সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ফায়ারফক্স (০৮-১০-২০১২ ২২:৪৪)

টপিকঃ বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

আজ একটি লেখা পড়ে মনে হল শেয়ার করি
http://ciu.somewherein.net/ciu/image/42339/xlarge/?token_id=a7ba99082cf6ca244f4df95e41aef7c8
হোমিওপ‌্যাথি শুরু করেন স্যামুয়েল হ্যানিম্যান ..১৭৯৬ সালে... যা আজও সারা বিশ্বের অনেক মানুষের কাছে একটি নিরাপদ চিকিৎসা হিসেবে বিশ্বাস যোগ্য এবং অনেকেই ব্যবহার করেথাকেন . আমাদের দেশেও নিরাপদ পাশ`প্রতিকৃয়াহীন চিকিৎসা হিসেবে এর গ্রহনযোগ্যতা ব্যপক....

কিন্তু যখন দেখি হোমিওপ‌্যাথি ডায়াবেটিকস, হেপাটাইটিস বি, সি ক্যন্সারের মতন রোগের চিকিৎসা করছে তখন মনে খটকা লাগে আসলেই হোমিওপ‌্যাথি র এই দাবি কতটুকু সত্যি হতে পারে?

হোমিওপ‌্যাথির ঔষুধ কিভাবে তৌরি হয়? : হোমিওপ‌্যাথির তৌরির একটা প্রকৃয়া হইলো Dilutions ...
http://ciu.somewherein.net/ciu/image/42334/xlarge/?token_id=904e49e1b2bd14e5339f963ac36b2050
এখানে যেই জিনিসটা রোগের উপশম করবে... তাকে ১ পরিমানকে ১০০ পরিমান এলকোহল বা বিশুদ্ধ পানির সাথে মিশিয়ে তাকে ১০ বার ঝাকানো হয়....
তার পরে ঐ খান থেকে ১ পরিমান নিয়ে ১০০ পরিমানের সাথে মিশিয়ে ১০বার ঝাকানো হয়... তাহলে পরবত` পাওয়ারের দ্রবন পাওয়া যায়...

X Scale C Scale
1X — 1:10
2X 1C 1:100
6X 3C 10−6
8X 4C 10−8
12X 6C 10−12
24X 12C 10−24
26X 13C 10−26
60X 30C 10−60 ৩০ সি দ্রবন এর উপরের ক্ষমতা হ্যানিম্যন চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করতেন... এবং ব`তমানের হোমিও ডাক্তারা ব্যবহ র ক ে থাক..
http://ciu.somewherein.net/ciu/image/42336/xlarge/?token_id=ff61db6cd259b279e1078a48aa9060ef
এইখানে যত বেশি দ্রবভিত করা হবে ওষুধের তত ক্ষমতা বাড়বে>>>

কিন্তু গন্ডগোল বাধে এইখানেই.... যত বেশি পানির সাথে মিশানো হবে... মুল দ্রবনের অনুর সংখ্যা ততই কমতে থাকবে.... যখন ১৩ সি এর উপরে যাওয়া যায়... তখন ঐ দ্রবনে মুল দ্রবনের ১টা অনুর উপস্থিতি থাকার কোন সম্ভাবনা থাকে না...

১৩সি বানাতে মুল দ্রবন কে সারা পৃথিবার সব পানিতে মিশিয়ে ১০বার ঝাকাতে হবে... ঐ দ্রবনথেকে ১ ফোটা হলো ১৩সি দ্রবন neutral

তাই ১৩সি দ্রবনের উপরে গেলে আসল জিনিসের ১ অনুও তাতে থাকতে পারে না...

কিন্তু বাজারে ২০০সি মানের হোমিও ওষুধ পাওয়া যায়... Oscillococcinum নামের ঔষুধ influenza-লক্ষনের জন্য বাজারে পাওয়া যায়... যা তৌরি হয়

http://ciu.somewherein.net/ciu/image/42338/xlarge/?token_id=ff61db6cd259b279e1078a48aa9060ef

Muscovy হাসের লিভার ও হাট` থেকে.... ২০০সি মানের ঔষুধ বানাতে উপরের ছবির Dilutions ২০০ বার দ্রবভীত করা হয়.... যাতে ঐ হাটে`র ১ মৌল তাতে পাবার কোন সম্ভাবনা নেই...

তাহলে কিভাবে মানুষের কাজ হয় :- মানুষের মনের বিশ্বাসে অনেক সময় সে ভাল বোধ করে.... আর্ একজন হোমিও ডাক্তার মনদিয়ে রোগীর কথা শোনেন.... তাতে রোগীর বিশ্বাস জন্মে এবং তার শরিরের প্রতিরোধ ক্ষমতাই তাকে সারিয়ে তোলে.... একে বলে Placebo ইফেক্ট....

রিপেনডিল লিখেছেন:

বৈজ্ঞানিক গবেষনায় হোমিওপ্যাথির কোন রোগ নিরাময়ক গুন পাওয়া যায় নি এবং এর কার্যপদ্ধতি অবিশ্বাস্য। চিকিৎসাব্যাবস্থায় একে হাতুড়ে পদ্ধতি হিসেবে গন্য করা হয়।

"Homeopathic remedies are prepared by serial dilution of a chosen substance in alcohol or distilled water, followed by forceful striking on an elastic body, called succussion. Each dilution followed by succussion is said to increase the remedy's potency. Dilution usually continues well past the point where none of the original substance remains."

অর্থাৎ শেষ পর্যন্ত এতে পানি ছাড়া কিছুই থাকে না।

এবার দেখুন হোমিও খাইলে কিভাবে রোগ ভালো হয়ঃ

প্লাসিবু ইফেক্ট- অর্থাৎ মনের বিশ্বাস থেকে নিরাময়, বিশ্বাস থাকলে পানি খেলেও রোগ ভালো হতে পারে, উদাহরন উপরে দিয়েছি।

বয়ান- বেশিরভাগ হোমিও ডাক্তার দেখবেন খুব অমায়িক, ধার্মিক, দাড়ি টুপি পাঞ্জাবি পরা সৌম্য চেহারার বয়স্ক একজন। কথা মন দিয়ে শোনেন, সময় নিয়ে বোঝান, রোগ ছাড়াও আশেপাশের বিষয় নিয়ে কথা বলেন ইত্যাদি কারনে ডাক্তারের উপরে এমনিতেই ভক্তি চলে আসে আর বিশ্বাসটা আসে সেখান থেকেই।

প্রাকৃতিক নিরাময়- মানুষের শরীর এমনই এক অবিশ্বাস্য যন্ত্র যা নিজেই নিজেকে সুস্থ করতে পারে। রোগের পাচটি পর্যায় আছে যার একটি হল নিরাময় পর্যায় যা এমনিতেই ঘটতে পারে। কবিরাজ, ঝাড়ফুক, তাবিজ, মাদুলিওয়ালারা এই পর্যায়ের উসিলাতেই বেচে আছে। ঝড়ে বক পড়ে ফকিরের কেরামতি বাড়ে এই আর কি।

ব্যাতিক্রমি উপদেশ- অনেক সময়েই হোমিওবিদেরা দেন, যেমন আপনার ধরুন জয় বাংলা রোগ অর্থাৎ চোখ উঠেছে, তিনি দাওয়াই দিলেন আর বললেন আপনি কলা খাবেন না একদন, অথবা প্রতিদিন সকালে একটা কলার তিন ভাগের একভাগ পানিতে ভিজিয়ে ৫ দিন খাবেন!!! এই যে ব্যাতিক্রমি একটি উপদেশ পেলেন এটা একেবারে ম্যাজিকের মত কাজ করবে আপনার মনে তথা শরীরেও!

রোগের পর্যায়- দীর্ঘদিন ধরে রোগে ভুগছেন, নানা রকম ডাক্তার দেখিয়েছেন, টেস্ট করে করে আর এলোপ্যাথি খেয়ে ক্লান্ত (এলোপ্যাথি কেন কাজ করেনা সেটা পরের কমেন্টে বলব) এমন অবস্থাতেই সাধারনত হোমিওপ্যাথির কাছে যায় মানুষ। আর এখানেই ঝড়ে বক পড়ে। আগেই বলেছি রোগের একটা প্রাকৃতিক চক্র আছে, ৫ ধাপের এই চক্রের শেষ দুটি ধাপে নিরাময় হয় প্রাকৃতিক ভাবেই (সব রোগ বা সব ক্ষেত্রে নয়)।
রোগ আর রুগীর ধরন অনুযায়ী এসব ধাপের সময়কাল এক এক রকম। রোগের অবস্থা যখন সর্বোচ্চ পর্যায়ে তার কিছু পরেই নিরাময় পর্যায় শুরু হয়। কিন্তু ওই সর্বোচ্চ অবস্থা থেকে নিষ্কৃতি পেতে মানুষ দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়ায়, এই ক্ষেত্রে নিরাময় পর্যায়ের আগে যে ব্যাটা হোক সে কবিরাজ কিংবা হোমিও কিংবা মাদুলী ওয়ালা সেই কেরামতি দেখিয়ে ফেলতে পারে।

খিচুড়ী চিকিতসা- অনেকে হোমিও এর সাথে এলোপ্যাথিও চালান, কবিরাজীও চালান। ভাল হলে স্বভাবতই পুরষ্কার যায় হোমিও এর ঘরে! আসলে যে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে ভালো হয়েছে তার কেচ্ছা আড়ালেই থেকে যায়।

বন্ধ- হোমিওরা বলেন এলোপ্যাথি যা খাচ্ছেন বন্ধ করেন, সার্জারি করবেন না, ইঞ্জেকশোন নেবেন না। এতে একটা লাভ আছে। এলোপ্যাথি ওষুধ গুলো হোমিও এর পুরিয়া এর মত মিষ্টি নয় আর এগুলো যেহেতু আসলেই বৈজ্ঞানিকভাবে প্রস্তুতকৃত কার্যক্ষম ওষুধ তাই অনেক সময় অনেকেদের দেহে এগুলো সহনীয় হয় না, আর সার্জারির ভয় তো আছেই। তাই হোমিওবিদ এগুলো বাদ দিতে বলায় রোগীর অবচেতন মন (যা আগে থেকেই এগুলো বাদ দিতে বলছিল) উতফুল্ল হয় এবং উপশম ঘটায়, তবে প্রকৃত রোগ আড়ালেই থেকে যায় এবং রোগীর মৃত্যুর কারন হয়ে দাঁড়ায়।

জীবন পদ্ধতি- মোটামুটি সব হোমিওবিদেরা জীবন যাত্রা পরিবর্তনের পরামর্শ দেন যেগুলো আসলেই কাজের যেমন নিয়মিত হাটাচলা করা, পাচ ওয়াক্ত নামাজ পড়া, বেশি করে ফলমূল খাওয়া, শাকশবজি খাওয়া, গোস্ত কম খাওয়া, কম ঘুমানো ইত্যাদি। রোগ এতে ভাল হবে নিশ্চয়ই।




আরেকজন বলেছেন ভিন্ন কথা

আজমান আন্দালিব লিখেছেন:

আমি জানিনা হোমিওপ্যাথিতে ডায়াবেটিস, ক্যান্সার এ জাতীয় রোগের নিরাময় হয় কিনা। তবে ছোটখাট দুয়েকটি রোগের বিষয়ে বলবো যেগুলোতে আমি উপকার পেয়েছি এবং এখনও সুস্থ আছি আল্লাহর রহমতে।

এসএসসি পরীক্ষার আগে আমার পাইলসের ভীষণ সমস্যা ছিল। চেয়ারে বসতে পারতাম না। রক্তক্ষরণ হতো। পরীক্ষা নিরীক্ষা করে ডাক্তার জানিয়েছিলেন অপারেশন করতে হবে। আমার নানা ছিলেন শখের হোমিও ডাক্তার। প্রাইমারী স্কুলের প্রধান শিক্ষক, পাশাপাশি হোমিও প্র্যাকটিস করতেন গ্রামের বাড়ীতে। আশেপাশের দশ গ্রামে নানার এই যশ ছড়িয়ে পড়েছিল। ঢাকায় আমাদের বাসায় বেড়াতে এলে নানাকে সমস্যা খুলে বললাম। তিনি আমাকে ওষুধ দিলেন। খেয়ে সেই যে আল্লাহর রহমতে সুস্থ হয়েছি আজ প্রায় ৩০ বৎসর যাবত আর সমস্যা হয়নি।

ভার্সিটিতে যখন প্রথম বর্ষে পড়ি আমার মাথার চুল পড়ে গিয়ে টাক হয়ে গিয়েছিল। সে সময়ের কিছু ছবিতে আমি লজ্জায় কালি দিয়ে টাক ঢেকে অ্যালবামে রেখেছিলাম। আমার বন্ধুরা আমাকে ক্ষেপাত দোস্ত, তুই মাস্টার্স করার আগে তোর মাথা মাস্টার্স করবে। ঘুম থেকে উঠলে বালিশ বিছানা জুড়ে শুধু চুলই পরে থাকতে দেখতাম। দেখে কান্না পেত। নানাকে এই সমস্যার কথা বলায় তিনি ওষুধ দিলেন। চুল পড়া বন্ধ হয়ে গেল। আল্লাহর রহমতে একনও আমার মাথায় যে চুল আছে তাতে অন্তত টাক পড়বে না বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

আমার ডান হাতের কব্জির সংযোগস্থলে একটা ছোট্ট টিউমার হয়েছিল। প্রথম প্রথম এটাকে পাত্তা দেইনি। আস্তে আস্তে এটা বড় হতে থাকে। একসময় এমন অবস্থা হলো যে লিখতে গেলে ব্যাথা পাই। কোনো কাজ করতে গেলে ব্যাথা পাই। সামনে অনার্স ফাইনাল পরীক্ষা। ভার্সিটির মেডিক্যালে ডাক্তার দেখালাম। তারা বলল অপারেশন করে টিউমার ফেলে দেওয়া ছাড়া গতি নাই। ছোটখাট একটা টেবিল টেনিস বলের মতো ফুলে থাকা টিউমারটাকে নিয়ে আমি আতঙ্কে পড়ে গেলাম। চবি'র ছাত্র ছিলাম। হলের দারোয়ান আমার এ অবস্থা দেখে একদিন পরামর্শ দিলেন মদনহাট এক ডাক্তার আছে। ওনার কাছে যাওয়ার জন্য।

ব্যাথায় টিকতে না পেরে একদিন বিকেলে সেই হোমিও ডাক্তারের কাছে গেলাম। তিনি আমাকে একটি শিশি আর কাগজে মুড়িয়ে ৩ পুরিন্দা ওষুধ দিয়ে বলে দিলেন প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ৩ দিন এগুলো খেতে হবে। ১০ টাকা ফি নিলেন। হাতের ব্যাথায় আমি বাঁচি না আর এ ওষুধে কি হবে ভেবে পরদিন সকালে খালি পেটে সবগুলো একসাথে খেয়ে ফেললাম। আর অপেক্ষায় থাকলাম কবে অনার্স পরীক্ষা শেষ হবে আর ঢাকা এসে অপারেশন করে এই যন্ত্রণাটাকে ফেলে দেব। ওমা তিন চারদিন পরে দেখি শক্ত টেবিল টেনিস বলটা কেমন যেনো নরম নরম মনে হচ্ছে। আস্তে আস্তে এটা ছোটও হতে লাগলো। পরীক্ষার টেনশনে আর কিচু মনে ছিল না। পরীক্ষার পর একদিন দেখলাম হাতের টিউমারটা আর নেই। এখন পর্যন্ত আর এরকম উপসর্গ দেখা দেয়নি। সেই ডাক্তারের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশের জন্য আর কখনো যাওয়াও হয়নি।

আমার দুই হাতের দশ আঙুল জুড়ে আঁচিল হয়েছিল। কি যে অস্বস্তি লাগত! বিশ্রী রকমের আঁচিলগুলো ধারালো ব্লেড দিয়ে কেটে দিতাম। রক্তপাতও হতো। এলাকার এক প্রবীন ডাক্তারের কাছে সমস্যা নিয়ে গেলাম। তিনি ওষুধ দিলেন। আস্তে আস্তে আঁচিলগুলো যে কোথায় উধাও হয়ে গেল আল্লাহ মালুম।

আমি জানিনা যে রোগগুলোর কথা বললাম সেগুলো হোমিও প্যাথি ওসুধে ভালো হয়েছে নাকি আমার বিশ্বাস থেকে ভালো হয়েছে। তবে আমার বিশ্বাস ডাক্তার যদি রোগের লক্ষণটা পুরোপুরি বুঝে ওষুধ নির্বাচন করেন সেক্ষেত্রে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা বেষ্ট। অবশ্য ক্যান্সার, জন্ডিস এগুলো হোমিওপ্যাথিতে ভালো হয় কিনা আমি জানিনা। তবে যদি কখনো এ সমস্ত রোগ ধরা পড়ে তবে প্রথমে হোমিও চিকিৎসা নেওয়ার চেষ্টা করবো...হাহাহা...

সূত্রঃ http://www.somewhereinblog.net/blog/neoblog/29690640

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

ওষুধে কাজ না হলেও কেউ যদি বিশ্বাস করে খায় তাহলে কাজ হবেই। প্লাসিবো ইফেক্ট।

তবে আমি একজনের ছোট টিউমার ভাল হতে দেখেছি।

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সাইফুল_বিডি (০৮-১০-২০১২ ২২:৫৩)

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

আমার জানামতে কাজ করে , আমার মায়ের পায়ের তলা ফাটা একটা রোগ হয়েছে , ডামেক এর প্রফেসর কে দেখানো হয়েছিল,কিন্তু তেমন কোন সুবিদা/উপকার হয় নাই। এখন হোমিওপ্যাথিতে সেটা প্রায় সেরে উঠেছে।

এই ব্যাক্তির সকল লেখা কাল্পনিক , জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিল পাওয়া গেলে তা সম্পুর্ন কাকতালীয়, যদি লেখা জীবিত অথবা মৃত কারো সাথে মিলে যায় তার দায় এই আইডির মালিক কোনক্রমেই বহন করবেন না। এই ব্যক্তির সকল লেখা পাগলের প্রলাপের ন্যায় এই লেখা কোন প্রকার মতপ্রকাশ অথবা রেফারেন্স হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (০৮-১০-২০১২ ২৩:০৯)

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

আমার ইয়া বড় বড় চারটি আচিল হয়ে ছিল। ল্যাব এইডে ডাক্তার দেখালে বলে অপারেশন করা লাগবে। ৫০০০ টাকার মতো অপারেশনের খরচ।আমার এক চাচা হোমিওপ‌্যাথি এর সেমি ডাক্তার (সার্টিফিকেট আছে কিন্তু প্রফেশনাল প্রাকটিস করেন না) তিনি বললেন এর কোন দরকার নাই। তিন দিন হাইডোজের থুজা নামক ওষুধ দিলেন। বললেন গ্রীন হোমিও হল(শান্তি নগর,মিরপুর) বা নিউ লাইফ (নিউ মার্কেট) জার্মান ওষুধ কিনতে। প্রথমে আমি মনে করে ছিলাম কোন কাজ হবে না কিন্তু ওষুধ খাবার ১৫ দিন পরে দেখি যে আস্তে আস্তে আচিল এর নাম নিশানা নেই শরীরে।

আমার মায়ের একবার চর্ম রোগ হয়ে ছিল। সালফার নামক ওষুধ খেয়ে কিছু দিনে মধ্যেই ঠিক হয়ে গিয়ে ছিলেন। আর পেটে কোন সমস্যা হলে NUX 30 নামক ওষুধ খুব ভালো কাজ করে।

ব্যক্তিগত ভাবে হোমিওপ‌্যাথি এর ভালো ফলাফল পেয়েছি। কিন্তু ডাক্তারের কাছ হতে অন্ধের মতো পুরিয়া বা ওষুধ মিলানো পানি খাই নাই।

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (০৮-১০-২০১২ ২৩:১৪)

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

হোমিও চিকিৎসার তেমন কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। বরং ঐ হাইপার ডাইলিউশনের ব্যাপারস্যাপার বেসিক কেমিস্টৃর এ্যাভোগেড্রো পৃন্সিপল-এর বিরুদ্ধেই যায়। হাহনেমানের আমলে হয়তো মাইক্রোবায়োলজী ছিলো না। ইলেক্ট্রন মাইক্রোস্কোপ যুগের মানুষ হিসেবে আমরা জানি হোমিওপ্যাথির পানিতে "এ্যাকটিভ মলিকিউল" যত থাকে, তার চাইতে হাজার/লক্ষ গুণে বেশি ব্যাকটিরিয়া, ভাইরাস, ফাংগাস, ডাস্ট পার্টিকল ইত্যাদি থাকে - এগুলোর তো তাহলে আরো বেশি ইফেক্ট হবার কথা  lol

আরণ্যক যেমন বললেন: হোমিওপ্যাথী === প্লাসিবো এফেক্ট।

হোমিও প্র্যাক্টিশনাররা বেশ মনোযোগ দিয়ে, দীর্ঘ সময় ব্যয় করে রোগীর কথা শোনেন। এক একটা সেশন ৪০-৪৫ মিনিট পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে। রোগী এতেই অর্ধেক ভালো হয়ে যায়।

ওম নাক্স ভমিকা!  http://i.imgur.com/mn4lv.gif

Calm... like a bomb.

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

invarbrass লিখেছেন:

ওম নাক্স ভমিকা!  http://i.imgur.com/mn4lv.gif

এইটা কি দাদা??

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আরণ্যক (০৮-১০-২০১২ ২৩:৩০)

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

কারণ যাই হোক- যদি ৫০ টাকার হোমিওপ্যাথি তে অসুখ ভালো হয়। তাহলে ৫০০০ টাকা খরচ করে সাইড ইফেক্ট যুক্ত অষুধ না খাওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ মনে হচ্ছে। thinking

অষুধের সাইড ইফেক্ট সম্পর্কে ডাক্তাররা খুব কমই সাবধান করেন। খোদ আমেরিকায় অপ্রোয়জনীয় ঔষুধ সেজেস্ট করার পরিমান দেখে বিস্মিত হতে হয়েছিল।

যাইহোক, হোমিওপ্যাথি ডাক্তারদের একটা কথা খুব মজা লাগে- "এ্যালোপথি করে রোগের চিকাৎসা আর আমরা করি রুগীর চিকিৎসা।"  hehe

@ফক্স ভাই- "ওম" কি তা তো আপনিই ভাল বলতে পারবেন। wink আর বাকিটা ডেডুভাইয়ে পেটের পাহারাদার।

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

হুম, বিশ্বাসে মিলায় বাছা তকে্র বহু দূর। thinking

বাংলা আমার আমি বাংলার।

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

আমি আমার চোখের রক্তনালীতে হিমেন্জিয়মা নামক এক সমস্যায় পড়েছি। অনেক বড় বড় ডাক্টার দেখিয়েছি, ইসলামি চক্ষু হাসপাতালে অনেকদিন চিকিৎসা করেছি, পিজিতে গিয়ে তালগোল পাকিয়ে ফেলে অবশেষে হোমিও ঔষধ খাচ্ছি। সম্পুর্ন নিরাময় না হলেও টিউমার হওয়া ঠেকিয়ে রেখেছে (ইনভার ভাইকে গোবাও দিয়েছি) । ৭ দিন ঔষধ না খেলে চোখের রক্তনালীতে আবার গোটা গোটা টিউমার ওঠা শুরু হয়।
অতএব এটি যে কাজ করে সে বিষয়ে আমার কোন সন্দেহই নেই।

১০

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

ফায়ারফক্স লিখেছেন:

কিন্তু যখন দেখি হোমিওপ‌্যাথি ডায়াবেটিকস, হেপাটাইটিস বি, সি ক্যন্সারের মতন রোগের চিকিৎসা করছে তখন মনে খটকা লাগে আসলেই হোমিওপ‌্যাথি র এই দাবি কতটুকু সত্যি হতে পারে?

যতদুর জানি এখন হোমিওপ্যাথি ও আয়ুর্বেদ চিকিৎসা একই জায়গায় হয়। এরা হোমিওপ্যাথির পাশাপাশি আয়ুর্বেদ ঔষুধ দেবে যদি চিকিৎসা করাতে যান। আপনার সাথে প্রায় ৩০-৬০ মিনিট কথাই বলবে। এরপর আপনার সকল সমস্যা বের করে হয়ত ৫-৬ টি ঔষুধ দিবে। এর মধ্যে কোন কোনটার দাম দেখবেন অনেক বেশি। ১০০০-১৫০০ টাকার মত। ওগুলো ফাকিবাজি আয়ুর্বেদ ঔষুধ।

কিছুদিন আগে এক ফ্রেন্ড বলল এক হোমিও ডাক্তার একটা ওষুধ দিয়েছে তাকে যেটার দাম নাকি ৯০০ টাকা। খেলে নাকি চর্বি কমে একদম রোগা হয়ে যাবে। এখন নামটা মনে পড়ছে না। দামটা অস্বাভাবিক বেশি দেখে আমার একটু সন্দেহ হচ্ছিল। সাধারণত বিভিন্ন এমএলএম কোম্পানির প্রডাক্টগুলো এমন হয়ে থাকে। হাজারটা গুন থাকে এসবের। আর দামও সেই গুন অনুসারে ব্যাপক। কিন্তু দেখতে গেলে নেহায়েত সাধারণ কোন একটা তেল বা ট্যাবলেট বা ব্রেসলেট। আমি আমাদের এখানের পাইকারি বাজারে খুজলাম। খুজে খুজে একটা দোকানে পেলাম। সেই লোক চাইল ৩০০ টাকা। এবং আমাকে দেখাল ঔষুধের গায়েই ৩০০ লেখা। আমিও দেখলাম কোম্পানি যেইভাবে দাম লিখে সেভাবে লেখা। কোন আলগা স্টিকার না। অথচ আমার বন্ধুটি ৯০০ টাকায়ই কিনে ফেলছিল প্রায়। কেনার সময় দোকানদার বলল এসব ঔষুধ সম্পুর্ণ ইল্যিগাল। ঔষুধের গায়ে আরবি উচ্চারণে উপাদানের নাম লেখা ছিল। ভাবে সাবে পুরো ইবনে সিনা আমলের মহৌষধ।

Feed থেকে ফোরাম সিগনেচার, imgsign.com
ব্লগ: shiplu.mokadd.im
মুখে তুলে কেউ খাইয়ে দেবে না। নিজের হাতেই সেটা করতে হবে।

শিপলু'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১১

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

শিপলু লিখেছেন:

খেলে নাকি চর্বি কমে একদম রোগা হয়ে যাবে।

আসলেই হয় নাকি? এক চেষ্টা দেয়া যেত। blushing

১২

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

আমি বিশ্বাস করি না যে কাজ করে না, অবিয়াসলি কাজ করে, আমার একবার টিউমার হয়েছিল যা ডক্টর ডাইরেক্ট অপারেশন করতে বলে, তা ভাল হয়, ওই বয়সে আমি এবং বাবা কেউই বিশ্বাস করি নাই যে এটা ভাল হবার যোগ্য শুধু মায়ের বিশ্বাসে। ছোট ভাই4 জন ডক্টর থেকে ঘুরে আসে কিন্তু তার কানের নিচের ইনফেকশন ভাল হয় নাই (কাচির খোটা খেয়ে এমনটা হয়েছিল ) PHD ডক্টর পর্যন্ত ফেল এবং প্রতেক্যেই কয়েক মাস ধরে ঔষধ সেবন করতেছিল এবং ফল ছিল না, এলাকার একজন এটা শুনে জোর করে একটা ঔষধ দেয় যা কিনা বাবা খাওয়াতে রাজি হয় না এবং তারপরও একমাস পর যখন আব্বার টেনশন চরমে তখন তার কাছেই নেয়া হয় এবং কয়েকদিন পর থেকে কমতে থাকে।

আরও উদাহারন দিলে শেষ হবে না, বাসায় লোকজনের নিয়মিত মাঠের কাটা আটকে যায় এবং এই থেরাপী ছাড়া হয় না। আমার নিজের পায়ে খেজুরের কাটা ঢুকে ছিল যা কিনা অনেকদিন পর ভাসি হয় বের হয় সেটাও ঠিক হয়। আমার কাজিন বছর দুয়েক হর হোমিওপ্যাথি প্রাকটিস করে, সে আগে এলোপ্যাথি নিয়ে গবেষনা করতো নিজের গরজে, সে যা বলেছিল নরমাল ডক্টররা ইনকামের জন্য রোগীদের প্রথমে ঔষধ না দিয়া এলকোহলই দিয়া দেয় তারপর বাড়াতে থাকে, আমি জানি না এত কাকতালীয় কেমনে ঘটে, সো আমি বিস্বাস করতে বাধ্য যে কাজ করে  worried

১৩ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মামুন.pb (০৯-১০-২০১২ ০১:০৯)

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

অনেক দিন আগে একটা লেখা পড়েছিলাম,সেই লিংকটা শেয়ার করলাম।
http://hpathybd.wordpress.com/2010/12/2 … বিজ্ঞান-স/
শুনেছি হোমিওপ্যাথি ও এলিপ্যাথি এই নামকরন নাকি হ্যানিম্যান দিয়েছিলেন।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নাকি হোমিওপ্যাথির বিভাগ আছে যেটার নাম bhms.যদিও সুস্থ্য হবার জন্যে মানসিক শক্তিও সহায়ক ভূমিকা পালন করে,তবে প্লাসিবু ইফেক্ট কোন পর্যায়ের রোগ নিরাময় করতে পারে?হালকা মাথা ব্যাথা জাতীয় রোগ নাকি টিউমারের মতো রোগও পারে কি? !!!
তবে স্কেপটিক সোসাইটির দেয়া বক্তব্যগুলো বেশ জরালো।
হোমিপ্যাথি কি  হ্যানিম্যান পর্যন্তই এগিয়েছে নাকি আর কোন অগ্রগতি হয়েছে?

ওয়াসকর্ম ও ওয়াসকৃত মস্তিস্ক্য প্রতিটা দলের মাঝেই দেখা যায়।রাজনৈতিক দলীয় ফ্যন/মুরীদ মাত্রই ক্ষীনদৃষ্ট সম্পন্ন।দেশী,বিদেশী,খ্যাতমান বা অখ্যত যেমনই হোক,কপিক্যাটকে বর্জন করে নকলের অরিজিনালটা গ্রহন করে তাদের মেধা ও সাহস অনুপ্রনিত করি।

১৪

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

ফায়ারফক্স লিখেছেন:

কিন্তু যখন দেখি হোমিওপ‌্যাথি ডায়াবেটিকস, হেপাটাইটিস বি, সি ক্যন্সারের মতন রোগের চিকিৎসা করছে তখন মনে খটকা লাগে আসলেই হোমিওপ‌্যাথি র এই দাবি কতটুকু সত্যি হতে পারে?


@শিপলু ভাই   আমি এটা বলি নাই, আমি নিজেও হোমিওএর উপকার পেয়েছি

১৫

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

হোমিওপ্যাথি উইনিভার্সিটি তাহলে কি কাজের ? thinking

  Tenacity - Focus - Discipline - Repetition

   Sabbir's Blog 

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন শামীম (০৯-১০-২০১২ ০৯:০৬)

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

কান ব্যাথার জন্য আজ থেকে অন্তত ২০ বছর আগে একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের কাছে নিয়ে গিয়েছিলাম ছোট ভাইকে। সেই আমলেই ৩০০ টাকা ভিজিট ছিল। কানে শুধু অলিভ অয়েল দেয়ার পথ্য দিয়েছিলেন। অথচ এই লোকের অ্যাপয়েন্টমেন্ট পেয়ে অনেক কষ্ট করে তখন মিরপুর থেকে গ্রীন সুপার মার্কেটে আসতে হয়েছিলো (২০ বছর আগে পরিবহন ব্যবস্থা অন্যরকম ছিল)। পাড়ার ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলে অনেকগুলো ঔষধ দিত বলে মনে হয়।
একজন সাধারণ ডাক্তার যে পরিমান ঔষধ দেন একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার তার তুলনায় অনেক কম ঔষধ সাজেস্ট করেন -- মূল পোস্টের লজিক অনুসারে হোমিওর মত এরাও তাহলে ভুয়া মনে হয়  donttell

হোমিওতে রোগ সারাতে প্লাসিবো ইফেক্ট কাজ করে - এটা একটা ভুল হাইপোথিসিস।  roll

আমার বাচ্চার সাথে ডাক্তার কথা বলে নাই। সে ঔষধও খাইতে চায় নাই। ঘুমের মধ্যে মুখে মিষ্টি গ্লোবিউলসে দেয়া ঔষধ দেয়া হয়েছিলো। প্রতিবারই অব্যর্থ। তবে ভুল ঔষধ দিলে তো সারার প্রশ্নই উঠে না। প্লাসিবো কেমনে হল?

হোমিওতে অনেক রকম ঔষধ আছে - প্লাসিবো হইলে যে কোনো রোগেই সকলকে একই পুরিয়া খাওয়ায় দিলে হত।

মানুষের দেহ এবং এর ক্রিয়াকলাপ নিয়ে গবেষণা কিন্তু এখনও চলছে। কাজেই একজন সব বিদ্যা সব জেনে ফেলেছে আর হোমিও কিচ্ছু জানেনা এমন ভাবনা মনে কেন আসে সেটাই একটা কৌতুহলী  বিষয়। (আমি মহাজ্ঞানী শমসের - আর সবাই মুর্খ : এটা সর্বজ্ঞানী রোগ হতে পারে) অন্যেরাও কিছু জানে কিংবা অন্যের জ্ঞানকে শ্রদ্ধা করা - একটা ভাল দিক।

উচ্চতর ক্ষমতার ঔষধে সুক্ষ্ণতর পরিমান মূল উপাদান থাকে। পুরা ন্যানো টেকনোলজি  hehe  tongue_smile
(দূর্বল জীবানু শরীরে ঢুকিয়ে সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা জাগিয়ে তুলতে টিকা জানি কীভাবে কাজ করে? -- ভাই, ভূয়া হোমিওর মত এত ডাইলিউটেড দূর্বল জীবানু না ঢুকিয়ে শক্তিশালী জীবানু ঢুকান। জানেন না, দূর্বল জিনিষ ভাল না)

যতদুর জানি, সাধারণ হোমিও ডাক্তার দোকানের লাইসেন্সের পাশাপাশি মাসে ৩০ লিটার অ্যালকোহল (স্পিরিট) আইনসঙ্গতভাবে ক্রয়ের ক্ষমতা পান। বেশিরভাগ কোনরকমে হোমিও পাশ করা ডাক্তারই এই ৩০ লিটার অন্যভাবে বিক্রয় করে আয় করে --- এই কারণে হোমিও পেশায় প্রচুর হাতুড়ে ডাক্তার আছে।

---
যারা প্লাসিবো বলে নিশ্চিত তাঁরা নিজেরাই চেম্বার খুলে বসেন না কেন; কোনো রোগী আসলে মনোযোগ দিয়ে ৩০ মিনিট না, বরং ১০০ মিনিট কথা শুনুন (বুঝেন বা না-ই বুঝেন তাতে কি!), তারপর লেবুর শরবত কিংবা রুহ আফজা কিংবা অদ্ভুদ কোনো পানীয় বা খাবার ঔষধ বলে খাইয়ে ভিজিট নিয়ে বিদায় করেন। ও .... সাথে পরবর্তীতে খাওয়ার জন্য ডালের বড়া/সিভিট কিংবা অন্য কিছু নিরীহ পদার্থ উচ্চমূল্যে দিতে ভুলবেন না। আশা করি প্লাসিবো তত্বের কল্যানে কিছুদিনেই অন্য সব অ্যালো, হোমিও, আয়ুর্বেদী ডাক্তারের বিদ্যাকে কাঁচকলা দেখিয়ে আপনি আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়ে যাবেন। সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ: তত্ব ভুল হইলেও ফুলে কলাগাছ হবেন, তবে সেটা হবে পাবলিকের মাইরের কল্যাণে।
---

আজকের যুগে টেকনোলজি এবং জ্ঞান এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে এটা দেয়ালের রং থেকে ক্ষতিকর পদার্থ নির্গত হয়ে মানুষের স্বাস্থ্য হানি ঘটাতে পারে সেটা প্রমাণ করা যায় এমনকি রঙের বিজ্ঞাপনেও এর উল্লেখ হয় (VOC - volatile organic compound)। বিভিন্ন ধাতব পদার্থের সংস্পর্শে মানুষের শরীরে বিভিন্ন ক্ষতিকারক ক্রিয়া প্রতিক্রিয়া হয় ........ শুধু ধাতব কেন, অন্য পদার্থের কারণেও হয়।

কিন্তু এখন যদি কেউ বলে অমুক ধাতুর আংটি ধারণ করলে তমুক রোগের উপকার হয় ---  সবাই অপবিদ্যা বা ভূয়া বলে রে রে করে তেড়ে আসবে। অথচ কোনো কোনো ধাতুর উপস্থিতিতে শরীর খারাপ হতে পারে এটা সঠিক বিদ্যা হিসেবে সবাই মেনে নিয়েছে। যদি ধাতু শরীরের উপর ক্রিয়া করে -- এটা নিয়ন্ত্রিত করে জায়গামত প্রয়োগ করতে পারলে এতে রোগ সারানো সম্ভব --- এটা বুঝতে রকেট সায়েন্টিস্ট হওয়ার দরকার নাই। কিন্তু সবজান্তা শমসেরগণ আংটি, পাথর দিয়ে রোগ সারানো কিংবা বিশেষ ধাতু পরিধাণে বাতের ব্যাথা নিবারণকে ভুয়া বলে ---- আরে ভাই ভুয়া বলার আগে নিজের লজিক পরিষ্কার করেন!

বাতের ব্যাথা নির্ধারণের কোন যন্ত্র আছে কি? এটা কি কোন যন্ত্রে ডিটেক্ট করতে পারে - তারপর সেই অনুযায়ী ঔষধ প্রয়োগ করে? কিন্তু ব্যাথা যে হয় সেটা যেমন সত্য, তামার তার ধারণে সেটা কমে সেটাও সত্য। চোখের সামনে ঘটছে -- কিভাবে ঘটছে সেটা হয়ত স্বল্প এবং সীমিত বিদ্যায় আমরা বুঝতে পারছি না। সত্যটাকে ভূয়া না বলে বরং নিজের সীমিত জ্ঞানের সমালোচনা করা এবং সেটার উন্নয়নের চেষ্টাটাই ভাল পদ্ধতি মনে হয়।

এলার্জি নাকি সকলের নাই। একই জিনিষের উপস্থিতিতে দবিরের খাউজানি হয়, কবিরের কিস্যূ হয় না। কাজেই চুলকানী হলে দবিরের জন্য সমাধাণ হল তমুক জিনিষ থেকে দুরে থাকুন, আর কবিরকে ঔষধ দেয়া হল। ইহাই ঠিক আছে কারণ এটা এ্যালোপ্যাথি বিদ্যা -- এটা সায়েন্টেফিক। কিন্তু হোমিওতে দবির আর কবিরকে একই লক্ষণে দুই ঔষধ দিলে সেটা ভুয়া হয়ে যায়; রোগ নয় রোগীর চিকিৎসা কর বললে - শমসেরগণ হেসে কুটিকুটি হয়  surprised ! কেন ভাই দবির আর কবিরের বডি কেমিস্ট্রি যে ভিন্ন - এ্যালোপাথির আগে হোমিওবিদ্যা কি এটা জানার আর বুঝার অধিকার রাখে না?

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৭

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা কাজ করে এটা আজীবন বিশ্বাস করবো।

৭৩/৭৪ এর কথা আমার মায়ে রক্তস্রাব এর রোগ ছিল। এলাকার নামীদামি  এমনকি সেই সময়ের সেরা গাইনী ডাঃ সুফিয়া খাতুনের(ধানমন্ডিতে ছিল) চিকিৎসা নেয়া হয়েছে কোন বিশেস সুবিধা পাওয়া যায়নি। শেষে আমরা একরম হাল ছেড়ে দেবার অবস্থা। এমনি একদিনের ঘটনা, মায়ের অসুস্থতা খুব বাড়াবাড়ি পর্যায়ে চলে গেছে।  বাড়িতে আমরা ছোট ছোট ভাইবোন মায়ের অবস্থা দেখে কান্নাকাটি করছি। রাস্তা দিয়ে তখন একজন লোক যাচ্ছিলেন কান্নাকাটি শুনে তিনি এসে জিজ্ঞেস করলেন কি হয়েছে। বাবা তাকে সব খুলে বললেন। তিনি বাবাকে সাথে নিয়ে তার বাড়ি চলে গেলেন এবং বাবার হাতে ২/৩টি শিশি ধরিয়ে দিলেন। যাহোক মায়ের চিকিৎসা শুরু হলো মনে হয় মাসখানেকের মধ্যে আমার মা সুস্থ হলেন এবং আজো বেঁচে আছেন অথচ এ দীর্ঘ সময়ে সে রোগের আর কোন উপদ্রব দেখা যায়নি। তাই যে যাই বলুন না কেন হোমিওপ্যাথি ভুআ বলে মেনে নিতে পারছি না।

১৮

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

ব্যক্তিগত ভাবে হোমিওপ‌্যাথি এর ভালো ফলাফল পেয়েছি

সত্য কথা। আমি এবং আমার ফ্যামিলির মানুষজনও নিয়মিত হোমিওপ্যাথি ব্যবহার করে ভালো ফল পেয়ে চলেছেন।

হোমিও যে অবশ্যই কাজ করে এটা উপরের পোস্টগুলা থেকেই পরিস্কার wink

শামীম ভাইয়ের সাথে সহমত, হোমিও পার্টে। ধাতুর পার্টে একমত হতে পারছি না, ভেরিফিকেশন করার মত জ্ঞান নাই  tongue

সারিম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন বোরহান (০৯-১০-২০১২ ১৩:৩০)

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

কাজ করে মানে, চরমভাবে কাজ করে, আমি এর বাস্তব প্রমাণ । ছোটবেলায় নাকি অসুখের ঠ্যালায় কান্নাকাটি আর চিল্লাফাল্লা করে পাড়া-প্রতিবেশির ঘুম হারাম করে দিয়েছিলাম (প্যারেন্টস ইনক্লুডেড tongue), তো স্বভাবতই ইন্সট্যান্ট রেজাল্ট পাওয়ার জন্য অনেক এমবিবিএস, শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ইত্যাদি বহুত ঘোরাঘুরি করতে হয়েছে । তবে হোমিওপ্যাথিতেই নাকি ভাল ইফেক্ট পেতাম । (পরিবারের লোকের কাছে শুনা কথা)
হোমিওপ্যাথিক ডাক্তারখানায় যাওয়ার ২-৩ বছর বয়সের কথা আমার নিজেরও কিছু কিছু মনে পড়ে ।
মোদ্দা কথা হচ্ছে ছোটবেলায় সেই যে সুস্থ্য হয়েছি আমার তো উল্লেখযোগ্য আর কোন অসুখই হয়না, লাস্ট কবে ওষুধ খেয়েছি তাও মনে পড়েনা, তবে মাঝে সাজে ওষুধ যখন খাওয়াই লাগে তখন হোমিওপ্যাথিক খাওয়ার চেস্টা করি, ওতে মনে হয় রোগের উপশম দীর্ঘমেয়াদী-ই হয় ।

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit

২০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মামুন.pb (০৯-১০-২০১২ ১৩:৫৮)

Re: বিষয়ঃ হোমিওপ‌্যাথি ____ ঔষুধ না কি ফাকি?

শুধু প্লাসিবো নিয়েই আলাদা একটা টপিক্স হোক।আসলে এই প্লাসিবো কতোদূর পর্যন্ত কাজ করে।

শামীম লিখেছেন:

হোমিওতে রোগ সারাতে প্লাসিবো ইফেক্ট কাজ করে - এটা একটা ভুল হাইপোথিসিস।ভুয়া বলার আগে নিজের লজিক পরিষ্কার করেন!
বাতের ব্যাথা নির্ধারণের কোন যন্ত্র আছে কি? এটা কি কোন যন্ত্রে ডিটেক্ট করতে পারে

সহমত।আপনার কথাগুলো সম্পূর্ণটাই খুব লজিক্যাল।

ওয়াসকর্ম ও ওয়াসকৃত মস্তিস্ক্য প্রতিটা দলের মাঝেই দেখা যায়।রাজনৈতিক দলীয় ফ্যন/মুরীদ মাত্রই ক্ষীনদৃষ্ট সম্পন্ন।দেশী,বিদেশী,খ্যাতমান বা অখ্যত যেমনই হোক,কপিক্যাটকে বর্জন করে নকলের অরিজিনালটা গ্রহন করে তাদের মেধা ও সাহস অনুপ্রনিত করি।