টপিকঃ হীরক গ্রহের সন্ধান!

জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন, তাঁরা বিশ্বব্রহ্মাণ্ডে এমন এক গ্রহের সন্ধান পেয়েছেন, দেখে মনে হয় এটি হীরক দিয়ে তৈরি। গ্রহটি কম ঘূর্ণমান একটি ছোট নক্ষত্রকে কেন্দ্র করে ঘুরছে। নক্ষত্রটির নাম পালসার।
নিউট্রন তারাকে বলা হয় পালসার যা ঘুরপাক খেতে খেতে পৃথিবীর দিকে রশ্মি বিকিরণ করে। নিউট্রন তারা হচ্ছে সেই তারা, যেটি সংকুচিত হতে হতে একটি চরম ঘনীভূত অবস্থাপ্রাপ্ত হয়। সাধারণত পালসার ঘূর্ণমান এমন এক নক্ষত্র, যা ২০ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের সমান কিংবা ছোট শহরের মতন। এই নক্ষত্র থেকে বেতার তরঙ্গের মতো রশ্মির বিচ্ছুরণ ঘটে পৃথিবীর দিকে। নক্ষত্রটি যখন ঘোরে এবং বেতার রশ্মি পৃথিবীতে আছড়ে পড়ে, তখন টেলিস্কোপে নিয়মিতভাবে রেডিও স্পন্দন ধরা পড়ে।
http://paloadmin.prothom-aloblog.com:8088/resize/maxDim/340x1000/img/uploads/media/2011-08-29-16-33-07-070784900-untitled-76.jpg

ইউনিভার্সিটি অব ম্যানচেস্টার এবং অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি, ইতালি ও যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের গবেষক দল উল্লেখ করেছে, পৃথিবীতে রেডিও স্পন্দন পৌঁছার সময় শৃঙ্খলভাবে তা নিয়ন্ত্রণ করা হয়। তাঁরা বলেছেন, ছোট প্রতিবেশী গ্রহের মাধ্যাকর্ষণ শক্তির কারণে এটা ঘটে থাকে। আর আবিষ্কৃত এই গ্রহটি যুগ্ম পদ্ধতিতে পালসারকে প্রদক্ষিণ করছে।
নতুন এই গ্রহটির অবস্থান চার হাজার আলোকবর্ষ দূরে। গ্রহটির ঘনত্ব অন্য যেকোনো গ্রহের চেয়ে খুব বেশি এবং এখানে কার্বনের পরিমাণও খুব বেশি। এই বেশি ঘনত্বের কারণেই বিজ্ঞানীদের ধারণা, এখানকার কার্বনগুলো ‘ক্রিস্টালাইজড’ আকারে রয়েছে। আর এ কারণেই গ্রহটির এক বড় অংশজুড়ে হীরা থাকার সম্ভাবনা খুবই উজ্জ্বল। যে কারণে বিজ্ঞানীরা এই গ্রহটিকে বলছেন ‘ডায়মন্ড প্লানেট’ (হীরক গ্রহ)।
আকারে ছোট হলেও নতুন আবিষ্কৃত গ্রহটি বৃহস্পতির চেয়ে বড়। অধ্যাপক বেইলিস বলেছেন, গ্রহটির গভীর ঘনত্বই এর উৎ পত্তিসংক্রান্ত যোগসূত্রের ধারণা দেয়। এই ঘনত্বের অর্থ হলো, এখানে কার্বন ক্রিস্টালাইজ আকারে রয়েছে। গবেষকেরা মনে করেন, গ্রহটি একসময়কার বড় একটি নক্ষত্রের অবশিষ্টাংশ। আর ওই নক্ষত্রের ধ্বংসাবশেষের অধিকাংশ পালসারের দিকে নির্গত হয়েছে।
গবেষক দলের সদস্য মাইকেল কেইথ বলেন, এই ধ্বংসাবশেষের মধ্যে বিপুল পরিমাণ কার্বন ও অক্সিজেন থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। কেননা হাইড্রোজেন ও হিলিয়ামের মতো হালকা উপাদান দিয়ে তৈরি একটি নক্ষত্র এতটাই বড় যে, এটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কক্ষপথ ঘুরে আসতে পারে না।

সুত্র- এএনআই, রয়টার্স।

এবং

http://www.prothom-alo.com/detail/date/ … ews/182100

۞ بِسْمِ اللهِ الْرَّحْمَنِ الْرَّحِيمِ •۞
۞ قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ ۞ اللَّهُ الصَّمَدُ ۞ لَمْ * • ۞
۞ يَلِدْ وَلَمْ يُولَدْ ۞ وَلَمْ يَكُن لَّهُ كُفُوًا أَحَدٌ * • ۞

Re: হীরক গ্রহের সন্ধান!

চার হাজার আলোকবর্ষ দূরে অবস্থান........মানুষ কবে যাবে সেখানে ??

অন্তহীন এই পথ চলার শেষ কোথায়?

Re: হীরক গ্রহের সন্ধান!

ইস আমার যদি একটা রেডিও টেলিস্কোপ থাকত।

Re: হীরক গ্রহের সন্ধান!

আগন্তুক মিলন লিখেছেন:

ইস আমার যদি একটা রেডিও টেলিস্কোপ থাকত।

রেডিও টেলিস্কোপদিয়ে কি করবেন? ৪ হাজার আলোক বর্ষ দূরে গ্রহ ভর্তি হীরা... সেটে জেনে বা দেখে কি লাভ। তারচেয়ে বলুন ইস আমার যদি হাইপার ড্রাইভ দিতে পারা একটা স্পেসসীপ থাকত!

Re: হীরক গ্রহের সন্ধান!

আমি আজকে ইউ এফ ও দেখেছি ... ইস আমার যদি একটা টেলিস্কোপ  থাকতো ... যাই হোক পড়ে ভালো লাগলো

শ্রাবন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: হীরক গ্রহের সন্ধান!

শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

সব কিছু ত্যাগ করে একদিকে অগ্রসর হচ্ছি

লেখাটি CC by-nd 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: হীরক গ্রহের সন্ধান!

তথ্যবহুল পোস্ট ধন্যবাদ ।

Re: হীরক গ্রহের সন্ধান!

শ্রাবন লিখেছেন:

আমি আজকে ইউ এফ ও দেখেছি ... ইস আমার যদি একটা টেলিস্কোপ  থাকতো ... যাই হোক পড়ে ভালো লাগলো

খাইছে কই দেখলেন জলদি কন, আমিও দেখবার চাই  love

স্রোতের বিপরীতে উদ্যত!

Re: হীরক গ্রহের সন্ধান!

আজকে রাতে আবার দেখার চেষ্টা করবো ... যদি দেখতে পাই তাহলে ... জানাবো  ...

শ্রাবন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১০

Re: হীরক গ্রহের সন্ধান!

its long time to go there
its not possible to go there