টপিকঃ শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

আজ পহেলা বৈশাখ, ১৪১৯ সাল। দেখতে দেখতে নতুন বাংলা বছর চলে এলো। ফোরামের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক একটা বার্তা দিতে হয়। কিন্তু কী দেয়া যায় ভাবছি। নতুন বছরে যাই বলি না কেন গতবাঁধা কিছু কথাই আসবে। এই যেমন, অনাগত দিনগুলো ভালো যাক ইত্যাদি, ইত্যাদি। সেগুলো আর বলতে চাই না। একটু অনানুষ্ঠানিক কায়দায় কিছু বলি, কেমন?

  ১৪১৯ সাল। সালটির দিকে আশ্চর্য হয়ে তাকিয়ে রই। কোথা দিয়ে এতগুলি বছর হাওয়া হয়ে গেলো! সত্যি বলতে গেলে আমার কেবল ১৪০০ সালটির কথাই ভালো মনে আছে। ঐ যে কবিগুরু লিখেছিলেন না...

“আজি হতে শতবর্ষ পরে
কে তুমি পড়িছ বসি আমার কবিতাখানি,
কৌতুহল ভরি,
আজি হতে শতবর্ষ পরে”

(১৪০০ সাল  রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর)

   সেবার বেশ ঘটা করে নববর্ষ পালিত হয়েছিলো। অনেক আনন্দ করা হয়েছিলো। সেসব এখন অতীত। সে যাক গে, ইংরেজি সালের সর্বব্যাপী আগ্রাসনে পুরো বছরটাতেই বাংলা সণ অবহেলিত থেকে যায়। সত্যটা অনেকেই হয়তো স্বীকার করবেন না। কিন্তু ক’জন বুকে হাত দিয়ে বলবেন – বাংলা বছরের কোনো একটি দিনের তারিখ ঠিকঠাক বলতে পারবেন? আমি অন্তত পারবো না। আসলে পারা যায় না। এই ব্যাপারটা আমাকে বেশ পীড়া দেয়। একবারে দৈব চয়নের মত একটা দিন নিয়ে অনেকবার পরীক্ষা করে দেখেছি। ফলাফল? প্রতিবারই পরাস্ত হয়েছি, কিন্তু সাফল্যের মুখ দেখি নি। অনেকে নিষ্ঠার অভাব বলতে পারেন কিংবা অসচেতনতা? অথবা, ভালোবাসার অভাব? হতে পারে এর যেকোন একটা কিংবা সবগুলিই। কিন্তু যে যাই বলুক, ভালোবাসার অভাবটা কেন জানি মানতে পারি না কোনোভাবেই। আর কেউ না জানুক, ভেতরে ভেতরে এটা তো সবাই  জানি নিজের ভাষা, সংস্কৃতি, কৃষ্টিকে আমরা ঠিক কতটা ভালোবাসি! এটা আসলে পুরোপুরি বোঝানোর মত ব্যাপার নয়। সবার আগে আমরা বাঙ্গালী, তারপর অন্য আর সব কিছু। তখন মনটা একটু শান্ত হয়। অন্তত চৈত্র সংক্রান্তিতে তো মনে হয়, এটাই বা কম কীসের?

    একবার আমার এক চৈনিক সহকর্মী - শোইয়াং, চাইনিজ নতুন বছরে কী কী করে তার গর্বিত বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে ফিরতি জিজ্ঞাসু দৃষ্টিতে আমার দিকে তাকিয়ে রইল। আমি একটুও বিচলিত হলাম না। চিত্র কথার থেকে শতগুণ বেশি বোঝাতে পারে – এই আপ্ত বাক্যটিকে স্মরণ রেখে কেবল গুগলে একটা অনুসন্ধান চালালাম। তারপর বর্যবরণের নানা আয়োজনগুলো দেখে ওর চোখ তো পুরো ট্যারা! যদিও পান্তা কী বস্তু – এটা বোঝাতে আমাকে বেশ বেগ পেতে হয়েছিলো। শেষে স্বীকার করলো – এতো বর্ণিল আয়োজন – সত্যিই মুগ্ধ করার মত। তখন গর্বে আমার বুকের ছাতি ৩ ইঞ্চি বেড়ে গিয়েছিলো! সেবারকার পহেলা বৈশাখের মত খুশী আর বোধকরি কখনো হই নি!

   একটা কথা খুব শোনা যায় – সংস্কৃতিকে লালন করতে হবে, ধারণ করতে হবে। আমি এটাকে একটু ভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে দেখার চেষ্টা করি। লালন করাটার অর্থ এই নয় যে, হাজার বছরের জিনিস নিয়ে পড়ে থাকতে হবে। সময় পিছু ফিরে দেখে না। যুগও সতত পরিবর্তনশীল। কালক্রমে নতুন নতুন ধারণা আসবে, সেটা পোশাকে হোক, কিংবা খাবারে, অথবা, চালচলনে। এটাই স্বাভাবিক, নয়তো এখনো দাঁত দিয়ে মাংস ছিঁড়ে খেতে হতো। এটাই প্রগতিশীলতা এবং বহির্বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে গেলে এর প্রয়োজন আছে বৈকি! কিন্তু ঐতিহ্যকে জলাঞ্জলি দিয়ে নয়। পশ্চিমা বিশ্বে কিছুদিন থাকার সুবাদে দেখেছি, পশ্চিমারা কোনো কোনো ক্ষেত্রে হয়তো আমূল বদলে গেছে, কিন্তু ঐতিহ্যের ব্যাপারে কোনো ছাড় দেয় না। যখনই কোনো ঐতিহ্যগত উৎসব এসেছে, সেগুলো ওরা সাড়ম্বরেই পালন করেছে, আকাশ-পাতাল পার্থক্য থাকা সত্বেও! একটা দিনের জন্য হলেও মনে রেখেছে এবং সেটাকেই ওরা বড় মনে করে!

   এখান থেকে আমার একটা ধারণা হয়েছে – আমরা যে দেশে ঢালাওভাবে বলিঃ দু’দিনের বাঙ্গালী সেজেছে – এটা আসলে বলাটা ঠিক নয়। জানি, অনেকেই বলবেন – লোক দেখাতে, রঙ-তামাশা করতে আসাটায় ওভাবে বলাটা কী এমন অসংগত? আমার কথাটা সেটা নয়, ইতিবাচকভাবে দেখলে দেখা যাবে, তবুও তো অনেকে আসছেন। মেয়েরা শাড়ি পরছেন, ছেলেরা পাঞ্জাবি...পান্তা-ইলিশ-ভর্তা সহযোগে মাটির শানকিতে খাওয়া, মেলা, বাঁশি, আল্পনা, গান, আবৃত্তি... একটা দিন নতুনতর দুনিয়ার আগ্রাসী চলন-বলন শিকেয় তুলে শেকড়ের কাছে ফিরে যাওয়া! ভাবনাটা নতুন আলোয় দেখে আমি বরাবরই শিহরিত হয়ে যাই।

   আসল হলো গিয়ে - শেকড় ভুলে না যাওয়াটা। এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বিষয়টাকে এভাবে দেখা যাক – অগ্রগতিকে যদি একটা ব্যাসার্ধ বরাবর সম্প্রসারণের সাথে তুলনা করা যায় (যেমন, বেলুন), তাহলে একটা সময় পর কেন্দ্রের কথা বিস্মৃত হলে, কেন্দ্রের বন্ধুসুলভ চাপ মাথায় না রাখলে, ক্ষমাহীণ বহির্বিশ্বের নির্দয় চাপে যাবতীয় প্রগতির ফানুস ফুটো হয়ে যাবে। তাই মূল যেখানে, সেখানের কথা স্মরণ রাখা চাই। যত যাই করি, নিজের বাঙ্গালী পরিচয় ভুলে যাওয়া চলবে না। বাঙ্গালী চরিত্র যেমনই হোক, সত্যটাকে স্বীকার করে নিলেই মঙ্গল। ভালো হোক, মন্দ হোক, আত্মপরিচয়ে গৌরবের থেকে মহান কিছু নেই!

   যাহোক, অনেক কথা বললাম। কারো কারো হয়তো ইতোমধ্যে মাথা ধরতে শুরু করেছে। পরিশেষে শুধু এটুকু বলিঃ আমাদের অপ্রাপ্তি অনেক থাকতে পারে, ব্যর্থতাও অনেক, কিন্তু ঐতিহ্যে আমরা কারো থেকে পিছিয়ে নেই। আসুন বাঙ্গালী চেতনাকে যে যেভাবে পারি, ধারণ করি – যতটুকু পারা যায়, ততটুকু। যে যার সাধ্যমত বাঙ্গালী পরিচয়কে ভবিষ্যত প্রজন্মের মাঝে দায়িত্বশীলতার সাথে সঞ্চার করি।

   এই আশাবাদ নিয়ে সবাইকে প্রজন্ম ফোরামের পক্ষ থেকে শুভ নববর্ষ ১৪১৯! সবাই ভালো থাকুন। সুস্থ থাকুন।

---------------------------------------------------------------------------------------------------
উদাসীন

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

উদাসীন লিখেছেন:

আজ পহেলা বৈশাখ, ১৪১৯ সাল। দেখতে দেখতে নতুন বাংলা বছর চলে এল...
.................................................................................................................................

পরিশেষে শুধু এটুকু বলিঃ আমাদের অপ্রাপ্তি অনেক থাকতে পারে, ব্যর্থতাও অনেক, কিন্তু ঐতিহ্যে আমরা কারো থেকে পিছিয়ে নেই। আসুন বাঙালী চেতনাকে যে যেভাবে পারি, ধারণ করি – যতটুকু পারা যায়, ততটুকু। যে যার সাধ্যমত বাঙ্গালী পরিচয়কে ভবিষ্যত প্রজন্মের মাঝে দায়িত্বশীলতার সাথে সঞ্চার করি।

   এই আশাবাদ নিয়ে সবাইকে প্রজন্ম ফোরামের পক্ষ থেকে শুভ নববর্ষ ১৪১৯! সবাই ভালো থাকুন। সুস্থ থাকুন।

---------------------------------------------------------------------------------------------------
উদাসীন

চমৎকার বলেছেন ! আমাদের ঐতিহ্যকে কোনোভাবেই ভুলে গেলে চলবে না। শুধু মুখে নয়, অন্তর দিয়ে ভালবাসতে হবে এ দেশকে, এ দেশের মাটিকে... । হৃদয়ে ধারণ করতে হবে এ দেশের এতিহ্যকে, মনের ভেতর লালন করতে হবে বাংলার সংস্কৃতিকে...
এ দেশটা তো আমাদেরই...

::::   নিজের কাজটুকু নিজেকেই করতে হবে, অন্যের আশায় বসে থাকলে হা-হুতাশ ছাড়া কিছুই করার থাকে না  ::::

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন উদাসীন (১৪-০৪-২০১২ ০৪:০৬)

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

শুভ নববর্ষ! আপনাকেও এবং ফোরামের সকল ভাই এবং বোনদের  smile

নিবন্ধিতঃ১১/০৩/২০০৯ ,নিয়মিতঃ১০/০৩/২০১১, প্রজন্মনুরাগীঃ১৯/০৫/২০১১ ,প্রজন্মাসক্তঃ২৬/০৯/২০১১,
পাঁড়ফোরামিকঃ২২/০৩/২০১২, প্রজন্ম গুরুঃ০৯/০৪/২০১২ ,পাঁড়-প্রাজন্মিকঃ২৭/০৮/২০১২,প্রজন্মাচার্যঃ০৪/০৩/২০১৪।
প্রেম দাও ,নাইলে বিষ দাও

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন রাজিব আহসান (১৪-০৪-২০১২ ০৩:৫২)

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

শুভ নববর্ষ আপনাকেও এবং প্রজন্মের সবাইকে
বাংলা তারিখের কথায়  বলব, আসলে আমাদের অফিস আদালত, স্কুল কলেজ সব জায়গাতেই ইংরেজী ডেট ব্যাবহার করা হয়। হয়ত এই জন্যই বাংলা তারিখটা কারো মনে থাকে না। দোষ আমি কাউকে দেব না। কারন বহিঃবিশ্বের সাথে তারিখের মিল রাখতেই বোধহয় এমনটি করা হয়। মনে করুন বাংলাদেশে সব জায়গাতেই বাংলা তারিখ ও সন ব্যাবহার হচ্ছে আর বহিঃবিশ্বে  ব্যাবহৃত হচ্ছে ইংরেজী তারিখ সেক্ষেত্রে বিভিন্ন অফিসিয়াল কাজ কর্মে ব্যাপক গড়মিল দেখা দিত।
তবে আশার আলো এই যে, আমাদের দেশে গ্রাম অঞ্চলে বিশেষ করে যারা কৃষি কাজ করেন তারা মূলত বাংলা তারিখ আর সন টাই ব্যাবহার করেন। বরং তাদের হুট করে ইংরেজী তারিখ বলতে বললেও তারা পারবে না, অথচ বাংলা তারিখের হিসাবটা তারা খুব সুন্দর রাখে।  smile smile smile

Domain Registration | Hosting Solution | Web Development
99.9% Uptime Guarantee | 24/7 Live Support | SSD Server.
Best Domain Hosting Company in Bangladesh

রাজিব আহসান'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

শুভ নববর্ষ প্রজন্মের সবাইকে...

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন নাকিব (১৪-০৪-২০১২ ০৭:৩২)

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

আমিও দেখেছি গ্রামের রোগীরা প্রায়ই কোন কিছু বর্ননা করতে গেলে বাংলা তারিখের আশ্রয় নেন। "আশ্বিন" এর অমুক তারিখে ব্যথা পাইসিলাম" "গত বোশেখ মাসের কথা" ... এইসব। বেশ ভালই লাগে শুনতে। (যদিও কবেকার কথা বলছে হিসেব করতে গিয়ে আমার বেশ বেগ পোহাতে হয়)। smile

জাগরণে যায় বিভাবরী ...

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

শুভ নববর্ষ সবাইকে

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

নতুন আশা
নতুন প্রাণ
নতুন সুরে
নতুন গান
নতুন ঊষার
নতুন আলো
নতুন বছর কাটুক ভাল।

নতুন বছর সবার জীবনে বয়ে আনুক অনাবিল সুখ-স্বাচ্ছন্দ!!

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

শুভ নববর্ষ! আপনাকেও এবং ফোরামের সকল ভাই এবং বোনদের thumbs_up thumbs_up

۞ بِسْمِ اللهِ الْرَّحْمَنِ الْرَّحِيمِ •۞
۞ قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ ۞ اللَّهُ الصَّمَدُ ۞ لَمْ * • ۞
۞ يَلِدْ وَلَمْ يُولَدْ ۞ وَلَمْ يَكُن لَّهُ كُفُوًا أَحَدٌ * • ۞

১০

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

ফোরামের সকলকে শুভ নববর্ষ smile

১১

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

সব্বাইকে নববর্ষের উষ্ণ শুভেচ্ছা!  hug

আলহামদুলিল্লাহ!

১২

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

ফোরামের সবাই কে শুভ নববর্ষ-১৪১৯ big_smile

সব কিছু ত্যাগ করে একদিকে অগ্রসর হচ্ছি

লেখাটি CC by-nd 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৩

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

সবাইকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা....স্বাগত ১৪১৯

http://i740.photobucket.com/albums/xx42/almehedi/bd3.jpg

" DoN't FoLlOw mE, i'M lOsT tOo "

১৪

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

সবাই নববর্ষের শুভেচ্ছা ।

সালেহ আহমদ'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১৫

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

সবাই নববর্ষের শুভেচ্ছা ।
মাত্র ১৬ কিলোমিটার হোন্ডা নিয়া বেরিয়ে এলাম (মানিকগঞ্জ এর বিভিন্ন এলাকা)। মানিকগঞ্জ এর মানুষ অনেক বেশি নিজের ভাষা, সংস্কৃতি, কৃষ্টিকে ভালবাসে।
ধন্যবাদ উদাসীন ভাই কে।  smile

দেশকে ভালবাসতে; দেশের মানুষকে ভালবাসুন।
কবিরাজ লাগবে কবিরাজ !

১৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ছোট মহাপুরুষ (১৪-০৪-২০১২ ২৩:৫৬)

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

শুভ নববর্ষ! আপনাকেও এবং ফোরামের সকল ভাই এবং বোনদের smile
কপিপেস্ট ফ্রম জেমসভন্ড tongue

১৭

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

সবাইকে নববর্ষের সুভেচ্ছা  love

মুইছা দিলাম। আমি ভীত !!!

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৮

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

উদাসীন লিখেছেন:

আজ পহেলা বৈশাখ, ১৪১৯ সাল। দেখতে দেখতে নতুন বাংলা বছর চলে এলো। ফোরামের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক একটা বার্তা দিতে হয়। কিন্তু কী দেয়া যায় ভাবছি। নতুন বছরে যাই বলি না কেন গতবাঁধা কিছু কথাই আসবে।
------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------
আমাদের অপ্রাপ্তি অনেক থাকতে পারে, ব্যর্থতাও অনেক, কিন্তু ঐতিহ্যে আমরা কারো থেকে পিছিয়ে নেই। আসুন বাঙ্গালী চেতনাকে যে যেভাবে পারি, ধারণ করি – যতটুকু পারা যায়, ততটুকু। যে যার সাধ্যমত বাঙ্গালী পরিচয়কে ভবিষ্যত প্রজন্মের মাঝে দায়িত্বশীলতার সাথে সঞ্চার করি।

   এই আশাবাদ নিয়ে সবাইকে প্রজন্ম ফোরামের পক্ষ থেকে শুভ নববর্ষ ১৪১৯! সবাই ভালো থাকুন। সুস্থ থাকুন।

---------------------------------------------------------------------------------------------------
উদাসীন

১৪১৯ সালে আমরা এমন কিছু করতে ছেষ্টা করি, যা নিজের এবং দেশের কল্যান হয়।
lease termination

১৯

Re: শুভ নববর্ষ ১৪১৯!

http://i41.tinypic.com/2zjc1gx.jpg

একজন মানুষের জীবন হচ্ছে - ক্ষুদ্র আনন্দের সঞ্চয়। একেকজন মানুষের আনন্দ একেক রকম ...
এসো দেই জমিয়ে আড্ডা মিলি প্রাণের টানে !
   
স্বেচ্ছাসেবকঃ  ফাউন্ডেশন ফর ওপেন সোর্স সলিউশনস বাংলাদেশ, নীতি নির্ধারকঃ মুক্ত প্রযুক্তি।