টপিকঃ কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

আগের গুলি -

কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা

কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ২

*****************************************************

কথায় আছে - " কিছু কিছু মানুষের চলে যাওয়াটা মেনে নেওয়া যায় না "  smile । মুনের সাথে ও আমার সেরকম ই একটা ক্র্যসিং পর্যায় শুরু হয়েগিয়েছিল , তবে পার্থক্যটা ছিল শুধু - ভয়  dontsee । মেয়েটার  সাহস ছিল সেইরকম  thumbs_up


মুন ক্র্যসিং:

http://i.imgur.com/R5lZZ.jpg

সময়টা ছিল সদ্য এসএসসি পরিক্ষা দেওয়ার পর ফ্রি টাইম  wink । পরিক্ষা শেষ , আমি ও রিল্যক্স মুডে চুল বড় করে ফেলছি  big_smile , বাম হাতের কানি  tongue আঙ্গুলের নখ ও বেশ বড় হয়ে গেছে  thumbs_up । নাইকির দুইটা ধাতব পদার্থ  ফারমগেইট থেকে কিন্না আনলাম - একটা ব্রেইস্লেট হাতে এবং একটা রিং বাম হাতের আঙুলে , দুইটা রিং ও কিনছিলাম কানে পড়ার জন্য তবে একটা ইউস করতাম  big_smile । বসুন্ধরা সিটির গ্রাউন্ড ফ্লোরে তখন কিছু নতুন সেলুন খুলেছিল  thumbs_up । বেশ ভালু মুডেই ছিলাম  smile - চুল কেটে বারগান্ডি কালার মাইরা যখন দোকানে আসলাম (চায়ের দোকানে ) বন্ধুরা টাসকি খাইয়া গেল  wink । সবাই বলে কিরে ফ্রিডম জেন্দেগি চালু তাই না । আমি বলি দোস্ত স্কুলে তো স্যর আর ম্যডামরা বুঝলো না ফ্যশন sad ,  আর এখন ই তো সময়  tongue




যারা ঢাকা টেক্সটাইলে (সাতরাস্তারটা)  পড়েন  হয়ত জানেন তাদের একটা হোস্টেল আছে যায়যায়দিন এর পাশেই অবস্তিত । তখন মহিলা হোস্টেলটি ছিল না এবং মাঠের দেয়াল ও ছিল না । এলাকায় সেটাই আমাদের খেলার মাঠ ছিল । টেক্সটাইল হোস্টেলটির পাশেই বিরাট রিস্কার গ্যরেজ ছিল । তার পাশেই একটা চায়ের দোকান এবং সেখানে আমাদের আড্ডার স্থান । স্কুল থেকে আমরা অনেক দূরেই বসতাম কারন স্কুলের সামনে বসলে অনেকেই মাইণ্ড করতে পারে আর যেহেতু এলাকার সাথেই স্কুল তো সেইহিসাবে বাসা আর স্কুল একই জিনিস  wink । ঘটনার সুত্রপাত তখন ই ঘটেছিল । বন্ধুরা বসে আড্ডা দিচ্ছিলাম হঠাত  এক ফ্রেন্ড বলে বসল এই তোর যদি সাহস থাকে যাহ ঐ স্কুল ফেরত মেয়েটার সাথে কথা বল দেখি  big_smile তখন বুঝুম তোর সাহস আছে । আমাদের মধ্যে প্রাইয় এসব ধরনের বাজি বা শর্ত হইত  wink । ফিরে পিছনে ঘাড় গুরিয়ে তাকালাম দেখি একটা মেয়ে প্রায় মাথা নিচু করে হেঁটে আসছে এবং সম্ববত বর্তমান আহসানাউল্লাহ ইন্সটিউট এর পিছনেই বাসা । তো বহুত সাহস নিয়া দোয়া দুরুদ পড়ে গেলাম । যদি কথা বলে নাম জানতে পারি তাইলে আইজ চা আর কেক এর দাম দোস্ত দিব আর হেরে গেলে আমার  sad । ঠাস করেই মেয়েটার সামনে দাড়াই গেলাম  cool । পুরাই রাস্তা ব্লক  big_smile
বললাম - " এই যে আপনি কোন ক্লাস পরেন "  wink । মেয়েটা আচমকা আমার আগমনে  ডরাই গেছে থতমত মুখে বলল - যি ইয়ে মানে ক্লাস এইট ।
আমি : অহ  ঠিক আছে যান আর আপনার নামটা একটু বলবেন প্লিজ  love
মেয়েটা পুরো শুন্য দৃষ্টিতে আমার দিকে চাইল একবার আমি চোখ দেখে চুপ মেরে গেলাম  sad । কি বলব বুঝে উঠতে পারলাম না পরে বললাম ঠিক আছে বলা লাগবে না যান আর কিছু মনে করবেন না সরি  neutral neutral । আমি চলে আসার পর আড্ডায় অট্টহাসির রোল পরে গেলো । সেইদিন আমাকেই চা , বিড়ি এবং কেক এর বিল দিতে হল  hairpull hairpull





পলেটেকনিকে ভর্তি হইলাম । তখন আমি সেকেন্ড সেমিস্টারে । একটা ব্যগ কিনেছিলাম নিউমার্কেট থাইক্যা  big_smile , আমি তার মদ্ধ্যে কেমেস্টি - ২, আর রসায়ন বইই এবং  ক্লাসের ইয়া লম্ভা পাইপ আর্ট পেপার আর কাঠের  স্কেল মাথা উচিয়ে ঝুলে থাকত  big_smile
নতুন কলেজে পড়ি ভাবই আলাদা  big_smile । স্কুল এর পাশেই তখন একটা রাস্তা ছিল বাসা বরাবর আমাদের । বাসা থেকে বিড়িয়েই কলেজের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিতাম , খালি পেটেই গলির মোড়ের শেষ দোকানে গিয়া একটা লিফ সিগারেট আর এক কাপ চা দিয়া কলেজের তাহের ( hairpull angry)স্যরের ক্লাস ধরার জন্য ছুটতাম । তখন এটাই আমার ছিল রুটিন তারপর একটা ক্লাস করার পর গেটের বাইরে মাম্মারে আইডি কার্ড দিয়া খিচুরি খাইতাম । দুপুরে ক্লাস শেষে বাসায় এসে আবার চায়ের দোকানে আড্ডায় বসতাম  smile


প্রচন্ড গরমে মাথার চুল কাটতে বাধ্য হইলাম  sad । একটা কাউবয় হ্যট কিনলাম সেটা মাথায় দিয়া বের হচ্ছিলাম কলেজের উদ্দেশ্যে , পথিমধ্যে হঠাত শুনলাম - " টাক্কু " । পিছনে তাকালাম কোন শালায় কয় টাক্কু এইডা কি মজার যায়গা নাকি  angry । কিন্তু পিছনে কোন ছেলেকেই দেখি নাই । কিছু মেয়ে দাঁড়িয়ে আছে স্কুলের পথে যাবে । আবার হাটা শুরু করতে না করতেই সেই একই ডাক শুনলাম - " টাক্কু " । এইবার সাথে সাথে তাকালাম , দেখি কিছু মেয়েরা চারপাচজন মিলে হাসি দিতাছে । আমি শিউর এদের মইধ্যে কেউ আমার এই কথাটা বলেছে । যাক সব বাদ দিয়া আবার কলেজের উদ্দেশে রওয়ানা দিলাম - কুল ম্যন  ডোন্ট মাইন্ড  cool


বিকালের আড্ডায় চা আর সিগারেটের মদ্ধ্যে আমরা বন্ধুরা দোকানে বসে আছি । একটা মেয়ে ঠিক আমার সামনে এসে দাঁড়াল । তার চুলগুলো পুরোই পিঠ বরারবর । কপালের মাঝখানের সিথির দুই পাশের চুলে ব্রাউন কালার দেয়া ।চেহারা  love love। দোকানে অনেক কিছু মুরুব্বি ও বসে ছিল । মেয়েটা হাত এর আঙ্গুল উচিয়ে আমাকে দেখিয়ে বলল - এই যে আপনি একটা কথা আছে এদিকে আসেন  surprised । আমি তো পুরাই টাসকি খায়া গেলাম । একটা মেয়ে ভর দোকানে এসে আমাকে আঙ্গুল দেখিয়ে বলে কিনা  surprised surprised । যাই হোক আমি ভয় পেয়ে গেলাম , না জানি মাম্মা কপালে কি আছে আমি তো কারো কোন ও ক্ষতি করি না  sad sad আল্লাহ্‌র নাম মনে মনে জপতে থাকলাম । কাছে আসার পর মেয়েটা আমাকে বলল - আপনার নাম আকাশ না ? আর আপনাকে কাছের লোকেরা বাবু বলে ডাকে তাই না  tongue tongue । মেয়েটার কাছ থেকে আমার ইনফো শুনে কইলজা হুগাই গেছে  sad । আমি আমতা আমতা করে কোনরকমে হ্য বললাম  neutral । আমি তো ঠিক চিনতে পারলাম না আপনাকে ? বললাম আমি ।
মেয়েটা বলল -  চিনবেন চিনবেন সময় আসলেই চিনবেন তা এইখানে বসে কি করেন ? স্কুলের মাইয়াগো ডিস্ট্রাব নাকি  tongue tongue

আমি - দেখুন আপনি হয়ত ভুল বুঝতে পারছেন একটু ডাইনে তাকান দেখেন স্কুল কই আর আমরা কই , আর আপনার পরিচয় দিলে ও ভালো হয় ।
কথাগুলো বলার সময় আমি প্রাই জড়িয়ে আসছিলাম মুখ দিয়ে এক শব্দ দুইবার এর মতন বের হয়ে গেলো । ততক্ষনে তাহার কিছু বান্ধুবি পাশে এসে জুটেছে এবং তাদের খিলখিল হাসি আমার ভয় আরো বাড়িয়ে দিয়েছে  dontsee dontsee। তারপর হাসতে হাসতে তাহারা চলে গেল ।


ঘটনাটা সেখানে শেষ হইলে ভালু হইত বাট নসিব খারাপ  sad । বাসা থেকে বেরুনোর সময় একদিন সেই গ্রুপেই কট খাইলাম । সামনে পুরা রাস্তা ব্লক করে ধরল আমারে । তারপর সেই একই মেয়েটি বলে উঠল - এই যে মাথা টাক্কু করছেন কেন ? কাউয়া পায়খানা করছে নাকি  sad sad । আমার তো অবস্তা কেরোসিন এলাকার মইধ্যে এসব কি হচ্ছে অন্য পাশের দোকানিরা দেখছে তো । আমি বললাম - জী গরম তাই  neutral । তারপর পাশ কাটিয়ে চলে আসলাম । মেয়েটা আমার দুর্বলতাটা বুঝে গেছিল । তাই আমি মেয়েদের ছুটির ঐ সময়টাই একরকম লুকিয়ে যেতাম । টেক্সটাইল মাঠের চারদিকে তখন উচা দেয়াল ঘেরা । আমি মাঝে মাঝে ঐ মেয়েটাকে আসতে দেখলে উঠে মাঠের ভিতর লুকিয়ে যেতাম - আল্লাহ না করুক সবার সামনে মাইয়াটা এক্কেবার ডাক দিয়া বহে যার দরুন আমি পুরাই ভয়ে হাত পা শুকাই ফেলি  hairpull hairpull ।  কিন্তু মাঝে মাঝে পারতাম আর মাঝে মাঝে মেয়েটার নজরে পরে যেতাম এবং সে সবার সামনেই আমাকে ডাক দিয়ে বসত । আমি খুবই আনইজি ফিল করতাম  sad sad


মেয়েটার পরিচয়টা জানতে পারি ইদু ভাইয়ের কাছে । ইদু ভাইএর দোকানটা ছিল হোস্টেল এর পাশেই (এখন ও আছে যতদূর জানি smile )  । একদিন সে আমাকে দেখেছিল মেয়েটার সাথে কথা বলতে তারপর একা পেয়ে আমাকে সে তার পরিচয় বলেছিল , শুনে আমি তো আরো ভয় পাইয়া গেলাম  dontsee

ইদু ভাই বললেন - মামা আপনে যে ঐ মেয়েটার সাথে কথা বলছেন জানেন ও কে ?

আমি মাথা ঘুরিয়ে না বলি । সে বলে - ঐ মেয়ের নানা প্রভাশালি এবং ওর একটা ভাই আছে গুন্ডা যদি টের পায় তাইলে আপনের খবর ই আছে  sad । আমি তো পুরাই টাসকি খাইয়া গেলাম এখন কি করি আমি কি সাধে যাই তার লগে কথা কইতে সেইতো রাস্তায় সবার সামনে আমারে ডাকাডাকি করে  cry cry । একদিন তাকে নাম জিজ্ঞাসা করেছিলাম সে আমাকে বলেছিল - আপনে এই কথা আমাকে অনেক আগেই বলেছিলেন সেদিন আমি আপনাকে কিছুই বলতে পারি নাই  dream । আমি সৃতির এল্ব্যমা খুজতে লাগলাম আর বললাম কই আমি তো আপনাকে আগে দেখেছি বলে মনে হয় না । তারপর সে আমাকে তার ক্লাস এইটে থাকার সময়কার কথা মনে করিয়ে দিল এবং আমি ও ঠায় খাম্বার মতন শুনে গেলাম । তারপর সে শুধু তার নামটি আমাকে বলল - আমার নাম মুন


মুন এর এক বান্ধবী ছিল কালো লম্বা মতন দেখতে ভালো । কথাবার্তা ও ভালো তার সাথে একদিন কথা বলে জানতে পারলাম মুনের সম্বন্ধে সব কিছুই । বাবা-মার এক মেয়ে , ভাই সারাদিন ঘুরে বেড়ায় । আর আমার সাথে সে ফাজলামি করে কারন ক্লাস এইটে থাকার সময় আমি নাকি রাস্তায় তাকে ভয় দেখিয়েছিলাম । কথাগুলো শুনে আমি ওকে একটা রিকোয়েস্ট করি যে আমার হয়ে ওকে সেইদিনের জন্য ক্ষমা চাইতে বললাম । তারপর কয়েক মাস আমি আর ঐ এলাকার রাস্তায় যাইতাম না এবং দোকানে ও যেতাম অবেলায়  smile smile । মানুষের কাছে এবং দোকানির কাছে খবর পেলাম সে নাকি আমাকে খুজে ফিরছে বাট আমি ও ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে গেলাম । কলেজ বন্ধ ছুটির সময়  দেখে নানুবাড়ি চলে গেলাম একমাস এর জন্য smile , তারপর মুন এর সাথে আমার আর কথা হয়নি এবং দেখা ও হয় নি ।


(কিছু কিছু ঘটনা লিখলাম না বলে সরি  )


ভিসা হয়ে গেছে আমার । বাহরাইন চলে আসব বন্ধুরা একদিন ধরল পার্টি দিতে হবে । আমি ও মানা করতে পারলাম না  । চলে গেলাম বসুন্ধরার অষ্টম  তলায় । অর্ডার দিলাম হঠাত দেখি মুনের সেই বান্ধবিটা একটা ছেলের সাথে । আমাকে ও দেখল অনেক বড় হয়ে গেছে মেয়েটা বয়ফ্রেন্ড নিয়া ও ঘুরে আজকাল smile । একটু ফাক পেলেই আমি মেয়েটার কাছে গেলাম তখন মেয়েটার বয়ফ্রেন্ড অর্ডার আনতে গিয়েছিল । আমি বললাম কেমুন আছেন ? । মেয়েটা একটু এদিক ওদিক চেয়ে বলল - জী ভাল আছি । আমার মাথায় হঠাত মুনের কথা আসলে জিজ্ঞেস করে বসলাম - মুন কেমন আছে ? । মেয়েটা আমার চোখের দিকে এমুন ভাবে তাকালো যে আমি মনে হয় একটা ফানি কোয়েচ্চেন করেছি । ও বলল - কেনো আপনি জানেন না ? আর এতদিন কই ছিলেন ? । আমি আমতা আমতা করে বললাম ইয়ে মানে পড়ার চাপ প্লাস বাইরে চলে যাচ্ছি সব ঠিক হয়ে গেছে এইতো কিছুদিনে মধ্যে চলে যাবো যদি পেপার হাতে পাই । তারপর এর কথাগুলো মুন এর বান্ধুবির মুখ থেকে শোনার পর আমি পুরাই থতমত খেয়ে বসলাম । শুধু সে অন্যদিকে চোখ নিয়ে বলল - মুন নেই সে মারা গেছে


ঘটনাটা আমি মেনে নিতে পারছিলাম না । খবর নিয়ে জানতে পেরেছিলাম আমি গা ঢাকা দেওয়ার পর ও নাকি আমাকে খুজেছিল তারপর মুন এর  ভাইয়ের বন্ধুর সঙ্গে ওর রিলেশন গড়ে উঠেছিল এবং সেটা অত্যন্ত খারাপ পর্যায়য়ে চলে গিয়েছিল । বাসায় যখন জানাজানি হয়ে উঠে তখন সে নাকি অন্তঃসত্ত্বা ছিল । মায়ের কবিরাজি ওষুধ খেয়ে মেয়েটার পেটেই  donttell donttell  donttell donttell । সে খুব কস্ট পেয়ে মারা গিয়েছিল । আমি তাজ্জব হয়ে গিয়েছিলাম । নিজেকে বড়ই অপরাধি মনে হচ্ছিল । সব শেষ তাকে মাটি দেওয়া হয় রহিমমেটাল কবরস্তানে ।


মেয়েটার চোখ এবং খোলা চুল আমার এখন ও চোখে ভাসে -

আমি জীবনে দুইটা মানুষের চলে যাওয়াতে (মৃত্যুতে)  কঠিন শকড খেয়েছিলাম যার মধ্যে মুন এর ঘটনাটা ছিল প্রথম



** লেখা গুলো বেশ অগোছালো লাগতে পারে যাস্ট শেয়ার করলাম ***
এবং এই লেখার মাধ্যমেই মুনকে বলতে চাই - আমাকে মাফ করে দিও   sad sad



চলবে ............. যদি চালাইতে পারি   sad sad

নিবন্ধিতঃ১১/০৩/২০০৯ ,নিয়মিতঃ১০/০৩/২০১১, প্রজন্মনুরাগীঃ১৯/০৫/২০১১ ,প্রজন্মাসক্তঃ২৬/০৯/২০১১,
পাঁড়ফোরামিকঃ২২/০৩/২০১২, প্রজন্ম গুরুঃ০৯/০৪/২০১২ ,পাঁড়-প্রাজন্মিকঃ২৭/০৮/২০১২,প্রজন্মাচার্যঃ০৪/০৩/২০১৪।
প্রেম দাও ,নাইলে বিষ দাও

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

ভালই মাস্তান টাইপের ছেলে আছিলা দেখি............

চালাইয়া যাও........ভালই হইতাছে ।

শেষেরটা পড়ে খারাপ লাগল । sad sad sad

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

খবর নিয়ে জানতে পেরেছিলাম আমি গা ঢাকা দেওয়ার পর ও নাকি আমাকে খুজেছিল তারপর মুন এর  ভাইয়ের বন্ধুর সঙ্গে ওর রিলেশন গড়ে উঠেছিল এবং সেটা অত্যন্ত খারাপ পর্যায়য়ে চলে গিয়েছিল । বাসায় যখন জানাজানি হয়ে উঠে তখন সে নাকি অন্তঃসত্ত্বা ছিল ।

পাপের প্রাশ্চিত্ত একদিন করতেই হয় । আপনি শুধু শুধু কষ্ট বয়ে রেড়াচ্ছেন। তার পরিনতির জন্যেতো আপনি দায়ী না।

ঘটনার সুত্রপাত তখন ই ঘটেছিল । বন্ধুরা বসে আড্ডা দিচ্ছিলাম হঠাত  এক ফ্রেন্ড বলে বসল এই তোর যদি সাহস থাকে যাহ ঐ স্কুল ফেরত মেয়েটার সাথে কথা বল দেখি  big_smile তখন বুঝুম তোর সাহস আছে । আমাদের মধ্যে প্রাইয় এসব ধরনের বাজি বা শর্ত হইত  wink । ফিরে পিছনে ঘাড় গুরিয়ে তাকালাম দেখি একটা মেয়ে প্রায় মাথা নিচু করে হেঁটে আসছে এবং সম্ববত বর্তমান আহসানাউল্লাহ ইন্সটিউট এর পিছনেই বাসা । তো বহুত সাহস নিয়া দোয়া দুরুদ পড়ে গেলাম । যদি কথা বলে নাম জানতে পারি তাইলে আইজ চা আর কেক এর দাম দোস্ত দিব আর হেরে গেলে আমার  sad

চোখের সামনে বাংলা সিনেমার গল্প ভেসে উঠলো আপনার এই কয়টা লাইন পড়ে।

ঠাস করেই মেয়েটার সামনে দাড়াই গেলাম  cool । পুরাই রাস্তা ব্লক  big_smile ।

ছেলেটার সাহসের প্রসংশা করতে হয় !!!!

মেয়েটার চোখ এবং খোলা চুল আমার এখন ও চোখে ভাসে -
আমি জীবনে দুইটা মানুষের চলে যাওয়াতে (মৃত্যুতে)  কঠিন শকড খেয়েছিলাম যার মধ্যে মুন এর ঘটনাটা ছিল প্রথম

মেয়েটিকে সামনে থেকে ভয় পেলেও মন থেকে ভাল বাসতেন অনেক, তাই ভুলতে কষ্ট হচ্ছে।
দ্বীতিয় ঘটনাটা কবে শেয়ার করছেন?

কারোরি মৃত্যু কাম্য নয়। আল্লাহ সকলকে শুভ বুদ্ধি দেক। (আমিন)

Allah is a better planner... so whenever u'r plan fails, cheer up... Allah has a better plan for you

Shahanur79'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

পাপের প্রাশ্চিত্ত একদিন করতেই হয় । আপনি শুধু শুধু কষ্ট বয়ে রেড়াচ্ছেন। তার পরিনতির জন্যেতো আপনি দায়ী না।

আমার লাইফে এরুম আরেকটা ছিল মাইয়া জিদ দেহাইতে গিয়া  thumbs_down thumbs_down  donttell

চোখের সামনে বাংলা সিনেমার গল্প ভেসে উঠলো আপনার এই কয়টা লাইন পড়ে।

সিনেমা হাসাইলেন

ছেলেটার সাহসের প্রসংশা করতে হয় !!!!

ইয়ে মানে  nailbiting nailbiting তখন কিন্তু ইভটিজিং আইন এতটা জোরদার হয় নাই  worried

মেয়েটিকে সামনে থেকে ভয় পেলেও মন থেকে ভাল বাসতেন অনেক, তাই ভুলতে কষ্ট হচ্ছে।
দ্বীতিয় ঘটনাটা কবে শেয়ার করছেন?

ভাই আপনেই বুঝলেন আসলেই আমি পুরাই ভয় পাইতাম তারে । ২য়টা বলার জন্য মন স্তির করতে হবে  smile

ছবি আপু লিখেছেন:

ভালই মাস্তান টাইপের ছেলে আছিলা দেখি............

মাস্তান এর দেখছেন কি  big_smile big_smile big_smile , এইবার তো বিলিভ করেন আমি খুব খারাপ একটা ছেলে  wink hehe

নিবন্ধিতঃ১১/০৩/২০০৯ ,নিয়মিতঃ১০/০৩/২০১১, প্রজন্মনুরাগীঃ১৯/০৫/২০১১ ,প্রজন্মাসক্তঃ২৬/০৯/২০১১,
পাঁড়ফোরামিকঃ২২/০৩/২০১২, প্রজন্ম গুরুঃ০৯/০৪/২০১২ ,পাঁড়-প্রাজন্মিকঃ২৭/০৮/২০১২,প্রজন্মাচার্যঃ০৪/০৩/২০১৪।
প্রেম দাও ,নাইলে বিষ দাও

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

খুব কষ্ট পেলাম, ঘটনাটা খুবই মর্মান্তিক বলেই আমার মনে হলো।

আর মুনের পরিণতির জন্য আমি কিন্ত তোমাকে মোটেই দায়ী মনে করছি।

আর বন্ড ভাই কেন যেন তোমাকে খুব কাছের মনে হয় তাই তোমাকে তুমি বলেই সম্বোধন শুরু করলাম।

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

ইলিয়াস লিখেছেন:

খুব কষ্ট পেলাম, ঘটনাটা খুবই মর্মান্তিক বলেই আমার মনে হলো।
আর মুনের পরিণতির জন্য আমি কিন্ত তোমাকে মোটেই দায়ী মনে করছি।

আর বন্ড ভাই কেন যেন তোমাকে খুব কাছের মনে হয় তাই তোমাকে তুমি বলেই সম্বোধন শুরু করলাম।


ভাইজান আপনের যা খুশি কইবেন নু প্রবলেম আমি মাইন্ড করুম না  smile
মাইন্ড  খাইতাম আগে এখন খাই না গা সয়ে গেছে মানুষ এক গালে মারলে আরেকটা পাইতা কই দে হালার পুত আরেকটা দে জীবনের বহু পাপ যদি কিছু কমে  big_smile big_smile

আর আমি মানুষটাই এমুন ভাইজান  সবাই কাছে টানবার চায়  tongue wink wink

নিবন্ধিতঃ১১/০৩/২০০৯ ,নিয়মিতঃ১০/০৩/২০১১, প্রজন্মনুরাগীঃ১৯/০৫/২০১১ ,প্রজন্মাসক্তঃ২৬/০৯/২০১১,
পাঁড়ফোরামিকঃ২২/০৩/২০১২, প্রজন্ম গুরুঃ০৯/০৪/২০১২ ,পাঁড়-প্রাজন্মিকঃ২৭/০৮/২০১২,প্রজন্মাচার্যঃ০৪/০৩/২০১৪।
প্রেম দাও ,নাইলে বিষ দাও

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ছবি-Chhobi (২১-০৫-২০১২ ১০:২৫)

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

ইলিয়াস লিখেছেন:

খুব কষ্ট পেলাম, ঘটনাটা খুবই মর্মান্তিক বলেই আমার মনে হলো।

আর মুনের পরিণতির জন্য আমি কিন্ত তোমাকে মোটেই দায়ী মনে করছি।

আর বন্ড ভাই কেন যেন তোমাকে খুব কাছের মনে হয় তাই তোমাকে তুমি বলেই সম্বোধন শুরু করলাম।

ভাইজান এইডা কিন্তু ঠিক না........... আপনে কিন্তু আমার ভাইজান । আরেকজন হাত বাড়াইয়া হাত পা ভাইংগা দিমু কিন্তু...............।

আমি হইলাম আপনার আপন এখন থাইকা আমারে তুমি কইরা বলবেন ।

ছবি আপু লিখেছেন:
    ভালই মাস্তান টাইপের ছেলে আছিলা দেখি............
মাস্তান এর দেখছেন কি  big_smile big_smile big_smile , এইবার তো বিলিভ করেন আমি খুব খারাপ একটা ছেলে  wink hehe

না আমি তোমাকে ভাল ছেলে বলেই জানি । আরে এগুলো তো ছোটবেলামর দুষ্টামি
.....................................  smile smile smile smile smile আর মাস্তান টাইপ থাকাটাও খারাপ না........ big_smile

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

আপনে লাভ গুরু অনুষ্ঠানে গেলে কাপাইতে পারতেন

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

হুম।

১০

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

মুজ্জি ভাই লিখেছেন:

আপনে লাভ গুরু অনুষ্ঠানে গেলে কাপাইতে পারতেন

বরাবরের মতই অনুপ্রেরণার জন্য থ্যঙ্কস ভাইয়া  big_smile

হুম।

এই রোগ আমি খুব ভালোই জানি তারপর ও আপনার মুখ থেকে তো এটা বের হয়েছে এতেই আমি খুশি  smile smile

ধন্যবাদ

নিবন্ধিতঃ১১/০৩/২০০৯ ,নিয়মিতঃ১০/০৩/২০১১, প্রজন্মনুরাগীঃ১৯/০৫/২০১১ ,প্রজন্মাসক্তঃ২৬/০৯/২০১১,
পাঁড়ফোরামিকঃ২২/০৩/২০১২, প্রজন্ম গুরুঃ০৯/০৪/২০১২ ,পাঁড়-প্রাজন্মিকঃ২৭/০৮/২০১২,প্রজন্মাচার্যঃ০৪/০৩/২০১৪।
প্রেম দাও ,নাইলে বিষ দাও

১১

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

lol2 lol2 lol2 lol2

১২

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

মজা পাইলাম।
সামহোয়্যারে আপনার লেখা নিয়মিত পড়ি।
প্রজন্মতে আসা হয়না তেমন, ভাল পোস্টগুলা রেপু মিস হয়ে যাচ্ছে sad

মিনহাজুল হক শাওন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১৩

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

আমাদের বাসাও একই জায়গায় ... মনে করে দেখি ক্লাস এইটে পড়ার সময় এইরকম কাহিনী হইছে কি না  confused confused confused confused confused

ঘরের কোনে মনের বনে, তোমার সাথে জোছনা স্নান...
তোমার দুহাত থাকলে হাতে; স্বপ্নে জাগে মধুর প্রাণ।
ছড়া সব করে রব

নাদিয়া জামান'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৪

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

ভাল লাগলো পড়ে । তবে শেষের কথা গুল কিসুটা সময় ভাবালো...।

১৫

Re: কিছু ক্র্যসিং রোমাণ্টিকতা - ৩

রাশেদুল ইসলাম লিখেছেন:

lol2 lol2 lol2 lol2

brokenheart brokenheart  whats_the_matter whats_the_matter whats_the_matter whats_the_matter whats_the_matter whats_the_matter

শাওন লিখেছেন:

মজা পাইলাম।
সামহোয়্যারে আপনার লেখা নিয়মিত পড়ি।
প্রজন্মতে আসা হয়না তেমন, ভাল পোস্টগুলা রেপু মিস হয়ে যাচ্ছে

অহ তাইলে ওইটা আপনে আমার ও কেমন কেমন সন্দেহ হইছিলো ফার্স্ট টাইম smile , থ্যাংকস ভাইয়া  smile

নাদিয়া আফু লিখেছেন:

আমাদের বাসাও একই জায়গায় ... মনে করে দেখি ক্লাস এইটে পড়ার সময় এইরকম কাহিনী হইছে কি না

কি কন এসব  worried worried , আল্লাহ না করুক  dontsee dontsee

অনির্বাণ০৯ লিখেছেন:

ভাল লাগলো পড়ে । তবে শেষের কথা গুল কিসুটা সময় ভাবালো...।

ধন্যবাদ ভাল লেগেছে শুনে এন্ড সত্য অনেক সময় ই সত্য এবং আমার লাইফ কেউ বিলিভ করবার চায় না কারন প্রডিউসারেররা সব আগেই মুভি বানাইয়া রিলিজ দিয়া ফালাইছে  big_smile


সবাইকেই অশেষ ধন্যবাদ  smile

নিবন্ধিতঃ১১/০৩/২০০৯ ,নিয়মিতঃ১০/০৩/২০১১, প্রজন্মনুরাগীঃ১৯/০৫/২০১১ ,প্রজন্মাসক্তঃ২৬/০৯/২০১১,
পাঁড়ফোরামিকঃ২২/০৩/২০১২, প্রজন্ম গুরুঃ০৯/০৪/২০১২ ,পাঁড়-প্রাজন্মিকঃ২৭/০৮/২০১২,প্রজন্মাচার্যঃ০৪/০৩/২০১৪।
প্রেম দাও ,নাইলে বিষ দাও