সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন invarbrass (৩০-০৮-২০১২ ০৮:৩৩)

টপিকঃ Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

কিছুদিন আগে স্ত্রীর সহিত গরমাগরম বাক্যবিনিময়ের এক পর্যায়ে জাপানের নারীসমাজে আপনাদের স্নেহধন্য ইনভার বেহরাদারের প্রবল সমাদরের গৌরবময় ঐতিহ্যের কাহিনী স্মরণ করাইয়া চেতাইয়া দিয়াছিলাম। স্ত্রী বর্তমানে আপন পিতৃবাটীতে গমন করিয়াছেন। তো আপনাদের মনোরঞ্জনের মকসোদে বান্দার নিজস্ব নিপ্পন রজনীর আলীফ-লায়লা কাহিনীর ভাড়াঁর হইতে দুই খানী এপিসোড পেশ করিবার নিমিত্তে তকলীফ করিতেছি...

বিঃদ্রঃ রসমালাইয়ের প্রয়োজনে ঘটনায় যৎকিঞ্চিত পরিমাণে রুমানা পেইন্ট সংযোজিত করা হইয়াছে – উহা ব্যতীত কাহানী ৯৯% পার্সেন্ট পাক্কা ফ্রুটিকা জ্যুইছ!

                                                  Ladies VS. Invar Bahl

                                              Cougar Japan vs. Big Man Japan

                                                     Season 1 - Episode 1

সে প্রায় অর্ধযুগ পূর্বের কথা।   isee

জ্ঞানার্জনের ওয়াস্তে মুমিনগণকে চীন দেশে যাতায়াতের তাগিদ দেওয়া হইয়াছে। আমি এক ডিগ্রী বাড়াইয়া নিপ্পন দেশে যাইবার সিদ্ধান্ত লইয়া ফালাইলাম।  cool

সূর্যোদয়ের দেশে বাক্স, প্যাটরা, কোল-বালিশ, বদনা ও স্ত্রী-সহযোগে এক সূর্যাস্তে আসিয়া হাজির হইলাম। ওয়ার্ল্ড-ইসকুল তথা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকিয়া দুই সমবয়সী দেশী ভ্রাতার সাথে পরিচয় হইয়া গেলো – তাহারা ২/১ সেমিস্টার ধরিয়া ইস্কুলে যাতায়াত করিতেছে।

এক হিন্দু আর দুই মোছলমান মিলিয়া “নিখিল জাপান হিঁদু-ম্লেচ্ছ ভাইভাই এ্যাক্সন কমিটি” গঠন করিয়া ফেলিলাম। কমিটির মেম্বারগণ প্রত্যহ কেলাসের ফাঁকে ফাঁকে ২/৩ দফায় মিলিত হইতে লাগিলাম। ফুটবল মাঠের দক্ষিণ পার্শ্বে শারীরিক কসরত-রতা হাফপ্যান্টুল পরিহিতা জাপানী তরুণীগণ পরিবেষ্টিত হইয়া বসিয়া প্রাকৃতিক শোভা ও জাপান দেশের তাবৎ পক্ষীকূল দর্শণ সহযোগে মারলবোরো বিড়িতে দম দিতে দিতে আমাদের বৈঠক কার্যক্রম চলিতেছিলো। গরীব ভুখা-নাঙ্গা দেশ হইতে বৈদেশে আগত তিন ভ্রাতারই বিশাল পালোয়ান বপু আর ঘন্টায় ঘন্টায় উর্ধ্বমুখী বাদশাহী ভুঁড়ীর তারিফ তো দূরের কথা, বরং কোন দিন আমরা থিরি ইডিয়টস জাপান সরকারের নেকনজরে পড়িলে নিশ্চিৎ দরিদ্র দেশের ত্রাণসাহায্য বন্ধ হইবে ইহা লইয়া শংকা প্রকাশ করিতে লাগিলাম। আফ্রিকার ন্যায় গরীব, ভুখা দেশের অধিবাসী হইয়াও কেন আমাদিগকে মল্লিকা শেরাওয়াতের ন্যায় চিকনী কামর দেওয়া হইলো না তাহার জন্য প্রকৃতিকে দুষাইতে লাগিলাম।

যাই হউক, প্রাথমিক ভর্তী কার্যক্রম সম্পন্ন হইলে আমাকে চিকিৎসা ইস্কুল হইতে জাপানী ভাষা সম্বন্ধে বুৎপত্তি লাভের উদ্দেশ্যে ইউনিভার্সিটির মূল ক্যাম্পাসে স্থানান্তরিত করা হইলো। আমার দক্ষিণ পার্শ্বের সহধর্মিনী – আই মীন কেলাশের সহপাঠিনী হইলো বার্মা হইতে আগত এক কুমারী বৃদ্ধা। বৃদ্ধা বয়সেও বিবাহ করে নাই কেন জিজ্ঞাসা করিলাম না তাহার খতরনাক চেহারা মোবারকের দিকে চাহিয়া।

ভাষা শিক্ষার কেলাশে আমার সম্বল বলিতে “নিঞ্জা”, “সামুরাই”, “ডোরেমন” আর “সুশি” এই শব্দ সমূহ! আর ওই বার্মিজ হার্মাদী তো স্বদেশে থাকিতেই এক বছর ব্যাপী জাপানী ভাষায় পিএইচডি করিয়া আসিয়াছে। শিক্ষিকা মুখ হইতে “ও” নির্গত করিতে না করিতেই বেটী “হাইও গোজাইমাসু!” বলিয়া ফাটাইয়া ফেলে! লিখিত টেস্ট দিলে আমি পেঞ্ছিল ধরিতে না ধরিতেই দেখি বজ্জাত বেটী টেস্ট কমপ্লিট করিয়া ফেলে! মহা সমস্যার কথা!

ইদিকে বোরিং জাপানী শিশুপাঠে কিঞ্চিৎ উৎসাহ জাগ্রত হইয়াছিলো যাহাকে দেখিয়া, সেই জাপান সুন্দরী, রূপবতী শিক্ষিকাকে দেখিতে লাগলাম ওই বুড়িবান্দরীকে বেশি প্রাধান্য দিতেছেন।

এতকাল বাদে রমণীটির নাম মনে নাই। আমি আবার চেহারা বাদে নাম মনে রাখিতে পারি না (তবে রমণীটির খোমাটি এখনো মনের গহীনে জ্বাজ্বল্যমান রহিয়াছে)। জাপানী রমণীদের প্রকৃত বয়স লার্জ হ্যাড্রন কলাইডার দিয়াও উদঘাটন করা অসম্ভব। তবে, আমার অভিজ্ঞ চক্ষুমধ্যের স্ক্যানার দ্বারা বডী স্ট্রাকচার এ্যানালাইয করিয়া অনুমান করিলাম সেনসেই (শিক্ষিকা)-এর বয়স আনুমানিক ৪০-এর একদম গোড়ায় হইবে। কিন্তু তাহার বেশভুষার ছিরি দেখিয়া বিশোর্ধ্ব বলিয়া মনে হয়। আর তাহার রুপচর্চার স্তর, হাস্যধ্বণি, শুভ্র দন্তরাজিতে পরিহিত ব্রেইস, উচ্ছ্বসিত হাততালি আর কিশোরীতূল্য দাপাদাপির বহর দেখিয়া তাহাকে ষোড়ষী বলিয়া ভ্রম হয়! যাই হউক – বিভ্রান্ত হইয়া আমি তাহার বয়স ১৬ হইতে ৪০-এর মধ্যভাগে কোনো এক স্থলে নির্ধারণ করিয়া দিলাম।

তো বারখুদ্দার, দেশে থাকিতেই আমি “সুন্দরী তরুণীরা মারাত্বক রকমের বোরিং হইয়া থাকে” বলিয়া হাইপোথিসিস ফাঁদিয়া ফেলিয়াছিলাম। জাপান দেশে উহা আসিয়া রিতীমত প্রমাণিত তত্বের মর্যাদা লাভ করিয়া ফেলিলো। তার উপর মিস নিহোঙ্গো সেনসেই ইংরাজী বলিতে ব্যাপক শরমিন্দা হন – অতএব ভিনদেশী সুন্দরী শিক্ষিকার সহিত আমার চিরকুমার মনের ভাব আদানপ্রদান কার্যক্রম বিশেষভাবে ব্যহত হইতে লাগিলো। আর ভুলিয়া গেলে চলিবেনা, সবজান্তা বার্মিজ চটপটির কারণে মোহিনী সেনসেই-এর ত্যাড়ছা জাপানী কৃপাদৃষ্টি আমার উপর হইতে তো সরিয়া আছেই।

ঘটনা চক্রে শীতকাল চলিয়া গিয়া প্রকৃতিতে বসন্তের আগমন ঘটিলো। চারিদিকে ফুল ফুটিতে লাগিলো। সাকুরা বৃক্ষে পত্ররাজির সমাহার হইতে লাগিলো। ভ্রমররা মধুর খোঁজে ছুটাছুটি করিতে লাগিলো। মধুমক্ষিকারাণীরা পলাইয়া পলাইয়া বেড়াইতে লাগিলো। আর ইদিকে শ্রেণীকক্ষে ভারী ভারী বুট-স্যুট মার্কা মিলিটারী শীতবস্ত্রাদি খসিয়া আমাদিগের সুন্দরী সেনসেই-এর দেহবল্লরীতেও বসন্তের আকর্ষণীয় সুবাতাস বইতে লাগিলো। (স্ত্রীর কাছ হইতে শেষ পার্ট-খানার সংবাদ গোপন রাখিয়াছিলাম  neutral )

আহা! সেইদিনের সেই মাহেন্দ্র সকাল!
চক্ষু কচলাইতে কচলাইতে কেলাসে হাজিরা দিতে আসিয়াই শুনিলাম ওই বার্মীজ চিচিঙ্গা ফ্লু-তে আক্রান্ত হইয়াছে, আজিকের এই বসন্ত সকালে সে আসিবে না! শুনিয়া প্রকান্ড এক লম্ফ মারিলাম। অর্থাৎ, এই প্রাইভেট শ্রেণীকক্ষে আমি বিগ ম্যান জাপান আর মিছ নিপ্পন ছামিয়া একত্রে সকাল ৯ ঘটিকা হইতে বৈকাল ৪ ঘটিকা পর্যন্ত (মধ্যাহ্নভোজনের বিরতি ব্যতীত) অবস্থান করিবো এবং কেহই বিঘ্ন সৃষ্টি করিবে না! ইশশিরে! আগে জানলে তো সকাল ৬ ঘটিকায় কেলাশে হাজির হইয়া যাইতাম। বেচারী জাপানী রোমান্সপাগলী রমণী নিভৃতে একান্তে বিগ ম্যান জাপানকে ইয়ে... মানে... পাঠদান করিবে বলিয়া সাড়ে আট ঘটিকা নাগাদই বিশ্বইস্কুলে উপস্থিত হইয়াছিলো।

যাই হউক, রূপসী সেনসেই বাতায়ন খুলিয়া দিলেন। চারিদিকে তখন রোমাঞ্চময় পরিবেশ। পুষ্পের ফুলেল সুগন্ধ শ্রেণীকক্ষে মৌ-মৌ করিতে লাগিলো। বসন্তের মৃদুমন্দ বায়ু সেনসেই-এর ৮০% সিল্ক (ও ২০% পলিয়েস্টার) মিশ্রিত কেশরাজীতে প্রবাহিত হইতে লাগিলো।

তবে কিছুক্ষণ যাইতে না যাইতেই আমার অবস্থা সংগীন।
ছি ছি, কি ভাবিতেছেন আপনি বলেন তো?

না, ঘটনা অতি সরল। কিছুদিন হইলো সকালে ক্লাশে আসিয়াই প্রবল ঘুমরোগে আক্রান্ত হইতেছি। বিশেষ করিয়া, এই সুন্দরীর বোরিং ক্লাশে আমার তত্বকে ১০১% সঠিক প্রমাণ করিতে গিয়া আরো জোরকদমে চক্ষের দুইপাতায় সীসা উৎপন্ন করিবার ট্রেনিং দিতেছিলাম। আজিকের এই বিশেষদিনেও ঘুমরোগ আমার মনোযোগ সাধনে বারংবার ব্যাঘাত ঘটাইতেছিলো।

তো বসন্তের সেই সুন্দর সকালে প্রেমকুঞ্জে... আই মীন কেলাশরূমে আমাকে কি একখানি লেখালেখির এ্যাসাইনমেন্ট দিয়া রূপসী সেনসেই নখের পরিচর্যায় ব্যতিব্যস্ত হইয়া পড়িলেন।

কতক্ষণ কাকের ঠ্যাং বকের ঠ্যাং অংকন করিবার ভান করিতে করিতে ঘোড়কের মতন ঠায় বসিয়া নিদ্রাগমণ করিতে লাগিলাম।

কতক্ষণ ঝিমাইয়াছিলাম মনে নাই, নাসিকা হইতে কিঞ্চিৎ গর্জনধ্বণিও হয়তো উৎপন্ন করিয়া থাকিতে পারি। হঠাৎ তুমুল শোরগোলে আমার ধ্যানভঙ্গ হইয়া পড়িলো। বেশি শক্তিক্ষয় করিবার অভিপ্রায় ছিলো না, তাই চক্ষের পাপড়ীযুগল মিলিমিটার খানিক উন্মোচিত করিলাম – যাহা দেখিলাম তাহাতে চক্ষু মোবারক চাইনীজ পিংপং বলে রুপান্তরিত হইলো!

দেখি, বিগ ম্যান জাপান-কে শ্রেণীকক্ষে একা পাইয়া রুপসীনী শিক্ষিকা এক লম্ফ দিয়া আমার কোলপ্রদেশে আসিয়া ল্যান্ডিং করিয়াছেন! আমার বিশাল বপুখানী সুডৌল বাহুডোরে আটকাইবার আপ্রাণ চেষ্টা করিতেছেন। এহও লক্ষ্য করিলাম তিনি নির্লজ্জভাবে বিগ ম্যান জাপানের কোলে পতন মাত্রই লজ্জাবতী জাপানী রমণীর মতন চক্ষু কুঞ্চিত করিয়া মুদিয়া ফেলিয়াছেন। আবার দেখি তীক্ষ্ণ স্বরে জাপানী ভাষায় কি কি যেন চিক্কুর পাড়িয়া বলিতেছেন।

ভ্যাবাচ্যাকা খাইয়া যাওয়ায় আমার ব্রেন সেনসেই-এর জাপানী মেসেজ-এর মর্মোদ্ধার করিতে অপারগ হইলো। তবে মনে হইতে লাগিলো রূপসিনী ভালুবাসার ইউনিভারসাল ভাষায় ওয়াজ করিতেছেন “পাকাড় লো মুঝে, কাম অন! চিপকে পাকাড় লো!”

বুক চিরিয়া এক দীর্ঘশ্বাস ফেলিয়া ঈয়াদ করিলাম নিঃসঙ্গ সেনসেই-এর পারিবারিক চির দুঃখ গাঁথার সোপ অপেরা। তাহার স্বামী ৭০০ কিমি দূরত্বে টোকিও নামক শহরে এক টিভি স্টেশনের কর্মকর্তা... ৩ মাস ৬ মাসে ক্বদাচিৎ যুগলের মিলন হয়।

এই অভাগিনী সেনসেই দূর্বল মূহুর্তে বিগ ম্যান বেংগলকে আকড়াইয়া ধরিয়াছেন বুঝিয়া হঠাৎ গায়েবী রেডীওতে গানা বাজানা চালু হইয়া গেলোঃ

Oo kya karoon
Oh Oh Oh ladies
main hoon aadat se majboor!
আউয়া! আউয়া!  dancing dancing dancing (৩ বার রিপিটাইতে হইবে)

তবে গায়েবী বাজনা খতম হইতে না হইতেই এক খটকা লাগিলো।  surprised

হায়রে, স্নেহের কাঙালিনী জাপানী রমণী – তুই নাহয় এই নাখান্দা বাঙ্গালীর কোলে আসিয়া পড়িলিই।  kidding আইচ্ছা, নাহয় পেলব বাহুডোরে এই বিগ ম্যান জাপানকে না হয় আটকানোর বৃথা চেষ্টাও করিলি, কিছু মনে করিলাম না।  hehe আবেগঘন মূহুর্তের অপেক্ষায় না হয় চক্ষুও মুদিলি (এমনিতেও ইহাদের চক্ষু খোলা না দন্ডায়মান অবস্থায় ঘুমাইতেছে তাহা ঠাহর করিতে গেলে পকেটে মাইক্রোস্কোপ নিয়া ঘুরিতে হয়) – এতেও কুনো সমস্যা নাই  hug (স্ত্রীর কর্ণগোচর না হইলেই হইলো  tongue_smile )।

কিন্তু হতভাগিনী, এমন ত্রাহি ত্রাহি স্বরে চেঁচাইতেছিস কেন? রোমাঞ্চের মুডই তো বিনষ্ট হইবার উপক্রম হইতেছে...  angry

হঠাৎ বিদ্যুৎচমকের মতন কৈশোরকালে দর্শিত আ-আ-আমিড় খানননন ও মা-মা-মাধুরীঈঈঈ ডিক-শিট অভিনীত একখানি হিন্দী চলচ্চিত্রের কথা মনে পড়িয়া গেলো!  surprised নিষ্পাপ, অবুঝ কলেজ বালক দেড়ব্যাটারী আমিরকে নিশুত রাত্রে এক গোপন স্থানে আমন্ত্রন জানায় মোহিনী মাধুরী। আর বেয়াকুফ আমিরও সেন্টু মাখিয়া প্যান্টু চাপাইয়া তথায় উপস্থিত হইলে মাধুরী নিজের পরিধেয় যাবতীয় বস্ত্রাদি ছিঁড়াছিঁড়ি করিয়া বেচারা মাসুম বাইচ্ছাটার ইজ্জত ফর্দাফাঁই করিয়া বাটকুলকে ফাঁসাইয়া দেয় – বলিউড দন্ডবিধির ৪২০ ধারায় আমিরকে ফকির বানাইয়া কলেজ কর্তৃপক্ষের নিকট সোপর্দ করে ম্যাঢুড়ী!

ইদিকে বাস্তবে জাপানী রোমাঞ্চ কাহিনীর পটভূমিতে আমার কোলাবিষ্ট নিপ্পনবাসিনী ক্যাটরীনার স্যান্ডোগেঞ্জি জাতীয় যে একখানা বস্তূ পরিধান করিয়া আছেন তাহা ছিঁড়াছিঁড়ি করিবার মত কোনো অবকাশই খুঁজিয়া পাইলাম না  whats_the_matter – উহা সকাল হইতেই নিষ্ঠার সহিত প্রকৃতির কুদরত প্রদর্শন করিয়া আসিতেছিলো।  blushing  blushing  blushing

অবস্থার আকস্মিক ১৮০ ডিগ্রী পরিবর্তনে আমি বিগ ম্যান জাপান হইয়া গেলাম হিংস্র জাপানী ম্যানঈটার ক্যুগার বাঘিনীর কবলে এক ভীত হরিণ শাবক!  ghusi মনে মনে নিজের ইন্তেকাল ফরমাইতে লাগিলাম নিজেই।  hairpull আজিকে এই ক্যুগারের হাত হইতে কোনোমতে নিস্তার পাইলেও নির্ঘাত স্ত্রীর হাতের ময়দা বেলনের ডান্ডাবাড়ী খাইয়া ভবলীলা নিশ্চিৎ সাঙ্গ হইবেই!  crying

পরিত্রাণের আশায় ইতস্ততঃ চক্ষু বুলাইতে লাগিলাম...

আর ঠিক তখনই নজরে পড়িলো...

ক্রমশঃ...

(স্টে টিউনড ফর আগলা এপিসোড, ভাইচ্চা)


… and yep! This is based on a real incident!  whats_the_matter

Calm... like a bomb.

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আহমাদ মুজতবা (৩০-০৮-২০১২ ০৭:৩৯)

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

invarbrass লিখেছেন:

… and yep! This is based on a real incident!

Yes, I figured!

আগলা এপিসোড তাড়াতাড়ি চাই। বেশ মজায় দিনাতিপাত করেছেন দেখি। কিছুটা আমার টাইপের সাথে মিলে যায় যদিও  tongue

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

এই হক্কাল বেলা ফ্রচুর বিনুদুন পাইলাম  big_smile। ফরের টাও তাড়াতাড়ি দিয়েন  smile

জ্ঞান হোক উম্মুক্ত

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

নেক্সট পার্ট না তাড়াতাড়ি না দিলে খবর আছে!!!
আচ্ছা ভাই, ওই কাঠি দিয়া ভাত খাইতে সমস্যা হয় নাই?

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

অসংখ্য ধনেপাতা । সঙ্গে +। এটা কে আমি  রবি ঠাকুরের  Ladies VS. Invar Bahl বলিয়া আখ্যায়িত করিলাম।

মেডিকেল বই এর সমস্ত সংগ্রহ - এখানে দেখুন
Medical Guideline Books

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

ব্রাশু ভাইয়ের দেখি রসবোধ ও আছে wink আমিতো ভেবেছিলাম কাঠখোট্টা এক ডাক্তার/প্রোগ্রামার!!

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

ইলিয়াস লিখেছেন:

ব্রাশু ভাইয়ের দেখি রসবোধ ও আছে wink আমিতো ভেবেছিলাম কাঠখোট্টা এক ডাক্তার/প্রোগ্রামার!!

উনার পোস্ট বা টপিকগুলো পড়লে তো এরকম ভাবার কোন কারণ দেখিনা confused

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

ব্রাশুদা, এই লেখাটা ব্রাশু বৌদী দেখলে আপনাকে ঘরে থাকতে দেওয়ার সম্ভাবনা কতটুকু? hehe

ইট-কাঠ পাথরের মুখোশের আড়ালে,
বাধা ছিল মন কিছু স্বার্থের মায়াজালে...

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

মামারে জোশ লাগলো। পরের পর্বের অপেক্ষায় রইলাম।

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১০

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

ইহা ভাবীকে দেখাইয়াও লাভ নাই মনে হয়। এই বালক যে ইনভারব্রাস নামে পরিচিত, সেইটা বোধহয় ভাবীও জানেন না।  worried

ভালই বিনুদিত হইলাম। জাপানে যাইবার কিঞ্চিৎ মনোবাসনা হইলেও ওই চিগিমিগি ভাষার কারনে উহা সংবরন করিলাম।

১১

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

হাহাহা, জোস!

জাগরণে যায় বিভাবরী ...

১২

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

invarbrass লিখেছেন:

উহা সকাল হইতেই নিষ্ঠার সহিত প্রকৃতির কুদরত প্রদর্শন করিয়া আসিতেছিলো।  blushing  blushing  blushing

এরকম প্রকৃতির কুদরত পেলে কি আর স্ত্রীর কথা মনে থাকে?  wink
ভালো লাগলো। ধন্যবাদ আপনাকে।

১৩

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

এত বড় লেখা দেখে পড়তে ভয় লাগছিল

কিন্তু প্রথম কয়েকলাইন পড়িয়া যারপর নাই আনন্দিত এবঙ হাসিতে লাগিলাম শেষ পর্যন্ত কপি করিয়া ওয়ার্ডে নিয়া গিয়া প্রিন্ট করিয়া পড়িতে লাগিলাম । আহ্ কি চমৎকার লিখনি । মনটাই  ভরিয়া গেল ব্রাশু ভাইয়া ।

অনেক মজা পেলাম ।

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

১৪

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

ছবি-Chhobi লিখেছেন:

কিন্তু প্রথম কয়েকলাইন পড়িয়া যারপর নাই আনন্দিত এবঙ হাসিতে লাগিলাম শেষ পর্যন্ত কপি করিয়া ওয়ার্ডে নিয়া গিয়া প্রিন্ট করিয়া পড়িতে লাগিলাম ।

ব্রাউজার থেকেই তো প্রিন্ট করা যায় । whats_the_matter (Ctrl+P)

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit

১৫

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

dancing মজাই মজা  dancing
ইব্রাশ ভাই  tongue_smile যথাসম্ভব শীঘ্রই আগলা ইপিসোড দেন  waiting

  Tenacity - Focus - Discipline - Repetition

   Sabbir's Blog 

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আরণ্যক (৩০-০৮-২০১২ ১৫:২২)

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

lol lol lol

চমৎকার লেখুনী ব্রাসু ভাই। ভাগ্যিস আমাদের ভাবীরা (/হবু ভাবীরা) প্রজন্ম পড়েন না। না হলে বেশ কিছু ভাইয়ের...  tongue

পরের পর্বের অপেক্ষায় থাকলাম।  hug

ইয়ে, ব্রাসু ভাই "মতিকন্ঠ" এ লেখেন নাকি?  thinking

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

১৭

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

পিটি২ পড়িবার আশায় খানিক্ষন পর পর চক্কর মারিতেছি। মনে হইতেছে শেষ না হওয়া পর্যন্ত গলা শুকাইয়া থাকিবে,  সে ওই প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য প্রদানকারী শিক্ষিকাই হউক কিংবা আমাদের বাংলার  বিগ শো  কিংবা ভীম সেনের দুরবস্থার কথা চিন্তা করে যেটাই হোক না ক্যান, আগ্রহ বড্ড অদম্য হয়ে উঠিতেছে। 

যাহা হউক, বিগ শো / বিগ ম্যান কথাটা উঠিবার পর থেকে ইনভারব্রাস বলিতে গেলে আমার মনে কেবল নীচের ছবিটি ভাসিয়া উঠিতেছে।  confused গদা হাতে ভীমের ছবি পাইলাম না খুঁজে, না হয় একটা ট্রায়াল দেয়া যাইতো।

http://www.whitegadget.com/attachments/pc-wallpapers/81473d1317459884-bigshow-bigshow-img.jpg

আশা করি "Close Enough"  tongue

১৮

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

রচনার শিল্পগুণ এমন গভীর হইলেই পড়িয়া আমোদ পাওয়া যায়!!
আমোদিত হইলাম! cool

লেখাটি CC by-nd 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৯

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

হা হা হা....বৌ বাপের বাড়ি গেলে কত্ত ফ্রীডম tongue বেশ রসিয়ে লিখেছেন ইনভার ভ্রাতা! পরের পর্বের অপেক্ষায়।

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

২০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মর্নিংস্টার (৩০-০৮-২০১২ ১৮:৪৪)

Re: Ladies VS. Invar Bahl – Pt. 1

বেরাসু ভাইরে ভাবছিলাম নিরস জ্ঞানী মানুষ। এক্ষন দেখি উনিও কম যায় না!! big_smile

If you want to make your dreams come True, the first thing you have to do is Wake up.