সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মাহমুদ রাব্বি (০১-০৩-২০১২ ১৩:১৯)

টপিকঃ চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

যারা চশমা পরতে চান না তাদের জন্য দুটো বিকল্প নিয়েই এই টপিক।

ছোটবেলা থেকে চশমা না পরলেও এক সময়ে এসে প্রায় সবাইকেই চশমা পরতে হয় তবে চশমারও বিকল্প আছে। একটি হচ্ছে কনট্যাক্ট লেন্স। আরেক বিকল্প লেজার আই সার্জারী (ল্যাসিক)।


কনট্যাক্ট লেন্স

http://i41.tinypic.com/20az0w5.jpghttp://i43.tinypic.com/28wfk2x.jpg

কনট্যাক্ট লেন্স দুই ধরনের হয়ে থাকে। হার্ড লেন্স ও সফট ডিসপোজেবল লেন্স। বর্তমানে সফট লেন্সই বেশিরভাগ মানুষ পরে থাকে। হার্ড লেন্স পরে না তেমন একটা। মাত্রাতিরিক্ত পাওয়ার জনিত সমস্যার ক্ষেত্রে হার্ড লেন্স রিকমেন্ড করা হয়।


ইতিবাচক দিকঃ

১. কনট্যাক্ট লেন্স নিরাপদ যদি ঠিকভাবে মেইনটেন করা যায় তবে চশমা হচ্ছে সবচেয়ে নিরাপদ।
২। চশমা যেহেতু নাকের উপরে বসানো থাকে তাই নাকের উপর কিছুটা চাপ পড়ে। দাগও পড়ে যায়। লেন্সে এই ঝামেলা নেই।

৩। লেন্স চোখে পরা অবস্থায় কেউ বুঝতেই পারবে না আপনি চোখে লেন্স পরে আছেন যদি না আপনি কালারড লেন্স পরেন। যদি লেন্স সফট ও আরামদায়ক হয় তবে আপনি নিজেও বুঝতে পারবেন না যে আপনি লেন্স পরে আছেন।

৪. লেন্স পরলে চশমার চেয়ে উন্নতমানের ভিশন পাবেন কারন চশমা পরা অবস্থায় সব কিছু স্বাভাবিকের চেয়ে কিছুটা ছোট কিংবা কিছুটা বড় লাগে। লেন্সের ক্ষেত্রে এই সমস্যা নেই।

৫. চশমা পরে খেলাধুলা করা অত্যন্ত ঝামেলা ও বিরক্তির ব্যাপার। অনেক স্পোর্টস আছে যেগুলোতে চশমা পরা অবস্থায় অংশ নেয়া যায় না। এই সব ক্ষেত্রে কনট্যাক্ট লেন্স খুবই কাজে দেয়।

৬. কনট্যাক্ট লেন্স নিজের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেয়। বিশেষ করে টিনেজারদের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে ভূমিকা রাখে। লেন্স শিশুরাও পরতে পারে।

৭. দিনে ১২ / ১৪ ঘন্টা লেন্স পরা যায় তবে ৭ / ৮ ঘন্টার বেশি না পরাই ভালো।


নেতিবাচক দিকঃ


১. কনট্যাক্ট লেন্সের মেইনটেনেন্স বেশ ঝামেলার। যারা অলস টাইপ তাদের জন্য কনট্যাক্ট লেন্স না।

২. যদি কনট্যাক্ট লেন্সের ঠিকভাবে যত্ন নেয়া না হয় তবে চোখে ইনফেকশন হতে পারে।

৩. কনট্যাক্ট লেন্স পরে রাতে ঘুমানো একেবারেই অনুচিত। মাঝে মাঝে দুই একদিন ভুল করে লেন্স পরে ঘুমালে তেমন সমস্যা নেই কিন্তু নিয়মিত লেন্স পরে ঘুমালে চোখে ইনফেকশন হতে পারে।

৪. কনট্যাক্ট লেন্সের দাম তুলনামূলক কিছুটা বেশি।

৫। নির্দিষ্ট মেয়াদের বেশি এক লেন্স পরা ঠিক না। একটা লেন্সের মেয়াদ সাধারনত ১ মাসের বেশি হয় না।



লেজার আই সার্জারী - ল্যাসিক

http://i39.tinypic.com/wv7fh0.jpg

চশমা বা কনট্যাক্ট লেন্স কোনটাই চোখের পাওয়ারজনিত সমস্যা সমাধান করতে পারে না। একমাত্র এক্সাইমার লেজার দিয়ে রিফ্রেক্টিভ সার্জারীর মাধ্যমেই সমস্যার সমাধান করা যায়। বর্তমানে সাধারনত ল্যাসিক সার্জারীর মাধ্যমে এটা করা হয়।



ইতিবাচক দিকঃ

১. চশমা ও কনট্যাক্ট লেন্স থেকে মুক্তি কিংবা মোটা চশমা থেকে মুক্তি।

২. ব্যাথামুক্ত সার্জারী।

৩. অপারেশনের পরে সাথে সাথেই দৃষ্টি স্বাভাবিক হতে থাকে। পরের দিন থেকে প্রায় স্বাভাবিক।

৪. সার্জারী করতে মাত্র কয়েক মিনিট লাগে। খুব ছোট একটা সার্জারী।

৫. ল্যাসিকের মাধ্যমে ২০/২০ ভিশন পাওয়া সম্ভব।




নেতিবাচক দিকঃ

১.  ল্যাসিক সার্জারী করলেই যে চোখে ভ্রুটি আর থাকবে না সেটা না। সার্জারীর পরেও একটা সময়ে আবার পাওয়ারজনিত সমস্যা দেখা দিতে পারে। তখন আবার চশমা পরা লাগবে। অর্থাৎ ল্যাসিক কোনো স্থায়ী সমাধান না।

২. যেহেতু এটা চোখের একটা সার্জারী তাই ঝুঁকি আছে। ল্যাসিকের জন্য আপনি ফিট কিনা এটা জানা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন ব্যাপার। যে কেউ চাইলেই ল্যাসিক করতে পারে না।

৩. ল্যাসিক সার্জারীর সময় সার্জিকাল ব্লেড দিয়ে কর্নিয়ার লেয়ার কেটে লেজার দিয়ে কর্নিয়ার কিছু টিস্যু পুড়িয়ে দিয়ে (কতটুকু টিস্যু সরানো লাগবে সেটা আপনার চোখে পাওয়ার জনিত ভ্রুটি কতখানি সেটার উপর নির্ভর করে) কর্নিয়ার আকার পাল্টানো হয়। তাই চোখে সাময়িক কিংবা দীর্ঘমেয়াদী পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হতে পারে। এই ক্ষেত্রে কিছু কম্প্রোমাইজ করতে হতে পারে। যেমন- চোখ স্বাভাবিকের চেয়ে শুষ্ক হয়ে যেতে পারে।

৪. চোখের কর্নিয়া দূর্বল হয়ে যেতে পারে।

৫. ল্যাসিক অত্যধিক ব্যয়বহুল সার্জারী।

৬. ল্যাসিক করলে রিডিং গ্লাস বয়স হওয়ার কিছু আগেই নিতে হতে পারে কারন আগে যদি দূরের জিনিস দেখতে সমস্যা হতো তবে এখন কাছের জিনিস দেখতে সামান্য সমস্যা হতে পারে। সাধারনত যারা মাইনাস পাওয়ারের গ্লাস পরে তাদের রিডিং গ্লাসের দরকার হয় না। তাদের কাছের জিনিস দেখার ক্ষমতা অনেক বেশি থাকে স্বাভাবিকদের চেয়ে। ল্যাসিক করলে এই সুবিধা পাওয়া যায় না।


--------------



আপনি যদি কনট্যাক্ট লেন্স কিনতে চান তবে Acuvue (Johnson & Johnson) , Bausch & Lomb ইত্যাদি ভালো ব্র্যান্ডের লেন্স কিনবেন একটু বেশি দাম দিয়ে হলেও কারন এগুলো অনেক সফট ও আরামদায়ক। এগুলোতে উন্নতমানের সিলিকন ইউজ করা হয়। এইসব লেন্সে পানির পরিমান বেশি থাকে। তাই চোখের কর্নিয়া প্রয়োজনীয় অক্সিজেন পায়।

আর যদি ল্যাসিক সার্জারী করতে চান তবে দক্ষ একজন ল্যাসিক সার্জনের কাছ থেকে জেনে নিন আপনার চোখ ল্যাসিকের জন্য ফিট কিনা। কি কি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে সেগুলোও জেনে নিবেন। সাধারনত সার্জনেরা বেশি বিস্তারিত বলেন না। তাই এটা আপনার দায়িত্ব সার্জারী করার আগে বিভিন্ন সূত্র থেকে এই বিষয়ে বিস্তারিত জানা যেহেতু এটা চোখের ব্যাপার।

ভালো মানের ল্যাসিক করতে হলে সব সময় দক্ষ, অভিজ্ঞ সার্জন দিয়ে ল্যাসিক করাবেন, তা না হলে পরে আপনিই ভুগবেন।


আর যদি কনট্যাক্ট লেন্স বা ল্যাসিক কোনোটাই ভাল না লাগে তবে চশমা পরা ছাড়া অন্য কোনো গতি নাই। পাওয়ার স্থিতিশীল হয়ে যাওয়ার পরে মায়োপিয়া থাকলে বয়সের সাথে সাথে কারো কারো মায়োপিয়া কমে যেতে পারে তবে একেবারে কখনোই যাবে না। চোখে যারা কম পাওয়ারের চশমা পরেন তারা চেষ্টা করবেন সারাক্ষন চশমা পরে না থাকতে কারন সারাক্ষন চশমা পরে থাকলে চোখ চশমার উপরে পুরোপুরি ডিপেন্ডেন্ট হয়ে যায়। পড়াশুনা করার সময় চশমা খুলে তারপরে পড়ুন কারন কাছের জিনিসতো পুরো স্পষ্ট দেখতে পান। তখন চশমার দরকার নেই। চশমা শুধুমাত্র আপনাকে দূরের জিনিস ভালোভাবে দেখতে সাহায্য করবে (মায়োপিকদের ক্ষেত্রে)। এছাড়া আর কোন কাজ চশমা করে না।

চোখের ব্যায়াম করলেও মায়োপিয়া (মাইনাস পাওয়ার), হাইপারোপিয়া ও প্রেসবায়োপিয়া (প্লাস পাওয়ার) ভালো হয়ে যায় না তবে চোখের ক্লান্তিভাব দূর হয়। তাই মাঝে মাঝে চোখের বিভিন্ন ব্যায়াম করা ভালো।

তবে যাই কিছু করুন চোখের ডাক্তারের পরামর্শ নিয়েই তারপরেই করবেন।


বিঃদ্রঃ- স্বাস্থ্য বিভাগে আমার প্রথম টপিক।  big_smile

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন শাহরিয়ার (২৭-০২-২০১২ ১৭:০৩)

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

আমি চশমা পড়ি। আমার চশমার পাওয়ার -৭ । আর আমি বহু কষ্টেও কন্টাক ল্যান্স ব্যবহার করতে পারি নাই। একবার ট্রাই করেছিলাম। কিন্তু খুব একটা জমে নাই। আর ল্যাসিক এর ব্যাপারে আমার এলার্জি আছে। আল্লাহ প্রদত্ত দুই খান চোখই সম্বল আমার। যদি কিছু খারাপ হয় তবে রক্ষা নাই। আর ল্যাসিক নিয়ে একটা আর্টিকেল পড়েছিলাম যে এটা চোখের জন্য একদম ক্ষতিকর। দেখি সেই আর্টিকেল পাই কিনা তাহলে শেয়ার করবো আপনাদের সাথে
পেয়েছি---

** ল্যাসিক করতে কর্নিয়ার একটা ফ্ল্যাপ / লেয়ার কাটতে হয় বিশেষ ব্লেড অথবা লেজার দিয়ে। কর্নিয়ার ফ্ল্যাপ কাটার পরে বিশেষ এক লেজার দিয়ে কর্নিয়ার আকার পাল্টানো হয়। এরপরে কাটা লেয়ারটি আগের জায়গায় রাখা হয়। যেটা কর্নিয়ার সাথে লেগে থাকে কিন্তু যেই লেয়ার কাটা হয় সেটা কখনোই পুরোপুরি সেরে উঠে না। যেকোন সময় বিশেষ ইস্ট্রুমেন্ট দিয়ে তোলা যায়। ল্যাসিকের পর চোখ কচলানো নিষেধ কারন কর্নিয়ার কাটা ফ্ল্যাপ বেরিয়ে আসতে পারে।


** কর্নিয়ার একটা লেয়ার কাটার কারনে সুস্থ কর্নিয়া চিরস্থায়ীভাবে দূর্বল হয়ে যায়। কর্নিয়ার পুরত্ব কমে যায়।

** কর্নিয়ার ফ্ল্যাপ কাটার সময় চোখের অন্যান্য নার্ভেরও ক্ষতি হতে পারে। এর ফলে বিভিন্ন সাইড এফেক্ট দেখা দিতে পারে। চোখ শুষ্ক হয়ে যাওয়া ল্যাসিকের অন্যতম সাইড এফেক্ট। আরো অনেক সাইড এফেক্ট আছে যেগুলো কারো ক্ষেত্রে সাময়িক, কারো ক্ষেত্রে চিরস্থায়ী।

** ল্যাসিকের দীর্ঘ মেয়াদী জটিলতা নিয়ে এখনো গবেষনা চলছে। যদিও ল্যাসিক সার্জনদের মতে ল্যাসিকের জটিলতা নেই বললেই চলে কিন্তু তারা নিজেরাও স্বীকার করে যে দীর্ঘ মেয়াদী জটিলতার বিষয়ে কোন ডাটা তাদের কাছে নেই।


**যুক্তরাষ্ট্রের FDA (Food & Drug Administration) যখন ল্যাসিকের স্বীকৃতি দিয়েছিলো তখন যিনি এই ল্যাসিকের স্বীকৃতির পিছনে ছিলেন সেই ব্যাক্তি এখন তার ঐ বিতর্কিত সিদ্ধান্তের কারনে অনুতপ্ত। তিনি সাম্প্রতিকালে FDA অফিসিয়ালদের কাছে লিখিত অনুরোধ করেছেন ল্যাসিকের উপর থেকে স্বীকৃতি প্রত্যাহার করে নিতে। ল্যাসিকের ভুক্তভুগীরা FDA এর কাছে ব্যাপক অভিযোগ করায় বর্তমানে FDA পুনরায় ল্যাসিকের ব্যাপারে রিসার্চ শুরু করেছে।

http://youtu.be/2WEVQpPEUmE

সুত্র: http://www.somewhereinblog.net/blog/rabbirocks/29542485

এক জীবনই সম্পূর্ন নয়।..

My e-mail address

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

Bro thanks for ur post.amar kichu question asche.Amar chosmar power -.50
1)amon ki kono brand er chosma ache jeta nake dag porle na?
2)Recently ami crizal sapphire uv lens kinte jabo.ami bashundhra market a ak dokane kotha bolechi tara bollo je 16-20 days time lagbe deliver hote price boleche 6000. ami abar century arcade a 3-4 ta dokane kotha bolechi tara sathe diye dibe bolche abar keo bole 7-8 days lagbe deliver korte.price boleche 2500-3000 taka. To amar que holo tader theke neya ti dik hobe karon tader price bashundrha theke kom and abar amake nokol diye cheat kore?kotha theke neya dik hobe?
Asha kori ans diben lol

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

দারুন কার্যকরী পোষ্ট........বর্তমানে ৮০% ছেলেমেয়েরাই চশমার উপরে ডিপেন্ডেড.........তাদের জন্য এটা ভালো একখান পোষ্ট। আমিও এই ল্যাসিক নিয়ে টিভিতে একটা রিপোর্ট দেখে আগ্রহী হয়েছিলাম...........আর টোটাল ব্যাপারটা শুধু কর্নিয়ার একটা ছোট্ট টিউনিং এর মতো মনে হয়েছিলো..........।
কিন্তু আল্লাহর প্রদত্ত জিনিষের উপর খবরদারীর যে নেগেটিভ প্রভাব থাকবে সেটাই স্বাভাবিক........। আর আমাদের শারীরিক সম্পত্তি চক্ষু,দাঁত এগুলো যখন যায়.........তা ঠিক আগের অবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়ার সাধ্য্ কোন বিজ্ঞানেরই নেই।

টিপসই দিবার চাই....স্বাক্ষর দিতে পারিনা......

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

চিন্তায় পড়ে গেলাম। thinking

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

নাহ চশমার উপরে কিছু নাই। smile

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

নেতিবাচক দিক দেখে বুঝলাম দুইটাই আমার জন্য না।  sad
সারাজীবন চশমাই পড়ে থাকতে হবে।

কী জন্য যে ছোট বেলায় চশমা পড়ার শখ করতাম।  hairpull

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

চশমা এবং লেন্স দুটোই ব্যবহার করি। তবে চশমায় বেশী অভ্যস্ত।
ছোটবেলায় স্কুলে একবার এক বন্ধুর সাথে মারামারি করতে গিয়ে চশমার উপর ঘুঁষি খেয়েছিলাম  big_smile চশমার একটা কাঁচ স্ট্রেইট মাঝখান থেকে ভেঙে বেরিয়ে গিয়ে কপালে ফুটে গিয়েছিল। তখন লেন্স থাকলে কি হত বলাই বাহুল্য  donttell

যেহেতু বেশীরভাগ বাচ্চাকাচ্চাদের সর্বদা মাথা গরম থাকে তাই ছোটদের জন্য কখনোই কন্ট্যাক্ট লেন্স প্রেফার করি না  roll

"No ship should go down without her captain."

হৃদয়১'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

সমন্বয়ক নোটঃ টপিকটি স্টিকি করে দেওয়া হল।

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১০

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

তথ্যবহুল টপিকের জন্য অনেক ধন্যবাদ ।

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit

১১ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন নাকিব (২৮-০২-২০১২ ০০:০৭)

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

কন্টাক্ট এ একটা সমস্যা যেটা আগে থেকে বুঝা যায়না, সেটা হচ্ছে এলার্জিক রিয়েকশন। যার চোখে করবে, তার জন্য এটা বড়ই পেইনফুল। সেজেগুজে কোন একটা অনুষ্ঠানে গেছেন, হটাৎ চোখ চুলকানী, লাল হয়ে পানি পড়া, গেল সব সাজগোজ।

মাহমুদ রাব্বি লিখেছেন:

চশমা পরে খেলাধুলা করা অত্যন্ত ঝামেলা ও বিরক্তির ব্যাপার। অনেক স্পোর্টস আছে যেগুলোতে চশমা পরা অবস্থায় অংশ নেয়া যায় না। এই সব ক্ষেত্রে কনট্যাক্ট লেন্স খুবই কাজে দেয়

যেসব খেলাধুলায় ধুলাবালি উড়বার সম্ভাবনা সেখানে কন্টাক্ট না ব্যবহার করাই ভাল। এমনকি জার্নির সময়ও কন্টাক্ট পেইন দিবে, যদি রাস্তায় ধুলা/ধোঁয়া থাকে, যেটা ঢাকার অনেক রাস্তার ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।

জাগরণে যায় বিভাবরী ...

১২

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

মনে হচ্ছে চশমা নিয়েই সংসার করতে হবে! isee

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৩

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

অয়ন খান লিখেছেন:

মনে হচ্ছে চশমা নিয়েই সংসার করতে হবে! isee

২৫ এর আগে ল্যাসিক এডভাইস করা হয়না। ২৫ এর পর ল্যাসিক ট্রাই করা যেতে পারে।

জাগরণে যায় বিভাবরী ...

১৪ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মাহমুদ রাব্বি (২৯-০২-২০১২ ১১:৪৬)

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

কনট্যাক্ট লেন্সের কিভাবে যত্ন নিবেন

কনট্যাক্ট লেন্সের যত্নের উপর নির্ভর করে লেন্স আপনার জন্য কতটা নিরাপদ।

- লেন্স রাখার জন্য একটা বক্স দেয়া হয়। সাথে সল্যুশন (এক ধরনের ড্রপ)। বক্সে কিছু সল্যুশন দিয়ে সবসময় লেন্স ভিজিয়ে রাখতে হয়। 

- লেন্স ধরার আগে হাত ভালোভাবে সাবান / হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে ধুয়ে নিতে হয়। ভেজা হাতে লেন্স ধরতে হয় না। হাত ধুয়ে ভালোভাবে মুছে তারপরে বক্স থেকে লেন্স বের করতে হয়।

- বাম হাতের তালুতে লেন্স নিয়ে তাতে এক ফোটা সল্যুশন দিন। তারপরে সেটা ডান হাতের আঙ্গুলের ডগায় নিয়ে বাম হাত দিয়ে ডান চোখের নিচের পাপড়ি একটু নিচের দিকে টানুন আলতো করে। এবার লেন্সটি চোখের সাদা অংশে ছেড়ে দিন কিংবা সরাসরি চোখের কালো অংশে লাগিয়ে দিন। এর পরে দুই তিনবার চোখের পাপড়ি ফেলুন। লেন্স অটোমেটিকলি ঠিক জায়গায় বসে যাবে। একইভাবে বাম চোখে পরতে হয়। ব্যস, লেন্স পরা হয়ে গেলো। প্রথম দুই তিনদিন লেন্স পরতে গেলে কিছু টাইম লাগবে। যেহেতু অভ্যাস নেই তাই। এরপরে লেন্স পরতে মাত্র কয়েক সেকেন্ড লাগবে।

- সকালে লেন্স পরলেন। সারাদিন লেন্স পরে থাকলেন। লেন্সের কোয়ালিটি ভালো হলে আপনি বুঝতেই পারবেন না যে আপনি লেন্স পরে আছেন। ঠিকভাবে লেন্স পরলে চোখ খচ খচ করবে না। উল্টো আরাম পাবেন। রাতে শোয়ার আগে অবশ্যই অবশ্যই লেন্স খুলে রাখতে হয়।

- লেন্স খোলার কিছু টেকনিক আছে। হাত ভালোভাবে পরিষ্কার করে ডান হাতের একটা আঙ্গুল দিয়ে আলতো করে চোখের কালো অংশ থেকে লেন্স সাদা অংশে সরিয়ে আনুন। চিন্তা করবেন না। আপনি আপনার আঙ্গুল দিয়ে লেন্স ধরছেন। আপনার চোখের কোন অংশ ধরছেন না। এবার লেন্সটি সহজে খুলে আসবে।

আরেক টেকনিক হলো বাম হাতের আঙ্গুল দিয়ে চোখের নিচের দিকে স্পর্শ করুন। একটু নিচের দিকে টানুন। ডান হাতের আঙ্গুল দিয়ে চোখের উপরের পাতা স্পর্শ করুন। উপরের দিকে সামান্য টানুন। এবার চোখের  নিচে ও উপরের পাতায় আঙ্গুল রাখা অবস্থায় চোখ বন্ধ করুন। লেন্স খুলে আসবে। এবার লেন্স বক্সে রেখে দিন।

- নিয়মিত বক্সের সল্যুশন পাল্টান।

লেন্স ঠিকভাবে মেইনটেইন করতে পারলে লেন্স চোখের জন্য যথেষ্ট নিরাপদ।


নাকিব লিখেছেন:

কন্টাক্ট এ একটা সমস্যা যেটা আগে থেকে বুঝা যায়না, সেটা হচ্ছে এলার্জিক রিয়েকশন। যার চোখে করবে, তার জন্য এটা বড়ই পেইনফুল। সেজেগুজে কোন একটা অনুষ্ঠানে গেছেন, হটাৎ চোখ চুলকানী, লাল হয়ে পানি পড়া, গেল সব সাজগোজ।

এজন্যেই তো কনট্যাক্ট লেন্স নেয়ার আগে চোখের ডাক্তারের কাছে চোখ পরীক্ষা করা দরকার। লেন্সে চোখে অস্বস্থি হয় কিনা সেটা ট্রায়াল লেন্স পরিয়ে বুঝা যায়। তবে যদি ভালো ব্র্যান্ড যেমন Acuvue বা Bausch & Lomb পরে তবে লেন্সে এলার্জি হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম থাকে কারন এইসব লেন্স অনেক সফট আর আরামদায়ক ও চোখের জন্য ভালো। চোখ পরীক্ষা করে চোখের ডাক্তাররা এই সব ভালো ব্র্যান্ডই রিকমেন্ড করে সচারচর। যদি সস্তা Ego বা Freshlook পরে কেউ তবে লেন্সে অস্বস্থি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে কারন এগুলো বেশি সফট ও আরামদায়ক না। ফালতু সস্তা এই সব লেন্স। আমি একবার ফান করতে সস্তা Ego কালার লেন্স কিনছিলাম। চরম ফালতু।

১৫

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

চশমার সাথে আছি  ২০০৪ থেকে.
সবসময় হালকা ফ্রেম নেই তাই খারাপ লাগেনা!
মজার ব্যাপার হল মাঝে মাঝে চশমা পড়েই ঘুমিয়ে পড়ি!  tongue

লেখাটি CC by-nd 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৬

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

নাকিব লিখেছেন:

২৫ এর আগে ল্যাসিক এডভাইস করা হয়না। ২৫ এর পর ল্যাসিক ট্রাই করা যেতে পারে।

আমার ডাক্তারও তাই বলেছে। তবে এই টপিক পড়ার পর ল্যাসিক নিয়ে চিন্তার মধ্যে আছি! thinking

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৭

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

আচ্ছা সারাদিন কম্পিঊটার  মনিটরের সামনে থেকেও চোখ ভাল রাখার উপায় কি ? ( চালু মনিটর , কাজ করা অবস্থায় ।  smile

১৮ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মাহমুদ রাব্বি (২৮-০২-২০১২ ০৪:৩৩)

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

ত্রিনিত্রির রাশিমালা লিখেছেন:

আচ্ছা সারাদিন কম্পিঊটার  মনিটরের সামনে থেকেও চোখ ভাল রাখার উপায় কি ? ( চালু মনিটর , কাজ করা অবস্থায় ।  smile

মাঝে মাঝে খানিকটা ব্রেক। দুই হাতের তালু এক সাথে ঘষে চোখ বন্ধ অবস্থায় চোখের উপর দুই হাতের তালু কয়েক মিনিট রাখেন। ভাল লাগবে।  thumbs_up

১৯

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

ত্রিনিত্রির রাশিমালা লিখেছেন:

আচ্ছা সারাদিন কম্পিঊটার  মনিটরের সামনে থেকেও চোখ ভাল রাখার উপায় কি ? ( চালু মনিটর , কাজ করা অবস্থায় ।  smile

দিনের বেলা হলে মনিটর জানালার পাশে রাখুন। ৩০ মিনিট পর পর ২/৩ মিনিটের জন্য বাইরের আকাশ বা সবুজ এর দিকে তাকিয়ে থাকুন(যদি সেরকম কিছু থাকে আর কি)।

জাগরণে যায় বিভাবরী ...

২০

Re: চশমার বিকল্প: কনট্যাক্ট লেন্স ও ল্যাসিক

আমার চশমার পাওয়ার বামচোখে -13 আর ডান চোখে -12.5। আমার জন্য কন্ট্র্যাক লেন্স বা ল্যাসিক কি উপযোগী হবে?