২১

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

ওটা আসলে বয়ান্সি বা প্লবতার জন্য হয়। মাত্রাতিরিক্ত লবণাক্ততার জন্য (উচ্চমাত্রার ঘনত্ব) নিমজ্জিত হতে চাওয়া বস্তুর উপর তরলের প্রযুক্ত বল ঐ বস্তুর ওজনের থেকে বেশি হওয়ার ফলে ভেসে থাকার প্রবণতা আসে।
তরলের প্রযুক্ত বল > বস্তুর ওজন।
বস্তুর ওজন নিচের দিকে ক্রিয়া করে। আর প্লবতা উপরের দিকে। নেট ফোর্স উপরের দিকে হবার কারণেই ভাসে। ইহাতে অন্য কোন কারিগরী নাই  lol

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

২২

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

সাগরের জল এত লবণাক্ত কেন হল সেটা একটা ভাববার বিষয় ।  thinking

কী বলেন আপনারা ?

২৩

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

কণিষ্ক লিখেছেন:

সাগরের জল এত লবণাক্ত কেন হল সেটা একটা ভাববার বিষয় ।  thinking

কী বলেন আপনারা ?

ইয়েস এটাই, কিন্তু লেখক জিনিসটাকে জটিল করার চেষ্টা করছেন, আমি বিস্বাস করি নির্দিষ্ট কারনেই এখানে লবনাক্ততার পরিমান এরকম বেশি।

২৪ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ছিন্নমূল (১১-০৮-২০১৪ ১৪:৫৯)

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

Raza420 লিখেছেন:

ইসলাম ধর্মে মৃত সাগরের এলাকাকে পয়গম্বর হযরত লূতের (আঃ) জামানার সমকামী গোষ্ঠীর আবাসস্থল হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সমকাম পরিত্যাগ করে লুত(আঃ)-এর আনুগত্য স্বীকারে অসম্মত হওয়ার কারণে এই স্থান উল্টে দিয়ে এ জাতিকে ধ্বংস করে দেয়া হয়েছিল।

wikipedia.org সূত্র

ইসলাম ধর্ম দর্শনে

ইসলাম ধর্মে এ অঞ্চলকে হযরত লূত (আঃ) এর অনুসারীদের আবাসস্থল হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে । সমকামের দরুণ এই জাতিকে আল্লাহ ধ্বংস করে দিয়েছিলেন । আল্লাহর পক্ষ থেকে প্রেরিত ফেরেশতারা ভূমি উল্টে এ জাতিটিকে মাটি চাপা দেন । আল-ক্বুরআনে সূরা রুম এ ঘটনা উল্লেখ করা আছে । এর দরুন এ এলাকা কে বিশ্বের সবচেয়ে নিচু এলাকা বলে আখ্যা দেয়া হয়েছে

এখন ধ্বংস করে না কেন? সমকামীর সংখ্যা তো হযরত লূত (আঃ) এর জনগোষ্ঠীর চাইতে এখন বেশি। আসলে শুধু সমকামিতার কারনে ধ্বংস করে নাই। তারা ছিলো খুনী। আরো নানা অপরাধের সাথে জড়িত ছিলো। তাই তাদের ডেড সীতে ফেলে দিয়েছেন আল্লাহ।

The Dead Sea in Islamic Tradition

Prophet Lut (Lot):

According to Islamic and Biblical traditions, the Dead Sea is the site of the ancient city of Sodom, home of the Prophet Lut (Lot), peace be upon him. The Quran describes the people of Sodom as ignorant, wicked, evildoers who rejected God's call to righteousness. The people were murderers, thiefs, and openly practiced immoral sexual behavior. Lut perservered in preaching God's message, but found that even his own wife was one of the disbelievers.

http://islam.about.com/od/history/p/deadsea.htm

২৫

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

বেশ ইন্টারেস্টিং টপিক! অজ্ঞতা মানুষকে কতটা অন্ধ করতে পারে তার একটা জ্বলন্ত উদাহরণ এই টপিক। এমনকি মাঝে মাঝে কিছু মন্তব্য পড়ে এটা জানা-অজানা'র বদলে হাসির বাক্সে থাকা উচিত ছিলো বলে মনে হয়েছে।

ফিজিক্সে সাগর থেকে একটা জাহাজ নদীতে প্রবেশ করলে কতটুকু বেশি ডুবে যাবে সেটার অংক করতে হয়েছিলো। বেশি ডুবে যাবে কারণ লবণাক্ততা না থাকার কারণে নদীর পানির ঘনত্ব কম।

যা হোক এখানে নতুন করে বলার কিছু নাই, কারণ ইতিমধ্যেই সমস্ত যৌক্তিক উত্তর দেয়া হয়ে গেছে।

পরিবেশ প্রকৌশলী'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

২৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (১১-০৮-২০১৪ ১০:৫৮)

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

আশিফ শাহো লিখেছেন:
কণিষ্ক লিখেছেন:

সাগরের জল এত লবণাক্ত কেন হল সেটা একটা ভাববার বিষয় ।  thinking

কী বলেন আপনারা ?

ইয়েস এটাই, কিন্তু লেখক জিনিসটাকে জটিল করার চেষ্টা করছেন, আমি বিস্বাস করি নির্দিষ্ট কারনেই এখানে লবনাক্ততার পরিমান এরকম বেশি।

বেশ কিছু কারণে এখানকার পানি হাইপারস্যালাইনঃ

১) এই এলাকাটি ভূপৃষ্ঠের সবচেয়ে নীচু স্থান। সী-লেভেল থেকে জর্ডান ভ্যালী প্রায় ১৩০০ ফিট নীচে অবস্থিতঃ

http://i.imgur.com/Cqx9s50.jpg

লেকটি এমনকি নিকটবর্তী সীলেভেল থেকেও অনেক নীচেঃ

http://i.imgur.com/kIZ8bbK.jpg

এই বিশাল গভীরতার কারণে এখানকার ডীপ আর্থ মিনারেলস উন্মোচিত হয়ে পড়েছে। ভূমি থেকে মিনারেলস আহরণ করার জন্য মাইনিং কোম্পানীগুলো শতশত ফিট মাটি খুঁড়ে পৃথিবীর গভীর লেয়ারে প্রবেশ করে। কিন্তু জর্ডান ভ্যালীতে প্রাকৃতিকভাবেই তা হয়েছে; ডীপ আর্থ-এর বিপুল পরিমাণ সোডিয়াম, ক্লোরিন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম ইত্যাদি মিনারেলসের রিজার্ভয়ের এখানে সরাসরি লেকের জলের সংস্পর্শে এসেছে, দ্রবীভূত হয়েছে। যার ফলাফলঃ ডেড সী-র হাইপারস্যালিনিটি।

২) নামে sea হলেও এটা আসলে একটা বিশাল লেইক। চারিদিকে ল্যাণ্ডলকডঃ

http://i.imgur.com/iEOabyV.jpg

ল্যাণ্ডলকড হবার কারণে লেকটির ধারণকৃত পানির পরিমাণ সীমিত। নদী বা সাগরের সাথে যেহেতু কোনো কানেক্সন নেই, অন্য কোনো ওয়াটার বডী থেকে থেকে জলীয় রিফিল পাবার কোনো সম্ভাবনা নেই। শুধুমাত্র সামান্য বৃষ্টিপাতের মাধ্যমে কিছু পানি লাভ করে এই লেকটি।

৩) এলাকাটি মরুভূমি প্রধান। সূর্যের উত্তাপ, প্রখরতা অত্যন্ত তীব্র। তাই বাষ্পীভবনের মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ পানি প্রতিদিন হারাচ্ছে লেকটি। ফলে দিন কে দিন এই লেকের পানি ঘন থেকে ঘনতর হচ্ছে।

এইসব কারণে ডেড সী-র জল অতিলবণাক্ত - লেকটির প্রায় ৩৪% হলো লবণ! অন্যান্য মহাসাগরের তুলনায় প্রায় ১০-১২ গুণ বেশি এখানকার স্যালিনিটি।

ডেড সী-তে মানুষ ডুবতে পারে না - এটা ভ্রান্ত ধারণা। প্রতি বছর ৩০-৪০ জন ডুবন্ত টুরিস্টকে কোস্টগার্ডরা উদ্ধার করে। অবস্থা এতই সিরিয়াস যে ইসরায়ল সরকারকে ওখানে কোস্টাল রেসকিউ পার্টীও গঠন করতে হয়েছে। গুগল করে পেলাম - গত ৫ বছরে ১২০ জন ডুবন্ত মানুষকে উদ্ধার করেছে কোস্ট গার্ড। ৬ জন মারা গিয়েছে। ইসরায়লী সরকারের ঘোষণায় ডেড সী হলো "second most dangerous place to swim in Israel"

সারফেস টেনশন নয় - বয়ান্সীর কারণে মানুষ ডেড সী-তে ভাসে। যে কারণে তেল বা পঁচা ডিম জলের ওপর ভাসমান হয়, এখানেও সেই মেকানিজম। আমাদের শরীর চামড়া দিয়ে ঘেরা একটি কেমিকাল ভর্তী ব্যাগ। এই মুহুর্তে আমি একটি চেয়ারে বসে আছি। পৃথিবীর মাধ্যাকর্ষণ বল আমাকে নীচের দিকে টানছে, কিন্তু চেয়ারটির ঘনত্ব (এবং কাঠিন্য) আমার শরীরের থেকে বহুগুণে বেশি, তাই আমি বিছানা বা চেয়ারের মধ্যে ডুবে যাচ্ছি না - বরং চেয়ারটিই আমাকে রেজিস্ট করে উল্টো দিকে ঠেলছে, যার ফলে আমি বসতে পারছি। (জানি উদাহরণটা সঠিক হলো না, but you get the idea...  wink )

আমরা যখন নদী/পুকুর/সুইমিং পুলে ডুব মারি, আমাদের শরীরের সমপরিমাণ ভলিউমের পানি ডিসপ্লেস করি। যেহেতু ফ্রেশ ওয়াটারের ঘনত্বের তুলনায় আমাদের শরীরের ঘনত্ব বেশি (প্রতি সিসি ভলিউমের পানি বনাম হাড়-মাংস-রক্ত কম্পেয়ার করলে), তাই আমরা পুকুরের জলে নিমজ্জিত হতে পারি।

ডেড সী-তে ব্যাপারটা উল্টো - ওখানকার  ৩৩%+ হার্ড মিনারেলস দ্রবীভূত পানি আমাদের শরীরের তুলনায় অনেক বেশি ঘন। এই কারণে ডেড সী-তে কেউ নামলে সমপরিমাণ ঘণ জল আমাদের শরীরকেই ডিসপ্লেস করার চেষ্টা করে - অতএব মানুষ "ভেসে" থাকে। উদা-দা যেমনটি বললেন - এখানে মূলতঃ দুইটা ফোর্স কাজ করছে। গ্র্যাভিটি আমাদের বডীটাকে নীচের দিকে টানছে, আর বয়ান্সী (প্লবতা) বিপরীত দিকে ঠেলছে। যার শক্তি বেশি সেই জিতবে।

ডেড সী-তে কোনোকিছুই বেঁচে থাকতে পারে না এটাও ভূল ধারণা। ওখানে কিছু প্রজাতীর ব্যাকটেরিয়া, শৈবাল প্রভৃতি জন্মায় - তবে পরিমাণে খুবই কম। তুমুল বৃষ্টিপাতের পরে ডেড সী-র লবণাক্ততা কিছুটা হ্রাস পায়, তখন বেশ কিছু এক কোষী প্রাণী দেখা যায় এই লেকে। তবে কয়েক মাস পরে পানির স্যালিনিটি আবার বৃদ্ধি পেলে তা হারিয়ে যায়। পৃথিবীর মহাসাগরগুলোর পরিবেশ যদি ডেড সীর মতো হতো, তাহলে এই গ্রহের জলজ প্রাণীজগৎও ওই পরিবেশেই টিকে থাকার মতোই এ্যাডাপ্ট করতো।

সম্ভবতঃ ডেড সী থেকেই লবণ দিয়ে খাদ্যসংরক্ষণের টেকনিক প্রাচীন মানুষ পেয়েছিলো। লবণ দিয়ে পচনকারক ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি ঠেকিয়ে রাখা যায় কিছুকাল।

ডেড সী সম্পর্কিত মীথটি "god of the gaps"-এর উৎকৃষ্ট উদাহরণ। প্রাচীনকালের মানুষ ফ্লুইড ডাইনামিক্সের ব্যাপারে কিছুই জানতো না। তাই তাদের সীমিত জ্ঞানের ফুটোফাটা-গুলো "gods miracle" নামক all-size-fits-everywhere ছিপি দিয়ে বোঁজাতে বাধ্য হয়েছিলো।

আমরা পোস্ট-আর্কিমিডিস যুগের মানুষ। আধুনিক বিশ্বে ওই প্রাচীন পুলটিসের প্রয়োজনীয়তা ধীরে ধীরে ফুরিয়ে চলেছে।

http://i.imgur.com/B4CcHVT.jpg

Calm... like a bomb.

২৭

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

@ব্রাশু দা, সবই বুঝলাম কিন্তু তালগাছের রহস্যটা বুঝলাম না। টপিকের সাথে তালগাছের সম্পর্ক কি !

২৮

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

ইলিয়াস লিখেছেন:

@ব্রাশু দা, সবই বুঝলাম কিন্তু তালগাছের রহস্যটা বুঝলাম না। টপিকের সাথে তালগাছের সম্পর্ক কি !

উপস! ছবিটির ক্যাপশন লেখার আগেই আপনি প্রশ্নটি করে ফেলেছেন!  lol

ক্যাপশনঃ
"টপিকের থেকে ১৭ নং অব্দি বেজোড় সংখ্যক পোস্টগুলোর প্রণেতার উদ্দেশ্যে উৎসর্গকৃত"

Calm... like a bomb.

২৯

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

ইলিয়াস লিখেছেন:

@ব্রাশু দা, সবই বুঝলাম কিন্তু তালগাছের রহস্যটা বুঝলাম না। টপিকের সাথে তালগাছের সম্পর্ক কি !

এইটার মানে হইলো যে, ইনভারব্রাস ভাই আর কিছু বলবেন না। কারণ তালগাছ আমার টাইপের পাবলিকের সাথে আর্গুমেন্টগুলো নেভারএন্ডিং  lol

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

৩০

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

পরিবেশ প্রকৌশলী লিখেছেন:

বেশ ইন্টারেস্টিং টপিক! অজ্ঞতা মানুষকে কতটা অন্ধ করতে পারে তার একটা জ্বলন্ত উদাহরণ এই টপিক। এমনকি মাঝে মাঝে কিছু মন্তব্য পড়ে এটা জানা-অজানা'র বদলে হাসির বাক্সে থাকা উচিত ছিলো বলে মনে হয়েছে।

ফিজিক্সে সাগর থেকে একটা জাহাজ নদীতে প্রবেশ করলে কতটুকু বেশি ডুবে যাবে সেটার অংক করতে হয়েছিলো। বেশি ডুবে যাবে কারণ লবণাক্ততা না থাকার কারণে নদীর পানির ঘনত্ব কম।

যা হোক এখানে নতুন করে বলার কিছু নাই, কারণ ইতিমধ্যেই সমস্ত যৌক্তিক উত্তর দেয়া হয়ে গেছে।

আল্লাহর হুকুমে লুত (আঃ) ও তাঁর অনুসারীরা বেঁচে গেলেও লুত (আঃ) এর স্ত্রী কি রা পেয়েছিল? না, সর্বশক্তিমান আল্লাহ তা'আলা তাকে বিরাট একটা লবণের স্তুপে পরিণত করলেন এবং তাকে আবহমানকালের মতো সেই হৃদের মাঝখানে রেখেছিলেন। আর সেই কারণেই এই হৃদের পানি এত লোনা যে, তা সাগরের লবনাক্ত পানিকেও হার মানায়।

পুনশ্চঃ লূত নবীর ঐ জনপদের লোকেরা সমকামী ছিল।। কোরআনে তাদের ঘৃণ্য অভিশপ্ত বলে ধ্বংস হয়ে যাবার ঘটনাটি এসেছে, যার পরিণতি মৃত সাগর।। কোরআনে আল্লাহ তায়ালা ঠিক একই ভাবে ফেরআউনের উদাহরণ দিয়েছেন যে তার লাশকে তিনি হাজার হাজার বছর ধরে দৃশ্যমান রাখবেন (মমি আকার যেটা দেখি) মানুষকে তাদের সীমালঙ্ঘনের পরিণতি স্মরণ করিয়ে দিতে।।

৩১ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ছিন্নমূল (১১-০৮-২০১৪ ১১:৩৯)

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

Raza420 লিখেছেন:

আল্লাহর হুকুমে লুত (আঃ) ও তাঁর অনুসারীরা বেঁচে গেলেও লুত (আঃ) এর স্ত্রী কি রা পেয়েছিল? না, সর্বশক্তিমান আল্লাহ তা'আলা তাকে বিরাট একটা লবণের স্তুপে পরিণত করলেন এবং তাকে আবহমানকালের মতো সেই হৃদের মাঝখানে রেখেছিলেন। আর সেই কারণেই এই হৃদের পানি এত লোনা যে, তা সাগরের লবনাক্ত পানিকেও হার মানায়।

পুনশ্চঃ লূত নবীর ঐ জনপদের লোকেরা সমকামী ছিল।। কোরআনে তাদের ঘৃণ্য অভিশপ্ত বলে ধ্বংস হয়ে যাবার ঘটনাটি এসেছে, যার পরিণতি মৃত সাগর।। কোরআনে আল্লাহ তায়ালা ঠিক একই ভাবে ফেরআউনের উদাহরণ দিয়েছেন যে তার লাশকে তিনি হাজার হাজার বছর ধরে দৃশ্যমান রাখবেন (মমি আকার যেটা দেখি) মানুষকে তাদের সীমালঙ্ঘনের পরিণতি স্মরণ করিয়ে দিতে।।

সত্যি বলেন তো আপনি কি সিরিয়াস নাকি ট্রলিং করছেন?

লূত (আঃ) এর স্ত্রী পাপী ছিলো কিন্তু তাই বলে আল্লাহ তাকে লবনের স্তূপে পরিনত করে সাগরে ফেলে দিবেন কেনো? অন্যভাবেও তো শাস্তি দেয়া যায়। আল-কোরআনে লূত নবীর উম্মতের কথা লেখা আছে। তারা একে তো সমকামী ছিলো,  কার্নাল এক্ট করতো কিন্তু শুধু এই জন্যে সাগরে ফেলে দেন নি পুরো জনগোষ্ঠীকে। তারা ছিলো খুনী, চোর ও নানা ধরনের অপরাধের সাথে জড়িত ছিলো। লূত নবী তাদের সাবধান করেছিলেন কিন্তু তারা শুনে নি। তাই আল্লাহ শাস্তি হিসেবে ডেড সীতে ফেলে দিয়েছিলেন কিন্তু স্ত্রীকে লবনের স্তূপে পরিনত করার কথা কোথায় পেলেন?  thumbs_down

৩২

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

আচ্ছা আমী যদি গায়ে আলকাত্রা মাইখা গিয়ে পানিতে নামি ডুবব না ভাসব [ জাতির বিবেকের কাছে প্রশ্ন ]  tongue_smile tongue_smile

নিবন্ধিতঃ১১/০৩/২০০৯ ,নিয়মিতঃ১০/০৩/২০১১, প্রজন্মনুরাগীঃ১৯/০৫/২০১১ ,প্রজন্মাসক্তঃ২৬/০৯/২০১১,
পাঁড়ফোরামিকঃ২২/০৩/২০১২, প্রজন্ম গুরুঃ০৯/০৪/২০১২ ,পাঁড়-প্রাজন্মিকঃ২৭/০৮/২০১২,প্রজন্মাচার্যঃ০৪/০৩/২০১৪।
প্রেম দাও ,নাইলে বিষ দাও

৩৩

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

ছিন্নমূল লিখেছেন:

সত্যি বলেন তো আপনি কি সিরিয়াস নাকি ট্রলিং করছেন?

সত্যি কথা ।

Jemsbond লিখেছেন:

আচ্ছা আমী যদি গায়ে আলকাত্রা মাইখা গিয়ে পানিতে নামি ডুবব না ভাসব [ জাতির বিবেকের কাছে প্রশ্ন ]  tongue_smile tongue_smile

আলকাতরা মাখলে ভেসে থাকবেন কিন্তু শরীর চুলকাবে

৩৪ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (১১-০৮-২০১৪ ১২:৩৭)

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

ছিন্নমূল লিখেছেন:
Raza420 লিখেছেন:

আল্লাহর হুকুমে লুত (আঃ) ও তাঁর অনুসারীরা বেঁচে গেলেও লুত (আঃ) এর স্ত্রী কি রা পেয়েছিল? না, সর্বশক্তিমান আল্লাহ তা'আলা তাকে বিরাট একটা লবণের স্তুপে পরিণত করলেন এবং তাকে আবহমানকালের মতো সেই হৃদের মাঝখানে রেখেছিলেন। আর সেই কারণেই এই হৃদের পানি এত লোনা যে, তা সাগরের লবনাক্ত পানিকেও হার মানায়।

পুনশ্চঃ লূত নবীর ঐ জনপদের লোকেরা সমকামী ছিল।। কোরআনে তাদের ঘৃণ্য অভিশপ্ত বলে ধ্বংস হয়ে যাবার ঘটনাটি এসেছে, যার পরিণতি মৃত সাগর।। কোরআনে আল্লাহ তায়ালা ঠিক একই ভাবে ফেরআউনের উদাহরণ দিয়েছেন যে তার লাশকে তিনি হাজার হাজার বছর ধরে দৃশ্যমান রাখবেন (মমি আকার যেটা দেখি) মানুষকে তাদের সীমালঙ্ঘনের পরিণতি স্মরণ করিয়ে দিতে।।

সত্যি বলেন তো আপনি কি সিরিয়াস নাকি ট্রলিং করছেন?

লূত (আঃ) এর স্ত্রী পাপী ছিলো কিন্তু তাই বলে আল্লাহ তাকে লবনের স্তূপে পরিনত করে সাগরে ফেলে দিবেন কেনো? অন্যভাবেও তো শাস্তি দেয়া যায়। আল-কোরআনে লূত নবীর উম্মতের কথা লেখা আছে। তারা একে তো সমকামী ছিলো,  কার্নাল এক্ট করতো কিন্তু শুধু এই জন্যে সাগরে ফেলে দেন নি পুরো জনগোষ্ঠীকে। তারা ছিলো খুনী, চোর ও নানা ধরনের অপরাধের সাথে জড়িত ছিলো। লূত নবী তাদের সাবধান করেছিলেন কিন্তু তারা শুনে নি। তাই আল্লাহ শাস্তি হিসেবে ডেড সীতে ফেলে দিয়েছিলেন কিন্তু স্ত্রীকে লবনের স্তূপে পরিনত করার কথা কোথায় পেলেন?  thumbs_down

মাউণ্ট সডোম (আরবীঃ জেবেল উসদুম)-এ এই রকসল্ট পিলারটা আছেঃ
http://i.imgur.com/Mz4iiav.jpg

হ্যালাইট (সোডিয়াম ক্লোরাইডের যৌগ) দ্বারা প্রাকৃতিকভাবে গঠিত এই পিলারটিকে বাইবেলের চরিত্র "লূতের স্ত্রী" নাম দিয়েছিলো স্থানীয় অধিবাসীরা। big_smile

এরকম রক ফরমেশন পৃথিবীর বহু স্থানে আছে। যেমন, ইংল্যাণ্ডের মার্সডেন বে-র সী স্ট্যাক ফরমেশনঃ
http://i.imgur.com/PIVRRTK.jpg

লাইম স্টোনের এই প্রাকৃতিক স্তম্ভটিকেও "লট'স ওয়াইফ" নাম দিয়েছে ইংলিশ বফিনরা lol

নীচে আরো কিছু স্ট্যাক ফর্মেশন... উইকী লিংক (এগুলোকে কার কার সাথে বিবাহ করাবেন রাজাফোরটুয়েন্টী ভাই পাত্র ঠিক করুন  wink )
http://i.imgur.com/uumHKWQ.jpg
http://i.imgur.com/7mCsqsk.jpg
http://i.imgur.com/FQZPICS.jpg
http://i.imgur.com/NJp6iIl.jpg
http://i.imgur.com/E93UyIi.jpg
http://i.imgur.com/uYeD1c7.jpg


পিএসঃ শেষেরটার নাম "three sisters" hehe বাই ওয়ান, গেট টু ফৃ! http://i.imgur.com/0xapvSh.gif

Jemsbond লিখেছেন:

আচ্ছা আমী যদি গায়ে আলকাত্রা মাইখা গিয়ে পানিতে নামি ডুবব না ভাসব [ জাতির বিবেকের কাছে প্রশ্ন ]

যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে... http://i.imgur.com/8Ukub66.gif

Calm... like a bomb.

৩৫

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

বক্তব্যটি পরিস্কার নয়

৩৬

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

সমকামীতা কম-বেশি সব মানুষের মধ্যেই বর্তমান, এটাই বাস্তব।

প্রজন্ম ফোরাম

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

৩৭ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন রাব্বী (১১-০৮-২০১৪ ১৪:১৭)

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

সমকামীতা অভিশপ্ত হলে আধুনিক জিজিটাল যুগের মন্ত্রীরা বলতো না আমরা সমকামীর বৌধতা দিচ্ছি

৩৮ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ছিন্নমূল (১১-০৮-২০১৪ ১৪:২৫)

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

amilee.2008 লিখেছেন:

সমকামীতা কম-বেশি সব মানুষের মধ্যেই বর্তমান, এটাই বাস্তব।

হ্যা, কম বেশি সবার মাঝেই আছে। Sexuality is fluid. কিনসে স্কেলের দ্বারা এটা প্রমানিত কিন্তু কিছু কিছু ব্যাপার আছে যেগুলো স্বাভাবিক প্রবৃত্তি না। এইসব বিষয় বেশি প্রশ্রয় দিলে দেখবেন মানুষের বংশবিস্তা্র বন্ধ হয়ে গেছে।

http://38.media.tumblr.com/c2ce93c668c94142070ad02b9cc09b8e/tumblr_mrhg1hQ2zI1rlau5wo2_500.png

৩৯

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

http://forum.projanmo.com/topic12949.htmlমুল বিষয় বাদ দিয়ে সমকামীর পিছনে কেন আমরা লাগছি, এাই নিয়ে এরই ফোরামে অনেক আলোচনা হয়েছে

৪০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ছিন্নমূল (১১-০৮-২০১৪ ১৪:৪৮)

Re: যে সাগরে মানুষ ডুবতে পারে না - একটি অভিশপ্ত স্থান

রাব্বী লিখেছেন:

http://forum.projanmo.com/topic12949.htmlমুল বিষয় বাদ দিয়ে সমকামীর পিছনে কেন আমরা লাগছি, এাই নিয়ে এরই ফোরামে অনেক আলোচনা হয়েছে

টপিকের মূল বিষয় হচ্ছে লূত নবীর জাতিকে সমকামীতার অভিযোগে ডেড সীতে নিক্ষেপ করা। তাই এটা নিয়ে ক্যাচাল।

ব্যাপারটা সম্পূর্ন ভুল ধারনা যে শুধু সমকামীতার জন্যেই তাদের সাগরে ফেলে দেয়া হয়েছিলো। তারা ছিলো চোর, লম্পট, সন্ত্রাসী, খুনী। লূত নবী তাদের হূশিয়ার করে দেয়ার পরেও তারা তা অব্যাহত রাখে। তাদের অপরাধের কোন সীমা ছিলো না বলেই তাদের ডেড সীতে ফেলে দেয়া হয়েছিলো তবে আমার মতে আল্লাহ ইচ্ছা করলে অন্যভাবেও তাদের শাস্তি দিতে পারতেন। তাদের হেদায়েত করতে পারতেন।