সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (২০-০৩-২০১৩ ১৭:৪৩)

টপিকঃ ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

http://i.imgur.com/pZuYsWs.jpg




                                                                           আ ডায়মন্ড ইয নট ফরেভার!




(#1) খুচরা পর্যায়ে এক খন্ড হীরে এমনিতেই ২০০ থেকে ৩০০% বেশি দামে বিকোয়... অর্থাৎ, ১ লাখ টাকায় যে হীরের আংটি কিনছেন, ওটার আসল দাম হোলসেল মার্কেটে বড়জোড় ৩৫ থেকে ৫০ হাজার! এবং যে মুহূর্তে হীরের আংটি কিনে দোকানের বাইরে পা রাখবেন, ঠিক সেই মুহুর্তে বস্তুটির দাম অর্ধেকেরও বেশি কমে যাবে। মোটামুটি জেনেশুনেই ডায়মন্ড ব্যবসায়ীরা ক্রেতাদের পকেট কেটে অর্ধেক থেকে দুই-তৃতীয়াংশ হাপিস করে দিচ্ছে। স্টক মার্কেটে ফ্রড ধরার জন্য এসইসি এবং কড়া আইনকানুন আছে (বাংলাদেশ বাদে  hmm ) - ডায়মন্ড ফ্রডদের প্রতিহত করার জন্য কিছুই নেই। Diamond retailing = robbery in broad daylight...  neutral

(#2) তবে এখানেও আরো বড় ক্যাচাল আছে! সদ্য কেনা চকমকে পাথর খন্ডটি অর্ধেকের কম দামেও যদি বিক্রি করতে পারেন তাহলে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করতে পারেন! কারণ বেশিরভাগ দোকানই খুচরো ক্রেতাদের কাছ থেকে ডায়মন্ড কিনতে সরাসরি প্রত্যাখ্যান করে দেবে। এর কারণ মূলত: দু'টি -

  • প্রথমত: আপনাকে ভুজুং ভাজুং দিয়ে ১ লাখ টাকায় আংটি গছিয়ে দিয়েছে বটে, কিন্তু সে নিজে হয়তো ঐ জিনিসই কিনেছিলো ৩০/৪০ হাজার দিয়ে। কাজেই ওটা যদি সে আপনার কাছ থেকে কিনতে যায়, স্বভাবত:ই (অবচয় হার মাথায় রেখে) তাকে ৩০/৪০-এর অনেক নীচের কোনো প্রাইসপয়েন্ট অফার করতে হবে। আর এটা করতে গেলেই ব্যাপক সাইকোলজিকাল এফেক্ট লাফিয়ে এসে পড়ছে! কিছুদিন আগে ১ লাখ টাকার যে মাল আপনি কিনেছিলেন, ওটার রিসেল ভ্যালু আচমকা ২৫-৩০-এ নেমে আসলে বিরাট শক খাবেন! স্বভাবত:ই অপমানিত বোধ করবেন। তার ওপর, ডায়মন্ড নামক চকমকা কার্বনখন্ড একটি "চিরন্তন, অমূল্য, নিরাপদ বিনিয়োগের" যে চটকদার মীথ বাজারে প্রচলিত আছে তা হুড়মুড় করে ভেঙে পড়বে! একজন ইন্ডিভিজুয়াল রিটেলার সরাসরি ক্রেতার কাছ থেকে আরো কম দামে হীরে কিনে নিলে সাময়িকভাবে কিছুটা লাভবান হবে ঠিকই, তবে তার আল্টিমেট এফেক্ট হবে - পুরো ইন্ডাস্ট্রীর কালেক্টিভ সুইসাইড। ডায়মন্ড জুয়েলারী ইন্ডাস্ট্রিটাই দাঁড়িয়ে আছে এক প্রকারের ধাপ্পাবাজির ওপর - এ ধরণের ঘটনা (কাস্টোমার থেকে ডায়মন্ড কিনতে গিয়ে গ্যান্জাম) বারবার ঘটতে থাকলে একসময় না এক সময় গোমর ফাঁস হবেই। আর সে কারণেই ডায়মন্ড রিটেলাররা মোটামুটি সিন্ডিকেট করে কাস্টোমারের কাছ থেকে ডায়মন্ড কিনতে সরাসরি প্রত্যাখ্যান করে দেয়!

  • দ্বিতীয়ত: রিটেলাররা তাদের বিক্রিত ডায়মন্ডগুলো হোলসেলারদের কাছ থেকে কনসাইনমেন্টে সংগ্রহ করে। অর্থাৎ, মাল কিনতে দোকানীকে কোনো পয়সা দিতে হয় না। ডায়মন্ডটি বিক্রি হয়ে যাবার পরেই দোকানী তার দাম হোলসেলারকে পরিশোধ করে। বলতে গেলে, দোকানী মোটামুটি রিস্ক-ফ্রী বিজনেস চালিয়ে যাচ্ছে - একদিকে বিনা বিনিয়োগে সে কাঁচামাল পাচ্ছে (দোকানীর বিনিয়োগ বলতে র ডায়মন্ড পাথরটা পলিশিং এবং সাথে রিং ও আনুষাঙগিক এ্যাকসেসরীয যোগ করে বিক্রয়যোগ্য করার খরচ) - আবার ঐ জিনিসই সে ২ থেকে ৩ গুণ দামে খুচরো ক্রেতার কাছে বিক্রয় করছে। বিজনেসটি সরলভাবে দেখতে চাইলে অনেকটা এ রকম - সাপ্লায়ারের কাছ থেকে আপনি ১ টাকার কাঁচামাল জোগাড় করছেন, মূল জিনিসের সাথে হয়তো ৪/৫ পয়সার ভ্যালু এ্যাড করছেন - আর ঐ জিনিস ক্রেতার কাছে বিক্রয় করছেন ২ বা ৩ টাকায়। সেলস রেভিনিউ থেকে ১ টাকা সাপ্লায়ারকে দিয়ে দিচ্ছেন, ৫ পয়সা খরচ - আর বাকী পুরোটাই আপনার পকেটে! আর যদি ডায়মন্ডটি বিক্রি নাও হয় তাহলেও তেমন ক্ষতি নেই - সরাসরি হোলসেলারের কাছে ফেরত চলে যাবে (আর হোলসেলারও আরেক রিটেলারের মাধ্যমে ওটা বিক্রি করাবে)। উল্টোদিকে, কাস্টোমারের কাছ থেকে ডায়মন্ড বাই-ব্যাক করতে গেলে শুরুতেই দোকানীকে বিনিয়োগ করতে হবে। তার ওপর ঐ ডায়মন্ড আদৌ বিক্রি হবে কিনা নিশ্চয়তা নেই, আর যদি হয়ও সেক্ষেত্রেও দীর্ঘদিন যাবৎ দোকানীর বিনিয়োগ আটকা পড়ে থাকছে। অতএব - আপনার কাছ থেকে ডায়মন্ড কিনলে বরং ওদেরই ক্ষতি।

মোদ্দা কথা - বিজ্ঞাপনে ঠিকই বলেছিলো: "আ ডায়মন্ড রিয়েলী ইয ফর এভার!" একবার কিনেছেন তো ফেঁসেছেন - পরে আর চাইলেও ওটাকে দূর করতে পারবেন না।  hmm

(#3) গোল্ড, সিল্ভার হলো ইনভেস্টমেন্ট গ্রেড ধাতু। ইনভেস্টমেন্ট গ্রেড কমোডিটির দু'টো বৈশিষ্ট্য থাকে -
১) লিকুইডিটি - মার্কেটে বস্তুটির পর্যাপ্ত ডিমান্ড এবং সাপ্লাই
২) fungibility - বন্ধুর কাছে আপনার কাছে ১০০ টাকা পাওনা আছে। বন্ধু আপনাকে ১০০ টাকার একটি নোট না দিয়ে বরং ১০ টাকার ১০টি নোট দিয়ে ধার চুকিয়ে দিলো - এটাই "ফান্জিবিলিটি" (ইহার বংগানুবাদ আমার সাধ্যের বাইরে  hairpull )। গোল্ড বুলিয়ন ফান্জিবল - অর্থাৎ, ১০০ গ্রাম ওজনের ২৪ ক্যারাট ১টি গোল্ড বুলিয়ন কিনলেন আপনি, ভবিষ্যৎে ওটা একই মানের (২৪ ক্যারাট) ৫০ গ্রাম ওজনের ২টি বুলিয়ন (বা যেকোনো ওজনের ভগ্নাংশ) দিয়ে এক্সচেন্জ করতে পারবেন।

(#4) ডায়মন্ড:
১) লিকুইডিটি: যৎকিন্চিৎ। এটা শুধু এক রাস্তা দিয়েই হাতবদল হয়: সাপ্লায়ার -> রিটেলার -> কাস্টোমার। উল্টোপথে মালিকানা বদল প্রায় হয়ই না (অল্পস্বল্প যা হয় তাতে কোনো প্রভাব পড়ে না)
২) ফান্জিবিলিটি: নেই। ডায়মন্ডের গ্রেডিং করা হয় 4C ক্রাইটেরিয়া দ্বারা (4C: carats, color, cut, and clarity) এই ৪টি ডাইমেনশন মিলিয়ে অদলবদল করার মত পাথর খুঁজে বের করা খুবই দুরুহ কাজ, প্রায় অসম্ভব।

মোদ্দা কথা: ইনভেস্টমেন্টের দৃষ্টিকোণ থেকে ডায়মন্ড একটি বাজে বিনিয়োগ।

(#5) তবে ইনভেস্টমেন্ট গ্রেড ডায়মন্ডও আছে। কিন্তু সেগুলো খুবই দুর্লভ। একটি ডায়মন্ড হোলসেলার কোম্পানী প্রতি মাসে হাজার হাজার পিস ডায়মন্ড প্রসেস করে। ওর মধ্য থেকে হয়তো ক্বদাচিৎ একটি পার্ফেক্ট ডায়মন্ড ওরা পেলেও পেতে পারে। বছরে হাতে গোণা এক-আধ ডজন এমন দামী হীরে আবিষ্কার হয় এক একটি ট্রেডিং কোম্পানীতে। আর যাও বা পাওয়া যায় তাও আর ম্যাস মার্কেটে আসে না - তাদের মধ্যেই হাতবদল হতে থাকে। বাজারে যে হীরে পাওয়া যায় তা হলো "কমার্শিয়াল গ্রেড" ডায়মন্ড। ইনভেস্টমেন্ট গ্রেড ডায়মন্ডের সাথে আমাদের কমার্শিয়াল ডায়মন্ডের মূল্যমানের আকাশপাতাল ফারাক।

(#6) ডায়মন্ড একটি "রেয়ার ম্যাটেরিয়াল" বলে কোম্পানীগুলো মীথ প্রচার করে থাকে। এটিও ডাঁহা মিথ্যে কথা। বরং ডায়মন্ডের চাইতে প্ল্যাটিনাম অনেক দূর্লভ ম্যাটেরিয়াল (কোথায় যেন পড়েছিলাম পুরো পৃথিবীর প্ল্যাটিনাম সংগ্রহ করলে তা একটি মাঝারী আয়তনের ঘরের সমান হবে)। হীরে মোটেই দুষ্প্রাপ্য নয়, তবে এটাকে "দুষ্প্রাপ্য" করে রাখা হয়। পুরো দুনিয়ার ডায়মন্ড মাইনিং কন্ট্রোল করে আফ্রিকা, ইউরোপ, আমেরিকার কিছু মুষ্টিমেয় প্রভাবশালী প্রাইভেট কোম্পানী। এরা নিজেরা ইচ্ছামত সিন্ডিকেটিং করে প্রাইস ফিক্সিং করে। আপনার স্ত্রী/বান্ধবী-র কণিষ্ঠা আঙুলের ১,০০,০০০ টাকা দামের ডায়মন্ডটির জীবনীচক্র:

  • আপনি কিনেছেন ১ লাখ টাকা দামে

  • আপনার রিটেলার কিনেছিলো হয়তো ৪০ হাজারে

  • তার হোলসেলার কিনেছিলো হয়তো ৩০ হাজারে

  • আর মাইনিং কোম্পানীর আসল প্রডাকশন কস্ট হয়তো ১৫-২৫ হাজার!

(#7) "ডায়মন্ডস আর ফরেভার" - এই ক্রেজটি তৈরী করা হয় ৪০-এর দশকের শুরুতে। এর মাস্টারমাইন্ড নিউ ইয়র্কের এ্যাডভার্ৎাইজিং গুরু - জেরল্ড লওক। ৩০-এর দশকে আমেরিকান অর্থনীতি প্রবল মন্দাক্রান্ত ছিলো। তারপরও ডী বিয়ার্স কোম্পানীর ৭৫% ডায়মন্ড সেলস হতো আমেরিকায়, বাকী দুনিয়ায় ২৫% বিকাতো। ঐ সময় ডায়মন্ডের মূল ক্রেতা ছিলো বিয়ের আগে হবু-স্ত্রী-র জন্য গিফট খুঁজতে শপিং-এ আসা আমেরিকান তরুণ সমাজ। তবে একটা বড় সমস্যা - আমেরিকান নারীরা ডায়মন্ড তেমন একটা পছন্দ করতো না, মোটামুটি ইউজলেস পাথর হিসাবেই গণ্য করতো। আর তাই ব্যবসা বাড়ানোর জন্য ডী বিয়ার্সের দরকার হয়ে পড়েছিলো ডায়মন্ডের পাবলিক পারসেপশন আমূল বদলে দেয়া।

আর ঐ মাস্টারপ্ল্যানের অংশ হিসাবে তারা আরম্ভ করে ম্যাসিভ আকারে চতুর, ধূর্ত ক্যাম্পেইনিং। আমেরিকানদের রিতীমত ব্রেইনওয়াশিং শুরু করে। আমেরিকান পুরুষদের মাথায় ঢুকিয়ে দেয়া হয় - পার্টিতে গ্যাদারিং-এ তার হাতে যদি মোটাসোটা একখানা চকমকে কার্বনের দলা শোভা না পায় তাহলে তার জীবনটাই ব্যর্থ - প্রফেশনালী "আন-সাক্সেসফুল"। নারীদের শিখিয়ে দেয়া হয় পরিবারের আর্থিক অবস্থা যাই হোক না কেন, কণিষ্ঠা আংগুলে হীরের আংটি নেই তো তাদেরর পরিবার "গরীব, লুজার"। ডায়মন্ডকে প্রতিষ্ঠিত করানো হয় সামাজিক এবং পারিবারিক সাকসেস স্ট্যাটাস সিম্বল হিসাবে।  হলিউড স্টারদের বড় বড় সাইযের ডায়মন্ড গিফট করা হয় - আর পাপারাজ্জীদের ভাড়া করা হয় ডায়মন্ড পরিহিত স্টারদের ছবি তুলে ম্যাগাযিনে ছাপানোর জন্য। রাজনৈতিক, সামাজিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের ডায়মন্ড গছিয়ে দেয়া হয়, এবং তাদের এমনসব ছবি পত্রিকা/ম্যাগাযিনে প্রকাশ করা হয় যেখানে কিন্চিৎ প্রকটভাবে তাদের পরণের হীরের আংটিটি নজরে পড়ে। ফ্যাশন ডিজাইনার, বিউটিশিয়ানদের ভাড়া করা হয় - তারা রেডিও-টিভি প্রোগ্রামে ডায়মন্ড হাইপ চড়িয়ে দিতে থাকে। এমনকি ডায়মন্ড ইন্ডাস্ট্রী এক পর্যায়ে বৃটিশ রয়্যাল ফ্যামিলীকেও ধোঁকা খাইয়ে ডায়মন্ড প্রোপাগান্ডার কাজে লাগিয়েছিলো।
http://i.imgur.com/rjZPmkR.jpg
Liz Taylor

http://i.imgur.com/4pqQO2a.jpg
Sean Connery - Diamonds Are Forever (1971)

http://i.imgur.com/zPTQfzX.jpg
Halle Berry

http://i.imgur.com/I1E2uk0.jpg
Duchess of York

ফলাফল - ১ বছরের মধ্যেই ২য় বিশ্বযুদ্ধের ডামাডোলের মধ্যেও মন্দাপীড়িত আমেরিকায় ডায়মন্ড রিটেলিং লাফ দিয়ে ৫৫% বেড়ে যায়।

আজ ৮০% আমেরিকান দম্পতিদের এনগেজমেন্ট হয় ডায়মন্ড দিয়ে। হীরের আংটি ছাড়া প্রপোজ করার কথা এখন আর কল্পনাও করা যায় না! ওয়েডিং রিঙের কার্বন খন্ডের সাইয দেখেই এখন অনেকে অটোমেটিক মেপে ফেলে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে "ভালো+বাসা" কতটুকু... roll

http://i.imgur.com/SNIoIyY.jpg

ডমিনেশন কম্পলিট!  hehe

হিটলারের নাৎসী ক্যাম্পেইন মাত্র কয়েক দশকের জন্য কয়েক মিলিয়ন মানুষকে বোকা বানিয়েছিলো।  kidding

ডী বিয়ার্সের ডায়মন্ড ক্যাম্পেইন শতাব্দী পার করে দিয়ে পুরো পৃথিবীকে বাকরা বানিয়ে চলেছে!  cool

ব্লাড ডায়মন্ড - কোটি কোটি তরুণের রক্তপানি করা সন্চয় চুষে খাচ্ছে অল্প কিছু গোষ্ঠী...

ডায়মন্ডস আর বুল**!

“The reason you haven’t felt it is because it doesn’t exist. What you call love was invented by guys like me, to sell nylons.”
- Don Draper, Madmen

বি:দ্র: পোস্টটি Priceonomics-এর ডায়মন্ডস আর বুল** আর্টিকল অবলম্বনে।

Calm... like a bomb.

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

সেকি ভাই, এযে দেখছি আচানক কান্ড।
এর কিছুইতো জানতামনা।

আপনার পোস্টখান পড়ে ঝাতি সজাগ হবে জাগ্রত রবে। একটা প্লাস+ নেন ভাই।  big_smile
ধন্যবাদ

হে আল্লাহ, তুমি সকলের মঙ্গল কর; তোমার রহমতের আশ্রয়ে আশ্রিত কর..... আমীন
সঠিক পদ্ধতিতে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করুন এবং আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটটিকে সুরক্ষিত রাখুন

কাজী আলী নূর'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

এটা নারীকূলের পড়া উচিত। কারণ আমরা পুরুষেরা যতই বুঝাই না কেন, তাদের বুঝানো সম্ভব না sad

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

নট রাইট আপ মাই এ্যলী তাও পড়িলাম  smile

invarbrass লিখেছেন:

আমেরিকানদের রিতীমত ব্রেইনওয়াশিং শুরু করে। আমেরিকান পুরুষদের মাথায় ঢুকিয়ে দেয়া হয় - পার্টিতে গ্যাদারিং-এ তার হাতে যদি মোটাসোটা একখানা চকমকে পাথর শোভা না পায় তাহলে তার জীবন ব্যর্থ।

একই ভাবে আমাদের উপমহাদেশে গোল্ডের ব্যপারে একধরনের একটা ক্রেইজ আছে এটার ব্রেইনওয়াশ কিভাবে বা কারা করেছে কোনো ইনসাইট আছে কি?  thinking

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (২০-০৩-২০১৩ ১৯:৪৩)

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

অসাম একটা লেখা তাই গরম গরম রীপু নেন। আশা করি কিছু দিনের মধ্যেই সংগ্রাম পত্রিকায় এই লেখা হুবহু প্রকাশ করা হবে tongue

আমি শুনে ছিলাম যে, বর্তমানে কাঁচ কে ইলেক্ট্রিক চার্জ করে আর্টিফিসিয়াল ডায়মন্ড বানানো হয়। এটার সাথে আসলটির দামের তফাৎ কেমন ?

বাংলাদেশে যে পত্রিকায় বিশাল বিজ্ঞাপন দিয়ে যে,  ৫/১০ হাজার টাকার ডায়মন্ড এর আংটির  সেগুলো কি আসল ডায়মন্ড ?

কাঁচ কাটার কাজ যারা করে তারা যে বস্তু ব্যবহার করে তা কি হিরা ?

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন পরিবেশ প্রকৌশলী (২০-০৩-২০১৩ ১৪:০২)

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

টিজার'টার পর এটা আসাতে বেশ ভাল লাগলো। চমৎকার ঝরঝরে লেখা হয়েছে ... ...

একটা টিজার দেই আপনাকে: http://www.fluoridedebate.com/ এটা আমার পেশার সাথে সরাসরি জড়িত একটা বিষয়। লেখার ইচ্ছা আছে।  smile

পরিবেশ প্রকৌশলী'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

কাঁচ কাটার কাজ যারা করে তারা যে বস্তু ব্যবহার করে তা কি হিরা ?

nope not any more পানি ব্যবহার করা হয় দেখুন

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন তার-ছেড়া-কাউয়া (২০-০৩-২০১৩ ১৫:২৫)

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

আহমাদ মুজতবা লিখেছেন:

একই ভাবে আমাদের উপমহাদেশে গোল্ডের ব্যপারে একধরনের একটা ক্রেইজ আছে এটার ব্রেইনওয়াশ কিভাবে বা কারা করেছে কোনো ইনসাইট আছে কি?  thinking


ব্রেনওয়াশ রাজা-রাণীর আমল থেকেই হয়ে এসেছে। কত স্বর্ণের অলঙ্কার পরতো আগেকার রাজা-রাণীরা দেখেন নাই? tongue তবে আমার মনেহয় গোল্ড গলিয়ে সহজেই শেপ ও ডিজাইন পরিবর্তন করা যায়, যেটা ডায়মন্ডের ক্ষেত্রে করা ঝামেলার। এজন্যেই রিটেইলাররা গোল্ড আবার কাস্টমারের কাছ থেকে কিনে নিতে কার্পন্য করে না। আমাদের মতন গরীব দেশে তাই দামী ডায়মন্ডের চাইতে অপেক্ষাকৃত কমদামী গোল্ডের ক্রেজ বেশি হওয়াই স্বাভাবিক। মেটালার্জী ডিপার্টমেন্টের কেউ থাকলে ভালো হত। আরও ভালো উত্তর পাওয়া যেত big_smile

ডেডলক লিখেছেন:

আমি শুনে ছিলাম যে, বর্তমানে কাঁচ কে ইলেক্ট্রিক চার্জ করে আর্টিফিসিয়াল ডায়মন্ড বানানো হয়। এটার সাথে আসলটির দামের তফাৎ কেমন ?


আমি বিবিসি এর একটা প্রোগ্রামে দেখেছিলাম যে, ফেলে দেয়া প্লাস্টিকের বোতল থেকে আর্টিফিসিয়াল ডায়মন্ড বানায়।

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

তার-ছেড়া-কাউয়া লিখেছেন:

এটা নারীকূলের পড়া উচিত। কারণ আমরা পুরুষেরা যতই বুঝাই না কেন, তাদের বুঝানো সম্ভব না sad

ভবিষতের কথা চিন্তা করেই টপিকটা প্রিয়তে নিয়া রাখি  isee isee

১০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ফায়ারফক্স (২০-০৩-২০১৩ ১৪:৪১)

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

@মুজ্জি ভাই ওটা ইন্ড্রষ্ট্রিয়াল লেভেলে আমজনতার এখনো এইগুলোই ভরসা

@ডেডলক ৫/১০ হাজারে কোন আংটি বোধহয় নেই
কিন্তু ৫/১০ হাজারে হীরের কানের দুল, নাক ফুল দেখেছি। তবে এত ছোট হীরা কাউকে না বললে সে খেয়ালই করবে না lol lol

১১ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (২০-০৩-২০১৩ ১৪:৪৮)

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

পরিবেশ প্রকৌশলী লিখেছেন:

টিজার'টার পর এটা আসাতে বেশ ভাল লাগলো। চমৎকার ঝরঝরে লেখা হয়েছে ... ...

একটা টিজার দেই আপনাকে: http://www.fluoridedebate.com/ এটা আমার পেশার সাথে সরাসরি জড়িত একটা বিষয়। লেখার ইচ্ছা আছে।  smile

big_smile ফ্লোরাইড ফ্রড নিয়ে সম্ভবত: আপনি (বা অন্য কেউ) অনেক আগেই একটি লেখা (প্রজন্মে নয়তো আমাদের প্রযুক্তি ফোরামে) লিখেছিলেন। আমি নিজেও ফ্লোরাইড সম্পর্কে ওরকমই জানতাম। তবে কিছুদিন আগে ডেন্টিস্টের চেম্বারে একটি পোস্টারে দেখি ফ্লোরাইড টুথপেস্ট ব্যবহার করতে উপদেশ দিচ্ছে। ঐ সময় তাঁর উপদেশমত কিছুদিন sensodyne এবং আরেকটা ফ্লোরাইড-যুক্ত কি এক বিদেশী ব্র্যান্ডের টুথপেস্ট কিনেছিলাম - দাঁতব্যাথায় মোটামুটি উপকার পেয়েছিলাম। তবে ক্রাইসিস কেটে যাবার পরে আবার নন-ফ্লোরাইড ব্যবহার শুরু করি। চেন্জওভারের সময় একটা জিনিস খেয়াল করেছিলাম:
ক্লোরিণের তুলনায় দূর্বল হলেও ফ্লোরাইড একটি মাইল্ড-এ্যান্টিবায়োটিক। ফ্লোরাইড টুথপেস্ট ব্যবহার করার সময় মুখে দুর্গন্ধ ফিরতে সময় লাগতো (সাধারণ নন-ফ্লোরাইড টুথপেস্টে এটা খুব তাড়াতাড়ি ফিরে আসে)

আহমাদ মুজতবা লিখেছেন:

নট রাইট আপ মাই এ্যলী তাও পড়িলাম  smile

দেখা যাবে  hmm  গ্র্যাযুয়েশন কম্পলিট করতে আর কতদিন আপনার? tongue

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

আমি শুনে ছিলাম যে, বর্তমানে কাঁচ কে ইলেক্ট্রিক চার্জ করে আর্টিফিসিয়াল ডায়মন্ড বানানো হয়। এটার সাথে আসলটির দামের তফাৎ কেমন ?

আপনি ঠিকই বলেছেন। ল্যাবরেটরীতে হাইপ্রেশার, হাই টেমপারেচারে কৃস্টাল ফর্মেশন করে সিন্থেটিক ডায়মন্ড তৈরী করা হয়। তবে ওগুলো মূলত: ইন্ডাস্ট্রিয়াল কাজে ব্যবহার করা হয়। উইকী থেকে জানলাম ইন্ডাস্ট্রিয়াল কাজে ব্যবহৃত ডায়মন্ডের ৯৮%-ই হলো সিন্থেটিক/আর্টিফিশিয়াল। কাটিং, পলিশিং ইন্ডাস্ট্রী, পাওয়ার স্টেশনের হাই-পাওয়ার সুইচ, ইলেকট্রনিকসে এলইডি, ট্রানযিস্টর, সেমিকন্ডাক্টর ইত্যাদি তৈরী করতে সিন্থেটিক ডায়মন্ড ব্যবহৃত হয়।

ভালো বিষয় লক্ষ্য করেছেন, আসলেই আমাদের দেশে সিন্থেটিক গুলোকেই ন্যাচারাল ডায়মন্ড নামে চালিয়ে দিচ্ছে কিনা কে জানে?  thinking

তবে ১০ হাজারে আংটি কোথায় দেখলেন??  surprised জুয়েলারীর দোকান তো ৫০/৬০ হাজারের নীচে কোনো সংখ্যাই মনে হয় চেনে না... (এসব বিষয়ে কোনো আইডিয়া নেই অবশ্য  big_smile )

Calm... like a bomb.

১২

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

অ.ট.

invarbrass লিখেছেন:

big_smile ফ্লোরাইড ফ্রড নিয়ে সম্ভবত: আপনি (বা অন্য কেউ) অনেক আগেই একটি লেখা (প্রজন্মে নয়তো আমাদের প্রযুক্তি ফোরামে) লিখেছিলেন। আমি নিজেও ফ্লোরাইড সম্পর্কে ওরকমই জানতাম।

তাইতো দেখি! বয়স বেড়ে যাচ্ছে!!

পরিবেশ প্রকৌশলী'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৩

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

yahoo d a i m o n d  yahoo

ওয়েল, এই পোস্টটা আমার দুইটা ফ্রেন্ডকে পড়ানো দরকার। গয়না-গাটি আর শাড়ি-ফারি ছাড়া এদের মুখ থেকে ভাল কথা শুনি না। sad মাথা ধরে যায়। এই ডায়মন্ড নিয়াই  একবার কি জানি বলছিলাম sad রাঁজহাসেঁর মত দৌড়ানি দিছিল তারা sad  neutral পরে ফুসকা খাওয়ায় ব্যাপারটা ঠান্ডা করছি  tongue_smile ...

১৪ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (২০-০৩-২০১৩ ১৫:০৫)

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

invarbrass লিখেছেন:

তবে ১০ হাজারে আংটি কোথায় দেখলেন??

বাংলাদেশের নাম করা ব্রান্ড "ডায়মন্ড ওয়াল্ড লিমিটেড" এর বিজ্ঞাপনে দেখেছি।

এই বছরের ভালোবাসা দিবসের বিজ্ঞাপন দেখুন 
http://i.imgur.com/T0PWNWQ.jpg

১৫ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (২০-০৩-২০১৩ ১৫:১৩)

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

পরিবেশ প্রকৌশলী লিখেছেন:

তাইতো দেখি! বয়স বেড়ে যাচ্ছে!!

স্বাভাবিক। big_smile ঐ টপিকটি মনে থাকার কারণ মূলত: সবুজ কুন্ডুদার অনর্থক খোঁচাখুঁচি (ঐ প্রশ্নটি ছিলো সরকারী নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে ফ্লোরাইড সম্পর্কে কোনো দিক নির্দেশনা আছে কিনা তা জানার উদ্দেশ্যে - এর সাথে দেশে থাকা না থাকার কোনো সম্পর্ক নেই)

ডেডলক লিখেছেন:

বাংলাদেশের নাম করা ব্রান্ড "ডায়মন্ড ওয়াল্ড লিমিটেড" এর বিজ্ঞাপন দেখতে পারেন
http://i.imgur.com/T0PWNWQ.jpg

এটা কি আদৌ ডায়ামন্ডের নাকি ফটোশপের sparkle এফেক্টের বিজ্ঞাপন??  dontsee ঝিকিমিকির আড়ালে তো আসল জিনিসই চাপা পড়ে গেছে!

ওই পোস্টারটা অবশ্য আমিও হাতে পেয়েছি কয়েকবার sad চট্টগ্রাম ক্লাবে এরা প্রায়ই ডায়মন্ড ডিসপ্লে ফেয়ার করে। সম্ভবত: DW-র মালিক একজন ভারতীয়। ২/৩ মাস পরপরই এরা বৃষ্টি উপলক্ষে ২০% ডিসকাউন্ট, বৃষ্টি না হওয়া উপলক্ষে ৩০% ডিসকাউন্ট, রোদ ওঠা উপলক্ষে ৩৫% স্পেশাল ডিসকাউন্ট এসব ভগিচগি স্লোগান দিয়ে প্রদর্শনী করে - এদের অরিজিনাল প্রাইসিং আসলেই কত কে জানে? একজন পরিচিত আন্টী ছিলেন - তাঁর বুটিকে ১০% দাম বাড়িয়ে দিয়ে তার ওপর ১৫% সেলস ডিসকাউন্ট দিতেন!  lol

Calm... like a bomb.

১৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (২০-০৩-২০১৩ ১৫:১৭)

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

invarbrass লিখেছেন:

তাঁর বুটিকে ১০% দাম বাড়িয়ে দিয়ে তার ওপর ১৫% সেলস ডিসকাউন্ট দিতেন

ডিসকাউন্ট কত প্রকার হয় তা জানতে অটবির দোকানে গেলেই হয়। অটবির সেলসম্যানদের প্রডাক্টের আজকের দিনের দাম কত তা বের করতে হিমশিম খেতে হয়।

১৭

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

সেইরকম জিনিশ জানলাম big_smile

এই ব্যাক্তির সকল লেখা কাল্পনিক , জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিল পাওয়া গেলে তা সম্পুর্ন কাকতালীয়, যদি লেখা জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিলে যায় তার দায় এই আইডির মালিক কোনক্রমেই বহন করবেন না। এই ব্যক্তির সকল লেখা পাগলের প্রলাপের ন্যায় এই লেখা কোন প্রকার মতপ্রকাশ অথবা রেফারেন্স হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না।

১৮

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

ভাল লাগল পোষ্টটি

স্বর্ণ ডায়মন্ড এসব আমি কিছুই কিনিতে চাহি না

ঢাকা শহরে যদিই মন খুলে পড়তেই না পারলাম তাইলে কিন্যা কি লাভ

তাই এসব কিনতে আমি অনাগ্রহী

আল্লাহ দুই পোলার ভবিষ্যত জানি কি হয় । বউ দুইডা যেন আমার মত হয়  wink

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
<script type="text/javascript" src="http://www.golpokobita.com/embeds/baaaE6.js?layout=hori&h=360&w=567"></script>

১৯

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

অনেক কিছু জানতে পারলাম , শেয়ার করার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।
আশাকরি এমন তথ্যসমৃদ্ধ টপিক আমরা আরো পাবো তাই
লিখতেই থাকুন আর লিখতেই থাকুন অবিরত  mail

মানুষ মাত্রই মরন শীল , কিন্ত নশ্বর নয় ।।

২০

Re: ডায়মন্ডস আর *নট* ফরেভার!

ডায়মণ্ড কোনোকালেই ভালোলাগেনি। এতকিছু না জেনেই আমার কাছে মনে হয়েছে: বাজে খরচ - নিতান্ত লোক দেখানো ছাড়া আর কিছু নয়!! সত্যিকারের ভালোবাসা প্রকাশ করতে চাইলে এই অনুষঙ্গটি নিতান্তই অপ্রয়োজনীয়। তবে, সেইরকম ব্রেইনওয়্যশ করেছে surprised একেই বলে ব্যবসা! ইনব্রা ভাইকে ধন্যবাদ এই 'মামু' বানানোর ব্যাপারটি সবার সামনে নিয়ে আসার জন্য। 'ডায়মণ্ডস্‌ আর বুলশিট' পুরোটা সময় নিয়ে পড়ে দেখতে হবে।

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।