টপিকঃ কেন এলে? পর্ব-১

পর্ব-১

ধাই করে নেমে গেছে খাড়া পাহাড়ের পাথুরে শরীর। নীচে অনেক নীচে বইছে একটা শীর্ণ নদী। কুল...কুল...কুল...।  কিক কিক ক্রিচি ক্রিচি...নাম না জানা একটা পাখি ডানা ঝাপটাতে ঝাপটাতে পড়ন্ত বেলার নিস্তব্ধতাকে খান খান করে ভেঙ্গে দিয়ে উড়ে গেলো। চমকে উঠে অবাক হয়ে সেদিকে চেয়ে রইল রেয়ান। কী পাখি ওটা? ঈষত ভ্রু কুঁচকে চেনার চেষ্টা করে হাল ছেড়ে দিলো। যে ভারী চশমা সেঁটে রয়েছে নাকে, মুশকিলই বটে! ক্লিফের একেবারে কিনারায় বিপজ্জনকভাবে পা ঝুলিয়ে বসে আছে। তন্ময় হয়ে গিয়েছিলো কোলাহলবিহীন জগতে। হঠাত পাখিটার এই বেরসিকতায় যারপরনাই ক্ষুব্ধ হয়ে গেলো। প্রকৃতি শূন্যতার মত কে জানে হয়তো প্রায়-শব্দহীণতাও কাউকে উজাড় করে দিতে ভালবাসে না!  আর ভালোও হয়তো বাসে না প্রকৃতির বিরুদ্ধবাদ! হঠাত সুরেলা একটা কন্ঠঃ

-এই যে শুনছেন?

রেয়ান শুনলো বটে তবে চমকের ঠেলায় আরেকটু হলে পড়ে গেছিলো আর কি!  আহ ঈশ্বর! এখানেও মানুষ! রেয়ানের গভীর ধারণা ছিলো এই বিপজ্জনক সৌন্দর্যে কেউ আসবে না;  আসার কথাও না! কিন্তু এ কী? এ যে জলজ্যান্ত একটা মেয়ে!  রাগে গরগর করে উঠলোঃ

-কী চাই? না ফিরেই থমথমে মুখে খেঁকিয়ে উঠলো সে।

মধ্য বিশের ছিপছিপে একটা মেয়ে। শ্যামলা মুখে একটা ছুঁই ছুঁই উদ্বেগের মধ্যেও রেয়ানের রূঢ়তা জায়গা করে নিতে ভুললো না।

-না, মানে শুনছেন? আমি বোধহয় পথ হারিয়ে ফেলেছি...ফিকে হয়ে আসে সুর-তরঙ্গ।

-তো আমি কী করব? আমাকে কি আপনার গাইড মনে হয়? মুখে পষ্ট বিরক্তি।

-আচ্ছা লোক তো আপনি? একটা মেয়ে পথ হারিয়ে সাহায্য চাইতে এসেছে...আর আপনি কিনা সাধারণ সৌজন্যবোধটুকুও দেখাচ্ছেন না; মুখ ঘুরিয়ে অভদ্রের মত উত্তর করছেন...মেয়েটার গলায় ঈষৎ ঝাঁঝ।

একেবারে তিতিবিরক্ত হয়ে একহাত দেখে নেবার জন্য মুখ ঘোরাতেই রেয়ান থতমত খেয়ে গেলো। এ কী দেখছে সে! এ যেন খাজুরাহ’র অপ্সরা নেমে এসেছে। কানায় কানায় উপচে পড়ছে সৌষ্ঠব; যত্নে গড়া নিখুঁত চড়াই উতরাই। তবে পার্থক্য একটাই; প্রতিমার গায়ে হাফ স্লীভ ব্লাউজ আর একটা থ্রী কোয়ার্টার ট্রাওজারস। প্রাথমিক ধাক্কাটা কাটিয়ে উঠে আগের বিরক্ত ভাবটা বজায় রেখেই জিজ্ঞেস করলঃ

-পথ হারিয়ে ফেলেছেন মানে কী? এই বিপজ্জনক দুর্গম জায়গায় আপনার আসতে হলো কেন শুনি? উঠে দাঁড়িয়েছে রেয়ান।
নীলিমা দেখল দীর্ঘদেহী এক যুবক। এলোমেলো ঝাঁকড়া চুল কাঁধ ছুঁইছুঁই করছে। চতুষ্কোণ চিবুকে তিরিক্ষে একটা রাগ খেলে গেলেও মুখখানাতে একটা অদ্ভূত সারল্য আছে। আর আর কোথায় যেন একটা ভরসা করবার মত কিছু একটা...অজান্তে বুকটা ঢিপঢিপ করে ওঠে নীলুর।

-কী হলো বোবা হয়ে গেলেন কেন? বলুন কীভাবে এলেন এখানে?
-কিছু মনে করবেন না, আপনাকে হয়তো বিরক্ত করে ফেললাম। আসলে আমরা মানে আমি আর আমার এক বন্ধু অনেকটা খেয়ালের বশে এই গভীর বন-পাহাড়ে এসেছিলাম। আমাদের সি আর-ভি টা হাইওয়ের পাশে বনের কিছু ভেতরে ফাঁকা জায়গাটায় পার্ক করা ছিলো। আমার বন্ধুটি জরুরী একটা ফোন-কলে ব্যস্ত হয়ে গেলে বোরড হয়ে আমি জঙ্গলের ভেতর দিয়ে একটু একটু করে হাঁটতে থাকি। এত সুন্দর সবুজ, নিস্তব্ধতা...জানেন কীভাবে যে মন্ত্রমুগ্ধের মত হাঁটতে হাঁটতে অনেক দূরে চলে আসি...বলতে পারি না...

-আর তারপর যা হবার তাই হলো। পথ হারিয়ে এখন আমাকে সাধছেন...কী রকম ছেলেমানুষি একটা করলেন বলেন দেখি! আপনার বন্ধুটি কী ভাবনায় পড়েছেন বলেন দেখি? গলায় গুড়গুড়ে রাগটা এখনো জানান দিচ্ছে!

-আচ্ছা, আপনি কি সবসময় এভাবে রেগে রেগে কথা বলেন? নীলুর গলায় দলার মত একটা কান্না উথলে ওঠে বুঝি!

রেয়ান একটু নিভে যায়; একটু নরম হয়ে যায় বুঝি। অপ্সরার কান্না কান্না ভাবের চোখদুটো কীভাবে যেন গহীনে চেপে থাকা আগুনে ক’ফোঁটা সহজভাবের জল ছিটিয়ে দেয়।

-কোথায় রেগে কথা বল্লাম...একটা কিছু বললেই তো আপনাদের মহা অস্ত্রটি নিপুণ ভাবে প্রয়োগ করে ফেলেন। আচ্ছা, যাক কাজের কথায় আসি। পথ হারিয়েছেন ভালো কথা, এই ঝামেলার জায়গায় সেটা হতেই পারে। সাথের মোবাইলটি তো আর হারান নি; কল করুন জলদি।

-উম...আমি না ওটা ফেলে এসেছি...

-খুব ভালো করেছেন! এখন যে কী করি? নিভন্ত আলোর দিকে তাকিয়ে মাথা নাড়তে থাকল। ‘আমারটাও যে আনা হয় নি! ভালো সমস্যায় ফেললেন...’

-আপনারটা আনেন নি কেন? নীলু একটু ভয়ে ভয়ে জিজ্ঞেস করল।

-সেটা এখন না জানলেও চলবে। চলুন, দেরি না করে হাইওয়ে বরাবর হাঁটতে থাকি।

আর তক্ষুনি রেয়ানের দিকে তাকিয়ে নীলুর বড্ড হাসি পেয়ে গেলো; ভুলোমনা নাকি? খালি পা, পায়ে যে জুতো নেই এই খেয়ালই নেই! আজব তো! হাসি হাসি মুখে বলল,

-আপনার পায়ে জুতো স্যান্ডাল কিছু দেখছি না...কিছু একটা আদৌ পরেছিলেন নাকি খালি পায়ে হাঁটা-বাবা হয়ে এসেছিলেন? ফিক করে হেসে ফেলে নীলু।

অপ্রস্তুত হয়ে পাশে রাখা স্যান্ডেলে পা গলাতে গলাতে বলে ওঠে, ‘ বলিহারি আপনার নার্ভ! এ সময়ে কেউ এভাবে হাসতে পারে?’ মনে মনে কিন্তু অন্য কথা চলছে। এই অদ্ভুত আলো-আধাঁরি পরিবেশ, তার থেকেও অদ্ভুত এই মেয়েটিকে এখন আর তত অসহ্য লাগছে না। আশ্চর্যজনকভাবে এই যে মেয়েটিকে সঙ্গ দিয়ে পথ দেখিয়ে নেবার কথাটা, সেটা ভাবতে গিয়ে তার ভালোই লাগছে। এ তার কী হচ্ছে? এমনতো আজ সন্ধ্যায় হওয়ার কথা ছিল না? 

চলবে 

কেন এলে? পর্ব-২
কেন এলে? শেষ পর্ব

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: কেন এলে? পর্ব-১

বেশ চমৎকার গল্প।পরের পর্বের অপেক্ষায়  big_smile

Re: কেন এলে? পর্ব-১

দারুন লাগলো ভাইয়া, পরের পর্বের অপেক্ষায় থাকলাম  smile

One can steal ideas, but no one can steal execution or passion. - Tim Ferriss

Re: কেন এলে? পর্ব-১

চমৎকার শুরু, নায়ককে বেশী ট্রাজেডীতে না ফেলে এইবার নায়িকাকে ফেলুন তো!  ghusi

রংধনু দেখতে হলে বৃষ্টিকেও হাসিমুখে বরণ করতে হয়। বৃষ্টি নিজেই তখন রূপান্তরিত হয় আনন্দের উৎসে।

রুমন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: কেন এলে? পর্ব-১

dancing dancing
পুরাই অছাম big_smile

Re: কেন এলে? পর্ব-১

আমি আপনার কবিতা মিস করি ... গল্পটা পড়িনি , পড়ে জানাবো  smile

ঘরের কোনে মনের বনে, তোমার সাথে জোছনা স্নান...
তোমার দুহাত থাকলে হাতে; স্বপ্নে জাগে মধুর প্রাণ।
ছড়া সব করে রব

নাদিয়া জামান'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: কেন এলে? পর্ব-১

এত বড় করে লিখেন উদাসীন ভাইয়া পড়তে পারিনা

আফসোস.........

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

Re: কেন এলে? পর্ব-১

অসাধারণ। দারুন-
এক নিশ্বাসে পড়ে ফেল্লাম। এবার দ্বিতীয় পর্ব পড়ি।

হুজুর কইছে, "কোরআন শরীফে আছে- তোমরা নামাজ থেকে বিরত থাক।" আমি তাই নামাজ পড়ি না। হুজুর যদি ইচ্ছা করে "অপবিত্র অবস্থায়" শব্দ দুটো বাদ দেয়, তার জন্য তো আমি দায়ী না।

Re: কেন এলে? পর্ব-১

ধন্যবাদ সবাইকে বড় গল্প ধৈর্য্য নিয়ে পড়ার জন্য।

@রুমন, মেয়েদের কেমনে ট্রাজেডিতে ফেলি? মায়া লাগে যে!  hehe

@নাদিয়া, আমিতো জানতাম আমার কবিতা তেমন কেউ পড়ে না  donttell কবিতা মাঝে মাঝে আমায় আড়ি দেয়; তখন অনেক কষ্টে মান ভাঙ্গাতে হয়। এখন গল্পের ভূতে চেপেছে...পারি না পারি সেটা আলাদা কথা।

@ছবি আপু, এটা একটা কথা বললেন? পড়বেন তো আগে...না পড়েই আকার দেখে ভিরমি খেলে কীভাবে হবে?
@বাংলার মাটি ভাই, ধন্যবাদ পড়ার জন্য।

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১০

Re: কেন এলে? পর্ব-১

ট্র্যাজিক গল্প হইলে নির্ঘাত আপনারে মাইনাচ waiting

১১

Re: কেন এলে? পর্ব-১

অসাধারণ। দারুন-
এক নিশ্বাসে পড়ে ফেল্লাম। এবার দ্বিতীয় পর্ব পড়ি।

কপি-রাইটঃ মাটি tongue

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১২

Re: কেন এলে? পর্ব-১

ভাল লাগল ।

উৎসবে, বিপদে, দুর্ভিক্ষে, সংগ্রামে, বিপ্লবে, আনদ, বেদনায় যে সাথে থাকে, সে-ই বন্ধু।

আমার আমি..

১৩

Re: কেন এলে? পর্ব-১

শেষ না কইরা উডুম না  waiting