেন। তবে একটা কথা, কোনদিন এই বিষয়টা তুলে আমাকে খোঁটা দিতে পারবেন না।"

রাতেই সেই ছেলেকে আবার ফোন দিলাম। ফোন বন্ধ। বাধ্য হয়ে সেই ছেলের দুলাভাই কে ফোন দিলাম (দুলাভাই আমার পরিচিত এবং তার মাধ্যমেই আমারে সাথে যোগাযোগ করছে।) এবং বললাম, মেয়ে অস্বীকার করে এবং এই বিয়েতে তার অমত নাই। এখন বলেন, কাবিন নামা কখন দেখাবেন? ওর দুলাভাই বলল, "ভাই আমি তো কিছু বুঝতেছি না। ওর ফোন বন্ধ। কাল আপনার সাথে কথা বলব...................."


আবার সারা রাত জেগে সকালে ঘুমাতে যাওয়া এবং যথারীতি ফোনের শব্দে ঘুম ভাঙ্গা........ এবার ফোন দিয়েছে ছোট কাকা। তিনি সাত সকালে আমাকে হৃদয় বিদারক একখানা নিউজ দেবার জন্য ফোন দিয়েছেন.....। আসলে ঘটনা সত্য...... ঐ ছেলে যে বাড়ির ঠিকানা দিয়েছে সেই বাড়িওয়ালা আমাদের পরিচিত। তিনি নিশ্চিত করেছেন, ঐ মেয়ে ৩ মাস ঐ ছেলের সাথে ঐ বাড়ি ভাড়া করে ছিল। সবচেয়ে ভয়ঙ্কর খবর হল, তখনও বিয়ের ডকুমেন্ট দেখাতে না পারায় বাড়িওয়ালা ৩ মাস পর ঐ দম্পতিকে বাড়ি থেকে বের করে দেয় এবং মেয়ের ভাই গিয়ে মেয়েকে ঐ বাড়ি থেকে নিয়ে আসে।


বাকি ঘটনা আপনারা বুঝে নেন। খালি আমি এইটুক বুঝতে পারছি না, "দেশ কি এতটাই এগিয়ে গেছে যে গ্রামের মেয়েরাও লিভ টুগেদার করতে শুরু করল?" আর পরিশেষে জাতির বিবেকের কাছে প্রশ্ন: "উদা দা, অরুণ দা আর পলাশ ভাই কি ঠিক ট্রাকে আছেন? আমার কি উচিৎ না, তাদের সাথে সঙ্গী হওয়া?


নোট: এই লেখাটা পলাশ ভাই এবং রহস্য মানব ভাইয়ের জন্য। তাদের অনুরোধে ঢেঁকি গিললাম।

হুজুর কইছে, "কোরআন শরীফে আছে- তোমরা নামাজ থেকে বিরত থাক।" আমি তাই নামাজ পড়ি না। হুজুর যদি ইচ্ছা করে "অপবিত্র অবস্থায়" শব্দ দুটো বাদ দেয়, তার জন্য তো আমি দায়ী না।

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

পুরাই বাংলা সিনামা। সাবিক খান নায়ক হলে ছিনামা সুপার হিট!


যাই হোক, আপনি খুব লাকি যে ঠিক সময়ে ঠিক ঘটনাটি ঘটছে। বেঁচে গেছেন। এরপর থেকে আপনার মা, কাকা, বোনদের বলেন সুন্দরী না ভাল মেয়ে দেখতে। দোয়া করি চমৎকার একটা মেয়ের সাথে আপনার দ্রুত বিবাহ হোক। প্রায় রাতে এই হলেও হতে পারত বিয়ে কথা বলে আপনি তাকে জ্বালান।

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ছিন্নমূল (১২-০৯-২০১৪ ০১:১২)

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

মাটি ভাই লিখেছেন:

বাকি ঘটনা আপনারা বুঝে নেন। খালি আমি এইটুক বুঝতে পারছি না, "দেশ কি এতটাই এগিয়ে গেছে যে গ্রামের মেয়েরাও লিভ টুগেদার করতে শুরু করল?

এটা কিন্তু সত্যি। দেশে এখন অনেকে লিভ টুগেদার করে। ঢাকাতে এমন জুটি আছে ভুরি ভুরি তবে গ্রামের মেয়েরা এইসব করে কিনা এখনো জানি না। জানলে ফোরামে আপনাকে জানাবো।  tongue

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

দিনকাল যা পড়েছে, আগে থেকেই ঠিক করে না রাখলে এমন ঝামেলায় তো পড়তেই হবে tongue_smile

ইট-কাঠ পাথরের মুখোশের আড়ালে,
বাধা ছিল মন কিছু স্বার্থের মায়াজালে...

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

ছায়ামানব লিখেছেন:

দিনকাল যা পড়েছে, আগে থেকেই ঠিক করে না রাখলে এমন ঝামেলায় তো পড়তেই হবে tongue_smile

আগে থেকে ঠিক করে রেখে যে আরও বড় ঝামেলায় পরবেন না তার গ্যারিন্টি কোথায়?

ফোরামের ইচড়ে পাকা পোলাপানদের দেখেন। অথবা মাটি বাবার "হলেও হতে পারত" বউয়ের "হয়তো বা" স্বামীর কথা চিন্তুা করেন। তাদের ঝামেলা কি কম? জাতিগত ভাবেই আমরা অবক্ষয়ের মুখোমুখি, পালিয়ে বাঁচার উপায় নেই।

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

বাংলারমাটি লিখেছেন:

বাকি ঘটনা আপনারা বুঝে নেন। খালি আমি এইটুক বুঝতে পারছি না, "দেশ কি এতটাই এগিয়ে গেছে যে গ্রামের মেয়েরাও লিভ টুগেদার করতে শুরু করল?" আর পরিশেষে জাতির বিবেকের কাছে প্রশ্ন: "উদা দা, অরুণ দা আর পলাশ ভাই কি ঠিক ট্রাকে আছেন? আমার কি উচিৎ না, তাদের সাথে সঙ্গী হওয়া?

উদাদা, অরুনদা আর পলাশ ভাইয়ের খাতায় নাম লিখান!  cool সেটাই সবচেয়ে ভাল  tongue_smile

লিভ-টুগেদার এখন ডাল-ভাত হয়ে গেছে! কি গ্রামে কি শহরে! স্কুল লাইফে থাকতে এমন কাহিনী  গ্রামে দেখে আসছি! এখন'ত আরো বাড়ছে!  sleeping ঢাকায় এসে মনে হইল  আমরা শহরের পোলাপাইন এখন একটু পিছায় আছি! tongue বেশি না এই একটু tongue

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ছিন্নমূল (১২-০৯-২০১৪ ০৩:৫৯)

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

Jol Kona লিখেছেন:

লিভ-টুগেদার এখন ডাল-ভাত হয়ে গেছে! কি গ্রামে কি শহরে! স্কুল লাইফে থাকতে এমন কাহিনী  গ্রামে দেখে আসছি! এখন'ত আরো বাড়ছে!  sleeping ঢাকায় এসে মনে হইল  আমরা শহরের পোলাপাইন এখন একটু পিছায় আছি! tongue বেশি না এই একটু tongue

এখন আমি গ্রাম আর শহরের মধ্যে তেমন পার্থক্য দেখি না। গ্রামেরগুলা মনে হয় আরো বেশি পাকনা। আমি গ্রামে গিয়েছিলাম। কি সব অশ্লীল কথা বলে গ্রামের ভাবীরা। এদের স্বামী থাকে বিদেশে। আর এরা গ্রামে বসে অশ্লীল কাজ করে। ছিঃ এসব কথা মুখে আনতেও তো লজ্জা লাগে।  roll

শুধু ঢাকায় না, পুরা বাংলাদেশে এই ব্যাপার ডাল ভাত হয়ে গেছে। ফেসবুকে নিউজ সাইটের কমেন্টে পর্যন্ত পার্টনার খুঁজে। আমি ফেসবুকে ছবি আপলোড করা পরে তিনটা মেয়ে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়েছে। আবার ফোন নাম্বার, ঠিকানা দিয়ে একটা মেয়ে বলে 'মজা হবে'। ছিঃ ছিঃ  donttell


ঢাকায় মধ্যবিত্ত ঘরের যুবক যুবতীরাই লিভ টুগেদারে বেশি আগ্রহী



রাজধানী ঢাকায় অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধির পেছনে অন্যতম একটি কারণ হচ্ছে যুবক-যুবতীদের মধ্যে বিয়েবহির্ভুত সম্পর্ক। অর্থাৎ ‌‌‌লিভ টুগেদার’। বাঙালি সমাজে পাশ্চাত্যের তথাকথিত এই সভ্যতার অনুপ্রবেশ ঘটায় লিভ টুগেদারে মধ্যবিত্ত ঘরের যুবক-যুবতীরাই বেশি আগ্রহী হয়ে উঠছেন।

গ্রাম থেকে আসা কর্মজীবী অনেক নারী-পুরুষ ঢাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয়ে বছরের পর বছর বসবাস করছেন। এদের তালিকায় কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া অনেক শিক্ষার্থীও রয়েছেন। সমাজবিজ্ঞানীদের গবেষণা ও দীর্ঘ অনুসন্ধানে ফুটে উঠেছে এই চিত্র।


কেস ষ্টাডি-১. এ রকম এক জুটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন। একই বিভাগে, একই ক্লাসে পড়তেন। গভীর বন্ধুত্ব তখন থেকেই। দু’জনই মেধাবী। রেজাল্টও ভাল। বন্ধুটি এখন ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক।

বান্ধবী পিএইচডি করছেন, এখনও শেষ হয়নি। থাকছেন বনানী এলাকার একটি অভিজাত ফ্ল্যাটে। ফ্ল্যাটটিও নিজেদের। লিভ টুগেদার করছেন। নিজেরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিয়ে করবেন না। দু’জনই চেষ্টা করছেন ইউরোপের একটি দেশে যেতে। তাঁরা দুজনই বিত্তবান ঘরের সন্তান।

কেস ষ্টাডি-৩. একটি মেডিকেল কলেজের শেষবর্ষে পড়াশোনা করছেন তাঁরা। বসবাস করছেন ধানমন্ডির একটি ফ্ল্যাটে। ছেলেমেয়ে দুজনই ধনাঢ্য পরিবারের। দু’বছর ধরে লিভ টুগেদার করছেন। পড়শিরা জানে, স্বামী-স্ত্রী। অন্যদের সঙ্গে সেভাবেই নিজেদের পরিচয় দেন।

http://hello-today.com/%E0%A6%A2%E0%A6% … 1%E0%A6%AC

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

খুবই মর্মান্তিক কান্ডুকারখানা  sad
মেয়েকে বাদ দিয়ে খুবই খারাপ কাজ করেছেন, আপনার বিয়ে করে ফেলা উচিত ছিলো। শত হইলেও অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ছিলো। সবকিছুতেই এখন অভিজ্ঞতার বিশাল চাহিদা  tongue

আমাকে কোথাও পাবেন না।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন RubaiyaNasreen(Mily) (১২-০৯-২০১৪ ০৯:২০)

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

ছিন্নমূল লিখেছেন:
Jol Kona লিখেছেন:

লিভ-টুগেদার এখন ডাল-ভাত হয়ে গেছে! কি গ্রামে কি শহরে! স্কুল লাইফে থাকতে এমন কাহিনী  গ্রামে দেখে আসছি! এখন'ত আরো বাড়ছে!  sleeping ঢাকায় এসে মনে হইল  আমরা শহরের পোলাপাইন এখন একটু পিছায় আছি! tongue বেশি না এই একটু tongue

এখন আমি গ্রাম আর শহরের মধ্যে তেমন পার্থক্য দেখি না। গ্রামেরগুলা মনে হয় আরো বেশি পাকনা। আমি গ্রামে গিয়েছিলাম। কি সব অশ্লীল কথা বলে গ্রামের ভাবীরা। এদের স্বামী থাকে বিদেশে। আর এরা গ্রামে বসে অশ্লীল কাজ করে। ছিঃ এসব কথা মুখে আনতেও তো লজ্জা লাগে।  roll

শুধু ঢাকায় না, পুরা বাংলাদেশে এই ব্যাপার ডাল ভাত হয়ে গেছে। ফেসবুকে নিউজ সাইটের কমেন্টে পর্যন্ত পার্টনার খুঁজে। আমি ফেসবুকে ছবি আপলোড করা পরে তিনটা মেয়ে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়েছে। আবার ফোন নাম্বার, ঠিকানা দিয়ে একটা মেয়ে বলে 'মজা হবে'। ছিঃ ছিঃ  donttell



ঢাকায় মধ্যবিত্ত ঘরের যুবক যুবতীরাই লিভ টুগেদারে বেশি আগ্রহী

http://hello-today.com/wp-content/uploads/2014/04/7730-300x245.jpg?3fb82c

রাজধানী ঢাকায় অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধির পেছনে অন্যতম একটি কারণ হচ্ছে যুবক-যুবতীদের মধ্যে বিয়েবহির্ভুত সম্পর্ক। অর্থাৎ ‌‌‌লিভ টুগেদার’। বাঙালি সমাজে পাশ্চাত্যের তথাকথিত এই সভ্যতার অনুপ্রবেশ ঘটায় লিভ টুগেদারে মধ্যবিত্ত ঘরের যুবক-যুবতীরাই বেশি আগ্রহী হয়ে উঠছেন।

গ্রাম থেকে আসা কর্মজীবী অনেক নারী-পুরুষ ঢাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয়ে বছরের পর বছর বসবাস করছেন। এদের তালিকায় কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া অনেক শিক্ষার্থীও রয়েছেন। সমাজবিজ্ঞানীদের গবেষণা ও দীর্ঘ অনুসন্ধানে ফুটে উঠেছে এই চিত্র।


কেস ষ্টাডি-১. এ রকম এক জুটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন। একই বিভাগে, একই ক্লাসে পড়তেন। গভীর বন্ধুত্ব তখন থেকেই। দু’জনই মেধাবী। রেজাল্টও ভাল। বন্ধুটি এখন ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক।

বান্ধবী পিএইচডি করছেন, এখনও শেষ হয়নি। থাকছেন বনানী এলাকার একটি অভিজাত ফ্ল্যাটে। ফ্ল্যাটটিও নিজেদের। লিভ টুগেদার করছেন। নিজেরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিয়ে করবেন না। দু’জনই চেষ্টা করছেন ইউরোপের একটি দেশে যেতে। তাঁরা দুজনই বিত্তবান ঘরের সন্তান।

কেস ষ্টাডি-৩. একটি মেডিকেল কলেজের শেষবর্ষে পড়াশোনা করছেন তাঁরা। বসবাস করছেন ধানমন্ডির একটি ফ্ল্যাটে। ছেলেমেয়ে দুজনই ধনাঢ্য পরিবারের। দু’বছর ধরে লিভ টুগেদার করছেন। পড়শিরা জানে, স্বামী-স্ত্রী। অন্যদের সঙ্গে সেভাবেই নিজেদের পরিচয় দেন।

http://hello-today.com/%E0%A6%A2%E0%A6% … 1%E0%A6%AC


আপনার এই কথার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি তার আগে বলেন ঢাকার মেয়ে বলতে আপনি কি বুঝাচ্ছেন? এসব কাজ করার সাহস তারাই পায় যারা ঢাকায় পরিবার ছাড়া থাকে ।তার মানে গ্রাম বা মফঃস্বল থেকে যারা আসে । বাতিক্রম আছে তবে ঢালাও ভাবে বলা ঠিক না ।

এক টুনিতে টুনটুনালো সাত রানির নাক কাঁটালো

১০

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

RubaiyaNasreen(Mily) লিখেছেন:

আপনার এই কথার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি তার আগে বলেন ঢাকার মেয়ে বলতে আপনি কি বুঝাচ্ছেন? এসব কাজ করার সাহস তারাই পায় যারা ঢাকায় পরিবার ছাড়া থাকে ।তার মানে গ্রাম বা মফঃস্বল থেকে যারা আসে । বাতিক্রম আছে তবে ঢালাও ভাবে বলা ঠিক না ।

জাস্ট ইগনোর হিম smile

ইট-কাঠ পাথরের মুখোশের আড়ালে,
বাধা ছিল মন কিছু স্বার্থের মায়াজালে...

১১

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

খুবই ট্রাজিক ঘটনা  brokenheart

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১২

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

RubaiyaNasreen(Mily) লিখেছেন:

আপনার এই কথার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি তার আগে বলেন ঢাকার মেয়ে বলতে আপনি কি বুঝাচ্ছেন? এসব কাজ করার সাহস তারাই পায় যারা ঢাকায় পরিবার ছাড়া থাকে ।তার মানে গ্রাম বা মফঃস্বল থেকে যারা আসে । বাতিক্রম আছে তবে ঢালাও ভাবে বলা ঠিক না ।

দুঃখিত যদি কষ্ট দিয়ে থাকি। আমি আসলে তিক্ত অভিজ্ঞতা থেকেই বলছি। আসলে ঢাকার মেয়ে বা গ্রামের মেয়ে এভাবে বিভাজন করে না বলে বর্তমানে 'আধুনিক' মেয়েরা বলাই ভালো। আপনি জানেন কিনা, সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদন অনুসারে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ৭০ শতাংশ টিনেজার (ছেলে / মেয়ে) শুধু ...... পার্টনার খুঁজে। ব্যাপারটা শুধু বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে না, বিশ্ব প্রেক্ষাপটে বাস্তবতা। হেটেরো, হোমো, মেট্রো সব টাইপের ছেলে মেয়েই এসব করছে।

ঢাকায় লিভ টুগেদার, কোথাও ফ্যাশন, কোথাও নীল দংশন

বিয়ে ছাড়া দাম্পত্য সম্পর্ক তৈরি করার ক্ষেত্রে আগ্রহ বাড়ছে নগরীতে। এভাবে যারা জুটি গড়ছেন- তাদের মধ্যে ব্যবসায়ী, শিল্পপতি, চাকরিজীবী যেমন আছে, তেমনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর, ছাত্রছাত্রী, সাংস্কৃতিক জগতের অনেকেই রয়েছেন। রয়েছেন শিল্পী, সাহিত্যিকও।

http://www.somewhereinblog.net/blog/geo … n/29464389

১৩

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

হাসতে হাসতে মইরা গেলাম  lol2 lol2 lol2 lol2

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

১৪

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

@ছিন্নমূল
আপনি "লিভিং রিলেশনশীপ" ও মিউচুয়াল সেক্স কে এক সাথে গুলিয়ে ফেলছেন।

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১৫

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

বড় বাঁচা বেঁচে গেছেন মাটি ভাই।  hug

ধর্ম সঠিকভাবে মেনে না চলায় সমাজে নৈতিক অবক্ষয় চরম আকার ধারন করেছে। sad

১৬

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

আরণ্যক লিখেছেন:

যাই হোক, আপনি খুব লাকি যে ঠিক সময়ে ঠিক ঘটনাটি ঘটছে। বেঁচে গেছেন। এরপর থেকে আপনার মা, কাকা, বোনদের বলেন সুন্দরী না ভাল মেয়ে দেখতে। দোয়া করি চমৎকার একটা মেয়ের সাথে আপনার দ্রুত বিবাহ হোক। প্রায় রাতে এই হলেও হতে পারত বিয়ে কথা বলে আপনি তাকে জ্বালান।

আসলেই - একটা ভাল/চমৎকার মেয়ে খোঁজা দরকার। ধন্যবাদ, আপনার চমৎকার পরামর্শের জন্য।

ছায়ামানব লিখেছেন:

দিনকাল যা পড়েছে, আগে থেকেই ঠিক করে না রাখলে এমন ঝামেলায় তো পড়তেই হবে

উত্তর আগেই পেয়েছেন, তবুও বলছি। ঐ ছেলে যার সাথে মেয়েটার সম্পর্ক ছিল, সে তো ঠিক করেই রেখেছিল। তার এখন কি হবে?

Jol Kona লিখেছেন:

লিভ-টুগেদার এখন ডাল-ভাত হয়ে গেছে! কি গ্রামে কি শহরে! স্কুল লাইফে থাকতে এমন কাহিনী  গ্রামে দেখে আসছি! এখন'ত আরো বাড়ছে!  sleeping ঢাকায় এসে মনে হইল  আমরা শহরের পোলাপাইন এখন একটু পিছায় আছি! tongue বেশি না এই একটু tongue

আল্লাহ ভাল জানেন, কপালে কি আছে!!! এত ভয় দেখান কেন?

পলাশ মাহমুদ লিখেছেন:

মেয়েকে বাদ দিয়ে খুবই খারাপ কাজ করেছেন, আপনার বিয়ে করে ফেলা উচিত ছিলো। শত হইলেও অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ছিলো। সবকিছুতেই এখন অভিজ্ঞতার বিশাল চাহিদা

ঠিক আছে, আপনার বিয়ের সময় আমরাও অভিজ্ঞতা সম্পন্ন রেডিমেড ২/৩ বাচ্চার আম্মাকে আপনার বউ হিসেবে সিলেক্ট করব। আশাকরি তার এই ব্যপক অভিজ্ঞতার সঠিক দাম আপনি দিবেন। smile

RubaiyaNasreen(Mily) লিখেছেন:

এসব কাজ করার সাহস তারাই পায় যারা ঢাকায় পরিবার ছাড়া থাকে ।তার মানে গ্রাম বা মফঃস্বল থেকে যারা আসে । বাতিক্রম আছে তবে ঢালাও ভাবে বলা ঠিক না ।

আমি আপনার সাথে একমত..... পরিবারের বাইরে থাকা মেয়েরাই এ ধরণের কাজে বেশি লিপ্ত বলে আমিও মনে করি।

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

খুবই ট্রাজিক ঘটনা  brokenheart

আর বইলেন না, ভাবতেও চোক্ষে পানি চলে আসে। sad

মেরাজ০৭ লিখেছেন:

হাসতে হাসতে মইরা গেলাম  lol2 lol2 lol2 lol2

হায় হায়, এমন ট্রাজিক ঘটনার মধ্যে তুমি হাসির উপাদান খুঁজে পেলে? নাহ, দিন দিন পোলাপাইনের রসবোধ বেড়ে যাচ্ছে। tongue

হুজুর কইছে, "কোরআন শরীফে আছে- তোমরা নামাজ থেকে বিরত থাক।" আমি তাই নামাজ পড়ি না। হুজুর যদি ইচ্ছা করে "অপবিত্র অবস্থায়" শব্দ দুটো বাদ দেয়, তার জন্য তো আমি দায়ী না।

১৭

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

বড়ই মর্মান্তিক , হৃদয় বিদারক এবং কষ্ট দায়ক ঘটনা বিয়ের পরে বউ পালায় ঠিক আছে মাগার বিয়ের আগেই হবু বউ পগার পার -- জাতি এই দুঃখে দুঃখিত এবং শোকাহত
এই ঘটনা নিয়ে দেশের শীর্ষ পর্যায়ে এবং আন্তর্জাতিক মহলে তীব্র নিন্দার ঝর তুলেছে এ নিয়ে রাষ্ট্রপতি , দেশ রত্ন প্রধান মন্ত্রী এবং বিরোধী দলিয় নেত্রী পৃথক পৃথক বার্তায় নিন্দা জ্ঞাপন করেছেন

দেশনেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেনঃ এটা অবশ্যই বিরোধী দল এবং জামাত শিবিরের চক্রান্ত তারা আবারো বাংলার মাটি নিয়ে প্রতারনার ফাঁদ পেতে তাদের কুলষিত নীল নঁকশার বাস্তবায়নের দুঃস্বপ্ন দেখছে।

বিরোধী দলিয় নেত্রী খালেদা জিয়া বলেছেনঃ আজ বাংলার আকাশে বাতাসে দূর্যোগের ঘনঘাটা , কে তাকে আশা দিবে , আমার ছেলেরা বিয়ে শাদি করে একটু বউয়ের আঁচলে নাক ডুবিয়ে বসে থাকবে সেটাও উনাদের সহ্য হয় না ভাইয়েরা , তাই চক্রান্ত করে লোক পাঠিয়ে প্রতারনার ফাঁদ পাতে তারা , আমিও তাদের জানিয়ে দিতে চাই আমরাও চুপ করে বসে থাকব না প্রয়োজনে লাগাতার প্রজন্মের পর প্রজন্ম চিরকুমার থাকবে।
প্রাণপ্রিয় নেতা এরশাদ চাচা বলেছেনঃ আজকালকার ছেলেরা ডিজিটাল যুগে এসেও আধুনিক হতে পারলো না আফসোস ! বলি একটু ভারতিয় সিরিয়াল  টিরিয়াল গুলো মনযোগ দিয়ে দেখো এমন একটু আধটু বিয়ে তো হতেই পারে আধুনিক মেয়ে বলে কথা তাই বলে বিয়ে না করাটা মোটেই সমেচীন কাজ নয় আফটার অল অভিজ্ঞতারোতো একটা দাম আছে নাকি !

মানুষ মাত্রই মরন শীল , কিন্ত নশ্বর নয় ।।

১৮ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ছিন্নমূল (১২-০৯-২০১৪ ১৬:১৪)

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

সীমান্ত ঈগল (মেহেদী) লিখেছেন:

বড় বাঁচা বেঁচে গেছেন মাটি ভাই।  hug

ধর্ম সঠিকভাবে মেনে না চলায় সমাজে নৈতিক অবক্ষয় চরম আকার ধারন করেছে। sad

আপনি বলেন 'সঠিকভাবে' ধর্ম কিভাবে মেনে চলবে জাতি? লিভিং রিলেশনতো ধর্মেই অনেকটা লিগালাইজ করে দেয়া আছে দাসীর সাথে সঙ্গমের কথা বলে। বলবেন, সেটা ঐ আমলে জন্য প্রযোজ্য ছিলো কিন্তু আমরা যদি হাদীস শরীফ পড়ি তবে দেখবো, আলী (রাঃ) এর এক সুন্দরী মেয়ে পছন্দ হয়েছিলো কিন্তু ফাতেমা (রাঃ) উনার স্ত্রী। আলী রাত কাটাতো ঐ মেয়ের সাথে। ফাতেমা গিয়ে বাবার কাছে নালিশ জানাতো। যুদ্ধ শেষে সাহাবীরা যুদ্ধে পরাজিত গোত্রের বন্দী নারীদের সাথে সঙ্গম করতো। এদের মধ্যে একজন হলেন উম্মুল মুমেনীন জুয়াইরিয়া (রাঃ)। বানু মুস্তালিক গোত্রের নেতার মেয়ে জুয়াইরিয়া। আয়েশা (রাঃ) বলেন, জুয়াইরিয়া ছিলো পরীর মতো সুন্দরী। আমার থেকেও সুন্দরী। আমার হিংসা লাগতো। আমাকে সময় কম দিয়ে জুয়াইরিয়াকে বেশি সময় দিতেন রাসূল।

এখন বলেন, এটা কি অনেকটা লিভিং রিলেশনের মধ্যে পড়ে না?

১৯

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

বাংলা সিনেমার পরিচালকের হাতে পড়লে সিনেমা বানাইয়া ফেলবে।

২০

Re: মাটি বাবা'র বিয়ে

ভয় দেখাইলাম  কই!  tongue_smile ভাল কথা কইলে আজকাল দাম নাই!  hehe
  wink