সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মরণের প্রস্তুতি (০৪-০৪-২০১৩ ১৬:১৪)

টপিকঃ দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

سم الله الرحمن الرحيم

সকল প্রশংসা আল্লাহর। অসংখ্য দরুদ নাযিল হোক তাঁর নবীর উপর বারবার।

ধরুন, সাহেদ নামক ব্যাক্তি আদালতে কেস করলো যে, তারেক তার ঘরে চুরি করেছে।এরপর কোর্টে বাদী বিবাদী হাজির হলে পর বিচারক তারেককে বললো যে, তোমার নামে চুরির অভিযোগ এসেছে। এ ব্যাপারে তোমার কি বক্তব্য? তখন তারেক বললোঃ আমি কিভাবে চুরি করতে পারি? সাহেদের ঘরে তো তালা লাগানো ছিলো। তখন সাহেদ বললো, তালা ভেঙ্গে চুরি করা হয়েছে। আচ্ছা বলেন তো, এখন বিচারক যদি এই ফায়সালা দিয়ে দেয় যে, অতএব তারেক চুরি করেছে বলে সাব্যস্ত হলো; তাহলে এটা কি ঠিক বিচার হবে?

আবার চলেন ফিরে যাই মামলার শুরুতে। ধরেন বিচারকের সামনে তারেক বললো যে, আমি যদি চুরি করতাম, তাহলে তো আমার হাতের ছাপ পাওয়া যেতো তালাতে , দরজাতে বা অন্য কিছুতে। কিন্তু আমার হাতের ছাপ যেহেতু পাওয়া যায়নি তাই আমি চুরি করিনি। তখন সাহেদ পাল্টা জবাব দিলো যে, হাতে গ্লাভস পড়ে থাকার কারণে হাতের ছাপ পাওয়া যায়নি। আচ্ছা বলেন তো এখন বিচারক যদি এই ফায়সালা দিয়ে দেয় যে, অতএব তারেক চুরি করেছে বলে সাব্যস্ত হলো; তাহলে এটা কি ঠিক বিচার হবে?

যদি বলেন, বিচার ঠিক হয়নি; তাহলে কেন ঠিক হয়নি, সমস্যাটা আসলে কোথায়? আর যদি বলেন ঠিক হয়েছে, তাহলে কেমনে কি ?

প্লীজ কেউ যেন অপ্রোজনীয় মনে না করেন। এই দুই মামলার ফায়সালার উপরে ভিত্তি করে অন্য আরো মামলার ফায়সালা নির্ভর করছে। সবাইকে উদারতার সাথে অংশগ্রহণের বিনীত অনুরোধ করছি।

>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>

তাহলে আমরা নীচের কমেন্টকারীদের বক্তব্য থেকে  যেটা বুঝতে পারলাম যে,
মামলার রায়ঃ অদেখা কোন একটা কিছু যেমন ধরেন "এক্স" । সাহেদ দাবী করলো যে, এক্স জিনিসটা আছে বা ঘটেছে। আর তারেক দাবী করলো যে এক্স জিনিসটা নাই বা ঘটেনি। এখন যেহেতু এক্স জিনিসটা কেউ চাক্ষুষ দেখেনি , আর সাহেদ যেহেতু দাবী করেছে যে, এটা ঘটেছে তাই তাকেই এটা ঘটেছে বলে প্রমাণ দেখাতে হবে। তারেকের কাছে আগে তার দাবীর প্রমাণ চাওয়া ঠিক নয় । এবং তারেক যে দাবী করেছে যে "এক্স ঘটে নাই" এর পক্ষে কোন প্রমাণ যদি সে দিতে না পারে ,বা কোন প্রমাণ দেয়ার পর সাহেদ যদি সেটা খণ্ডন করে ফেলে, এতে কিন্তু সাহেদের দাবী প্রমাণিত হবেনা। সাহেদের দাবী প্রমাণিত হতে হলে তাকেই তার দাবীর পক্ষে আলাদা প্রমাণ দেখাতে হবে। তানাহলে তো, এরকম কত কিছুই আমরা ঘটেনি বলে প্রমান করতে পারবো না। আমেরিকাতে কাল রাতে কোন বোমা বিস্ফোরণ হয়নি, মস্কোতে গতকাল কোন ভূমিকম্প হয়নি, দিল্লীতে গতকাল কোন শিলাবৃষ্টি  হয়নি ইত্যাদি হয়নি বলে আমি প্রমাণ করতে ব্যর্থ হওয়া মানে কিন্তু এই নয় যে এগুলো ঘটেছে। যে ঘটেছে বলে দাবী করবে তাকেই নির্ভরযোগ্য সূত্র উল্লেখ করতে হবে ।

উপরের কথাগুলো যদি বুঝে থাকেন তাহলে আশা করি নীচের ব্যাপারগুলোও বুঝবেন। আর এখানে আমি কিছু প্রমাণ বা অপ্রমাণ করতে এই পোষ্ট দেইনি, শুধু তর্ক বিতর্কের ক্ষেত্রে একটা ছোট্ট ভুল ধরিয়ে দেয়াই উদ্দেশ্য।

১-বিবর্তনবাদীরা যখন দাবী করে যে, মানুষ এসেছে একটা বানর জাতীয় প্রানী থেকে বিবর্তিত হয়ে; তখন তাদের সাথে  বিতর্ক করতে গিয়ে আমরা অনেকে একটা ভুল করি। সেটা হলো আমরা অনেকে তাদের কাছে তাদের দাবীর প্রমাণ না চেয়ে, আমরাই আগে বেড়ে দেখাতে চাই যে, এরকম ঘটা অসম্ভব বা এরকম ঘটেনি।যেমন কেউ বলে যে, আরে ভাই বানর জাতীয় কিছু থেকে মানুষ আসলে মানুষের তো লেজ থাকার কথা, কিন্তু মানুষের যেহেতু লেজ নেই, অতএব বুঝা গেলো মানুষ কোন বানরীয় কিছু থেকে আসেনি। তখন বিবর্তনবাদীরা পাল্টা একটা জবাব দিয়ে দেয় যে, অমুক কারণে লেজ খসে পড়েছে। তো বিবর্তনবাদীর এই ব্যাখ্যা দেয়ার দ্বারা কিন্তু এটা কখনো প্রমাণিত হলো না যে, মানুষ বানরীয় কিছু থেকে এসেছে। তাহলে কি প্রমাণ হলো? হ্যাঁ, তার কথা থেকে এটা বুঝা গেলো যে, আস্তিক যে যুক্তি দিয়ে বিবর্তনবাদ ঘটা  অসম্ভব বা ঘটেনি প্রমাণ করতে চেয়েছিলো সেই যুক্তিটা ঠিক নয়।কিন্তু তার মানে এই নয় যে, মানুষ বানরীয় কিছু থেকে এসেছে। যে এটা দাবী করবে, তাকেই আগে এর জন্য আলাদা প্রমাণ দেখাতে হবে।    (ভালো করে খেয়াল করুন, তারা আলাদা প্রমাণ দিয়েছে কি দেয়নি; সেগুলো ঠিক না বেঠিক এসব বর্ণনা করা কিন্তু আমার এই পোষ্টের উদ্দেশ্য নয় )

২- মহাবিজ্ঞানী টলেমীর দাবী ছিলো যে, আমাদের এই সৌর জগতের কেন্দ্র হচ্ছে পৃথিবী। এবং পৃথিবীকে কেন্দ্র করেই সূর্য এবং অন্যান্য গ্রহগুলো ঘুরছে । তিনি তার আল মাজেস্ট নামক বইয়ে এই সম্পর্কে বিস্তারিত যুক্তি প্রমাণ তুলে ধরেন। এই মতবাদের উপর প্রথম বড় ধরনের আঘাত আসে কোপার্নিকাসের পক্ষ থেকে On the Revolutions of the Heavenly Spheres নামক বইয়ে। সে মঙ্গল গ্রহের রেটড়োগ্রেড মোশন বা পশ্চাদ্গতি ব্যাখ্যা করতে গিয়ে থিওরী দিলো যে, সূর্যই সৌর জগতের কেন্দ্র এবং পৃথিবী স্থির নয় বরং ঘুরছে ঘন্টায় ১০০০ মাইল বেগে। আমরা খালি চোখে যেটা দেখি, কোপার্নিকাস যেহেতু সেটার উল্টা দাবী করেছে, তাই তারই দায়িত্ব তার দাবীর পক্ষে উপযুক্ত প্রমাণ দেখানো। যাইহোক, তখনকার টলেমীপন্থীরা আগে বেড়ে কোপার্নিকাসের বিরুদ্ধে  একটি যুক্তি এই দিতো যে,  পৃথিবী যদি পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে এত জোড়ে ঘুড়তই, তাহলে একটা বল সোজা উপর দিকে ছুরে মারলে, সেটা আর আমাদের হাতে এসে পড়তো না, বরং অনেকখানি পশ্চিম দিকে পড়তো। কিন্তু তাতো হয়না; অতএব বুঝা গেলো যে, পৃথিবী ঘুরছে না, পৃথিবী স্থির। তো কোপার্নিকাস এই প্রশ্নের কোন জবাব দিতে পারেনি। কিন্তু পরবর্তীতে গ্যালিলিও তার Dialogue Concerning the Two Chief World Systems নামক বইয়ে এই যুক্তি খণ্ডন করেন, তার বিখ্যাত প্রিন্সিপাল অফ রিলেটিভিটি প্রদানের মাধ্যমে।তিনি মোটামুটি এরকম দেখিয়েছিলেন যে, স্থিরবায়ুতে সমবেগে পানিতে চলমান একটি জাহাজের ডেকে থেকে কেউ যদি কোন বল উপর দিকে নিক্ষেপ করে তাহলে বলটি তার হাতে এসেই পড়বে, পিছনে পরবে না। বলটা হাতে এসে পরা মানে এই নয় যে, জাহাজটি চলছে না। তেমনি কথা পৃথিবীর ক্ষেত্রেও খাটে। তো যাইহোক, আমি যেটা বলতে চাচ্ছি যে, এই যে গ্যালিলিও টলেমীপন্থীদের ঐ যুক্তি খণ্ডন করে দিলেন, এর দ্বারা কিন্তু এটা প্রমাণ হয়না যে, পৃথিবী ঘুরছে।(যদিও দেখতে হবে আসলে খণ্ডন হয়েছে কিনা) ঐ যেমন নাকি সাহেদ তারেকের যুক্তি খণ্ডন করলেই প্রমাণ হয়না যে, তারেক চোর। বরং এর জন্য আলাদা প্রমাণ দেখাতে হয়। তেমনি পৃথিবী যে ঘুরছে এর জন্যও আলাদা প্রমাণ দেখাতে হবে, টলেমীপন্থীদের যুক্তি শুধু খণ্ডন করলেই হবেনা।(( উল্লেখ্য যে, টলেমীর বিপক্ষে গ্যালিলিও যেসব যুক্তি দেখিয়েছিলো সেগুলো এক পর্যায়ের যুক্তি হলেও, মোটেই কোন অকাট্য যুক্তি ছিলোনা। কিন্তু বিজ্ঞানীরা গ্যালিলিওর মতবাদকেই অগ্রাধিকার দিয়েছে যেহেতু এটা ধর্মের বিরুদ্ধে যায়, সেজন্য। শুধু তাই নয় একটা সম্ভাব্য থিওরীকে অকাট্য সত্য বলে পৃথিবীর মানুষকে গিলিয়ে আসছে শত শত বছর ধরে এবং দাবী করে আসছে যে, ধর্মগ্রন্থে বিজ্ঞান বিরোধী কথা আছে। এরচেয়ে বড় দাগাবাজি আর জোচ্চুরি কি হতে পারে!!!)) (অবশ্য পৃথিবী স্থির না ঘূর্ণায়মান এ ব্যাপারে সুস্পষ্ট ও অকাট্য অর্থ প্রদানকারী কোন আয়াত কোরআনে নেই; তবে স্থিরতার পক্ষে  ইঙ্গিতমূলক আয়াত আছে।এখানে দেখুন সূরা ফাতিরের ৪১ নং আয়াত। http://www.quraanshareef.org/tafseer/in … ?page=1125
আমু ব্লগের বিখ্যাত ব্লগার রাসেল চাচুর http://www.amarblog.com/raselpervez/posts/150882
একটি লেখার কিছু অংশ  এখানে তুলে ধরলাম 

যদিও কোপার্নিকাসের সৌরকেন্দ্রীক মহাবিশ্বের সাথে টলেমী এরিস্টটলের পৃথিবীকেন্দ্রীক মহাবিশ্বের তেমন তফাত নেই, বলা যায় একটা অপরতার সামান্য সংশোধন। একটা অন্যটার চেয়ে মহৎ, বৈপ্লবিক কিংবা সত্য এমন সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। সৌরকেন্দ্রীক মতবাদে গ্রহগুলোর গতিপথ আরও সহজে ব্যাখ্যা করা যায়- এই সুবিধাটুকুর বাইরে ধারণাগত দিক থেকে কিংবা অন্য যেকোনো শ্বাশতসত্যের দিক থেকে বিবেচনা করলে কোপার্নিকাস, গ্যালিলিও- কেপলারের সৌরকেন্দ্রীক মহাবিশ্বের সাথে ধর্মবেত্তা ও মন্দির-মসজিদ-গীর্জার পুরোহিতদের অতীতের পৃথিবিকেন্দ্রীক মহাবিশ্ব ধারণার তেমন পার্থক্য নেই।  

কি? কথা বুঝতে ও মানতে পারলেন না? তাইতো? দেখেন তাহলে আপনারা যাকে মানসিকভাবে পূজা করেন সেই আইনস্টাইন কি বলেছেন
"The struggle, so violent in the early days of science, between the views of Ptolemy and Copernicus would then be quite meaningless. Either coordinate system  could be used with equal justification. The two sentences, 'the sun is at rest and the earth moves,' or 'the sun moves and the earth is at rest,' would simply mean two  different conventions concerning two different coordinate systems." (Einstein and Infeld, The Evolution of Physics, p. 212 (248 in 1938 ed)) 

আসলে এই কথাগুলো আপনি তখনই ভালো করে বুঝতে পারবেন যখন আপনি সাইন্টিফিক মেথড সম্পর্কে মুখস্থ জ্ঞানের পরিবর্তে বুঝের জ্ঞান রাখবেন। নীচের পোষ্টটি পড়ে সাইন্টিফিক মেথড সম্পর্কে বুঝের জ্ঞান হাসিল করুন। http://www.somewhereinblog.net/blog/ABD … 1/29772359 

৩-এই চুরির মামলা থেকে আমরা এটাও বুঝতে পারি যে, প্রমাণ আস্তিককেই দিতে হবে, নাস্তিককে নয়।

৪- আমেরিকা দাবী করেছে যে, তারা চাঁদে মানুষ পাঠিয়েছে। তারা যেসব ছবি আর ভিডিও আমাদেরকে দেখিয়েছে এগুলো কিন্তু আমাদের চোখের আড়ালে হয়েছে। তাই এগুলো আসল না নকল সেই প্রশ্ন উঠেছে। নাসার দাবী এগুলো আসল। তাই এর প্রমাণ তাদেরকেই দিতে হবে। এদিকে যারা এগুলোকে নকল বলতে চায়, তারা নাসার প্রমাণ দিতে  অক্ষম হওয়ার কারণে অনেক সময় নিজেরাই আগে বেড়ে প্রমাণ করতে চায় যে, এই ছবিগুলো আসলে নকল। তখন তারা যুক্তি দেয় যে, পতাকা কেন নড়ছিলো? কেন ছায়া পড়েছিলো ইত্যাদি। এরপর নাসা আবার চাপার জোড়ে তাদের যুক্তি খণ্ডন করে দেয়। তো আমি এটাই বলতে চাচ্ছি যে, নাসার এই যুক্তি খন্ডনের দ্বারা কিন্তু ছবিগুলো আসল বলে প্রমাণ হবে না। উপরের চুরির মামলার সাথে মিলান, তাহলেই বুঝবেন। ছবি/ ভিডিওগুলো আসল প্রমাণ করতে হলে তাদের আলাদা যুক্তি দেখাতে হবে।

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

না ঠিক হয়নি।
দুই ক্ষত্রেই একই উত্তর। অভিজোগ প্রমানিত হয়নি।

আরব দেশে কি অবস্থা জানিনা তবে বেশীর ভাগ ন্যায়সঙ্গত দেশের রুল ই হল  "ইনোসেন্ট টিল প্রুভেন গিল্টি" সাহেদ কে প্রমান করতে হবে যে তারক চুরি করছে। তারেক যে চুরি করেনি সেটা তারেকের প্রমান করার দরকার নেই।

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

আমার মতে অভিযোগ প্রমানিত হয়নি বলার কথাই। কারণ একজনের মুখের কথায় তো আর কাউকে শাস্তি দেয়া যায় না, এজন্য লাগে প্রমান। তারেক উচিত প্রমান হাজির করা যে সে তখন অন্য কোথাও ছিল। এতে প্রমানিত হবে যে তার পক্ষে চুরি করা সম্ভব না।

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

কোন তারেক ?

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

সেভারাস লিখেছেন:

.......... তারেকের উচিত প্রমান হাজির করা যে, সে তখন অন্য কোথাও ছিল। এতে প্রমানিত হবে যে, তার পক্ষে চুরি করা সম্ভব না।

তারেক যদি এই প্রমাণ দিতে না পারে, তাহলে কি সে চুরি করেছে বলে সাব্যস্ত হবে?

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সরদার (০১-০৪-২০১৩ ২২:৫৭)

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

সদস্য_১ ভাইয়ের সাথে একমত পোষণ করছি। তারেক শাস্তি পাবে না। কারণ অভিযোগকারীকে প্রমাণ হাজির করতে হবে, অভিযুক্তকে নয়। তাই তারেককে চোর সাব্যস্ত করতে হলে সাহেদকেই প্রমাণ করতে হবে যে, তারেক চুরি করেছে।

সদস্য_১ লিখেছেন:

ইনোসেন্ট টিল প্রুভেন গিল্টি

একদম খাঁটি কথা। 12 Angry Men মুভিটি দেখার পর এ কথাটি মাথায় একেবারে গেঁথে গেছে।

মরণের প্রস্তুতি লিখেছেন:

তারেক যদি এই প্রমাণ দিতে না পারে, তাহলে কি সে চুরি করেছে বলে সাব্যস্ত হবে?

না। কারণ তারেক যদি অন্য কোথাও থাকার প্রমাণ হাজির করতে না পারে, তবে তার মানে এই নয় যে, সে চুরি করেছে।

সেভারাস লিখেছেন:

আমার মতে অভিযোগ প্রমানিত হয়নি বলার কথাই। কারণ একজনের মুখের কথায় তো আর কাউকে শাস্তি দেয়া যায় না, এজন্য লাগে প্রমানতারেক উচিত প্রমান হাজির করা যে সে তখন অন্য কোথাও ছিল। এতে প্রমানিত হবে যে তার পক্ষে চুরি করা সম্ভব না।

যথাক্রমে "প্রমাণিত", "প্রমাণ", "তারেকের", "প্রমাণ", "প্রমাণিত" হবে।

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

মরণের প্রস্তুতি লিখেছেন:

তখন তারেক বললোঃ আমি কিভাবে চুরি করতে পারি?সাহেদের ঘরে তো তালা লাগানো ছিলো

তালা লাগানো ছিল একথা তারেক জানলো কিভাবে ?

মরণের প্রস্তুতি লিখেছেন:

তখন সাহেদ বললো, তালা ভেঙ্গে চুরি করা হয়েছে। আচ্ছা বলেন তো, এখন বিচারক যদি এই ফায়সালা দিয়ে দেয় যে, অতএব তারেক চুরি করেছে বলে সাব্যস্ত হলো;

তালা ভাঙ্গা হয়েছে এটা প্রমানিত , কিন্তু সেটা যে তারেক ভেঙ্গেছে তার সপক্ষে কোনো প্রমান এখানে দেয়া হয় নাই।

মরণের প্রস্তুতি লিখেছেন:

ধরেন বিচারকের সামনে তারেক বললো যে, আমি যদি চুরি করতাম, তাহলে তো আমার হাতের ছাপ পাওয়া যেতো তালাতে , দরজাতে বা অন্য কিছুতে।

মনে করুন তারেক অন্য কাউকে দিয়ে তালা ভেঙ্গেছে । সেক্ষেত্রে ওই ব্যাক্তি গ্লাভস পরে তালা ভাঙ্গার কাজ করেছে।

মরণের প্রস্তুতি লিখেছেন:

তখন সাহেদ পাল্টা জবাব দিলো যে, হাতে গ্লাভস পড়ে থাকার কারণে হাতের ছাপ পাওয়া যায়নি। আচ্ছা বলেন তো এখন বিচারক যদি এই ফায়সালা দিয়ে দেয় যে, অতএব তারেক চুরি করেছে বলে সাব্যস্ত হলো;

চোর যেতেতু ঘরে ডুকেছে সেহেতু ঘরের জিনিশ পত্রে ছাপ+মোটিভ খোজা যেতে পারে।

আমার প্রশ্ন হল সাহেদ কেন তারেককে চোর বলে সন্দেহ করল , সে কি মোটিভ পেয়েছিল ??

এই ব্যাক্তির সকল লেখা কাল্পনিক , জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিল পাওয়া গেলে তা সম্পুর্ন কাকতালীয়, যদি লেখা জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিলে যায় তার দায় এই আইডির মালিক কোনক্রমেই বহন করবেন না। এই ব্যক্তির সকল লেখা পাগলের প্রলাপের ন্যায় এই লেখা কোন প্রকার মতপ্রকাশ অথবা রেফারেন্স হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না।

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

কোন তারেক ?

   

কাল্পনিক একজন। বাস্তবের কেউ নয়।

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

কিছু প্রজাতির বেবুন আছে, যাদের লেজ নেই। বিবর্তনের কারনে যদি উটপাখি উড়ার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলতে পারে, পেঙ্গুইন সোজা হয়ে হাটতে পারে, তাহলে বানরের লেজ খসে পড়াতে সমস্যা কোথায়?
আর এখন তো বিবর্তন প্রমান করা খুব সহজ। মানুষের জিনোম সিকোয়েন্স দেখলেই বোঝা যায়, বানরের সাথে মানুষের কত মিল!

১০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সাইফুল_বিডি (০২-০৪-২০১৩ ০৯:৫২)

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

@মরণের প্রস্তুতি , অভিকর্ষ নামে যে একটা জিনিশ আছে সেটা জানেন কি ?

If you hang a mass on the end of a string there will be a slight angle from the vertical, this is due to the earth moving. You can also tell the earth rotates by the water spinning as it goes down the toilet or the way a hurricane spins.

http://upload.wikimedia.org/wikipedia/commons/thumb/8/82/Foucault-rotz.gif/250px-Foucault-rotz.gif
Animation of a Foucault pendulum at the Pantheon in Paris (48°52' North), with the Earth's rotation rate greatly exaggerated. The green trace shows the path of the pendulum bob over the ground (a rotating reference frame), while the blue trace shows the path in a frame of reference rotating with the plane of the pendulum.

এখানে আরো দেখুন

”আর তিনিই সৃষ্টি করেছেন রাত্রি ও দিন এবং চন্দ্র ও সূর্য। সবাই নিজ নিজ কক্ষপথে বিচরণ করে।”(সুরা আম্বিয়া, ২১ : ৩৩)
http://www.quran.gov.bd/quran/arabic/21/21-33.png
http://www.quran.gov.bd/quran/bengaliT/21/21-33.png

”আর সূর্য স্বীয় গন্তব্য স্থানের দিকে চলতে থাকে। এটা পরাক্রমশালী, সর্বজ্ঞের নিয়ন্ত্রণ।” (সুরা ইয়াসিন, ৩৬ : ৩৮)
http://www.quran.gov.bd/quran/arabic/36/36-38.png
http://www.quran.gov.bd/quran/bengaliT/36/36-38.png

”কসম বহু পথ আর কক্ষপথ বিশিষ্ট আসমানের।” ( সুরা যারিয়াত, ৫১ : ৭)
http://www.quran.gov.bd/quran/arabic/51/51-7.png
http://www.quran.gov.bd/quran/bengaliT/51/51-7.png

এই টপিক্টা পড়ুন

এই ব্যাক্তির সকল লেখা কাল্পনিক , জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিল পাওয়া গেলে তা সম্পুর্ন কাকতালীয়, যদি লেখা জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিলে যায় তার দায় এই আইডির মালিক কোনক্রমেই বহন করবেন না। এই ব্যক্তির সকল লেখা পাগলের প্রলাপের ন্যায় এই লেখা কোন প্রকার মতপ্রকাশ অথবা রেফারেন্স হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না।

১১ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন পরিবেশ প্রকৌশলী (০২-০৪-২০১৩ ১০:২০)

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

আমিও একটা গল্প বলি: দুটি ক্লাসের মামলা, আপনারা কে কী বলেন?

গণিতের ক্লাসে ৫ জন ছাত্র একটা বিষয় একই রকম মনোযোগ দিয়ে একই সময় যাবৎ অধ্যয়ন করলো। তারপর পরীক্ষা নিয়ে দেখা গেল কেউ এ পেয়েছে আর কেউ ডি পেয়েছে। এ থেকে কী প্রমাণিত হয়?

একই ছাত্রগণ সংগীতের ক্লাসে, একই রকম মনোযোগ দিয়ে একই সময় যাবৎ অধ্যয়ন করে পরীক্ষা দিলো। এখানেও দেখা গেল কেউ এ আর কেউ ডি পেয়েছে। কিন্তু যে গণিত আর সংগীতে একজন ছাত্রের গ্রেড একই রকম হয়েছে তা নয়। এ থেকে কী প্রমাণ করবেন?

---
পরবর্তী মন্তব্যে আপনার উত্তর দিতে পারেন। আমি বরং এখানেই আমারটা দিয়ে রাখি।

---
সকলের মগজের ক্ষমতা একই রকম হয় না। যেই ছাত্র গণিতে ভাল, সে হয়তো সংগীতে খুবই কাঁচা, আর সংগীতে ওস্তাদ লোক গণিতে ফেল্টু হতে পারে। আবার এমনও হতে পারে, কোনো একজন গণিত এবং সংগীত উভয় বিষয়েই সমান দক্ষ কিংবা সমান কাঁচা। যে যেই বিষয়ে ভাল করে, সে যদি সেই বিষয়ে আরও আগে বাড়ে অধ্যয়ন করে সেটাকে পেশা হিসেবে নেয়, তাহলে সকলেরই সেটা থেকে উপকৃত হওয়ার সুযোগ বেড়ে যায়। কার্টুনিষ্টকে পিটিয়ে পিয়ানোবাদক বানানোর চেষ্টা খুব একটা কাজে লাগবে না -- ভাল পিয়ানো বাদক পেতে হলে এই বিষয়ে স্বাভাবিক মেধাবীকেই খুঁজে বের করতে হবে।

---
একই কথা প্রযোজ্য বিবর্তনবিদ্যর ক্ষেত্রেও। সবাই একই জিনিষ পড়লেও --- আলোচনায় গড়ালে টের পাওয়া যায় যে সকলেই সবকিছু বুঝে না; বোঝার দরকারও নাই। যে যেই বিষয়ে দক্ষ সেই বিষয়েই থাকা ভাল।

বিবর্তনবাদে কোথাও বানর জাতীয় প্রাণী হতে মানুষ এসেছে এমন কিছু বলা হয় নাই -- অন্ততপক্ষে আমি যতটুকু বুঝি (আমিই যে সব বুঝি তা কিন্তু নয়)। এটা যে বলা হয়নি সেটা ঠিকভাবে প্রমাণ করার পরেও হয়তো ত্যানা এবং লজিকের মারপ্যাঁচে বানর জাতীয় প্রাণী থেকে মানুষ এসেছে সেটা প্রতিষ্ঠার চেষ্টা চলবে; তবে জেনে রাখা ভাল, সেই একই ত্যানা পেঁচিয়ে, মানুষ জাতীয় প্রাণী হতে বানর উৎপত্তি হয়েছে -- এমন তত্বও বানিয়ে ফেলা যাবে।

--
এক দলা আটা থেকে নুডুলসও তৈরী হতে পারে, বিস্কুটও তৈরী হতে পারে। কিন্তু যদি আলোচনার মূল পয়েন্টই হয় নুডুল্স থেকে বিস্কুট হয়েছে ... ... বা এই ধরণের কিছু, তাহলে সেই আলুচনায় যোগ দিব কি না সেটাই আগে ভাবা দরকার বলে মনে হয়। ধন্যবাদ।

পরিবেশ প্রকৌশলী'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১২

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

@মরণের প্রস্তুতি
আপনার কাছে একটাই অনুরোধ নীচের টপিক পড়ে ফোরাম এর এথিস্টদের জবাব দিন। নতুন বা তাল গাছ আমার টাইপ আলোচনা বাদ দিন। 
http://forum.projanmo.com/topic37965.html

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১৩

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

আগন্তুক মিলন লিখেছেন:

কিছু প্রজাতির বেবুন আছে, যাদের লেজ নেই। বিবর্তনের কারনে যদি উটপাখি উড়ার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলতে পারে, পেঙ্গুইন সোজা হয়ে হাটতে পারে, তাহলে বানরের লেজ খসে পড়াতে সমস্যা কোথায়?
আর এখন তো বিবর্তন প্রমান করা খুব সহজ। মানুষের জিনোম সিকোয়েন্স দেখলেই বোঝা যায়, বানরের সাথে মানুষের কত মিল!

   

আমি ঠিক বুঝলাম না, আপনারা কেউ কি আমার এই কথাটা পড়েননি আর এখানে আমি কিছু প্রমাণ বা অপ্রমাণ করতে এই পোষ্ট দেইনি, শুধু তর্ক বিতর্কের ক্ষেত্রে একটা ছোট্ট ভুল ধরিয়ে দেয়াই উদ্দেশ্য।  এই পোষ্টের মূল উদ্দেশ্য কি তাতো মামলার রায়ের মধ্যেই বলে দেয়া হয়েছে। আবার পড়ুন মামলার রায়টি

মামলার রায়ঃ অদেখা কোন একটা কিছু যেমন ধরেন "এক্স" । সাহেদ দাবী করলো যে, এক্স জিনিসটা আছে বা ঘটেছে। আর তারেক দাবী করলো যে এক্স জিনিসটা নাই বা ঘটেনি। এখন যেহেতু এক্স জিনিসটা কেউ চাক্ষুষ দেখেনি , আর সাহেদ যেহেতু দাবী করেছে যে, এটা ঘটেছে তাই তাকেই এটা ঘটেছে বলে প্রমাণ দেখাতে হবে। তারেকের কাছে আগে তার দাবীর প্রমাণ চাওয়া ঠিক নয় । এবং তারেক যে দাবী করেছে যে "এক্স ঘটে নাই" এর পক্ষে কোন প্রমাণ যদি সে দিতে না পারে ,বা কোন প্রমাণ দেয়ার পর সাহেদ যদি সেটা খণ্ডন করে ফেলে, এতে কিন্তু সাহেদের দাবী প্রমাণিত হবেনা। সাহেদের দাবী প্রমাণিত হতে হলে তাকেই তার দাবীর পক্ষে আলাদা প্রমাণ দেখাতে হবে। তানাহলে তো, এরকম কত কিছুই আমরা ঘটেনি বলে প্রমান করতে পারবো না। আমেরিকাতে কাল রাতে কোন বোমা বিস্ফোরণ হয়নি, মস্কোতে গতকাল কোন ভূমিকম্প হয়নি, দিল্লীতে গতকাল কোন শিলাবৃষ্টি  হয়নি ইত্যাদি হয়নি বলে আমি প্রমাণ করতে ব্যর্থ হওয়া মানে কিন্তু এই নয় যে এগুলো ঘটেছে। যে ঘটেছে বলে দাবী করবে তাকেই নির্ভরযোগ্য সূত্র উল্লেখ করতে হবে ।

১৪ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সরদার (০২-০৪-২০১৩ ১৮:৫৮)

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

@মরণের প্রস্তুতি, মূল টপিকটি এডিট করা ঠিক হয় নি। নতুন অনেক কথা যখন যুক্ত করলেন তখন তা পরবর্তী পোস্টে দিলেই পারতেন। "প্রতারণা" শব্দটি বেশি কঠোর শোনাচ্ছে।

মরণের প্রস্তুতি লিখেছেন:

এখন যেহেতু এক্স জিনিসটা কেউ চাক্ষুষ দেখেনি , আর সাহেদ যেহেতু দাবী করেছে যে, এটা ঘটেছে তাই তাকেই এটা ঘটেছে বলে প্রমাণ দেখাতে হবে।

প্রমাণ যে একেবারে চাক্ষুষই হতে হবে, এটা কে বলল?

আর এসব ব্যাপারে ডেডলকের দেওয়া লিঙ্কে যেয়ে আলোচনা করলেই ভালো হয়।

১৫

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

@মরণের প্রস্তুতি , অভিকর্ষ নামে যে একটা জিনিশ আছে সেটা জানেন কি ?

If you hang a mass on the end of a string there will be a slight angle from the vertical, this is due to the earth moving. You can also tell the earth rotates by the water spinning as it goes down the toilet or the way a hurricane spins.

http://upload.wikimedia.org/wikipedia/commons/thumb/8/82/Foucault-rotz.gif/250px-Foucault-rotz.gif
Animation of a Foucault pendulum at the Pantheon in Paris (48°52' North), with the Earth's rotation rate greatly exaggerated. The green trace shows the path of the pendulum bob over the ground (a rotating reference frame), while the blue trace shows the path in a frame of reference rotating with the plane of the pendulum.

এখানে আরো দেখুন   

ভাই ফুকওর পেন্ডুলামকে যে এইসব বিজ্ঞানীরা পৃথিবীর ঘূর্ণনের দলীল হিসাবে পেশ করেছে, এটাই তাদের ধোঁকাবাজির দলীল; এটাই তাদের অসহায়ত্বের দলীল। মানুষ যখন বাঁচার জন্য কিছু না পায়, তখন খড় কুটাকে আঁকড়ে ধরেও বাঁচতে চায়। দেখবেন কেউ যখন কোন পয়সা খুঁজতে থাকে, তখন একটু দূরে যেকোন কিছু চকচকে দেখা গেলেই সে সেটাকে পয়সা মনে করে ছুটে যায়। এই রকম দশাই হয়েছে পৃথিবীর ঘূর্ণনের প্রমাণ খুঁজতে গিয়ে হয়রান, পেরেশান এসব নামে বিজ্ঞানীদের; এরা বিজ্ঞানের কলংক। আর এদিকে আমরা নিজেদের বিবেক বুদ্ধিকে জলাঞ্জলি দিয়ে, এইসব নামে বিজ্ঞানীরা বিজ্ঞানের নাম দিয়ে আমাদেরকে যা কিছু গিলাচ্ছে তাই অবলীলায় গলাধকরণ করে যাচ্ছি। অন্ধ বিশ্বাসের অতল গভীরে নিমজ্জিত থাকার কারণে আমরা বিজ্ঞানের ক্লাসকে বানিয়ে ফেলেছি ধর্মীয় ক্লাস, বিজ্ঞানের ক্লাসেও ধর্মীয় ক্লাসের মত কোন প্রশ্ন নেই, কোন সন্দেহ নেই।ভাবখানা এমন অমুক মহাবিজ্ঞানী বলেছে, তাকি আর মিথ্যা হতে পারে?

শোনেন ১ম কথা হলো এই ফুকওর পেন্ডুলামটা একটা ধোঁকাবাজি ও ষড়যন্ত্র হওয়ার সম্ভাবনা প্রচুর। পেন্ডুলামটা তারা এমনভাবেই ফিট করে যাতে সেটা ধীরে ধীরে ঘুরতে থাকে।আপনি নিজে কখনো গিয়ে দেখেছেন বাস্তবে, খুটয়ে খুটিয়ে সব যাচাই করেছেন। যদি করতেন তাহলেই বুঝতেন যে যেখান থেকে ,যেভাব, যেটার সাহায্যে ববটাকে ঝুলানো হয় সেখানেই রয়েছে কারসাজি।

২য় কথা হলো যদি ধরে নেই ধোঁকাবাজি নাই তাহলে বলবোঃ যে নাকি পেন্ডুলামের এই ঘূর্ণনকে পৃথিবীর ঘূর্ণনের দলীল বলবে; এটাই দলীল যে, এই লোকটা বিজ্ঞান শুধু মুখস্থ পড়েছে, তার নিজস্ব কোন সৃষ্টিশীল মেধা নেই, সে সাইন্টিফিক মেথড কিছুই বুঝেনা।অন্ধ বিশ্বাসের নীচে চাপা খেয়ে তার আকল বুদ্ধি সব ভরতা হয়ে গেছে। নীচের পোষ্টটি পড়ে দেখুন সাধারণ মানুষের বুঝার উপযোগী করে লেখা।   
যারা বিজ্ঞান দিয়ে কোরআনের ভুল ধরেন তারা সবাই একটু দেখুন। সাইন্টিফিক মেথড সম্পর্কে আগে জানুন। 


”আর তিনিই সৃষ্টি করেছেন রাত্রি ও দিন এবং চন্দ্র ও সূর্য। সবাই নিজ নিজ কক্ষপথে বিচরণ করে।”(সুরা আম্বিয়া, ২১ : ৩৩)
http://www.quran.gov.bd/quran/arabic/21/21-33.png
http://www.quran.gov.bd/quran/bengaliT/21/21-33.png

ভাই এই আয়াতটা কোন অকাট্য অরথপ্রদানকারী আয়াত নয়। এখানে প্রত্যেকেই বলতে এই আয়াতে যেসবের কথা বলা হয়েছে  সেগুলোর প্রত্যেটিকে বুঝানো হচ্ছে। পৃথিবী বা অন্য কোন কিছুর কথা এখানে আলোচনা করা হচ্ছেনা। পূর্ববর্তী বিজ্ঞ আলেমরা এটাই বলেন। ধোঁকাবাজ বিজ্ঞানীদের ধোঁকায় পরে কোন আধুনিক স্কলার যদি কোন আয়াতের মনগড়া অর্থ করে, তাহলে সে নিজের জাহান্নামে যাওয়ার রাস্তাই ক্লীয়ার করছে।

@দ্যা ডেডলক  বলেছেন

@মরণের প্রস্তুতি আপনার কাছে একটাই অনুরোধ নীচের টপিক পড়ে ফোরাম এর এথিস্টদের জবাব দিন। নতুন বা তাল গাছ আমার টাইপ আলোচনা বাদ দিন। 
http://forum.projanmo.com/topic37965.html   

এরপর @ভাই সরদার বলেছেন
আর এসব ব্যাপারে ডেডলকের দেওয়া লিঙ্কে যেয়ে আলোচনা করলেই ভালো হয়। 
   

ভাই কেউ যদি বিজ্ঞানের নামে চালিয়ে দেয়া বিভিন্ন কিচ্ছাকাহিনীর উপর ভিত্তি করে যুক্তি পেশ করে তাহলে তার সাথে কোন যুক্তিবাদী মানুষের আলোচনা চলতে পারেনা। শুধু একটু বলি আপনারা যাকে খুব জ্ঞানী ভাবছেন তার বিজ্ঞান সম্পর্কে জ্ঞান শুধুই মুখস্থ জ্ঞান, শুধুই অন্ধ বিশ্বাস।

এই যা, কথা দেখি একটু বেশীই কড়া হয়ে গেলো। এখন কি করি? ভাইয়েরা কেউ কষ্ট নিয়েন না, নতুন মানুষ মনে করে মাফ করে দিয়েন।

১৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সালেহ আহমদ (০৪-০৪-২০১৩ ১৩:৩০)

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

মরণের প্রস্তুতি লিখেছেন:

ভাই কেউ যদি বিজ্ঞানের নামে চালিয়ে দেয়া বিভিন্ন কিচ্ছাকাহিনীর উপর ভিত্তি করে যুক্তি পেশ করে তাহলে তার সাথে কোন যুক্তিবাদী মানুষের আলোচনা চলতে পারেনা। শুধু একটু বলি আপনারা যাকে খুব জ্ঞানী ভাবছেন তার বিজ্ঞান সম্পর্কে জ্ঞান শুধুই মুখস্থ জ্ঞান, শুধুই অন্ধ বিশ্বাস।
এই যা, কথা দেখি একটু বেশীই কড়া হয়ে গেলো। এখন কি করি? ভাইয়েরা কেউ কষ্ট নিয়েন না, নতুন মানুষ মনে করে মাফ করে দিয়েন।


উনার না হয় মুখস্থ জ্ঞান, আপনার জ্ঞানটা অবতীর্ণ হচ্ছে নাকি এখন?

১৭

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

মরণের প্রস্তুতি লিখেছেন:

ভাই ফুকওর পেন্ডুলামকে যে এইসব বিজ্ঞানীরা পৃথিবীর ঘূর্ণনের দলীল হিসাবে পেশ করেছে, এটাই তাদের ধোঁকাবাজির দলীল; এটাই তাদের অসহায়ত্বের দলীল।
... ... ...
শোনেন ১ম কথা হলো এই ফুকওর পেন্ডুলামটা একটা ধোঁকাবাজি ও ষড়যন্ত্র হওয়ার সম্ভাবনা প্রচুর। পেন্ডুলামটা তারা এমনভাবেই ফিট করে যাতে সেটা ধীরে ধীরে ঘুরতে থাকে।আপনি নিজে কখনো গিয়ে দেখেছেন বাস্তবে, খুটয়ে খুটিয়ে সব যাচাই করেছেন। যদি করতেন তাহলেই বুঝতেন যে যেখান থেকে ,যেভাব, যেটার সাহায্যে ববটাকে ঝুলানো হয় সেখানেই রয়েছে কারসাজি।

অবশেষে মুখস্তবিদ্যার যম, সাইন্টিফিক মেথডের প্রথম সংজ্ঞাপ্রদানকারী, পশ্চিমা সভ্যতার বিষে জর্জরিত প্রাচ্যের মুখস্তবিদ্যাসর্বস্ব তথাকথিত বিজ্ঞানমনস্ক মানুষের মাথা থেকে গ্যালিলিও, টলেমীর ভূত ঝেড়ে শুদ্ধ বিজ্ঞান পুরে দেওয়ার অগ্রপথিক, সারা জাহানের শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞান বিশেষঅজ্ঞ মরণের প্রস্তুতি ভাই কুভই নিপুণ উপায়ে ফুকোর পেন্ডুলামের জারিজুরি ফাঁস করে প্রমাণ করলেন সূর্যই পৃথিবীর চারিদিকে ঘোরে। আজ প্রজন্ম ফোরামের 42749 নং টপিকে রচিত হল এক নূতন ইতিহাস। শেষ হল অপবিজ্ঞানের যুগ, সূচনা হল শুদ্ধতম বিজ্ঞানচর্চার। এ বিপ্লবের সূচনা হল এক নতুন জ্যাংগোর হাত ধরে। আবার হয়তো একশো বছর পর কোনও টারান্টিনো তৈরি করবেন আর এক জ্যাংগো আনচেইনড, যাতে লিপিবদ্ধ থাকবে শত প্রতিকূলতার মধ্য দিয়েও কীভাবে উত্থান ঘটেছিলো এক বিজ্ঞানসংস্কারকের।

"No ship should go down without her captain."

হৃদয়১'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১৮

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

বাঁচাও আমায়, আছিস কেরে,
          আমায় তোরা ধর,
পইড়া গিয়া ছুটবো নাকি,
          কল্লা থেকে ধর।  lol2

ছড়াবাজ'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৯

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

হৃদয়১ লিখেছেন:
মরণের প্রস্তুতি লিখেছেন:

ভাই ফুকওর পেন্ডুলামকে যে এইসব বিজ্ঞানীরা পৃথিবীর ঘূর্ণনের দলীল হিসাবে পেশ করেছে, এটাই তাদের ধোঁকাবাজির দলীল; এটাই তাদের অসহায়ত্বের দলীল।
... ... ...
শোনেন ১ম কথা হলো এই ফুকওর পেন্ডুলামটা একটা ধোঁকাবাজি ও ষড়যন্ত্র হওয়ার সম্ভাবনা প্রচুর। পেন্ডুলামটা তারা এমনভাবেই ফিট করে যাতে সেটা ধীরে ধীরে ঘুরতে থাকে।আপনি নিজে কখনো গিয়ে দেখেছেন বাস্তবে, খুটয়ে খুটিয়ে সব যাচাই করেছেন। যদি করতেন তাহলেই বুঝতেন যে যেখান থেকে ,যেভাব, যেটার সাহায্যে ববটাকে ঝুলানো হয় সেখানেই রয়েছে কারসাজি।

অবশেষে মুখস্তবিদ্যার যম, সাইন্টিফিক মেথডের প্রথম সংজ্ঞাপ্রদানকারী, পশ্চিমা সভ্যতার বিষে জর্জরিত প্রাচ্যের মুখস্তবিদ্যাসর্বস্ব তথাকথিত বিজ্ঞানমনস্ক মানুষের মাথা থেকে গ্যালিলিও, টলেমীর ভূত ঝেড়ে শুদ্ধ বিজ্ঞান পুরে দেওয়ার অগ্রপথিক, সারা জাহানের শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞান বিশেষঅজ্ঞ মরণের প্রস্তুতি ভাই কুভই নিপুণ উপায়ে ফুকোর পেন্ডুলামের জারিজুরি ফাঁস করে প্রমাণ করলেন সূর্যই পৃথিবীর চারিদিকে ঘোরে। আজ প্রজন্ম ফোরামের 42749 নং টপিকে রচিত হল এক নূতন ইতিহাস। শেষ হল অপবিজ্ঞানের যুগ, সূচনা হল শুদ্ধতম বিজ্ঞানচর্চার। এ বিপ্লবের সূচনা হল এক নতুন জ্যাংগোর হাত ধরে। আবার হয়তো একশো বছর পর কোনও টারান্টিনো তৈরি করবেন আর এক জ্যাংগো আনচেইনড, যাতে লিপিবদ্ধ থাকবে শত প্রতিকূলতার মধ্য দিয়েও কীভাবে উত্থান ঘটেছিলো এক বিজ্ঞানসংস্কারকের।

   

বেশ খানিকটা হাসলাম এই কমেন্টটা পড়ে। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে। এভাবে উত্তর দেয়াই অন্ধ বিশ্বাসীদের ঐতিহ্য। তারা চিন্তা করবেনা কখনো যুক্তি দিয়ে, সেই ক্ষমতাই তাদের থেকে ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে মানুষ পূজারী শিক্ষা ব্যাবস্থার মাধ্যমে। যেখানে বিজ্ঞানের ক্লাসে যুক্তি প্রমাণ থাকে না, থাকে "বাণী" অমুক এটা বলেছেন, তমুক এটা বলেছেন।

২০

Re: দু'টি চুরির মামলা , আপনারা কে কি বলেন?

মূল পোস্ট এডিট করার ক্ষমতা থাকা উচিত না