টপিকঃ স্বাধীনতা দিবস

প্রজন্ম ফোরামের সকল সদস্য এবং বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের প্রতি স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহনকারী প্রতিটি বীর বাংলাদেশির পায়ে সহস্র সালাম। যারা স্বাধীনতার মূল্যে নিজের জীবন দিয়েছেন তাদের অমর আত্মার পরম শান্তি কামনা করছি।

:স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে স্বাধীনতা রক্ষাই বেশি কঠিন:
আমাদের স্বাধীনতা অনেকটাই বিপন্নের পথে। তাই আসুন সবাই মিলে স্বাধীনতাকে পূর্ণভাবে লালন করি।

ধন্যবাদ সবাইকে।

[img]http://twitstamp.com/thehungrycoder/standard.png[/img]
what to do?

Re: স্বাধীনতা দিবস

সবাইকে জানাই স্বাধীনতা দিবসের প্রাণডালা শুভেচ্ছা। 
আমি এবারের স্বাধীনতা দিবসে সকল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবি করছি।
রাজাকার মুক্ত বাংলাদেশ চাই।

রক্তের গ্রুপ AB+

microqatar'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দত্ত (২৬-০৩-২০০৮ ০০:১৮)

Re: স্বাধীনতা দিবস

আমিও মাইক্রোকাতার ভাইয়ের সাথে একসুরে সুর মিলিয়ে বলতে চাই- যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হোক, রাজাকার/আল-বদর নিপাত যাক
আর প্রাণঢালা শ্রদ্ধা জানাচ্ছি সকল শহীদদের, তাদের পরিবারদের যারা মায়া-মমতা ত্যাগ করে দেশের স্বার্থে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল এবং সহায়তা করেছে, উৎসাহিত করেছে এই সশস্ত্র সংগ্রাম।

Re: স্বাধীনতা দিবস

সকলকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

     এদেশকে,আমার দেশকে,আমাদের বাংলাদেশকে স্বাধীন করার জন্য যারা প্রাণ দিয়েছেন, সেইসকল বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি ।
     আজকের এই দিনে আমরা তরুণরা দীপ্ত কন্ঠে  সেইসকল বীর শহীদদের বলতে চাই আমরা তোমাদের আদর্শ  থেকে এতটুকু বিচ্যুত হইনি ।তোমাদের আদর্শ থেকেই আমরা স্বাধীনতা রক্ষা করা শিখে নিয়েছি ।

        এদেশের মাটিতে প্রতিজন যুদ্ধাপরাধীর বিচার হবে ।হতেই হবে ।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সাকিব (২৬-০৩-২০০৮ ০৪:১১)

Re: স্বাধীনতা দিবস

সব স্বাধীনতা দিবস এর আগে আমার খুব ভাবতে (wishful thinking thinking ) ভাললাগে  যে, এই বার স্বাধীনতা দিবস এ সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখব যে এই দেশ রাজাকার আলবদর মুক্ত হয়েছে, দেশ থকে সব দুর্নিতি, সন্ত্রাস দূর হয়ে গেছে, মানুষের মধ্যে মানুষের জন্য ভালবাসা, সহমর্মিতা কয়েক কোটি গুন বৃদ্ধি পেয়েছে।
আমাদের দেশ টা আসলেই একটা সোনার বাংলাতে পরিনত হয়েছে...

সবাইকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

ফেসবুকে আমি...

[img]http://img718.imageshack.us/img718/3600/madarak3898937.gif[/img]

Re: স্বাধীনতা দিবস

সবাইকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা smile

অ আ ই ঈ উ ঊ ঋ এ ঐ ও ঔ
ক খ গ ঘ ঙ চ ছ জ ঝ ঞ ট ঠ ড ঢ ণ ত থ দ ধ ন প ফ ব ভ ম য র ল শ ষ স হ ক্ষ ড় ঢ় য়
ৎ ং ঃ ঁ

আলোকিত'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-nd 3. এর অধীনে প্রকাশিত

Re: স্বাধীনতা দিবস

মাইক্রোকাতার লিখেছেন:

সবাইকে জানাই স্বাধীনতা দিবসের প্রাণডালা শুভেচ্ছা। 
আমি এবারের স্বাধীনতা দিবসে সকল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবি করছি।
রাজাকার মুক্ত বাংলাদেশ চাই।

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: স্বাধীনতা দিবস

সবাইকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেছা। smile

... After A Long long Time ...

Re: স্বাধীনতা দিবস

tridib লিখেছেন:

সকলকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

     এদেশকে,আমার দেশকে,আমাদের বাংলাদেশকে স্বাধীন করার জন্য যারা প্রাণ দিয়েছেন, সেইসকল বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি ।
     আজকের এই দিনে আমরা তরুণরা দীপ্ত কন্ঠে  সেইসকল বীর শহীদদের বলতে চাই আমরা তোমাদের আদর্শ  থেকে এতটুকু বিচ্যুত হইনি ।তোমাদের আদর্শ থেকেই আমরা স্বাধীনতা রক্ষা করা শিখে নিয়েছি ।

        এদেশের মাটিতে প্রতিজন যুদ্ধাপরাধীর বিচার হবে ।হতেই হবে ।

আমিও তা চাই,আশাবাদী

"We want Justice for Adnan Tasin"

১০

Re: স্বাধীনতা দিবস

সবগুলো পোষ্ট বেশ মনোযোগ সহকারে পড়লাম। বেশির ভাগই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চেয়ে লিখেছেন। আমি মনে করি এটা অবাস্তব

আমার জন্ম হয়েছে আশির দশকে। এই ফোরামের অদ্যবদি যত সদস্য আছে তার অধিকাংশই মনে হয় আশির দশকে জন্ম নেওয়া। (সিনিয়রদের অসম্মান করছি না) আমারা অর্থাৎ আমাদের প্রজন্ম এখনও রাষ্ট্র পরিচালনা বা রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপুর্ন সিদ্ধান্ত নেওয়ার মতো যায়গায় যেতে পারে নাই। হয়ত আরও এক দশক লাগবে। তাহলে এখন কারা এই গুরুত্বপুর্ন কাজ করছে? যারা করছেন তারা নিশ্চই তারা আমাদের চেয়ে কমপক্ষে এক দশক সিনিয়র। তাহলে হিসাব অনুযায়ী তাদের জন্ম হয়েছে সওরের এর দশকে। আর সুধু সওরের দশকেরই নয় তার চেয়েও অনেক সিনিয়র রাজনীতিবিদ আমাদের দেশে আছে এবং তারা এখনও সক্রিয়। যারা দেশের বিভিন্ন সময়ের গুরুত্বপুর্ন ইতিহাস রচনা কারক। তাদেরই চোখের সামনে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ হয়েছে। তারাই আমাদের চেয়ে ভাল বলতে পারবে কারা যুদ্ধাপরাধী ছিল আর কারা নয় এবং এর জন্য কারা দায়ী। স্বাধীনতার পর যুদ্ধবিদ্ধস্ত একটি দেশকে গড়ার জন্য সাময়ীক ভাবে অনেক কৌশল হয়ত নেওয়ার প্রয়োজন আছে কিন্তু আজ অব্দি তাদের বিচার করা যায় নাই কেন এর উওর আগে জানা প্রয়োজন।

যারা প্রবীন রাজনীতিবিদ অর্থাৎ যাদের সামনে যুদ্ধ সংঘটিত হয়েছে বা যারা প্রত্যক্ষ্য ভাবে যুদ্ধে অংশ নিয়েছেন তারা স্বাধীনতার পর থেকে গতকাল পযর্ন্ত সময়ের মধ্যে কোন না কোন ভাবে বিভিন্ন ধরনের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসেছিলেন এবং এদেশের জনগন তাদের বুঝে হোক আর না বুঝে হোক ক্ষমতায় এনেছিলেন। কিন্তু তারা কি যুদ্ধাপরাধীদের কোন বিচার এতদিন করেছেন? বরং আমরা দেখেছি স্বাধীনতা বিরোধীরা আমাদের এর রাষ্ট্র পরিচালনাও করেছে।  আমি মনে করি স্বাধীনতার বীর সহীদদের ত্যাগ অপমানিত হয়েছে। আজ আমাদের এই দেশ মাতৃকা ধর্ষিত হয়েছে।hairpull

৭১-এ যদি কোন ১৫ বছরের বালকও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অংশ নিত তাহলে আজ তার বয়স হবে ৫২ বছর। পুর্ন বুড়ো। তাহলে তখন যারা ২৫+ ছিল যারা তাদের যৌবনকে বাংলাদের বিরুদ্ধে ব্যাবহার করেছে তারা কি আজ বেঁচে আছে? এক এক করে অধিকাংশইতো মারা গেছে।

এতদিন দেশের গুরুজনেরা কোন কথা বলেননি, কিন্তু আজ তারা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবি করছেন, এটা কি আমরা করব? নাকি আজ যুদ্ধাপরাধীদের সংখ্যা কম বলে তারা এখন মুখ খুলে নব প্রজন্মের কাছে ভালমানুষ সাজার অভিনয় করছে? তাহলেতো দেখব যেদিন সকল যুদ্ধাপরাধীরা স্বাভাবিক ভাবে মারা গেছে তার পর বিশেষ ট্রাইবুনাল গঠন করে সত্যি সত্যি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রকৃয়া হয়েছে এবং বলা হবে এখন আর কোন যুদ্ধাপরাধী বেঁচে নেই বিধায় কিছু করা গেল না, না হলে দেখায় দিতাম। 

সেজন্যই বলেছি বর্তমানে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার অবাস্তব। আর এই ভাবে চাটুকারদের সাথে তাল মিলিয়ে না বলে আসুন এই ভাবে বলি যে "সুধু যুদ্ধাপরাধী নয় যারা আজ অব্দি তাদের বিচার করে নাই, যারা তাদের আমৃত্য বাংলাদেশে লালন পালন করেছে তাদেরও বিচারের মাধ্যমে বাংলাদেশের ইতিহাসের ভয়াবহতম শাস্তি চাই"

আলহামদুলিল্লাহ্ !    আমার বংশে কোন পুলিশ নাই।

১১

Re: স্বাধীনতা দিবস

@m_Kafi,
আপনার কথার সাথে পুরোপুরি একমত হতে পারলাম না। যদিও কিছু কিছু ক্ষেত্রে সহমত পোষণ করছি।

১. যতদূর পড়েছি বা জেনেছি, বঙ্গবন্ধু ১৯৭২-এ শুরু করেন যুদ্ধাপরাধী তথা রাজাকার, আল-বদর, আল-শামস এদের বিচার কার্য। সেসময় ৭৫২ জনকে (আনুমানিক) শাস্তিও দেয়া হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু নাকি ক্ষমা করছিলেন তাদের, যারা ভয়ে পাকিস্তানী সেনাদের সামনে সমর্থন জানাতে বাধ্য হয়েছিল। কিন্তু তিনি তাদের কখনই ক্ষমা করেননি যারা সরাসরি পাকিস্তানীদের যুদ্ধে সহায়তা করে বাঙালীদের মারতে এগিয়ে দিয়েছিলেন। এই ব্যাপারটাকে নানা মানুষ নাকি নানাভাবে ব্যাখা করেছেন। আমি যেগুলো বললাম সেটা নিউ ইয়র্কের স্থানীয় পত্রিকা "ঠিকানা" থেকে একটা কলামে পড়েছিলাম।

২. আওয়ামী লীগের প্রতি মানুষের অনেক আশা ছিল যে তারা যুদ্ধাপরাধীদের শাস্তি দেবে। কিন্তু তারা ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে তা করতে সক্ষম হয়নি। ফলে এক্ষেত্রে তারা অবশ্যই এখন লজ্জা পাওয়া উচিত যে তারা এখন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবি করে যখন তারা করতে পারে নাই। আর বিএনপি তো যুদ্ধাপরাধীদের দল বলে পরিচিত গোষ্ঠীর সাথে করে সরকার গঠন করে। তাহলে তাদের থেকেও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবি করা অসমীচীন। এই ক্ষেত্রে আপনার সাথে আমি একমত।

৩. এখন এসব অতীত নিয়ে না খেলে আমরা যদি বর্তমানের দিকে তাকাই তাহলে দেখব যুদ্ধাপরাধীরা এখনো সক্রিয় যেমন তারা ছিল ৭১-এ। এমনই সক্রিয় যে তারা এখন মুক্তিযুদ্ধকে অস্বীকার করছে। আমার মতে যুদ্ধাপরাধী হতে হলে শুধুমাত্র ৭১-এ পাকিস্তানীদের সহায়তা করলেই হয়না, এখন যারা সেই মহান ত্যাগ, সেই স্বাধীনতা যুদ্ধকে অস্বীকার করছে, তারাও সমান দোষী, এমনকি যদি তারা নতুন প্রজন্মেরও হয়ে থাকে (মানে মুক্তিযুদ্ধের সময় জন্মই হয়নি এমন লোক)। আপনি যদি দেখেন বর্তমানে জঙ্গী তৎপরতা অন্যান্য সব সময়ের চেয়ে ভয়াবহ, যদিও এখন অনেকটাই কম। কিন্তু সেই সারা দেশব্যাপী গ্রেনেড হামলাসহ অনেক জঙ্গী তৎপরতা আরো উৎসাহিত হয় যখন সেসব ঘৃণীত খুনীরা দেশ চালায় আর সন্ত্রাসীদের আশ্রয় দেয়। এদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না দিলে আমার মনে হয় বাংলাদেশের পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ রূপ নিতে পারে ভবিষ্যতে।

১২

Re: স্বাধীনতা দিবস

দও আমি আপনার সাথে একমত।

দত্ত লিখেছেন:

@m_Kafi,

১. যতদূর পড়েছি বা জেনেছি, বঙ্গবন্ধু ১৯৭২-এ শুরু করেন যুদ্ধাপরাধী তথা রাজাকার, আল-বদর, আল-শামস এদের বিচার কার্য। সেসময় ৭৫২ জনকে (আনুমানিক) শাস্তিও দেয়া হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু নাকি ক্ষমা করছিলেন তাদের, যারা ভয়ে পাকিস্তানী সেনাদের সামনে সমর্থন জানাতে বাধ্য হয়েছিল। কিন্তু তিনি তাদের কখনই ক্ষমা করেননি যারা সরাসরি পাকিস্তানীদের যুদ্ধে সহায়তা করে বাঙালীদের মারতে এগিয়ে দিয়েছিলেন। এই ব্যাপারটাকে নানা মানুষ নাকি নানাভাবে ব্যাখা করেছেন। আমি যেগুলো বললাম সেটা নিউ ইয়র্কের স্থানীয় পত্রিকা "ঠিকানা" থেকে একটা কলামে পড়েছিলাম।

এটা আমিও অন্যান্য যায়গায় দেখেছিলাম (সচক্ষে নয় সংবাদ মাধ্যমে)এবং শুনেছিও। এখানে কিন্তু বলাই আছে যে বঙ্গবন্ধু কাদের ক্ষমা করেছিলেন আর কাদের ক্ষমা করেন নি।  আর আমার  ক্ষোভ  কিন্তু তাদের বিরুদ্ধেই যাদের বঙ্গবন্ধুও ক্ষমা করেননি অর্থাৎ যারা নিশ্চিৎ অপরাধী এবং আমি তাদের বিচার প্রসঙ্গেই লিখেছিলাম। আর আপনি দু'টো রাজনৈতিক দলের কথা সরাসরি বলেই ফেলেছেন সুতরাং এটা আর পরিষ্কার করে বলার দরকার নাই। আপনি আমার কথাগুলো অনুধাবন করেছেন বিধায় আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

আলহামদুলিল্লাহ্ !    আমার বংশে কোন পুলিশ নাই।

১৩

Re: স্বাধীনতা দিবস

এদেশের মাটিতে প্রতিজন যুদ্ধাপরাধীর বিচার হবে কিন্ত কবে? প্রতিজন যুদ্ধাপরাধী যাদের বয়স তখন কমপক্ষে ৩০ ছিলো - এখন ৬৭, যেখানে মানুষের গড় আয়ু (সম্ভবত) ৬০~৬৫

"We want Justice for Adnan Tasin"

১৪

Re: স্বাধীনতা দিবস

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হোক, রাজাকার/আল-বদর নিপাত যাক