টপিকঃ মাদার

http://dl.dropbox.com/u/67405813/Mother.jpg

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

Re: মাদার

ভাল হইছে, আমিও শিখতে চাই ।

Re: মাদার

ভালোই হয়েছে, প্রজন্মে অনেকদিন পরে আসলেন  dancing

roll

Re: মাদার

মাদর তেরেসার ছায়া দেখতে পাচ্ছি।  smile

Re: মাদার

দারুন হইছে smile

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

Re: মাদার

ইলিয়াস লিখেছেন:

মাদর তেরেসার ছায়া দেখতে পাচ্ছি।  smile

আমি তো মাদার তেরেসাই দেখলাম  thinking thinking thinking

roll

Re: মাদার

নতুন পণ্ডিত লিখেছেন:
ইলিয়াস লিখেছেন:

মাদর তেরেসার ছায়া দেখতে পাচ্ছি।  smile

আমি তো মাদার তেরেসাই দেখলাম  thinking thinking thinking



পন্ডিত ঠিক ই দেখছ যেহেতু উনি বেচেঁ নেই সেহেতু এইটা তার ছায়া বলা যায় , যায় নাকি ?

সুন্দর কাজ অরুন ।

"You hate everything you see in me-Have you looked in a mirror'

http://www.priyobd.net/  Live chat with us !!

Re: মাদার

চমৎকার work smile

Seen it all, done it all, can't remember most of it.

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: মাদার

দারুন

"We want Justice for Adnan Tasin"

১০

Re: মাদার

মাদার তেরেসা আমার খুব পছন্দের এক জন মানুষ। দুস্থ মানুষদের সেবায় তিনি যে ভাবে আত্মনিয়গ করেছিলেন তা অবিস্মরণীয়।

উনার জীবনের একটা কথা বলি, উনার মানসিকতা বুঝার জন্য।

একবার মাদার তেরেসা তার হোমসের জন্য রাস্তায় ঘুরে ঘুরে সাহয্য তুলছিলেন। তো এক মুদির দোকানে গিয়ে তিনি দোকানদারের সামনে তাঁর হাত বাড়িয়ে দিয়ে সাহয্য চাইলেন। যে কারণেই হোক সেই দোকানদার মাদার তেরেসাকে একেবারে পছন্দ করতেন না। (যেহেতু তিনি খ্রিষ্টান মিশনারী, তাই উপমহাদেশের অনেকেই তাকে ঘৃনা করেন) তো সেই দোকানদার তীব্র ঘৃণা ভরে মাদার তেরেসার হাতে থুতু ছিটিয়ে দিলেন।
দোকানদারের এই আচরণে মাদার এতটুকু উত্তেজিত না হয়ে, সেই হাত সরিয়ে অন্য হাত বাড়িয়ে দিয়ে বললেন- "এই থুতু তো তুমি আমাকে দিলে, এবার আমার হোমসের অসহায় রুগীদের জন্য কিছু দাও।"

তাঁর এই দৃষ্টিভঙ্গিকে স্যালুট করি।

আমাদের দেশে মুক্তিযুদ্ধের সময় পাক হানাদার বাহিনীর অত্যাচারের ফলে যে সব যুদ্ধ শিশু জন্ম গ্রহন করেছিলেন, তাদের প্রতি সবচেয়ে বড় দায়িত্ব পালন করেছিল কিন্তু মাদার তেরেসা হোমস।

দাদাকে ধন্যবাদ এই মহিয়সী নারীর প্রতিকৃতি আমাদের সামনে তুলে ধরার জন্য। উনি রেপু দেয়া পছন্দ করেন না বলে দিলাম না।

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

১১

Re: মাদার

সকলকে ধন্যবাদ৷  smile

আরণ্যক লিখেছেন:

একবার মাদার তেরেসা তার হোমসের জন্য রাস্তায় ঘুরে ঘুরে সাহয্য তুলছিলেন। তো এক মুদির দোকানে গিয়ে তিনি দোকানদারের সামনে তাঁর হাত বাড়িয়ে দিয়ে সাহয্য চাইলেন। যে কারণেই হোক সেই দোকানদার মাদার তেরেসাকে একেবারে পছন্দ করতেন না। (যেহেতু তিনি খ্রিষ্টান মিশনারী, তাই উপমহাদেশের অনেকেই তাকে ঘৃনা করেন) তো সেই দোকানদার তীব্র ঘৃণা ভরে মাদার তেরেসার হাতে থুতু ছিটিয়ে দিলেন।
দোকানদারের এই আচরণে মাদার এতটুকু উত্তেজিত না হয়ে, সেই হাত সরিয়ে অন্য হাত বাড়িয়ে দিয়ে বললেন- "এই থুতু তো তুমি আমাকে দিলে, এবার আমার হোমসের অসহায় রুগীদের জন্য কিছু দাও।"

ভাই অরণ্য, আমাদের দেশ সম্বন্ধে এই তথ্যটা যেখান থেকে পেয়েছেন তার একটা সূত্র দয়া করে দিতে পারবেন? কথাটা অন্যভাবে নেবেন না, কেবল মাত্র তথ্যের জন্যই জানতে চাইলাম৷

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

১২

Re: মাদার

সেই দোকানদার কলকাতার। সটা বোধহয় আপনার দেশে।

ড. জাকির নায়েক তার একটা বক্তিতায় উনার সম্পর্কে বলছিলেন। বিষয়টা ছিল এমন যে উনি খ্রিষ্টান হওয়ায় তার ভাল কাজের কোন দাম নেই। হল ভর্তি লোক তাকে সমর্থন করছিলেন। লোক গুলিও বোধহয় আপনার দেশের।

আর আপনি নিশ্চয় মাদার তেরেসার জীবনী পড়েছেন।

সত্য কখনও খুব তিতো হয়। সাম্প্রদায়িক সহিংসতা ভারতে নতুন কিছু না। পিছনের ইতিহাস কি বলে, সে দিকে আর যাচ্ছি না। শুধু একটা কথা বলি- বাবা আম্বেদ কর (চিনেন নিশ্চয়) এক জন হরি জন হওয়ায় তাঁকে কি পরিমান কষ্ট করতে হয়েছে তা তো আপনার জানা। এ গুলি ঘটনা থেকেই এক দেশ সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।

দাদা, কিছু মনে করবেন না- শুধু একটা বিষয়ে প্রাপ্ত মনস্ক হলে হবে না। সব বষয়েই বড় হয়ে উঠতে হবে। hug

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

১৩ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন অরুণ (০৯-০৭-২০১২ ০০:০২)

Re: মাদার

আরণ্যক লিখেছেন:

পিছনের ইতিহাস কি বলে, সে দিকে আর যাচ্ছি না।

না, না থামলেন কেন সেই মোঘলদের আক্রমণের সময় থেকে ইতিহাসটাও বলতে পারেন অথবা আমাদের স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ের হিংস্রতা, বিজ্ঞানে উন্নতি, নোবেল থেকে অস্কার, চিকিত্সাবিজ্ঞান, নদী, অনুপ্রবেশ সমস্যা,নকল নোট পাচার অনেক টপিক আছে বলুন ধৈর্য্য ধরে শুনবো৷

আরণ্যক লিখেছেন:

এ গুলি ঘটনা থেকেই এক দেশ সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।

তা আমার দেশ সম্পর্কে, দেশের মানুষগুলো সম্পর্কে আপনাদের ধারণাটা একটু বলবেন, তাহলে বুঝতে পারবো এই ফোরামে আমাকে অন্যরা ঠিক কিভাবে দেখে৷


পূণশ্চ - অরণ্য আপনি কি এনাক কথাই আমাকে বলেছেন http://en.wikipedia.org/wiki/Zakir_Naik
যদি ইনিই তিনি হন, তবে বলব, আমার খুব ভালো লেগেছে "Naik's views" অংশটি পড়তে৷  smile আপনাকে অজস্রবার ধন্যবাদ জানাই কেননা, আপনি না জানালে এই লেখাটি পড়া থেকে বঞ্চিত হতাম৷

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

১৪ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আরণ্যক (০৯-০৭-২০১২ ০০:২৫)

Re: মাদার

Arun লিখেছেন:
আরণ্যক লিখেছেন:

এ গুলি ঘটনা থেকেই এক দেশ সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।

তা আমার দেশ সম্পর্কে, দেশের মানুষগুলো সম্পর্কে আপনাদের ধারণাটা একটু বলবেন, তাহলে বুঝতে পারবো এই ফোরামে আমাকে অন্যরা ঠিক কিভাবে দেখে৷

দাদা বাচ্চাদের মত আচরণ করছেন কেন? আমি কি বললাম তা তো একটা ফোরামের মাপ কাঠি হতে পারে না।

যাই হোক, আপনার না আপনাদের দেশ কে এবং তাদের লোক কে আমি অত্যন্ত শ্রদ্ধা করি। আমি সব দেশকেই শ্রদ্ধা করি। শুধু একটা দেশ নিয়ে একটু এলার্জি আছে। মুক্তি যুদ্ধের সময় আপনাদের সহোযোগিতা যেমন আমি কখনই অস্বিকার করতে পারি না। আবার যখন কিশরীর লাশ তারকাটায় ছুড়ে ফেলা হয় বা যুবক কে উলঙ্গ করে পিটিয়ে ভিডিও করা হয় তাও ভুলতে পারি না।

আপনাদের দেশকে ছোট করার কোন রকম ইচ্ছা আমার নাই। কিন্তু আপনি আমার লেখা বোল্ড করে জানতে চেয়েছন আপনাদের দেশে এমন মানসিকতার লোক আছে তা বলার সুত্র কোথায়। আমি আমার সুত্র বললাম। এখন আপনি যদি দাবি করেন আপনারা সবাই সাম্প্রদায়িক ভাবে খুবই উদার তাহলে কিছু বলার নেই।

বাবা আম্বেদ কর, মাদার তেরেসা, এ পি জে আব্দুল কালাম ইনাদের কে অনেক শ্রদ্ধা করি।

পূণশ্চ - অরণ্য আপনি কি এনাক কথাই আমাকে বলেছেন http://en.wikipedia.org/wiki/Zakir_Naik
যদি ইনিই তিনি হন, তবে বলব, আমার খুব ভালো লেগেছে "Naik's views" অংশটি পড়তে৷

উনাকে তো না চিনার কিছু নেই। আপনি এমন ভাবে বলছেন যে উনি অন্য দেশের লোক। কেন দাদা?

ও আর একটা কথা, আপনাদের দেশ কে অসম্মান করার সামন্য তম ইচ্ছাও নেই। উপমহাদেশ বলতে যে শুধু ভারত কে কিভাবে বুঝায় তাও মাথায় ঢুকল না।

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

১৫ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন অরুণ (০৯-০৭-২০১২ ০০:৪০)

Re: মাদার

আরণ্যক লিখেছেন:

উনাকে তো না চিনার কিছু নেই। আপনি এমন ভাবে বলছেন যে উনি অন্য দেশের লোক। কেন দাদা?

ও আর একটা কথা, আপনাদের দেশ কে অসম্মান করার সামন্য তম ইচ্ছাও নেই। উপমহাদেশ বলতে যে শুধু ভারত কে কিভাবে বুঝায় তাও মাথায় ঢুকল না।

ওনাকে চিনলে না চেনার ভান করার কোন ইচ্ছাই আমার নেই৷ আর চিনলে কষ্ট করে উইকিপেডিয়াতে গিয়ে সার্চ করব কেন৷ আবারো আপনাকে ধন্যবাদ জানাই কারণ আপনার জন্যই একটি সুন্দর লেখা "Naik's views" অংশটি পড়লাম৷

১২৫ কোটি লোকের মধ্যে কজনকে চিনবো?

আমি না পড়াশোনায় খুব কাঁচা ছিলাম তো তাই বর্তমানে কেবল ছাপাখানার শ্রমিক, তাই পড়াশোনার জিনিসগুলো ঠিক বুঝিনা, আচ্ছা উপমহাদেশ বলে কেন?

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

১৬

Re: মাদার

ওনাকে চিনলে না চেনার ভান করার কোন ইচ্ছাই আমার নেই৷ আর চিনলে কষ্ট করে উইকিপেডিয়াতে গিয়ে সার্চ করব কেন৷ আবারো আপনাকে ধন্যবাদ জানাই কারণ আপনার জন্যই একটি সুন্দর লেখা "Naik's views" অংশটি পড়লাম৷

উনার ভিউ সম্পর্কে আমার কিছু বলার নাই।

তবে আপনাদের দেশের এই মানুষটি কিন্তু আন্তর্জাতিক ভাবে বিক্ষ্যাত। তাকে না চেনাতে একটু অবাক হয়েছিলাম। যাই হোক, এটা হতেই পারে।

১২৫ কোটি লোকের মধ্যে কজনকে চিনবো?

হুম। সেটাই।

উপমহাদেশ বলে কেন?

উপমহাদেশ  thumbs_up

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

১৭

Re: মাদার

আরণ্যক লিখেছেন:

উনার ভিউ সম্পর্কে আমার কিছু বলার নাই।

smile

আরণ্যক লিখেছেন:

তবে আপনাদের দেশের এই মানুষটি কিন্তু আন্তর্জাতিক ভাবে বিক্ষ্যাত। তাকে না চেনাতে একটু অবাক হয়েছিলাম। যাই হোক, এটা হতেই পারে।

হ্যাঁ , Criticism আর views পড়েই বুঝেছি আমি কি ভুল করেছি....৷ সত্যিই ওনার সম্বন্ধে আমার জানা উচিত ছিল৷ এবং সত্যি উনি আন্তর্জাতিক ভাবে বিখ্যাত৷  smile

শুভরাত্রি...... ভালো থাকবেন৷

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

১৮

Re: মাদার

বেশ হয়েছে thumbs_up এটা একদিন পেন্টে আঁকতে হবে।
রাজনীতি থেকে নিরাপদ দূরত্বে থাকুন। আমরা দুই দেশের উলুখাগড়ারা ঐ বিষফল ছাড়াই বেশ থাকতে পারবো।

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন অরুণ (০৯-০৭-২০১২ ০১:২৯)

Re: মাদার

উদাসীন লিখেছেন:

আমরা দুই দেশের উলুখাগড়ারা ঐ বিষফল ছাড়াই বেশ থাকতে পারবো।

আজ আর তা মনে হয় না উদাসীন......
আমি সিকিমের ছবি দিলে তাতেও আমার দেশ নিয়ে মন্তব্য করা হয়.... উদাহরণ দেওয়া হয় একটি মেয়েকে একটি ছেলে জোর করে বিয়ে করেছে৷
নৌকার ছবি আঁকলে বলা হয় আমরা তোমাদের দেশের নদীগুলিকে মেরে ফেলেছি৷
মাদারের ছবি আঁকলেও উক্তি.... আমাদের ইতিহাস....
ইভটিজিং ও পরিসংখ্যানের কারণ নিয়ে বললে তাতেও "আমি নাকি সব বুঝনেবালা পাবলিক" তাহলে কি নিয়ে লিখব বা আঁকবো বলতে পারেন?

যদিও আপনার এই "নিরাপদ দূরত্বে থাকুন" কথাটিকে আমি সতর্কবার্তা হিসাবেই গ্রহণ করলাম৷ এবং কোন কথা বিরুদ্ধে মনে হলেও কোন উক্তি করব না প্রতিশ্রুতি দিলাম৷

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

২০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন হৃদয় (০৯-০৭-২০১২ ০১:৪৮)

Re: মাদার

@আরণ্যক ভাই এবং Arun ভাই

আরণ্যক লিখেছেন:

যেহেতু তিনি খ্রিষ্টান মিশনারী, তাই উপমহাদেশের অনেকেই তাকে ঘৃনা করেন

কথাটা পাস্টটেন্সে হলে খুব একটা আপত্তির জায়গা থাকেনা।

খ্রিষ্টান মিশনারী বলতে প্রথমেই কাদের নাম মনে আসে? নিশ্চই ডেভিড হেয়ার, জন ড্রিঙ্কওয়াটার বীটন, মাদার টেরেসা প্রমুখের নাম মনে পড়ে? প্রশ্ন হল খ্রিষ্টান মিশনারী হিসাবে ভারতে কি শুধু এঁরাই এসেছিলেন? নিশ্চই নয়। বরং হাজার হাজার মিশনারি এসেছিলেন। তাঁদের মধ্যে এঁদের নাম বিশেষভাবে মনে রাখার কারণ এঁদের কন্ট্রিবিউশন। তৎকালীন ভারতবাসী নিজেদের দেশকে যতোটা ভালোবাসতো, তার চেয়ে এঁরা ভারতকে বেশী ভালোবাসতেন। এ কথাটা জেনারালাইজেশান, তবে সামগ্রিক বিচারে অন্যায্য নয়। এটা স্বীকার করার মধ্যে লজ্জা নেই।

তবে সেসময়কার লোকে কিছুটা জেনারালাইজেশান করেছিলো, যেটা খুব একটা দোষেরও ছিলোনা। মনে রাখতে হবে যারা আদিবাসী মুণ্ডাদের গণহারে বাপ-দাদার ধর্ম (আইডেন্টিটি) কেড়ে নিয়ে জোর করে ক্রীশ্চান করেছিলো তারা মিশনারী ছিল, বিরসা মুণ্ডাকে নিয়ে যারা বিচারের নামে প্রহসন করে হত্যা করেছিলো তারা মিশনারি ছিল, সাঁওতালদের জন্মভিটে কেড়ে নিয়ে যারা তাদেরকে নিজের দেশেই উদ্বাস্তু করেছিলো তারাও মিশনারি ছিল। আশাকরি সকলেই স্বীকার করবেন, এই দরিদ্র, অশিক্ষিত আদিবাসীদের ধর্ম কেড়ে নেওয়া মানে তাদের আইডেন্টিটি কেড়ে নেওয়া। পরিচয় কেড়ে নেওয়া। বিষয় গুরুত্বে এটা কতখানি ভয়ংকর সেটা মেকিয়াভেলি থেকে মহাশ্বেতা দেবী সকলেই ব্যাখ্যা করেছেন। নতুন করে কিছু বলার নেই।

উপমহাদেশ তো বিরাট অঞ্চল জুড়ে ব্যাপ্ত। ব্রিটিশ শাসন এবং মিশনারিদের কর্মকাণ্ডের ইতিহাস তো বহুবছরের। ছোট্ট একটা পরিসরকে নমুনা হিসাবে ধরা যাক। স্থান ছোটনাগপুর মালভূমি, সময়কাল ১৮৭৯-৯০ খ্রী: ক্যাথলিক এবং প্রটেস্টান্ট চার্চের দলাদলিতে এবং লিয়েভেনসের মদতে শত শত মুণ্ডা আদিবাসী মারা গিয়েছিলো। সে ঘটনার অল্প পরিসরে বর্ণনা দিতে গেলেও সেটা ফোরামের পক্ষে অনুপযুক্ত হবে। সারা ভারতে আদিবাসীদের উপর ধর্মীয় আগ্রাসন (অ্যাকচুয়ালি পরিচয়হীন করে দেওয়ার অভিযান) হলোকাস্টের তুলনায় কম ভয়ানক না।

আটের দশক পর্যন্ত "হো" ভাষায় "শোষণ" এর কোন সমার্থক শব্দ ছিল না। "অরণ্যের অধিকার" বইটি অনুবাদ করতে গিয়ে পশুপতি জোংকো নামে এক যুবক মহাশ্বেতা দেবীকে একথা বলেন। তাদের গোটা ইতিহাসই শোষণের ইতিহাস, নতুন করে সেটাকে অ্যাড্রেস করতে কোন শব্দ ব্যবহার করার প্রয়োজন পড়েনি। এই অবস্থার পিছনে মিশনারিদের দায়িত্ব কম নয়।

শহুরে নিম্নবিত্ত জীবনযাত্রায় এই আগ্রাসনের প্রভাব খুব ভালোমতই পড়েছিলো।

জেনারালাইজেশান স্বাভাবিক। ভালো মিশনারিদের নির্দোষ প্রমাণ করার দায়িত্ব তৎকালীন সাধারণ মানুষগুলোর নয়, নিজেদের উদ্দেশ্যের সততা প্রমাণের দায়িত্ব তাঁদের নিজেদের। আমার মনে হয়, হেয়ার, বীটন অথবা অতুলনীয় মাদার টেরেসা কখনো সেই সাধারণ মানুষগুলোকে নিজেদের শত্রু ভাবেননি, অন্তরে তাঁরা হয়ত বুঝেছিলেন যে বিষবৃক্ষ লুকিয়ে রয়েছে তাঁদের বন্ধুর ছদ্মবেশে, হয়ত তাঁরা সেই সাধারণ মানুষগুলোকে ক্ষমা করতে পেরেছেন।

আমার বক্তব্য এটাই ছিল যে "খ্রীষ্টান" ধর্মীয় পরিচয়টা নয়, শোষকের পরিচয়টাই বড় ছিল। ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে বিষয়টাকে দেখার কোন সুযোগ নেই। হো ভাষার আঞ্চলিক বিদ্রোহের গানে এই শোষকদের চিহ্নিত করতে বারবার "সাদা খ্রীষ্টান" কথাটা ব্যবহার হয়েছে। এই ফ্রেজটা নি:সন্দেহে দেশীয় ক্রীশ্চানদের বা আফ্রিকার ক্রীশ্চানদের নির্দেশ করত না। সুতরাং কেউ যদি শুধু ক্রীশ্চান বলেই মাদার টেরেসার প্রতি বিদ্বেষ প্রকাশ করেন, সেটাকে ভারতের ইতিহাসের জীবন্ত বাণী মনে করার কারণ নেই। বরং অত্যন্ত সহজ সিদ্ধান্তে উক্ত ব্যাক্তিকে স্পেসিফিক্যালি সাম্প্রদায়িক বলাই যুক্তিযুক্ত হবে। গোটা ন্যাশনালিটিকে নয়।

এবং ছবিটি ভালো হয়েছে  clap

"No ship should go down without her captain."

হৃদয়১'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত