সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (০৩-১২-২০১৩ ০০:৫০)

টপিকঃ এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

মনোনয়ন পত্র জমা দেবার সময় আজ শেষ হয়ে গেছে ।  এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী । এখন ২০০ সিটে যদি ম্যানেজ করে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপিরা জিতে যান তাহলে দেশের অনেক টাকা বেঁচে যেত।

আসন্ন দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত হচ্ছেন ড. মহিউদ্দিন খান আলমগীর এবং রাষ্ট্রপতি পুত্র রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিকসহ মোট ৬ জন।

তাদের বিপরিতে কোন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল না করায় তারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত হবেন বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে।

আগামী ৫ ও ৬ ডিসেম্বর মনোনয়ন পত্র যাচাই বাছাইয়ের শেষ দিন। এই সময়ে ড.মহিউদ্দিন খান আলমগীরের মনোনয়নপত্র কোন কারণে বাতিল না হলে তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত হবেন বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে।

অন্যদিকে, কিশোরগঞ্জের ছয়টি আসনে ১৬জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনে রাষ্ট্রপতিপুত্র রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক বিনা প্রতিদ্বন্ধীতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, কিশোরগঞ্জ-৪ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে আজ সোমবার শেষ দিনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের বড় ছেলে রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক। এ আসনে অন্য কোনো প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা না দেওয়ায় তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিাতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন বলে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

এছাড়া, নোয়াখালী-২ আসন থেকে মোর্শেদুল আলম, দিনাজপুর-১ থেকে মাহমুদ আলী, মৌলভীবাজার-৪ থেকে উপাধ্যাক্ষ আব্দুস শহীদ, মানিকগঞ্জ-২ থেকে মমতাজ বেগমের বিপরীতে আর কোন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেনি।
http://risingbd.com/detailsnews.php?nss … nttl=26823
http://dhakareport24.com/dhaka/2013/12/02/9855

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

হুম

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

আমাগোরে মাপ কইরা দেওন যায়না, নির্বাচন করার দরকারটা কি? তোরা দুই দল আজীবনের জন্য ক্ষমতা ভাগাভাগি কইরে নে না।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আউল (০৩-১২-২০১৩ ১৪:৫৮)

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

ঠিক আরেকটি ১৫ই ফেব্রুয়ারীর নির্বাচন , যেখানেমহাজোটই সরকারী দলে আবার তাদের অনুসারী দলই বিরোধী দলে কি মজার ব্যাপার

হ্যালিকপ্টারে চড়ে নমিনেশন জমা

"We want Justice for Adnan Tasin"

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

হলেও কি আর হবে!!! ভোগান্তি, হত্যা, হয়রানি এসব তো সাধারণ জনগণেরই বাড়বে। আর ১৯৯৬ সালের নিবার্চনীয় ঘটনা কেউ যদি ব্যক্ত করেন তাহলে উপকৃত হতাম।ঐসময় নাকি বিএনপিও এরকম একতরফা নির্বাচন দিতে চেয়েছিল।পরে কি হয়েছিল???

ঐদিন এক টকশোতে একজন বিশেষজ্ঞ ১৯৯৬ এর সাথে দেশের নির্বাচন পরিস্থিতির তুলনা করার সময় এগুলো বলেছিলেন।তবে এমন নাকি গণহত্যা করা হয় নি!!!  neutral neutral neutral

সব কিছু ত্যাগ করে একদিকে অগ্রসর হচ্ছি

লেখাটি CC by-nd 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

mizvibappa লিখেছেন:

হলেও কি আর হবে!!! ভোগান্তি, হত্যা, হয়রানি এসব তো সাধারণ জনগণেরই বাড়বে। আর ১৯৯৬ সালের নিবার্চনীয় ঘটনা কেউ যদি ব্যক্ত করেন তাহলে উপকৃত হতাম।ঐসময় নাকি বিএনপিও এরকম একতরফা নির্বাচন দিতে চেয়েছিল।পরে কি হয়েছিল???

ঐদিন এক টকশোতে একজন বিশেষজ্ঞ ১৯৯৬ এর সাথে দেশের নির্বাচন পরিস্থিতির তুলনা করার সময় এগুলো বলেছিলেন।তবে এমন নাকি গণহত্যা করা হয় নি!!!  neutral neutral neutral

সেই সময়ে বিএনপি বলেনি বেহুলি লক্ষিন্দরের বাসর ঘরে ফুটা ছিলো এবার আমরা ফুটা রাখবো না,  বিনা আন্দোলনে বিএনপি পদত্যাগ করেছিলো, আর এথন বলা হচ্ছিল জনগনের কস্ট আমি আর সহ্য করতে পারছি প্রয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর পদ ছেড়ে দিবো, এত মানুষ মরছে কৈ কথার সাথে কাজের কারো মিল পাচ্ছে না জনগন, আর নিজেরা নমিনেশন জমা দেন হ্যালিকপ্টারে করে...........জনগনের নিরাপত্তা দেয়ার দায়িত্ব কার?

"We want Justice for Adnan Tasin"

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী । এখন ২০০ সিটে যদি ম্যানেজ করে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপিরা জিতে যান তাহলে দেশের অনেক টাকা বেঁচে যেত।

ভাইরে, মাঠে তো শুধু আয়োজক কমিটি ছাড়া অন্য কোন দল নেই। তাহলে আর নির্বাচনের দরকার কি?

সংবিধানে  যদি কোনক্রমে আর একটা লাইন যুক্ত করা যেত যে, অধিকাংশ দল নির্বাচন বর্জন করিলে ইসি সরকারী দলেকে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বীতায় বিজয়ী ঘোষনা করিবেন। তাহলে বেশ সুবিধা-ই হতো শেখ হাসিনার জন্য।

এসো বাংলাকে গড়ি, বাংলাকে করি সুউচ্চ, সুমহান.........................

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ১০৯ জন প্রার্থী

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন শুভ১৭১ (১৪-১২-২০১৩ ০০:৩৩)

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

আপডেট : ১২৮ জন। সূত্র  । জাতীয় পার্টির ৫ টা আসন (এরশাদ ও জিএম কাদেরের টা সহ) ধামাধরা গুলা বাতিল না করায় এই সংখ্যা আর বাড়েনি।  lol2


ডেডলক যেভাবে রিপোর্ট করছেন তাতে সিএমএইচ এ আপনার জন্য একটা সিট বরাদ্ব হতে পারে। বলাতো যায়না কখন অসুস্থ হয়ে পড়েন। big_smile

১০

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

শুভ১৭১ লিখেছেন:

আপডেট : ১২৮ জন। সূত্র

ডেডলক যেভাবে রিপোর্ট করছেন তাতে সিএমএইচ এ আপনার জন্য একটা সিট বরাদ্ব হতে পারে। বলাতো যায়না কখন অসুস্থ হয়ে পড়েন। big_smile

lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2
আর একটু ধাক্কা দিয়ে ১৫১ তে নিয়ে গেলেই তো হয় । ভোটের ঝামেলা আর করা লাগে না।

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১১

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

আর একটু ধাক্কা দিয়ে ১৫১ তে নিয়ে গেলেই তো হয় । ভোটের ঝামেলা আর করা লাগে না।

এবং দেশের ৬০০ কোটি টাকা অপচয়ের হাত থেকে বেঁচে যায়।  isee

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

১২

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

এরশাদের পদত্যাগপত্র গ্রহন করা হলে সম্ভবত ৩০০ আসনেই বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় সকলেই জয় লাভ করতো, এটা আমাদের জন্য কত বড় লজ্জার যে সতন্ত্র প্রার্থীরাও এই সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে চাচ্ছে না, এর আগে ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারিতে বিরোধী দল আওয়ামী লীগকে বাদ দিয়ে তৎকালীন বিএনপি সরকারের একতরফা নির্বাচনে ৪৯ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়। এবার ১২৭ জন , WOW


একতরফা নির্বাচনে ফাঁকা মাঠে বিজয়ী ১২৭
সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী ৬৪ জেলার ৩০০টি সংসদীয় আসনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় যারা বিজয়ী হচ্ছেন তাদের মধ্যে রয়েছেন।



আওয়ামী সরকারের একতরফা নির্বাচনের ফাঁকা মাঠে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় বিজয়ী হয়েছেন ১২৭ জন প্রার্থী। এর মধ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের রয়েছে ১১৬, জাতীয় পার্টির ৫, ওয়ার্কার্স পার্টির ২, জাসদের (ইনু) ৩ এবং জাতীয় পার্টি (জেপি) একজন প্রার্থী। -
আওয়ামী লীগ :
ঠাকুরগাঁও-২ আসনে দবিরুল ইসলাম, দিনাজপুর-২ খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, লালমনিরহাট-২ নুরুজ্জামান আহমেদ, রংপুর-২ আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী, রংপুর-৫ এইচ এন আশিকুর রহমান, গাইবান্ধা-৫ ফজলে রাব্বী মিয়া, বগুড়া-১ আবদুল মান্নান, বগুড়া-৫ হাবিবুর রহমান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ গোলাম রাব্বানী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আবদুল ওদুদ, নওগাঁ-৬ ইসরাফিল আলম, রাজশাহী-১ ওমর ফারুক চৌধুরী, রাজশাহী-৪ এনামুল হক, নাটোর-১ আবুল কালাম, নাটোর-২ শফিকুল ইসলাম, নাটোর-৪ আবদুল কুদ্দুস, সিরাজগঞ্জ-১ মোহাম্মদ নাসিম, সিরাজগঞ্জ-২ হাবিবে মিল্লাত, সিরাজগঞ্জ-৩ ইসহাক হোসেন তালুকদার, সিরাজগঞ্জ-৪ তানভীর ইমাম, সিরাজগঞ্জ-৬ হাসিবুর রহমান, যশোর-১ শেখ আফিল উদ্দিন, বাগেরহাট-১ শেখ হেলাল উদ্দীন, বাগেরহাট-২ মীর শওকত আলী, বাগেরহাট-৩ তালুকদার আবদুল খালেক, ভোলা-১ তোফায়েল আহমেদ, ভোলা-৪ আবদুল্লাহ আল ইসলাম, বরিশাল-১ আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ, বরিশাল-৬ আবদুল হাফিজ মল্লিক, ঝালকাঠি-২ আমির হোসেন আমু, পিরোজপুর-১ এ কে এম এ আউয়াল, টাঙ্গাইল-১ আবদুর রাজ্জাক, টাঙ্গাইল-৩ আমানুর রহমান খান, টাঙ্গাইল-৪ আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী, টাঙ্গাইল-৭ একাব্বার হোসেন, টাঙ্গাইল-৮ শওকত মোমেন শাহজাহান, জামালপুর-৩ মির্জা আজম, ময়মনসিংহ-১ প্রমোদ মানকিন, ময়মনসিংহ-২ শরীফ আহমেদ, ময়মনসিংহ-৯ আনোয়ারুল আবেদীন খান, কিশোরগঞ্জ-১ সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ-২ সোহরাব উদ্দিন, কিশোরগঞ্জ-৪ রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, কিশোরগঞ্জ-৫ আফজাল হোসেন, কিশোরগঞ্জ-৬ নাজমুল হাসান, মানিকগঞ্জ-২ মমতাজ বেগম, মানিকগঞ্জ-৩ জাহিদ মালেক, মুন্সিগঞ্জ-৩ মৃণাল কান্তি দাস, ঢাকা-২ কামরুল ইসলাম, ঢাকা-৩ নসরুল হামিদ, ঢাকা-৯ সাবের হোসেন চৌধুরী, ঢাকা-১০ ফজলে নূর তাপস, ঢাকা-১১ এ কে এম রহমত উল্লাহ, ঢাকা-১২ আসাদুজ্জামান খান, ঢাকা-১৩ জাহাঙ্গীর কবির নানক, ঢাকা-১৪ আসলামুল হক, ঢাকা-১৯ এনামুর রহমান, ঢাকা-২০ এম এ মালেক, গাজীপুর-১ আ ক ম মোজাম্মেল হক, গাজীপুর-২ জাহিদ আহসান রাসেল, গাজীপুর-৩ রহমত আলী, গাজীপুর-৫ মেহের আফরোজ, নরসিংদী-৪ নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, নরসিংদী-৫ রাজিউদ্দিন আহমেদ, নারায়ণগঞ্জ-২ নজরুল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জ-৪ শামীম ওসমান, রাজবাড়ী-১ কাজী কেরামত আলী, রাজবাড়ী-২ জিল্লুল হাকিম, ফরিদপুর-১ আবদুর রহমান, ফরিদপুর-২ সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, ফরিদপুর-৩ খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মাদারীপুর-১ নূর-ই আলম চৌধুরী, মাদারীপুর-২ শাজাহান খান, মাদারীপুর-৩ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, শরীয়তপুর-১ বি এম মোজাম্মেল হক, শরীয়তপুর-২ শওকত আলী, শরীয়তপুর-৩ নাহিম রাজ্জাক, সুনামগঞ্জ-২ সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, সিলেট-১ আবুল মাল আবদুল মুহিত, মৌলভীবাজার-৩ সৈয়দ মহসীন আলী, মৌলভীবাজার-৪ আব্দুস শহীদ, কুমিল্লা-৭ আলী আশরাফ, কুমিল্লা-১০ আ হ ম মুস্তফা কামাল, চাঁদপুর-১ মহীউদ্দীন খান আলমগীর, চাঁদপুর-২ মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী, চাঁদপুর-৩ দীপু মনি, চাঁদপুর-৪ শামসুল হক ভূঁইয়া, চাঁদপুর-৫ রফিকুল ইসলাম, ফেনী-২ নিজামউদ্দিন হাজারী, নোয়াখালী-১ এ এইচ এম ইব্রাহীম, নোয়াখালী-২ মোরশেদ আলম, নোয়াখালী-৩ মামুনুর রশীদ, নোয়াখালী-৪ একরামুল করিম চৌধুরী, নোয়াখালী-৫ ওবায়দুল কাদের, লক্ষ্মীপুর-৩ এ কে এম শাহাজাহান কামাল, চট্টগ্রাম-৭ হাছান মাহমুদ, কক্সবাজার-২ আশেক উল্লাহ রফিক, কক্সবাজার-৩ সাইমুম সরওয়ার, চট্টগ্রাম-১ মোশাররফ হোসেন, চট্টগ্রাম-৬ ফজলে করিম চৌধুরী, চট্টগ্রাম-১০ আফছারুল আমীন, চট্টগ্রাম-১৪ নজরুল ইসলাম চৌধুরী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ আনিসুল হক, সাতক্ষীরা-৩ আ ফ ম রুহুল হক, সাতক্ষীরা-৪ জগলুল হায়দার, যশোর-৩ কাজী নাবিল আহমেদ, নেত্রকোনা-৪ রেবেকা মোমিন, নেত্রকোনা-৫ ওয়ারেসাত হোসেন, নওগাঁ-১ সাধন চন্দ্র মজুমদার, নওগাঁ-২ শহীদুজ্জামান সরকার, নীলফামারী-২ আসাদুজ্জামান নূর, জয়পুরহাট-১ সামছুল আলম, জয়পুরহাট-২ আবু সাঈদ আল মাহমুদ, পাবনা-২ খন্দকার আজিজুল হক, পাবনা-৪ শামসুর রহমান ও পাবনা-৫ গোলাম ফারুক খোন্দকার।
জাতীয় পার্টি :
চট্টগ্রাম-৫ আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, বগুড়া-২ শরিফুল ইসলাম, বগুড়া-৩ নুরুল ইসলাম তালুকদার, ময়মনসিংহ-৫ সালাহউদ্দিন আহমেদ, কুড়িগ্রাম-২ তাজুল ইসলাম চৌধুরী।
জেপি :
পিরোজপুর-২ আনোয়ার হোসেন মঞ্জু।
ওয়ার্কার্স পার্টি :
ঢাকা-৮ রাশেদ খান মেনন ও রাজশাহী-২ ফজলে হোসেন বাদশা।
জাসদ:
কুষ্টিয়া-২ হাসানুল হক ইনু, চট্টগ্রাম-৮ মঈন উদ্দীন খান বাদল ও ফেনী-১ শিরীন আখতার।
শীর্ষ নিউজ ডটকম/এজে/একেএ - See more at: http://www.sheershanews.com/2013/12/13/ … GYdUx.dpuf

"We want Justice for Adnan Tasin"

১৩

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

আরো আপডেট এখন পর্যন্ত ১৩৩ জন জিতেছেন

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১৪ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আউল (১৪-১২-২০১৩ ১৩:৫৩)

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

আর মাত্র (১৫১-১৩৩=১৮) আর মাত্র ১৮টা আসনে জিতলেই বিনা প্রতিদ্বিন্দিতায়
১৫১ সিট পেয়ে  বিনা বাধায় বিনা খরচে, বিনা শান্তি রক্ষিবাহিনীতে, বিনা ভোটারে
আওয়ামীলীগ+জাসদ(ইনু)+ওয়ার্কাস পার্টি+ তরিকুল ফেডারেশন+ জাপা (মনজু)  সরকার গঠন করবে আর + জাপা (রওশন) হবে বিরোধী দলীয় নেত্রী

দেশের সকল বিরোধী দল না হয় গোষ্মা করেছেন কিন্ত সতন্ত্র সদস্যরাও এই নির্বাচন কেন প্রত্যাখ্যান করলো বুঝল না কেহই

mizvibappa @ হলেও কি আর হবে!!! ভোগান্তি, হত্যা, হয়রানি এসব তো সাধারণ জনগণেরই বাড়বে। আর ১৯৯৬ সালের নিবার্চনীয় ঘটনা কেউ যদি ব্যক্ত করেন তাহলে উপকৃত হতাম।ঐসময় নাকি বিএনপিও এরকম একতরফা নির্বাচন দিতে চেয়েছিল।পরে কি হয়েছিল???

ঐদিন এক টকশোতে একজন বিশেষজ্ঞ ১৯৯৬ এর সাথে দেশের নির্বাচন পরিস্থিতির তুলনা করার সময় এগুলো বলেছিলেন।তবে এমন নাকি গণহত্যা করা হয় নি!!!  neutral neutral neutral

তখন দেখা মাত্র গুলি করা হয়নি তাই গনহত্যা হয়নি, তখন পরো রাজপথ জুড়ে ছিলো আওয়ামীরা, তখন লাঠি আর কাদানো গ্যাস মারা হতো এখন গুলি, এখন গুলিতে পথচারী সহ শিশূ পযর্ন্ত মরছে, আর ১৯৯৬ সালে হ্যালিকপ্টারে চড়ে কেহ নমিনেশন জমা দেয়নি, আর ১৯৯৬ সালে সতন্ত্র সদস্যরা অংশ গ্রহন করেছিলো এবার করেনি,তখন নির্বাচন বয়কটের কার এখনকার নির্বাচনের বয়কটের কারন কি? আর ১৯৯৬ সালে কতজন বিনা ভোটে জয় পেয়েছে এবার কতজন? আর ১৯৯৬ সালের সরকার কতদিন স্থায়ী ছিলো ??

"We want Justice for Adnan Tasin"

১৫ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (১৪-১২-২০১৩ ১৪:১০)

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

এখন ১৩৬ টি ।

১৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন mizvibappa (১৪-১২-২০১৩ ১৬:৪৫)

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

আরও একটা বিষয় নির্বাচন কমিশন যেই বিষয়টা ভুল করছে বা সরকারের পক্ষপাতিত্ব করছে কিনা জানি না তবে আমার কাছে যেটা লাগছে সেটা হল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এখনো উনারা এমপি হননি।হ্যাঁ এটা বলতে পারে যে ঐখানে আর কোন প্রার্থী নেই।তাই বলে এই না যে, উনি ঐখানকার এমপি হয়ে গেলেন।কারণ এখনো জনগণের ভোট বাকি আছে।নির্বাচন কমিশন তো আর জনগণের উর্ধ্বে নয়।

তাছাড়া নির্বাচন কমিশন থেকেই জানানো হয়েছে যে, যদি দুদলের মধ্যে সমঝোতা হয় তাহলে তপসিল পরিবর্তন করা যেতে পারে।তখন যদি বিরোধী দল নির্বাচনে যায় তখন কি থাকবে এই বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বীতা।

আর একতরফা নির্বাচন দিলে আমলীগের ক্ষতি হবে এবং সেই খেসারত জনগণের জীবনের উপর দিয়ে যাবে।আর সেটা বিরোধী দলই করবে।তবে অনেকেই বলছে ১৯৯৬ সালের নির্বাচনী ঝড় neutral

সব কিছু ত্যাগ করে একদিকে অগ্রসর হচ্ছি

লেখাটি CC by-nd 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৭

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

এখন পর্যন্ত ১৪২ টি

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১৮ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আউল (১৪-১২-২০১৩ ১৮:২৫)

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

এখন ১৪৯টা   (এখানে)যে ভাবে আগাচ্ছে তার মানে ১৫১ টা আজ রাত্রের মধ্যেই হয়ে যাবে, তাই যদি হবে তবে এরশাদকে নিয়ে এত টানা টানি কেন?
জনগন বুঝলো রওশন হচ্ছেন বিরোধী দলের নেত্রী, আর জনগন তাদের ভোটের অধিকার হারালো

"We want Justice for Adnan Tasin"

১৯

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

১৫১ হলে গেছে।  এখন গেজেট প্রকাশ করলেই মহাজোট সরকার গঠন করতে পারে।

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

২০

Re: এখন পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এমপি নির্বাচিত হচ্ছেন ৬ প্রার্থী

১৫১ কলাগাছকে অভিনন্দন  thumbs_up

۞ بِسْمِ اللهِ الْرَّحْمَنِ الْرَّحِيمِ •۞
۞ قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ ۞ اللَّهُ الصَّمَدُ ۞ لَمْ * • ۞
۞ يَلِدْ وَلَمْ يُولَدْ ۞ وَلَمْ يَكُن لَّهُ كُفُوًا أَحَدٌ * • ۞