২১

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

ফয়সল সাইফ লিখেছেন:

ইসলামের অলৌকিক যেকোনো ঘটনা বিশ্বাস করে নেব

এটাই তো মূল কথা। আপনি বিজ্ঞানের কোন কথা বা যুক্তি বিশ্বাস করবে না এটা ধরে নিয়ে টপিক টি খুলেছেন। তাহলে প্রশ্ন করার কি দরকার ছিল ? প্রথমেই বলতেন, "আপনারা বিজ্ঞান ভিত্তিক যাই জবাব দেন না কেন , আমি তা মানবো না"

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

২২ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (০৯-১১-২০১৩ ১২:৩৬)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:
ফয়সল সাইফ লিখেছেন:

ইসলামের অলৌকিক যেকোনো ঘটনা বিশ্বাস করে নেব

এটাই তো মূল কথা। আপনি বিজ্ঞানের কোন কথা বা যুক্তি বিশ্বাস করবে না এটা ধরে নিয়ে টপিক টি খুলেছেন। তাহলে প্রশ্ন করার কি দরকার ছিল ? প্রথমেই বলতেন, "আপনারা বিজ্ঞান ভিত্তিক যাই জবাব দেন না কেন , আমি তা মানবো না"

শিক্ষানবীশ ঘাসফড়িং-কে একদা মাস্টার পো বলিয়াছিলেনঃ যে কলসীতে শূন্য স্থান বাকী আছে, কেবল উহাতেই নতুন জল ঢালা যাইবে। শানে নুযুলঃ আ ভরা কলসী ইয আ ব্যাড থিং টু হ্যাভ।  cool
http://i.imgur.com/CosIoY2.jpg


তবে কাহারো কলসীখানি যদি সহস্রাব্দ পুরানা তালা লাগাইয়া সীলগালা করা থাকে, তাহার ব্যাপারে কোনো নির্দেশিকা তিনি মরিবার আগে দিয়া যান নাই  worried


Oh Master Po! How you have failed the young grasshopper.... http://s23.postimg.org/m8cjb0h6v/sad_emoticon_18589362.jpg

Calm... like a bomb.

২৩ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ভালোবাসার কোড (০৯-১১-২০১৩ ১২:২১)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:
ফয়সল সাইফ লিখেছেন:

ইসলামের অলৌকিক যেকোনো ঘটনা বিশ্বাস করে নেব

এটাই তো মূল কথা। আপনি বিজ্ঞানের কোন কথা বা যুক্তি বিশ্বাস করবে না এটা ধরে নিয়ে টপিক টি খুলেছেন। তাহলে প্রশ্ন করার কি দরকার ছিল ? প্রথমেই বলতেন, "আপনারা বিজ্ঞান ভিত্তিক যাই জবাব দেন না কেন , আমি তা মানবো না"

ইসলামের যে সব ব্যাপার এখনো প্রমাণিত হয়নি তা ১০০ বা ১০০০ বছর পরে প্রমাণিত হবে। ইসলাম সার্বজনীন। এ জন্য শিশু বিজ্ঞান  crying নিয়ে আমাদের বাহাদুরি করা একদমই মানায় না।
"নাসা" যে বছর বলবে মঙ্গলে এক সময় পানি ছিলো, তার পরের বছর বলে মঙ্গলে কোনো কালেই পানি ছিলনা।  big_smile

বিবর্তনে আকার, আকৃতি, বর্ণে পরিবর্তন হবে। স্পিসিস মিউটেশন একদম গাঁজাখুরি।

২৪ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (০৯-১১-২০১৩ ১২:৫৭)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

ভালোবাসার কোড লিখেছেন:

বিবর্তনে আকার, আকৃতি, বর্ণে পরিবর্তন হবে। স্পিসিস মিউটেশন একদম গাঁজাখুরি।

Dr J Craig Venter >>>>>>   Genome Transplantation in Bacteria: Changing One Species to Another
http://i.imgur.com/1NVecIo.png   http://s23.postimg.org/mpz00s4dj/butler.jpg  big_smile  cool

আপডেটঃ edge.org-এর লিংক আগেই দিয়েছিলাম। এখানে ডঃ ভেণ্টারের সাথে জীনোম ট্রান্সপ্ল্যাণ্ট বিষয়ে কথোপকথন আছে।

Calm... like a bomb.

২৫ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ভালোবাসার কোড (০৯-১১-২০১৩ ১২:৫২)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

ডারউইনের বিবর্তন কি DNA লেভেলের কথা বলে?
মানুষের সাথে কুকুরের DNA 90% এর কাছাকাছি মিল। তাতে কি বলবেন কুকুর থেকে মানুষ বা মানুষ থেকে কুকুর?
অবশ্য কোনো এক কালে পরীক্ষায় পাসের জন্য বানর থেকে মানুষ প্রমানের জন্য পৃষ্ঠার পর পৃষ্ঠা লিখে ফেলেছিলাম।  big_smile

২৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন হৃদয়১ (০৯-১১-২০১৩ ১৩:০৩)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

@ভালোবাসার কোড

কুকুর থেকে মানুষ। দুটোই স্তন্যপায়ী। একই পর্বভুক্ত। তাই DNA এর মিল। পিছিয়ে যান। অমেরুদণ্ডীদের মধ্যে ঢুকে পড়ুন। DNA এর মিল আরও কম। আরও পিছিয়ে যান। উদ্ভিদজগৎ এ ঢুকে পড়ুন। মিল আরও কমতে থাকবে। বিবর্তন।

"No ship should go down without her captain."

২৭ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (১০-১১-২০১৩ ১৮:৪১)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

ভালোবাসার কোড লিখেছেন:

ডারউইনের বিবর্তন কি DNA লেভেলের কথা বলে?
মানুষের সাথে কুকুরের DNA 90% এর কাছাকাছি মিল। তাতে কি বলবেন কুকুর থেকে মানুষ বা মানুষ থেকে কুকুর?
অবশ্য কোনো এক কালে পরীক্ষায় পাসের জন্য বানর থেকে মানুষ প্রমানের জন্য পৃষ্ঠার পর পৃষ্ঠা লিখে ফেলেছিলাম।  big_smile

এখন নিওডারউইনিযমের যুগ। রিচার্ড ডকিন্স তাঁর ঐতিহাসিক বই A Selfish Gene প্রকাশ করে রীতিমত তোলপাড় ফেলে দিয়েছিলেন। ওই একটা বইয়ে ডারউইন ও মেণ্ডেলের মধ্যে শুভবিবাহ করিয়ে দিয়ে জীন সেণ্টৃক ওয়ার্ল্ডভিউর সূচনা করেছিলেন ডকিন্স!

ব্যাপারটা অনেকটা ফিজিক্সের ক্লাসিকাল নিউটনিয়ান মডেল আর কোয়াণ্টাম মডেলের মত। নিউটন, ম্যাক্সওয়েল এমনকি রাদারফোর্ড প্রমুখরা ম্যাক্রো লেভেলে অবজার্ভেশন করেছিলেন। পরে আইনস্টাইন, বোহর, প্ল্যংক ও বন্ধুরা এসে কোয়ান্টাম জগৎের দরজা খুলেছেন। এখন বিজ্ঞানীরা মাথা ঘামাচ্ছেন কিভাবে দু'টোকে সম্মিলিত করে GUT - grand unifying theory বা Theory of Everything খাড়া করা যায়  hairpull hairpull hairpull

ডারউইন বা রাসেল ওয়ালেস প্রমুখরা বিবর্তনের গ্রস বৈশিষ্ট্যগুলো পর্যবেক্ষণ করে (প্রায় নির্ভুল) সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছিলেন। বিবর্তনের এণ্ড রেজাল্ট তাঁরা দেখেছিলেন, কিন্তু বিবর্তনের ড্রাইভিং মেকানিজমটার খুঁটিনাটি সম্পর্কে তাঁরা একেবারে অজ্ঞ ছিলেন। গ্রেগর মেণ্ডেল তাদের সমসাময়িক হলেও চার্চের "বিশেষ বদান্যতায়" মেণ্ডেলিয়ান মেকানিক্স চাপা পড়েছিলো বহুকাল।

ফিজিসিস্টরা মাথা কুটে মরলেও বায়োলজী কিন্তু তার GUT বের করে ফেলেছে! আশির দশকে ডকিন্সের সেলফিশ জীন প্রকাশ পাবার পর রীতিমত ফ্লাডগেট খুলে গিয়েছিলো! ডারউইনিয়ান ম্যাক্রো সিস্টেমের সাথে মেণ্ডেলিয়ান মাইক্রো সিস্টেমের গাঁটছড়া বেঁধে দিয়েছিলেন রিচার্ড ডকিন্সের সমসাময়িক বিজ্ঞানীরা।

ম্যাক্রোস্কোপিক বিবর্তন গত দেড় শতাব্দী ধরেই আমরা অবলোকন করে এসেছি, আর এখন মাইক্রোস্কোপিক লেভেলে ওই প্রক্রিয়া কে, কিভাবে পরিচালিত করছে তা বিগত ৩/৪ দশক ধরে উদ্ঘাটন করে চলেছি।

কোন প্রাণী কোন পূর্বসুরী থেকে এসেছে তা ডিএনএ এ্যানালাইসিস, জেনেটিক ক্লক থেকে বিজ্ঞানীরা অনুমান করেন। সব প্রজাতীর ডিএনএ মিউটেশন একটা নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর হয় - এই মিউটেশন রেইট থেকে একটা রাফ টাইমলাইন আমরা পাচ্ছি।

যেমন গরিলার গায়ের বডি লাইস এবং মানুষের মাথায় হেড লাইস (উকুন) ও যৌণাঙ্গে পিউবিক লাইস খুব কাছাকাছি স্পিশিয, প্রায় একই প্রজাতীর মতই - খুবই সামান্য মিউটেশন আছে। ওই ৩/৪ প্রজাতীর পরজীবী উকুনের ডিএনএ এ্যানালাইসিস করে আগের সিদ্ধান্তটাই করোবোরেট করা গেছেঃ মানুষ ও গরীলা কমন এ্যান্সেস্টর থেকে উৎপন্ন।

এমনকি উকুনের জেনেটিক পার্থক্য ও মিউটেশন রেইট (জীন ঘড়ি) থেকে বিজ্ঞানীরা এও বলতে পারেন আনুমানিক কত লক্ষ বছর আগে মানুষের পূর্বসূরী প্রাণীরা গায়ের লোম ঝেড়ে ফেলা আরম্ভ করেছিলো। গরীলার সারা দেহে একই ধরণের ঘন লোম, তাই তার সারা দেহে একই ধরণের উকুন। কিন্তু কয়েক মিলিয়ন বছর আগে মানব পূর্বপুরুষদের দেহের লোম কমে গিয়ে মূলতঃ মাথা ও তলপেটে চুল/লোম কনসেন্ট্রেটেড হয়েছে - উকুনগুলোও ওই রকম পরিবর্তিত পরিবেশে নিজেদের বিবর্তিত করে নিয়েছে। আবার মানুষের চুল ও বালের tongue গুণগত পার্থক্য সম্পর্কে পুলাপাইন সম্যক অবগত। তাই মানুষের মাথার উকুন এক প্রকারের, আবার পিউবিসের উকুন সামান্য ভিন্ন প্রকারের। মানুষের পিউবিক লাইসের সাথে আবার গরিলার বডি লাইসের বেশি মিল আছে roll  (কারণটা উহ্য থাক  wink ) এ ধরণের বিভিন্ন প্রজাতীগুলোর মিউটেশন টাইমলাইন কোররিলেট বা ট্রায়াংগুলেট করে জেনেটিসিস্টরা জানছেন কোন স্পিশিয কখন স্প্লিট করে নতুন সাব-স্পিশিযের সৃষ্টি করছে। এগুলো সাপোর্টিং এভিডেন্স অবশ্য। যাই হোক, মাল্টিপল ফাইণ্ডিং কিন্তু একই প্রক্রিয়ার দিকে নির্দেশ করছে।

আপনার প্রশ্নের সাধারণ উত্তরঃ কুকুর, বানর ও মানুষ কেউ কারো থেকে সৃষ্টি হয় নি, তবে এরা বহু দূর অতীতে একই পূর্বসুরী (LUCA- last universal common ancestor) থেকে উদ্ভব হয়েছে বিভিন্ন সময়ে।

তবে এভাবে অনবরত রিগ্রেস বা পেছাতে থাকলে একটা আল্টিমেট পয়েণ্টে আসা যাবে - আমরা (মানে পুরো প্রাণী ও উদ্ভিদ, ব্যাকটেরিয়া ও আরকেয়া জগৎ) কোনো প্রাচীন ভাইরাস (বা ভাইরাস-লাইক) জাতীয় আদিম লাইফ-ফর্মের বংশধর। কিছুদিন পরপরই খবরে দেখি আমাদের (এবং অন্যান্য প্রাণীরও) ডিএনএ/আরএনএ-তে আদিম ভাইরাল নিউক্লিওটাইড আবিষ্কৃত হচ্ছে। এ ধরণের বিভিন্ন ফ্যাণ্টাস্টিক আবিষ্কার থেকে বিজ্ঞানীরা হাইপোথিসাইজ করছেন জড়-জীবের সন্ধিক্ষণে থাকা ভাইরাসের মতই কোনো কোনো পিকিউলিয়ার, আদিম প্রোটিন মলিকিউল থেকে ৩.৫ বিলিয়ন বছর পূর্বে আমাদের পুরো জীব জগৎের উৎপত্তি!

তবে ওই গড-ভাইরাস নিঃসন্দেহে পৃথিবীর বুক থেকে বিলুপ্ত হয়ে গেছে বিলিয়ন বিলিয়ন বছর আগেই। তবে কিছু ক্ষীণ ট্রেইল রেখে গেছে। ওটাই সম্বল করে জীন বিজ্ঞানীরা অতীতের পথে হাঁটার প্রয়াস পাচ্ছেন।

আর ভাইরাস তো তাও অনেক এ্যাডভান্সড লেভেলের "অর্ধ-জীবিত" সিস্টেম - এখন আমরা prion নামের এক ঘাড়ত্যাড়া প্রোটিনের অস্তিত্ব জেনে কুলকিনারা হারা অবস্থায় পড়েছি! এই পৃয়ন প্রোটিন মলিকিউল ব্যাটাই সারা বিশ্বে ম্যাড কাউ ডিজিজ ও অন্যান্য ব্রেইণ ডিজিজ বাঁধিয়ে হাঙ্গামা লাগাচ্ছে। কিছুদিন আগে এক এ্যান্থ্রোপলজিস্টের ইণ্টারভিউ পড়তে গিয়ে জানলাম গভীর এ্যামাযনের এক নরমাংস-খাদক গোত্রে "কুরু" নামে এক ভয়ানক, রহস্যময় রোগে বহু লোক ধুমধাম মারা যাবার কথা। এখন রহস্য চিচিং ফাঁক হয়েছেঃ এই "কুরু" হলো এক টাইপের পৃয়ন প্রোটিন। মৃত ব্যক্তির ব্রেইনে পৃয়ন ইনফেকক্সন থাকতে পারে। গোত্রের লোকজন যখন ওই ইনফেক্টড ব্রেন ভক্ষণ করে, পৃয়ন ইনফেক্সন অন্যদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। এই তথ্য আবিষ্কার হবার পর ব্রাজিল সরকার ক্যানিবালিজম নিষিদ্ধ করে দিয়েছিলো। যতই দিন যাচ্ছে, ততই এই ব্যাটা মিসফোল্ডেড প্রটিনের কাণ্ডকীর্তি অর্থাৎ নতুন নতুন ভয়ানক ব্রেইন ডিজিজের ব্যাপারে আমরা জানছি।

পৃয়ন অবশ্য কোনোভাবেই জীবিত বলা যাবে না - এটা যাস্ট একটা প্রোটিন পলিমার, বৈশিষ্ট্য হলো তার কেমিকেল স্ট্রাকচারটি বিদঘুটে রকমের মিসফোল্ডেড। এখানেই তার জীবনি চক্র থেমে গেলে ভালো হতো। কিন্তু সমস্যা হলো, পৃয়নরা আবার তেঁতুল হুজুরের বিশেষ মুরীদ big_smile বেয়াড়া পৃয়ন প্রোটিন অন্যান্য সাধারণ "নরমাল" প্রোটিনের সান্যিধ্যে দুই-চার মিনিট এলেই তার দিল কি বাত বাতানো তো দূরের কথা, বেচারী, নিষ্পাপ প্রোটিনটার স্ট্রাকচারও মিসফোল্ডেড করে বিকৃত করে দেয় - এভাবে নিজেদের সংখ্যাবৃদ্ধি করতে থাকে পৃয়নরা। অথচ এটা যাস্ট একটা প্রোটিন, কোনো লাইফফর্ম না! মানুষ, গরু, শূকর সহ অসংখ্য প্রাণীর বিশেষ ধরণের ব্রেইন ডিজিজের জন্য দায়ী পৃয়নরা। অথচ এদের ব্যাপারে আমরা জানলাম মাত্র সেদিন (৬০-এর দশকে)।

এরকম কত পৃয়ন-মিয়ন যে আমাদের চোখের সামনে লুকিয়ে কাম সেরে যাচ্ছে... তারপরেও লোকে বিশ্বাস করবেঃ না, কাদামাটির মধ্যে ফুঁক দিয়েই মানুষের সৃষ্টি  roll

বাই দি ওয়ে, জড় উৎস থেকে জীব উৎপত্তির সম্ভাবনা যাঁরা এক বাক্যে নাকচ করে দেন, তাঁরা কি ভাইরাস নামটি কখনো শোনেন নি? বা না শুনলেও প্রতি বছর ফ্লু, সর্দি কাশিতে আক্রান্ত হন না?  confused

Calm... like a bomb.

২৮

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

invarbrass লিখেছেন:

জড় উৎস থেকে জীব উৎপত্তির সম্ভাবনা যাঁরা এক বাক্যে নাকচ করে দেন, তাঁরা কি ভাইরাস নামটি কখনো শোনেন নি?

আপনার কমেন্ট পড়ে ব্যাকটেরিওফাজের জীবনচক্রের ব্যাপারটা ব্যাপারটা মনে পড়ল। আসলেই ভাইরাস জিনিসটাকে ঠিক জীব বা জড় বলা যাবেনা। এরা এতোই প্রিমিটিভ লাইফফর্ম যে এদের প্রতিটি কাজ রাসায়নিক বিক্রিয়া দিয়ে প্রকাশ করা যায়। কিন্তু DNA রেপ্লিকেশান করে বংশবিস্তার করার জন্য আবার এদের ঠিক জড় পদার্থও বলা যাবেনা।

জীব আর জড়ের মধ্যের পার্থক্যটা ভাইরাস লেভেলে গিয়ে অস্বচ্ছ হয়ে যায় সেটা জানা ছিলো। কিন্তু prion এর ব্যাপারটা জেনে সিরিয়াসলি আশ্চর্য হলাম!!

"No ship should go down without her captain."

হৃদয়১'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

২৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (০৯-১১-২০১৩ ১৪:৪৩)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

হৃদয়১ লিখেছেন:

আপনার কমেন্ট পড়ে ব্যাকটেরিওফাজের জীবনচক্রের ব্যাপারটা ব্যাপারটা মনে পড়ল। আসলেই ভাইরাস জিনিসটাকে ঠিক জীব বা জড় বলা যাবেনা। এরা এতোই প্রিমিটিভ লাইফফর্ম যে এদের প্রতিটি কাজ রাসায়নিক বিক্রিয়া দিয়ে প্রকাশ করা যায়। কিন্তু DNA রেপ্লিকেশান করে বংশবিস্তার করার জন্য আবার এদের ঠিক জড় পদার্থও বলা যাবেনা।

জীব আর জড়ের মধ্যের পার্থক্যটা ভাইরাস লেভেলে গিয়ে অস্বচ্ছ হয়ে যায় সেটা জানা ছিলো। কিন্তু prion এর ব্যাপারটা জেনে সিরিয়াসলি আশ্চর্য হলাম!!

টি২ ফাজ আবারও শীঘ্রই কামব্যাক করছে।

সপ্তাহ দেড়েক আগে সিডিসির (ভারতীয় বংশোদ্ভুত) চীফ নিউইয়র্ক টাইমসে "এ্যান্টিবায়োটিকের দিন শেষ, গেইম ওভার, কয়েনও খতম" বলে একটা আর্টিকল লিখেছিলেন। ওটা নিয়ে হ্যাকারনিউজে জোর ডিসকাশন চলছিলো, বিভিন্ন কমেণ্ট থেকে জানলাম ব্যাকটেরিয়াদের বিরুদ্ধে ক্রমশঃ হেরে যাওয়া যুদ্ধে নতুন নতুন আর্টিলারী ডেভেলপ করার চেষ্টা হচ্ছে।

তাদের একটি হলোঃ আমাদের বহুদিনের ওল্ড ফ্রেণ্ড তামাকু মুযাইক ভাইরা(-স)!
পেনিসিলিন হাতে পাওয়া মাত্র ব্যাকটেরিওফাজদের বহু আগে হাস্তা লা ভিস্তা শুনিয়ে দিলেও এখন আবার ব্যাকটো-দের বেদম ঠ্যাঙ্গানী খেয়ে টি২-দেরকে "আই'ল বী ব্যাক" করানোর চেষ্টা করছেন অনেক গবেষক।  roll সব ঠিকঠাক থাকলে হয়তো কয়েক বছরের মধ্যেই নেক্সট এপিসোড রিলিয হয়ে যাবে।  thumbs_up

Calm... like a bomb.

৩০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ভালোবাসার কোড (০৯-১১-২০১৩ ১৭:২৫)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

invarbrass লিখেছেন:

আমরা (মানে পুরো প্রাণী ও উদ্ভিদ, ব্যাকটেরিয়া ও আরকেয়া জগৎ) কোনো প্রাচীন ভাইরাস (বা ভাইরাস-লাইক) জাতীয় আদিম লাইফ-ফর্মের বংশধর।

ইট সিমেন্ট রড দিয়ে বিল্ডিং তৈরি হয়। কিন্তু একেকটা বিল্ডিং একেক রকম। আবার কখনো কখনো অনেকটা কাছাকাছি দেখতে। কিন্তু বাস্তবে একটার সাথে আরেকটার কোনো যোগসুত্র নেই। ডিজাইনার প্ল্যান করছে কোন ডিজাইনে কি বানাবে। Raw Materials Same.  big_smile

৩১

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

ভালোবাসার কোড লিখেছেন:

ইট সিমেন্ট রড দিয়ে বিল্ডিং তৈরি হয়। কিন্তু একেকটা বিল্ডিং একেক রকম। আবার কখনো কখনো অনেকটা কাছাকাছি দেখতে। কিন্তু বাস্তবে একটার সাথে আরেকটার কোনো যোগসুত্র নেই। ডিজাইনার প্ল্যান করছে কোন ডিজাইনে কি বানাবে।

ধরাধামে দেখি কয়েক কোটি, আর্কিটেক্ট, ইন্ঞ্জিনিয়ার, ডিজাইনার, কিন্তু জগতের ডিজাইনার দেখি একজনই! এটা হজম হয়না।

Life IS Neither TEMPEST, NOR A midsummer NIGHT'S DREAM, BUT A COMEDY OF Errors,
ENJOY AS U LIKE IT

৩২ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ফয়সল সাইফ (০৯-১১-২০১৩ ১৯:৩৭)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

এটাই তো মূল কথা। আপনি বিজ্ঞানের কোন কথা বা যুক্তি বিশ্বাস করবেন না এটা ধরে নিয়ে টপিক টি খুলেছেন। তাহলে প্রশ্ন করার কি দরকার ছিল? প্রথমেই বলতেন, "আপনারা বিজ্ঞান ভিত্তিক যাই জবাব দেন না কেন , আমি তা মানবো না"

দুঃখিত, আমি মনে হয় আপনাকে বুঝাতে পারিনি; অথবা আপনি সেটা নিজেই বুঝতে পারেন নি। এমনটা ভাবার কোনো কারণ নেই, যে আপনারা বিজ্ঞান ভিত্তিক যাই জবাব দেন না কেন , আমি তা মানবো না। প্রশ্ন হলো কেন মানব না? যদি সেটা মানার মতো হয়? সদস্য-১ তাঁর নিজের জীবনের একটা ঘটনা বললেন। তার মানে কী এই যে, এখন সবাইকে এটা মেনে নিতে হবে? তাঁর সাথে সাথে, এটা কী আমাদেরও জীবনের বাস্তব অভিজ্ঞতা নাকি? তা ছাড়া যদি বিজ্ঞানের ওপর আপনাদের নূন্যতম ভরসাও থাকতো; তাহলে তো বিবর্তনবাদ প্রমাণের জন্য এই সব অলৌকিক ঘটনার উল্লেখ করতে হতো না। আমি কী এ পর্যন্ত কোনো অলৌকিক ঘটনার কথা বলেছি। কারণ আমি জানি, অলৌকিক ঘটনাগুলো কোনো যুক্তি নয়; শুধুই বিশ্বাসের বিষয়। এটা নিয়ে বিতর্ক করা যায় না।

invarbrass লিখেছেন:

আপনার প্রশ্নের সাধারণ উত্তরঃ কুকুর, বানর ও মানুষ কেউ কারো থেকে সৃষ্টি হয় নি, তবে এরা বহু দূর অতীতে একই পূর্বসুরী (LUCA- last universal common ancestor) থেকে উদ্ভব হয়েছে বিভিন্ন সময়ে।

আর তাঁদের মধ্যে শুধু মানুষ জাতি বুদ্ধিমান হতে পেরেছে। অন্যরা গর্দভ রয়ে গেছে।

invarbrass লিখেছেন:

জড় উৎস থেকে জীব উৎপত্তির সম্ভাবনা যাঁরা এক বাক্যে নাকচ করে দেন, তাঁরা কি ভাইরাস নামটি কখনো শোনেন নি? বা না শুনলেও প্রতি বছর ফ্লু, সর্দি কাশিতে আক্রান্ত হন না?  confused

ভাইজান, আমরা জানি-ভাইরাস, এক ধরণের অতিক্ষুদ্র অণুজীব।তাঁদের দেহে কোনো নিউক্লিয়াস ও সাইটোপ্লাজম নেই। কেবল প্রোটিন এবং নিউক্লিক এসিড দিয়েই দেহ গঠিত। তাঁরা অকোষীয়ও; আর শুধু মাত্র জীবিত কোষের মধ্যেই বংশবৃদ্ধি করতে পারে। এজন্য ভাইরাসকে জীব হিসেবে বিবেচিত হবে কিনা, এ নিয়ে বিজ্ঞানীদের মধ্যে দ্বিমত আছে। কিন্তু তাই বলে কেউ কিন্তু অকাট্য প্রমাণ সহ বলে দেয়নি, যে ভাইরাস জড়। তাহলে নিজের দিকে আসছে বলে, কেন মতভেদ আছে এমন একটা জিনিসকে টেনে একেবারেই জড় বানিয়ে ফেলছেন। 

হৃদয়১ লিখেছেন:

আসলেই ভাইরাস জিনিসটাকে ঠিক জীব বা জড় বলা যাবেনা। এরা এতোই প্রিমিটিভ লাইফফর্ম যে এদের প্রতিটি কাজ রাসায়নিক বিক্রিয়া দিয়ে প্রকাশ করা যায়। কিন্তু DNA রেপ্লিকেশান করে বংশবিস্তার করার জন্য আবার এদের ঠিক জড় পদার্থও বলা যাবেনা।

এই তো ঠিক আছে।

অরিহন্ত লিখেছেন:

ধরাধামে দেখি কয়েক কোটি, আর্কিটেক্ট, ইন্ঞ্জিনিয়ার, ডিজাইনার, কিন্তু জগতের ডিজাইনার দেখি একজনই! এটা হজম হয়না।

কেন হজম হয় না? লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির তো বহুমূখী প্রতিভা ছিল। আমার দেশের কোনো গাঁজাখোরের চেয়ে তাঁর প্রতিভা বেশি; সেটা হজম করতে পারছেন তো?

৩৩ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (০৯-১১-২০১৩ ২০:১৪)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

ফয়সল সাইফ লিখেছেন:

তা ছাড়া যদি বিজ্ঞানের ওপর আপনাদের নূন্যতম ভরসাও থাকতো; তাহলে তো বিবর্তনবাদ প্রমাণের জন্য এই সব অলৌকিক ঘটনার উল্লেখ করতে হতো না। আমি কী এ পর্যন্ত কোনো অলৌকিক ঘটনার কথা বলেছি। কারণ আমি জানি, অলৌকিক ঘটনাগুলো কোনো যুক্তি নয়; শুধুই বিশ্বাসের বিষয়। এটা নিয়ে বিতর্ক করা যায় না।

বিবর্তন প্রমাণের জন্য কি কি "অলৌকিক" ঘটনা উল্লেখ করা হয়েছে তা জানতে কৌতূহল হচ্ছে।

ফয়সল সাইফ লিখেছেন:

ভাইজান, আমরা জানি-ভাইরাস, এক ধরণের অতিক্ষুদ্র অণুজীব।তাঁদের দেহে কোনো নিউক্লিয়াস ও সাইটোপ্লাজম নেই। কেবল প্রোটিন এবং নিউক্লিক এসিড দিয়েই দেহ গঠিত। তাঁরা অকোষীয়ও; আর শুধু মাত্র জীবিত কোষের মধ্যেই বংশবৃদ্ধি করতে পারে। এজন্য ভাইরাসকে জীব হিসেবে বিবেচিত হবে কিনা, এ নিয়ে বিজ্ঞানীদের মধ্যে দ্বিমত আছে। কিন্তু তাই বলে কেউ কিন্তু অকাট্য প্রমাণ সহ বলে দেয়নি, যে ভাইরাস জড়। তাহলে নিজের দিকে আসছে বলে, কেন মতভেদ আছে এমন একটা জিনিসকে টেনে একেবারেই জড় বানিয়ে ফেলছেন।

যাঁরা এক বাক্যে জড় থেকে প্রাণের উৎপত্তির (abiogenesis) সম্ভাবনা নাকচ করে দেন, তাঁদের জন্য ভাইরাসের রেফারেন্স দেয়া হয়েছে। আমাদের সামনেই উৎকৃষ্ট উদাহরণ হিসেবে আছে এমন একটি entity যে living & non-living-দের মাঝামাঝি grey zone-এ আছে। জীব ও জড় উভয় নৌকায় পা দিয়ে আছে এই কেমিকেল এ্যাসেম্বলী।

Calm... like a bomb.

৩৪ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ফয়সল সাইফ (০৯-১১-২০১৩ ২১:০১)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

invarbrass লিখেছেন:

বিবর্তন প্রমাণের জন্য কি কি "অলৌকিক" ঘটনা উল্লেখ করা হয়েছে তা জানতে কৌতূহল হচ্ছে।

আমার নিচের পোষ্টটা পড়ুন। হুবহু তুলে দিলাম। চেক করে নিতে পারেন। এটা ঠিক কী নির্দেশ করছে, আপনিই ভেবে দেখুন। তবে, কাউকে হেয় প্রতিপন্ন করা আমার উদ্দেশ্য নয়। সদস্য_১ নামক ভাইয়ের কাছে এজন্য আন্তরিকভাবে দুঃখিত।

সদস্য_১ লিখেছেন:

এবার একটা ব্যাক্তিগত অভিজ্ঞতার কথা বলি। আমার আগের বাসার কিচেনে অতি ছোট লালচে রঙের এক ধরেনের তেলেপোকা ছিল। গ্লু, বরিকপাউডার/বিষ সব ব্যাবহার করে লাভ হয়নি। যত মারা যায় তারচেয়ে বেশী তেলেপোকা জন্ম নেয়। শেষে অন্য এক ঔষধ আনলাম। ঔষধটা সরাসরি বিষ নয়, বরং তেলেপোকাদের মধ্যে একধরনের সংক্রামক ব্যাধি ছড়ায় (অবশ্যই এটা মানুষ কে আক্রান্ত করেনা) লাভ হল এই যে সব তেলেপোকার ঔষধটা খাওয়া বা সংস্পর্সে আসার প্রয়োজন হয়না। যেকোন দুএকটা তেলেপোকার সংস্পর্সে আসলেই হল। ঐ আক্রান্ত তেলেপোকা বাসায় গিয়ে অন্য তেলেপোকাকে সংক্রামিত করে। সব ছোয়চে রোগে আক্রান্ত হয়ে মাড়া যায়। চমৎকার আইডিয়া। প্রথমবার ঔষধটা ব্যাবাহার করার পর ফলাফল অভাবনীয়। দুদিনের মধ্যেই সমস্ত তেলেপোকা ছাফ! আমি তো খুশিতে আটখানা। তিন চারমাস পর আবার কিছু তেলেপোকা দেখতে শুরু করলাম। আমি লক্ষ করলাম তেলেপোকাগুলোর রং একটু অন্য ধরনের একটু কালচে। আবার ঔষধটা আনলাম। কিন্তু আশ্চর্য় হয়ে দেখলাম সেই ঔষধে ওদের কিছুই হয় না! এরাই হল পরবর্তী প্রজন্ম! বিবর্তীত প্রজন্ম! এই বদলটা দেখতে আমাকে লক্ষ বছর অপেক্ষা করেত হয়নি। বরং কয়ে মাস মাত্র।

৩৫

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

আপনি বোধহয় আলৌকিক ঘটনা কি জিনিস সেটাই জানেন না। ঘরে বাংলা একাডেমীর ডিকসিনারী থাকলে ভাল করে দেখে নিন। আলৌকিক হল এমন একটা ঘটনা, যার কোন লৌকিক ব্যাখ্যা নেই। যাকে পুনরায় করে দেখানো যাবেনা। এর সাথে ব্যাক্তিগত হওয়া না হওয়ার কোন সম্পর্ক নেই।  মুসা লাঠি দিয়ে বাড়ি দিয়ে সাগর দ্বিখন্ডিত করেছেন সেটা আলৌকিক। কারন সেটা আর কেউ করে দেখাতে পারেনি। আমি যদি বলি আমি আজ সকালে আলুভাজা দিয়ে পরোটা খাওয়ার সময় হঠাৎ করে মড়িচ কামড় পরায় ঝালে হ্যা করে ছিলাম। সেটা আলৌকি হবে না। যদিও এটা দৈব এবং ব্যাক্তিগত একটা ঘটনা। বিশ্বাস করতে পারছিনা ওগুলো আমাকে লিখে বোঝাতে হচ্ছে!  angry

ফয়সল সাইফ লিখেছেন:

এটা ঠিক কী নির্দেশ করছে,


এটা নির্দেশ করছে আমি আপনার যে বক্তব্য কোট করে ছিলাম তার উত্তর। আরো ভেঙ্গে বললে, আপনি বলেছিলেন এক জীবনে আমরা বিবর্তন দেখতে পারিনা। এই ঘটনা/ তথ্য  নির্দেশ করছে আমরা আসলে সেটা দেখতে পারি। এটা এই কারনে আলৌকিক নয় যে, আমি চাইলেই ঘটনটা আবার করে দেখাতে পারি। বিশ্বাস না হলে আপনি চার মাস সময় নিয়ে আমার কাছে চলে আসুন। আমি নিশ্চিত আশেপাশে কয়েকটা বড়ি খুজলেই ছোট তেলেপোকা সহ রান্নঘর পাওয়া যাবে, এবং ঘটনাটা পুনরায় ঘটতা পারব।

ফয়সল সাইফ লিখেছেন:

কাউকে হেয় প্রতিপন্ন করা আমার উদ্দেশ্য নয়। সদস্য_১ নামক ভাইয়ের কাছে এজন্য আন্তরিকভাবে দুঃখিত।

কারো কথার পিঠে কথা বললে তাকে হেয় করা হয়না। এতে আপনার কোন দোষ নেই। বরংআমার নিজের উপরই  রাগ হচ্ছে এতোক্ষন সিঙ্গেল ডিজিট আইকিউ পার্সনের সাথে তর্ক করার জন্য।

৩৬

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

সদস্য_১ লিখেছেন:

আপনি বোধহয় আলৌকিক ঘটনা কি জিনিস সেটাই জানেন না। ঘরে বাংলা একাডেমীর ডিকসিনারী থাকলে ভাল করে দেখে নিন। আলৌকিক হল এমন একটা ঘটনা, যার কোন লৌকিক ব্যাখ্যা নেই। যাকে পুনরায় করে দেখানো যাবেনা। এর সাথে ব্যাক্তিগত হওয়া না হওয়ার কোন সম্পর্ক নেই।  মুসা লাঠি দিয়ে বাড়ি দিয়ে সাগর দ্বিখন্ডিত করেছেন সেটা আলৌকিক। কারন সেটা আর কেউ করে দেখাতে পারেনি। আমি যদি বলি আমি আজ সকালে আলুভাজা দিয়ে পরোটা খাওয়ার সময় হঠাৎ করে মড়িচ কামড় পরায় ঝালে হ্যা করে ছিলাম। সেটা আলৌকি হবে না। যদিও এটা দৈব এবং ব্যাক্তিগত একটা ঘটনা। বিশ্বাস করতে পারছিনা ওগুলো আমাকে লিখে বোঝাতে হচ্ছে!

ওহ আমি তাহলে সত্যিই দুঃখিত। মুসা একটা কাজ করেছেন। সেই সময়ের মুসার সাথের লোকেরা সেটা দেখেছে। ওরা সেভাবেই লিখে রেখেছে। কিন্তু সেটা অলৌকিক। কারণ এটা আর কেউ দেখাতে পারবে না। আর আপনার ব্যাপারটা খুব সহজ। যদি তাই হলে থাকে, তাহলে এভাবে নয়; ল্যাবরেটরীতে প্রমাণ করে দেখান। আমার আইকিউ তো ভাই সিঙ্গেল ডিজিটের মধ্যেও সবচেয়ে নিম্ন লেভেলের। আর আপনারটা যেহেতু খুব বেশি তাহলে করে দেখান। এটা করতে চাইলেই বোঝা যাবে কত ধানে কত চাল। ফাঁকা মাঠে চেঁচিয়ে লাভ নেই। 


সদস্য_১ লিখেছেন:

এটা নির্দেশ করছে আমি আপনার যে বক্তব্য কোট করে ছিলাম তার উত্তর। আরো ভেঙ্গে বললে, আপনি বলেছিলেন এক জীবনে আমরা বিবর্তন দেখতে পারিনা। এই ঘটনা/ তথ্য  নির্দেশ করছে আমরা আসলে সেটা দেখতে পারি। এটা এই কারনে আলৌকিক নয় যে, আমি চাইলেই ঘটনটা আবার করে দেখাতে পারি। বিশ্বাস না হলে আপনি চার মাস সময় নিয়ে আমার কাছে চলে আসুন। আমি নিশ্চিত আশেপাশে কয়েকটা বড়ি খুজলেই ছোট তেলেপোকা সহ রান্নঘর পাওয়া যাবে, এবং ঘটনাটা পুনরায় ঘটতা পারব।

আমার মতো নগন্য মানুষের আসতে হবে কেন? আপনার জন্যই অপেক্ষা করছে সারা পৃথিবী। তবে, আগে কাজটা করে দেখান। নইলে ওই সব ফাউল দাবী করলে লোকে নির্ঘাত পাগল ভাববে।

৩৭ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ভালোবাসার কোড (০৯-১১-২০১৩ ২২:৩২)

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

সদস্য_১ লিখেছেন:

আমি লক্ষ করলাম তেলেপোকাগুলোর রং একটু অন্য ধরনের একটু কালচে। আবার ঔষধটা আনলাম। কিন্তু আশ্চর্য় হয়ে দেখলাম সেই ঔষধে ওদের কিছুই হয় না! এরাই হল পরবর্তী প্রজন্ম! বিবর্তীত প্রজন্ম! এই বদলটা দেখতে আমাকে লক্ষ বছর অপেক্ষা করেত হয়নি। বরং কয়ে মাস মাত্র।

কেউ আমাকে ঘুসি মারলে আমি ব্যাথা পেতাম। আমি জিম করে শরীর শক্ত করে ফেলেছি। এখন ঘুসি মারলে আর ব্যাথা পাইনা। কারণ আমি বিবর্তিত হয়েছি।   lol2 lol2 lol2
তাও ভালো। অন্তত ব্রাসু ভাইয়ের মতো আমাকে ব্যাকটেরিয়ার বংশধর বলেননি।  big_smile

৩৮

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

ভালোবাসার কোড লিখেছেন:
সদস্য_১ লিখেছেন:

আমি লক্ষ করলাম তেলেপোকাগুলোর রং একটু অন্য ধরনের একটু কালচে। আবার ঔষধটা আনলাম। কিন্তু আশ্চর্য় হয়ে দেখলাম সেই ঔষধে ওদের কিছুই হয় না! এরাই হল পরবর্তী প্রজন্ম! বিবর্তীত প্রজন্ম! এই বদলটা দেখতে আমাকে লক্ষ বছর অপেক্ষা করেত হয়নি। বরং কয়ে মাস মাত্র।

কেউ আমাকে ঘুসি মারলে আমি ব্যাথা পেতাম। আমি জিম করে শরীর শক্ত করে ফেলেছি। এখন ঘুসি মারলে আর ব্যাথা পাইনা। কারণ আমি বিবর্তিত হয়েছি।   lol2 lol2 lol2

খুবই লেইম লাগলো। একটা প্রজাতি মারা যাওয়ার বা না যাওয়ার কথা বলা হচ্ছে। জিম করে গা শক্ত করার তুলনা এখানে কিভাবে করেন?  surprised
আমি বায়োলজী খুব কম জানি। তবে এটা দেখেছি যে, আগে যেসব ভাইরাসে জ্বরে আক্রান্ত হতাম এবং এজন্যে ডাক্তারেরা যেসব ওষুধ দিতেন, সেগুলো এখন আর দেন না। কারণ ভাইরাসগুলো বিবর্তনের মাধ্যমে আগের চাইতে অনেক বেশি শক্তিশালী হয়ে গিয়েছে। কাজেই এখন নাপা খাইলেও জ্বরে হাপাইতে হয়।

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

৩৯

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

ফয়সল সাইফ লিখেছেন:

কেন হজম হয় না? লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির তো বহুমূখী প্রতিভা ছিল। আমার দেশের কোনো গাঁজাখোরের চেয়ে তাঁর প্রতিভা বেশি; সেটা হজম করতে পারছেন তো?

শুধু লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চি কেন ? মধ্যযুগে তো প্রায় সবাই পলিম্যাথ ছিল! তবে সে যুগ, আর এযুগের তুলনা করা গাঁজাখুরি অবশ্যই, তাই বর্তমানে আপনি পলিম্যাথ পাবেন না, পাবেন এক একটা কাজে বিশেষজ্ঞ ব্যক্তিদের।

Life IS Neither TEMPEST, NOR A midsummer NIGHT'S DREAM, BUT A COMEDY OF Errors,
ENJOY AS U LIKE IT

৪০

Re: চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদের সম্ভাবনা নিয়ে দুটো প্রশ্ন

তার-ছেড়া-কাউয়া লিখেছেন:

আগে যেসব ভাইরাসে জ্বরে আক্রান্ত হতাম এবং এজন্যে ডাক্তারেরা যেসব ওষুধ দিতেন, সেগুলো এখন আর দেন না। কারণ ভাইরাসগুলো বিবর্তনের মাধ্যমে আগের চাইতে অনেক বেশি শক্তিশালী হয়ে গিয়েছে। কাজেই এখন নাপা খাইলেও জ্বরে হাপাইতে হয়।

এমনও তো হতে পারে শক্তিশালী ভাইরাসগুলো দূর্বলগুলোর সাথে সাথে আগে থেকেই দুনিয়াতে ছিল, সে কারণে এখনকার মত বেশি পাওয়ারের অষুধ না পাওয়ার কারণে হয়ত অনেক রোগী মারাও যেত। আর সেটা ফর দ্যা টাইম বিয়িং নিয়তীর উপর ছেড়ে দেওয়া হত (আবিষ্কারের সীমাবদ্ধতার কারণে)।

আর মিউটেশনের ব্যাপারটা যদি এরকম প্রাকৃতিকই হবে তাহলে মানুষের শরীরে আজও অবধি ক্যান্সার টাইপের মরণব্যাধীগুলোর কিউর/এ্যান্টিবডি/ইমিউন সিস্টেম যাই বলেন না কেন (অষুধ ছাড়া সর্দি কাশি ভাল হওয়ার মত) তৈরি হলনা কেন?

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit