৮১

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

অভি আহমেদ লিখেছেন:

নাস্তিকগুরু ইনভারব্রাশ এবং তার চ্যলাব্যলা দের জন্য একখানা ফ্রী এ্যডভাইস:
যদি ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে জানতে চান তবে দয়াকরে তা এন্টি ইসলামিক সাইট থেকে নয়, বরং সত্যিকারের ইসলামিক সাইট বা সহিও হাদিস, কুরআন থেকে জানুন।

lol2  লন্ডন। এক ক্যাবে বসলো এক মুছলিম। ঢুকেই রুক্ষস্বরে রেডিও বন্ধ করতে বললো।
- রেডিও বন্ধ করতে হবে কেন? - জানতে চাইলো-ক্যাব ড্রাইভার।
- আমার ধর্মে গান শোনা নিষেধ। আর পশ্চিমা গান মানেই কাফেরদের গান। তবে সবচে' বড়ো কথা, আমাদের নবীজির যুগে গান-বাজনা বলে কিছু ছিলো না।
ক্যাব-ড্রাইভার অনুগতের মতো রেডিও বন্ধ করলো, ক্যাবটি দাঁড় করালো, তারপর দরজা খুলে ধরলো।
- আপনি করছেনটা কী!
- নবীজির যুগে ট্যাক্সিও ছিলো না। অতএব এখন ক্যাব থেকে বের হয়ে উটের জন্যে অপেক্ষা করতে থাকুন।
আপনি নিজেই বিশেষ গুরুর চ্যালাব্যালা বলেই বোধহয় অন্যকাউকেও তাই মনে হয়। তা আপনার পিসি‌টা কি ইসলামিক ? নাস্তিক স্টিভ জবসের বানানো পন্য চালানোর সময় এই বড় বড় কথাগুলা থাকে কোথায় ? আপনার খেলা গেমগুলা কি ইসলামিক ? আর ইসলামিক সাইটই বা কি ? কোথায় পাওয়া যাচ্ছে ইসলামিক হালাল ডোমেইন-হোস্টিং বা সার্ভার ? lol2 ইসলাম নিজেইতো অন্য সোর্স থেকে মারা তার আবার নিজের সোর্স কি ?

@ সাইদুল আপনাকে ধন্যবাদ। অন্যদের মত গালি না দিয়ে সঠিকভাবে নিজ ধর্মকে ডিফেন্ড করছেন।  thumbs_up  তবে একটা প্রশ্ন আপনার দেয়া আয়াতগুলা কেবল পুরুষদের জন্য। মেয়েদের জন্য কি ব্যবস্থা ?

hit like thunder and disappear like smoke

৮২

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

এইতো ইনভারব্রাস ভাই নাকি নাস্তিক। তাহলে  কোরবানির  ঈদের  পশু কোরবানি কেন দিল সেটা ঝাতি ঝানতে চায় এবং সেটাও জানতে হবে। (তবে তাকে  কিছু বোকা আস্তিক যেভাবে আক্রমন করেছে তারপর তিনি এই পোস্টে ঢুকবেন কিনা সেটাও জানতে হবে  thinking )

সাইদুল ইসলাম লিখেছেন:

কোরান ৫২: ১৭-২০: মুমিনগণ থাকবে সুখময় জান্নাতে, যেখানে আনন্দ-উল্লাস করে বেড়াবে আল্লাহ দানে... তাদের বলা হবেঃ তোমাদের কৃতকর্মের জন্য খাও-দাও, ফূর্তি করো, এবং তারা সারি-বাধা সিংহাসনে হেলান দিয়ে বসবে এবং আমরা (আল্লাহ) তাদেরকে যৌন-উন্মাদক চোখওয়ালা পরম সুন্দরী হুরদের তাদের সঙ্গী বানাব।

কোরআনে সূরা আত তুর এ বলা আছে বড় আয়ত চোখ ওয়ালা।
এখন তাদের দেখে আপনার যৌন উম্মাদনা হবে নাকি হবেনা সেটা তো কোরানের দোষ না।

স্বীকৃত অনুবাদ লিখেছেন:

Sahih International
They will be reclining on thrones lined up, and We will marry them to fair women with large, [beautiful] eyes.
Muhsin Khan
They will recline (with ease) on thrones arranged in ranks. And We shall marry them to Houris (female, fair ones) with wide lovely eyes.
Pickthall
Reclining on ranged couches. And we wed them unto fair ones with wide, lovely eyes.
Yusuf Ali
They will recline (with ease) on Thrones (of dignity) arranged in ranks; and We shall join them to Companions, with beautiful big and lustrous eyes.

Shakir
Reclining on thrones set in lines, and We will unite them to large-eyed beautiful ones.
Dr. Ghali
Reclining upon ranged settees. And We will marry them to wide-eyed huras.
Bangla
তারা শ্রেণীবদ্ধ সিংহাসনে হেলান দিয়ে বসবে। আমি তাদেরকে আয়তলোচনা হুরদের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ করে দেব।

শুধু মাত্র বোল্ড করা ইউসুফ আলী (ইন্ডিয়ান অনুবাদক) এর অনুবাদে "লাস্টারাস" শব্দটি পাওয়া যায়। এখানে চাকচিক্যময় বা চকচকে বুঝানো হয়েছে। বিকৃত অনুবাদক এই শব্দকে ইংরেজি Lust এর এজেকটিভ মনে করে যৌন উন্মাদক বানিয়ে দিয়েছ। অল্প বিদ্যা ভয়ংকরি  waiting


সাইদুল ইসলাম লিখেছেন:

কোরান ৭৮:৩১-৩৬: মুত্তাকীদের জন্য আছে সাফল্য; বাগান ও আঙ্গুর রস এবং সমবয়স্ক সুন্দরী উন্নতবক্ষা (তীরের ন্যায় খাড়া-খাড়া স্তনযুগল) কুমারী যুবতীগণ এবং তাদের হাতে থাকবে শরাব ভর্তি পেয়ালা, যা আল্লাহর কাছ থেকে তাদের প্রাপ্য পুরস্কার।

স্বীকৃত অনুবাদ লিখেছেন:

Sahih International
And full-breasted [companions] of equal age
Muhsin Khan
And young full-breasted (mature) maidens of equal age;
Pickthall
And voluptuous women of equal age;
Yusuf Ali
And voluptuous women of equal age;
Shakir
And voluptuous women of equal age;
Bangla
সমবয়স্কা, পূর্ণযৌবনা তরুণী।

এখানে সুরা নাবা তে ফুল ব্রেস্টেড অর্থাৎ পুর্ন বক্ষযুক্ত এবং যাদের দেখতে বুকের মধ্যে দুম করে উঠে এমন নারির কথা বলা হয়েছে। এখানে পুর্ন বক্ষ বলতে স্তন তাদেরই পুরা হয় যাদের বয়স ১৮+। এর আগে স্তন গঠিত হতে থাকে। আপনি নিশ্চই বেহেস্তে যেয়ে চাইলড ফেডোফাইল হতে চাবেননা।

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

৮৩

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

অভি আহমেদ লিখেছেন:

নোংরা মনের মানুষদের সবসময় নোংরা অর্থটাই মনে আসবে। এখানে করার কিছুই নাই।
কুরআনের সঠিক অর্থ বুঝতে হলে আপনাকে আরবী জানতে হবে। যেহেতু এটা আরবীতে নাজীল হয়েছিল। আর আরবী ভাষার ১০০% সটিক অনুবাদ করা সম্ভব নয়। তাই আপনার হেবি ওয়েট ভাষা দিয়ে কুরআনের ১০০% সঠিক মানে উদ্ধার করা সম্ভব নয়।

মাঝে মাঝে মনে প্রশ্ন জাগে একটা ইউনিভার্সাল ধর্মের জন্য সর্বশক্তিমান এমন দূর্বোধ্য ভাষা বেছে নিলেন কেন? অসভ্য আরবগণ কি এই কঠিন মারপ্যাচ বুঝতে পারেন? ওরা পারলে অন্যেরা পারে না কেন? কিংবা কথাটা রিফ্রেজিং করা যায়, আপনি বুঝতে পারলেন যে সঠিক অর্থ এইটা কিন্তু আরো কিছু লোক সেটা বুঝতে পারলো না কেন? worried

একটা কথা মাঝে মাঝেই মনে হয়, যায় চোখে ষেই চশমা সে সেই রঙেই সাদা জিনিষ দেখে। ভক্তির চশমায় ভক্তির বস্তু দেখবে, আকাশে মেঘের ড়্যান্ডম আকৃতিতেও কূদরতী নাম দেখে, লক্ষ মৃতের পরিনতী ভুলে গিয়ে কোন রকমে বেঁচে যাওয়া মাত্র এক জনের মাঝে কুদরত খুঁজে পায়; আবার অভক্তির চশমা থাকলে দুষ্ট অর্থ পেয়ে যায় সহজেই। ... ... ... বড়ই জটিল নাকি বড়ই সহজ ... ... !  dream  isee

এই প্রসঙ্গে আরেকটা জটিল কিংবা সহজ উদাহরণ মনে পড়ে: সুমনের গাওয়া "প্রথমত আমি তোমাকে চাই .. ..... " গানটি নিয়ে প্রেমিকদের মুগ্ধতার অভাব ছিল না, প্রশংসা করার ভাষা খুঁজে পাচ্ছিলো না --- কিন্তু ঐ ব্যাটা সিগারেটকে নিয়ে গানটি বেঁধেছিলো!  hehe

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

৮৪

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

@m0N লিখেছেন:
অভি আহমেদ লিখেছেন:

নাস্তিকগুরু ইনভারব্রাশ এবং তার চ্যলাব্যলা দের জন্য একখানা ফ্রী এ্যডভাইস:
যদি ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে জানতে চান তবে দয়াকরে তা এন্টি ইসলামিক সাইট থেকে নয়, বরং সত্যিকারের ইসলামিক সাইট বা সহিও হাদিস, কুরআন থেকে জানুন।

lol2  লন্ডন। এক ক্যাবে বসলো এক মুছলিম। ঢুকেই রুক্ষস্বরে রেডিও বন্ধ করতে বললো।
- রেডিও বন্ধ করতে হবে কেন? - জানতে চাইলো-ক্যাব ড্রাইভার।
- আমার ধর্মে গান শোনা নিষেধ। আর পশ্চিমা গান মানেই কাফেরদের গান। তবে সবচে' বড়ো কথা, আমাদের নবীজির যুগে গান-বাজনা বলে কিছু ছিলো না।
ক্যাব-ড্রাইভার অনুগতের মতো রেডিও বন্ধ করলো, ক্যাবটি দাঁড় করালো, তারপর দরজা খুলে ধরলো।
- আপনি করছেনটা কী!
- নবীজির যুগে ট্যাক্সিও ছিলো না। অতএব এখন ক্যাব থেকে বের হয়ে উটের জন্যে অপেক্ষা করতে থাকুন।
আপনি নিজেই বিশেষ গুরুর চ্যালাব্যালা বলেই বোধহয় অন্যকাউকেও তাই মনে হয়। তা আপনার পিসি‌টা কি ইসলামিক ? নাস্তিক স্টিভ জবসের বানানো পন্য চালানোর সময় এই বড় বড় কথাগুলা থাকে কোথায় ? আপনার খেলা গেমগুলা কি ইসলামিক ? আর ইসলামিক সাইটই বা কি ? কোথায় পাওয়া যাচ্ছে ইসলামিক হালাল ডোমেইন-হোস্টিং বা সার্ভার ? lol2 ইসলাম নিজেইতো অন্য সোর্স থেকে মারা তার আবার নিজের সোর্স কি ?


ধর্মে গান শোনা নিষেধ না তবে বাজনা বাজানো গান শোনা হারাম কিনা এ নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। কোরআনে এসব ব্যাপারে টু শব্দটি নেই তবে কিছু হাদীস নিয়ে লাগে বিতর্ক।  confused

আর এত কট্ররভাবে সব কিছু দেখলে দুনিয়াতেই থাকা যাবে না।  আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির প্রায় সব কিছুই ইহুদী-নাসারাদের (আহলে কিতাব) আবিষ্কার। এখন তাদের আবিষ্কার বলে এগুলো সব হারাম হয়ে গেলো মুসলমানদের জন্য এমন কথা কোনো কিতাবে লেখা নাই। ভালোটা নিলে সেটা হালাল। খারাপটা সব সময়ই হারাম। সেটা ইহুদী-নাসারা বানাক আর মুসলিম বানাক।

৮৫ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (২২-১২-২০১২ ১৫:০৬)

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

vb_coder লিখেছেন:

অভির কি দোষ? এখানে সিনিয়র ফোরামিকরাও ফোরামের ৪ নাম্বার নিয়মটা ( ৪) বিশেষ কোন ব্যাক্তি, জাতি বা গোষ্ঠিকে আঘাত করে বা উষ্কানীমূলক কিছু লেখা যাবে না।) মানছেন না।

আসলেই কি তাই? এখানে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি চালু করছেন মূলত: কারা? যাঁরা বিভিন্ন তথ্য উপস্থাপন এবং আলোচনা করার চেষ্টা করছেন? নাকি বিপরীত মত, তথ্য হজম বা পাল্টা যুক্তি দিতে না পেরে হুমকিধমকি দিচ্ছেন তাঁরা? (ইতিমধ্যে একজন সম্পূর্ণ অপ্রাসংগিকভাবে মডারেটরদের টেনে এনে গালাগালিও করেছেন)

ঐ আর্টিকলটির লিংক করার সময় কিন্তু ওয়ার্নিং দিয়েই দিয়েছিলাম যে ওটা একটা এ্যান্টি-ইসলামিক পোলেমিক এবং লেখকের নিজস্ব বক্তব্য এড়িয়ে শুধু কোরান/হাদিস সংক্রান্ত রেফারেন্সগুলো যাচাই করে দেখতে। কাউকে বা কিছুকে হেয় বা খাটো করতে রেফারেন্স দেয়া হয়নি। কেউ যদি ওমনটি ধরে নেন তাহলে তা তাঁর ব্যক্তিগত কমপ্লেক্সের বহি:প্রকাশ।

দু:খজনকভাবে, সাইদুর, মুজতবা অল্প কয়েকজন ছাড়া আর তেমন কেউ ক্রস-চেক করে দেখার প্রয়োজনীয়তা বোধ করেন নি। সাইদূর ভিন্ন সোর্স থেকে রেফারেন্স দিয়ে লেখকের বিকৃতিগুলো তুলে ধরে পাল্টা এ্যাংগল থেকে যুক্তি দিয়েছেন, মুজতবাও আরেক সোর্স থেকে রেফারেন্স দিয়ে রিফিউট করছেন। এঁরা দু'জনেই যেসব সোর্স থেকে রেফারেন্স তুলে ধরছেন সেগুলো কি সরাসরি মিথ্যে, বানোয়াট বলে দাবী করতে পারবেন? এ দিকে না গিয়ে কেউকেউ চিলে কান নিয়ে গেছে স্টাইলে সরাসরি কাদা ছোঁড়াছুঁড়িতে লেগে পড়েছেন।

vb_coder লিখেছেন:

অভিকে মাইনাস দিয়েছেন। দেখে দেখে তাদেরকেও মাইনাস দিয়ে আসুন, যদি মুরদ থাকে।

নো অফেন্স, তবে মাইনাস সংক্রান্ত উসকানী নিতান্তই শিশু-সুলভ লাগলো। সবার ইন্টেলেকচুয়াল ম্যাচিউরিটি সমান ওয়েভলেংথের না হলে কার্যকর আলোচনা আগাতে পারে না।

অভি আহমেদ লিখেছেন:

নাস্তিকগুরু ইনভারব্রাশ এবং তার চ্যলাব্যলা দের জন্য একখানা ফ্রী এ্যডভাইস:
যদি ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে জানতে চান তবে দয়াকরে তা এন্টি ইসলামিক সাইট থেকে নয়, বরং সত্যিকারের ইসলামিক সাইট বা সহিও হাদিস, কুরআন থেকে জানুন।

আপনার মার্জিত ভাষার ফ্রী উপদেশটির জন্য অশেষ ধন্যবাদ।

তবে জানেন কি, কেউ কিন্তু নাস্তিক হয়ে জন্মায় না। বরং ছোটোবেলা থেকেই ধার্মিক হবার ট্রেনিং সবাইই পেয়েছেন। বিবর্তন সম্পর্কিত টপিকে মুজতবার ২/৩ বছর আগের পুরণো পোস্টগুলো দেখতে পারেন।

তবে চ্যালাব্যালা গ্রুপের লোকদের একটি বিশেষ রোগ থাকে - তারা বিভিন্ন উদ্ভট রকমের প্রশ্ন করতে পছন্দ করেন, জানার আগ্রহ প্রবল। এটা এমন কেন হলো? ওটা তেমন হলো না কেন? অমুক বলেছেন এমন, তিনি এ কথা কেন বলেছিলেন? বা আদৌ বলেছিলেন নাকি পরবর্তীতে কেউ তাঁর মুখে বসিয়ে দিয়েছে? অমুক বইয়ে এমনটি বলেছে - তা আদৌ লজিকালী সম্ভব কিনা? তমুক ব্যক্তি বহু বছর আগে অমুক কাজ করতে আদেশ অনুমতি দিয়েছেন - সে কাজটি বর্তমান সভ্যতাযুগের প্রেক্ষিতে এথিকাল, মোরাল কিনা?

এ ধরণের হাবিজাবি প্রশ্ন সবার মাথায় কিলবিল খায়। প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে অনেকেই উদঘাটন করেন বিপরীত মতবাদ, ভিন্ন ধারার তথ্য। দেখা যায় এতদিন এদেরকে যা শেখানো হয়েছিলো, যা স্বত:সিদ্ধ বলে এতদিন ধরে নিয়েছিলেন - তার সংগে নতুন তথ্যউপাত্তগুলো ঠিক মিলছে না। বরং দেখা যায় উল্টো ধারার ইনফরমেশনই আরো লজিকাল, সম্ভাব্য বা যুক্তিগ্রাহ্য বলে মনে হয় অনেকের।

আমরা নিশ্চয় ছেলেবেলার সুয়োরাণী-দুয়োরাণী-রাক্ষস-খোক্কস ইত্যাদিতে আর বিশ্বাস করি না? আমাদের মধ্যে কেউকেউ আরেক কদম আগে বাড়ে।

কেউ কেউ সারাজীবন walled garden-এ কাটিয়ে দিতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে, আবার কেউকেউ দেয়াল টপকে বাইরের brave new world-টা উঁকি মেরে দেখার চেষ্টা করে।

কে ঠিক আর কে বেঠিক তা বেসিকালী অবান্তর। religion or irreligion... both are means to an end  যার যেটাতে মন বসে তা অবলম্বন করার স্বাধীনতা সবারই আছে। তবে আমাদের সকলের মধ্যেই জানার ইচ্ছা আছে। ব্যক্তিগতভাবে যে মতধারাটি পছন্দ হয়েছিলো, তা সম্পর্কে বিপরীত ধারার ব্যক্তিরা কি চিন্তা করে তা জানার কৌতূহল সবারই আছে।

একজন যুক্তি দিলে আরেকজন নিজস্ব স্ট্যান্ডপয়েন্ট থেকে পাল্টা যুক্তি পেশ করার মধ্যে দোষের কিছু নেই। তবে ব্যক্তিগত আক্রমণ এড়িয়ে চলা শ্রেয়। কেউ যদি বিপরীতমত শুনেই মনে করেন গায়ে পড়ে ঝগড়া লাগাতে এসেছে বা অপমান করেছে, তাহলে কিন্তু সমস্যা।

আর এনারা কেউ ইনভারব্রাস বা কারো চ্যালাব্যালা নন। ব্যক্তিগতভাবে, এঁদের মতামত আমি যতটুকু সম্মান করি, আপনার মতামতও তার চাইতে কম মূল্য দেই না।

যুক্তির লড়াই পাল্টা যুক্তি দিয়েই করা উচিৎ। হুমকি-ধমকী বা অন্যকে হেয় করে তেমন লাভ নেই - নিজেকেই নাকাল হতে হয়। আমরা সবাই তা জানি, তবে অনেক সময় নিজেই ভুলে যাই।  tongue

Calm... like a bomb.

৮৬

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

@m0N লিখেছেন:

মেয়েদের জন্য কি ব্যবস্থা ?

স্বামী।

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

৮৭

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

যার যার ধর্মবিশ্বাস তার তার কাছে, কেউ ইচ্ছা হলে ধর্ম মানবেন, কেউ ইচ্ছা না হলে মানবেন না, এতে তো ঝামেলার কিছু নেই...অবিশ্বাসীরা যেমন ধর্মের অসারতা প্রমাণ করতে নানা তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরছেন সেভাবে এখানে যারা ধর্মবিশ্বাসী আছেন তারাও নিজেদের স্বপক্ষে যুক্তিউপাত্ত তুলে ধরুন, শুধু শুধু ছাগলের তিন নাম্বার বাচ্চার মত লাফালাফি করে আর অমুকে তমুকের চ্যালা, অমুকে নাস্তিকগুরু ইত্যাদি ইত্যাদি বলে ব্যক্তিগত আক্রমণ করে লাভ কি? এরকম আচরণ করে উনারা নিজেদের বুদ্ধি যে হাঁটুর নিচে সেটাই কি প্রমাণ করছেন না? যুক্তি দিয়েই যুক্তিখন্ডন করতে হবে। গালাগালি আর ব্যক্তিগত আক্রমণ হচ্ছে নির্বোধ আর মূর্খদের হাতিয়ার।

মুক্ত অভি'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

৮৮

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

মাহমুদ রাব্বি লিখেছেন:

ধর্মে গান শোনা নিষেধ না তবে বাজনা বাজানো গান শোনা হারাম কিনা এ নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। কোরআনে এসব ব্যাপারে টু শব্দটি নেই তবে কিছু হাদীস নিয়ে লাগে বিতর্ক।  confused

hmm আমিও পড়েছিলাম মুহাম্মদ যখন মদীনায় আসেন তখন অনেক কিশোর-কিশোরী বাজনা সহকারে গান গেয়ে তাকে অভ্যর্থনা জানায়।

মাহমুদ রাব্বি লিখেছেন:

আর এত কট্ররভাবে সব কিছু দেখলে দুনিয়াতেই থাকা যাবে না।

আপনি মডারেট মুসলিম বুঝাই যাচ্ছে।

মাহমুদ রাব্বি লিখেছেন:

আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির প্রায় সব কিছুই ইহুদী-নাসারাদের (আহলে কিতাব) আবিষ্কার। এখন তাদের আবিষ্কার বলে এগুলো সব হারাম হয়ে গেলো মুসলমানদের জন্য এমন কথা কোনো কিতাবে লেখা নাই। ভালোটা নিলে সেটা হালাল। খারাপটা সব সময়ই হারাম। সেটা ইহুদী-নাসারা বানাক আর মুসলিম বানাক।

আগেই বলেছিলাম একবার কোন আবিস্কারই বিশেষ কোন সভ্যতা বা জাতি-গোষ্ঠীর একার নয়। তাই সব ইহুদী-নাসারাদের আবিষ্কার কথাটার মানে নেই। ওভাবে দেখলেতো ম্যাকওএস, উইন্ডোজ এমনকি লিনাক্সও নাস্তিকদের আবিস্কার। যাইহোক কুরআন ধর্মগ্রন্থ হিসাবে আমার কাছে মর্যাদা না থাকুক বিশ্বর প্রথম আরবী মহাকাব্য হিসাবে বেশ জরুরী। একই সাথে তৎকালীন আরবের আর্থিক-সামাজিক-রাজনৈতিক সমাজ ব্যবস্থার একটা প্রামান্য ইতিহাস হিসাবেও নৃতত্ত্বের জন্য এটা জরুরী।

hit like thunder and disappear like smoke

৮৯

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

@m0N ইসলাম ধর্মে "কিয়াস" বলে একটা বিষয় আছে সেটার সম্পর্কে জানার চেষ্টা করুন। তাহলে আপনার ওসব উচু দরের প্রশ্নের জবাব পেয়ে যাবেন।
আর ইসলাম ধর্ম নতুন কোন ধর্ম না। এটা এই দুনিয়ার জন্মের শুরু থেকেই ছিল। তাই অন্য সোর্স থেকে কপি করার প্রশ্নই ওঠে না।

@শামীম কারন ঐ সময় আরবীই ছিল সবচেয়ে উচু স্তরের ভাষা।

৯০

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

মেরাজ০৭ লিখেছেন:

এইতো ইনভারব্রাস ভাই নাকি নাস্তিক। তাহলে  কোরবানির  ঈদের  পশু কোরবানি কেন দিল সেটা ঝাতি ঝানতে চায় এবং সেটাও জানতে হবে।

সহজ উত্তর "সামাজিকতা রক্ষার্থে" সমাজকে দেখনোর জন্য আমরা অনেককিছুই করি আর আরালে ইন্টারনেটে নিজেদের আসল পরিচয় তুলে ধরি  smile

৯১ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (২২-১২-২০১২ ১৫:৪৪)

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

অভি আহমেদ লিখেছেন:

@শামীম কারন ঐ সময় আরবীই ছিল সবচেয়ে উচু স্তরের ভাষা।

lol ইসলামের ১ম শতাব্দীতে ক্লাসিকাল এ্যারাবিক বলে কোনো ভাষার অস্তিত্ব ছিলো না। কোরআন নাযিল হয়েছিলো মূলত: কোরেশ ডায়ালেক্টে। তবে কোরেশদের কথ্য ভাষা অন্যান্য গোত্রের লোকজন সঠিকভাবে উচ্চারণ করতে পারতো না। পরবর্তীতে খলিফা উসমানের নির্দেশে ইসলামী স্ক্রাইবরা কোরান কম্পাইল করার সময় বিভিন্ন ডায়াকৃটিকাল মার্কস (নুকতা ইত্যাদি) যোগ করে একটি নতুন ভাষারিতীর জন্ম দেন - ক্লাসিকাল এ্যারাবিক। বলতে পারেন, কোরান স্ট্যান্ডার্ডাইজ করার উদ্দেশ্যেই ক্লাসিকাল আরবী ভাষার জন্ম হয়।

এছাড়া, কোরানে সিরিয়াক, আরামাইক, হিব্রু এবং অন্যান্য সেমিটিক ভাষার বিদেশী শব্দও আছে ভুরিভুরি। এগুলোর উপস্থিতি কি নির্দেশ করে সে দিকে যাচ্ছি না, তবে কোরান পিওর এ্যারাবীক গ্রন্থ না এবং নবীর জীবদ্দশায় স্ট্যান্ডার্ড আরবী বলে কোনো ভাষাও ছিলো না। বরং এখন যে কোরান আপনার হাতে আছে ওটা আসলে অরিজিনাল (নবীর কথ্য ভাষায়) রেভেলেশনের এ্যারাবীক ট্রান্সলেশন।

যতদূর জানি আরব রাষ্ট্রগুলোতে দুই ধরণের আরবী প্রচলিত আছে: মডার্ণ স্ট্যান্ডার্ড এ্যারাবিক - এই ভাষা দৈনন্দিন কাজে ব্যবহৃত হয়। ক্লাসিকাল আরবীতে কোরান লিপিবদ্ধ করা হয়েছিলো। যুগের সাথে সাথে ভাষারও পরিবর্তন হয়। msa- যুগের সাথে পরিবর্তিত হয়েছে, তবে ca ফিক্সড। ১৪০০ বছর আগে যেমন গ্রামার, ভোকাবুলারী ইত্যাদি ছিলো এখনো ঐভাবেই ফিক্সড-ইন-টাইম রেখে দেয়া হয়েছে।

স্বল্পজ্ঞান থেকে হুট করে ফতোয়া জারী করা ঠিক নয়।

Calm... like a bomb.

৯২

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

আপনি অধিকজ্ঞান থেকে যেসব ফতোয়া জারি করেন তা দেখে মনে হয় স্বল্পজ্ঞান নিয়েই আমি ঠিক আছি। yahoo আপনার মত জ্ঞানী হবার কোন দরকার নাই।

৯৩

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

অভি আহমেদ লিখেছেন:

@m0N ইসলাম ধর্মে "কিয়াস" বলে একটা বিষয় আছে সেটার সম্পর্কে জানার চেষ্টা করুন। তাহলে আপনার ওসব উচু দরের প্রশ্নের জবাব পেয়ে যাবেন।
আর ইসলাম ধর্ম নতুন কোন ধর্ম না। এটা এই দুনিয়ার জন্মের শুরু থেকেই ছিল। তাই অন্য সোর্স থেকে কপি করার প্রশ্নই ওঠে না।

lol2 এতক্ষন ইসলাম জানতে হলে কেবল ও কেবলমাত্র কুরআন ও হাদীস নিয়ে পড়তে হবে। এবার এলেন কিয়াস জানতে হবে। কেন ভাই জানতে হবে ?  confused সর্বশক্তিমানের কুরআন আর মুহাম্মাদের হাদীস বাদ দিয়ে উমরের কিয়াস কেন হঠাৎ জরুরী হয়ে গেল ?  lol আর আপনার শেষে বলা তালগাছবাদী কথাগুলার জন্য  lol2

@ আশিফ  lol2 কাব্যগ্রন্থ বলে নীচতার পরিচয় দিয়েছি।  lol2 কি বলব হাসি থামছেই না।  lol2 আমার মাইনাসটাকে তুলে দেয়ার অনুরোধ করছি।

hit like thunder and disappear like smoke

৯৪

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

আচ্ছা কোরআন মিথ্যা। সব কিছু মিথ্যা। আপনারাই ঠিক। 
So What?  শেষ পর্যন্ত কার কি হল? আপনিও কিছু গেইন করলেননা আমিও কিছু গেইন করলামনা।

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

৯৫

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

সবার মাঝে আমি এক্টা কথা বলি
আমার কাছে মুরগী/হাস/খাসি জবাই করা খুব ক্রুয়েল লাগে।
তারা কথা(মানব ভাষা) বলতে পারে না বলেই তাদের নির্মম ভাবে মেরে ফেলতে হবে??
তাদের কি বাচার অধিকার নেই?? আমাদের ভাষাও তো গরুরা বোঝে না তাই বলে তারাতো আমাদের খুন করতে ধেয়ে আসে না!!!!
বিষয়টা ভিষন ভাবে নাড়া দেয় কোরবানী এলে  roll roll

৯৬

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

শামীম লিখেছেন:

এই প্রসঙ্গে আরেকটা জটিল কিংবা সহজ উদাহরণ মনে পড়ে: সুমনের গাওয়া "প্রথমত আমি তোমাকে চাই .. ..... " গানটি নিয়ে প্রেমিকদের মুগ্ধতার অভাব ছিল না, প্রশংসা করার ভাষা খুঁজে পাচ্ছিলো না --- কিন্তু ঐ ব্যাটা সিগারেটকে নিয়ে গানটি বেঁধেছিলো! 

সুমন কবীর এক সাক্ষাতকারে বলেছিলেন এটা মিথ। ছুটির দিনে এই গান নিয়ে বিশাল প্রচ্ছদ প্রতিবেদনও ছাপা হয়েছিল।

ফায়ারফক্স লিখেছেন:

বিষয়টা ভিষন ভাবে নাড়া দেয় কোরবানী এলে 

আপনি নিরামিষী? তা না হলে শুধু কোরবানী কেন? হাস-মুরগীর কি দোষ? ব্যাকটেরিয়া এও তো জীব। অনেকে তো দেখি ধর্ম মানে না। কিন্তু ধুমায় কুরবানী দেয়। roll

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

৯৭

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

ফায়ারফক্স লিখেছেন:

আমাদের ভাষাও তো গরুরা বোঝে না তাই বলে তারাতো আমাদের খুন করতে ধেয়ে আসে না!!!!

তারা হাইয়ার ইন্টিলিজেন্টের প্রানি না।

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

৯৮

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

@m0N
কিয়াস কখনও কুরআন কিংবা হাদীসের বিরুদ্ধে যেতে পারে না।
আপনার কথাগুলো খুবই হাস্যকর। এসব বলে নিজেকে আর বলদ প্রমান করবেন না।
@ফায়ারফক্স
গাছেরও জীবন আছে। তারাও ব্যথা অনুভব করে।

৯৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন @m0N (২২-১২-২০১২ ১৭:৩০)

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

অভি আহমেদ লিখেছেন:

@m0N
কিয়াস কখনও কুরআন কিংবা হাদীসের বিরুদ্ধে যেতে পারে না।
আপনার কথাগুলো খুবই হাস্যকর। এসব বলে নিজেকে আর বলদ প্রমান করবেন না।

lol2 তাই নাকি ? আর আমার কথাগুলা হাস্যকর হলে হাসুন না কে মানা করেছে নাকি এটার জন্যও কিয়াস দেখতে হবে।  lol2

hit like thunder and disappear like smoke

১০০

Re: বিশ্বের প্রতি ছয়জনের একজন মানুষ...

আপনার নামেও কেমন যেন মদনের গন্ধ পাই  tongue এ্যা মদন  big_smile