টপিকঃ বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

বাংলাদেশ মিউজিক্যাল ব্যান্ডস অ্যাসোসিয়েসনের (বামবা) সদস্যপদ  ছাড়ার  ঘোষণা দিয়েছে এলআরবি। দলটির ফ্রন্টম্যান ও ভোকালিস্ট আইয়ুব বাচ্চু শুক্রবার রাতে নিজের ফেইসবুকে পদত্যাগপত্রটি প্রকাশ করেন।

১৯৮৭ সালে প্রতিষ্ঠিত বামবা দেশের ব্যান্ডগুলোর শীর্ষ সংগঠন। ১৯৯১ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে প্রায় পুরো সময় এলআরবি বামবার সদস্য ছিল।


https://fbcdn-sphotos-e-a.akamaihd.net/hphotos-ak-ash3/t1/q71/s720x720/1904042_10202591849775442_1462805883_n.jpg



এলআরবির লেটারহেডে ইংরেজিতে টাইপ করা চিঠিতে পদত্যাগের কারণ হিসেবে  ‘অনিবার্য পরিস্থিতি  এবং মীমাংসার মতো নয় এমন দুটি বিষয়’ রয়েছে  বলে  বাচ্চু উল্লেখ করেছেন। তবে তিনি ওই কারণগুলো  চিঠিতে প্রকাশ করেননি।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার আয়োজিত কনসার্টের সূত্র ধরে দেশের অন্য শীর্ষ ব্যান্ড মাইলসের সঙ্গে এলআরবির দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে চলে আসে। মাইলসের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হামিন আহমেদ বামবা’র বর্তমান সভাপতি।

বৃহস্পতিবারের কনসার্টে মাইলসের পরিবেশনা বাদ পড়ার কারণ হিসেবে নাম উল্লেখ না করেই এলআরবিকে দায়ী করেন মাইলসের মুখপাত্র শাফিন আহমেদ। এ বিষয়ে শাফিনের বক্তব্য একটি ভিডিও বার্তার মাধ্যমে প্রকাশ করা হয় সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট ফেইসবুকে।

শাফিন বলেন, “পার্টিকুলারলি দিস ওয়ান ব্যান্ড, যারা এ ধরনের রোল প্লে করে এসেছে, অনেকের সাথে বছরের পর বছর এবং আজকে বড় ধরনের একটা গেম প্লে করে তারা হয়তো নিজেদেরকে মনে করছে খুব ভিক্টোরিয়াস।

“বাট ট্রাস্ট মি,গেম হ্যাজ জাস্ট বিগান। আই থিঙ্ক উই হ্যাভ টেকেন এনাফ।”



এর আগে বামবার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মাকসুদুল হক সংগঠনটিতে তার নির্বাহী পদ থেকে ইস্তফা দেন এবং তার ব্যান্ড ‘মাকসুদ ও ঢাকা’ বামবা থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেয়। ২০১১ সালের ১৫ এপ্রিল সাক্ষরিত ওই পদত্যাগপত্রে মাকসুদ কারণ হিসেবে বড় ব্যান্ডগুলোর একক ও ক্ষুদ্র স্বার্থে বামবার ২৪ বছরের সুনামের অপব্যবহারকে অন্যতম কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেন।

বর্তমানে বামবার সদস্যসংখ্যা ৩৫।

সূত্রঃ http://bangla.bdnews24.com/glitz/article757550.bdnews

নো কমেন্ট  notlistening

   নেই, আছে এবং নৈবচ নৈবচ . . . . .
   দেশ, দশ, দুনিয়া তথা বিশ্ব ব্রম্মান্ড হইতে নহে ষাইফ ঋাষেল আপাতত ফেসবুক হইতে আনা গাইয়েবুন

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

ব্যান্ডের যুগ এমনিতে শেষ। এনারা সেই এক যুগ আগের গান কত বেচবে ?

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

বামবা শুরুর দিকে কিছুটা সক্রিয় ছিল, এটি এখন মৃতপ্রায় সংগঠন। বাচ্চু ঠিক কাজটিই করেছেন, যদিও বামবা ত্যাগ করায় কিছু যায় আসে না কারোরই। এমনকি খোদ বামবারও না। যে সংগঠনের কোনো কার্যক্রম নেই, সেখানে থাকা বা না থাকা তো সমান কথাই।

আমার সকল টপিক

কোনো কিছু বলার নেই আজ আর...

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন কালো বিড়াল (১৫-০৩-২০১৪ ১২:২৭)

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

আইয়ুব বাচ্চুকে আমার কখনোই ভালো শিল্পী মনে হয় নাই। বাজে বাজে লিরিকের গান গায়। গানের কন্ঠও ভালো না। এখনতো আরো বাজেভাবে গান গায়। এলআরবি এর চাইতে মাইলস, সোলস, নগরবাউল এরা অনেক ভালো। এলআরবি এখন কনসার্ট জমাতে পারে না।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন amu (১৫-০৩-২০১৪ ১৩:১১)

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

কালো বিড়াল লিখেছেন:

বাজে বাজে লিরিকের গান গায়।

এখন জাতীয এবং আন্তর্জাতিক গান বলতে বাংলাদেশের "ফাইট্যা যায় খ্যাত" মমতাজ, তার গান ছাড়া এখন অনেকেরই ভাল লাগেনা, তারা অন্য কেহকে পছন্দ করেন না, অন্য কারো গান শূনলে তারা ফাইট্যা যায়, মমতাগের গান না শুনলেও ফাইঠ্যা যায় , তার গান ছাড়া সবই বাজে গান - lol2 lol2 lol2 lol2 lol2

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

amu লিখেছেন:
কালো বিড়াল লিখেছেন:

বাজে বাজে লিরিকের গান গায়।

এখন জাতীয এবং আন্তর্জাতিক গান বলতে বাংলাদেশের "ফাইট্যা যায় খ্যাত" মমতাজ, তার গান ছাড়া এখন অনেকেরই ভাল লাগেনা, তারা অন্য কেহকে পছন্দ করেন না, অন্য কারো গান শূনলে তারা ফাইট্যা যায়, মমতাগের গান না শুনলেও ফাইঠ্যা যায় , তার গান ছাড়া সবই বাজে গান - lol2 lol2 lol2 lol2 lol2

ফাইট্যা যায় গান আপনার জন্য বানায় নাই। বানানো হয়েছে গাও গেরামের জোয়ানদের জন্য। তারা এইসব গান শুনে মজা পায়। এলআরবি তো আর গাও গেরামের সংগঠন না।

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

গাও গেরামের গান গাইতো বয়াতী, সে মারা গেল কে তার খবর রাখে, কদর ফাইট্যা যায়ের, ফাইট্যা যায় শুনলে অনেকে পুলকিত হয় তাই কদর বেশী, তাদের ডাকও পড়ে বেশী, সফলও হয়, দেখেন না কোটি টাকার ভালো ছবি মার খায় সস্তা নীল ছবির কাছে

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

কালো বিড়াল লিখেছেন:

আইয়ুব বাচ্চুকে আমার কখনোই ভালো শিল্পী মনে হয় নাই। বাজে বাজে লিরিকের গান গায়। গানের কন্ঠও ভালো না। এখনতো আরো বাজেভাবে গান গায়। এলআরবি এর চাইতে মাইলস, সোলস, নগরবাউল এরা অনেক ভালো। এলআরবি এখন কনসার্ট জমাতে পারে না।

আপনার খারাপ লাগতেই পারে, আমার মতে উনি এবং জেমস বাংলাদেশের মধ্যে শ্রেষ্টতম শিল্পীদের মধ্যে পরে। শাফিন আহমেদের গানও পছন্দ করি।

বাজে লিরিকস আমি এখনো শুনি নাই দুটো শুনিয়ে দিন পারলে।

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

মাইলসের মতো এত জনপ্রিয় ব্যান্ডের বিরুদ্ধে এই ন্যাক্কারজনক কাজের জন্য আইয়ূব বাচ্চুকে ধিক্কার। একেতো গান গাইতে পারে না তার উপর দেশের স্বনামধন্য নজরুল সঙ্গীত শিল্পীর ছেলের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করে দর্শকদের সে বঞ্চিত করলো মাইলসের গান শোনা থেকে । দর্শকেরা আইয়ুব বাচ্চুকে উচিত জবাব দিয়েছে। আমি থাকলে সেখানে পঁচা ডিম ছুড়ে মারতাম তার দিকে। দর্শকেরা অনেক শান্ত ছিলো।

===========

T20 বিশ্বকাপ কনসার্ট, আইয়ুব বাচ্চুকে "মীর জাফর' বললেন মাইলস-এর হামিন!

বিনোদন প্রতিবেদক, সংবাদ২৪.নেট, ঢাকা | আপডেট: ২০১৪-০৩-১৪ ১০:৪৪:৪৮
       
বিসিবি আয়োজিত সেলিব্রেশন কনসার্ট নিয়ে মাইলস ব্যান্ডের হামিন আহমেদ তার ফেসবুক প্রোফাইলে লিখেছেন-

“বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে টি ২০ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাইলসকে পারফর্ম করতে দেয়া হয় নি, যদিও মাইলস উপস্থিত ছিল ও পুরোপুরি তৈরি ছিল বাংলাদেশের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির সর্বকালের ‘মিরজাফর’ আইয়ুব বাচ্চু ও তার ব্যান্ড এল আর বি’র ভয়ানক ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে; যারা কিনা ২০ মিনিটের জায়গায় ৪০ মিনিট পারফর্ম করেছে! ধিক্কার জানাই ইভেন্টের আয়োজক গ্রে ও আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি।'

http://www.sangbad24.net/single.php?id=547

১০

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

কালো বিড়াল লিখেছেন:

মাইলসের মতো এত জনপ্রিয় ব্যান্ডের বিরুদ্ধে এই ন্যাক্কারজনক কাজের জন্য আইয়ূব বাচ্চুকে ধিক্কার। একেতো গান গাইতে পারে না তার উপর দেশের স্বনামধন্য নজরুল সঙ্গীত শিল্পীর ছেলের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করে দর্শকদের সে বঞ্চিত করলো মাইলসের গান শোনা থেকে । দর্শকেরা আইয়ুব বাচ্চুকে উচিত জবাব দিয়েছে। আমি থাকলে সেখানে পঁচা ডিম ছুড়ে মারতাম তার দিকে। দর্শকেরা অনেক শান্ত ছিলো।

একটু জেনেশুনে কথা বলেন ভাইডি! এই নেন, উদ্যোক্তাদের বক্তব্য পড়েন: https://fbcdn-sphotos-h-a.akamaihd.net/ … 3a7e886c65

আমার সকল টপিক

কোনো কিছু বলার নেই আজ আর...

১১ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন কালো বিড়াল (১৫-০৩-২০১৪ ১৫:৩৮)

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

আইয়ুব বাচ্চু  angry

আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপের উদ্বোধনে
টি-২০ উদ্বোধনে টপ ক্লাস ব্যান্ড দল মাইলসকে চরম অপমান!
ডেস্ক রিপোর্ট

http://www.eurobdnewsonline.com/assets/images/news_images/2014/03/14/for_details/image_28315_0.jpg

আলোচনার তুমুল ঝড় তুললেন "মাইলস"। তাহসান এবং আরও অনেকের পর এবার মাইলস সরব হলেন টি২০ বিশ্বকাপের উদ্বোধনে আরেক গোপন অনৈতিক তথ্য নিয়ে।  শিডিউল অনুযায়ী টি-২০ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হওয়ার কথা। সবাই পারফর্মও করেছে মোটামুটি একটি শিডিউল অনুযায়ী শুধু সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম বাংলাদেশের টপ ক্লাস ব্যান্ড দল "মাইলস" এর বেলায়। শিডিউল অনুযায়ী 'মাইলস' এর ২০ মিনিট পারফর্ম করার কথা থাকলেও তাদের ষ্টেজেই উঠতে দেওয়া হল না। কেন হয়নি বা কী কারণে হয়নি? সে বিষয়ে মাইলস-এর শাফিন আহমেদ নিজেই ফেসবুকে তার অভিমত প্রকাশ করেছেন। যা নিয়ে শুরু হয়েছে আরেক আলোচনার ঝড়।

শুক্রবার ফেসবুকে প্রকাশিত ভিডিও ক্লিপসে শাফিন আহমেদ বলেন,


"আজকে সুন্দর একটা দিন কাটলো। আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ছিলো। অনেক প্রস্তুতি। আশা ছিলো, মানুষের মধ্যে যে বড় কিছু হতে যাচ্ছে।

আমরা অনেক দিন ধরে পারফর্ম করার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। খুব কষ্ট করে, সময় দিয়ে। তারপরও পারফর্ম করা হল না।

কেন হলো না? এটা রহস্য। তবে আমাদের জন্য বুঝতে খুব বেশি কঠিন না যে, এর সূত্র কোথায়!

সকালে আমরা সাউন্ড চেক করতে গিয়েছিলাম। সেখানে উপস্থিত ইঞ্জিনিয়াররা আমাদের প্রস্তুতি দেখলো এবং শিডিউল অনুযায়ী অর্ণব, সোলস, মাইলস তারপর এলআরবিকে ঠিক করা হলো। এর আয়োজক ছিলো গ্রে। তারাও এই ব্যাপারে অনড় ছিলো।

পরে সন্ধ্যায় যথাসময় আমরা উপস্থিত হই। পরে সোলস পারফর্ম শেষ করে নামলো। আমাদের ওঠার কথা। কিন্তু তাৎক্ষণিকভাবে দেখা গেলো, আমাদের জায়গায় এলআরবি'কে মঞ্চে ওঠানো হলো। তখনো আমরা বুঝতে পারিনি কী হতে চলেছে।

আমরা ভেবেছিলাম, এরপর আমরা পারফর্ম করবো। এ জন্য আমরা হাতে গিটার নিয়ে প্রস্তুত ছিলাম। কিন্তু যে ঘটনা ঘটলো সেটা অপ্রত্যাশিত। একটা ইন্টারন্যাশনাল ব্যান্ডের সাথে এ রকম আগে কখনো ঘটেনি। এলআরবি বাকি সময়টা পারফর্ম করলো, শুধু তারাই বাজালো। একটি ব্যান্ডের সময় ছিল ২০ মিনিট করে।

আর এই ২০ মিনিটের জন্য আমাদের প্রস্তুতি ছিল চমৎকার। যা দর্শকরা দেখলে সত্যিই আনন্দ পেতো।

কিন্তু এলআরবি'কে গ্রে থেকে বলা হলো, 'আপনি বাকি সময়টাও পারফর্ম করবেন।' এ সময় আমাদেরকে সম্পূর্ণভাবে ইগনোর করা হয়। আমরা পাশে দাঁড়িয়ে দেখি। পরে এনাউন্স শুনলাম এই পর্ব এখানেই শেষ।

পরে গ্রে'র সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বললাম, কিন্তু সিনিয়ার কেউ আসেনি। সকলে আমাদের এড়িয়ে গেলো এবং কোনো উপযুক্ত উত্তর দিতে পারলো না যে, কেনো মাইলস'কে ডেকে এনে পারফর্ম করতে দেয়া হলো না। এ জিনিসটা অত্যন্ত অপমানজনক এবং আমাদের ইতিহাসে এটাই প্রথম।

সুতারাং গ্রে'র কাছে আমার প্রশ্ন থাকবে, এর একটা যথাযথ ব্যাখ্য আমরা জানতে চাই। ভিতরের কথা আমরা জানতে চাই।

সকাল থেকেই বুঝেছিলাম এলআরবি এবং গ্রে'র একটা সম্পর্ক আছে। আর সেটা সন্ধ্যা বেলায় প্রকাশ পেলো।

পরে আমরা মাঠ ছেঁড়ে চলে আসি। কিন্তু এই রকম একটা ইন্টারন্যাশনাল অনুষ্ঠানে যেখানে এতগুলো দেশ পারফর্ম করছে, সেখানে আমরা পারলাম না। আমাদেরকে বাদ দেওয়া হলো।

এই অনুষ্ঠানটি আইসিসির উদ্যোগে বিসিবি করে। এর আগেও হয়েছে। তবে বিসিবির এই আয়োজন প্রতিবার চলে যায় ইন্ডিয়ান ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির হাতে। আর তখনই প্রচুর টাকা দিয়ে ইন্ডিয়ান শিল্পীদের নিয়ে আসা হয়।

আমরা দেশের টপ ক্লাস ব্যান্ড তারকা হওয়া শর্তেও খুবই নগ্নভাবে এইসব অনুষ্ঠানে আমাদের উপস্থাপন করা হয়। কিন্তু আমরা যেভাবে আনন্দ দিতে পারবো বা এতোদিন পেরেছি, তা কেউ পারবে না। তবুও প্রতিবার দেশের বাইরের শিল্পীদের বহু টাকা দিয়ে আনা হচ্ছে। আমাদের হিন্দি গান শোনানো হচ্ছে। বাংলাদেশের মানুষ এ ধরণের ভালগার ড্যান্স চায় না, চায় সামাজিকতা।

ঠিক এই রকম এনভায়রমেন্টে যদি বলা হত মাইলসকে পারফর্ম করতে, তাহলে আপনি চিন্তা করে দেখেন আমরা কী করতে পারতাম। কিন্তু আমরা এই সুযোগ পাচ্ছি না।

সুতরাং আমাদের শিল্পীদের থেকে বাইরের শিল্পীদের আমরাই তুলে ধরছি এবং সবচেয়ে বড় বিষয় আমাদের দেশের ব্যান্ড শিল্পীদের পলিটিক্স। এই মানসিকতা থেকে বের হয়ে আসতে হবে। পলিটিক্স বা গেম প্লে করে অন্যদের বঞ্চিত করাটাই খারাপ। এই পলিটিক্স বন্ধ করতে হবে। তাই সব শিল্পীদের বলছি, চোখ খোলা রাখুন।"

http://www.eurobdnewsonline.com/sports- … 3/14/28315

১২

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

ফালতু ফোরামিকদের(আদৌ এরা ফোরামিকের পযর্ায়ে পড়ে কিনা সন্দেহ আছে) কমেন্টের বিপরীতে তকর্ করার মতো রুচি নেই.......।
তবে একজনকে ঘাড় ধাক্কা মেরে দরজা থেকে বের করার পরেও সে কোন আক্কেলে বোরখা পড়ে জানলা দিয়ে উঁকি দেয় তা আমার মাথায় আসেনা  angry

টিপসই দিবার চাই....স্বাক্ষর দিতে পারিনা......

১৩

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

অফ টপিকঃ
আহা! মেহেদী ভায়া, সারা ফোরামে এরা একটু  মিউজিক বাজায় বেড়াইতেছে! :S একটু বিনোদন তো দরকার tongue তাই না tongue   

dancing পার্টি টাইম!  dancing 
ঝাঁকানাকা বুম বুম! yahoo ঝাঁকানাকা বুম বুম!  yahoo

অন টপিক!
এই জিনিশটা আরো অনেক আগে হওয়া উচিত ছিল! দেরই করে হইল আরকি!

১৪

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

মেহেদী হাসান লিখেছেন:

ফালতু ফোরামিকদের(আদৌ এরা ফোরামিকের পযর্ায়ে পড়ে কিনা সন্দেহ আছে) কমেন্টের বিপরীতে তকর্ করার মতো রুচি নেই.......।
তবে একজনকে ঘাড় ধাক্কা মেরে দরজা থেকে বের করার পরেও সে কোন আক্কেলে বোরখা পড়ে জানলা দিয়ে উঁকি দেয় তা আমার মাথায় আসেনা  angry

লজজা নারীর ভুষন তাই তার লজ্ঝা লাগে নি, তিনি গলা ধাক্কা খেয়ৈছেন নিজ নিমে, এবার কালো বিড়াল নামেও খাবেন, তারপর সাদাবিড়াল

১৫ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন কালো বিড়াল (১৫-০৩-২০১৪ ২০:০৬)

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

আইয়ুব বাচ্চু ও কনসার্ট নিয়ে আবার হামিনের স্ট্যাটাস, এবার ঘটনার বিস্তারিত বয়ান

http://www.priyo.com/files/story/201403/Downloads16_0.jpg

টি২০ বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে বিসিবি আয়োজিত সেলিব্রেশন কনসার্ট নিয়ে বিতর্ক যেন কাটছেই না। এলআরবি ও মাইলস এর মধ্যকার দ্বন্দ্বের জের ধরে এলআরবি ‘BAMBA’ থেকে নিজেদের সদস্যপদ আজীবনের জন্য প্রত্যাহার করে নিয়েছে। কিন্তু বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না। মাইলস এর হামিন আহমেদ গতকাল রাতে তার ফেসবুক প্রোফাইলে নিজের বক্তব্য দিয়েছেন। প্রিয়’র পাঠকদের জন্য তা অনুবাদ করে তুলে ধরা হলো। সত্য-মিথ্যা যাচাইয়ের ভার পাঠকের।

http://imgcdn.priyo.com/201403/hamin.JPG

হামিন লিখেছেন,

“গতকালের (বৃহস্পতিবার) ওয়ার্ল্ড টি২০ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উদ্ভুত লজ্জাজনক পরিস্থিতির কিছু দিক।

(১) মাইলস ছিল অনুষ্ঠানের তৃতীয় ব্যান্ড যাদের ‘সোলস’ এর পরেই পারফর্ম করার কথা ছিল। (পার্থ বড়ুয়া ঘটনাটি জানেন কারণ আমার সাথে তার কথা হয়েছিল)।

(২) “সোলস’ যখন স্টেজ থেকে নেমে আসছিল, মাইলস স্টেজ উঠার জন্য তৈরি হতে শুরু করে পারফর্ম করার জন্য। আমরা স্টেজের সিঁড়ির কাছেই ছিলাম।

(৩) স্টেজে উঠার ঠিক আগ মূহূর্তে ইভেন্ট কোম্পানি গ্রে থেকে আমাদেরকে স্টেজে উঠতে নিষেধ করা হয় ও জানানো হয় অনুষ্ঠানে আমরা পারফর্ম করছি না!

(৪) গ্রে’র সাথে যখন আমাদের কথা কাটাকাটি হচ্ছিল তখন আইয়ুব বাচ্চু এল আর বি’কে নিয়ে স্টেজের দিকে এগিয়ে যান।

(৫) আইয়ুব বাচ্চু এটা জানার প্রয়োজনও বোধ করেন নি কেন এলআরবি’কে চতুর্থ স্লটের বদলে তৃতীয় স্লটে নিয়ে আসা হলো, যদিও সেসময় মাইলস এর পারফর্ম করার কথা ও তারা সেই মূহূর্তে স্টেজের পাশেই দাঁড়িয়ে ছিল।

(৬) গ্রে’র সাথে আমাদের বাকবিতণ্ডার মাঝেই আইয়ুব বাচ্চু ও তার ব্যান্ড স্টেজে উঠে পারফর্ম করা শুরু করে।

(৭) আইয়ুব বাচ্চু ও এল আর বি তাদের জন্য নির্ধারিত ২০ মিনিটের একদম শেষ দিকে তাদের শেষ পরিবেশনা হিসেবে ‘সেই তুমি’ গানটি শুরু করে।

(৮) তখনো গ্রে’র সাথে আমাদের তর্ক চলছিল। আমরা তাদেরকে বললাম এল আর বির জন্য নির্ধারিত ২০ মিনিট শেষ হয়ে গিয়েছে বেশ কিছুক্ষণ আগেই, তারা তাদের শেষ গানটিও গেয়ে ফেলেছে, এখন তো আর আমাদের স্টেজে আমাদের জন্য নির্ধারিত ২০ মিনিট পারফর্ম করতে সমস্যা নেই। গ্রে জানায় এটা সম্ভব নয়!

(৯) আইয়ুব বাচ্চু ও তার ব্যান্ড ‘সেই তুমি’ গানটি শেষ করলে ও গ্রে’কে যখন আমরা বললাম যে, মাইলস এর পারফর্ম করার জন্য যথেষ্ট সময় আছে, ঠিক তখনোই গ্রে আইয়ুব বাচ্চুকে আরো অতিরিক্ত ২০ মিনিট পারফর্ম করতে নির্দেশনা দিল ও তিনি অত্যন্ত আনন্দের সাথেই সেটা করলেন!

(১০) এর ফলে এল আর বি মোট ৩৮ মিনিট ১০ সেকেন্ড পারফর্ম করে, যা তাদের জন্য নির্ধারিত সময়ের প্রায় দ্বিগুণ ও এভাবেই নিশ্চিত করা হলো যেন মাইলস পারফর্ম না করতে পারে!

এখন একটি বাংলাদেশী ব্যান্ড আরেকটি বাংলাদেশী ব্যান্ডের জন্য কী করতে পারতো?

(১) ইভেন্ট কোম্পানির অনুরোধ সত্ত্বেও স্টেজে না যাওয়া কারণ তৃতীয় ব্যান্ড মাইলস ইতিমধ্যেই স্টেজের পাশেই ছিল।

(২) মাইলস অপেক্ষা করে আছে এটা যেহেতু জানা ছিল তাই ২০ মিনিটের বেশি পারফর্ম না করা।

তাই আইয়ুব বাচ্চুর উপস্থিত দর্শকদের বাংলা গান শোনার জন্য ধন্যবাদ দেয়া, তাদের হাততালিগুলো বিদেশী শিল্পীদের জন্য জমিয়ে রাখতে বলা- এসব আসলে পুরোটাই একটা অভিনয়। কারণ তিনি নিজেই আরেকটি বাংলাদেশী ব্যান্ডকে পারফর্ম করতে দেন নি, ঠিক একই স্টেজে! আপনাদের কী মনে হয়?



http://www.priyo.com/2014/03/15/s58717.html

দর্শক হাততালি দিবে কি কারনে? তুমি গান পারো নাকি গাইতে?  roll

শাফিন

১৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন তার-ছেড়া-কাউয়া (১৫-০৩-২০১৪ ২০:৩৭)

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

পুরোপুরি একমত নই। তবুও কিছু কিছু জিনিস খুবই সত্য।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান নিয়ে দেখি বিড়াট সমালোচনা শুরু হয়ে গেছে। আইয়ূব বাচ্চুর কিছু কথা নিয়ে প্রথম শোরগোল উঠে। দর্শকরা তার গান শুনে হাততালি দেয়নি, কোন উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেনি বলে তিনি অভিমান ভরে বলেছেন, এই তালিটুকু তুলে রাখুন অন্যের জন্য। বাংলা গান যে শুনছেন তাতেই ধন্যবাদ…ইত্যাদি ইত্যাদি…। এসব শুনেই দেশপ্রেমিক ফেইসবুকারদের রোষাণলে পড়েছেন সাধারণ দর্শক। দর্শকদের দোষটা কোথায় বুঝলাম না। আইয়ূব বাচ্***ের কনর্সাটে মানুষের ঢল কিভাবে নামতো সে সুখ স্মৃতি বোধহয় আইয়ূব বাচ্চুরাই এখন রোমন্থন করেন নিরালায়। স্মৃতি রোমন্থন করেন কারণ এখন আর সে ঢল তারা নামাতে পারেন না। প্রশ্ন হচ্ছে কেন পারেন না? এমন কি ঘটলো যে দর্শক-শ্রোতা মুখ ফিরিয়ে নিল?

জাতিগতভাবে আমরা বোধহয় আত্মসমালোচনা করতে অক্ষম। গত দশ বছরে আইউব বাচ্চুর এমন কোন গানের কথা বলতে পারবেন যা মানুষের মুখে মুখে ফিরেছে? এমন কোন সৃষ্টি তিনি করেছেন যা বাংলা গানের বাজারের মন্দা কাটিয়ে ক্যাসেট বিক্রির জোয়ার তুলেছে? এলআরবির এ্যালবাম বের হলে আগে কি ঘটতো যারা বাংলা ব্যান্ড সংগীত এক সময় শুনতেন তারা ভাল করে জানেন। ১৫-২০ বছরের আগের “সেই তুমি কেন এত অচেনা হলে” দিয়ে আর কতদিন পাবলিককে বুঁদ করে রাখবেন? ৭৫ হাজার টাকার টিকিট কেটে এসব শুনতে কেউ যায়নি। এ আর রহমানকেই দেখতে গেছে। আমি বলবো আইউব বাচ্চু সহ বাংলা সংস্কুতি জগতের যারা আজ হতাশায় আহা উহু করছেন তারা নিজেদের ব্যর্থতাকে দেখতে পারছেন না। দর্শক তো পণ করেনি বাংলা কিছু দেখবে না, শুনবে না। প্রশ্ন করুন, যারা গান করেন, সিনেমা বানান, নাটক বানান, কেন দর্শক-শ্রোতা মুখ ফিরিয়ে নিচেছ। উত্তর পাবেন আশা করি।

“দর্শক”, “শ্রোতা”, “পাঠক” এদের আসলে কোন দেশ নেই, জাত নেই, শ্রেণী নেই, জাতীয়তাববোধ নেই, দেশপ্রেম নেই…। থাকলে পাকিস্তানীরা ভারতীয় সিনেমার জন্য এত পাগল থাকতো না। আমরা বাংলাদেশীরাও কষে রোজ দুবেলা ইন্ডিয়াকে গালি দিয়ে ভারতীয় সিনেমা-টিভি দেখতাম না। আসলে আমরা ভাল কিছু করতে পারি না। আমাদের এখানে কোন কম্পিটিশন নেই। এখানে তারকা তৈরি করে দেয়া হয় তারপর মঞ্চে গিয়ে পারফর্ম করে। ভারতে একজনকে তার প্রতিভার দিয়ে যতটা কষ্ট করে সারা ভারতে পরিচিতি পেতে হয় বাংলাদেশে তার চারআনাও কষ্ট করতে হয় না। সরচেয়ে বড় কথা কম্পিটিশিন নেই বলে ভাল করার কোন তাগিদ নেই। ১৯৬৫ সালের পাক-ভারত যুদ্ধের বছর ভারতীয় সিনেমা বন্ধ হয়ে যায় আমাদের দেশে। দেশ স্বাধীন হবার পর চাষী নজরুল ইসলামরা বঙ্গবন্ধুকে গিয়ে অনুরোধ করেন যেন বাংলাদেশে ভারতীয় সিনেমা না চলে। তাতে নাকি বাংলা সিনেমা দাঁড়াতে পারবে না। বাংলা সিনেমা এখন দাঁড়ানো তো দূরের কথা কফিনে চলে গেছে। পাকিস্তান আমলে উর্দু সিনেমার সঙ্গে কম্পিটিশন করে বাংলা সিনেমা তীব্র প্রতিযোগিতায় বাঙালি দর্শককে হলে টেনে নিয়ে গিয়েছিল। বাংলা সিনেমার অভিনেতা, পরিচালকরা উর্দু ছবির প্রচন্ড চাপকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে লড়াই করেছিলেন। উর্দু সিনেমার মহা তারকাদের টপকে এদেশের তরুণ-তরুণীরা রহমান-রাজ্জাক, কবরী-শাবানাকে আইডল করে নিয়েছিল। বাংলা সিনেমার লোকজন আইউব বাচ্***ের মত অভিমান দেখায়নি, জাতীয়তাবাদ উস্কে দেয় নি, তারা তাদের কাজটা করে গিয়েছিল। যে কোন দেশের মানুষ তার নিজের ভাষার শিল্প-সাহিত্যে-সিনেমায় সবচেয়ে বেশি আগ্রহী থাকে। সবাই চায় তার ভাষায় সিনেমা-নাটক দেখতে। আমরা গত ৪২ বছরে দরজা-জানালা বন্ধ করে দিয়ে কথিত আমাদের সংস্কৃতিকে রক্ষা করে চেয়েছি। আধুনিক পৃথিবী সম্পর্কে আমাদের আসলে কোন ধারনাই নাই। আজকের যুগে যে কোন কিছু ঢেকে রাখা যায় না, লুকিয়ে রাখা যায় না সেটা বেমালুক ভুলে বসে আছি। আমাদের সিনেমা হলে হলিউডের সিনেমা চলে, সারাদিন টিভিতে হিন্দী সিনেমা চলে শুধু সিনেমা হলে হিন্দী সিনেমা চলতে পারবে না। তাতে নাকি বাংলা সিনেমা মরে যাবে। এখন আওয়াজ উঠছে ভারতীয় টিভি চ্যানেলগুলোই বন্ধ করে দেয়া হোক। বিপদ দেখেন, শুধু হিন্দীই বাংলাদেশীদের শত্রু নয়, ভারতীয় বাংলা সিনেমাও তাদের বাড়া ভাতে ছাই ঢেলে দিয়েছে! এই ভারতী বিদ্বেষী দেশেই এটা হয়েছে। আগেই বলেছি, দর্শক-শ্রোতার কোন দেশপ্রেম, জাতীয়তাবাদী, ধর্ম, শ্রেণী নেই। আইয়ূব বাচ্চুর জন্য আমার কষ্টই হয়। কবে তারা বুঝবেন, দর্শক-শ্রোতা কারুর কাছে নকে খত দিয়ে বসে নেই, ভাল যা তারা তাই গ্রহণ করবেন। গান গাওয়ার আগে হাত জোর করে, “প্লিজ, আপনারা বাংলা গান শুনুন, হিন্দী গান শুনবেন না”-এসব বলে বাংলা গান বাঁচাতে পারবেন না। ভুল বললাম আসলে, কথাটা হবে “বাংলাদেশী বাংলা গান”, কারণ কোলকাতায় হিন্দী সিনেমা ও গানের বিড়াট চাপ স্বত্ত্বেও সেখানে বাংলা গান ও বাংলা সিনেমার গান ঠিকই মার্কেট করে নিয়েছে। খোদ বাংলাদেশে কোলকাতার বাংলা গান, তাদের সিনেমার বাংলা গান সবাই শুনছে। এখানেও দেখার বিষয় বাংলাদেশে বাংলা গান চলছে! তবে সেটা “ভারতীয় বাংলা”, “বাংলাদেশী বাংলা”ই হালে পানি পাচ্ছে না। এবার তাহলে হিন্দী বিরাগটা বুঝা যাবে, বাংলাপ্রেমিদের তো বাংলা গানে কোন এ্যালার্জি থাকার কথা নয়? কিন্তু দেখা যাচ্ছে এখানে কোন দেশপ্রেম, বাংলা ভাষা প্রেম নেই, স্রেফ বাণিজ্য। পাবলিক আর তাদের খাচ্ছে না! আর কাহাতক “সেই কোন দরদিয়া আমার” শুনতে টিকিট কাটবে লোকে? মোস্তফা সারোয়ার ফারুকী তো বাংলা টিভি নাটকের অদ্ভূত ভাষা ও স্কিপ্টহীন নাটকের ধারনা দিয়ে টেলিভিশন নাটকেকে আগেই *** মেরে দিয়েছেন। পাবলিক আর কি করবে, জি-বাংলায় ‘রাশি’ আর স্টার জলসায় সন্ধ্যাবেলায় বুঁদ হয়ে বসে থাকে। এ জন্য কি কান্নাকাটি টিভি নাটক নির্মাতাদের! সরকারের কাছে কতবার আকারে-ইঙ্গিতে আবদার করেছে ভারতীয় চ্যানেল বন্ধ করে দেয়ার। অজুহাত হিসেবে দাঁড় করিয়েছে, ভারতে বাংলাদেশের চ্যানেল দেখানো হয় না। আরে বাবা নিজের দেশেই তো কেউ তোমাদের কিছু দেখে না! সবাইকে স্মরণ করতে বলছি, এক সময় কোলকাতার মানুষ বাংলাদেশের বিটিভি দেখার জন্য টিভি এ্যানটিনায় সরা-হাড়ি-পাতিল বাঁধতো।এই অপদার্থর দল সেই স্বর্ণ যুগকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেনি। কোলকাতা ভারতের একটা প্রদেশ, সেখানে হিন্দীর দাপটে টেকাই দায়। তারা তো আর বলতে পারবে না হিন্দী সিনেমা দেখানো বন্ধ করো। তারা বাংলা সিনেমাকে বাঁচানো তাই একটাই কৌশল জেনেছে, ভাল সিনেমা, এমন সিনেমা বানাতে হবে, যাতে দর্শক হিন্দী সিনেমার পাশাপাশি বাংলা সিনেমা দেখে। অবাক বিষয় হলো, এখন বাংলা সিনেমার পাশাপাশি লোকে হিন্দী সিনেমা দেখছে! এফডিসিঅলারা এসব কানে তুলবে না জানি। পারবে শুধু নিজের নাক কেটে অন্যের যাত্রা ভঙ্গ করতে।

জেমস যখন সারা ভারত জয় করে এসেছিল তখন আপনি বাংলাদেশী খুব গর্ব অনুভব করেছিলেন না? যারা বাংলাদেশে ভারতীয় শিল্পীদের পারফর্মকে সহজভাবে নিতে পারেন না, তারা বাংলাদেশের শিল্পীদের ভারতে গিয়ে পারফর্মকে নিয়ে উচ্ছ্বাস করেন কিভাবে? জেমস তার প্রতিভা দিয়ে গোটা ভারতবর্ষকে নিজের প্রতিভার পরিচয় দেখিয়েছে। এটা ভারতীয় সিনেমা বা গণমাধ্যম ছাড়া কখনই সম্ভব নয়। এই বাস্তবতা মানতেই হবে যে ভারতীয় গণমাধ্যম ছাড়া আপনি বিশ্ববাসীর কাছে পৌঁছতে পারবে না।পাকিস্তানী শিল্পীদের তাই ভারতীয় সিনেমায় কাজ করে বিশ্বব্যাপী পরিচিত লাভ করতে হয়। আমরা কি অদূর ভবিষ্যতে দেখতে পারি না কোন বাংলাদেশী ভারতীয় সিনেমার প্লেব্যাকের শীর্ষস্থানীয় শিল্পী? জেমস যা শুরু করেছেন তার অগ্রগতি চাই না এটাই ইতিহাস হয়ে থাক তাই চাই? নিজে গোড়া জাতীয়তাবাদী হয়ে বড় মঞ্চে যাবার কথা ভাবা যায় না। আমরা যখন উপমহাদেশের ছোট ছোট বাজারগুলোকে এক করে বিশাল একটা বড় বাজার কল্পনা করতে চাই তখন ভেসে যাওয়ার, ভারতের ছায়ায় হারিয়ে যাওয়ার ভয়ের কথা বলি। অযোগ্য, প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার অপারগরা ছিটকে তো যাবেই। বোকা দেশপ্রেম আর জাতীয়তাবাদ আজকের প্রতিযোগিতাময় বিশ্বে, মুক্ত ও অবাধ সংস্কৃতির যুগে টিকে থাকার আসল দাওয়াই নয়। আসল দাওয়াই হচ্ছে আপনি আসলে কিছু দিতে পারেন কিনা। যদি আপনার আসলেই দেয়ার কিছু থাকে তাহলে দর্শক কোনদিন তা ফেলে দিবে না। দর্শকদের প্রতি যাদের বিশ্বাস নেই, তারা বুক ভরা অভিমান নিয়ে কান্নাকাটি করতে পারে।চতুরের মত জাতীয়তাবাদকে উস্কে দিয়ে সাময়িকভাবে হয়ত নিজেদের পিঠ বাঁচাতে পারবে কিন্তু শেষ বিচারে নিজেদের অস্তিত্বকে বাঁচাতে পারবে কি?

সূত্র

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

১৭

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

আচ্ছা, মাইলসকে যেহেতু পারফর্ম করতে দিবেই না, গ্রে কী কারণে মাইলসকে অনুষ্ঠানে ডাকলো? অনেক ব্যান্ডকে তো ডাকে নি! জেমসকে না। গ্রে যদি মাইলসকে ডেকে পারফর্ম না-ই করাবে, তাহলে ডাকলো কেন অনুষ্ঠানে? গ্রে-র এমনকি কি উদ্দেশ্য থাকতে পারে যে ডেকে এনে মাইলসে অপমান করবে?

শুনেছি মাইলস নাকি সকালে অনুশীলনে গেছে দেরি করে আর বিকেলেও গেছে দেরি করে! গ্রে নিজেই এটা স্বীকার করেছে। যদি তা-ই হয়, এবং এর ফলে গ্রে যদি মাইলসকে মঞ্চে উঠতে না দেয়, তাহলে এর দোষ বাচ্চুর ঘাড়ে কীভাবে আসে?

আমার সকল টপিক

কোনো কিছু বলার নেই আজ আর...

১৮

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

গৌতম লিখেছেন:

আচ্ছা, মাইলসকে যেহেতু পারফর্ম করতে দিবেই না, গ্রে কী কারণে মাইলসকে অনুষ্ঠানে ডাকলো? অনেক ব্যান্ডকে তো ডাকে নি! জেমসকে না। গ্রে যদি মাইলসকে ডেকে পারফর্ম না-ই করাবে, তাহলে ডাকলো কেন অনুষ্ঠানে? গ্রে-র এমনকি কি উদ্দেশ্য থাকতে পারে যে ডেকে এনে মাইলসে অপমান করবে?

শুনেছি মাইলস নাকি সকালে অনুশীলনে গেছে দেরি করে আর বিকেলেও গেছে দেরি করে! গ্রে নিজেই এটা স্বীকার করেছে। যদি তা-ই হয়, এবং এর ফলে গ্রে যদি মাইলসকে মঞ্চে উঠতে না দেয়, তাহলে এর দোষ বাচ্চুর ঘাড়ে কীভাবে আসে?

কথা তো এইটাই hmm আর এইখানে মাইলস সরাসরি গ্রে এর বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারে কিন্তু তারা আরেকজন পারফর্মারকে তো এইটা বলতে পারেনা  hairpull

মাইলস এবং এলআরবি দুইটা ব্যান্ডই আমার পছন্দের, আমি চাইব তারা নিজেদের মাঝের এই ক্যাচাল দূর করবেন এবং আমাদের জন্য আবারো গাইবেন একি মঞ্চে  thumbs_up

   নেই, আছে এবং নৈবচ নৈবচ . . . . .
   দেশ, দশ, দুনিয়া তথা বিশ্ব ব্রম্মান্ড হইতে নহে ষাইফ ঋাষেল আপাতত ফেসবুক হইতে আনা গাইয়েবুন

১৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন কালো বিড়াল (১৬-০৩-২০১৪ ০৯:০৪)

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

তার-ছেড়া-কাউয়া ভাই লিখেছেন:

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান নিয়ে দেখি বিড়াট সমালোচনা শুরু হয়ে গেছে। আইয়ূব বাচ্চুর কিছু কথা নিয়ে প্রথম শোরগোল উঠে। দর্শকরা তার গান শুনে হাততালি দেয়নি, কোন উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেনি বলে তিনি অভিমান ভরে বলেছেন, এই তালিটুকু তুলে রাখুন অন্যের জন্য। বাংলা গান যে শুনছেন তাতেই ধন্যবাদ…ইত্যাদি ইত্যাদি…। এসব শুনেই দেশপ্রেমিক ফেইসবুকারদের রোষাণলে পড়েছেন সাধারণ দর্শক। দর্শকদের দোষটা কোথায় বুঝলাম না। আইয়ূব বাচ্***ের কনর্সাটে মানুষের ঢল কিভাবে নামতো সে সুখ স্মৃতি বোধহয় আইয়ূব বাচ্চুরাই এখন রোমন্থন করেন নিরালায়। স্মৃতি রোমন্থন করেন কারণ এখন আর সে ঢল তারা নামাতে পারেন না। প্রশ্ন হচ্ছে কেন পারেন না? এমন কি ঘটলো যে দর্শক-শ্রোতা মুখ ফিরিয়ে নিল?

আইয়ূব বাচ্চুকে দর্শকেরা যে লজ্জা দিলো সে তখন মুখ বাচাঁতে জাত টেনে নিয়ে এসে মানুষকে আবেগ তাড়িত করতে চেয়েছিলো। আমি বাঙ্গালী, আমি বাংলা গান গাই। তালি জমিয়ে রাখুন। ব্লা ব্লা। এইসব বলে সে দর্শকদের অপমান করেছে। দর্শকরা হচ্ছে একজন শিল্পীর সব। বিশ্বের যত বড় শিল্পী হোক না কেনো দর্শকদের সামনে সে শিষ্য ও দর্শক তার মুনিব। দর্শকরা যদি গ্রহন না করে কোনো শিল্পীর পারফরমেন্স তবে বুঝতে হবে নিজের মধ্যে দোষ আছে। দর্শকদের দোষ দেয়া অনেক বড় অপরাধ। আইয়ূব বাচ্চুতো শিল্পীই না।

জাতিগতভাবে আমরা বোধহয় আত্মসমালোচনা করতে অক্ষম। গত দশ বছরে আইউব বাচ্চুর এমন কোন গানের কথা বলতে পারবেন যা মানুষের মুখে মুখে ফিরেছে? এমন কোন সৃষ্টি তিনি করেছেন যা বাংলা গানের বাজারের মন্দা কাটিয়ে ক্যাসেট বিক্রির জোয়ার তুলেছে? এলআরবির এ্যালবাম বের হলে আগে কি ঘটতো যারা বাংলা ব্যান্ড সংগীত এক সময় শুনতেন তারা ভাল করে জানেন। ১৫-২০ বছরের আগের “সেই তুমি কেন এত অচেনা হলে” দিয়ে আর কতদিন পাবলিককে বুঁদ করে রাখবেন? ৭৫ হাজার টাকার টিকিট কেটে এসব শুনতে কেউ যায়নি। এ আর রহমানকেই দেখতে গেছে। আমি বলবো আইউব বাচ্চু সহ বাংলা সংস্কুতি জগতের যারা আজ হতাশায় আহা উহু করছেন তারা নিজেদের ব্যর্থতাকে দেখতে পারছেন না। দর্শক তো পণ করেনি বাংলা কিছু দেখবে না, শুনবে না। প্রশ্ন করুন, যারা গান করেন, সিনেমা বানান, নাটক বানান, কেন দর্শক-শ্রোতা মুখ ফিরিয়ে নিচেছ। উত্তর পাবেন আশা করি।

এলআরবি পারে না। অন্যান্য ব্যান্ড দল ঠিকই ভালো ভালো গান নিয়ে প্রতিবার হাজির হয়। মাইলস তাদের মধ্যে একটি দল। দেশের একজন স্বনামধন্য নজরুল সঙ্গীত শিল্পীর ছেলের বিরুদ্ধে বাচ্চুর এই নোংরা পলিটিক্সের জন্য ক্ষমা চাওয়া উচিত। আর দর্শকদের সাথে চরম বেয়াদপী করার জন্য শ্রোতা-দর্শকদের কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত। বেয়াদপ কোথাকার। দর্শকদের গালিগালাজ করিশ। তোর সাহসতো কম না বাচ্চু।  mad

মোস্তফা সারোয়ার ফারুকী তো বাংলা টিভি নাটকের অদ্ভূত ভাষা ও স্কিপ্টহীন নাটকের ধারনা দিয়ে টেলিভিশন নাটকেকে আগেই *** মেরে দিয়েছেন। পাবলিক আর কি করবে, জি-বাংলায় ‘রাশি’ আর স্টার জলসায় সন্ধ্যাবেলায় বুঁদ হয়ে বসে থাকে। এ জন্য কি কান্নাকাটি টিভি নাটক নির্মাতাদের! সরকারের কাছে কতবার আকারে-ইঙ্গিতে আবদার করেছে ভারতীয় চ্যানেল বন্ধ করে দেয়ার। অজুহাত হিসেবে দাঁড় করিয়েছে, ভারতে বাংলাদেশের চ্যানেল দেখানো হয় না। আরে বাবা নিজের দেশেই তো কেউ তোমাদের কিছু দেখে না! সবাইকে স্মরণ করতে বলছি, এক সময় কোলকাতার মানুষ বাংলাদেশের বিটিভি দেখার জন্য টিভি এ্যানটিনায় সরা-হাড়ি-পাতিল বাঁধতো।এই অপদার্থর দল সেই স্বর্ণ যুগকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেনি। কোলকাতা ভারতের একটা প্রদেশ, সেখানে হিন্দীর দাপটে টেকাই দায়। তারা তো আর বলতে পারবে না হিন্দী সিনেমা দেখানো বন্ধ করো। তারা বাংলা সিনেমাকে বাঁচানো তাই একটাই কৌশল জেনেছে, ভাল সিনেমা, এমন সিনেমা বানাতে হবে, যাতে দর্শক হিন্দী সিনেমার পাশাপাশি বাংলা সিনেমা দেখে। অবাক বিষয় হলো, এখন বাংলা সিনেমার পাশাপাশি লোকে হিন্দী সিনেমা দেখছে! এফডিসিঅলারা এসব কানে তুলবে না জানি। পারবে শুধু নিজের নাক কেটে অন্যের যাত্রা ভঙ্গ করতে।

বাংলা নাটকের যদি কেউ বারোটা বাজিয়ে থাকে তবে সে ফারুকী। এখন নেমেছে সিনেমার বারোটা বাজাতে।

জেমস যখন সারা ভারত জয় করে এসেছিল তখন আপনি বাংলাদেশী খুব গর্ব অনুভব করেছিলেন না? যারা বাংলাদেশে ভারতীয় শিল্পীদের পারফর্মকে সহজভাবে নিতে পারেন না, তারা বাংলাদেশের শিল্পীদের ভারতে গিয়ে পারফর্মকে নিয়ে উচ্ছ্বাস করেন কিভাবে? জেমস তার প্রতিভা দিয়ে গোটা ভারতবর্ষকে নিজের প্রতিভার পরিচয় দেখিয়েছে। এটা ভারতীয় সিনেমা বা গণমাধ্যম ছাড়া কখনই সম্ভব নয়। এই বাস্তবতা মানতেই হবে যে ভারতীয় গণমাধ্যম ছাড়া আপনি বিশ্ববাসীর কাছে পৌঁছতে পারবে না।পাকিস্তানী শিল্পীদের তাই ভারতীয় সিনেমায় কাজ করে বিশ্বব্যাপী পরিচিত লাভ করতে হয়। আমরা কি অদূর ভবিষ্যতে দেখতে পারি না কোন বাংলাদেশী ভারতীয় সিনেমার প্লেব্যাকের শীর্ষস্থানীয় শিল্পী? জেমস যা শুরু করেছেন তার অগ্রগতি চাই না এটাই ইতিহাস হয়ে থাক তাই চাই? নিজে গোড়া জাতীয়তাবাদী হয়ে বড় মঞ্চে যাবার কথা ভাবা যায় না। আমরা যখন উপমহাদেশের ছোট ছোট বাজারগুলোকে এক করে বিশাল একটা বড় বাজার কল্পনা করতে চাই তখন ভেসে যাওয়ার, ভারতের ছায়ায় হারিয়ে যাওয়ার ভয়ের কথা বলি। অযোগ্য, প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার অপারগরা ছিটকে তো যাবেই। বোকা দেশপ্রেম আর জাতীয়তাবাদ আজকের প্রতিযোগিতাময় বিশ্বে, মুক্ত ও অবাধ সংস্কৃতির যুগে টিকে থাকার আসল দাওয়াই নয়। আসল দাওয়াই হচ্ছে আপনি আসলে কিছু দিতে পারেন কিনা। যদি আপনার আসলেই দেয়ার কিছু থাকে তাহলে দর্শক কোনদিন তা ফেলে দিবে না। দর্শকদের প্রতি যাদের বিশ্বাস নেই, তারা বুক ভরা অভিমান নিয়ে কান্নাকাটি করতে পারে।চতুরের মত জাতীয়তাবাদকে উস্কে দিয়ে সাময়িকভাবে হয়ত নিজেদের পিঠ বাঁচাতে পারবে কিন্তু শেষ বিচারে নিজেদের অস্তিত্বকে বাঁচাতে পারবে কি?

বাংলাদেশের শাকিব খানের চেহারা, শারিরীক গড়নের কাছে কলকাতার দেব কি বলিউডের রানবীর ফেল কিন্তু বেচারা একটু মেয়েলী স্বভাবের। ওটা ছাড়লে সে অন্তত কলকাতায় দেবের জায়গা নিতে পারবে।

২০

Re: বামবা ত্যাগ করলো আইয়ুব বাচ্চু এবং তার ব্যান্ড এলআরবি

RUSSEL13 লিখেছেন:

কথা তো এইটাই hmm আর এইখানে মাইলস সরাসরি গ্রে এর বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারে কিন্তু তারা আরেকজন পারফর্মারকে তো এইটা বলতে পারেনা  hairpull

হে হে হে... কিছু মানুষকে আপনি সারাদিন ধরেও এটা বুঝাতে পারবেন না।

আমার সকল টপিক

কোনো কিছু বলার নেই আজ আর...