সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (২৫-১১-২০১২ ১২:১৭)

টপিকঃ জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

টুম্পা এর  জ্বীন নিয়ে টপিকে দেখে আমারো কিছু প্রশ্ন মনে জাগলো

১। ইসলাম আবির্ভাবের আগে কি জ্বীন কনসেপ্ট আরব সমাজে ছিল ? 
২। ইসলাম ব্যতিত অন্য কোন ধর্মের মানুষ  জ্বীন কে বিশ্বাস করে কিনা ?
৩। সূরা জ্বীনের শানেনুজুল কি? (লিংক দিলেই চলবে)
৪। ছোট কালে শুনে ছিলাম সূরা জ্বীন প্রতি রাতে কতবার (মনে হয় ১০০ বার) পড়লে নাকি একটি নির্দিষ্ট সময়ের(মনে হয় ৪০ দিন) পরে জ্বীন দেখা যায়। আসলে কত দিন ও দিন কত বার পরতে হয় ?

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

আপনার এসব প্রশ্নের উত্তর বিখ্যাত ফারাবী ছাড়া আর কেউ দিতে পারবে না।  hehe

hit like thunder and disappear like smoke

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সারিম (২৪-১১-২০১২ ১২:০৭)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

@m0N লিখেছেন:

আপনার এসব প্রশ্নের উত্তর বিখ্যাত ফারাবী ছাড়া আর কেউ দিতে পারবে না।  hehe

ফেবুনবী ফারাবীর নোটগুলা পড়লেই মনে হয় উত্তরগুলা পাওয়া যাবে wink ফেক্সি নিয়ে উনার সাথে যোগাযোগ করুন wink wink wink

সারিম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

ইসলাম আবির্ভাবের আগে কি জ্বীন কনসেপ্ট আরব সমাজে ছিল ?

এর জবাব দেখি invarbrass আগেই দিয়ে দিয়েছে

ওহ বাই দি ওয়ে, প্রাণের আগে না হলেও ইসলাম আবির্ভাবের আগেও জ্বীন জাতী বিদ্যমান ছিলো। আইয়ামে জাহেলিয়াতের “অন্ধকার” যুগের প্যাগান আরবরা জ্বীনভুত তুকতাকে বিশ্বাস করতো।

আজব তো... বর্বর জংলী মুর্তিপূজারক আরবরা জ্বীন ভুত নিয়ে ব্যাপক গো+এষণা বৈগ্যান টৈগ্যান কি কি সব করে ফেলেছিলো, অথচ চীনারা, ভারতীয়রা, মিশরীয়রা, ব্যাবীলন/মেসোপটেমীয়রা, ইউরোপীয়রা, মায়ান/এ্যাযটেকরা তথা বাদবাকী মানবগোষ্টী (কোইন্সিডেন্টালী, যারা অ-মরুভূমীবাসী, তূলনামূলকভাবে উন্নত, সভ্য, শিক্ষিত এবং কিঞ্চিৎ কম-কুসংস্কারাচ্ছন্ন) এই অশরীরী প্রজাতীর অস্তিত্ব সম্পর্কেই বিলকুল অন্ধকারে!  hehe যীশু, সোলেমান, দাউদ, ইসমাইল, নূহ, ইব্রাহিম, আদম প্রমুখেরা আরবদিগের রিসালাতীয় পূর্বপুরুষ হইয়াও জ্বীনটিনের নামই শুনেন নাই! সারছে রে

সারিম লিখেছেন:

ফেবুনবী ফারাবীর নোটগুলা পড়লেই মনে হয় উত্তরগুলা পাওয়া যাবে

???? বুঝি নাই  hairpull

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মাহমুদ রাব্বি (২৪-১১-২০১২ ১৩:০৭)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

জ্বীন জাতির বিস্ময়কর ইতিহাস ১ম পর্ব
শাফিউর রহমান ফারাবী

জ্বীন জাতি সম্পর্কে অনেকেরই আগ্রহ। জ্বীনরা কেমন কি খায়, তাদের জীবন যাত্রা কিরকম। বিশেষ করে আল-কোরানে সূরা জ্বীন নাযিল হবার পর সাহাবীদেরও জ্বীনদের প্রতি কৌতূহল দেখা গিয়েছিল। আমি এখানে মুসলিম বিশ্বের প্রবাদ পুরুষ আল্লামা জালালুদ্দিন সুয়ূতি (রহঃ) জ্বীন জাতিকে নিয়ে লেখা লাক্বতুল মারজ্বানি ফী আহকামিল জ্বান্ন নামক আরবী গ্রন্থের বাংলা অনুবাদ “জ্বীন জ্বাতির বিস্ময়কর ইতিহাস” বইটি থেকে ও আরো কিছু সহীহ হাদীস থেকে জ্বীন জাতি সম্পর্কে কিছু লেখার চেষ্টা করব। এই বইটি মদীনা পাবলিকেশন্স থেকে প্রকাশিত হয়েছে। বইটির অনুবাদ ও সম্পাদনা করেছেন মোহাম্মদ হাদীউজ্জামান। এখানে বলে রাখা ভাল অনেক তরঙ্গ দৈর্ঘ্য যেমন অবলোহিত, মাইক্রো ওয়েভ, X-Ray, গামা রশ্মি আমরা খালি চোখে দেখতে পাইনা। জ্বীন ফেরেশতা হয়ত এমন কোন সূক্ষাতি সুক্ষ তরঙ্গ যাদেরকে কোন যন্ত্রপাতি দ্বারাও দেখা যাবে না। জ্বীন শব্দের মোটামুটি অর্থ গুপ্ত, অদৃশ্য, লুকায়িত। শয়তানরাও হল একপ্রকার জ্বীন যারা আল্লাহর অবাধ্য এবং এরা অভিশপ্ত ইবলিশের বংশধরদের অন্তর্গত। হাদীস তত্তবীদদের মতে জ্বীনদের কয়েক টি শ্রেণী আছে। যেমন সাধারন জ্বীন, আমির জ্বীন এরা মানুষের সাথে থাকে, শয়তান এরা অবাধ্য, উদ্ধত, ইফরীত্ব জ্বীন এরা শয়তানের চাইতেও বিপদজনক। জ্বীন জাতিকে সৃষ্টি করা হয়েছে হযরত আদম আঃ এর ২০০০ বছর পূর্বে। জ্বীন জাতির আদি পিতা (আবূল জিন্নাত) সামূমকে আল্লাহ সুবহানাতায়ালা আগুণের শিখা দ্বারা তৈরী করার পর আল্লাহ সামূমকে বলেন তুমি কিছু কামনা কর। তখন সে বলে আমার কামনা হল আমরা মানুষ কে দেখব কিন্তু মানুষরা আমাদের দেখতে পারবে না। আর আমাদের বৃদ্ধরাও যেন যুবক হয় মৃত্যুর পূর্বে। আল্লাহ সুবহানাতায়ালা তায়ালা জ্বীন দের এই দুইটি ইচ্ছাই পূরণ করেন। জ্বিনরা বৃদ্ধ বয়সে মৃত্যুর পূর্বে আবার যুবক হয়। জ্বীন রা আগুণের তৈরী হলেও এরা মূলত আগুণ নয়। যেমন মানব সৃষ্টির মূল উপাদান কাদামাটি হলেও মানুষ কিন্তু প্রকৃত পক্ষে কাদামাটি নয়। ঠিক তেমনি জ্বিনের পূর্ব পুরুষ আগুণের তৈরী হলেও জ্বীন মানেই আগুন নয়। এর প্রমাণ মুসনাদ আহমদে বর্ণিত রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের একটি হাদীস- “রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন শয়তান নামাযের মধ্যে আমার সাথে মুকাবেলা করতে আসে তখন আমি তার গলা টিপে দেই। তখন আমি শয়তানের থুথুর শীতলতা নিজের হাতেও অনুভব করছি। ” সুতরাং শয়তান বা জ্বীন যদি দাহ্য আগুণ হয় তাইলে তার থুথু ঠান্ডা হতে পারে না। আশাকরি আপনারা ব্যাপারটা বুঝতে পেরেছেন। অনেকের মাঝে একটা প্রশ্ন আসে যে জ্বীনরা যদি আগুনের তৈরী হয় তাইলে কিভাবে জ্বীন রা জাহান্নামের আগুনে পুড়বে। আমি প্রথমেই বলেছি যে জ্বীনদের আদিপিতা আগুন দ্বারা তৈরী হলেও জ্বীনরা মূলত আগুণ নয়। জ্বীনদের শরীর মূলত খুব সূক্ষাতি সূক্ষ। জ্বীনরা চাইলে যেকোন কঠিন পদার্থের বাধা অতিক্রম করতে পারে। তাই জাহান্নামের আগুন দ্বারা জ্বীনদের ঠিকই কষ্ট হবে। জ্বীন দের কে আল্লাহপাক বিশেষ কিছু কথা ও কাজ শিখিয়ে দিয়েছেন যার দ্বারা জ্বীনরা চাইলে এক আকার থেকে আরেক আকারে রূপান্তরিত হতে পারে। তবে জ্বীন দের কাছে সবচেয়ে প্রিয় আকার হল সাপের আকার। জ্বীনরা বেশিরভাগ সময় সাপের আকারে চলাফেরা করতে পছন্দ করে। জ্বীনদের খাবার হল শুকনা হাড় ও গোবর। সহীহ হাদীসে শুকনা হাড় ও গোবর দ্বারা এসেঞ্জা করতে নিষেধ করা আছে। হাদিসে বলা হয়েছে এ দুটা হল জ্বীনদের খাবার। জ্বীন দের সাথে মানুষের বিয়ে হওয়া সম্ভব। সহীহ হাদিসে বলা আছে যে রাণী বিলকিসের পিতা মাতার মধ্যে একজন ছিল জ্বীন। তবে জ্বীনদের সাথে মানুষের বিয়ে হালাল না হারাম এ নিয়ে আলেমদের মাঝে মতবিরোধ আছে। তবে বেশিরভাগ আলেমদের মতে জ্বীন বিয়ে করা মাকরুহ। অনেক অন্ধ বুযুর্গ জ্বীন মেয়েকে বিয়ে করেছেন।যেন সফরে ঐ বুযুর্গের হাটা চলায় সুবিধা হয়। তবে জ্বীনরা যদি চায় তাইলেই মানুষ জ্বিনদেরকে দেখতে পারে। জ্বীন দের সাথে মানুষের উটাবসা, বিয়ে শাদি এটা পুরাটাই জ্বীনদের ইচ্ছা। মানুষের মাঝে যেমন বিভিন্ন ফেরকা, মাযহাব আছে ঠিক তেমনি জ্বীন দের মাঝেও বিভিন্ন দল মত আছে। অনেক জ্বীন সাহাবী ছিলেন। সীরাতে ইবনে হিশামে বর্ণিত আছে যে রাসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের মৃত্যুর পরে প্রথমে ফেরেশতারা এসে রাসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে সালাম দেয় এরপরে জ্বীনেরা এসে রাসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে সালাম দেয়।

http://www.somewhereinblog.net/blog/farabi2012/29636650

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

কাযী ছানাউল্লাহ পানিপথি (র:)  বলেন, ভারতবর্ষের হিন্দুরা তাদের ধর্মগ্রন্থের ইতিহাস হাজার হাজার বছরের পুরোনো বলে উল্লেখ করেন এবং তাদের অনুসৃত অবতারদেরকে সে যুগেরই লোক বলে উল্লেখ করেন। এটা অসম্ভব নয় যে, তারা এ জ্বিন জাতিরই পয়গম্বর ছিলেন এবং তাদেরই আনিত নির্দেশাবলী কালে পুস্তকাকারে সন্নিবেশিত করা হয়েছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের অবতারদের যেসব চিত্র ও মূর্তি মন্দিরসমূহে রাখা হয় সেগুলোর দেহাকৃতিও অনেকটা এমনি ধরনের। কারও অনেকগুলো মুখমন্ডল, কারও অনেক হাত-পা, কারও হাতির মত শুঁড়। এগুলো সাধারণ মানবাকৃতি থেকে ভিন্ন। জ্বিনদের পক্ষে এহেন আকৃতি ধারণ করা মোটেই অসম্ভব নয়। সাহাবী আব্দুল্লাহ ইবনে মাসঊদ রাযিয়াল্লাহু আনহুর বর্ণনায় যে দলীল টা পাওয়া যায় সেখানে উনি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে বলেছিলেন বিভিন্ন বিচিত্র আকৃতির প্রানীকে আপনার কাছে আসতে দেখলাম। আর দূর্গা কালি লক্ষী শিব গণেশ মহাদেব কার্তিক কৃষ্ণ বিষ্ণু উনাদের আকৃতি গুলিও কিন্তু বিচিত্র আকৃতির। হতে পারে উনারা জ্বীনদের মাঝে নবী ছিলেন পরবর্তীতে ঋষিদের মাধ্যমে যখন বেদের বাণী গুলি মানুষের কাছে এসেছিল তখন মানুষ আল্লাহ কে বাদ দিয়ে দূর্গা কালি লক্ষী শিব উনাদের কেই উপাস্য বানিয়ে ফেলেছে। আরবের কাফেররা যে লাত উজ্জার পূজা করত হাদীস শরীফেও কিন্তু বলা আছে যে তারা জ্বীন ছিল।


হাদীসে এসেছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লাম একদিন বললেন,
إن عفريتا من الجن تفلت علي البارحة ليقطع علي الصلاة فأمكنني الله منه
গত রাতে একটি শক্তিশালী জ্বীন আমার উপর চড়াও হতে চেয়েছিল। তার উদ্দেশ্য ছিল আমার নামাজ নষ্ট করা। আল্লাহ তার বিরুদ্ধে আমাকে শক্তি দিলেন। (বর্ণনায় : বুখারী, সালাত অধ্যায়)

"We want Justice for Adnan Tasin"

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

ইসলাম আবির্ভাবের আগে কি জ্বীন কনসেপ্ট আরব সমাজে ছিল ?  ।

মানে কি আপনি বলতে চাইছেন জ্বীন চিনতো কিনা????

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

ইসলাম ব্যতিত অন্য কোন ধর্মের মানুষ  জ্বীন কে বিশ্বাস করে কিনা ?

তাদের জন্য তো ভূত রয়েছেই  wink

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

ছোট কালে শুনে ছিলাম সূরা জ্বীন প্রতি রাতে কতবার(মনে হয় ১০০ বার) পড়লে নাকি একটি নির্দিষ্ট সময়ের(মনে হয় ৪০ দিন) পরে জ্বীন দেখা যায়। আসলে কত দিন ও দিন কত বার পরতে হয় ?

সূরা জ্বীনে এমন কি আছে  যে  তা পড়লে  জ্বীন আপনের প্রতি দিওয়ানা হয়ে যাবে?

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (২৪-১১-২০১২ ১৪:১৩)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

এতক্ষণেও কেউ সূরা জ্বীনের শানেনুজুল দিতে পারলো না  ????  ইলিয়াস ভাই কই ??

মেরাজ০৭ লিখেছেন:

মানে কি আপনি বলতে চাইছেন জ্বীন চিনতো কিনা????

হুম। জবাব invarbrass অন্য পোস্ট থেকে পেয়ে গেছি।

দমেরাজ০৭ লিখেছেন:

তাদের জন্য তো ভূত রয়েছেই  wink

ভূত ও জ্বীন এর কনসেপ্ট একেবারে ভিন্ন।

মেরাজ০৭ লিখেছেন:

সূরা জ্বীনে এমন কি আছে  যে  তা পড়লে  জ্বীন আপনের প্রতি দিওয়ানা হয়ে যাবে?

সেটা আমি জানি না। ছোট কালে কোন এক ওয়াজে শুনে ছিলাম।  প্রথম বারে জ্বীন ভয়ংকর রুপে আসে যেমন বাঘ/সাপ। যা সাধারণ পাবলিক সহ্য পারে না। হার্ট ফেল করে মারা যায়। আলেম ব্যাক্তিরা শুধু তাদের ফেস টু ফেস মোকাবেলা করতে পারে। তার পরে সেই জ্বীন তার বশে এসে যায়। আর ভালো ভাবে বশে না আসলে, তার পরিবারের কোন দূর্বল সদস্যের ক্ষতি করে দেয়।

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (২৪-১১-২০১২ ১৪:৩৭)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

মেরাজ০৭ লিখেছেন:
দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

ইসলাম আবির্ভাবের আগে কি জ্বীন কনসেপ্ট আরব সমাজে ছিল ?  ।

মানে কি আপনি বলতে চাইছেন জ্বীন চিনতো কিনা????

চিনতো তো বটেই, উপাসনাও করতো। নবীর পিতামহ আব্দাল মুত্তালিব যমযম কূপের কাছে এক জোড়া পুরুষ ও নারী জ্বীন দেবতার মূর্তিও প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। (পুরুষ জ্বীনের নাম মনে নাই, তবে নারী জ্বীন-দেবীর নাম "নায়েলা" ছিলো এটা মনে আছে  tongue ) ইসলাম/ডিরাইভেটিভ ধর্মগুলোতে সৃষ্টিকর্তার পরে সর্বাধিক শক্তিশালী যে সত্বার ব্যাপারে বলা আছে - সেই ইবলিস সাহেবও জ্বীন ব্যাটালিয়নের ফিল্ড মার্শাল জেনারেল।

মেরাজ০৭ লিখেছেন:
দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

ইসলাম ব্যতিত অন্য কোন ধর্মের মানুষ  জ্বীন কে বিশ্বাস করে কিনা ?

তাদের জন্য তো ভূত রয়েছেই  wink

shame
ভূত = ডেড পিপল ইন হলিউড
জ্বীন = পোম ধোঁয়াহীন আগুন (উইথ বিবর্তন)

Calm... like a bomb.

১০

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

invarbrass লিখেছেন:

ভূত = ডেড পিপল

অটঃ আচ্ছা আনডেড/যম্বি এর ধারনা কতটুকু বিজ্ঞানসম্মত ? মৃত জীব কে কোনভাবে পার্শিয়ালি অ্যাকটিভ করা যায় ?

সারিম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১১

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

সারিম লিখেছেন:

আচ্ছা আনডেড/যম্বি এর ধারনা কতটুকু বিজ্ঞানসম্মত ?

zombie তো ভবিষত্যের ভূত। ধারণা করা হয় কোন রসায়নিক ফর্মুলার প্রভাবে মানুষ খালি মাংস খাই খাই করবে।  এটা ফ্যান্টাসি বা কল্পকাহিনী মাত্র।

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১২ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন @m0N (২৪-১১-২০১২ ১৬:৪৭)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

সারিম লিখেছেন:
invarbrass লিখেছেন:

ভূত = ডেড পিপল

অটঃ আচ্ছা আনডেড/যম্বি এর ধারনা কতটুকু বিজ্ঞানসম্মত ? মৃত জীব কে কোনভাবে পার্শিয়ালি অ্যাকটিভ করা যায় ?

এই লেখাটা পড়ে দেখতে পারেন পার্শিয়ালী একটিভেট বলতে কি বুঝাচ্ছেন। যদি নড়াচরার কথা বলেনতো electromagnetic wave দিয়েইতো নিয়ন্ত্রন করতে পারার কথা।

hit like thunder and disappear like smoke

১৩

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

সারিম লিখেছেন:

অটঃ আচ্ছা আনডেড/যম্বি এর ধারনা কতটুকু বিজ্ঞানসম্মত ?

আনডেড বলতে কি বোঝাচ্ছেন? কোনো প্রাণি চলাফেরা ইত্যাদি করতে গেলে খাদ্য প্রয়োজন - আর খাদ্য গ্রহণ করতে গেলে বিপাক/ মেটাবলিজম প্রয়োজন - এত সব প্রক্রিয়া করতে থাকলে তো প্রাণীটি "ডেড" থাকছে না।

প্রাণীজগৎে, এসপেশিয়ালী কীটপতংগদের মধ্যে, বায়োলজিকাল যমবি-র উদাহরণ প্রচুর আছে (এগুলো আবার জর্জ রোমেরো-র যম্বি সিরিজ না)। বোলতা (ওয়্যাসপ), ক্যাটারপিলার, পিপড়া, গুবরেপোকা ইত্যাদি প্রাণীতে "যম্বি"-লাইক ব্যাপার দেখা যায়। এদের দেহে কিছু প্যারাসাইট অরগানিজম অনুপ্রবেশ করে নার্ভাস সিস্টেমকে ইনফেক্ট করে এবং পুরো বডিটাকে কন্ট্রোলে নিয়ে নেয়। হোস্ট প্রাণিটিকে দিয়ে প্যারাসাইট অণুজীবটি বিভিন্ন ধরণের পিকিউলিয়ার কাজ করাতে পারে। যেমন এখানে এবং এখানে দু'টো ইন্টারেস্টিং ব্যাপার আছে। এরকম উদাহরণ ভুরিভুরি আছে।
http://i.imgur.com/6PN0Y.jpg
কীটপতঙগদের মধ্যে যম্বি-টাইপ ব্যাপারগুলো বেশি দেখা যায় কারণ এদের ব্রেইন বেশ সিম্পল এবং প্রিমিটিভ। নিউরনের সংখ্যাও কম থাকে। তাই খুব সহজে এদের নার্ভাস সিস্টেম হ্যাক করা যায়।

সারিম লিখেছেন:

মৃত জীব কে কোনভাবে পার্শিয়ালি অ্যাকটিভ করা যায় ?

হার্ট-লাঙ মেশিন:
http://i.imgur.com/0t1uB.jpghttp://i.imgur.com/iZV0u.jpg
৬০ বছর আগে এই মেশিন তৈরীর পরে কার্ডিয়াক সার্জারীতে বিরাট অগ্রগতি সাধন হয়েছে। মেশিনটা দেহের শিরা/ধমনীর সাথে কানেক্ট করিয়ে দেয়া হয়, মেশিনটি হার্টের মতো পাম্প করে দেহে অক্সিজেন সাপ্লাই দিতে থাকে - কার্ডিওপালমোনারী বাইপাস (CPB)। কিছুক্ষণ পর রোগীর হার্ট শাটডাউন করিয়ে দেয়া হয় - সার্জন তখন হার্টের উপর কাজ করতে পারেন। CPB টেকনিকে প্রায় ৪০-৪৫ মিনিট পর্যন্ত মানুষকে হার্ট বন্ধ অবস্থায় রাখা যায়।

মজার ব্যাপার - এই সময় এ্যালাইভ বডির সমস্ত মেডিকেল ক্রাইটেরিয়া ফেইল করে। পালস, হার্টবীট, চোখের পিউপিল ইত্যাদি সব সাইন চেক করলে সবাই একমত হবে লোকটি ক্লিনিকালী ডেড। অথচ পৌনে এক ঘন্টা পরেই লোকটির হার্ট চালু করে দিয়ে তাকে "প্রাণ" ফিরিয়ে দেয়া হচ্ছে। আমেরিকায় প্রতি বছর ৫ লাখের বেশি কার্ডিয়াক সার্জারী হয় CPB দিয়ে।

মৃত্যু সম্পর্কে পপুলার আইডিয়া হলো সিম্পল - আপনি হয় বেঁচে আছেন, নয়তো মৃত।

তবে সাইন্স যত আগাচ্ছে, ততই দেখা যাচ্ছে বিষয়টি সেরকম ব্ল্যাক-অর-হোয়াইট না - মৃত্যু লম্বা একটি প্রসেস, বেশ কিছু সময় ধরে চলতে থাকে। মানুষ মরার পরেও আরো কিছুকাল পর্যন্ত দেহের বিভিন্ন অংশ "বেঁচে" থাকে (ফরেনসিক মেডিসিনে পড়েছিলাম হাড়ের কোষগুলো কয়েক বছর পর্যন্তও টিকে থাকতে পারে)। সম্ভবত: একটা নির্দিষ্ট স্টেজ পর্যন্ত সুযোগ থাকে বডিটাকে রিএ্যানিমেট করার।

through the wormhole সিরিজে একটা পর্ব ছিলো মাইটোকন্ড্রিয়াল ডেথ সিগনাল নিয়ে। খুবই ইন্টারেসটিং টপিক।

Calm... like a bomb.

১৪ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মাহমুদ রাব্বি (২৪-১১-২০১২ ১৮:৪৮)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

আচ্ছা, ইসলামে জ্বীন কনসেপ্ট আছে এটা জানা কথা কিন্তু পরীর কনসেপ্ট কি আছে? আমি জানি মানুষের বাইরে জ্বীন ও ফেরেশতাদের কথা বলা আছে কিন্তু পরী আসলো কোত্থেকে? এই যে অনেকে বলে বেহেস্তে নাকি একজন পুরুষকে ৭২ টি হূর পরী দেয়া হবে। হূর পরী কারা? worried

১৫ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (২৪-১১-২০১২ ১৯:৪২)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

invarbrass দেখি আবারো ছক্কা মারলেন  thumbs_up

মাহমুদ রাব্বি লিখেছেন:

ইসলামে জ্বীন কনসেপ্ট আছে এটা জানা কথা কিন্তু পরীর কনসেপ্ট কি আছে?

সাধারণ ভাবে, জ্বীন বলতে পুরুষ জ্বীন বোঝায় আর মেয়ে জ্বীন কে পরী বলা হয়। আর "হূর পরী" বলতে মেয়ে জ্বীন নাকি ফেরেস্তা টাইপের কিছু তা সিওর না।

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

সূরা জ্বীনের শানেনুজুল কি

পেয়েছি

হয়রত ইবনে আব্বাস (রা:) বর্ণনা করেন, এই ঘটনায় রসূলুল্লাহ্‌ (সাঃ) জিনদেরকে ইচ্ছাকৃতভাবে কোরআন শোনাননি এবং তিনি তাদের দর্শনও করেননি। এই ঘটনা তখনকার, যখন শয়তানদেরকে আকাশের খবর শোনা থেকে উল্কাপিণ্ডের মাধ্যমে প্রতিহত করা হয়েছিল। এ সময়ে জিন জাতি পরস্পরে পরামর্শ করল যে, আকাশে খবরাদি শোনার ব্যাপারে বাধাদানের এই ব্যাপারটি কোন আকস্মিক ঘটনা মনে হয় না। পৃথিবীতে অব্যশই কোন নতুন ব্যাপার সংঘটিত হয়েছে। অতঃপর তারা স্থির করল যে, পৃথিবীর পূর্ব-পশ্চিমে ও আনাচে-কানাচে জিনদের প্রতিনিধিদল প্রেরণ করতে হবে যরা খোঁজাখুঁজি করে এই নতুন ব্যাপারটি কী তা জেনে আসবে। হেজাযে প্রেরিত তাদের প্রতিনিধিদল যখন 'নাখাল' নামক স্থানে উপস্থিত হল, তখন রসূলুল্লাহ্‌ (সাঃ) সাহাবীগণকে সাথে নিয়ে ফজরের নামায পড়ছিলেন। জিনদের এই প্রতিনিধিদল নামাযে কোরআন পাঠ শুনে পরস্পর শপথ করে বলতে লাগলঃ "এই কালামই আমাদের ও আকাশের খবরাদির মধ্যে অন্তরায় হয়েছে।" তারা সেখান থেকে প্রত্যাবর্তন করে স্বজাতির কাছে ঘটনা বিবৃত করল এবং বললঃ "আমরা বিস্ময়কর কোরআন শ্রবণ করেছি। আল্লাহ্‌ তাআলা এসব আয়াতে সমস্ত ঘটনা সম্পর্কে তাঁর রসূলকে অবহিত করেছেন।
http://bn.wikipedia.org/wiki/%E0%A6%86% … F%E0%A6%A8

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সাইফুল_বিডি (২৪-১১-২০১২ ১৯:১৫)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

মাহমুদ রাব্বি লিখেছেন:

জ্বীন জাতিকে সৃষ্টি করা হয়েছে হযরত আদম আঃ এর ২০০০ বছর পূর্বে। জ্বীন জাতির আদি পিতা (আবূল জিন্নাত) সামূমকে আল্লাহ সুবহানাতায়ালা আগুণের শিখা দ্বারা তৈরী করার পর আল্লাহ সামূমকে বলেন তুমি কিছু কামনা কর। তখন সে বলে আমার কামনা হল আমরা মানুষ কে দেখব কিন্তু মানুষরা আমাদের দেখতে পারবে না। আর আমাদের বৃদ্ধরাও যেন যুবক হয় মৃত্যুর পূর্বে।

হা হা হা !!
এতদিন জানতাম মানুষ সৃষ্টি করার আগে পৃথিবীতে জ্বীনরা থাকতো , যদি সেটা ঠিক হয়ে থাকে তাহলে জ্বীন জাতির আদি পিতা (আবূল জিন্নাত) সামূম এর সেটা (মানুষের কথা) জানার কথা না  surprised

এই ব্যাক্তির সকল লেখা কাল্পনিক , জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিল পাওয়া গেলে তা সম্পুর্ন কাকতালীয়, যদি লেখা জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিলে যায় তার দায় এই আইডির মালিক কোনক্রমেই বহন করবেন না। এই ব্যক্তির সকল লেখা পাগলের প্রলাপের ন্যায় এই লেখা কোন প্রকার মতপ্রকাশ অথবা রেফারেন্স হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না।

১৭

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

@ সাইফুল_বিডি
আপনি ভুল করে ডেডলক ভাইয়ের জায়গায় আমাকে কোট করেছেন।

১৮

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

মাহমুদ রাব্বি লিখেছেন:

@ সাইফুল_বিডি
আপনি ভুল করে ডেডলক ভাইয়ের জায়গায় আমাকে কোট করেছেন।

https://fbcdn-sphotos-a-a.akamaihd.net/hphotos-ak-prn1/531123_453563391347440_2076355520_n.jpg

হুম !!

এই ব্যাক্তির সকল লেখা কাল্পনিক , জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিল পাওয়া গেলে তা সম্পুর্ন কাকতালীয়, যদি লেখা জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিলে যায় তার দায় এই আইডির মালিক কোনক্রমেই বহন করবেন না। এই ব্যক্তির সকল লেখা পাগলের প্রলাপের ন্যায় এই লেখা কোন প্রকার মতপ্রকাশ অথবা রেফারেন্স হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না।

১৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (২৪-১১-২০১২ ১৯:৫০)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

মাহমুদ রাব্বি লিখেছেন:

@ সাইফুল_বিডি
আপনি ভুল করে ডেডলক ভাইয়ের জায়গায় আমাকে কোট করেছেন।

মিয়া কন কি  lol2 lol2 lol2 lol2 আপনার ওপরে জ্বীনের আসর হয়েছে বলে মনে হচ্ছে

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

২০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (২৪-১১-২০১২ ১৯:৫৯)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

মাহমুদ রাব্বি লিখেছেন:

@ সাইফুল_বিডি
আপনি ভুল করে ডেডলক ভাইয়ের জায়গায় আমাকে কোট করেছেন।

যা কোট করেন তা নিজেও পড়েন না নাকি?  tongue

সাইফুল_বিডি লিখেছেন:

হা হা হা !!
এতদিন জানতাম মানুষ সৃষ্টি করার আগে পৃথিবীতে জ্বীনরা থাকতো , যদি সেটা ঠিক হয়ে থাকে তাহলে জ্বীন জাতির আদি পিতা (আবূল জিন্নাত) সামূম এর সেটা (মানুষের কথা) জানার কথা না  surprised

আপনার চশমার পাওয়ার তো দেখি সাংঘাতিক! জনগুরুত্বপূর্ণ টপিকটিতে এভাবে বেলুন ফুটো করে দিলেন  lol

বংগদেশের জিন প্রজাতী জিপি-র কাস্টোমার।  tongue

@ডেডলক: সুরাটি পড়লাম। কে কাহার উদ্দেশ্যে কি বলিতেছে কিছুই বুঝিলাম না   whats_the_matter
ইনটার-গ্যালাক্টিক এসপিওনাজের ব্যাপারখানাও মাথার উপরে দিয়া গেলো.... আকাশের খবর জানতে জিনরা কি ধরণের রিসিভার ব্যবহার করতো যে সামান্য উল্কার কারণে সিস্টেমে গোলযোগ হয়? ঐ জমানায় মারফী কোম্পানীর রেডিও থাকলে মনে হয় এই গ্যান্জাম হতো না...   wink

সেকালের মানুষ বিশ্বাস করতো আকাশের ওপারে ঈশ্বরের বসবাস। আজ মানুষের গ্রহান্তর জয় করার কারণে ঈশ্বরকেও ঠিকানা বদল করতে হয়েছে....

"I see no god up here..." - Yuri Gagarin - the first man in space, 1961
http://i.imgur.com/ga7vY.jpg

Calm... like a bomb.