সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন তার-ছেড়া-কাউয়া (১৫-১১-২০১১ ২২:৪৬)

টপিকঃ আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

পূর্বে ঃ আমার আরব আমিরাত সফর


নীল আকাশ,সাদা মেঘ, এয়ারহোস্টেস আর টয়লেটঃ
প্লেন ট্যাক্সিইং করা শুরু করলো। যে হারে ঝাকি মারছিলো মনে হচ্ছিলো যে, এয়ারপোর্টের রাস্তা দিয়ে প্লেন ওড়ার চেষ্টা করছেনা, ওড়ার চেষ্টা করছে সায়েদাবাদ-যাত্রাবাড়ী ফ্লাইওভারের পাশের রাস্তা দিয়ে। কিছুক্ষণ ট্যাক্সিইং করার পর হঠাত করে এক সময় স্পীড অনেক বাড়িয়ে দিলো , আর আমার কাছে মনে হলো যে আমি সিটের মধ্যে ঢুকে যাচ্ছি।এভাবে জোরে দৌড়াতে দৌড়াতেই প্লেন মাটি ছেড়ে আকাশে উড়লো। জানালা দিয়ে দেখলাম নিচে সবকিছু ছোট ছোট হওয়া শুরু করেছে। আরো বিচ্ছিরি ব্যাপার হচ্ছে যে, আমরা তখনো হরিজন্টাল সারফেসের সাথে অ্যাঙ্গেল করে বাকা ভাবেই উপরে উঠছি। মনে হলো যে,  মিয়াভাই (আমার একদম বড় ভাই) ফ্লাইট সিমুলেটর খেলছে, আর আমি পিছে দাঁড়িয়ে তা দেখছি। তবে স্বস্তির ব্যাপার হচ্ছে, আমার তলপেট মোচড় দিলো না, আর বমিবমিও লাগলো না। তবে কান দুইটা সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে গেলো। কয়েকবার মুখ হা করে চোয়ালটা নড়ালাম। কানও খুলে গেলো।
https://lh3.googleusercontent.com/-DuFXyyxXaZ4/TsExnLlFA3I/AAAAAAAAADs/8oZhAZHjTGA/s640/SAM_0869.jpg

https://lh4.googleusercontent.com/-k9viK2VPC0A/TsExftjYjRI/AAAAAAAAADk/otRdDgZ8Y-k/s640/SAM_0889.jpg

https://lh5.googleusercontent.com/-k83_yLoXkkI/TsEx8-sgDdI/AAAAAAAAAD8/Bqc2buAUDqI/s640/SAM_0898.jpg

https://lh3.googleusercontent.com/-RmLObLpiuPI/TsEyP2Oi-KI/AAAAAAAAAEE/uU453a1XUjE/s640/SAM_0903.jpg

https://lh5.googleusercontent.com/-_1o1IcsHxVQ/TsEySmpBmPI/AAAAAAAAAEM/bFElCnEI_qc/s640/SAM_0904.jpg

বাইরে প্রচন্ড রোদ। বেশিক্ষণ তাকায় থাকাটা মুশকিল। এর মধ্যেও আমি জানালা দিয়ে বাইরে তাকিয়ে তাকিয়ে দেখছিলাম। মনে হচ্ছিলো যে, কম্পিউটারে গুগুলআর্থ চালাচ্ছি। এক সময় আর সহ্য করতে না পেরে জানালা বন্ধ করে দিলাম। এয়ারহোস্টেসগুলো দেখলাম খাবার-দাবার তৈরী করা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়লো। এর মধ্যে এক ছেলে এয়ারহোস্টেস দেখি বারবার আমাদের দিকে তাকাচ্ছে। ঐ ব্যাটাই দেখি কিছুক্ষণ পরে এসে আমাদের জিজ্ঞেস করলো, ‘’Hey, will you guys have something to eat or drink?
আমি বললাম, “No thanks. We are OK.”
তারপর খাজুরা আলাপ, “Seems like you guys become very busy out of no where.”
ঐ ব্যাটা হাসি দিয়ে বললো, “well, That’s our job.”
আমি আরও কিছু বলতে যাচ্ছিলাম, কিন্তু আমার স্ত্রীর চোখের অগ্নিদৃষ্টি দেখে আর কিছু বললাম না। এয়ারহোস্টেস চলে গেলে আমি আমার স্ত্রীকে জিজ্ঞেস করলাম,
-    এই তোমার সমস্যা কি? বিদেশ যাচ্ছি ম্যান! এতদিন ধরে এই দিনটার জন্য মুখায় ছিলাম। কবে একদম ওরিজিনাল বিদেশীদের সাথে ইংরেজীতে টক করবো। আর তুমি আমারে থামায় দিলা।
-    থামায় দিসি, কারণ তোমার ইংরেজী হরিবল। কোন উন্নতি হয় নাই। আর যেটাকে তুমি ওরিজিনাল বিদেশী বলতেসো, সেটা ওরিজিনাল বিদেশী না। পাকিস্তানী মনেহয়।
-    তুমি কেমনে বুঝলা?
-    ওর উচ্চারণ শুনে। ঐ ব্যাটার এক্সেন্ট তোমার মতই বাজে।
-    ধুর। পেয়ার কিয়া তো নেহি ডারা, আর ইংরেজী বলতে ডরাবো? কখনোই না। আমাকে আর আটকাবা না।

এদিকে দেখি সব হজ্জ্ব যাত্রীদেরকে খাবার সার্ভ করা শুরু করলো এয়ারহোস্টেসরা। আমরা জানতাম খাবার দেয় না। এখন দেখি দিচ্ছে। পরে বুঝলাম যে, হজ্জ্ব যাত্রীদের টিকেটের প্যাকেজে খাবার ছিলো। মনমেজাজ কিঞ্চিত খারাপ হলো। ওদের জানানো উচিত ছিলো যে, আমি প্রথম বারের মতন বৈদেশে আমার শ্বশুরবাড়ি যাচ্ছি। একটা কমপ্লিমেন্টারী মিল দেয়া উচিত ছিলো ওদের। এইসব যখন চিন্তা করছি, তখন দেখি আবার সেই আদমের আগমণ। এসে আমার বৌরে বলে,
-    Are you from Sherwood academy?
-    Yes.
-    Hey, I am Hasan Iqbal. I went to Sherwood with you.
-    Sorry. I cant remember you.
-    Ya, its natural. I left the school after class five.
শুরু হইলো প্যাচাল। মাঝে আমার সাথে পরিচিত হইলো। আমি হাই-হ্যালো বললাম, আরো দুই-এক লাইন ইংরেজী বললাম। কিন্তু এইবারও দেখলাম বৌ আমার উপরে অগ্নিবর্শা নিক্ষেপ করতেছে। কাজেই এইবারও আমি অফ মারলাম। এর মধ্যে হাসান সাহেব চট করে দেখি গায়েব হয়ে গেলো। আর একটু পরে পুরা আলাদিনের চেরাগের দৈতের মত চকলেট, কফি, পানি ইত্যাদি অনেক কিছু নিয়ে এসে হাজির হলো।  আমরা চরম শরমিন্দা হওয়ার ভাব দেখালেও মনে চাইতেছিলো যে খুশিতে ডিগবাজি মারি।

যাইহোক খাওয়া-দাওয়ার পরে আমার একটু টয়লেটে যাওয়ার দরকার পরলো। বৌকে বললাম যে, হাসান সাহেবদের টয়লেটে যাই। অন্য টয়লেটের সামনে যা ভীড়। বৌ বললো যে, ‘হইছে, হাসানের উছিলা দিয়ে ওর  সুন্দরী সঙ্গীগুলারে দেখার জন্য ওদের ঐখানে যাওয়া লাগবে না। ’ কি যে সমস্যা। আমার জরুরী দরকার, আর সে আছে হাসানের সুন্দরী সঙ্গীদের নিয়ে। আমি একরাশ বিরিক্তি আর এক চিমটি দুঃখ নিয়ে পিছনের দিকের কমন টয়লেটের লাইনে গিয়ে দাড়ালাম। একটু পরে দেখি কে জানি আমাকে ডাকছে। পিছনে ঘুরে দেখি এক মেয়ে এয়ারহোস্টেস (আরবী মনেহয়) আমার দিকে আগায় আসতেছে প্লেনের আরেকমাথা থেকে, তার পিছে আসতেছে আমার বৌ। এদিকে দেখি যে টয়লেটে আমার টার্ন চলে আসছে। আমি ওদের কথা আর না শুনে টয়লেটে ঢুকে গেলাম। কাজ শেষ করে যখন সিটে এসে বসলাম, তখন দেখি বৌ মুখ কালো করে বসে আছে। কি হইছে  জিজ্ঞেস করতে ও বললো যে, আমি ঐ টয়লেটে যাচ্ছি দেখে হাসান ও তার দল এসে নাকি হায় হায় করে উঠছে, আর ওকে সেই লেভেলের ঝাড়ি মারছে। ‘কি দরকার ছিলো জামাইবাবুকে পাবলিক টয়লেটে পাঠানোর। আমাদের এইখানে কি সমস্যা? যাও গিয়ে ওনাকে এইখানে নিয়ে আসো ইত্যাদি ইত্যাদি।’

দেখতে দেখতে ল্যান্ড করার সময় চলে আসলো। সিট বেল্ট বেধে নিলাম আবার। ল্যান্ডিং এর আগে পাইলট সাহেব পরম আনন্দে প্লেনকে ডানেবামে,উপরে নিচে করে মনেহয় এয়ারপোর্ট অভিমুখে সেট করলো। পাইলট সাহেব পরম আনন্দ পেলেও ঐ সময়টায় আমার গা একটু গুলাচ্ছিলো। তবে মনে হলো যে খুব স্মুথ ল্যান্ডিং হলো। কারণ ল্যান্ডিং এর সময় যতটা ঝাকি খাবো ভেবেছিলাম ততটা খাইনি। আমরা হাসান এন্ড কোংকে আন্তরিক ধন্যবাদ দিয়ে বিদায় নিলাম। আর প্লেন থেকে সবার আগে বের হয়ে শারজা এয়ারপোর্টে প্রবেশ করলাম।
(চলবে)

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

ওহ, দারুন হচ্ছে...অনেক মজা পাইলাম, সবচেয়ে মজা পাইলাম নিচের লাইনটা পড়ে...

তার-ছেড়া-কাউয়া লিখেছেন:

বৌ বললো যে, ‘হইছে, হাসানের উছিলা দিয়ে ওর  সুন্দরী সঙ্গীগুলারে দেখার জন্য ওদের ঐখানে যাওয়া লাগবে না।

lol2 lol2
চালিয়ে যান ভাই...

You are the one who thinks that i didn't get the point, so do i think of you...what a coincidence!!

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (১৫-১১-২০১১ ২২:৫৮)

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

বিমানের ভেতরের কোন ছবি তোলেন নাই  isee [মাথা কাটা ছবি দিলেও চলবে tongue ]

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

চরম দাদা! পিলাস!  big_smile

কিছু জায়গায় হুমায়ূন আহমেদের লেখার ধরনের সাথে মিল পেলাম!  tongue

লেখাটি CC by-nd 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

faysal_2020 লিখেছেন:

ওহ, দারুন হচ্ছে...অনেক মজা পাইলাম, সবচেয়ে মজা পাইলাম নিচের লাইনটা পড়ে...

তার-ছেড়া-কাউয়া লিখেছেন:

বৌ বললো যে, ‘হইছে, হাসানের উছিলা দিয়ে ওর  সুন্দরী সঙ্গীগুলারে দেখার জন্য ওদের ঐখানে যাওয়া লাগবে না।

lol2 lol2
চালিয়ে যান ভাই...

অনেক অনেক ধন্যবাদ। দেখি কতদিন চালাইতে পারি।

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

বিমানের ভেতরের কোন ছবি তোলেন নাই  isee [মাথা কাটা ছবি দিলেও চলবে tongue ]

অনেক ধন্যবাদ। এমনিতেই তরুন সমাজ অবক্ষয়ের পথে, আর মিয়া আপনে গলা কাটা ছবি চান? একদম ঠিকনা  shame

shitol69 লিখেছেন:

চরম দাদা! পিলাস!  big_smile


ধন্যবাদ।

কিছু জায়গায় হুমায়ূন আহমেদের লেখার ধরনের সাথে মিল পেলাম!  tongue

এই কথা কওয়ার চাইতে আমারে একখান মাইনাস মারেন sad অবশ্য বুঝতেছি কোন জায়গার কথা কইতাছেন। নিচের লাইনটার জন্য মনেহয়।

ওদের জানানো উচিত ছিলো যে, আমি প্রথম বারের মতন বৈদেশে আমার শ্বশুরবাড়ি যাচ্ছি।

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

পড়তে পড়তে মনে হচ্ছিলো আমিই শ্বশুর বাড়ি যাচ্ছি lol কথায় আছে না মিঠা খাওয়ার আগে একটু তিতা খেলে মন্দ হয় না। শ্বশুর বাড়ি তো নাকি বলে মধুর হাড়ি। তো সেই জন্যই মনে হয় আপনার কপালে কিঞ্চিত তিতকুটে প্লেনযাত্রা ঘটেছিলো। তবে হাসান সাহেবের সঙ্গীদের ব্যাপারটা আরেকটু বিস্তারিত বললে....ইয়ে..আপনার অর্ধাঙ্গিনী তো আর এই ফুরাম ভিজিট করে না, নাকি করে? করলে শেয়ার করার দরকার নাই। আমরা চাই না আপনি বেশ কয়েক রজনী সোফায় শুয়ে কাটান  lol2

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

উদাসীন লিখেছেন:

পড়তে পড়তে মনে হচ্ছিলো আমিই শ্বশুর বাড়ি যাচ্ছি lol কথায় আছে না মিঠা খাওয়ার আগে একটু তিতা খেলে মন্দ হয় না। শ্বশুর বাড়ি তো নাকি বলে মধুর হাড়ি। তো সেই জন্যই মনে হয় আপনার কপালে কিঞ্চিত তিতকুটে প্লেনযাত্রা ঘটেছিলো। তবে হাসান সাহেবের সঙ্গীদের ব্যাপারটা আরেকটু বিস্তারিত বললে....ইয়ে..আপনার অর্ধাঙ্গিনী তো আর এই ফুরাম ভিজিট করে না, নাকি করে? করলে শেয়ার করার দরকার নাই। আমরা চাই না আপনি বেশ কয়েক রজনী সোফায় শুয়ে কাটান  lol2

দুঃখের সাথে জানাচ্ছি যে, আমার অর্ধাঙ্গিনী এই ফোরাম ভিজিট করে। তবে খালি আমার লেখাগুলোই দেখে মনেহয়। তবে সমস্যা নয়াই। দুইটা মেয়ে আর দুইটা ছেলে ছিলো। দুইটা পাকিস্তানী আর দুইটা আরবী। তবে তাদের ডিটেইলস দিতে পারছিনা। সোফা থাকলে একটু রিস্ক নিতাম। কিন্তু সোফা নয়াই। এই ঠান্ডায় তাই আর মেঝেতে যাতে চাই না।  nailbiting

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

কোন কথা নেই hug প্লাস। thumbs_up

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

আরণ্যক লিখেছেন:

কোন কথা নেই hug প্লাস। thumbs_up

অনেক অনেক ধন্যবাদ big_smile

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

১০

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

বড় মজাক করে লিখেন আপনি , পড়তেও ব্যাপক মজাক পাওয়া যায়।
জাহাপানা তওফা ( + ) কবুল করুন।

রক্তের গ্রুপ AB+

microqatar'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১১

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

ভাই লেখা পড়ে দুবাই এর গন্ধ পাচ্ছি।আশা করি দেখাবেন। dream প্লেন থেকে বাড়ীগুলা খেলনার মত ছোট লাগে এটা বেশ মজার।

seeming is being

১২

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

আহারে...আহ্হারে....... আমার তো অর্ধাঙ্গিনী নাই, আমি যদি ওই প্লেনে চড়তাম....... কত্ত..... love
আপনারে হ্যাটস অফ, স্টোরীটা বড়ই টেস্টি লাগতেছে।  tongue_smile
চালাইতে থাকেন, থামলে কিন্তু কষ্ট পামু।  shame

স্রোতের বিপরীতে উদ্যত!

১৩

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

সুন্দর হচ্ছে ভাইয়া চালিয়ে যান  thumbs_up thumbs_up

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৪

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

ভাল লাগল

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

১৫

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

চমতকার এক ভ্রমন কাহিনী, যত পড়ছি ততই মজা পাচ্ছি।

১৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন তার-ছেড়া-কাউয়া (১৬-১১-২০১১ ২০:৫১)

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

microqatar লিখেছেন:

বড় মজাক করে লিখেন আপনি , পড়তেও ব্যাপক মজাক পাওয়া যায়।
জাহাপানা তওফা ( + ) কবুল করুন।

ভাগ্য ভালো যে তওফা থ্রি-ইডিয়টস স্টাইলে কবুল করতে হয় না  tongue_smile অনেক ধন্যবাদ কাতার ভাই।

রণ_এথিক্যাল হ্যাকার লিখেছেন:

ভাই লেখা পড়ে দুবাই এর গন্ধ পাচ্ছি।আশা করি দেখাবেন। dream প্লেন থেকে বাড়ীগুলা খেলনার মত ছোট লাগে এটা বেশ মজার।

দুবাই পর্যন্ত যাইতে পারলে অবশ্যই দেখামুনে। হা হা হা।

দ্যা_থটমেকার লিখেছেন:

আহারে...আহ্হারে....... আমার তো অর্ধাঙ্গিনী নাই, আমি যদি ওই প্লেনে চড়তাম....... কত্ত..... love
আপনারে হ্যাটস অফ, স্টোরীটা বড়ই টেস্টি লাগতেছে।  tongue_smile
চালাইতে থাকেন, থামলে কিন্তু কষ্ট পামু।  shame

তরুন-যুবারা আজ সব বিপদ্গ্রস্থ  hehe hehe

আহমাদ মুজতবা লিখেছেন:

সুন্দর হচ্ছে ভাইয়া চালিয়ে যান  thumbs_up thumbs_up

ধন্যবাদ। আপনার প্রবাস জীবনের কাহিনীও চালিয়ে যাবেন।

ছবি-Chhobi লিখেছেন:

ভাল লাগল

ধন্যবাদ

ইলিয়াস লিখেছেন:

চমতকার এক ভ্রমন কাহিনী, যত পড়ছি ততই মজা পাচ্ছি।

অনেক ধন্যবাদ ইলিয়াস ভাই।

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

১৭

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

তার-ছেড়া-কাউয়া লিখেছেন:

পূর্বে ঃ..... মনে হলো যে,  মিয়াভাই (আমার একদম বড় ভাই) ফ্লাইট সিমুলেটর খেলছে, আর আমি পিছে দাঁড়িয়ে তা দেখছি। ......

তোমারে পিছে দাঁড় করিয়ে ফ্লাইট সিমুলেটর খেলেছি বলে মনে পড়ে না। ইন ফ্যাক্ট ফ্লাইট সিমুলেটর খেলেছি বলেই কোন স্মৃতি নাই। আমি বরং ২য় বিশ্বযুদ্ধের পটভূমিতে ফাইটার নিয়ে ডগ ফাইটের কিংবা বোম্বার প্রোটেকশন সিমুলেশন টাইপের গেম খেলেছিলাম।

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৮ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন তার-ছেড়া-কাউয়া (১৭-১১-২০১১ ০০:১৯)

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

শামীম লিখেছেন:
তার-ছেড়া-কাউয়া লিখেছেন:

পূর্বে ঃ..... মনে হলো যে,  মিয়াভাই (আমার একদম বড় ভাই) ফ্লাইট সিমুলেটর খেলছে, আর আমি পিছে দাঁড়িয়ে তা দেখছি। ......

তোমারে পিছে দাঁড় করিয়ে ফ্লাইট সিমুলেটর খেলেছি বলে মনে পড়ে না। ইন ফ্যাক্ট ফ্লাইট সিমুলেটর খেলেছি বলেই কোন স্মৃতি নাই। আমি বরং ২য় বিশ্বযুদ্ধের পটভূমিতে ফাইটার নিয়ে ডগ ফাইটের কিংবা বোম্বার প্রোটেকশন সিমুলেশন টাইপের গেম খেলেছিলাম।

হে হে। হ্যা মনে পরসে। ঐটার নাম ফ্লাইট সিমুলেটর ছিলো না। Raptor ছিলো। অতিব জঘন্য একটা গেম  big_smile

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

১৯

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

কাল আমার প্রচন্ড শরির অসুস্থ ছিলো। আজকেও তাই। কাল বহু কস্টে এই পোষ্টটা পড়েছিলাম। কিন্তু মন্তব্য করবার সময়ই নেট প্রবলেম দিলো। সম্মাননা প্লাস মন্তব্য কিছুই করা হলো না। কি যেন হাবিজাবি মন্তব্য করতে চেয়েছিলাম তা আজ মনে পড়ছে না angry। তো যাই হোক কাক ভাই আপনার লেখার স্টাইল ভালো। সবথেকে ভালো লেগেছে টয়লেট কাহিনীটা  thumbs_up

আমাকে কোথাও পাবেন না।

২০

Re: আমার আরব আমিরাত সফর পর্ব-২

পলাশ মাহমুদ লিখেছেন:

কাল আমার প্রচন্ড শরির অসুস্থ ছিলো। আজকেও তাই। কাল বহু কস্টে এই পোষ্টটা পড়েছিলাম। কিন্তু মন্তব্য করবার সময়ই নেট প্রবলেম দিলো। সম্মাননা প্লাস মন্তব্য কিছুই করা হলো না। কি যেন হাবিজাবি মন্তব্য করতে চেয়েছিলাম তা আজ মনে পড়ছে না angry। তো যাই হোক কাক ভাই আপনার লেখার স্টাইল ভালো। সবথেকে ভালো লেগেছে টয়লেট কাহিনীটা  thumbs_up

হা হা। ধন্যবাদ। এখন শরীর কেমন?

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(