সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন স্বপ্নীল (১৫-০৮-২০১১ ১৮:০০)

টপিকঃ আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

পূর্বকথা: "আমি এবং আমার ক্যাম্পাস" একটি নতুন সিরিজ।এই সিরিজের মাধ্যমে আমি একেকজন মানুষের ক্যাম্পাসকে তুলে ধরব তারই দৃষ্টিকোণ থেকে। বেশ কিছু জিনিস আমি জানতে চাইব আমাদের অতিথির কাছ থেকে আর সেটার মাধ্যমেই আমি অতিথি ও তার ক্যাম্পাসকে আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করব।আশা করি আপনাদের ভাল লাগবে।

আজকেরটা পর্ব ৪। যারা এই সিরিজের  পর্ব ১ , ২ ও ৩ পড়েন নাই, তারা  নিচের লিংকে যেয়ে পড়ে নিতে পারেন:

আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ১ : অতিথি: ইমরান তুষার

আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ২ : অতিথি: ইন্জ্ঞিনিয়ার 

আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৩ : অতিথি: সাইদুল ইসলাম 





আজকের পর্ব কথা:

আজকের অতিথি আমাদের সবার চেনা জানা মুখ প্রিয় মডারেটর অয়ন খান। সে পড়াশোনা করছে ঢাকার Daffodil Institute of IT সংক্ষেপে DIIT তে যেটা বাংলাদেশে ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।


http://imgur.com/SDu6W.jpg


অয়ন সম্পর্কে বেশি কিছু বলার নাই। সে অনেক সিরিয়াস কাজে কর্মের প্রতি, সেটা আমি এই পর্বে তার সাথে কাজ করেই বুঝেছি। যখনই দরকার পড়েছে তখনই আমার সাথে যোগাযোগ করেছে, আর গোপন বার্তাও ছিল। চ্যাটে ছবি তোলা নিয়েই দুজনে অনেক ডিসকাস করেছি, সত্যিকার অর্থে সেটাই সবচে বড় প্রবলেম ছিল। শেষ পর্যন্ত সবকিছুর শেষ হয়ে এই নতুন পর্ব নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হতে পারলাম, সেজন্য আল্লাহকে অশেষ ধন্যবাদ। আর অনেক অনেক কষ্ট করে খুব সুন্দরভাবে উত্তর দেয়ার জন্য ও ছবিগুলো তোলার জন্যও অয়নকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।






তো চলুন জেনে নেই আজকে অয়ন ও তার ক্যাম্পাস সম্পর্কে.......



ক্যাম্পাস সম্পর্কে কিছু কথা.........
- Daffodil Institute of IT সংক্ষেপে DIIT প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৯৭ সালে। বর্তমানে DIIT – এর মোট ৪টি ক্যাম্পাস আছে। প্রধান ক্যাম্পাস ধানমন্ডিতে এবং বাকি ক্যাম্পাসগুলো কলাবাগান, বনানী এবং চট্টগ্রামে অবস্থিত। উল্লেখ্য, DIIT – তে আমি NCC Education, UK – এর আওতায় পড়ছি এবং University of Greenwich, UK থেকে আমি আমার গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করব। এই বিষয়ে ফোরামে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছিল এই টপিক – এ।

আমরা যেহেতু সরাসরি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছি না সেহেতু আমাদের ক্যাম্পাসও গতানুগতিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের চেয়ে একটু ভিন্ন। আমাদের ক্যাম্পাসে খুব বেশি হৈ চৈ নেই। যে যার মত ক্লাস করছে, লাইব্রেরিতে পড়ালেখা করছে। কেউ কেউ টেবিল টেনিস, ক্যারাম বা দাবা খেলছে। আবার অনেকে পড়ে থাকছে তাদের ল্যাপটপের সামনে। আমার কাছে অবশ্য ভালই লাগে। আমি সব সময়ই একটু শান্ত পরিবেশে থাকতে পছন্দ করি। সেই হিসেবে আমার ক্যাম্পাস নিয়ে আমি বেশ সন্তুষ্ট।


বর্তমানে পড়ালেখার বিষয়..........
- আমি B.Sc (Hons) in Business Information Technology (BIT) করার উদ্দেশ্যে এখানে ভর্তি হয়েছি। এখান থেকে গ্রাজুয়েশন করতে আমার মোট ৪ বছর লাগবে। তো প্রতিটি বছরকে NCC আলাদা আলাদা করে ভাগ করেছে। সেই হিসেবে বর্তমান অর্থাৎ প্রথম বছরে আমি International Foundation Year (IFY) করছি। দ্বিতীয় এবং তৃতীয় বছরটি হচ্ছে International Diploma in Computer Studies (IDCS) এবং International Advanced Diploma in Computer Studies (IADCS)। আর চতুর্থ বছর বা ফাইনাল ইয়ারটি হচ্ছে BIT।

আমাদের প্রতি বছরে মোট দুটি সেমিস্টার। প্রথম সেমিস্টার শেষ হয়েছে কয়েক মাস হল। আর এই নভেম্বর মাসের শেষের দিকে দ্বিতীয় সেমিস্টার পরীক্ষা শুরু হবে।

প্রথম সেমিস্টারে পরীক্ষার পদ্ধতি এবং ধরণ নিয়ে বেশ চিন্তিত ছিলাম। যদিও সবগুলো পরীক্ষাই বেশ ভালই হয়েছে। আর হ্যাঁ, আমাদের বেশ কয়েকটি পরীক্ষার সেন্টার পড়ে বৃটিশ কাউন্সিলে। আর আমি আমার জীবনে বৃটিশ কাউন্সিলের মত সুন্দর পরিবেশে আগে কোন দিন পরীক্ষা দেইনি! আরেকটি মজার বিষয় হচ্ছে আমরা এবং দেশের বাইরের ছাত্র-ছাত্রীরাও একই প্রশ্ন পত্রে একই দিনে পরীক্ষা দিয়ে থাকি।


বর্তমান সেমিস্টার যেমন যাচ্ছে.......
- খুব ভাল যাচ্ছে। এই সেমিস্টারে মোট বিষয় হচ্ছে পাঁচটি।

  1. Study and Communication Skills

  2. English Language Framework Level 5

  3. Cultural Studies

  4. Introduction to Computing

  5. Introduction to Programming (VB.Net)

এই সেমিস্টারের বিষয়গুলো খুব বেশি কঠিন মনে হচ্ছে না। ভিবি.নেট শিখতেও বেশ মজা লাগছে। smile তবে চাপের কোন কমতি নেই। রমজান মাসেও সপ্তাহে ৬ দিনই ক্লাস করতে হচ্ছে! sad


ক্যাম্পাসে প্রিয় টিচার, বন্ধু-বান্ধব ও অন্যান্য কাছের মানুষ যারা আছে তাদের সম্পর্কে......
- কেন জানি না আমার কাছে এখানের সব স্যার বা ম্যাডামদেরই ভাল লাগে। তারা ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি বেশ যত্নশীল। সত্যি বলতে তারা খুবই ক্লোজ। ছাত্র-ছাত্রীদের আপন করে নিলে সেই শিক্ষককে সব শিক্ষার্থীরই ভাল লাগে।

বন্ধু-বান্ধব নিয়ে নিয়ে লেখা শুরু করলে তা আর শেষ হবে না। তাদের সাথে ভাল-খারাপ সব রকমের অভিজ্ঞতাই আছে। আমার DIIT – এর দুইজন ক্লাসমেট অবশ্য এই ফোরামের সদস্য। wink


ক্যাম্পাসে হয়ে যাওয়া কোন বিশেষ প্রোগ্রাম বা অনুষ্ঠান সম্পর্কে স্মৃতিচারন.....
- বছরের শুরুতে সাভার মিলিটারী ফার্মে আমরা পিকনিকে গিয়েছিলাম। সেখানে সারা দিন বন্ধুরা মিলে প্রচুর মজা করেছি। তবে মিলিটারীদের প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ল্যাব্রাডর রেট্রিভার প্রজাতির কুকুরগুলোর কথা আমার সারা জীবন মনে থাকবে। মনে হয়েছিল ঐ কুকুরগুলো চিড়িয়াখানার বাঘের চেয়েও হিংস্র!

আমাদের শ্রেণী শিক্ষক আলী ইমরান স্যারের তত্ত্বাবধানে আমরা অর্থাৎ আমাদের ব্যাচ থেকে ফিল্ম ফেস্টিভালের আয়োজন করেছিলাম। এখনও মনে পড়ে আমাদের কী পরিমাণ কষ্ট করতে হয়েছিল আয়োজনটি সফল করার জন্য!


ক্যাম্পাসে যাওয়া থেকে একদম বাসায় ফিরে আসা পর্যন্ত প্রতিটা দিন যেভাবে কাটে......
- আমি থাকি এলিফ্যান্ট রোডে। আর আমার ক্যাম্পাস ধানমন্ডি ১৪ নম্বর রোডে। ধানমন্ডির পুরাতন ঠিকানা অনুসারে ২৯ নম্বরে। সুবাহানবাগ মসজিদের পিছনে। তো বাসে করেই প্রতিদিন ক্যাম্পাসে যাওয়া-আসা করা হয়। সকালে ঘুম থেকে উঠে হেঁটে বা রিকসা নিয়ে চলে যাই কাঁটাবন চৌরাস্তার মোড়ে বা নিউ মার্কেটে। সেখান থেকে সরাসরি বাসে উঠে পড়ি। সাধারণত বাসা থেকে ক্যাম্পাসে যেতে সর্বোচ্চ ১২-১৫ মিনিট সময় লাগে। সুযোগ হলে মাঝে মাঝে আব্বু অফিসে যাওয়ার আগে আমাকে ক্যাম্পাসে নামিয়ে দিয়ে আসে। আব্বুর সাথে ক্যাম্পাসে যাওয়ার মজাই আলাদা। যদিও অনেকেই তা বুঝতে পারে না। sad ক্লাসের পর আমরা প্লাজা এ, আরের নিচে বসে আড্ডা দেই। মাঝে মাঝে ক্যান্টিনেও আড্ডা দেওয়া হয়। তবে দুঃখের কথা হচ্ছে বেশির ভাগ সময় আমরা ক্যান্টিনে যাওয়ার আগেই ক্যান্টিনের সব খাবার শেষ হয়ে যায়।


প্রথম ভর্তি হবার পর দেখা ক্যাম্পাস আর এখনকার ক্যাম্পাসের পার্থক্য .......
- তেমন কোন পার্থক্য চোখে পড়ছে না। তবে হ্যাঁ, ভর্তি হওয়ার পর প্রথম দিকে যখন ল্যাবে ক্লাস করেছি তখন ল্যাবের কম্পিউটারগুলোতে ভাইরাসের পরিমাণ খুবই সীমিত ছিল। ইদানিং এই ভাইরাসের পরিমাণ তুলনামূলক অনেক বেড়ে গিয়েছে। যদিও খুব শীঘ্রই এই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে বলেই আমার বিশ্বাস। এদিকে ক্যাম্পাসে নতুন আরেকটি ল্যাব চালু হচ্ছে। yahoo


ক্যাম্পাসে ঘটে যাওয়া বিশেষ কোন মজার ঘটনা...........
- ফিল্ম ফেস্টিভাল আয়োজন করার সময় ক্যাম্পাস থেকে আমাদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল যে প্রজেক্টর নিজেদেরই জোগাড় করতে হবে। সেই সূত্রে আমাদের বন্ধুর ঘাড়ে প্রজেক্টর ভাড়া করার দায়িত্ব পড়েছিল। তো সেই বন্ধুটি ভেবেছিল ক্যাম্পাস থেকে প্রজেক্টর না দিলেও প্রজেকশন স্ক্রিন অবশ্যই দিবে। যেই ভাবা সেই কাজ, সে প্রজেকশন স্ক্রিন ছাড়াই প্রজেক্টর ভাড়া করল। এই দিকে ফিল্ম ফেস্টিভাল শুরু হওয়ার আগের দিন রাতে আমরা জানতে পারি যে প্রজেকশন স্ক্রিন ভাড়া করা হয়নি। অথচ ফিল্মের টিকিট বিক্রি হয়ে গিয়েছে। এখন প্রজেকশন স্ক্রিন ছাড়া হোয়াইট বোর্ডে ফিল্ম দেখালে পাবলিকের কিল-গুঁতো একটিও শরীরের বাইরে পড়বে না। তারপর ঐ বন্ধুটি অনেক কষ্ট করে সকালের মধ্যেই প্রজেকশন স্ক্রিনসহ প্রজেক্টর ভাড়া করে ক্যাম্পাসে নিয়ে এসেছিল। এখনও মাঝে মাঝে ভাবি সে যদি ঐ দিন প্রজেকশন স্ক্রিন জোগাড় করতে না পারত তাহলে আমাদের অবস্থা কী হত!


ক্যাম্পাসের যে দিকটি সবচে বেশি ভাল লাগে.........
- ক্যাম্পাসের পরিবেশ খুব শান্ত। আমার মত শান্তি প্রিয় মানুষের এর চেয়ে বেশি আর কী ভাল লাগতে পারে?


যে দিকটি একদমই ভাল লাগে না..........
- অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে তুলনা করলে এখানে সুযোগ-সুবিধা একটু কম। আর NCC Education, UK বা বৃটিশ এই শিক্ষা ব্যবস্থার সাথে সাথে বেশির ভাগ শিক্ষার্থী পরিচিত না হওয়াতে এখানে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা অনেক কম। বিশেষ করে ছাত্রী নেই বললেই চলে। tongue


বর্তমান ক্যাম্পাসের উন্নতিতে কোন মতামত বা পরামর্শ.......
- মানুষের চাহিদার কোন শেষ নেই। তাই মতামত বা পরামর্শ দিতে শুরু করলে তা শেষ করা বেশ মুশকিল হয়ে পড়বে। সেজন্য ঐ প্রসঙ্গে যেতে চাচ্ছি না।


ছবিগুলো তোলার সময়কার অভিজ্ঞতা .........
- ছবি তোলার পথে প্রধান বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল বৃষ্টি! বৃষ্টির কারণে আউটডোরে একদমই ছবি তুলতে পারছিলাম না। শুধু তাই না, ক্যাম্পাসে যাওয়াও বেশ মুশকিল হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তার উপর হাতের কাছে ক্যামেরা না থাকায় হ্যান্ডসেটই ছিল আমার একমাত্র ভরসা। রমজান মাসে সম্ভবত ক্যান্টিন বিকেল পর্যন্ত বন্ধ থাকে। তাই ক্যান্টিনের ছবি তোলা হয়নি। এছাড়া বৃষ্টির কারণে ক্যাম্পাসও প্রায় খালি ছিল। neutral



 


কেমন লাগল আজকের পর্বটি তা এখানে অবশ্যই জানাবেন। আপনাদের মতামতটুকু এই সিরিজের এগিয়ে চলায় অনেক অবদান রাখবে বলেই আমি বিশ্বাস করি।

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

আমার তোলা ক্যাম্পাসের ছবিগুলো এখন আমার শেয়ার করার পালা। dontsee আমার কাছ থেকে ছবিগুলো পেতে স্বপ্নীল ভাইকে অনেক ধৈর্য ধরতে হয়েছে। আসলে এই কাজটি নেওয়ার পর হুট করেই আমি বেশ কিছু কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ি। এমনকি ফোরামেও ঠিক মত আসার সময় পর্যন্ত পাচ্ছিলাম না। এদিকে অসুস্থ শরীর নিয়েও স্বপ্নীল ভাই অনেক কষ্ট করেছেন। তাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। সাথে আমার ক্লাসমেট এবং ফোরামের সদস্য শাওন মাহমুদ – কেও ধন্যবাদ দিতে চাই আমাকে ছবিগুলো সম্পাদনা করে দেওয়ার জন্য।


http://i.imgur.com/8gvYa.jpg


http://i.imgur.com/cot7G.jpg


http://i.imgur.com/5F4XO.jpg


http://i.imgur.com/U5WqU.jpg


http://i.imgur.com/wMIv0.jpg


http://i.imgur.com/9Rjfg.jpg


http://i.imgur.com/jKigQ.jpg


http://i.imgur.com/FtW5f.jpg


http://i.imgur.com/I2hhj.jpg


http://i.imgur.com/4yHy6.jpg


http://i.imgur.com/V6t2G.jpg


http://i.imgur.com/RE2Ds.jpg

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

জোস হইছে পর্‌বটা thumbs_up। ধন্যবাদ সপ্নীল ভাই এবং অয়ন ভাই দুইজনকেই clap

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

ভাল লাগল ইন্টারভিউটি, অনেক ভাল লাগল, নতুন কিছু জানলাম big_smile
এত ছবি, অয়ন ভাইয়ের ছবি নাই ক্যান?  waiting

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

thumbs_up দারন হইছে  clap

অয়ন খান লিখেছেন:

এদিকে অসুস্থ শরীর নিয়েও স্বপ্নীল ভাই অনেক কষ্ট করেছেন।

জানতাম না তো  sad দোয়া করি তারাতারি সুস্থ হোন ।

নিবন্ধিতঃ১১/০৩/২০০৯ ,নিয়মিতঃ১০/০৩/২০১১, প্রজন্মনুরাগীঃ১৯/০৫/২০১১ ,প্রজন্মাসক্তঃ২৬/০৯/২০১১,
পাঁড়ফোরামিকঃ২২/০৩/২০১২, প্রজন্ম গুরুঃ০৯/০৪/২০১২ ,পাঁড়-প্রাজন্মিকঃ২৭/০৮/২০১২,প্রজন্মাচার্যঃ০৪/০৩/২০১৪।
প্রেম দাও ,নাইলে বিষ দাও

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

ভালই হইছে  এবারের পর্বটাও  thumbs_up

۞ بِسْمِ اللهِ الْرَّحْمَنِ الْرَّحِيمِ •۞
۞ قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ ۞ اللَّهُ الصَّمَدُ ۞ لَمْ * • ۞
۞ يَلِدْ وَلَمْ يُولَدْ ۞ وَلَمْ يَكُن لَّهُ كُفُوًا أَحَدٌ * • ۞

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

আগের পর্বগুলো থেকে এটা একটু বেশী ভাল লাগল thumbs_up

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

খুব ভাল লেগেছে । এর সাথে প্লাস পয়েন্ট হিসেবে যুক্ত হয়েছে আমাদের NHTTI এর সাথে অদ্ভুত মিল smile

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

সুন্দর হয়েছে।

ভালো লাগে না।। আগের চেয়ে অনেক বদলেছি, শিখেছি সত্যিকারের ভালোবাসা কি করে
বাসতে হয়।। তাই কেউ বাসুক আর নাই বাসুক আমি তো ভালোবাসতে পারি।।

১০

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

অয়ন ভাই সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারলাম। ধন্যবাদ স্বপ্নীল ভাই dancing

আমাকে কোথাও পাবেন না।

১১

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

খুবই ভাল লেগেছে। শীঘ্রই পরবর্তী পর্ব চাই।

১২

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। smile

আশিফ শাহো লিখেছেন:

এত ছবি, অয়ন ভাইয়ের ছবি নাই ক্যান?  waiting

আমি ক্যামেরার পিছনে না থাকলে ছবি তুলবে কে? tongue

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৩

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

অয়ন খান লিখেছেন:

আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। smile

আশিফ শাহো লিখেছেন:

এত ছবি, অয়ন ভাইয়ের ছবি নাই ক্যান?  waiting

আমি ক্যামেরার পিছনে না থাকলে ছবি তুলবে কে? tongue

তা ঠিক, কিন্তু এটা অযুহাতও হইতে পারে  tongue

আরও কিছু ছবি দেন দেখি smile

১৪

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

এবারের পর্বটাও অনেক সুন্দর হয়েছে।  clap clap ধন্যবাদ দু'জনকেই।

১৫

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

@ স্বপ্নীল......এই পর্বটিও অসাধারণ লেগেছে । অয়ন ভাই সম্বন্ধে তো কিছুই জানতাম না । ধন্যবাদ স্বপ্নীল ।

@ অয়ন........অয়ন ভাই সম্বন্ধে তো কিছুই জানতাম না । স্বপ্নীলের মাধ্যমে আপনার ক্যাম্পাস এবং আপনার সম্বন্ধে অনেক কিছু জানলাম । ক্যাম্পাসটিও দারুন লাগল । ধন্যবাদ অয়ন ভাই ।

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

১৬

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

ভালই লাগলো উপস্থাপনা। অয়নের উত্তরগুলো যথেষ্ঠ পরিনত মনে হয়েছে। A গ্রেড দিলুম।  tongue

১৭ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন স্বপ্নীল (১৬-০৮-২০১১ ১১:৫০)

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

আশিফ শাহো লিখেছেন:

তা ঠিক, কিন্তু এটা অযুহাতও হইতে পারে  tongue

আরও কিছু ছবি দেন দেখি smile

অয়নকে ছবি দেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছিল। কিন্তু সে আপত্তি জানিয়েছে, তাই তার ছবি নাই wink (হাটে হাড়ি ভাইংগা দিলাম  donttell  )

১৮

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

অনেক ভাল লাগল এবং সাথে অনেক ইনফরমেশান পেলাম আপনাদের ইনিস্টিটিউট সম্পর্কে।

নিশাচর নাইম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১৯

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

স্বপ্নীল লিখেছেন:

অয়নকে ছবি দেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছিল। কিন্তু সে আপত্তি জানিয়েছে, তাই তার ছবি নাই wink (হাটে হাড়ি ভাইংগা দিলাম  donttell  )

বাইকের উপর হেলমেট পরা একখান ছবি আছে আমার সংগ্রহে  smile

একজন মানুষের জীবন হচ্ছে - ক্ষুদ্র আনন্দের সঞ্চয়। একেকজন মানুষের আনন্দ একেক রকম ...
এসো দেই জমিয়ে আড্ডা মিলি প্রাণের টানে !
   
স্বেচ্ছাসেবকঃ  ফাউন্ডেশন ফর ওপেন সোর্স সলিউশনস বাংলাদেশ, নীতি নির্ধারকঃ মুক্ত প্রযুক্তি।

২০

Re: আমি এবং আমার ক্যাম্পাস : পর্ব ৪ : অতিথি: অয়ন খান

masud3011 লিখেছেন:

বাইকের উপর হেলমেট পরা একখান ছবি আছে আমার সংগ্রহে  smile

ওরকম মুখ ঢাকা ছবির দরকার কি? অয়নের ভাল ছবিই আছে এই প্রজন্মতেই। কিন্তু এই টপিকে দেয়া যাবে না  sad