৬১

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

টমাটিনো লিখেছেন:

জ্ঞান বিনুদুন সবই পেলুম  tongue
আচ্ছা Haunted House/Place এইসব ঘটনা/কাহিনীর সঠিক ব্যখ্যা কি রকম ? ইসলামিক ও বৈজ্ঞানিক দুইটাই চাচ্ছি ।

ইসলামিকঃ
এসব জায়গায় জ্বীন বসবাস করে।  তো কোনো মানুষের আগমন এরা পছন্দ করেনা। তাই ভয় দেখিয়ে তাড়িয়ে দেয়।

বৈজ্ঞানীকঃ
হ্যালুসুনেশন। এর বেশি ব্যাখ্যা আমার  কাছে আর নেই।

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

৬২

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

যাপিত সময় লিখেছেন:

আমি আমার চিন্তাটা বলি। যতদূর জানি কোন পলিথীস্টিক ধর্মে জ্বীন জাতীয় কিছুর উল্লেখ নাই। জ্বীন হল ইসলামিক কনসেপ্ট।

যতদূর জেনেছি, জ্বিন আসলে পলিথিইস্টিক বা প্যাগান ধর্ম থেকেই ইসলামে অনুপ্রবেশ করেছে। পৃ-ইসলামিক পারস্যে ইফরিত নামক "জ্বিন-প্রজাতী"র উল্লেখ পাওয়া গেছে। পৃ-ইসলামিক আরবে জ্বিন উপাসনা সম্পর্কেও জানা যায়। জ্বিন উপাসনা করতেন জ্বিন পুরোহিতরা। ইবনে ইসহাক রচিত সিরাতে নবীর দাদা আব্দাল মোত্তালেব জ্বিন পৃস্ট-দের সাথে কনসাল্ট করে বড় বড় সিদ্ধান্ত নিতেন এমন উল্লেখ আছে। আব্দাল মোত্তালেব যমযম কূপ খনন করেন। কূপ খননের পর সেখানে দুই জ্বিনের মূর্তি প্রতিষ্ঠা করা হয় বলে উল্লেখ আছে (তবে ইবন ইসহাকের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে প্রচুর বিতর্ক আছে - ইতিহাসের তোয়াক্কা না করে মনগড়া বা স্রেফ বানোয়াট তথ্য লিপিবদ্ধ করার অভিযোগ আছে তাঁর বিরুদ্ধে)

তবে হ্যাঁ, লোকাল আরব কুসংস্কারগুলো গ্লোবালী এক্সপোর্ট করার জন্য ইসলামকে ক্রেডিট দিতে পারেন। খৃস্টান শিশুদের লিম্বো, হেলফায়ার, ডীমন ইত্যাদির ভয় দেখিয়ে জীবনভর বুদ্ধি-প্রতিবন্ধী করে রাখা হয় - ওগুলোও হাতেগোণা কিছু আর্লী রোমান/গৃক খৃস্টান ফ্যানাটিক সেইন্টদের উর্বর মস্তিষ্কের কল্পনা। পৃথিবীর দান্তে, বেনেডিক্ট, ইসহাক, গাজ্জালী-রা ধর্মগুলোর মূল প্রচারকদের চাইতেও সফলভাবে নিজেদের মীথগুলো প্রচার এবং প্রতিষ্ঠা করে গিয়েছেন।

যাপিত সময় লিখেছেন:

আমি আমার চিন্তাটা বলি। যতদূর জানি কোন পলিথীস্টিক ধর্মে জ্বীন জাতীয় কিছুর উল্লেখ নাই। জ্বীন হল ইসলামিক কনসেপ্ট। বহু মানুষকে বলতে শুনেছি যে ভূত বলে কিছু নেই, আসলে ভূতুরে কান্ড গুলো সব জ্বীনের কারসাজি। আর জ্বীন আগুনের তৈরী হলেও শারীরিক আকৃতি বা গড়ন মানুষের মতই। এদের মাঝেও খারাপ ভাল আছে। তো ব্যাপারটা হল মূলত ভৌতিক কান্ড বলে আমরা স্বাভাবিকভাবে যা বুঝি তার ব্যখ্যা দেবার প্রবনতা থেকে তৈরী। এখন ব্যাপারটা হল ভূত বা জ্বীন আমরা যাই বলি না কেন তা মানুষের গঠন কেন নেয়? আবার অনেক জায়গায় শুনেছি কুকুর রুপী/কালো বেড়াল রুপী জ্বীন ইত্যাদি। এখন কথা হল টিকটিকি, তেলাপোকা, ব্যাং, মশা, মাছি ইত্যাদি ও প্রাণী, জ্বীন ভূত হিসেবে এগুলোর আকৃতি কারো কল্পনায় আআসেনা কেন??? উত্তর পরিষ্কার, ওগুলো জ্বীন ভূত হিসেবে যথেষ্ঠ ভয়ংকর নয়। সেকারণে এগুলো দিয়ে ভয় দেখিয়ে সহজে মানুষকে কনভিন্স করা যাবেনা। কাজেই জ্বীন হবে ৭-৮ ফুট লম্বা, উলটো পায়ে হাঁটবে, মাটি থেকে ২ ফুট উচ্চতায় ভাসবে ইত্যাদি।
cool cool

চমৎকার এ্যানালিসিস!

এ্যান্থ্রপিক পৃন্সিপল।

পৃথিবীর সমস্ত প্রাণীকুলের মধ্যে একমাত্র হোমো স্যাপিয়েন্স-ই সক্ষম সেল্ফ-রিফ্লেক্টিভ, এ্যাবস্ট্র্যাক্ট চিন্তাভাবনা করতে (হায়ার কগনিশন)।

সব প্রাণী প্রজাতীই স্পেশিসিস্ট (speciesist) হয়ে থাকে; নিজের স্পেশিস ছাড়া অন্য প্রজাতীর প্রতি তেমন সহানুভূতি থাকে না। যেমন, আমরা কোনো ব্যক্তির হত্যা/খুন/অপমৃত্যু হলে মুষড়ে পড়ি, অথচ আমরাই আবার ঈদ/পূজা ইত্যাদি পালা/পার্বনে নির্বিকার চিত্তে পশু জবাই করতে হাত কাঁপে না।

যেহেতু (সেরিব্রাল পাওয়ারের দিক থেকে) মানুষের সমকক্ষ কোনো প্রাণী নেই, স্বাভাবিকভাবেই মানুষ মনে করে থাকে তারাই বিশ্বের সেরা জীব, পৃথিবীর রাজা। বিশ্ব সৃষ্টি হয়েছে মানুষের জন্য। অন্যান্য নির্বোধ প্রাণীরা "বাই এ্যাক্সিডেন্ট" সৃষ্টি হয়েছে, ওদের জীবনের কোনো মূল্য নেই, ওদের অস্তিত্বের কোনো হায়ার পারপাস নেই।

স্বাভাবিকভাবেই জ্বিন, ভূত, দৈত্য-দানব, প্রেত ইত্যাদি কিন্চিৎ মুক্ত-বুদ্ধি সম্পন্ন কাল্পনিক সত্বাও মানব সদৃশ আকৃতিরই হবে। ধর্মগুলোর ইশ্বর/দেবতারাও মানবাকৃতির হয়ে থাকেন সচরাচর।

জ্বিনদের তাই মানুষের মতই দেখতে হতে হবে। এ্যান্জেলদেরও মানুষের মত দেখতে হতে হবে (পাখনা যুক্ত)। পরীদেরও মানুষের মতই দেখতে হতে হবে। শয়তান/লুসিফারকেও মানুষের মত দেখতে হতে হবে। যিউস-ও (গৃক সুপ্রীম গড) মানুষের মত দেখতে হতে হবে। গণেশ-ও মানুষের মত দেখতে হতে হবে। ওরায়ন (বাংলায় সম্ভবত: কালপুরুষ) নক্ষত্রপুন্জও মানুষের মত দেখতে হতে হবে।

মানুষের মত মানে - দুই হাত বিশিষ্ট, ব্যারেল শেইপড টর্সো (ধড়) ও খাড়া চলাচলকারী বাইপেডাল জন্তুর শেপ। মানুষের আকৃতি যদি অক্টোপাসের মত হতো, তাহলে তাদের কল্পিত জ্বিন ভুত দেবতাগুলোও অক্টোপাস আকৃতির হতো।

যা হোক, বিজ্ঞান এখন পৃথিবী নামক এ্যাকুয়েরিয়াম থেকে মানুষকে মুক্ত করার কাজ করছে।

Calm... like a bomb.

৬৩

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

invarbrass লিখেছেন:

যতদূর জেনেছি, জ্বিন আসলে পলিথিইস্টিক বা প্যাগান ধর্ম থেকেই ইসলামে অনুপ্রবেশ করেছে।

ইবলিশ কিন্তু একটা জ্বীন। সে হিসেবে বলা যায় প্রি ইসলামিক কেন, মানুষ সৃষ্টির আগেই  জ্বীনের কনসেপ্ট ছিল।

invarbrass লিখেছেন:

শয়তান/লুসিফারকেও মানুষের মত দেখতে হতে হবে।

কাছাছুল আম্বিয়া (The Stories of the Prophets) এর মতে শয়তান (ইবলিশ) এর বাবা ছিল সিংহের মত দেখতে (মা কেমন ছিল খেয়াল নাই) আর শয়তান ছিল তার বাবা ও মা উভয়ের মত দেখতে। কতটুকু সত্য জানিনা।

আচ্ছা  বলা হয়  মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব। তাহলে জ্বীনের ক্ষমতা মানুষ থেকে বেশি কেন????

জ্বীনদের কিছু ক্ষমতাঃ (আমার জানামতে)
১. বহুরূপী।
২. টেলিপোর্টেশন।
৩. ইনভিজিবিলিটি।
৪. ইনভেস্টিগেশন করে কোনো তথ্য জানা। (যেমন- কে কি করেছে ইত্যাদি)
৫. সাইজ ছোট- বড় করা।
৬. কাউকে বহন করে নিয়ে যাওয়া।
৭. মাইন্ড কন্ট্রোল। (কারো উপর ভর করা)
৮. উড়তে পারা। (যদিও টেলিপোর্টেশন করলে উড়ার দরকার নাই)

জ্বীনদের যা করার ক্ষমতা নাইঃ
মানুষের মন কন্ট্রোল করা। কোনো  জ্বীন আপনাকে এমন করতে পারবেনা যে আপনি কোনো মেয়েকে ভালো বাসবেন বা আপনাকে কোনো মেয়ে ভালো বাসবে।

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

৬৪

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

আবারো ধন্যবাদ ইনভার্ব্রাস ভাইজান।

invarbrass লিখেছেন:

যা হোক, বিজ্ঞান এখন পৃথিবী নামক এ্যাকুয়েরিয়াম থেকে মানুষকে মুক্ত করার কাজ করছে।

killer line...

মেরাজ০৭ লিখেছেন:

ইবলিশ কিন্তু একটা জ্বীন। সে হিসেবে বলা যায় প্রি ইসলামিক কেন, মানুষ সৃষ্টির আগেই  জ্বীনের কনসেপ্ট ছিল।

জ্বীনের কনসেপ্ট তো আছে মানুষের ভেতর। মানুষ সৃষ্টির আগে জ্বীনের কনসেপ্ট কাদের ভেতর ছিল?

গর্ব এবং আশায় ভরা বুক! কাঁধে কাঁধ, হাতে হাত, সমুন্নত শির!
আমি তুমি সবাই মিলে এক, একই লাল সবুজের কোলে সবার নীড়।

৬৫

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

এত জেনে কি হবে ? চাইলেও অনেক দিন বেচে থাকা যাবে না। মরে গেলে ম্যামরি শেষ tongue সো হাড্ডিতে ডাটা কম ঢুকানোই ভালো  hehe hehe


অট এর জন্য দুঃখিত

মুইছা দিলাম। আমি ভীত !!!

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

৬৬

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

মেরাজ ভ্রাতা তো আপনি এইসব কিভাবে জানলেন? বিশাল লিস্ট বানায় ফেললেন দেখি... জ্বীনের সাথে আপনার ইনকাউন্টারের ঘটনা শেয়ার করেন

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

৬৭

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

জীন-প্রেমীদের জন্য সুখবর! সুখবর!! ব্রেকিং সুখবর!!!  mail

মাত্র ১২ ঘন্টা আগে খবরে প্রকাশ: ইতালীয় জীনের ছবি তুলতে সক্ষম হয়েছে এক বৈজ্ঞানিক!  yahoo পৃথিবীতে এই প্রথম নাকি জীনের ফটো তোলা হলো।  big_smile বিস্তারিত জানতে ও জীনের চেহারা মোবারক দেখতে এই লিংকে ঢুঁ মারুন।

অতএব আর জীনের অস্তিত্ব নিয়ে সন্দেহ থাকার কথা না!  shame অবশেষে জীন প্রমাণিত হওয়ায় খুশিতে চেয়ার থেকে পড়ে যেতে ইচ্ছা করতেছে....  lol2

ওহ বাই দি ওয়ে  surprised এই জীন সেই জ্বিন না....  brokenheart

ইহা ডিএনএ জীন, কাছাছুল আম্বিয়া জ্বিন না কিন্তু  hehe

মেরাজ০৭ লিখেছেন:

কাছাছুল আম্বিয়া (The Stories of the Prophets) এর মতে শয়তান (ইবলিশ) এর বাবা ছিল সিংহের মত দেখতে (মা কেমন ছিল খেয়াল নাই) আর শয়তান ছিল তার বাবা ও মা উভয়ের মত দেখতে। কতটুকু সত্য জানিনা।

বইটার নাম অনেকবার শুনেছি। তবে ইহা কি বস্তু সে ব্যাপারে আইডিয়া ছিলো না। "কাছাছুল আম্বিয়া" গুগলিং করে বেশ কিছু মুখরোচক আইটেম পেলাম  big_smile

যা হোক, কাছাছুল আম্বিয়ার সন্ধানে বের হতে গুগল আমাকে এখানে নিয়ে গেলো big_smile

এছাড়া, ৩ বছর আগে এই প্রজন্ম ফোরামেও কাছাছুল আম্বিয়া নারী জাতির শারীরিক ব্যাপারস্যাপার বিষয়ে অনবদ্য জ্ঞান প্রসব করে ফেলেছে দেখে আমোদিত হলাম  tongue

কিছুদিন আগে ফারাবী-আশেক এক আলেম ভ্রাতার সহিত নবী মূসার প্রথম নরহত্যা বিষয়ে তর্ক হইতেছিলো। বাইবেলে ঘটনার বর্ণনা আছে এক রকম, কিন্তু তেনারা আবার বাইবেল মানতে রাজি না। মূসা নবীর শারীরিক শক্তি নাকি ৪০/৪২ জন পুরুষের সমান ছিলো, তিনি কাহাকে আদর করিয়া চড় মারিলেই নাকি ব্যক্তি মৃত্যুবরণ করিতো।

এই মাত্র গুগল ওহী মারফত আল-ফেছবই হতে জানলাম, এক্সোডাস আসলেই ভুল ছিলো:

রাস্তার উপরে শাহি মহলের বাবুর্চি কাবুনের সাথে সামুরা নামক এক কাঠুরিয়ার ভীষণ ঝগড়া হচ্ছে। মুসা সেখানে উপস্থিত হয়ে পড়লে সামুরা ঘটনাটা বলে তার নিকট সাহায্য চাইল। মুসা এই অন্যায় সহ্য করতে না পেরে সক্রোধে কাবুনকে ঘুষি মারলেন। আল্লাহর মরজি, লোকটি সেই ঘুষিতেই প্রাণত্যাগ করল।"
(পৃষ্ঠা ২৭৬, কাছাছুল আম্বিয়া)

"অতঃপর আবার খিজির বললেন, হে মুসা, আমি যে বালকটিকে হত্যা করেছি, ঐ বালকটির ভিতরে নাস্তিকতার বীজ নিহিত ছিল, অথচ তারা পিতামাতা অত্যন্ত ধার্মিক। তজ্জন্য আমি বালকটিকে নিষ্পাপ অবস্থায়ই হত্যা করলাম, যাতে সে নিজেও বেহেশতি হয় এবং পিতামাতার বেহেশতি হওয়ার নসিবও যেন অক্ষুণ্ন থাকে।"
(পৃষ্ঠা ৩১৮, কাছাছুল আম্বিয়া)

এই বইটাই তাহলে সকল সহীহ গান্জার সোর্স নাম্বার ওয়ান!  lol আরেকটি নির্মল বিনুদনের খনির সন্ধান দেবার জন্য অন্তরের অন্ত:স্থল থেকে মোবারকবাদ লউন! কাছাছুল এতদিন চোখে পড়ে নাই কেন সেটাই রহস্যময়.....  thinking নিশ্চয়ই কোনো দুষ্টু জ্বিনের আছর...  angry

Calm... like a bomb.

৬৮

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

আমি জীন নিয়ে অনেক কিছুই জানি। বাদশা সুলেমানেরটাই শেয়ার করি। কেউ আবার এটাকে রুপকথা ভাববেন নাঃ
১) বাদশা সুলেমান পৃথিবীর সবচেয়ে জ্ঞানী লোক ছিলেন। তিনি পশু পাখির ভাষা বুঝতেন। তার কথায় জীনরা পর্যন্ত উঠাবসা করতো। একবার তিনি এক দেশ থেকে আরেক দেশে যাবার জন্য এক জীনকে আদেশ দিলেন উনাকে সিংহাসনসহ আকাশ দিয়ে উরিয়ে আরেক দেশে নিয়ে যেতে। জীন সাথে সাথে উনাকে নিয়ে আকাশে উড়াল দিল। আকাশ পথে তিনি জীনকে জিজ্ঞেস করলেন তোমরা আমার কথা কেন শোন? জীন তখন উনাকে বলল, আপনার হাতের আঙ্গুলে একটা আংটি আছে সেটার জন্য। আংটি খুলে ফেললেই আপনার কথা আর কেউ শুনবে না। উনি তখন আঙ্গুল থেকে আংটি খুললেন। জীনটা অমনি সিংহাসনটা উল্টে ফেললো। সুলেমান তারাতারি করে আবার আংটি পরে ফেললেন।
২) জেরুজালেমের বাইতুল মুকাদ্দাস বাদশা সুলেমান জীনদের দিয়ে তৈরি করেছিলেন। শত শত জীন মিলে বাইতুল মুকাদ্দাস তৈরি করার সময় কেউ যাতে কাজে ফাকি দিতে পারে সেজন্য বাদশা সুলেমান লাঠি ভর দিয়ে বাহিরে দাড়িয়ে থাকতেন। দাঁড়ানো অবস্থায় বাদশা সুলেমান মৃত্যুবরন করেন। জীনরা সেটা বুঝতে পারেনি। অনেকদিন পর পোকায় খেয়ে লাঠি ভেঙ্গে গেলে উনি মাটিতে পরে যান। তখনই জীনরা বুঝতে পারে ও সবাই কাজ ছেড়ে চলে যায়।

৬৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (০৩-১২-২০১২ ১২:৩৪)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

জ্বিন ও সোলেমানী আংটি প্রেমিকদের গ্যানের ঝুলির ওজন বাড়াইতে আমিও একখানি খাঁটি সত্য ঘটনা পেশ করিলাম:  tongue

21. বাদশাহ সুলায়মান (আঃ) একটি ঐশী শক্তি সম্পন্ন আংটি ব্যবহার করতেন । যার উপর ইসমে আজম লিপিবদ্ধ থাকায় পায়খানায় গমন কালে তিনি তাজ্ঞ তাঁর এক বাঁদীর নিকট রেখে যেতেন। একদা তাঁর দরবারের ছখরা নামক এক জীন স্বীয় বেশ পাল্টিয়ে তাঁর বেশ ধারণ করে বাঁদীর নিকট থেকে আংটি টি নিয়ে নেয় আংটিটি হাতে পরে ঐশী শক্তির গুণে ঐ জীন সুলায়মান (আঃ) এর ন্যায় আচরণ করতে থাকে। বাদশাহ সুলায়মান (আঃ) হাজত থেকে ফিরে আংটিটি না পেয়ে হতবাক হয়ে যান।

সূত্র: এম,এন,এম,ইমদাদুল্লাহ (অনুদিত), কাছাছুল আম্বিয়া (ঢাকাঃ বাংলাদেশ তাজ কোম্পানী লিঃ,১৪০১ বাংলা), পৃঃ ৯৩-৯৪।

কপিপেস্ট সূত্র: এম এন এম গুগল মামুল্লাহ (অরিজিনাল), "আল-আইয়্যামে ড. ত্বহা হুসায়নের শৈশব জীবন চিত্র", আল-মাদানী ডিজিটাল লাইব্রেরী

আল আইয়্যামে ড: ত্বহা-র নাম এই প্রথম শুনলাম। তবে আমোদের সহিত বিরল মনীষীর শৈশবের জীবনী পড়তে পড়তে এই প্যারাগ্রাফে এসে বিরাট এক উষ্টা খেয়ে ধরাশায়ী হয়ে গেলাম:

১৯২৫ সালে ফ্রান্স হতে প্রত্যাবর্তন করে ডঃ ত্বহা হুসায়ন কায়রো বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবী সাহিত্যের অধ্যাপক নিযুক্ত হন।৪৪ তিনি অধ্যাপনাকালে ছাত্রদের মুক্ত ধ্যান-ধারণা পোষণ ও অন্ধ অনুকরণ থেকে বিরত থাকতে বিশেষ জোর দিতেন। ১৯৩০ সালে তিনি কায়রো বিশ্ববিদ্যালয়ে রেক্টর পদে নির্বাচিত হন।৪৫ কিন্তু স্বাধীন চিন্তাধারা ও অপ্রিয় সত্য কথা বলার দায়ে প্রধানমন্ত্রী ইসমাজ্ঞঈল সিদ্দিকীর বিরাগভাজন হলে রেক্টর পদ হারান।

(পিএস: আন্ডারলাইন করা বাক্য সমষ্টির মাজেজা অনুধাবন করিতে চাইলে মণিষীর জীবনি পঠন করা ফরযে কেফায়া)

Calm... like a bomb.

৭০

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

vb_coder লিখেছেন:

দাঁড়ানো অবস্থায় বাদশা সুলেমান মৃত্যুবরন করেন। জীনরা সেটা বুঝতে পারেনি। অনেকদিন পর পোকায় খেয়ে লাঠি ভেঙ্গে গেলে উনি মাটিতে পরে যান। তখনই জীনরা বুঝতে পারে ও সবাই কাজ ছেড়ে চলে যায়।

আমার জানামতে মানুষ মারা যাবার ৪ ঘন্টা পরই তার উপর  মাছি বসে এবং শুটকিট ছাড়ে।  তাহলে  লাঠি ভাংগার আগে তো  তার দেহে পঁচন ধরবার কথা  thinking

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

৭১

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

মেরাজ০৭ লিখেছেন:
vb_coder লিখেছেন:

দাঁড়ানো অবস্থায় বাদশা সুলেমান মৃত্যুবরন করেন। জীনরা সেটা বুঝতে পারেনি। অনেকদিন পর পোকায় খেয়ে লাঠি ভেঙ্গে গেলে উনি মাটিতে পরে যান। তখনই জীনরা বুঝতে পারে ও সবাই কাজ ছেড়ে চলে যায়।

আমার জানামতে মানুষ মারা যাবার ৪ ঘন্টা পরই তার উপর  মাছি বসে এবং শুটকিট ছাড়ে।  তাহলে  লাঠি ভাংগার আগে তো  তার দেহে পঁচন ধরবার কথা  thinking

মাছিতো বুঝে নাই যে উনি মারা গেছে।

৭২

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

vb_coder লিখেছেন:

মাছিতো বুঝে নাই যে উনি মারা গেছে।

lol2 lol2 lol2 lol2 lol2

গর্ব এবং আশায় ভরা বুক! কাঁধে কাঁধ, হাতে হাত, সমুন্নত শির!
আমি তুমি সবাই মিলে এক, একই লাল সবুজের কোলে সবার নীড়।

৭৩

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

vb_coder লিখেছেন:

মাছিতো বুঝে নাই যে উনি মারা গেছে।

হা হা হা , আরেকজন জীনঅজ্ঞ পাইলাম।ভ্রাতা এ কিশুনাইলেন ??
আমি যতটুকু জানি তাতে উনি কাঁচের ঘরে অবস্থান করছিলেন। এই কথাটা কইলেও পারতেন...

এই ব্যাক্তির সকল লেখা কাল্পনিক , জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিল পাওয়া গেলে তা সম্পুর্ন কাকতালীয়, যদি লেখা জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিলে যায় তার দায় এই আইডির মালিক কোনক্রমেই বহন করবেন না। এই ব্যক্তির সকল লেখা পাগলের প্রলাপের ন্যায় এই লেখা কোন প্রকার মতপ্রকাশ অথবা রেফারেন্স হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না।

৭৪ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (০৪-১২-২০১২ ১১:১৯)

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

সাইফুল_বিডি লিখেছেন:
vb_coder লিখেছেন:

মাছিতো বুঝে নাই যে উনি মারা গেছে।

হা হা হা , আরেকজন জীনঅজ্ঞ পাইলাম।ভ্রাতা এ কিশুনাইলেন ??
আমি যতটুকু জানি তাতে উনি কাঁচের ঘরে অবস্থান করছিলেন। এই কথাটা কইলেও পারতেন...

আর সাথে গুডনাইট ম্যাট এবং মরটিন কয়েলও নিশ্চয় ছিলো।  hehe এবং কাঁচের ঘরখানিও কার্ল-যাইস কোম্পানীর মেডিকেল গ্রেড এ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল সল-জেল সিলভার-যুক্ত সিলিকা গ্লাস দ্বারা নির্মিত ছিলো নির্ঘাৎ। (ইহা ২০১২ সাল, এই এ্যান্টিবায়োটিকের যুগে পুট্রেফেকটিভ ব্যাকটেরিয়াদের নিয়েও তো ভাবতে হবে নাকি?  hehe )

কাঁচের ঘরে মাছি ঢুকতে পারলোনা, লেকিন উইঁপোকা ঠিকই লাঠির ব্যুফে করতে হাজির হয়ে গেলো ক্যামনে এইবার ব্যাখ্যা করেন?  roll

বাই দি ওয়ে, ইউনাইটেড মনার্কীর ৩য় সম্রাট ডেভিড পুত্র সলোমন রাজত্ব করেছিলেন খৃস্টপূর্ব ৯৭০-৯৩০ সাল অব্দি। (প্রায় ৩০০০ বছর আগে)

আর সেমি-ট্রান্সপারেন্ট ও ফ্ল্যাট গ্লাস শীট তৈরীর কৌশল প্রথম আবিষ্কার করে রোমানরা - ১০০ খৃস্টাব্দে (~১৯০০ সাল আগে) তাও আবার আর্কিটেকচারে ব্যবহারের উপযোগী করতে আরো ৮/৯ শতাব্দী লেগে যায়। ১০০০ সালে ইউরোপে গ্লাস-মেকিং টেকনোলজীতে বিপ্লবী পরিবর্তন আসে। ভেনিস, ইটালী এবং অন্যান্য ইউরোপিয়ান দেশে মধ্যযুগের কায়দা বাদ দিয়ে নতুন আধুনিক পদ্ধতিতে গ্লাস তৈরীর টেকনিক বের করে। এই সময় থেকেই মূলত: বিভিন্ন ক্যাথেড্রাল, রাজপ্রাসাদ ইত্যাদির আর্কিটেকচারে ট্রান্সপারেন্ট গ্লাস ব্যবহার শুরু হয়।

সলোমনকে কাঁচের ঘরে স্থাপন করা অনেকটা সম্রাট আলেক্সান্ডার দি গ্রেটের (~২৩০০ বছর আগে) হাতে আইফোন ৬ তুলে দেবার মত...   kidding  hehe

Calm... like a bomb.

৭৫

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

কিঞ্চিত অটঃ

জ্বীন ‌+ মানুষ ক্রস স্পিসিজ দেখতে পাবেন শিঘ্রই wink

Shubhajit Bhowmik লিখেছেন:

আজকে বাংলা অনলাইনের ইতিহাসে একটি স্মরণীয় দিন।

মোটামুটি সবাই হয়তো জেনে গেছে ইতোমধ্যে, ফেসবুকের জনপ্রিয় চরিত্র Farabi Shafiur Rahman ভাই এখন ঢাকায়।
.....................
.....................
আমি ফারাবির ছোট্ট একটা একটি সাক্ষাৎকার নিয়েছি। এই ছোট্ট সাক্ষাৎকারটিতে তিনি আমার জ্ঞান রাজ্যে বহু মণিমুক্তা যোগ করলেন। জানা গেলোঃ
.....................
.....................
ক। ভুত-প্রেত, আত্মা - এগুলোর কোনওটাই নাই। কিন্তু জ্বিনের কথা ইসলামে বলা আছে।

খ। ফারাবির সাথে ব্যক্তিগত পর্যায়ে কিছু জ্বিনের পরিচয় আছে। তারা খুবই ক্লোজ জ্বিন। একদিন ফারাবি ভাই সূরা জ্বিন পড়ছিলেন। সেই সময় একটি মেয়ে জ্বিনের সাথে তার ছহবত হয়। তার এতোই আরাম লাগছিলো যে মনে হচ্ছিলো, করাত দিয়ে কেটে ফেললেও তার কোনও ব্যাথা লাগবে না।

আলহামদুলিল্লাহ ! শুনে আনন্দিত হলাম যে পৃথিবীর প্রথম মানুষ হিসাবে ফারাবি ভাই জ্বিনদের সাথে ছহবত করতে সক্ষম হয়েছেন। মানব সভ্যতার ইতিহাসে এই অর্জন নিঃসন্দেহে ভবিষ্যত ছহবত ইচ্ছুকদের জন্য পাথেয় হয়ে থাকবে।

সম্পুর্ন ঘটনার লিংক: (১) (২) (৩)

সারিম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

৭৬

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

ওহ ইনিই ফারাবী...  neutral আমি কিন্চিৎ বয়স্ক ব্যক্তি আশা করছিলাম  wink ইনি তো মনে হচ্ছে আমার কাছেপিঠেই বসবাস করেন...

সাক্ষাৎকারের অডিও ক্লিপ এখানে

ধর্মগ্রন্থ পড়তে পড়তে যে বিশেষ তীব্র শারীরিক আনন্দ পাওয়া যায় (তাও আবার আধ-ঘন্টা স্থায়ী) তা জেনে চমৎকৃত হলাম  lol

Calm... like a bomb.

৭৭

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

বুঝলাম, এমনি এমনি আর ফারাবী কে ফেবুনবী বলা হয় না, অবশ্য জোকার নালায়েক অফ বাংলাদেশ ও বলা যায়...  thinking thinking thinking

আমার তো মনে হল ভদ্রলোকের সাইকোলজিক্যাল থেরাপীর প্রয়োজন... hehe hehe hehe

গর্ব এবং আশায় ভরা বুক! কাঁধে কাঁধ, হাতে হাত, সমুন্নত শির!
আমি তুমি সবাই মিলে এক, একই লাল সবুজের কোলে সবার নীড়।

৭৮

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

invarbrass লিখেছেন:

সলোমনকে কাঁচের ঘরে স্থাপন করা

আমার মনে হয়  ঘরটা জ্বীনের তৈরী সিলিকন বেসড ম্যাটেরিয়ালে তৈরী ছিল।

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

৭৯

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

সারিম লিখেছেন:

শুনে আনন্দিত হলাম যে পৃথিবীর প্রথম মানুষ হিসাবে ফারাবি ভাই জ্বিনদের সাথে ছহবত করতে সক্ষম হয়েছেন।

মিয়া এটা কি শুনাইলা  lol2 lol2

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

৮০

Re: জ্বীন নিয়ে মেগা টপিক

ধুরো ব্রাসু ভাই কি যে কন না । ওই লোকের কাজে অনেক জীন ছিল তারা হয়তো বানায়া দিছে।  surprised

এই ব্যাক্তির সকল লেখা কাল্পনিক , জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিল পাওয়া গেলে তা সম্পুর্ন কাকতালীয়, যদি লেখা জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিলে যায় তার দায় এই আইডির মালিক কোনক্রমেই বহন করবেন না। এই ব্যক্তির সকল লেখা পাগলের প্রলাপের ন্যায় এই লেখা কোন প্রকার মতপ্রকাশ অথবা রেফারেন্স হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না।