সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন স্বপ্নীল (৩০-১২-২০১১ ০৪:৪১)

টপিকঃ আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

মুজতবা নিজে থেকেই গোপন বার্তা দিয়ে জানালো সে একটা পর্বে আসতে চায়। আমি রাজি হয়ে গেলাম, কারণ জানি মুজতবা খুব গুছিয়ে একদম প্রফেশনালদের মত সব লেখবে। মুজতবাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। হি ইজ এ গ্রেট পারসন। অসুস্থ বলে তাকে তেমন কোনো হেল্পই করতে পারি নাই। এজন্য সরি: স্বপ্নীল



"আমি এবং আমার ক্যাম্পাস" সিরিজের সব পর্ব এক জায়গায় !!!



ক্যাম্পাস সম্পর্কে কিছু কথা.........
 
- Southeast Missouri State University  বা সংক্ষেপে SEMO যুক্তরাষ্ট্রের মিসৌরী স্টেইটের কেইপ গিরারড্যু শহরে ৪৩০ একর জায়গা নিয়ে অবস্থিত । এর প্রধান ক্যাম্পাস ছাড়াও ড্যান্স এবং মিউজিকের জন্য আরেকটি ক্যাম্পাস রয়েছে যেটা মিসিসিপি নদীর তীরে অবস্থিত। ১৬ টি আবাসিক হল আর ১৮ টি একাডেমিক বিল্ডিং, ১ টি সুবিশাল লাইব্রেরী ২ টি আউটডোর এবং ২ টি ইনডোর স্টেডিয়াম নিয়ে আমাদের এই ক্যাম্পাস। ক্যাম্পাসের সবচেয়ে পুরোনো বিল্ডিং হচ্ছে একাডেমিক হল যেটা ১৮৭৩ সালে প্রথম স্থাপিত হলেও পরে আবার এটাকে ভেংগে নতুন রূপ দেয়া হয় ১৯০৩ সালে।



বর্তমানে পড়ালেখার বিষয়..........
- আমি এখানে ভর্তি হয়েছি মূলত প্রি ফার্মেসী করার জন্যে। প্রি-ফার্মেসী হলো যে কোনো ফার্মেসী স্কুলে ঢুকার আগে একটা ২ বছরের ব্যচেলর ডিগ্রী। বেসিকলি এই দুই বছরের সব সাইন্স রিলেটেড সাবজেক্ট পড়ে আমাকে ফার্মেসী সম্পর্কে হালকা পাতলা নলেজ প্রদান করাই এর উদ্দেশ্য। এইটা কম্প্লিট করা মানে ফার্মেসী স্কুলে ঢুকার যোগ্যতা অর্জন করা। তাই প্রি-ফার্মেসী ভালো করে শেষ করে ভালো একটা ফার্মেসী স্কুলে পড়াটাই লক্ষ্য। উল্লেখ্য যে আমাদের এই স্কুল ফার্মেসী স্কুল না।

আমাদের প্রতি বছরে মোট দুটি সেমিস্টার। একটা হলো স্প্রিং সেশন যেটা জ্যনুয়ারী থেকে শুরু হয়। এই সেশনে হাড় কনকনে শীতে ক্লাস করা লাগে। টানা ৪ মাসের সেমিস্টার শেষে ৩ মাসের সামার ভ্যকেশন এরপর শুরু হয় ফল সেশন যেটাতে খুবই সহজে ক্লাসে উপস্থিত হওয়া যায়। নরমালি এই সেশন আগস্ট/সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়।



বর্তমান সেমিস্টার যেমন যাচ্ছে.......
- সেমিষ্টার শেষ হয়ে গেছে দেখতে দেখতে তবে খুবই ভালো কেটেছে সেমিষ্টার ৩ টা এ আরেকটা বি নিয়ে মোটামুটি আমি সন্তুষ্ট। পড়াশোনা খুব একটা করা লাগে নাই কারণ ৩ টা সাবজেক্টের ম্যাক্সিমাম জিনিসই আগে স্কুলে পড়া ছিলো। তবে সাইকোলজী সাবজেক্ট টা বড়ই পেইন দিয়েছে এজন্য রেজাল্টও মনমতো হয় নি। তবে সব মিলিয়ে খারাপ না।



ক্যাম্পাসে প্রিয় টিচার, বন্ধু-বান্ধব ও অন্যান্য কাছের মানুষ যারা আছে তাদের সম্পর্কে......
- তবে সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো সবচেয়ে অপছন্দের সাবজেক্টের টিচার কিন্তু আমার সবচেয়ে পছন্দের। অসাধারণ লেকচার দেয়ার ক্ষমতা আমার মনে হয়েছে। ভদ্রলোক মাত্র ৪ টা পি,এইচ,ডি করে এখনও যে পড়াশোনা প্রফেশনের সাথে জড়িত আছেন সেটাই সবচেয়ে অবাক করার বিষয়। তার কোর্স পলিসি আমার কাছে বেস্ট মনে হয়েছে, কারণ সে মাল্টিপল চয়েজ দিয়ে কোনো পরীক্ষা নেয় না। সবগুলো পরীক্ষাতেই আমাদের বড়ো বড়ো রচনা লিখতে হয়েছে ১০০ মার্কের যাতে করে পুরোপুরি ভাবে প্রতিটা টপিক সম্পর্কে জানাও হয়েছে।

এছাড়াও ক্যাম্পাসের অন্য ফ্রেন্ডরাও অনেক ফ্রেন্ডলি, বিশেষ করে আমেরিকান রা। এদের সাথে মিশতে পারলে এরা খুব হেল্পফুল। সবচেয়ে ভালো লেগেছে পরীক্ষার মধ্যে নকল করার যেমন একটা বাজে টেন্ডেন্সি বাংলাদেশের ইউনিতে দেখেছি সেটা এদের মাথায়ও আসে না কোনো কারণে। যা পারে তাই দিয়েই রেজাল্ট করে যায়। যদিও আমার কাছে স্টুডেন্ট গুলো কে ম্যাথমেটিক্সে একটু খারাপ মনে হয়েছে। যদিও বলা ঠিক না আমি নিজেও ম্যাথে অতো ভালো না।

এছাড়াও বাংগালী কয়েকটা ফ্রেন্ডও অনেক হেল্পফুল ছিলো। আসলে নতুন একটা জায়গায় আসলে ২-১ জন বাংগালী পাওয়া যে কতটা ভাগ্যের ব্যাপার সেটা সত্যিই টের পেয়েছি। ওদের কারণে অনেক কিছু খুব সহজেই ধরতে পেরেছি এবং কোনো প্রকার সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় নি। যদিও কতগুলা আজে বাজে ছেলের কারণে অনেকটাই বাংগালীরা অপমানিত হয়েছে তা না বললেই নয়।



ক্যাম্পাসে হয়ে যাওয়া কোন বিশেষ প্রোগ্রাম বা অনুষ্ঠান সম্পর্কে স্মৃতিচারন.....
- ক্যাম্পাসে আমার হ্যালইন নাইট খুবই ভালো কেটেছিলো যেটার বর্ণনা আমি আরেকটি টপিকে করেছি। এছাড়াও আমাদের অরিয়েন্টেশনের পার্টিটাও ছিলো রমরমা পুরাই। এই পার্টিটা আসলে একটু ডিফরেন্ট করে করা হয়। সব দেশের ছেলে মেয়েদের যার যার কালচারাল ড্রেস পড়ে পার্টিতে আসতে বলা হয়। তারপর কম্পিটিশন হয় যে কোন দেশের ড্রেস কতটা সেই কালচার রিফ্লেক্ট করছে, আমাদের দেশ প্রথম না হতে পারলেও আমার ফ্রেন্ড তামান্নার কল্যাণে আমরা দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছিলাম। এছাড়াও মনে পড়ে স্পিড ডেটিং এর কথা। এই প্রোগ্রামটা অনেক মজার, যেমন সব ছেলেকে বলা হয় র্যান্ডমলি মেয়ে চুজ করতে ১০ টা লিমিট থাকে। এর মধ্যে সবার সাথে খুব দ্রুত আপনার ডেইট করতে হবে। আর কি নির্দিষ্ট সময় দেয়া হবে এর মধ্যে সুন্দর কথা বার্তা বলে মেয়েটাকে ইম্প্রেস করা। অত:পর বেস্ট কাপল গুলাকে ড্যান্স ফ্লোরে নাচতে দেয়া হয়। love আমি তো পুরাই  blushing কয়েক জনের সাথে কথা বলেই গিভ আপ করেছি, প্লাস ক্ল্যসিকাল ড্যান্সের আগা মাথা কিছুই জানি না।  cry



ক্যাম্পাসে যাওয়া থেকে একদম বাসায় ফিরে আসা পর্যন্ত প্রতিটা দিন যেভাবে কাটে......
- বাসা থেকে বের হলেই ক্যাম্পাস। এই কুয়েশ্চেন এর উত্তর কি দিবো বুঝতে পারছি না। তাও বাসা থেকে বের হই হাতে সময় থাকলে ভ্যনডাইভার হলের সামনে দাড়িয়ে ইউনিভার্সিটি শাটলের জন্য ওয়েইট করি, সেলফোনে শাটল ট্র্যক করি একটু পর পর। যদি দেখি কোনো কারণে ডিউরেশন ২-১ মিনিট বেড়ে গেছে তাহলে চোখ বন্ধ করে হাটা দেই। আর শাটল পাইলে এবং হাতে টাইম থাকলে পুরো ক্যাম্পাস ঘুরে ঘুরে নির্দিষ্ট স্থানে নামি, মজাই লাগে।



প্রথম ভর্তি হবার পর দেখা ক্যাম্পাস আর এখনকার ক্যাম্পাসের পার্থক্য .......
- ভর্তি হবার পর থেকে এখন পর্যন্ত কোনো পরিবর্তন দেখি নাই। তবে ম্যকগিল হল থেকে অনেক ঘুরে জনসন হলে যাবার যেই রাস্তাটা সেখানে একটা ব্রীজের কাজ চলছে। মনে হয় আর ২/১ মাসে শেষ হয়ে যাবে। কাজ খুবই ঢিলে তালে আগাচ্ছে কোনো কারণে নাহলে এইটুকু কাজে সময় লাগার কথা না।



ক্যাম্পাসে ঘটে যাওয়া বিশেষ কোন মজার ঘটনা...........
- মজার ঘটনা বেশীর ভাগই আমার স্কুল জীবন সিরিজে শেয়ার করেছি। তারপরেও এই মূহুর্তে মনে পড়ছে যে আমাদের কমন কিচেনে এক চাইনিজ গরুর মাংস মাইক্রোওয়েভে দিয়েছিলো রান্না করতে। বেচারা ৪০ মিনিট দিয়ে চলে গিয়েছিলো এদিকে আমাদের চাইনিজদের উপর মেজাজ খুব খারাপ কারণ গত কয়েকদিন আমাদের খাবার কারা জানি খেয়ে ফেলেছে কমন ফ্রিজ থেকে বের করে। সুতরাং সুন্দর ২০ মিনিট না যেতেই ওর কাচা মাংস বের করে পাশে রাখলাম। যদিও আরো বিশ মিনিটে কতটুক সিদ্ধ হইতো গরুর মাংস আল্লাহই জানে। মাংসের সাথে কি কি ছিলো নামও জানি না। পরে আর কি আমরা মাইক্রোওয়েভ ইউজ করতেছি নিজেদের মতো। বেচারা আইসা শুধাইলো টাইম মতো বের করছি নাকি, আমরা বললাম হ্যা পার্ফেক্ট। তারপর আর কি খিদের চোটে গপ গপ করে কাচা মাংসই খেয়ে ফেললো। হায়রে চাংকু!! lol



ক্যাম্পাসের যে দিকটি সবচে বেশি ভাল লাগে.........
- ক্যাম্পাসের বিশালতা খুবই ভালো লাগে। এতো বড়ো এরিয়া, যা জুড়ে হাটলে শুধু নিজেকে রাজা মনে হতো। এছাড়াও কৃত্রিম ফলস গুলাও খুব সুন্দর লাগে। ভালো লাগে ক্যাম্পাসের সাথে বয়ে যাওয়া মিসিসিপি নদী। যেটার পারে প্রায়ই মন খারাপ হলে বসে থাকতাম আর সুন্দর স্মৃতিচারণ করতাম।



যে দিকটি একদমই ভাল লাগে না..........
- ভালো লাগে না একটা দিক, ক্যাম্পাসের উচু নিচু রাস্তা গুলা। এইগুলা বেয়ে উঠতে আর নামতে যে কি কষ্ট হয় সেটা বলার বাহিরে। আর একটা জিনিশ ভালো লাগে না আমার বেস্ট ফ্রেন্ড যে হলে থাকে সে হলের গ্রাউন্ড ফ্লোরের কম্পিউটারের মাউস ঠিক মতো কাজ করে না, এটা গত ২ মাস ধরে এমন পরিবর্তন করা হচ্ছে না।



বর্তমান ক্যাম্পাসের উন্নতিতে কোন মতামত বা পরামর্শ.......
- বর্তমান ক্যাম্পাসের উন্নতি নিয়ে আমার চিন্তার কোনো কারণ নেই যেখানে গভর্ণমেন্ট নিজেই বিশাল আয়োজন করছেন চিন্তা ভাবনা করে। অলরেডি কয়েকটি প্রস্তাবনা এই বিষয়ে সম্প্রতি স্বাক্ষরিত হয়েছে। আমাদের ক্যাম্পাসে আউটডোরে যেসব সিড়ি আছে সেগুলোকে এসকেলেটরে পরিণত করা হবে। ক্যাম্পাসে সর্বাধিক তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে আরেকটি নতুন হল বানানো হবে। ক্যাম্পাসের এক বিল্ডিং থেকে আরেক বিল্ডিং এ যাবার জন্য সব জায়গায় শেড থাকবে যেটা স্টুডেন্টদের তাপ, বৃষ্টি বা বরফ থেকে সেইফ রাখবে।



ছবিগুলো তোলার সময়কার অভিজ্ঞতা .........
- আমি ছবি তুলতে পারিই না বলতে গেলে সুতরাং টুক টাক যা পেরেছি যখন পেরেছি তুলার ট্রাই করেছি। এই টপিকের দ্বায়িত্ব পাবার পর এমন শীত নেমে গিয়েছিলো যে বাইরে গিয়ে ঐভাবে হাত বের করে ছবি তুলাও সাহসের ব্যাপার।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আহমাদ মুজতবা (২৯-১২-২০১১ ১৯:৩০)

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

http://i.imgur.com/PbwrL.jpg

ক্যাফেটেরিয়াতে খাওয়া দাওয়া হচ্ছে

http://i.imgur.com/shPmr.jpg

প্রবেশ পথ

http://i.imgur.com/sO0Xi.jpg

কেন্ট লাইব্রেরী

http://i.imgur.com/GbVyf.jpg

ডেম্পেস্টার হল বিজনেস বিল্ডিং নামে পরিচিত

http://i.imgur.com/Tntx3.jpg

এখানে বিভিন্ন কনসার্ট হয়, মাঝে মধ্যে স্ম্যাক ডাউনও (রেসলিং) হয়

http://i.imgur.com/WDqyR.jpg

ফ্র্যাটার্নিটি হাউজ নির্দিষ্ট গ্রুপের আবাসস্থল

http://i.imgur.com/NSf5c.jpg

ইংরেজী ডিপার্টমেন্ট

http://i.imgur.com/tus1o.jpg

নৃতত্ব বিভাগ

http://i.imgur.com/PC60S.jpg

সায়েন্স ফ্যাকাল্টি

http://i.imgur.com/msnLB.jpg

সবচেয়ে বড়ো ডিয়ারমন্ট হল আসার আগে আমি এখানেই ছিলাম

http://i.imgur.com/oqEoA.jpg

ইউনিভার্সিটি সেন্টার

http://i.imgur.com/uuBgc.jpg

নাচানাচি বিল্ডিং

http://i.imgur.com/89dkM.jpg

৩ খানার মধ্যে একখান অডিটোরিয়াম

ইমেজেস কালেক্টেড আরো অনেক পিক দেখতে এখানে এবং এখানে ক্লিকান, জানি না কয়টা রিপিট পড়ছে

অনেকদিন ধরেই লেখাটা ড্র্যাফটে ছিলো, নানান ব্যস্ততায় প্লাস স্বপ্নীল ভাইয়ের অসুস্থতার কারণে সঠিক সময়ে পোস্ট করতে পারি নি। তবে ইন দি এন্ড ক্যাম্পাস ছেড়ে এসে খুব মিস করছিলাম তাই লিখেই ফেললাম আমি এবং আমার এক্স ক্যাম্পাস smile শেষ চমক এই সিরিজের

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

জি বরাবরের মত ই চমৎকার হইছে, তবে শেষ পর্ব দেখে খারপ লাগছে  roll যেন অনেকটা বঞ্চিত করছ আমাদের  nailbiting ধন্যবাদ ২জন কেই চোখে লাগার মতই ক্যাম্পাস  clap

۞ بِسْمِ اللهِ الْرَّحْمَنِ الْرَّحِيمِ •۞
۞ قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ ۞ اللَّهُ الصَّمَدُ ۞ لَمْ * • ۞
۞ يَلِدْ وَلَمْ يُولَدْ ۞ وَلَمْ يَكُن لَّهُ كُفُوًا أَحَدٌ * • ۞

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

স্বপ্নীল আর আমু ভাই দু'জনকেই ধন্যবাদ।  thumbs_up যেমন হয়েছে ইন্টারভিউ তেমনি হয়েছে ছবিগুলো।  thumbs_up

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

দারুন দারুন দারুন, অসাম হইছে  thumbs_up

One can steal ideas, but no one can steal execution or passion. - Tim Ferriss

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

সুন্দর একটা লেখার জন্য @আহমাদ মুজতবা কে ধন্যবাদ

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

বিভিন্ন মুভিতে দেখি ফ্র্যাট হাউস গুলার উদ্ভট কর্মকান্ড, আসলে এইটা কি জিনিষ? আসলেই কি এরা এইসব করে?

জাগরণে যায় বিভাবরী ...

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

স্বপ্নীল ভাই, শেষ পর্ব কেন? খেলুম না...

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন স্বপ্নীল (৩০-১২-২০১১ ০৪:৩৮)

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

আগন্তুক মিলন লিখেছেন:

স্বপ্নীল ভাই, শেষ পর্ব কেন? খেলুম না...


আচ্ছা যান, শেষ পর্ব না  tongue

১০

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

নাকিব লিখেছেন:

বিভিন্ন মুভিতে দেখি ফ্র্যাট হাউস গুলার উদ্ভট কর্মকান্ড, আসলে এইটা কি জিনিষ? আসলেই কি এরা এইসব করে?

ফ্র্যাট হাউস নিয়া আসলে ন্যু স্কুল জীবনের ভিতরেই লিখতে চাইছিলাম। কিন্তু বাদ পড়েছে। মূলত এইগুলা হলো বিভিন্ন কমিউনিটি। লাইক রেড ইন্ডিয়ানদের জন্য একটা ফ্র্যাট হাউস ধরেন আলফা-পাই-চি আরেকটা আফ্রো আমেরিকানদের জন্য ধরেন পাই-চি-ডেলটা। এইগুলা বিভিন্ন কমিউনিটি হিসেবে ভাগ করা যে যেটাতে পড়বে সে সেটার জন্য এপ্লাই করতে হয়। ওদের সব টার্মস এবং কন্ডিশন মানতে হয় এবং আপনার জাতীয়তার প্রুফ দেখাতে হয়। এরপর আর কি আপনার উপর মেশিনগান (বলে ধরেন ১২ টা বিয়ার গানশট মারতে) চলতে পারে বুলডোজার (এক বোতল ভদকা শট মেরে খেতে বলবে অথবা আপনাকে হা করে গিলায় দিবে) চলতে পারে। এইসব ঝক্কি ঝামেলা পার কইরা আপনি মেম্বার হইতে পারবেন।

এরপর খালি ভাবস আর ভাবস! cool ফ্র্যাটের টি'স পইড়া ঘুরবেন, ইউনি এর বিভিন্ন সমাজ সেবা মূলক ইভেন্টে যোগদান করবেন, ফ্যাট হাউজে যা তা পার্টি করবেন কারো কিছু বলার নাই। এক কথায় এমন একটা ইউনিটি এর মধ্যে থাকবেন যে আপনারই লাভ হবে, কারণ ভবিষ্যতে এক ফ্র্যাট মেম্বার আরেক মেম্বারকে দেখলে অন্যরকম মজা হয় প্লাস জবের জন্য রিকমেন্ডেশন পাবেন আরো ব্লা ব্লা ফ্যাসিলিটিস! এক কথায় ফ্র্যাট রক্স

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১১

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

লোভনীয় ক্যাম্পাস  tongue দারুণ হয়েছে এই পর্বটা ।

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit

১২

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

স্বপ্নীল ও আহমাদ মুজতবা ভাইকে অনেক ধন্যবাদ।
মুজতবা ভাই,আপনার ক্যাম্পাস তো অনেক পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন।আমার তো ওখানে এখনই পড়তে যাইতে ইচ্ছা করছে,আচ্ছা ওখানে মেডিকেল ফ্যাকাল্টি নেই?

১৩

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

উপল বাংলাদেশ লিখেছেন:

স্বপ্নীল ও আহমাদ মুজতবা ভাইকে অনেক ধন্যবাদ।
মুজতবা ভাই,আপনার ক্যাম্পাস তো অনেক পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন।আমার তো ওখানে এখনই পড়তে যাইতে ইচ্ছা করছে,আচ্ছা ওখানে মেডিকেল ফ্যাকাল্টি নেই?

  প্রি-মেড আছে কিন্তু মেডিক্যল স্কুল না এটা, মেডিসিন পড়তে হলে সেন্ট লুইসে যেতে হবে। অথবা অন্য স্টেইট

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৪

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

শেষ পর্ব দেখে মন খারাপ হয়ে গেল। sad

স্বপ্নীল ভাইকে আবারও ধন্যবাদ। সাথে মুজতবা ভাইকেও। অসাধারণ লেগেছে! smile

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৫

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

শেষ পর্ব দেশে খুবই খারাপ লাগল।

স্বপ্নীল লিখেছেন:
আগন্তুক মিলন লিখেছেন:

স্বপ্নীল ভাই, শেষ পর্ব কেন? খেলুম না...

এইসব টপিকের সত্যিকার অর্থেই কোনো ভ্যালু নাই, তাই শেষ পর্ব। আর টাইম নষ্ট করার কোনো ইচ্ছা নাই।

ভ্যালু থাকবে না কেন? এর মাধ্যমে বিভিন্ন ফোরামিক এবং তাদের ক্যাম্পাস সম্পর্কে জানতে পারছি।

সালেহ আহমদ'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১৬

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

স্বপ্নীল লিখেছেন:
আগন্তুক মিলন লিখেছেন:

স্বপ্নীল ভাই, শেষ পর্ব কেন? খেলুম না...

এইসব টপিকের সত্যিকার অর্থেই কোনো ভ্যালু নাই, তাই শেষ পর্ব। আর টাইম নষ্ট করার কোনো ইচ্ছা নাই।

স্বপ্নীল বস কি মাইন্ড খাইছেন? আর ভ্যালু নাই কে কইছে?! angry

তামিম৬৯'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৭ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন স্বপ্নীল (৩০-১২-২০১১ ০৪:৪৯)

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

তামিম, অয়ন ও সালেহ ভাই, যান, শেষ পর্ব না  wink

১৮

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

স্বপ্নীল লিখেছেন:

তামিম, অয়ন ও সালেহ ভাই, যান, শেষ পর্ব না  wink

মিয়া ভয় দেখাইছিলেন ক্যান? hairpull

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন স্বপ্নীল (৩০-১২-২০১১ ০৫:১১)

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৬ : অতিথি: আহমাদ মুজতবা

অয়ন খান লিখেছেন:
স্বপ্নীল লিখেছেন:

তামিম, অয়ন ও সালেহ ভাই, যান, শেষ পর্ব না  wink

মিয়া ভয় দেখাইছিলেন ক্যান? hairpull

মাঝে মাঝে ভয় দেখানো স্বাস্থ্যের পক্ষে ভালো  roll