সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন তার-ছেড়া-কাউয়া (১২-১০-২০১২ ০৯:২৭)

টপিকঃ পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

চকচকে হোটেল আর মারদাঙ্গা খানাদানাঃ
এই হোটেলে মনেহয় সবাই গাড়িতে করে ডাইরেক্ট ভিতরের দরজার কাছে এসে নামে। সেজন্য আমরা যখন হোটেলের মেইনগেটে নেমে হেটে ভিতরে  ঢুকলাম তখন কেউ এগিয়ে এলো না। একটু পরে যখন ভিতর থেকে আমাদেরকে দেখলো, তখন দৌড়ায় দৌড়ায় এসে হাত থেকে ট্রলি ব্যাগটা নিয়ে নিলো। মেজো ভাই আগে থেকে বুকিং দিয়ে রেখেছিলো। সে কথা রিসেপশনে বলার সাথে সাথে বুকিংটা চেক করে রুমের ম্যাগনেটিক চাবি বুঝিয়ে দিলো, আর কি কি সুবিধা তারা দিচ্ছে তাও বলে দিলো। আমরা নিয়েছিলাম সি-সাইড সুপেরিয়র ডিলাক্স রুম। ঝকঝকে লবির মধ্য দিয়ে আমরা লিফটে উঠলাম, আর এরপর আমাদের রুমে এসে ঢুকলাম।
https://lh3.googleusercontent.com/-KPIfCYXqeXE/UHcazwis_II/AAAAAAAAASg/KBx2DbxYxUA/s640/SAM_1971.JPG

https://lh5.googleusercontent.com/-IZ0O7JNWAHE/UHcbJmwLQ0I/AAAAAAAAASo/1fzR9Pgr0yE/s640/SAM_1972.JPG

রুমের ইন্টেরিয়র এক কথায় দারুণ। বাথটাব আর হেয়ারড্রায়ারসহ টয়লেটটাও সেরকম। এসি করা রুমের মধ্যে  ছিলো ছত্রিশ ইঞ্চি এলইডি টিভি, ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট কানেকশন, একটা ডিজিটাল ওয়িং মেশিন, একটা সিকিউরিটি লকার। বারান্দায় পাতা দুটো চেয়ারে বসে, সবসময় চোখের সামনেই সমুদ্রটা দেখার ব্যবস্থাও ছিলো। আমরা যে অফারটা নিয়েছিলাম সেটার মধ্যে সকালের বুফে ব্রেকফাস্টের সাথে জিম, সুইমিংপুল, স্টিম বাথ এবং সোনাবাথও ছিলো কমপ্লিমেন্টারী।

https://lh4.googleusercontent.com/-IX01cZMUx4k/UHVijIWSUDI/AAAAAAAAAQM/Es2bz0twAbI/s640/SAM_1777.JPG

https://lh6.googleusercontent.com/-MgW3vr2gAdk/UHVoT8TRV9I/AAAAAAAAARM/ExlQ7OB3HQk/s640/SAM_1832.JPG

রুমে ঢুকেই ফ্রেশ হবার জন্যে বাথরুমে ঢুকে দেখি যে, টুথব্রাশের প্যাকেট আছে। শ্যাম্পু লোশনের টিউবও তারা দিয়েছে। কিন্তু কোন টুথপেস্ট দেয়নি। মেজাজ খারাপ করে রিসেপশনে ফোন দিলাম।
-    হ্যালো, ওশান প্যারাডাইজ রিসেপশন। হাউ মে আই হেল্প ইউ?
বাংলা এক্সপেক্ট করে ফোন দিয়ে এত সুন্দর ফ্লুয়েন্ট ইংরেজী শুনে কিছুক্ষণ থম মেরে বসে থাকলাম। তারপর আস্তে ধীরে বললাম,
-    আই কান্ট ফাইন্ড এনি টুথপেস্ট ইন দ্যা বাথরুম। সো, ক্যান ইউ প্লিজ ডু সামথিং এবাউট ইট?
-    ওকে ওকে। অ্যা, উমম... ঠিক আছে স্যার। আমি এক্ষুনি কাউকে পাঠাচ্ছি।
বুঝলাম যে মনেহয় প্রথম লাইনটাই সুন্দরমতন শিখেছে। অথবা আমার বাজে উচ্চারণের ইংরেজী শুনে বুঝেছে যে, এ ব্যাটার সাথে বাংলা বলাই শ্রেয়। এ ঘটনার প্রায় সাথে সাথেই দরজায় নক। দরজা খুলে দেখি যে, হাউজকিপিং এর এক লোক দাঁড়িয়ে আছে হাতে দুটো টুথপেস্ট নিয়ে। আমাকে টুথপেস্ট দুটো দিতে দিতে দেতো হাসি হেসে বললো,
-    স্যার, টুথব্রাশের প্যাকেটের ভিতরেই টুথপেস্ট আছে। আপনি মনেহয় খুলে দেখেননি।
নিজের বেকুবী দেখে নিজেরই চরম মেজাজ খারাপ হলো। আর এই কাহিনী দেখে আমার বউ দেখি ননস্টপ হেসেই চলেছে, আর বলছে, “ও গড, ইউ আর সো ফানি। হি হি হি।”

ফ্রেশ হয়ে আমরা নিচে গেলাম খাওয়াদাওয়া করতে। একতলায় হোটেলের নিজস্ব রেস্টুরেন্ট আছে। নাম ক্যাফে লীফ। মনে করেছিলাম খালি ঘাস জাতীয় জিনিস পাওয়া যায়। এজন্যে এই নাম। কিন্তু গিয়ে দেখি যে, আমার অনুমান মিথ্যা। অনেক কিছুই পাওয়া যায়। তার মধ্যে আমরা ওর্ডার করলাম বাংলা-প্ল্যাটার। মানে বাংলাদেশি পাচমিশালী আরকি। এই প্ল্যাটারে আমি নিলাম কোরাল মাছ। আর আমার বউ নিলো গরুর মাংস। ব্যক্তিগতভাবে আমি কক্সবাজারে এসে মাছ না খেয়ে অন্য কিছু খাওয়ার মানে দেখি না। এখানে আসলেই আমি গুণগুণ করতে থাকি, “মৎস্য কিনিব, খাইবো সুখে। কি আনন্দ, লাগছে বুকে।” খানা বেশ তাড়াতাড়িই এলো। প্ল্যাটারে ছিলো ভাত, একটা সবজি, বেগুনের তরকারী, মাছ ভর্তা, সালাদ, ডাল, কোরাল মাছ আর গরুর মাংস। প্রথমে ভেবেছিলাম যে, এত খাবার সব নষ্ট হবে। কিন্তু সাড়ে পনের ঘন্টার ক্লান্তি আর ক্ষুধার দরুন সব নিমিষেই উধাও করে দিলাম। খাওয়া শেষে ডেজার্ট হিসেবে সার্ভ করলো ক্যারামেল-পুডিং। অস্বীকার করার উপায় নেই যে, এরকম সুস্বাদু পুডিং আমি আগে খাইনি।

খাওয়া-দাওয়া শেষে রুমে ফিরে একটু রেস্ট করলাম। তারপরেই সূর্যাস্ত দেখার জন্যে ছুট লাগালাম সৈকতে। দিগন্তের কাছে মেঘ থাকায় পুরোপুরি দেখতে পারলাম না সূর্যাস্ত। সূর্যাস্ত দেখে ফিরে এলাম রুমে। গরম পানি দিয়ে গোসল করে বের হয়ে কিছুক্ষণ টিভি দেখলাম। অনেকদিন পর টিভিতে নাচাগানা দেখা হলো। এর মধ্যে রানীমুখার্জি দেখলাম “আইয়া” নামক এক ফিল্মে চরম নৃত্য করেছে। এই বয়সে এমন নৃত্য দেয়া চাট্টিখানি কথা নয়। হ্যাটস অফ টু রানী খালাম্মা। সাথে ল্যাপটপ নিয়ে গিয়েছিলাম। সেটাতে স্ট্যাটাস আপডেট দিয়ে রাতের খানা খেতে বেরিয়ে পড়লাম। সুগন্ধা পয়েন্টের কাছে একটা সাধারণ রেস্টুরেন্ট থেকে হাল্কা খাওয়াদাওয়া করে হোটলে ফিরে আসলাম। 

https://lh4.googleusercontent.com/-JvjVWDzu3kM/UHVjbaI1dnI/AAAAAAAAAQU/jofQy1WxB94/s640/SAM_1787.JPG

https://lh4.googleusercontent.com/-sAmBl9zedEg/UHVmDg0MHzI/AAAAAAAAAQw/L9RSrNAM5HE/s640/SAM_1816.JPG

https://lh6.googleusercontent.com/-jxriUB24ejc/UHVnXySZJMI/AAAAAAAAARE/7d2OczLSSYc/s640/SAM_1819.JPG
[চলবে]

রুম ট্যারিফ

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

ভালো লাগলো ভাইয়া। ফটো গুলো চমত্কার লাগলো.।++++++++

ভালোবাসা উষ্ণতা জাগায় বটে......
তবে এ কাজটি দ্রুততার সাথে করে ভদকা.......

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

kothao kau nai লিখেছেন:

ভালো লাগলো ভাইয়া। ফটো গুলো চমত্কার লাগলো.।++++++++


অনেক ধন্যবাদ। ছবিগুলো ভালো ক্যামেরা হলে আরও চমৎকার হতো। এগুলো তুলেছি একটা samsung-PL210 দিয়ে।

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

ছোট্ট টপিক। ছবিও কম, লেখাও কম sick

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

দক্ষিণের-মাহবুব লিখেছেন:

ছোট্ট টপিক। ছবিও কম, লেখাও কম sick


এর জন্যেই এটা সিরিজ। ছোট্ট ছোট্ট অনেকগুলো পর্ব। ছবি কম দেয়ার কারণও আছে। ছবি তুলেছি অনেক। তবে বেশিরভাগেই আমরা নিজেরা আছি। তাই বেছে বেছে ছবি দিতে গিয়ে দেখি দেয়ার মতন ছবি নেই। আপলোড করাও আরেক যন্ত্রণা!

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (১২-১০-২০১২ ১১:১০)

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

খাবারের বর্ণনা শুনে জিভে পানি এসে গেলো  tongue

তার-ছেড়া-কাউয়া লিখেছেন:

সে কথা রিসেপশনে বলার সাথে সাথে বুকিংটা চেক করে রুমের ম্যাগনেটিক চাবি বুঝিয়ে দিলো, আর কি কি সুবিধা তারা দিচ্ছে তাও বলে দিলো

ডিজিটাল চাবির একটা ছবি তুলতেন

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

খাবারের বর্ণনা শুনে জিভে পানি এসে গেলো  tongue
ডিজিটাল চাবির একটা ছবি তুলতেন

খাবারের বর্ণণা আরও থাকবে সামনে lol আসলে চাবিটা আহামরী কিছু না। দুবাই মেট্রোতে দেয়া ম্যাগনেটিক টিকিটের মতন। ৫০০ টাকার প্রিপেইড কার্ডের মত দেখতে। লকের সামনে ধরলে জাস্ট দরজা আনলক হয়ে যায়। আর তারপর রুমের ভিতরের কার্ডস্ট্যান্ডে রাখলে রুমের পাওয়ার অন হয়।

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

তার-ছেড়া-কাউয়া লিখেছেন:

[চলবে]

আবার জিগায় ! খুব মজা পাচ্ছি মনে হচ্ছে আমি আপনাদের সাথে ওখানে আছি।  thumbs_up

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

ইলিয়াস লিখেছেন:
তার-ছেড়া-কাউয়া লিখেছেন:

[চলবে]

আবার জিগায় ! খুব মজা পাচ্ছি মনে হচ্ছে আমি আপনাদের সাথে ওখানে আছি।  thumbs_up


ধন্যবাদ ইলিয়াস ভাই।

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

১০

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

সত্যি কথা হইল বর্ণনা অতি-চমৎকার কিন্তু ফোডু যাচ্ছেতাই  mad

আমার তো এখনি যেতে মন চাচ্ছে  kidding ২ পর্ব অনেক লেটে দিলেন , এরপরের পর্ব তাড়াতাড়ি দেন  big_smile দুম করে ঘোষণা দিয়েন না আবার " সমাপ্ত"  wink

মুইছা দিলাম। আমি ভীত !!!

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১১

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

ভ্রমন কাহিনী বেশ জমে উঠেছে।তবে নৈসর্গিক সৌন্দর্য্যের বদলে ম্যাটেরিয়াল কমফোর্টের বর্ণনা খারাপ লাগল না।

hit like thunder and disappear like smoke

১২ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন তার-ছেড়া-কাউয়া (১২-১০-২০১২ ১৭:০৬)

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

ফারহান খান লিখেছেন:

সত্যি কথা হইল বর্ণনা অতি-চমৎকার কিন্তু ফোডু যাচ্ছেতাই  mad

আমার তো এখনি যেতে মন চাচ্ছে  kidding ২ পর্ব অনেক লেটে দিলেন , এরপরের পর্ব তাড়াতাড়ি দেন  big_smile দুম করে ঘোষণা দিয়েন না আবার " সমাপ্ত"  wink


হা হা হা। হ্যা ছবিগুলো ঘোলা এসেছে। সামনের পর্বে ভালো কিছু ছবি দিবো নে। আমি অবশ্য ছবি তুলতে পারি না ভালো। আর সব ছবি আমি তুলিনি hehe পরের পর্বটা একটু বড় করে শেষ করে দিবো। এক জায়গা নিয়ে বেশি কিছু আর কি লিখবো?

@m0N লিখেছেন:

ভ্রমন কাহিনী বেশ জমে উঠেছে।তবে নৈসর্গিক সৌন্দর্য্যের বদলে ম্যাটেরিয়াল কমফোর্টের বর্ণনা খারাপ লাগল না।


কম্ফোর্টটা খুব বেশি মিস করছি সিলেটে ফেরত আসার পরে। আবার চলে যেতে ইচ্ছে করছে big_smile

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

১৩

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

হুটেলের ভাড়া কত? big_smile

১৪

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

কালমঠ লিখেছেন:

হুটেলের ভাড়া কত? big_smile

http://www.oceanparadisehotel.com/find/index.php#guest

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১৫

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:
কালমঠ লিখেছেন:

হুটেলের ভাড়া কত? big_smile

http://www.oceanparadisehotel.com/find/index.php#guest

হোয়াই ইউ মি শরমজ গিভ ? tongue

১৬

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

পড়ে মজা পেলাম।  big_smile

পড়ের পর্বেই শেষ করে দেবেন! sad

আমাকে আমার মতো থাকতে দাও,আমি নিজেকে নিজের মতো গুছিয়ে নিয়েছি,যেটা ছিল না ছিল না সেটা না পাওয়া ই থাক,সব পেলে নষ্ট জীবন।

১৭

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:
কালমঠ লিখেছেন:

হুটেলের ভাড়া কত? big_smile

http://www.oceanparadisehotel.com/find/index.php#guest

"Chairman Suite" পছন্দ হইছে  big_smile

roll

১৮

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

শিশির লিখেছেন:

পড়ে মজা পেলাম।  big_smile
পড়ের পর্বেই শেষ করে দেবেন! sad

ধন্যবাদ। লিখছি। ত্যানা না প্যাচায় শেষ করে দিবো বলেই চিন্তা করছি।

নতুন পণ্ডিত লিখেছেন:

পছন্দ হইছে  big_smile

ওগুলোতে নিজস্ব জাকুজি আছে love

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

১৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন linx_freak (১২-১০-২০১২ ২৩:১৬)

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

মারদাঙ্গা লেখনী... thumbs_up। কাহিনীতে প্রাণ দেবার ক্ষমতা আপনার অসাধারণ   smile। পরের পর্বের অপেক্ষায় থাকলাম।

জ্ঞান হোক উম্মুক্ত

২০

Re: পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত ভ্রমণ পর্ব-২

linx_freak লিখেছেন:

মারদাঙ্গা লেখনী... thumbs_up। কাহিনীতে প্রাণ দেবার ক্ষমতা আপনার অসাধারণ   smile। পরের পর্বের অপেক্ষায় থাকলাম।


ধন্যবাদ। আপনাদের অনুপ্রেরণাই এর উৎস। পরের পর্ব মাত্র পোস্ট করলাম।

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(