সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ইলিয়াস (১৪-১০-২০১৫ ০৯:১৯)

টপিকঃ বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

২৫ জানুয়ারি রওনা হয়ে ২৬ তারিখ সকালে পৌছাই খাগড়াছড়ি। একটি মাহেন্দ্রা গাড়ি রিজার্ভ করে নিয়ে সারা দিনের জন্য বেরিয়ে পড়ি খাগড়াছড়ি ভ্রমণে। একে একে দেখে ফেলি “আলুটিলা গুহা”, “রিছাং ঝর্ণা”, “শতবর্ষী বটবৃক্ষ” আর “ঝুলন্ত সেতু”।

পরদিন ২৭ জানুয়ারি খাগড়াছড়ি থেকে রাঙ্গামাটির দিকে রওনা হই একটি চান্দের গাড়ি রিজার্ভ করে। পথে থেমে দেখে নিই “অপরাজিতা বৌদ্ধ বিহার”। ২৭ তারিখ দুপুরের পরে পৌছাই রাঙ্গামাটি। বিকেল আর সন্ধ্যাটা কাটে বোটে করে কাপ্তাই লেক দিয়ে “সুভলং ঝর্ণা” ঘুরে। ২৮ তারিখ সকাল থেকে একে একে দেখে এলাম ঝুলন্ত সেতু, রাজবাড়ি ও রাজবন বিহার। দুপুরের পরে বাসে করে রওনা হয়ে যাই রাঙ্গামাটি থেকে বান্দারবানের উদ্দেশ্যে।

বান্দরবনে পৌছতে পৌছতে রাত হয়ে যায়। দুই একটি হোটেল আগে থেকেই জানা আছে, কিন্তু সেগুলিতে পছন্দ মত রুম না মিলাতে চলে আসলাম ট্রাফিক মোড়ের কাছে হোটেল “ফোরস্টার”রে। স্বপ্নের ভাগ্যে এবারও কাপল বেড, এবং সবচেয়ে ভালো রুমটা।

রাতের খাওয়া বাকি এখনও। রাজার মাঠের পাশেই আছে চেনা রেস্টুরেন্ট “রি-স্বং সং”। বান্দরবনে আসলেই এখানে খাওয়া দাওয়া করি আমরা। ফ্রেশ হয়ে চলে যাই সেখানে।
https://fbcdn-sphotos-f-a.akamaihd.net/hphotos-ak-xap1/t31.0-8/s960x960/10295161_10202872935042391_3440410963606112636_o.jpg



রাতের খাবারের পার্ট শেষে রাতের আড্ডা শুরু হয় স্বপনের রুমে। আগামী কালের ট্যুর প্লান নিয়ে আলোচনার পরে ঠিক হয়, সকালের নাস্তা সেরে জিপ নিয়ে যাব নীলগিরি। সেখান থেকে ফেরার পথে চিম্বুক হয়ে থামবো শৈল প্রপাতে। সব ঘুরে বান্দরবন ফিরে দুপুরের খাবার শেষে বিকেলে যাব নীলাচল, সন্ধ্যা পর্যন্ত থাকব সেখানে, দেখব সূর্যাস্ত।


২৯ তারিখ সকাল, নাস্তা সেরে গত রাতের প্লান মাফিক চলে আসি জিপ ষ্টেশনে। অনেক দরদাম করে (মনে নাই)  টাকায় একটি জিপ ঠিক করি নীলগিরি আর শৈলপ্রপাত যাওয়ার জন্য।
https://fbcdn-sphotos-e-a.akamaihd.net/hphotos-ak-xfa1/t31.0-8/s960x960/10286752_10202872935922413_8884992838737499504_o.jpg


শহর ছেড়ে বের হতেই শুরু হয় পাহাড়ি উঁচুনিচু পথ। অনেক বার গিয়েছি এই পথে তবুও পুরনো হয় না। সব সময় তার সেই পুরনো মায়াতেই টানে।

https://fbcdn-sphotos-b-a.akamaihd.net/hphotos-ak-xfp1/t31.0-8/s960x960/10298061_10202872936842436_125454950912581210_o.jpg


পাহাড়ি পথ আর পথের ধানের পাহাড়ি বসতির বিচিত্র জীবন যাপনে সাক্ষী হয়ে ছুটে চলে আমাদের গাড়ি। পাহাড়ের মাঝ দিয়ে নদীর মতো একে বেকে চলেছে পথ আর পাহারের নিচ দিয়ে পথের মতো একে বেকে বয়ে চলেছে, পাহাড়ি নদী।

https://scontent-b-kul.xx.fbcdn.net/hphotos-xpf1/t31.0-8/s960x960/10380125_10202872937282447_3076057442595212131_o.jpg


পথে দু যায়গায় থামতে হয়। একটি পুলিশ চেকপোস্ট, অন্যটি আর্মি চেকপোস্ট। পুলিশ চেক পোস্টে টুরিস্টদের নামতে হয় না কিন্তু আর্মি চেক পোস্টে নেমে নাম ঠিকানা ফোন নাম্বার দিয়ে আসতে হয়। ভয় পাওয়ার কিছু নেই। এখানে অবশ্যই সবাই সঠিক তথ্য দিবেন, এগুলি হয় তো আপনারই কাজে লাগবে যদি কোন সমস্যা বা দুর্ঘটনা ঘটে।
https://fbcdn-sphotos-c-a.akamaihd.net/hphotos-ak-xpa1/t31.0-8/s960x960/10386916_10202872936042416_7855489595054338116_o.jpg
পুলিশ চেকপোস্টের সামনে আমাদের জিপ


ঘণ্টা দেড়েকের জার্নি শেষে আমরা পৌছাই আমাদের প্রথম গন্তব্য “নীলগিরি”। ঝাঁঝাঁ রোদ্দুর চার ধারে, চকচকে রদ উঠেছে। গাড়ি থেকে নেমে কিছুটা চড়াই টপকে উঠে যাই ভিউ পয়েন্টের ছাউনির নিচে।
https://scontent-a-kul.xx.fbcdn.net/hphotos-xpa1/t31.0-8/s960x960/1487788_10202872938442476_2466902128160652863_o.jpg

https://fbcdn-sphotos-d-a.akamaihd.net/hphotos-ak-xpf1/t31.0-8/s960x960/10272584_10202872938042466_473711449958703599_o.jpg


https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-ash4/v/t1.0-9/10383595_10202872939122493_4571691514544815586_n.jpg?oh=b85f06f0540cab43f2e1bee4612e0cec&oe=56C989FA


বেশকয়েকটা ভিউ পয়েন্ট আছে এখানে। সেগুলি হেঁটে হেঁটে দেখি আর সেই সাথে চলে ক্লিক-ক্লিক ক্যামেরার কাজ। ক্যামেরার চোখে আপনারাও দেখুন শীতের নীলগিরি।

https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xap1/v/t1.0-9/10363835_10202872938642481_2336544140148233328_n.jpg?oh=35095b67e4f6f5267566050a7c3ae9bd&oe=56CB7689
এই ধরনের একটা যায়গায় থাকতে গেলে আপনার পকেটের জোড় থাকতে হবে।


https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xfp1/v/t1.0-9/10291241_10202872939562504_7104842474362522922_n.jpg?oh=027ed9c75edc61ae6e8fc947e5514d01&oe=56925370
নীলগিরি হেলিপ্যাড


https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xfa1/v/t1.0-9/10422601_10202872939842511_891202753118187866_n.jpg?oh=6b83f1c09c447592d42606490d86da4b&oe=56D2FE3B
একেলা


https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xaf1/v/t1.0-9/10356339_10202872940242521_1798079338393831880_n.jpg?oh=40e481e1475aae029939d2a00b67ef70&oe=56CE19D4
বসবেন নাকি একটু!


https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xtf1/v/t1.0-9/10372023_10202872940642531_755551372684843647_n.jpg?oh=b18955932208974723b230ed85077e93&oe=56C5D385
ভিউপয়েন্টে সাইয়ারা


https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xfp1/v/t1.0-9/10363968_10202872941002540_3765067326935361109_n.jpg?oh=aab46a2f9f5021d238d21e673e6c5356&oe=5699BF1F
সবার সামনের ভিউপয়েন্ট



https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xap1/v/t1.0-9/10295720_10202872942642581_5423246020930760599_n.jpg?oh=92a0700fd69fab2055a54a669eea886b&oe=568D39A8
ম্যাপের সামনে সাইয়ার ও বুসরা


https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xtp1/v/t1.0-9/984102_10202872945522653_6265088650555854067_n.jpg?oh=09e1323e8dca189b5b92d83fb45aac87&oe=5684D9FF
পূর্বদিকের ভিউপয়েন্টে, পিছনে সাঙ্গু নদ



https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xft1/v/t1.0-9/10401391_10202872945242646_3072355040236137649_n.jpg?oh=ff6dd42ae5aa7a3b26aa4d75abeb97cb&oe=56972A29
আড্ডা

https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xap1/v/t1.0-9/10270297_10202872945882662_749187238458018540_n.jpg?oh=358ca125959d8e3b0576c6594b240aed&oe=5691B836


https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-ash4/v/t1.0-9/10325782_10202872946442676_5038099960520762216_n.jpg?oh=946b634cbb21301ba06d25ec7d4c7cca&oe=56945593


https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xft1/v/t1.0-9/10401386_10202872946722683_5332336114021779035_n.jpg?oh=98e9aae1b23142c5046dee1995a131c9&oe=568ABA35



https://scontent.fmaa1-1.fna.fbcdn.net/hphotos-xpf1/v/t1.0-9/10369741_10202872942682582_1632063727117826401_n.jpg?oh=2856fa0f69f4f5c92db63d113809deb3&oe=569CDF76
ফিরবো এবার....


আগামী পর্বে দেখা হবে শৈলপ্রপাতে।

প্রথম প্রকাশ : ঝিঁঝি পোকা
https://fbcdn-sphotos-a-a.akamaihd.net/hphotos-ak-ash3/249083_10201394970614204_700541791_n.jpg


পূর্বের পর্বগুলি -
খাগড়াছড়ির পথে”।
খাগড়াছড়ি ভ্রমণ – প্রথম পর্ব”।
খাগড়াছড়ি ভ্রমণ – আলুটিলা গুহা”।
খাগড়াছড়ি ভ্রমণ – রিছাং ঝর্ণা”।
খাগড়াছড়ি ভ্রমণ – শতবর্ষী বটবৃক্ষ”।
খাগড়াছড়ি ভ্রমণ – অপরাজিতা বৌদ্ধ বিহার”।
রাঙ্গামাটি ভ্রমণ – সুভলং ঝর্ণা ও কাপ্তাই হ্রদে নৌবিহার”।
রাঙ্গামাটি ভ্রমণ – ঝুলন্ত সেতু, রাজবাড়ি ও রাজবন বিহার”।
বান্দরবান ভ্রমণ – নীলগিরি

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

thumbs_up যাক, আপনাকে ঠেলাঠেলি করে কাজ করাতে হবে! যা বুঝতেছি!  cool  সমস্যা নাই হাতে লিস্ট নিয়ে বসে আছি wink


ছবি গুলো ভাল হইছে!  big_smile
কিন্তু সাঙ্গু  নদী নাম শুনলাম দেখলাম নাতো!  worried ওই চিকন কালো আঁকাবাঁকা ওইটা কি দেখলাম  বুঝি নাই!  hmm এটাই বুঝি সাঙ্গু নদী!  whats_the_matter

পরের পর্ব কখন আসবে!  dream

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

৭ ,৮ আর ১১ নং ছবিগুলা দেখলে নেপালের পোখারার  কথা মনে হয়  smile

এক টুনিতে টুনটুনালো সাত রানির নাক কাঁটালো

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

যেমন ছবি গুলো তেমনি বর্ননা খুবই চমৎকার  thumbs_up

"We want Justice for Adnan Tasin"

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

আমি একলা গিয়েছিলাম। তাই আনন্দ আর উপলব্ধি আপনার মতো এত চমৎকার ছিলোনা।
সুন্দর শেয়ার। ধন্যবাদ আপনাকে।

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

Jol Kona লিখেছেন:

thumbs_up যাক, আপনাকে ঠেলাঠেলি করে কাজ করাতে হবে! যা বুঝতেছি!  cool  সমস্যা নাই হাতে লিস্ট নিয়ে বসে আছি wink


ছবি গুলো ভাল হইছে!  big_smile
কিন্তু সাঙ্গু  নদী নাম শুনলাম দেখলাম নাতো!  worried ওই চিকন কালো আঁকাবাঁকা ওইটা কি দেখলাম  বুঝি নাই!  hmm এটাই বুঝি সাঙ্গু নদী!  whats_the_matter

পরের পর্ব কখন আসবে!  dream

আপনার ঠেলাতেই এতদুর আসলাম।  blushing
ঐটাই সাঙ্গু নদ, বর্ষায় আর পুষ্ট হয়।  love
পরের পর্ব ছোট্ট হবে আসবে আগামী কাল (হতো)। wink

RubaiyaNasreen(Mily) লিখেছেন:

৭ ,৮ আর ১১ নং ছবিগুলা দেখলে নেপালের পোখারার  কথা মনে হয়  smile

একটুর জন্য নেপাল যাওয়া হয়নি সেবার।  brokenheart

আউল লিখেছেন:

যেমন ছবি গুলো তেমনি বর্ননা খুবই চমৎকার  thumbs_up

ধন্যবাদ আউল ভাই।

ভালোবাসার কোড লিখেছেন:

আমি একলা গিয়েছিলাম। তাই আনন্দ আর উপলব্ধি আপনার মতো এত চমৎকার ছিলোনা।
সুন্দর শেয়ার। ধন্যবাদ আপনাকে।

আমি দুবার গিয়েছি, প্রথমবার বর্ষায় বন্ধুদের সাথে বিশাল আনন্দ। দ্বিতীয়বারেরটা এখন দেখছেন।  hug

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

2011 te last giyechilam. abar jaoar ichcha onek, ekhono time kore uthte parchi na. sad

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

shadman105khan লিখেছেন:

2011 te last giyechilam. abar jaoar ichcha onek, ekhono time kore uthte parchi na. sad

ইচ্ছে যেহেতু আছে, উপায় কোন না কোন ভাবে হয়েই যাবে।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

খুব সুন্দর জায়গা, ছবি বর্ণনা । অনেক ভাল লাগা রইল smile

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

১০

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

ছবি-Chhobi লিখেছেন:

খুব সুন্দর জায়গা, ছবি বর্ণনা । অনেক ভাল লাগা রইল smile

আসলেই জায়গাটা অতি সুন্দর।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১১

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

অনেক সুন্দর তো যায়গাটা smile

   নেই, আছে এবং নৈবচ নৈবচ . . . . .
   দেশ, দশ, দুনিয়া তথা বিশ্ব ব্রম্মান্ড হইতে নহে ষাইফ ঋাষেল আপাতত ফেসবুক হইতে আনা গাইয়েবুন

১২

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

RUSSEL13 লিখেছেন:

অনেক সুন্দর তো যায়গাটা smile

আসলেই অনেক সুন্দর

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১৩

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

অস্থির সুন্দর একটা জায়গা।
খুব ভোরে নাকি কুয়াশাঢাকা (নাকি মেঘ?) অবস্থায় নাকি জায়গাটা অসম্ভব সুন্দর লাগে দেখতে।
ছবিগুলো বেশ ভালো তুলেছেন।

You are the one who thinks that i didn't get the point, so do i think of you...what a coincidence!!

১৪

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

faysal_2020 লিখেছেন:

অস্থির সুন্দর একটা জায়গা।
খুব ভোরে নাকি কুয়াশাঢাকা (নাকি মেঘ?) অবস্থায় নাকি জায়গাটা অসম্ভব সুন্দর লাগে দেখতে।
ছবিগুলো বেশ ভালো তুলেছেন।

ভোর লাগেনা বস, বর্ষার সময় সারা দিনের যে কোনো সময়ই সেই মায়াময় অপরূপ শোভা দেখতে পাওয়া যেতে পারে। প্রথম বার গিয়েই আমি তা পেয়ে ছিলাম, ভিজে ছিলাম বৃষ্টিতে। ক্যামেরাটা তখন নষ্ট হয়ে গিয়েছিলো বলে কোনো ছবি তুলতে পারি নি।  brokenheart

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১৫

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

আপডেট  করা হলো।

১৬

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

ইলিয়াস লিখেছেন:

আপডেট  করা হলো।

টপিকটি আপডেট করে দেয়ার জন্য আপনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ প্রিয় ইলিয়াস ভাই।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১৭

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

২৫ জানুয়ারি রওনা হয়ে ২৬ তারিখ সকালে পৌছাই খাগড়াছড়ি। একটি মাহেন্দ্রা গাড়ি রিজার্ভ করে নিয়ে সারা দিনের জন্য বেরিয়ে পড়ি খাগড়াছড়ি ভ্রমণে। একে একে দেখে ফেলি “আলুটিলা গুহা”, “রিছাং ঝর্ণা”, “শতবর্ষী বটবৃক্ষ” আর “ঝুলন্ত সেতু”।

পরদিন ২৭ জানুয়ারি খাগড়াছড়ি থেকে রাঙ্গামাটির দিকে রওনা হই একটি চান্দের গাড়ি রিজার্ভ করে। পথে থেমে দেখে নিই “অপরাজিতা বৌদ্ধ বিহার”। ২৭ তারিখ দুপুরের পরে পৌছাই রাঙ্গামাটি। বিকেল আর সন্ধ্যাটা কাটে বোটে করে কাপ্তাই লেক দিয়ে “সুভলং ঝর্ণা” ঘুরে। ২৮ তারিখ সকাল থেকে একে একে দেখে এলাম ঝুলন্ত সেতু, রাজবাড়ি ও রাজবন বিহার। দুপুরের পরে বাসে করে রওনা হয়ে যাই রাঙ্গামাটি থেকে বান্দারবানের উদ্দেশ্যে।

বান্দরবনে পৌছতে পৌছতে রাত হয়ে যায়। দুই একটি হোটেল আগে থেকেই জানা আছে, কিন্তু সেগুলিতে পছন্দ মত রুম না মিলাতে চলে আসলাম ট্রাফিক মোড়ের কাছে হোটেল “ফোরস্টার”রে। স্বপ্নের ভাগ্যে এবারও কাপল বেড, এবং সবচেয়ে ভালো রুমটা।

রাতের খাওয়া বাকি এখনও। রাজার মাঠের পাশেই আছে চেনা রেস্টুরেন্ট “রি-স্বং সং”। বান্দরবনে আসলেই এখানে খাওয়া দাওয়া করি আমরা। ফ্রেশ হয়ে চলে যাই সেখানে।
https://i.imgur.com/MadG9EKh.jpg



রাতের খাবারের পার্ট শেষে রাতের আড্ডা শুরু হয় স্বপনের রুমে। আগামী কালের ট্যুর প্লান নিয়ে আলোচনার পরে ঠিক হয়, সকালের নাস্তা সেরে জিপ নিয়ে যাব নীলগিরি। সেখান থেকে ফেরার পথে চিম্বুক হয়ে থামবো শৈল প্রপাতে। সব ঘুরে বান্দরবন ফিরে দুপুরের খাবার শেষে বিকেলে যাব নীলাচল, সন্ধ্যা পর্যন্ত থাকব সেখানে, দেখব সূর্যাস্ত।


২৯ তারিখ সকাল, নাস্তা সেরে গত রাতের প্লান মাফিক চলে আসি জিপ ষ্টেশনে। অনেক দরদাম করে (মনে নাই)  টাকায় একটি জিপ ঠিক করি নীলগিরি আর শৈলপ্রপাত যাওয়ার জন্য।
https://i.imgur.com/deFHHsqh.jpg


শহর ছেড়ে বের হতেই শুরু হয় পাহাড়ি উঁচুনিচু পথ। অনেক বার গিয়েছি এই পথে তবুও পুরনো হয় না। সব সময় তার সেই পুরনো মায়াতেই টানে।

https://i.imgur.com/g3EG9iEh.jpg


পাহাড়ি পথ আর পথের ধানের পাহাড়ি বসতির বিচিত্র জীবন যাপনে সাক্ষী হয়ে ছুটে চলে আমাদের গাড়ি। পাহাড়ের মাঝ দিয়ে নদীর মতো একে বেকে চলেছে পথ আর পাহারের নিচ দিয়ে পথের মতো একে বেকে বয়ে চলেছে, পাহাড়ি নদী।

https://i.imgur.com/z0EZ0Dth.jpg


পথে দু যায়গায় থামতে হয়। একটি পুলিশ চেকপোস্ট, অন্যটি আর্মি চেকপোস্ট। পুলিশ চেক পোস্টে টুরিস্টদের নামতে হয় না কিন্তু আর্মি চেক পোস্টে নেমে নাম ঠিকানা ফোন নাম্বার দিয়ে আসতে হয়। ভয় পাওয়ার কিছু নেই। এখানে অবশ্যই সবাই সঠিক তথ্য দিবেন, এগুলি হয় তো আপনারই কাজে লাগবে যদি কোন সমস্যা বা দুর্ঘটনা ঘটে।
https://i.imgur.com/b9snuJEh.jpg
পুলিশ চেকপোস্টের সামনে আমাদের জিপ


ঘণ্টা দেড়েকের জার্নি শেষে আমরা পৌছাই আমাদের প্রথম গন্তব্য “নীলগিরি”। ঝাঁঝাঁ রোদ্দুর চার ধারে, চকচকে রদ উঠেছে। গাড়ি থেকে নেমে কিছুটা চড়াই টপকে উঠে যাই ভিউ পয়েন্টের ছাউনির নিচে।

https://i.imgur.com/0bkfSWjh.jpg


https://i.imgur.com/m1JgbtMh.jpg


https://i.imgur.com/Aoj317Ph.jpg


বেশকয়েকটা ভিউ পয়েন্ট আছে এখানে। সেগুলি হেঁটে হেঁটে দেখি আর সেই সাথে চলে ক্লিক-ক্লিক ক্যামেরার কাজ। ক্যামেরার চোখে আপনারাও দেখুন শীতের নীলগিরি।

https://i.imgur.com/WUDZlOQh.jpg
এই ধরনের একটা যায়গায় থাকতে গেলে আপনার পকেটের জোড় থাকতে হবে।


https://i.imgur.com/Asm359Zh.jpg
নীলগিরি হেলিপ্যাড


https://i.imgur.com/x22N9PGh.jpg
একেলা

https://i.imgur.com/k1OJLZsh.jpg
বসবেন নাকি একটু!


https://i.imgur.com/ncZ3CQmh.jpg
ভিউপয়েন্টে সাইয়ারা


https://i.imgur.com/rdICoASh.jpg
সবার সামনের ভিউপয়েন্ট



https://i.imgur.com/mTxHMq9h.jpg
ম্যাপের সামনে সাইয়ার ও বুসরা


https://i.imgur.com/QGLQFboh.jpg
পূর্বদিকের ভিউপয়েন্টে, পিছনে সাঙ্গু নদ



https://i.imgur.com/QrKann1h.jpg
আড্ডা

https://i.imgur.com/5LPAAVZh.jpg


https://i.imgur.com/EGX16uTh.jpg


https://i.imgur.com/wE973KFh.jpg


https://i.imgur.com/kD93y8nh.jpg

ফিরবো এবার....


আগামী পর্বে দেখা হবে শৈলপ্রপাতে।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১৮

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

লোকেশান গুলো অসাধারন ।কিউট কিটস।

নামায সবার উপর ফরয করা হয়েছে

১৯

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

ছবিগুলো খুব সুন্দর হয়েছে সাথে বর্ননাটাও।

২০

Re: বান্দরবান ভ্রমণ – “নীলগিরি”

আমিও গিয়েছি জায়গাটা অনেক সুন্দর