সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মাহমুদ রাব্বি (১১-০৯-২০১৩ ০৮:৫৮)

টপিকঃ মুসলিম বিশ্ব কেনো আজ এত পিছিয়ে?

একটা সময় ছিলো যখন মুসলিম বিশ্বকে বলা হতো বিশ্বের অন্যতম চালিকা শক্তি। বিভিন্ন ক্ষেত্রে মুসলিমদের অনেক অবদান ছিলো কিন্তু কিভাবে যেন সব কিছু এলোমেলো হয়ে গেলো। আরবেরাই (ইবনে বতুতা) তো এই অঞ্চলে এসে এই অঞ্চলের মানুষদের হিন্দু জাতি হিসেবে নাম দিলো। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতেও মুসলিমদের অবদান আছে কিন্তু সেগুলো তেমন প্রচার পায় না। নিউটন, আইনস্টাইনদের অবদানই বেশি প্রচার হয়। এক ইরান ছাড়া সামরিক শক্তি হিসেবে মুসলিম বিশ্বের খুব বেশি গর্ব করার মতো সামরিক শক্তি নেই। সৌদি আরবও সামরিক দিক থেকে শক্তিশালী কিন্তু সেটা সম্পূর্ন আমেরিকার নিয়ন্ত্রনাধীন।


http://mm.iteams.org/uploads/images/Muslim%20world.gif

আমার মতে মুসলিম বিশ্বের সোনালী ইতিহাস ম্লান হওয়ার মূল কারন হচ্ছে ,

১. খিলাফতের সময়কালে হত্যা, সন্দেহ, ক্ষমতার লোভ ইত্যাদি মুসলিম বিশ্বের মধ্যে বিভাজন তৈরী করে সুন্নী-শিয়া দুই গ্রুপ হয়ে নিজেদের মধ্যে মারামারি, কাটাকাটিতেই এক সময় ব্যস্ত হয়ে পড়ে। নিজেদের মধ্যে ঐক্যের সংকট। 

২. জঙ্গীবাদ ও তালেবানি শাসন।

৩. মূলত ইসলামিক গোল্ডেন এইজ বা সোনালী যুগে পার্সিয়ানদের অবদানই উল্লেখযোগ্য। আরবদের অবদানও আছে। পার্সিয়ানরা মূলত শিয়া মুসলিম। সুন্নী হয়ে বলতে দ্বিধা নেই ইসলামের সংস্কৃতিতে সুন্নীদের চেয়ে শিয়াদের অবদান বেশি। এই পার্সিয়ান মুসলিমেরা ইউরোপে সিভিলাইজেশন ঘটায়। এই পার্সিয়ান শিয়ারা অনেক ক্ষেত্রে আমাদের সুন্নীদের চেয়ে লিবারাল। যেমন আর্টের ক্ষেত্রে। ইসলামিক আর্ট হিসেবে যত বিখ্যাত কাজ আছে তার প্রায় সব এই পার্সিয়ানদের করা। আমরা সুন্নীরা নিজেদের রেসট্রিক্টেড বেশি করে ফেলেছি আহলে হাদিসদের পাল্লায় পড়ে। সাথে আছে সৌদি ওয়াহাবী। এদেরকে মাওলানা ফারুকী (হাইকোর্ট মসজিদের ইমাম) বলেন, ইসলামের ভিতরে ক্যান্সার।

৪. কথায় কথায় ইহুদি-নাসারাদের ষড়যন্ত্র খুঁজি। ঝড় হলেও বলি এটা ইহুদি-নাসারাদের ষড়যন্ত্র। তবে পশ্চিমারা যে ষড়যন্ত্র করে না সেটা না। তাদের ষড়যন্ত্রে পড়ে তেল রাজনীতির কারনে ইরাক আজ ধ্বংস কিন্তু ব্যাপারটাকে জেনারালাইজ করে দিয়ে এখন সর্বক্ষেত্রে ইহুদি-নাসারা চক্রের ষড়যন্ত্র খুঁজি। যার ফলে মুসলিম বিশ্ব কোনঠাসা হয়ে যাচ্ছে।

৫. ভারত-পাকিস্তান-বাংলাদেশে মূলত সুফীবাদের মাধ্যমে ইসলামের প্রসার হয়েছে। হযরত শাহজালাল নিজে সুফীবাদী ছিলেন কিন্তু মওদূদী দর্শন আসলে শুরু হয় অস্থিরতা।


আপনার কাছে কেনো মনে হয় মুসলিম বিশ্ব আজ পিছিয়ে পশ্চিমা বিশ্বের চাইতে বলেন।

Re: মুসলিম বিশ্ব কেনো আজ এত পিছিয়ে?

আমার কাছে, আপনার বক্তব্য অনেকটা হাওয়ার মতো বয়ে গেছে। জ্ঞান নির্ভর মনে হয় নি।

৩. মূলত ইসলামিক গোল্ডেন এইজ বা সোনালী যুগে পার্সিয়ানদের অবদানই উল্লেখযোগ্য। আরবদের অবদানও আছে। পার্সিয়ানরা মূলত শিয়া মুসলিম। সুন্নী হয়ে বলতে দ্বিধা নেই ইসলামের সংস্কৃতিতে সুন্নীদের চেয়ে শিয়াদের অবদান বেশি।

একটু যদি বিস্তারিত বলতেন।
আমার জানামতে , খুলাফায় রাশেদীন/ ৪ খলিফার পর, খিলাফাতকে ৩ অথবা ৪ ভাগে ভাগ করা হয়েছে। সময়কাল অনুসারে।
১। উমাইয়া খিলাফাত, ২। আব্বাসীয় খিলাফাত, (*ফাতেমী খিলাফাত - আব্বাসীয় খিলাফাত এর অধিনস্ত ছিল) , ৩। উসমানী খিলাফাত।
যদিও উসমানী খিলাফাত-কে অনেক আলেম ঐভাবে স্বীকার করে না। জানি না কেন? এর সময়কাল সম্ভবর ৩৫০ বছর ছিল। যা ১৯২০ সালে কামার পাশা ধ্বংস করে দেয়।

আমরা সুন্নীরা নিজেদের রেসট্রিক্টেড বেশি করে ফেলেছি আহলে হাদিসদের পাল্লায় পড়ে

আহলে হাদীস কারা ? আর কিভাবে রেসট্রিক্টেড করেছে ?

ওয়াহাবী

এদের সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাই।

হযরত শাহজালাল নিজে সুফীবাদী

আমাদের দেশে পীরদের নিয়ে যথেষ্ট কল্প-কাহিনী রয়েছে। যা রামায়নের কাহিনীকেও হার মানায়। ছোট বেলায় শুনে ছিলাম কোন পীর জানি পানির উপর হেটে পার হয়েছে। আরো শুনেছি, যোহরের নামাজ বাংলাদেশে পড়ে আসর মক্কায় পড়ে। সাহাবাদের নিয়ে যত বই পড়লাম এবং যত লেকচার শুনলাম তাতে এমন কিছু দেখলাম না। পীররা যদি এত অলৌকিক কিছু করতে পারে তাহলে সাহাবাদের মধ্যে যুদ্ধ হওয়ারই কথা না।

আপনার মুসলিম বিশ্ব কেনো আজ এত পিছিয়ে? - এই উত্তরে আমি যা মনেকরি , মুসলিমরা তাওহীদের জ্ঞান থেকে দূরে সরে গিয়েছে। "লা ইলাহা ইল্লালাহ" বলতে কি বুঝায় তাই ভুলে গিয়েছে।
তবে, আশার কথা হচ্ছে মানুষের মধ্যে তাওহীদের জ্ঞান বাড়ছে। আগে ইসলাম সম্পর্কে এত বই পাওয়া যেত না।এখন আলহামদুলিল্লাহ, তা বাড়ছে।

লিনাক্স ব্যবহার করুন-------
     কম্পিউটার থাকুক ভাইরাসমুক্ত,
     দেশ থাকুক দূর্নীতিমুক্ত।

Re: মুসলিম বিশ্ব কেনো আজ এত পিছিয়ে?

জাহিদুল আলম লিখেছেন:

আমাদের দেশে পীরদের নিয়ে যথেষ্ট কল্প-কাহিনী রয়েছে। যা রামায়নের কাহিনীকেও হার মানায়। ছোট বেলায় শুনে ছিলাম কোন পীর জানি পানির উপর হেটে পার হয়েছে। আরো শুনেছি, যোহরের নামাজ বাংলাদেশে পড়ে আসর মক্কায় পড়ে। সাহাবাদের নিয়ে যত বই পড়লাম এবং যত লেকচার শুনলাম তাতে এমন কিছু দেখলাম না। পীররা যদি এত অলৌকিক কিছু করতে পারে তাহলে সাহাবাদের মধ্যে যুদ্ধ হওয়ারই কথা না।

সো ট্রু ফ্যাক্ট, এখন শুনি পীরের সেবা করলেই নাকি বেহেস্তে যাওয়া যাবে, নামাজ না পরলেও চলে, পীরই নাকি নামাজ পরে দেয়  donttell বিশেষত পাকশী এবং ওদিকে অনেক মানুষ দেখেছি যারা এই মতবাদে বিস্বাসী।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মাহমুদ রাব্বি (১১-০৯-২০১৩ ১০:১৭)

Re: মুসলিম বিশ্ব কেনো আজ এত পিছিয়ে?

জাহিদুল আলম লিখেছেন:

আহলে হাদীস কারা ? আর কিভাবে রেসট্রিক্টেড করেছে ?

আহলে হাদিসরা হচ্ছে সেই গ্রুপ যারা হাদিসকেই মূল সোর্স হিসেবে নিয়ে সহীহ, জাল ইত্যাদি বাছ বিচার না করে সব হাদিসকে শরীয়তের মূল ভিত্তি হিসেবে মনে করে। এটা হারাম কারন এটা হাদিসে আছে, ওটা হারাম কারন ওটা হাদিসে আছে কিন্তু সেটা সহিহ কিনা সেটার বাছ বিচার করে না। এরা মোহাম্মদ ইবনে আল ওয়াহাবের দৃষ্টান্ত অনুসরণ করে। এরা পারলে গাড়ি হারাম করে বসে কারন গাড়িতে চড়ার ব্যাপারে হাদিসে কিছু লেখা নাই। এরা খুব রেস্ট্রিক্টেড।



আহলে হাদিস বা আহল-ই-হাদিস বা আসহাবুল হাদিস (আরবি: Ahl al-ḥadīth; أهل الحديث) অথবা (Aşḥāb al-ḥadīth; أصحاب الحديث) হলেন ইসলাম ধর্মের অন্তর্বর্তি একটি দল, যারা ইসলামের ব্যাখ্যায় প্রসিদ্ধ চার মাজহাবের কোনো ইমামের অনুসরণ না করে কেবল হাদিসের উপর নির্ভর করেন, যার সনদ বা পরম্পরা [শেষ বাণীবাহক] মুহাম্মদ [স.] পর্যন্ত পৌঁছেছে। ইমাম আবু হানিফা [রহ.] ও ইমাম মালিকের [রহ.] মতো এরা হাদিসের শুদ্ধাশুদ্ধ বিচারে আগ্রহী নন, বরং সকল প্রকার হাদিসই গ্রহণে আগ্রহী। মুহাম্মদ [স.] থেকে আগত কোনো হাদিস বিখ্যাত না হলেও এবং বর্ণনাকারীর ইসনাদ সকল শর্ত পূরণ করলেও তাঁরা হাদিসকে শুদ্ধ বলে গ্রহণ করতেন, এবং শাহ ওয়ালিউল্লাহ ও মুহাম্মদ-ইবন আল-ওয়াহাবের দৃষ্টান্ত অনুসরণ করেন, দেওবন্দির মতো তারা সুদি সমালোচনা করেন। তারা আলাদা ধরণের দাড়ি রাখেন এবং নামাজও কিছুটা রকমে আদায় করে থাকেন। তারা ব্যক্তিগত দৃষ্টিভঙ্গির উপর প্রাধান্য দিয়ে বিচার করেন।[১] এই মতানুসারীরা ইসলাম ধর্মসংশোধনের আন্দোলনকারী বলে দাবী করেন।

Re: মুসলিম বিশ্ব কেনো আজ এত পিছিয়ে?

আমার কাছে মনে হয় মুসলিম বিশ্ব যে টেরিটরিতে বিস্তার, সেই সব অঞ্চলের লোকেরা অলস প্রকৃতির। খালি মালয়শিয়া-ইন্দোনেশিয়া টেরিটরির লোকগুলো বাদে।

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: মুসলিম বিশ্ব কেনো আজ এত পিছিয়ে?

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

আমার কাছে মনে হয় মুসলিম বিশ্ব যে টেরিটরিতে বিস্তার, সেই সব অঞ্চলের লোকেরা অলস প্রকৃতির। খালি মালয়শিয়া-ইন্দোনেশিয়া টেরিটরির লোকগুলো বাদে।

এটাও ১টা অন্যতম কারন বটে।।  hehe hehe
যাবতীয় কিছুকে ধর্ম দিয়ে বিচার করে, ধর্মের(তথাকথিত) যাতাকলে পড়ে, না এগোতে পারি না পিছোতে পারি

প্রজন্ম ফোরাম

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আউল (১৯-০৯-২০১৩ ১৮:০২)

Re: মুসলিম বিশ্ব কেনো আজ এত পিছিয়ে?

কে বল্ল মুসলিম বিশ্ব পিছিয়ে?

অ.ট. অনেক মানুষ নিজেদেরকে দাবি করে তারা মুসলিম দেশর নাগরিক নয়, তারা ধর্মনিরপেক্ষ দেশের মানুষ আবার তারাই বিভিন্ন স্থানে যোগদান করে মুসলিম দেশর নাগরিক হিসাবে, কিন্ত  ধর্মনিরপেক্ষ দেশ ভারতের কেহতো সেখানে যায়নি, তারই একটা ঘটনা শেয়ার করছি এখানে

মুসলিম নারীদের নিয়ে আয়োজিত সুন্দরী প্রতিযোগিতা 'ওয়ার্ল্ড মুসলিমা ২০১৩' বিজয়ী হয়েছেন নাইজেরিয়ার ওবাবিউয়ি আয়েশা আজিবোলা। চূড়ান্ত তালিকার ১৯ সুন্দরীর মধ্যে ১৪ জনই ছিলেন ইন্দোনেশিয়ার। এছাড়া এ প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ, নাইজেরিয়া, ব্রুনেই, মালয়েশিয়া ও ইরান।
প্রথম রানার আপ হয়েছেন ইন্দোনেশিয়ার নুর আসপাসিয়া। দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছেন একই দেশের ইভাওয়ানি এফলিজা।
প্রতিযোগীদের কোরআন তেলাওয়াত, সৌন্দর্য, স্টাইল ইত্যাদি বিষয়গুলো দেখা হয়।
ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় আয়োজিত তৃতীয় ওয়ার্ল্ড মুসলিমার খেতাব জিতলেন এই কৃষ্ণাঙ্গ মুসলমান নারী। বাংলাদেশ থেকে অংশ নেয়া নাজনিন সুলতানা লিজা রয়েছেন সেরা দশের পরে।   
- See more at: http://www.bd-pratidin.com/2013/09/19/1 … gC9mq.dpuf

"We want Justice for Adnan Tasin"

Re: মুসলিম বিশ্ব কেনো আজ এত পিছিয়ে?

আউল লিখেছেন:

কে বল্ল মুসলিম বিশ্ব পিছিয়ে?

অ.ট. অনেক মানুষ নিজেদেরকে দাবি করে তারা মুসলিম দেশর নাগরিক নয়, তারা ধর্মনিরপেক্ষ দেশের মানুষ আবার তারাই বিভিন্ন স্থানে যোগদান করে মুসলিম দেশর নাগরিক হিসাবে, কিন্ত  ধর্মনিরপেক্ষ দেশ ভারতের কেহতো সেখানে যায়নি, তারই একটা ঘটনা শেয়ার করছি এখানে

মুসলিম নারীদের নিয়ে আয়োজিত সুন্দরী প্রতিযোগিতা 'ওয়ার্ল্ড মুসলিমা ২০১৩' বিজয়ী হয়েছেন নাইজেরিয়ার ওবাবিউয়ি আয়েশা আজিবোলা। চূড়ান্ত তালিকার ১৯ সুন্দরীর মধ্যে ১৪ জনই ছিলেন ইন্দোনেশিয়ার। এছাড়া এ প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ, নাইজেরিয়া, ব্রুনেই, মালয়েশিয়া ও ইরান।
প্রথম রানার আপ হয়েছেন ইন্দোনেশিয়ার নুর আসপাসিয়া। দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছেন একই দেশের ইভাওয়ানি এফলিজা।
প্রতিযোগীদের কোরআন তেলাওয়াত, সৌন্দর্য, স্টাইল ইত্যাদি বিষয়গুলো দেখা হয়।
ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় আয়োজিত তৃতীয় ওয়ার্ল্ড মুসলিমার খেতাব জিতলেন এই কৃষ্ণাঙ্গ মুসলমান নারী। বাংলাদেশ থেকে অংশ নেয়া নাজনিন সুলতানা লিজা রয়েছেন সেরা দশের পরে।   
- See more at: http://www.bd-pratidin.com/2013/09/19/1 … gC9mq.dpuf


আমি বলতে চাচ্ছি আগে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে মুসলিমদের উল্লেখযোগ্য অবদান ছিলো কিন্তু এখন যত কিছু আবিষ্কার হচ্ছে তাতে মুসলিমদের নামই শোনা যায় না।

মাহমুদ রাব্বির নতুন আইডি - রেডিয়েন্স

Re: মুসলিম বিশ্ব কেনো আজ এত পিছিয়ে?

রেডিয়েন্স লিখেছেন:

কিন্তু এখন যত কিছু আবিষ্কার হচ্ছে তাতে মুসলিমদের নামই শোনা যায় না।

কালের কন্ঠ - 'লুকানো ইতিহাস' এখানে শেয়ার করছি

"We want Justice for Adnan Tasin"