টপিকঃ জঙ্গীবাদ সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধ কক্সবাজার জেলা কমিটি গঠিত

৭১ এর ঘাতক দালাল নিমূর্ল কমিটি ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, সেক্টর কমান্ডার ফোরামের নেতৃত্বে জেলার অর্ধশতাধিক  মুক্তিযোদ্ধের চেতনায় প্রগতিশীল রাজনৈতিক ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনকে নিয়ে জেলায় গঠিত হলো জঙ্গীবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধ কমিটি। ১০১ সদস্যদের এই কমিটি গঠন করতে গতকাল ১১ই এপ্রিল বিকাল ৫টায় জেলা জাসদ কার্যালয়ে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট এ.কে আহমদ হোসেনের সভাপতিত্বে এক গুরুত্বপূর্ণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় বক্তব্য রাখেন- প্রবীন রাজনীতিবিদ তেল গ্যাস সম্পদ রক্ষার জাতীয় কমিটির আহবায়ক ইদ্রিস আহমদ, ৭১ এর ঘাতক দালাল নিমূর্ল কমিটির সভাপতি নুরুল আবছার চেয়ারম্যান, জেলা জাসদের সভাপতি নঈমুল হক চৌধুরী টুটুল, কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম, মহেশখালী উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট মোস্তাক আহমদ, জেলা যুবলীগের সভাপতি খোরশেদ আলম, বাংলাদেশের  কমিউনিস্ট পাটির জেলার সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন আহমেদ, জেলা জাতীয় শ্রমীকলীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম, জেলা ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের আহবায়ক অনিল দত্ত, তেল-গ্যাস বিদ্যুৎ বন্দর জাতীয় কমিটি জেলা শাখার সদস্য সচিব যুবনেতা করিম উল্লাহ, জেলা খেলা ঘরের সভাপতি জাহেদ সরওয়ার সোহেল, জেলা যুব মহিলালীগের সভানেত্রী আয়েশা সিরাজ, জেলা উদীচী সভাপতি মুহাম্মদ আলী জিন্নাত, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রষ্টান ঐক্য পরিষদের কক্সবাজার জেলার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক প্রিয়তোষ শর্মা চন্দন, এডভোকেট অরূপ বড়–য়া তপু, জেলা জাসদ এর সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ হোসাইন মাসু, জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি শহীদুল্লাহ শহীদ, জেলা ছাত্র মৈত্রী যুগ্ম আহবায়ক মনির মোবারক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সদস্য সচিব দীপক শর্মা দীপু, ইঞ্জিনিয়ার বদিউল আলম, জেলা গণফোরামের সদস্য সচিব কমরেড গিয়াস উদ্দীন, নাট্য সংগঠক এডভোকেট তাপস রক্ষিত, গণমুখ থিয়েটার এর সত্যপ্রিয় চৌধুরী দোলন, জেলা যুবজোটের সভাপতি রমজান আলী সিকদার, যুবলীগ নেতা সোহেল আহমদ বাহাদুর, শোয়েব ইফতেকার, গরাণ শিল্প সাহিত্য সভার সম্পাদক কবি সাইফ উদ্দীন আহমেদ মানিক, জাসদ নেতা ফরিদ আহমদ, মিজানুর রহমান বাহাদুর, জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক  কল্লোল দে চৌধুরী, জেলা যুব ইউনিয়নের প্রকাশনা সম্পাদক কালাম আজাদ, জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক অন্তিক চক্রবর্তী, কক্সবাজার প্রজন্ম মঞ্চ (সিপিএম) এর প্রধান সম্বনয়ক ও সাবেক ছাত্রনেতা এইচ,এম নজরুল ইসলাম, ছাত্র ইউনিয়নের শহর শাখার সভাপতি মোছাদ্দিক হোসেন আবু, যুব মৈত্রী শহর আহবায়ক শিবু বড়–য়া (বাবু), যুগ্ম আহবায়ক জুয়েল শর্মা, ছাত্র মৈত্রী নেতা জিকু পাল, উদীচী কর্মী নবকৃষ্ণ রুদ্র, জেলা জাসদ ছাত্রলীগ নেতা মীর মোশারফ হোসেন, জাসদ নেতা-রমজান আলী, অজিত কুমার দাশ, শ্রমিক নেতা শফিকুল ইসলামসহ বিভিন্ন সংগঠনের শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেণ।
সভায় বক্তারা বলেন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রক্রিয়া বানচাল করার জন্য ও দেশের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে বিপদাপন্ন করার জন্য জামাত শিবির দেশব্যাপী চরম সন্ত্রাসী তান্ডব শুরু করেছে। জামাত শিবিরের সহিংস তৎপরতায় দেশবাসীর জানমালের নিরাপত্তা আজ চরম হুমকির মুখে। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপাসনালয়, বাড়িঘর, দোকানপাটে ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট ইত্যাদির ফলে সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। সামরিক অভিযানের কায়দায় পরিকল্পিত নীলনকশার ভিত্তিতে রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধ পরিচালনার মতো ঘটনার জন্ম দেয়া হয়েছে। সংঘাতের পরিস্থিতি দীর্ঘায়িত করে দেশকে অচল করে দেয়ার দ্বারা গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতাকে ক্ষুন্ন করার পথ প্রস্তুত করা হচ্ছে। জামাত শিবির চক্র ধর্মান্ধর মৌলবাদীদের এসব অপতৎপরতা ও  ধ্বংসাত্বক কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার লক্ষে কেন্দ্র কর্মসূচীর অংশ হিসাবে জঙ্গীবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধ কমিটি ১০১ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির নেতৃবৃন্দরা হলেন- প্রধান সমন্বয়ক করিম উল্লাহ, আহবায়ক মুহাম্মদ আলী জিন্নাত, যুগ্ম আহবায়ক এডভোকেট তাপস রক্ষিত, মোহাম্মদ হোছাইন মাসু, অরুপ বড়–য়া তপু, নজিবুল ইসলাম, সদস্য সচিব- দিপক শর্মা দিপু।

Re: জঙ্গীবাদ সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধ কক্সবাজার জেলা কমিটি গঠিত

খেলাঘরে প্রতিরোধ কমিটি গঠন করলেন কেন ভাই?  waiting

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত