২১

Re: আধ ডজন স্কুল, একটা ফাউ!

আহা! আমার স্কুলজীবনের তেমন কোন উল্লেখযোগ্য স্মৃতি মনে পরে না।  sad বন্ধু-বান্ধবরাও হারিয়ে গিয়েছে, কারও সাথে দেখা-সাক্ষাত নেই।  sad

লেখা ভাল হয়েছে।  thumbs_up



mcctuhin লিখেছেন:

শেষ পর্যন্ত আম্মা আমাকে বোঝালেন, ঠিক আছে কোচিং করে পরীক্ষাটা দাও, ক্যাডেটে যেতে হবে না।

আমাকেও এই ফাদে ফেলে(পরিক্ষা দেও, ভর্তি হওয়া লাগবে না) আমার অপছন্দের স্কুলে ভর্তি করিয়েছিল। পরে জেদের বশে আর কোন পরিক্ষাই দেইনি, ফলশ্রুতিতে এক বছর লস।

"Monsters are merely those which cross a certain line. Customs, laws, justice, taboos--They cross those lines, fully aware that they exist."

২২

Re: আধ ডজন স্কুল, একটা ফাউ!

কিছুই বলার নাই এক কথায় অসাধারন।

মানুষ মাত্রই মরন শীল , কিন্ত নশ্বর নয় ।।

২৩

Re: আধ ডজন স্কুল, একটা ফাউ!

চমৎকার বর্ণনা। জিনিয়াস।  clap
ফোরামের অন্যান্য জিনিয়াসদের (যেমন ব্রাসু ভাই, শামীম ভাই) এরকম অভিজ্ঞতামুলক পোস্ট চাই।  big_smile

২৪

Re: আধ ডজন স্কুল, একটা ফাউ!

বছরের সেরা লেখা  love

  Tenacity - Focus - Discipline - Repetition

   Sabbir's Blog 

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

২৫

Re: আধ ডজন স্কুল, একটা ফাউ!

চমৎকার!!!
পড়তে পড়তে বাচ্চা এমসিসিতুহিন এর জন্য খুব মায়া লাগছিল, কেমন করে ভুল বুঝে বেচারা বন্দী হয়ে যাচ্ছিলো।
তবে পরে বন্দী জীবনটা খুব উপভোগ করেছেন দেখে খুবই ভালো লাগলো।

বেদনাদায়ি, তবুও দিনান্তে যে তোমায় ভালবাসি!

২৬

Re: আধ ডজন স্কুল, একটা ফাউ!

রেজওয়ানুর লিখেছেন:
mcctuhin লিখেছেন:

আরো লেখার ইচ্ছে আছে, বেশি বড় হয়ে যাচ্ছিল, তাই ক্ষ্যামা দিলাম।

পরেরবার ক্ষ্যামা দেয়ার দরকার নাই  wink , এমন হলে এক নিঃশ্বাসেই পড়ে শেষ করে ফেলা যাবে।  big_smile

সামনে থিসিসের একগাদা কাজ পড়ে আছে, তাই লেখার মুডও চলে আসতেছে আস্তে আস্তে।  thinking

মরুভূমির জলদস্যু লিখেছেন:

নানান কারণে আমাকেও আধ ডজন স্কুলে যেতে হয়েছিলো।  dream

আধ ডজন স্কুল তো জাফর ইকবালের উপন্যাসের নাম থেকে ধার করা, তবে বাস্তবে স্কুলের সংখ্যা আরেকটা বেশি।

তার-ছেড়া-কাউয়া লিখেছেন:

আহা! তুহিন নাম্বার ওয়ানের স্মৃতিচারণ চমৎকার লাগলো clap বাই দ্যা ওয়ে, আমি একখান স্কুল, একখান কলেজ আর একখান ইউনিতে পড়েছি। এরকম অভিজ্ঞতা চাইলেও আমার পক্ষে পাওয়া আর সম্ভব না big_smile

কল্পনা একখান বস জিনিস, জীবনে যা যা পাই নাই, সবই কল্পনা কইরা নেই, আপনিও ট্রাই মাইরা দেখতে পারেন।

আহমাদ মুজতবা লিখেছেন:

অসাধারণ। আপনার লেখনীর হাত ভালো। প্রুফরিডারও মনে হয় ভালই পেয়েছেন  hehe

সবই আল্লাহর দয়া আর আপনাদের দোয়া ভাইজান।  big_smile

Jemsbond লিখেছেন:

নিশ্বাস বন্ধ করে ঘুম ঘুম চোখে পড়তে পড়তে কখন যে চোখ ঠিকরে বেরিয়ে গেলো বুঝলাম ই না । সাধ্য থাকলে আপনাকে এক হাজার রেপু দিয়ে দিতাম এমন সুন্দর একখান সৃতিমধুর লেখনীর জন্য । আহা  dream , ঢাকার বদ পোলাপাইনের লিস্টি ত বহুত লম্বা । গেম খেলার বিষয়টা পুরাই খাপে খাপ । এই গেম খেলার জন্য কত এরিয়া ঘুরেছি তার ঠিক নেই । "আদুকেট " পাওয়ারটা কন্ট্রোল বায়ে ঘুরিয়ে হাত মারতে হয় যদ্দুর মনে পড়ছে । শ্যমলি হলে মুভি দেখছিলাম বেশকবার  tongue তবে কোচিং এ গিয়ে ও ছন্দে ঢুকেন নাই এইটা ভাবাইতেছে  blushing । সংসদ ভবন আর জিয়া উদ্যানে শুয়ে কমিকস পড়ার মজাই অন্যরকম । ফ্রামগেইট ওভারভ্রিজ এর নিচে টাইপিং করা কিছু মানুষের ডানদিকেই ছিলো ছোট খুপরির মতন নিউজ পেপার ওয়ালা যার কাছে ৩৫ টাকা দিলেই একটা জিনিস ধরাইয়া দিতো কাগজে মুড়িয়ে তারপর শরীর থেকে কয়েক বালতি ঘাম ঝড়িয়ে তেজগাঁও রেল ক্রস করে খালি ডাব্বায় বসে খুলে ফেলতাম "খাজানা "  tongue_smile । ওপাড়ে আঁখের রস বিক্র হত সেখানে অগ্নিপুত্র অভয় , তিন গোয়েন্দা , পিঙ্কি এদের কমিক্স পাওয়া যেত ।  আমার মেঝ খালা ও আমাকে অনেক আদর করতেন । খালাত ভাই নাদিম আর আমার বয়স কাছাকাছি হওয়ার সুবাদে আমি ও বেশ কিছু জামাকাপড় পেতাম খালামনির কাছ থেকে । ঢাকা থেকে আমি কামরাঙ্গা মার্বেল আর সবচেয়ে স্পীড তীক্ষ্ণ গজাল ওয়ালা লাট্টিম নিয়ে যেতাম তার জন্য আর সে আমারে দিতো রাবার ( টেকা বান্দুইন্না) । খালামনির বাসায় গেলে রাতে ডানো গুড়ো দুধ আর হরলিক্স খেতে হত প্রতিদিন । আসার সময় খালুজান আমাকে ৫০/১০০ টাকা পকেটে দিয়ে দিতো আর বলত গেমস খেলিস না । স্কুল জীবনে আমি এত বিখাউস বদ বন্ধু পাইছিলাম যেগুলো আমাকে কখন ও ভাল হইতে দিলো না , কারন আমিই ত বড় বিখাউস  tongue । বিদেশে প্রথমবার আসার সময় ৩ গাড়ি ভর্তি করে বন্ধমহল এসেছিলো রাত৩টায় । সবগুলারে সেই যে এতিম বানাইয়া আসছি , বর্তমানে কয়েকটা শুনেছি বিয়ে শাদী করে পোলার বাপ হবার পায়তারা করছে ।

কি শুরু করে দিলাম কি বলতে গিয়ে  sad sad sad । আমি ও লিখব কিন্তু একজন প্রুফ রিডিং ক্রেডিট দেয়ার লোক খুজে পেলেই  tongue_smile

খাজানার ব্যাপারটা কি আমি যা ভাবতেছি তাই???
আর প্রুফ রিডারের ব্যাপারে কই, বেটার লেট দ্যান নেভার!

Jol Kona লিখেছেন:

অনেক অনেক ভাল লাগছে ভাইয়া পড়ে thumbs_up
সময় নিয়ে আস্তে আস্তে পড়লাম। অনেক দুষ্টু ছিলেন  big_smile আমরা সবাই কম বেশি দুষ্টু ছিলাম মনে হয় অই সময়  hehe

সেই পুরানো বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ কি আছে এখনো!? স্কুলের বন্ধুদের মত বন্ধু আসলে হয় না। পরবর্তী সময়ের লাকিলী কয়েক জনকে পাওয়া যায়!

সবার সাথে নাই, অপু নামের ছেলেটাকে আজান দিয়ে খুঁজেছি, পাই নি। ওরা সাভার থেকে কই চলে গেছে, কেউ জানে না।  sad
শামীম নামের আরেকজন বন্ধু ছিল, ছোটখাট গোলগাল গাট্টুগুট্টু। ওকে পেয়েছিলাম আমার স্টুডেন্ট হিসেবে, ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার। চিনতে পারে নি।  confused

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

বড় লেখা তাও এক ধাক্কাতে লেখাটি পড়লাম। অসাম অসাধারণ একটি লেখা লিখেছেন। প্রজন্ম ফোরামের বছরের অন্যতম সেরা লেখা এটা। ধন্যবাদ ব্যাক্তি জীবনের ঘটনা শেয়ার করার জন্য।

ছোট ছোট পর্ব করে লেখাগুলো রিলিজ করলে টপিক আরো বেশী হিট পেত বলে আমি মনে করি। কারণ ফোরামের পাঠকেরা বরই অলস টাইপের  hehe

mcctuhin লিখেছেন:

এই ভয়াবহ কথাটা আমি জানতাম না যে মেডিক্যালে প্যান্ট খুলতে হবে।

আমিও শুনেছি। কিন্তু সত্যি সত্যি যে খুলতে হয় তা আগে শিওর ছিলাম না confused । মূলত কি জন্য এই পরীক্ষা নেওয়া হয় ?

mcctuhin লিখেছেন:

মতান্তরে মির্জাপুর কেন্দ্রীয় কারাগার

lol2 lol2 lol2 lol2 । এই কারাগার থেকে বের হয়ে কি আর্মিতে পরীক্ষা দিয়ে ছিলেন ?

mcctuhin লিখেছেন:

ব্যাটা, তোরা এই জেলখানায় থাকবি ছয়ডা বচ্ছর, আর আমি থাকুম মাত্র ৭ দিন। খ্যাক খ্যাক!

lol2 lol2 lol2



অফঃ টপিকঃ

আহমাদ মুজতবা লিখেছেন:

অসাধারণ। আপনার লেখনীর হাত ভালো। প্রুফরিডারও মনে হয় ভালই পেয়েছেন  hehe

তা আর বলতে thumbs_up । লেখাতে কোন ভুল চোখে পড়লো না।

আমি তো মনে করে ছিলাম, আমারা বিদেশিনী সুইডিশ ভাবী পাবো  hehe । তাও দেশী ভাবি কে প্রাণ ঢালা অভিনন্দন  thumbs_up ।  তা আমাদের ভাবী এখন কি সুইডেনে আছে নাকি দেশে আছেন ?

আসলে কোথাও পোস্ট করার জন্য লিখা শুরু করি নাই, এমনিতেই নোটপ্যাড খুলে লেখা শুরু করেছিলাম, অনেক্ষণ লেখার পর মনে হল, অনেক বড় হয়ে গেছে। তাই পোস্ট করে দিলাম।

রেজওয়ানুর লিখেছেন:
দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

...তা আমাদের ভাবী এখন কি সুইডেনে আছে নাকি দেশে আছেন ?

./topic44865.html  wink

ধন্যবাদ ভাই, এই টপিকে কারো রিপ্লাই দেওয়া হয় নি, ভুলে গেছিলাম। sad

গৌতম লিখেছেন:

দারুণ লেখা!  thumbs_up

ধন্যবাদ।  big_smile big_smile big_smile

faysal_2020 লিখেছেন:

প্রজন্মতে এখন আর খুব একটা আসা হয় না। মাঝে মাঝে আসলেও সাইন ইন না করে কিছু লেখা পড়েই চলে যাই, কমেন্ট আর করা হয় না।
এ লেখা পড়ার পর কমেন্ট না করে আর থাকতে পারলাম না। মনে হচ্ছে অনেক অনেক দিন পর মনের মত একটা লেখা পড়লাম। আপনি একটু নিয়মিত লিখেন, দেখবেন প্রজন্মের অনেক সদস্যই নিয়মিত হয়ে গেছেন।

mcctuhin লিখেছেন:

তবে জাকারিয়া, অনিন্দ্য, কিংবা রেসিডেন্সিয়ালের ওই মেয়েটা, এরা ভাইভাতেও কুড়াল দিয়া কোপাইতো!

এইটা কেমনে হইলো? thinking thinking

আলোচ্য অংশে "কোপানো" বলতে পরীক্ষায় ভাল করা বোঝানো হয়েছে।  kidding

সমালোচক লিখেছেন:

রেসিডেন্সিয়ালে ভর্তি হয়েছিলাম। পড়েছিলাম ২ মাস তারপর টাটা ......
তবে আমার স্কুল বদলের অভিজ্ঞতা খানিক বেশীই হবে। এক ক্লাসেই একাধিক বার বদল সহ  ( ১ম  টু এসএসসি ) ১১টা স্কুল এবং কলেজ একটাই... তবে ইউনি চারটা ( জাতীয় বিশ্বঃ, চট্টগ্রাম ইউনি, গণ বিশ্বঃ এবং UAP ) বদল করেছি...
তবে ক্যাডেটে থেকেও কেন যেন অনেকেই মিলিটারিতে যায় না বুঝিনা... নিশ্চিত জীবন, লোভনীয় স্যালারী, ক্ষমতা, প্লাস সুন্দরী বউ ( বিশেষ করে এই কারণটাই ঈর্ষনীয় ) মিলিটারিতে জব করে এমন অফিসার এবং সৈনিকরা জাদুমন্ত্রে সুন্দরী বউ পেয়ে যায়, এবং সুন্দরী মেয়েদের বাবারাও মিলিটেরী জামাই পেলে বর্তে যায়...  tongue

আমি ইউএপি তে লেকচারার ছিলাম। ভাগ্যিস আপনার সাথে দেখা হয় নাই।  lol
আর মিলিটারিতে কেন যায় আর কেন যায় না, সেটা নিয়ে আর কিছু না বললাম। অনেকের মাঝেই আর্মি নিয়ে আজাইরা খাউজানি আছে, তারা ক্যাঁক করে ধরে কাইজ্জা স্টার্ট করে দিবে। শুধু একটা কথাই বলি, মিলিটারি কিংবা মেডিক্যালে গেলে আপনার জীবনের সুখ বলতে কিছু থাকবে না, বিনিময়ে আপনার পূর্ববর্তী এবং পরবর্তী প্রজন্ম খানিকটা আরাম ভোগ করবে।

বোরহান লিখেছেন:
faysal_2020 লিখেছেন:

এইটা কেমনে হইলো? thinking thinking

এই উপমা সম্ভবত "ব্যাপক পারফর্মেন্স" বুঝাইতে ব্যবহৃত হয়েছে।

বোরহান ভাই ঠিক ধরতে পারছেন। এই লেখায় হাউজ লীডার রাফি ভাই নামে যার কথা বলেছি, তার আগের ব্যাচে হাউজ লিডার যিনি ছিলেন, উনার নামও বোরহান ভাই।  big_smile

জামিল মণ্ডল লিখেছেন:

কি মন্তব্য করবো বুঝতে পারছি না ! অতি অসাধারণ একটা লেখা ! আপনার লেখনীর ভক্ত হয়ে গেলাম ।

মন্তব্য কিন্তু করেই ফেলেছেন অলরেডি! ধন্যবাদ।

মোঃ বাবু লিখেছেন:

দারুণ লেখেছেন! thumbs_up

ধন্যবাদ।

কোরাকোরা লিখেছেন:

আহা! আমার স্কুলজীবনের তেমন কোন উল্লেখযোগ্য স্মৃতি মনে পরে না।  sad বন্ধু-বান্ধবরাও হারিয়ে গিয়েছে, কারও সাথে দেখা-সাক্ষাত নেই।  sad

লেখা ভাল হয়েছে।  thumbs_up

mcctuhin লিখেছেন:

শেষ পর্যন্ত আম্মা আমাকে বোঝালেন, ঠিক আছে কোচিং করে পরীক্ষাটা দাও, ক্যাডেটে যেতে হবে না।

আমাকেও এই ফাদে ফেলে(পরিক্ষা দেও, ভর্তি হওয়া লাগবে না) আমার অপছন্দের স্কুলে ভর্তি করিয়েছিল। পরে জেদের বশে আর কোন পরিক্ষাই দেইনি, ফলশ্রুতিতে এক বছর লস।

বছর লস দেওয়াকে যতটা গুরুতর অপরাধ হিসেবে দেখা হয়, আসলে কিন্তু অতটা না। আশা করি সেই একবছর লস কোন প্রভাব ফেলেনি আপনার ওপর।

রহস্য মানব লিখেছেন:

কিছুই বলার নাই এক কথায় অসাধারন।

ধইন্যা ধইণ্যা  big_smile big_smile

ভালোবাসার কোড লিখেছেন:

চমৎকার বর্ণনা। জিনিয়াস।  clap
ফোরামের অন্যান্য জিনিয়াসদের (যেমন ব্রাসু ভাই, শামীম ভাই) এরকম অভিজ্ঞতামুলক পোস্ট চাই।  big_smile

সহমত!

টমাটিনো লিখেছেন:

বছরের সেরা লেখা  love

হুর্মিয়া!! কি যে কন আপনে!!

অংকিতা লিখেছেন:

চমৎকার!!!
পড়তে পড়তে বাচ্চা এমসিসিতুহিন এর জন্য খুব মায়া লাগছিল, কেমন করে ভুল বুঝে বেচারা বন্দী হয়ে যাচ্ছিলো।
তবে পরে বন্দী জীবনটা খুব উপভোগ করেছেন দেখে খুবই ভালো লাগলো।

বাচ্চা থেকে আস্তে আস্তে বুড়া হয়ে যাচ্ছি, কিন্তু গল্প শেষ হচ্ছে না sad

Gentlemen, you can't fight in here, this is the war room!

২৭

Re: আধ ডজন স্কুল, একটা ফাউ!

ভোট দিতে গিয়ে এই লেখাটি পড়ার সুযোগ হল। অসাধারণ।

mcctuhin লিখেছেন:
শামীম লিখেছেন:

সিম্পলি সুপার্ব লিখনি। এক ধাক্কায় পেছনে নিয়ে গিয়েছিলো। আমি অবশ্য একটু কম - এক হালি স্কুলে পড়েছি। (নো ক্যাডেট)

আফসোস মানুষের একটাই জীবন --- আপনাকে এমন লেখা আরও লিখুন বলা মুশকিল!  hehe
তবে আরও লিখুন -- এমন আবেগ সহ লিখুন।

আরো লেখার ইচ্ছে আছে, বেশি বড় হয়ে যাচ্ছিল, তাই ক্ষ্যামা দিলাম।

লেখেন না ভাই। রিকয়েস্ট।

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

২৮

Re: আধ ডজন স্কুল, একটা ফাউ!

আরণ্যক লিখেছেন:

ভোট দিতে গিয়ে এই লেখাটি পড়ার সুযোগ হল। অসাধারণ।


আমার অবস্থাও সেইম, এক গাদা বুকমার্ক করে রেখেছি পড়বো করে।

২৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন এক্স-ক্যাডেট সানি (২৬-০১-২০১৪ ০০:৪৪)

Re: আধ ডজন স্কুল, একটা ফাউ!

তুহিন ভাই, আপনার জন্য ৫০ বছর পূর্তির ভিডিও (6mins)  smile

তোমরা যেখানে সাধ চলে যাও — আমি এই বাংলার পাড়ে
র’য়ে যাব; দেখিব কাঁঠালপাতা ঝরিতেছে ভোরের বাতাসে;
দেখিব খয়েরি ডানা শালিখ  -                (জীবনানন্দ দাশ)