টপিকঃ সীরাতুন্নবী (সাঃ) ৫৮ মক্কার বাইরে ইসলামের আলো (শেষ পর্ব)

সিরিজের পুর্ববর্তী পোষ্ট সীরাতুন্নবী (সাঃ) ৫৭ মক্কার বাইরে ইসলামের আলো (৩)

আগের পর্বের কিছু অংশ

হযরত তোফায়েল (রাঃ) কে যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছিলো, সেটা এই যে, তিনি তাঁর কওমের কাছাকাছি পৌছার পর তাঁর চেহারা চেরাগের আলোর মত উজ্জল হয়ে গিয়েছিলো। তিনি বললেন, হে আল্লাহ, অন্য কোথাও এ আলো স্থানান্তর করে দিন, অন্যথায় চেহারা বিকৃতি হওয়ার অপবাদ দিয়ে ওরা আমার সমালোচনা করবে। এরপর সেই আলো আমার হাতের লা্ঠির মধ্যে স্থানান্তরিত হয়ে যায়। হযরত তোফায়েল (রাঃ) তাঁর পিতা ও স্ত্রীর কাছে ইসলামের দাওয়াত দেন, এতে তাঁরা ইসলাম গ্রহণ করে। তবে তাঁর কওমের লোকেরা ইসলাম গ্রহণে দেরী করে। কিন্ত হযরত তোফায়েল (রাঃ) ক্রমাগত চেষ্টা চালিয়ে যান। খন্দকের যুদ্ধের পর তিনি যখন হিজরত করেন সে সময় তাঁর কওমের সত্তর বা আশি পরিবার তাঁর সঙ্গে ছিলো। হযরত তোফায়েল (রাঃ) ইসলাম প্রচারে গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ইয়ামামার যুদ্ধে তিনি শাহাদাত বরণ করেন।

(পাঁচ) জেমাদ আযদীঃ
এই লোক ছিলেন ইয়েমেনের অধিবাসী এবং আযদ শানওয়া গোত্রের মানুষ। ঝাঁড় ফুঁক এবং ভুত প্রেত তাড়ানোর কাজ করতেন। মক্কায় এসে সেখানকার নির্বোধদের কাছে শুনতে পান যে, হযরত মোহাম্মদ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পাগল। আল্লাহর রসুল সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কাছে তিনি এ উদ্দ্যেশে গেলেন যে, হয়তো আল্লাহর রসুল সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তার হাতে ভাল হয়ে যাবেন। আল্লাহর রসুলের সাথে দেখা করে তিনি বললেন, আমি ঝাঁড় ফুঁক জানি আপনার কি এর প্রয়োজন আছে ? জবাবে রসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, “নিশ্চয় সকল প্রশংসা আল্লাহর জন্য, আমি তাঁর প্রশংসা করি এবং তাঁর কাছেই সাহায্য চাই। আল্লাহ তাআলা যাকে হেদায়েত করেন তাকে কেউ পথভ্রষ্ট করতে পারে না। আর যাকে আল্লাহ পথভ্রষ্ট করেন তাকে কেউ হেদায়েত করতে পারে না। আমি স্বাক্ষ্য দিচ্ছি যে আল্লাহ ব্যতিত অন্য কোন উপাস্য নেই, তিনি এক ও অদ্বিতীয়। তাঁর কোন শরিক নেই। আমি আরো স্বাক্ষ্য দিচ্ছি যে, মোহাম্মদ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর বান্দা ও রসুল ।“
জেমাদ তখন রসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বললেন, আপনার কথাগুলো আমাকে পুণরায় শুনিয়ে দিন। রসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কথাগুলো তিনবার শুনালেন। জেমাদ বললেন, আমি যাদুকরদের জোত্যিষীদের কথা শুনেছি, কিন্ত আপনি যেসব কথা বললেন, এ ধরণের কথা কোথাও শুনিনি। আপনার কথাতো সমুদ্রের অতলস্পর্শী গভীরতা থেকে উৎসারিত। দিন আপনার হাত বাড়িয়ে দিন। আমি আপনার হাতে ইসলামের দীক্ষা গ্রহণ করবো। এরপর জেমাদ আযদী ইসলাম গ্রগণ করেন।
পরবর্তী পর্বঃ মদীনার ছয়জন পুণ্যশীল মানুষ

{চলবে}

পুর্ব প্রকাশ

Re: সীরাতুন্নবী (সাঃ) ৫৮ মক্কার বাইরে ইসলামের আলো (শেষ পর্ব)

এগুলো পড়লে মনই ভাল হয়ে যায় । ধন্যবাদ ভাইজান শেয়ার করার জন্য ।

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

Re: সীরাতুন্নবী (সাঃ) ৫৮ মক্কার বাইরে ইসলামের আলো (শেষ পর্ব)

ছবি-Chhobi লিখেছেন:

এগুলো পড়লে মনই ভাল হয়ে যায় । ধন্যবাদ ভাইজান শেয়ার করার জন্য ।

হুমম, আপনাকেও ধন্যবাদ।  hug

Re: সীরাতুন্নবী (সাঃ) ৫৮ মক্কার বাইরে ইসলামের আলো (শেষ পর্ব)

ইসলামের খুটিনাটি অনেক বিষয় জানতে পারি আপনার টপিক থেকে। ধন্যবাদ ইলিয়াস ভাইকে।

Allah is a better planner... so whenever u'r plan fails, cheer up... Allah has a better plan for you

Shahanur79'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত