টপিকঃ রফিককে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড

দীর্ঘ ক্যারিয়ারে নানা কারণে বহুবার বিতর্কিত মোহাম্মদ রফিককে বেফাঁস মন্তব্যের জের টানতে হচ্ছে অবসর নেওয়ার পরও। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্ট খেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানানো এই বাঁ হাতি স্পিনারকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিস্তারিত জানাচ্ছেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এর ক্রীড়া প্রতিবেদক মাসুদ পারভেজ।

চট্টগ্রাম টেস্ট শুরুর আগের দিন (২৮ ফেব্র"য়ারি) সংবাদ সম্মেলনে রফিক বলেছিলেন, বর্তমান বোর্ডের কিছু কিছু কর্মকর্তার কারণেই বাধ্য হয়ে অবসরে যেতে হচ্ছে তাকে। ৮ মার্চের মধ্যে রফিকের কাছ থেকে আচরণবিধি পরিপন্থী এ ধরনের মন্তব্যের ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে বলে বৃহস্পতিবার দুপুরে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-কে নিশ্চিত করেছেন ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান গাজী আশরাফ লিপু।

আর কখনো জাতীয় দলে খেলবেন না। তবুও প্রথম বাংলাদেশী বোলার হিসেবে টেস্টে এক শ' উইকেটের মাইলফলক ছোঁয়া এই বোলারকে জবাবদিহি করার কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে লিপু বললেন, "রফিক অবসর নিয়েছে ঠিকই। কিন্তু ওর সঙ্গে আমরা সর্বশেষ যে ছয় মাসের চুক্তি করেছি তার মেয়াদ এখনো ফুরোয়নি। আরো দুই/আড়াই মাস বাকি আছে। কাজেই রফিক আচরণবিধির বাইরে এখনো নয়।"

লিপু আরো জানিয়েছেন, "আমরা যে চিঠিটা রফিককে পাঠিয়েছি, তার সঙ্গে কিছু পেপার কাটিংও সংযুক্ত করে দিয়েছি। যেখানে ওর বিতর্কিত উদ্ধৃতিগুলো আছে। আচরণবিধি ভঙ্গের বিষয়টাও আমরা তাকে অবহিত করেছি। ৮ মার্চের মধ্যে রফিককে তার ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।"

ঘটনার সপ্তাহখানেক পর কেন ব্যাখ্যা চাওয়া হলো? এই প্রশ্নেরও জবাব মিলেছে লিপুর কাছ থেকে, "জীবনের শেষ টেস্ট খেলতে নামছে। আমরা ওই সময়েই রফিকের মনোযোগে ব্যাঘাত ঘটাতে চাইনি। চেয়েছি ভালোভাবে খেলাটা শেষ করুক। তবে ওর মন্তব্যগুলো অবশ্যই ক্রিকেটের স্পিরিট বিরোধী।"

২৮ ফেব্র"য়ারি সংবাদ সম্মেলনে রফিক বলেছিলেন, তার সরে যাওয়ার পেছনে কোনো একটা 'কিন্তু' আছে। এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকরা বিস্তারিত জানতে চাইলে দু'ধরনের ক্রিকেটেই একশ' উইকেট এবং এক হাজার রানের 'ডাবল' অর্জন করা একমাত্র বাংলাদেশী ক্রিকেটার তার সমস্ত ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছিলেন এভাবে, " কারণ বলতে গেলে অনেক কিছুই বলতে হয়। ২০০০ সালে প্রথম টেস্ট খেলি। এরপর থেকে আমি তিনবছর নন স্টপ দলের বাইরে ছিলাম। যাদের কারণে আমি তখন দলে জায়গা পাইনি, তারাই এখন আবার ক্রিকেট বোর্ডে ঢুকেছে। ওরা আসার পরেই কিন্তু আমি নিউজিল্যান্ড ট্যুরে বাদ পড়েছি। এসব বিষয় আমার মাথায় ঢুকে গেছে। এ কারণেই আমি সরে যাচ্ছি। আমি চাই না কারো দয়ামায়ায় ক্রিকেট খেলতে।"

সূত্রঃ বিডিনিউজ২৪

Re: রফিককে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড

দূঃখের বিষয় যে, পুরানো খেলোয়ার হয়েও আচরণ বিধির বিরূদ্ধে কথা বলেছিলেন রফিক। এখন দেখা যাক তার কি শাস্তি হয়।