টপিকঃ অভিমান

অভিমান

ঘড়িতে এগারোটা বেজে পঁচিশ মিনিট।

লীনার উদ্বেগ বাড়তেই থাকে। ছেলেমানুষি উদ্বেগ। কিন্তু অস্বীকারের উপায়ও নেই! আরমান বিছানায় গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন। আজকে যেন একটু বেশিই আগে ঘুমাতে গেছে। ও নিশ্চয়ই ভুলে গেছে। চোখ ফেটে কান্না আসে লীনার।

চার রুমের ছিমছাম গোছানো ফ্লাটটিতে বড্ড নিঃসঙ্গ বোধ করতে থাকে লীনা। বাইরের বিনিদ্র ট্রাফিকের একটানা চাপা শব্দ ছাড়া আর কোনো সাড়া নেই। পায়ে পায়ে বারান্দায় এসে পৌঁছায়। চমৎকার জ্যোৎস্না ফুটেছে আজ। অন্ধকার বারান্দায় চাঁদের রুপালি আলো গলে গলে পড়ছে। মায়াময় সেই আলোতে কেন জানি আরো বিষন্ন হয়ে যায় লীনা।

বেতের চেয়ারে এলিয়ে পড়ে লীনা। বড় ক্লান্ত বোধ করে। এই ক্লান্তিটা দেহের নাকি মনের – ঠিক ঠাহর হয় না। সারাদিন অফিস করে ক্লান্ত হয়ে পড়াই স্বাভাবিক। কিন্তু সে তো রোজই করে এবং এক ধরণের অভ্যাসও হয়ে গেছে। তবে কি মনে ক্লান্তি?

লীনার বুকে অভিমানের ঝড় উঠতে থাকে। গলায় কী একটা দলার মত আটকে থাকে। গতবার আরমান কিন্তু প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো কোনোভাবেই ভুলে যাবে না। আর এমন একটা দিন মানুষ ভোলে কীভাবে? পাঁচটা বছর কি যথেষ্ট নয় একটা বিশেষ দিন মনে রাখবার জন্য?

লীনার এখনো ভালো মনে আছে সেই দিনটির কথা। বাবা কোত্থেকে একটা সরল চেহারার ছেলের সন্ধান এনে হাজির করলেন। লীনার মতই ভালো চাকুরে। লীনার ক্ষনস্থায়ি সব প্রেমই তখন অতীত। না না করেও এবং প্রথমে দেখে গোপনে নাক কুঁচকালেও কেন জানি রাজী হয়ে যায়! চেহারা খানিকটা বোকাটে হলেও চোখগুলো অদ্ভুতভাবে উজ্জ্বল! আর কেমন মায়া মায়া...যেন ডেকে বলছেঃ ‘আমার কেউ নেই, একটু জায়গা দেবে?’

তো জায়গার বন্দোবস্ত খুব শীঘ্রই হয়ে গেলো। তারিখটা ফেব্রুয়ারির একটা বিশেষ দিনে! বন্ধুবান্ধবেরা পঁচিয়ে মারল। তাদের দৃঢ় ধারণা – আগে থেকেই এই পরিচয় – ডুবে ডুবে গভীর দরিয়ার জল পান করেছে ওরা। ওদের দোষ দিয়ে লাভ নেই। লীনার ব্যাপারটাই যে ওরকম – বড্ড চাপা স্বভাবের।

বিয়ের রাতেই বুঝলো বোকাটে চেহারার ছেলেটি বোকা তো নয়ই, বরং পাজীর চূড়ান্ত! সেদিনও এমন চাঁদনি ছিলো। ছাদের আলাদা করে বানানো দু’টো ঘরে ওদের থাকতে দেয়া হয়েছিলো। তারপর এমন কিছু ঘটেছিলো... সেই মধু মেশানো পাগলামির ক্ষণগুলো স্মরণ করে লীনার এই এখনকার কান্নাভেজা গালও লাল হয়ে উঠলো! অজান্তে বলে উঠলোঃ ‘পাজী কোথাকার!’

আরমানকে ঠিক বুঝে উঠে না লীনা। মাঝে মাঝে মনে হয় এর থেকে অসাধারণ আর কাউকে সে খুঁজে পেত না। আবার কখনো মনে হয় সে কি ভুল করেছে? সব থেকে বিরক্তিকর হলো আরমানের ভুলোমন। তারিখ আর উপলক্ষ্য সে কিছুতেই মনে রাখতে পারে না। প্রথম প্রথম এসব সহ্য হলেও কয়েকটা বছর পর এসব অসহ্য লাগতে থাকে! সব কিছুই তো পরিবর্তন হয়। তবে, এটা কেন বদলাবে না? বিয়ের তারিখ ভুলে যাওয়াটা কি অন্যায় নয়?

তবে কি অন্য কারণ আছে? হয়তো ওর জীবনে অন্য কেউ ছিলো – বিশেষ কেউ যার কথা সে বেমালুম চেপে গেছে। বাস্তবে এমন অনেক কিছুই করতে হয়, যেটা একেবারেই বুকের গভীরের আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন করে না! সেরকম কিছু কি তবে? এই জন্যই এত উদাসীনতা? বুকটা আরো বাষ্পোরুদ্ধ হয়ে যায়।

গেল বার এ নিয়ে বিরাট হাঙ্গামা করেছে লীনা। তুমুল ঝগড়া করে আশেপাশের ক’টা শো-পিস ভেঙ্গে বাসা মাথায় তুলেছে। আরমানের প্রায় নতুন ফতুয়াটা এখনও সেই ঝঞ্ঝার সাক্ষ্য বয়ে চলেছে। তবে জয় বরাবরের মত লীনারই হয়েছিলো। আরমান প্রতিবারই নিঃশর্ত আত্মসমর্পন করেছে। না করে উপায় আছে? নাকে খঁত দিয়ে বলতে হয়েছিলো আগামিবার মনে রাখবেই রাখবে। সেই মুহুর্তে সেই মায়া মায়া চাহনি দেখে পিত্তি জ্বলে গেছিলো লীনার! তবে, ভালোও কি লাগে নি? লোকটা কি জাদু জানে নাকি?

তবে, এই ক্ষণে লীনার চোয়ালের পেশি শক্ত হয়ে আসে - মিথ্যুক কোথাকার! কেমন মরার মত ঘুমাচ্ছে! এবারেও সব ভুলে খেয়ে আছে... উফফ, এ সহ্য করার নয়...

মনে রাখতে চাইলেই মনে রাখা যায়। একটা মোবাইল কোম্পানির এড আছে না... ভুলোমন সঙ্গীটিকে জানিয়ে দেবে বিশেষ বিশেষ দিনের কথা। সেরকম যদি করত! কিংবা ডায়রির পাতায়, ক্যালেণ্ডারে? হ্যাঁ, অনেক উপায় আছে...শুধু ওরই কোনো মাথাব্যথা নাই!

সুন্দর করে সেজেছিলো লীনা। বেশি কিছু করতে হয় নি। সে এমনিতেই সুন্দর। একটা ময়ূরকন্ঠী নীল শাড়ি যে অনন্য যৌবনবতী কবিতা আওড়ে যাচ্ছে, অসামান্য তার আবেদন! আফসোস, যার জন্য এ আয়োজন তাঁরই কোনো বিকার নেই! চোখের কাজল ভারী অশ্রুধারায় গড়াতে থাকে...এই অভিমানের মূল্য কে দেয়?

লীনা উঠে পড়ে। আর কতক্ষণ বসে থাকবে? অনেক রাত হয়েছে নিশ্চয়ই। হ্যাপি নিঃসঙ্গ ভ্যালেন্টাইন এণ্ড আ মিজরেবল এনিভারস্যরি! টলতে টলতে এগুতে থাকে।

হঠাত একটা প্রবল আকর্ষন অনুভব করে লীনা। একজোড়া সবল হাত লীনার সরু কোমরে জগদ্দলের মত চেপে যায়। লীনার পাখি দেহটা একটা ভালুকের ডেরায় অস্বীকারি এক আনন্দে মোচড়াতে থাকে। মায়া চোখের ভালুকটা লীনারই কেনা একটা পাঞ্জাবি গায়ে চাপিয়ে আছে। তাঁর সাহস দ্রুত বাড়ছে! সে লীনার অভিমানী চোখের জলটুকু শুষে নেয় হাজার রাতের পিয়াসী চাতকের মত। আর তারপর? অশ্রুধারা যে ভরাট ঠোঁটের সঙ্গমে মিশছিলো, বাড়ন্ত সাহসটুকু সেখানে গিয়ে তার নির্লজ্জতা সগৌরবে ঘোষণা করতে থাকে। পাখিটির কোনো আপত্তি ধোপে টেকে না! অবশ্য সে আপত্তির শক্তিটুকুও হারিয়ে ফেলেছিলো।

ঘুমাও নি তাহলে? মনে রেখেছো? শয়তান কোথাকার!

অ, তাহলে ঘুমাই গিয়ে আবার? কী ভাবো বলতো? লুকিয়ে লুকিয়ে বাচ্চা মেয়েদের মত কাঁদছিলে? পাগলী কোথাকার! ভালোবাসি কি বলতে হবে? বোঝো না? হ্যাপি এনিভারস্যরি! আর ইয়ে...ঐ যে কী যেন বলে...ধুত তেরি... ভালোবাসাবাসি দিবস... এসো ভালোবাসি... এখন আমার পাওনাটা মিটিয়ে দাও তো!

কীসের পাওনা? বলেই এক ছিটকে বেরিয়ে যায় লীনা – ছুটতে থাকে। পেছনে ভালুকটা ক্ষেপে ওঠে। সারা ফ্লাটে সে দাপিয়ে বেড়ায়...লীনার চাপা হাসি তাকে আরো মরিয়া করে তোলে... অসাধারণ একটা দৃশ্য!

নিচের বাড়িওয়ালা দম্পতি প্রবল শব্দে ঘুম ভেঙ্গে রাগতে গিয়েও হেসে ফেলে!

===================================================================
উদাসীন
১৫।০২।২০১৩

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন অরুণ (১৬-০২-২০১৩ ০০:০৩)

Re: অভিমান

বেশ দুষ্টু-মিষ্টি গল্প লিখেছেন তো উদাসীন....  smile

বুঝেছি এই ৩৮ কেজির পাখি থাকলে হবে না, জিমে যেতে হবে..... ভল্লুক হব আর দাপিয়ে বেড়াবো....... কিন্তু প্রশ্ন হল বেঁটে বুড়ো ভল্লুক কি দাপিয়ে বেড়াতে পারবে? হাড্ডি-গুড্ডির অত জোর থাকে না.....  lol

৩১ জানুয়ারি দাদার সপ্তম বিবাহ বার্ষিকী ছিল, তো দাদা বেজায় ভুলে গিয়েছিল আরমানের মত, তো আমার মা ভোলেনি, বাবিনকে উপহার দিয়েছিল, আর দাদাকে শাসিয়ে ছিল........ ফলে যথারীতি পরের দিন দাদা বাবিনকে নিয়ে একটু ঘুরতে গিয়েছিল আরকি, কিন্তু রাতে ভল্লুক হয়েছিল কিনা জানা হয়নি, কাল জানতে হবে৷

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

Re: অভিমান

নিজে বিয়া কইরা নিজে ভাল্লুক সেজে পরখ কর আবার দাদা কেন জিগ্গেস করবি  tongue

উদাসীন ভালো ই রোমান্টিক হইস দেখি  lol

"You hate everything you see in me-Have you looked in a mirror'

http://www.priyobd.net/  Live chat with us !!

Re: অভিমান

Neela লিখেছেন:

নিজে বিয়া কইরা নিজে ভাল্লুক সেজে পরখ কর আবার দাদা কেন জিগ্গেস করবি  tongue

পরীক্ষা দেবার আগে একটু সাজেসান বই পড়বো না? কিম্বা একটু দেওয়ালে গণিতের ফরমুলা লিখে রাখবো না পেনসিল দিয়ে? এটা কেমন কথা হল?

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

Re: অভিমান

দারুন  thumbs_up  thumbs_up

Re: অভিমান

ধন্যবাদ সবাইকে!
অরুণ'দা, বাবিনকে এই গল্পটা উৎসর্গ করলাম big_smile দাদা বাবিনের কী করেছিলো?

Neela লিখেছেন:

নিজে বিয়া কইরা নিজে ভাল্লুক সেজে পরখ কর আবার দাদা কেন জিগ্গেস করবি  tongue
উদাসীন ভালো ই রোমান্টিক হইস দেখি  lol

হে হে নীলা তো ঠিকই বলেছে, দাদা! নিজেই ভালুক হোন গিয়ে hehe আর নীলা, আমাকে নিয়ে বাসর রাত সাজালে...তারপর থেকেই আমি রোমান্টিকো হয়ে গেছি গো blushing

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: অভিমান

উদাসীন লিখেছেন:

হে হে নীলা তো ঠিকই বলেছে, দাদা! নিজেই ভালুক হোন গিয়ে hehe

সে ইচ্ছার কথা অলরেডি পাবলিশড্ করেছি  tongue

Arun লিখেছেন:

বুঝেছি এই ৩৮ কেজির পাখি থাকলে হবে না, জিমে যেতে হবে..... ভল্লুক হব আর দাপিয়ে বেড়াবো....... কিন্তু প্রশ্ন হল বেঁটে বুড়ো ভল্লুক কি দাপিয়ে বেড়াতে পারবে? হাড্ডি-গুড্ডির অত জোর থাকে না.....  lol


উদাসীন লিখেছেন:

আর নীলা, আমাকে নিয়ে বাসর রাত সাজালে...তারপর থেকেই আমি রোমান্টিকো হয়ে গেছি গো blushing

লীনা... থুক্কু নীলা, তুই বোল্ড হয়ে গেছিস, এখন ড্রেসিং রুমে গিয়ে বসে থাক..........

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

Re: অভিমান

দারুন লাগলো....এবার বাঘ ভাল্লুক কিছুই হতে পারলাম না গো....শাহাবাগ সব খেয়েনিয়েছিল....

এক জীবনই সম্পূর্ন নয়।..

My e-mail address

Re: অভিমান

উদাসীন লিখেছেন:

ধন্যবাদ সবাইকে!
অরুণ'দা, বাবিনকে এই গল্পটা উৎসর্গ করলাম big_smile দাদা বাবিনের কী করেছিলো?

Neela লিখেছেন:

নিজে বিয়া কইরা নিজে ভাল্লুক সেজে পরখ কর আবার দাদা কেন জিগ্গেস করবি  tongue
উদাসীন ভালো ই রোমান্টিক হইস দেখি  lol

হে হে নীলা তো ঠিকই বলেছে, দাদা! নিজেই ভালুক হোন গিয়ে hehe আর নীলা, আমাকে নিয়ে বাসর রাত সাজালে...তারপর থেকেই আমি রোমান্টিকো হয়ে গেছি গো blushing


আহা সেজন্যে বুঝি আমার নীলা নামটি লীনা করে দিলে  tongue tongue

অরুন আয়নার সামনে টাইম পাস করার টাইম আছে নাকি বেটা .উদু মদু এর সাথে ডেটিং করছি গল্পে দেখিস না? tongue tongue

"You hate everything you see in me-Have you looked in a mirror'

http://www.priyobd.net/  Live chat with us !!

১০

Re: অভিমান

উদাসীন ভাইজান, ভেবেছিলুম আরকটা দুষ্টু মিষ্টি প্রেমের গল্প লিখে তো মাৎ করে দিলেন... পরে দেখি গল্পের চাইতে কমেন্ট সরেস...   tongue আহাহা, আমারও পাওনা মিটানোর একজন জোগার করা লাগব...  wink

গর্ব এবং আশায় ভরা বুক! কাঁধে কাঁধ, হাতে হাত, সমুন্নত শির!
আমি তুমি সবাই মিলে এক, একই লাল সবুজের কোলে সবার নীড়।

১১

Re: অভিমান

যাপিত সময় লিখেছেন:

উদাসীন ভাইজান, ভেবেছিলুম আরকটা দুষ্টু মিষ্টি প্রেমের গল্প লিখে তো মাৎ করে দিলেন... পরে দেখি গল্পের চাইতে কমেন্ট সরেস...   tongue আহাহা, আমারও পাওনা মিটানোর একজন জোগার করা লাগব...  wink

হে হে হে ধন্যবাদ। অরুণ, নীলা আর ইয়ে..আমি থাকলে মন্তব্য এইরকমই হবে  blushing hehe

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১২

Re: অভিমান

এহেম এহেম... গল্পটা পোস্ট করার পর ই পড়েছিলাম কিন্তু কমেন্ট করা হয় নি, যাইহোক চমৎকার রোমান্টিক কাহিনী।
উদা'দার কল্পনার জগত খানি বড়ই মধুর... দোয়া করি দ্রুত হাতি থুক্কু ডায়নোসর থুক্কু হনুমান অফফো কি জানি!!!! ... ভাল্লুক ভাল্লুক ...... হুম দ্রুত কারো জীবনে ভাল্লুক হয়ে প্রবেশ করুন। http://www.cartooncottage.com/images/bearwink.gif

ঘরের কোনে মনের বনে, তোমার সাথে জোছনা স্নান...
তোমার দুহাত থাকলে হাতে; স্বপ্নে জাগে মধুর প্রাণ।
ছড়া সব করে রব

নাদিয়া জামান'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৩

Re: অভিমান

নাদিয়া জামান লিখেছেন:

এহেম এহেম... গল্পটা পোস্ট করার পর ই পড়েছিলাম কিন্তু কমেন্ট করা হয় নি, যাইহোক চমৎকার রোমান্টিক কাহিনী।
উদা'দার কল্পনার জগত খানি বড়ই মধুর... দোয়া করি দ্রুত হাতি থুক্কু ডায়নোসর থুক্কু হনুমান অফফো কি জানি!!!! ... ভাল্লুক ভাল্লুক ...... হুম দ্রুত কারো জীবনে ভাল্লুক হয়ে প্রবেশ করুন। http://www.cartooncottage.com/images/bearwink.gif

ধন্যবাদ নাদিয়া জামান hug নিজের সাথে মিল পেলেন নাকি? hehe
ওহ, বলতে ভুলে গেছিলাম...আপনার সাথে কথাবার্তাও বেশ ভালো লাগে...আপনাকে জ্বালাতেও ভালো লাগে tongue

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৪

Re: অভিমান

ওরে আল্লা! এ কি পড়লাম রে বাবা notlistening
tongue_smile
clap

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৫ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন নাদিয়া জামান (১৮-০২-২০১৩ ০৭:১১)

Re: অভিমান

শামীম লিখেছেন:

ওরে আল্লা! এ কি পড়লাম রে বাবা notlistening
tongue_smile
clap

শামীম ভাইয়ের কি ভাল্লুক হতে মন চায় নাকি... তবে ভাল্লুক সেজে ভাবীকে খুশি করার চেয়ে টেডি বিয়ার সেজে বেবীকে খুশি করাই এখন প্রাধান্য পাবে।

উদাসীন লিখেছেন:

নিজের সাথে মিল পেলেন নাকি? hehe

আপনার মতন কল্পনায় নয় আমরা বাস্তবে বাস করি donttell

উদাসীন লিখেছেন:

আপনাকে জ্বালাতেও ভালো লাগে tongue

খাল কেটে কুমির ডেকে আনবেন কি না তা আপনার বিবেচনা whats_the_matter
বাঘের লেজ দিয়ে কান চুলকাবেন কি না তা আপনার ইচ্ছে whats_the_matter
সাপের লেজে পা দেবেন নি না ভেবে সিধান্ত নিন whats_the_matter
আশা করি এইসব ভুলেন নি hehe

ঘরের কোনে মনের বনে, তোমার সাথে জোছনা স্নান...
তোমার দুহাত থাকলে হাতে; স্বপ্নে জাগে মধুর প্রাণ।
ছড়া সব করে রব

নাদিয়া জামান'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ইলিয়াস (১৮-০২-২০১৩ ০৮:৫৮)

Re: অভিমান

খুব সুন্দর হয়েছে গল্পটি।  thumbs_up

১৭

Re: অভিমান

জট্টিল হইসে উদাসীন ভাই.... আপনিই গল্পদাদু...! big_smile thumbs_up

১৮

Re: অভিমান

চমৎকার হইছে............. ভালবাসা এমনই হওয়া চাই............. smile smile

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

১৯

Re: অভিমান

নাদিয়া জামান লিখেছেন:

আশা করি এইসব ভুলেন নি hehe

প্রথমটাতে তো উদাসীন কুমিরের পেটেই গেছে বলতে হবে.......
কিন্তু দ্বিতীয়টাতে বীথি থুক্কু বাঘের ল্যাজ কেটে নিয়ে সেই ল্যাজ দিয়েই তো কান চুলকেছিল বলে মনে হয়  hehe  hehe  kidding

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

২০

Re: অভিমান

শামীম লিখেছেন:

ওরে আল্লা! এ কি পড়লাম রে বাবা notlistening
tongue_smile
clap

হে হে ভুলোমনা হয়ে থাকলে ট্রাই ইট এট হোম উয়িথ ইয়্যর ঔন রিস্ক!  hehe

নাদিয়া জামান লিখেছেন:
উদাসীন লিখেছেন:

নিজের সাথে মিল পেলেন নাকি? hehe

আপনার মতন কল্পনায় নয় আমরা বাস্তবে বাস করি donttell

উদাসীন লিখেছেন:

আপনাকে জ্বালাতেও ভালো লাগে tongue

খাল কেটে কুমির ডেকে আনবেন কি না তা আপনার বিবেচনা whats_the_matter
বাঘের লেজ দিয়ে কান চুলকাবেন কি না তা আপনার ইচ্ছে whats_the_matter
সাপের লেজে পা দেবেন নি না ভেবে সিধান্ত নিন whats_the_matter
আশা করি এইসব ভুলেন নি hehe

কী জমানা এলো, এক রত্তি মেয়ে আমায় ভয় দেখায় surprised (গোপনে ঠিকই ভয় পেয়েছি  dontsee )

Arun লিখেছেন:
নাদিয়া জামান লিখেছেন:

আশা করি এইসব ভুলেন নি hehe

প্রথমটাতে তো উদাসীন কুমিরের পেটেই গেছে বলতে হবে.......
কিন্তু দ্বিতীয়টাতে বীথি থুক্কু বাঘের ল্যাজ কেটে নিয়ে সেই ল্যাজ দিয়েই তো কান চুলকেছিল বলে মনে হয়  hehe  hehe  kidding

ঠিক ঠিক... kidding hehe

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত